কৃষিজগৎ
লিচু পল্লিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন বাগানিরা
তারিখ: 05 - 06 - 2017


মধু মাস জৈষ্ঠের মাঝামাঝি গাছে গাছে লাল টসটসে প্রাকৃতিক রসালো মধু ফল লিচু সংগ্রহে ব্যস্ত সময় পার করছেন দিনাজপুরের লিচু পল্লি খ্যাত মাসুমপুরের বাগানিরা। রসালো লিচু সংগ্রহ ও বাঁশের বাতা দ্বারা তৈরি খাঁচা বোঝাই করতে ব্যস্ত সময় পার করছে মাসিমপুর লিচু পল্লির নারী-পুরুষেরা।
সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দিনাজপুর সদর উপজেলার ৬নং আউলিয়াপুর ইউনিয়নের মাসিমপুর এলাকার এমন চিত্র এখন ঘরে ঘরে। দিনাজপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, প্রাকৃতিক রসগোল্লা হিসেবে পরিচিত লিচু চাষে দিনাজপুর জেলায় নীরব বিপ্লব ঘটেছে। একসময় শুধু দিনাজপুর সদর উপজেলার মাসুমপুর ও এর আশপাশে এক থেকে দেড়শ’ একর জমিতে লিচু চাষ হতো। সেইসঙ্গে বাড়ির আঙিনায় লাগানো হতো দু-একটি লিচু গাছ। এরপর ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে লিচুর চাষ। কৃষি বিভাগের রেকর্ড অনুযায়ী, ২০১২ সালে এক হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে বাণিজ্যিকভাবে লিচু চাষ শুরু হয়। যা পর্যায়ক্রমে বৃদ্ধি পেয়ে চলতি মৌসুমে ৪ হাজার ১৮০ হেক্টরে দাঁড়িয়েছে।
দিনাজপুর জেলার সদর, চিরিরবন্দর, বিরল ও বীরগঞ্জ উপজেলায় উল্লেখযোগ্য হারে লিচু চাষ হয়। এসব এলাকায় বেদানা, বোম্বাই, চায়না থ্রি-ফোর, মাদ্রাজিসহ নানা জাতের লিচুর চাষ হয়।
দিনাজপুর সদর উপজেলার মাসুমপুর এলাকার লিচু চাষি আরাফাত হোসেন জানান, বর্তমানে মাদ্রাজি ও বেদানা জাতের লিচু খাওয়ার উপযোগী হয়েছে। গাছ থেকে লিচু সংগ্রহ করা হচ্ছে। লিচু সংগ্রহের কাজে বাড়ির সকল সদস্যরা একত্রে মিলে কাজ করছি। লাল টসটসে রসে ভরা প্রাকৃতিক রসগোল্লা হিসেবে খ্যাত মাসিমপুরের লিচুর দেশব্যাপী ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। তাই এখন গাছ থেকে সংগ্রহ করে লিচু খাঁচায় বোঝাই করে দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হচ্ছে। আর কদিন পরই মাদ্রাজি ও বেদানা লিচু শেষ হয়ে যাবে। এরপর বোম্বাই ও চায়না জাতের লিচু উঠতে শুরু করবে।
ঢাকার বাদাতলী থেকে আগত মৌসুমী ফল ব্যবসায়ী মতিউর রহমান মতি জানান, গত কয়েক মৌসুমের তুলনায় এবারে লিচুর ব্যবসা ভালো হয়েছে। দিনাজপুরের লিচু ঢাকা, কুমিল্লা, চট্রগ্রাম, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বাণিজ্যিক ভাবে পাঠানো হচ্ছে। সারাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো থাকায় এখান থেকে দেশের যে কোন প্রান্তে লিচু পাঠাতে কোন অসুবিধা হচ্ছে না। চলতি রমজান মাস উপলক্ষে ব্যবসা মন্দা হওয়ার চিন্তা করেছিলাম। কিন্তু এবার অন্যান্য বছরের তুলনায় দিনাজপুরের লিচুর চাহিদা বেড়েছে।
দিনাজপুর শহরের কালিতলাস্থ নিউ মার্কেটের ফল ব্যবসায়ী মো. আতিকউল্লাহ সরকার জানান, গত দুই সপ্তাহ থেকে স্থানীয় বাজারে মৌসুমি ফল লিচু উঠতে শুরু করেছে। বর্তমানে ভালো জাতের মাদ্রাজি প্রতি একশ লিচু আড়াইশ’ থেকে তিনশ টাকায় ও বেদানা লিচু ছয়শ’ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে হালকা করে চায়না-থ্রি বাজারে উঠেছে।
তিনি জানান, জেলার পরিবহন ও কুরিয়ার সার্ভিস গুলোতে লিচু পাঠানোর ভিড় জমে উঠেছে। এ সকল সার্ভিস গুলোতে লিচু পাঠাতে একদিন আগেই বুকিং দিতে হচ্ছে। বুকিং না দিলে সিরিয়াল পাওয়া কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। সব মিলিয়ে জেলায় লিচুর সাথে সংশ্লিষ্ট সবাই ব্যস্ত সময় পার করছে।
দিনাজপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক গোলাম মোস্তফা জানান, চলতি বছরে দিনাজপুর জেলায় চার হাজার ১৮০ হেক্টর জমিতে লিচু চাষ হয়েছে। গাছে মুকুল আসা থেকে শুরু করে লিচু সংগ্রহের আগ পর্যন্ত চাষিদের সার্বক্ষণিক পরামর্শ দিয়েছে কৃষি বিভাগ। এবারে প্রাকৃতিক দুর্যোগ তেমন দেখা না দেওয়ায় মোটামুটি ফলন হয়েছে। তবে যে হারে মুকুল দেখা দিয়েছিল প্রাকৃতিক দুর্যগ না হলে ফলন বাম্পার হতো। তারপরও চলতি মৌসুমের ফলন খারাপ বলা যাবে না।

 

স্বাধীন বাংলা ডট কম
প্রকাশক কর্তৃক ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
ফোন : ০২-৯৫৬২৮৯৯ মোবাইল: ০১৬৭০-২৮৯২৮০
ই-মেইল : swadhinbangla24@gmail.com
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ ( সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় )
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
সম্পাদক ও প্রকাশক মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী
ইউরোপ মহাদেশ বিষয়ক সম্পাদক- প্রফেসর জাকি মোস্তফা (টুটুল)