| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

  
Share Button
   শেয়ারবাজার
পুঁজিবাজারে মূলধন চার লাখ কোটি ছুঁই ছুঁই
  তারিখ: 14 - 08 - 2017

ধীরে ধীরে উন্নতি বা স্থিতিশীলতার পথে এগিয়েছে দেশের শেয়ারবাজার। ১৯৯৬ ও ২০১০ সালে বড় ধাক্কা ঝেড়ে ফেলে আইন-কানুন সংস্কার ও নিয়মনীতির পরিবর্তনে স্থিতিশীলতার পথে বাজার। নতুন নতুন কম্পানি, বিনিয়োগকারী ও বাজারের পরিধি বেড়েছে। বাজার মূলধন এখন প্রায় চার লাখ কোটি টাকা ছুঁই ছুঁই, যা দেশের মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ১৯ শতাংশের বেশি। ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে দেশের জিডিপি ছিল ১৭ লাখ ৩২ হাজার ৮৬৪ কোটি টাকা আর ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে জিডিপি ১৯ লাখ ৫৬ হাজার ৫৬ কোটি টাকা। ২০১৬ সালে জিডিপি ও শেয়ারবাজার মূলধনের অনুপাত ১৯.৭০ শতাংশ।

বাজারসংশ্লিষ্টরা বলছেন, আইন-কানুন সংস্কার ও নিয়মনীতির পরিবর্তনে পুঁজিবাজার অনেকদূর এগিয়েছে। নতুন নতুন বিনিয়োগকারী ঢুকছে বাজারে। তবে আরো এগিয়ে যেত পারত বাজার। কম্পানির তালিকাভুক্তি বা বাজারে সিকিউরিটিজের চাহিদার চেয়ে জোগান অপর্যাপ্ত। ভালো ভালো বা দৃঢ়ভিত্তির কম্পানির সিকিউরিটিজ সরবরাহ জরুরি।

 

সূত্র জানায়, দেশের পুঁজিবাজারের মূলধন প্রায় চার লাখ কোটি টাকার কাছাকাছি। চার লাখ কোটি টাকা পার হলে স্থিতিশীলতার পথে একধাপ এগিয়ে যাবে পুঁজিবাজার। গতকাল রবিবার ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৯৭ হাজার ৯৩০ কোটি ১১ লাখ টাকা। এই মূলধনই পুঁজিবাজারের ইতিহাসে সর্বোচ্চ। আর প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা হলেই চার লাখ কোটি টাকার মাইলফলক অতিক্রম করবে পুঁজিবাজার।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নতুন কম্পানি তালিকাভুক্তি, শেয়ারের দাম বৃদ্ধি ও কম্পানির রাইট ও বোনাস শেয়ার ছাড়ার মাধ্যমে বাজার মূলধন বেড়েছে। আবার কম্পানির লভ্যাংশ ও নতুন বিনিয়োগও বাজার মূলধন বৃদ্ধি করেছে। আবার কেউ কেউ বলছেন, ব্যাংক আমানতে সুদের হার কমে যাওয়ায় অনেকে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করছেন।

কারণ হিসেবে তাঁরা বলছেন, বর্তমানে ব্যাংক আমানতে সুদ হার এক ডিজিটে অর্থাৎ ব্যাংকে আমানতে সুদ হার গড়ে ৪.৮৪ শতাংশ। এর বিপরীতে ঋণের ক্ষেত্রে গড় সুদ ৯.৫৬ শতাংশ। পুঁজিবাজারে ব্যাংকে বিনিয়োগ করলে শেয়ার লেনদেন ছাড়ায় বছর শেষে ১০ শতাংশের বেশি লভ্যাংশ পাওয়া যাবে। বাজারের তালিকাভুক্ত ব্যাংক ‘এ’ ক্যাটাগরিভুক্ত হওয়ায় ১০ শতাংশের বেশি লভ্যাংশ দিতে হয়। অর্থাৎ শেয়ার কেনাবেচা না করলেও কিনে রাখলে বছর শেষে লভ্যাংশ আসবে। আমানতের সুবিধা হচ্ছে বছর শেষে ব্যাংকের ক্ষতি হলেও নির্দিষ্ট হারে সুদ পাওয়া যাবে। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কম্পানির শেয়ার কিনলে বেশি লাভ হলে শেয়ারের বিপরীতে বেশি লভ্যাংশ আসবে আর ক্ষতি হলে লভ্যাংশ পাওয়া যাবে না।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্র জানায়, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে দেশের শিল্পায়নে উদ্যোক্তারা প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিওর মাধ্যমে ৩৯০ কোটি টাকা মূলধন সংগ্রহ করেছে। চার কম্পানি রাইট শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে এক হাজার ৪১ কোটি টাকা মূলধন বাড়িয়েছে। যার মধ্যে দুই কম্পানি প্রিমিয়াম বাবদ ১৮৩ কোটি টাকা। ১১৭ কম্পানি ১৮৮ কোটি বোনাস শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে এক হাজার ৮৯৮ কোটি টাকা মূলধন বৃদ্ধি করেছে। আর এই সময়ে বৈদেশিক লেনদেন ৪০২ শতাংশ বেড়েছে। ক্রমাগতভাবেই বৈদেশিক লেনদেন বাড়ছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক রকিবুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নানামুখী উদ্যোগে বাজার ঊর্ধ্বমুখী হয়েছে। এতে তলানিতে পড়ে থাকা শেয়ারের দাম বেড়েছে। রাইট ও বোনাস শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমেও মূলধন বেড়েছে। বাজারকে গতিশীল করতে মৌলভিত্তির কম্পানির তালিকাভুক্তি প্রয়োজন। ’

বাজার বিশ্লেষক আবু আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বাজার গতিশীল হয়েছে ঠিকই। বাজারে ভালো সিকিউরিটিজের সরবরাহ কম। বহুজাতিক বা সরকারি কম্পানিগুলো বাজারে তালিকাভুক্ত করতে হবে। এই বাজার আরো এগিয়ে যেতে পারত; কিন্তু সেভাবে এগোয়নি। বাজারের গতিশীলতা ধরে রাখতে ভালো ভালো কম্পানি আনতে হবে। ’





         
   আপনার মতামত দিন
     শেয়ারবাজার
পুঁজিবাজারে মূলধন চার লাখ কোটি ছুঁই ছুঁই
.............................................................................................
সূচক ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজারে
.............................................................................................
দুই পুঁজিবাজারে বাড়ছে সূচক ও লেনদেন
.............................................................................................
অক্টোবরে ডিএসই’র রাজস্ব বেড়েছে পৌনে পাঁচ কোটি টাকা
.............................................................................................
লেনদেন ৫শ’ কোটি ছাড়ালো ডিএসইতে
.............................................................................................
ঈদে ডিএসই ৯ দিন বন্ধ
.............................................................................................
আড়াই বছরেও কৌশলগত বিনিয়োগকারী খুঁজে পায়নি স্টক এক্সচেঞ্জ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
উপদেষ্টা: আজাদ কবির
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ হারুনুর রশীদ
সম্পাদক মন্ডলীর সহ-সভাপতি: মামুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
যুগ্ম সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বার্তা সম্পাদক: মুজিবুর রহমান ডালিম
স্পেশাল করাসপনডেন্ট : মো: শরিফুল ইসলাম রানা
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]