১২ শাওয়াল ১৪৪১ , ঢাকা, শুক্রবার, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৫ জুন , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

  
Share Button
   উপসম্পাদকীয়
রোহিঙ্গা তরুণের চিঠি এবং আমাদের করণীয়
  তারিখ: 15 - 09 - 2017

আন্তর্জাতিক কালো সময় অতিবাহিত করছি আমরা। এই সময়ে আমাদের মত অবিরত পরিশ্রম- মেধা আর আন্তরিকতা দিয়ে এগিয়ে চলা বাংলাদেশের মাটিতে তৈরি সংকট কাটিয়ে উঠতে চলছে বিভিন্ন চেষ্টা-প্রচেষ্টা। আমাদের রাজনৈতিক কালো সময়ও চলছে এখন। লোক নেই, জন নেই, মেধা নেই, শ্রম নেই একটা দলের প্রধান হয়ে যাচ্ছে টোকাই থেকে শুরু করে সিনেমা হলের ব্লাকার পর্যন্ত। সেই সময়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া মিয়ানমারের নিপীড়িত রোহিঙ্গাদের জন্য আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা দিয়েছে বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা। তবে চাহিদার তুলনায় এর পরিমাণ খুবই কম। সব দেশের ত্রাণ এখনও এসে পৌঁছায়নি। এর মধ্যে মালয়েশিয়ার ত্রাণ বাংলাদেশে পৌঁছেছে। ভারতের ত্রাণবাহী বিমানও এসেছে। সর্বস্ব হারানো রোহিঙ্গাদের প্রতি সহায়তার হাত বাড়িয়েছে ইন্দোনেশিয়া, তুরস্ক, ডেনমার্ক, অস্ট্রেলিয়া, নেদারল্যান্ডস, আজারবাইজান, কুয়েত, দুবাইসহ বিভিন্ন দেশ। বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের থাকার জন্য জমি, খাদ্য, চিকিৎসাসহ সার্বিক সহায়তা দিচ্ছে। সাহায্য নিয়ে এগিয়ে এসেছে আন্তর্জাতিক দাতব্য সংস্থা অক্সফাম, রেডক্রস, ইউনাইটেড নেশন ফর গ্রীণ পলিসি-ইউএনজিপি, ডব্লিউএফপি, ইউএনএইচসিআর, সেভ দ্য রোড, আইওএম, ইউএনএফপিএসহ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থা। এ ছাড়া স্থানীয় জনগণ রোহিঙ্গাদের জন্য খাদ্য ও চিকিৎসা সহায়তা দিচ্ছেন। নিজের দু’দিনের আয়ের পুরোটাই দান করেছেন এক তুর্কি হকার। বাংলাদেশে স্বাধীনতার চেতনা নিয়ে এগিয়ে চলা নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক দল-রাজনৈতিকধারা নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির নেতাকর্মীরাও রেখেছেন নিজস্ব অবস্থান থেকে সর্বোচ্চ আন্তরিকতার স্বাক্ষর। ঠিক যেভাবে বন্যাক্রান্তদের পাশে সাহায্য নিয়ে চলে গিয়েছিলো ঈদের আনন্দকে প্যাকেটে পুরো; ঠিক সেভাবেই রোহিঙ্গাদের পাশে সর্বাত্মক ভালোবাসাসহ দাঁড়িয়েছে তারা। এরপরও বিভিন্ন দেশ থেকে বিচ্ছিন্নভাবে অর্থের প্রতিশ্রুতি মিললেও সমন্বিত উদ্যোগের অভাব রয়েছে। মুসলিম রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহায়তা অপ্রতুল বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআরের সহকারী হাইকমিশনার জজ ও’কাথ। মিয়ানমার থেকে আসা প্রায় চার লাখের বেশি রোহিঙ্গার জন্য আশ্রয়, খাদ্য ও ত্রাণ সহায়তার ব্যবস্থা করতে এ মুহূর্তেই বিপুল অঙ্কের অর্থের প্রয়োজন। গত শনিবার ত্রাণ সংস্থাগুলোর বৈঠক শেষে জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর কর্মকর্তা ভিভিয়ান ট্যান বলেন, ত্রাণের জন্য এখনই তাদের অন্তত ৭ কোটি ৭০ লাখ ডলার প্রয়োজন। ইউএনএইচসিআরসহ বাংলাদেশের সব ত্রাণ সংস্থার প্রতিনিধিরা শনিবার পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্য এক বৈঠক করেন। অন্যদিকে বিশ্বের ১৯০টি দেশে রেডক্রস ও রেড ক্রিসেন্টের প্রতি সাহায্যের আবেদন জানিয়েছে বাংলাদেশের রেড ক্রিসেন্ট। এর মাধ্যমে তারা এক কোটি ২০ লাখ ডলার সংগ্রহের উদ্যোগ নিয়েছেন। মালয়েশিয়া রোহিঙ্গাদের জন্য চাল, ডাল, তেল ও চিনিসহ ১২ টন পণ্যসামগ্রী পাঠিয়েছে। ত্রাণ নিয়ে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেছে মালয়েশিয়ান বিমান। রোহিঙ্গাদের ত্রাণ সহায়তা কার্যক্রমে ২৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ডেনমার্ক সরকার। জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লিউএফপি) ও জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) মাধ্যমে এ ত্রাণ সহায়তা দেয়া হবে। এ ছাড়া রাখাইনে আন্তর্জাতিক যেসব সংস্থা ত্রাণ কার্যক্রম চালাবে ডেনমার্ক তাদের সহায়তা করবে। বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা মুসলিমদের সহায়তার জন্য ৫০ লাখ মার্কিন ডলার ত্রাণ সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। রাখাইনে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষকে সংযত ও বেসামরিক জীবন রক্ষার আহ্বান জানিয়েছে দেশটি। ১৫ লাখ ডলার জরুরি সহায়তা প্রদান করবে কুয়েত। দেশটির ইসলামী বিষয়ক মন্ত্রী এবং পৌরসভা বিষয়ক মন্ত্রী মোহাম্মদ আল জাবরি এ ঘোষণা দেন। মিয়ানমারের মুসলমান ভাইদের প্রতি অনুদান প্রদানের জন্য নাগরিক ও বাসিন্দাদের প্রতি আহ্বান জানান জাবরি। আজারবাইজান সরকার রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ১০০ টন ত্রাণ পাঠিয়েছে। দেশটির পররাষ্ট্র ও জরুরি ত্রাণ সহায়তাবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এক যৌথ বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়েছে। রোহিঙ্গাদের জন্য জরুরি ত্রাণ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে নেদারল্যান্ডস সরকার। আমস্টারডামে সাবেক জাতিসংঘ মহাসচিব কফি আনানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এ প্রতিশ্রুতির কথা জানান নেদারল্যান্ডসের উন্নয়ন সহায়তা ও বৈদেশিক বাণিজ্যবিষয়ক মন্ত্রী লিলিয়ান প্লউমেন। রোহিঙ্গাদের জন্য ফান্ড তুলতে তুরস্কের হিউম্যানিটারিয়ান রিলিফ ফাউন্ডেশন (আইএইচএইচ) অনুদান ক্যাম্প গঠন করেছে। রোহিঙ্গাদের জন্য জরুরি মানবিক সহায়তার প্রয়োজন অনুভব করে এগিয়ে এসেছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক দাতব্য সংস্থা অক্সফাম। সংস্থাটি রোহিঙ্গাদের জন্য বিশুদ্ধ খাবার পানি, বহনযোগ্য শৌচাগার, স্বাস্থ্যসেবা সুবিধা, প্লাস্টিকের বিছানা এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী দেবে। রোহিঙ্গাদের সহায়তায় দু’দিনের আয় দান করেছেন তুরস্কের এক হকার। তার এ দানের পরিমাণ ১৪৭ পাউন্ড (৪৩ ডলার), যা খুবই সামান্য কিন্তু অনুপ্রেরণাদায়ক। ৪০ বছর বয়সী আরকান আইহান পেশায় একজন রুটি বিক্রেতা। এভাবেই এগিয়ে যেতে হবে বিশ্ব মানবতার রাস্তা ধরে। যাতে করে ‘মানুষ মানুষের জন্য’ কথাটি চিরন্তন সত্য হিসেবে বয়ে চলে লোভ-মোহহীন নিরন্তর সম্ভাবনার রাস্তা ধরে। আজ যখন এক রোহিঙ্গার মর্মস্পর্শী চিঠি এসে বলছে ‘আমরা নিশ্চিহ্ন হয়ে যাচ্ছি।’ যখন রাখাইনে জাতিগত নির্মূল চলছে; যখন নিদারুন কষ্টে থেকেও মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা জীবনের মর্মস্পর্শী চিত্র তুলে ধরেছেন স্থানীয় এক তরুণ। তখন মানবাধিকার বাংলাদেশ-এর প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে বরাবরের মত কলম তুলে নিয়েছি। কেননা, আমি জানি এই দেশে শেখ সেলিম-এর জামাতা আন্তালিব রহমান পার্থরা মানুষের মন ভোলানো কথা শুধু সংসদেই দিতে পারে; রাজপথেও নামতে পারে না; নিজস্ব অরাম-আয়েশ ত্যাগ করে জনগনের পাশে- দেশের পাশে-বিশ্ব মানবতার পাশেও দাড়াতে পারে না। কেবল পারে রাজনীতির নামে অপরাজনীতিকে উসকে দিতে। যা কখনোই নতুনধারার রাজনীতির প্রবর্তক হিসেবে আমার পক্ষে সম্ভব হবে না। আর তাই যখন পড়েছি- ‘আমরা নিশ্চিহ্ন হয়ে যাচ্ছি।’ একটি বর্বর রাষ্ট্রের ভিকটিম আমরা। রাখাইনে রোহিঙ্গাদের অবস্থা হল- ‘খাঁচার ভেতরে ক্ষুধার্ত বিড়ালের সামনে একটি অসহায় ইঁদুর’। ‘আমার সারা জীবন, মানে জীবনের ২৪টা বছরই আমি এই উন্মুক্ত কারাগারে বাস করেছি। আপনারা যাকে বলছেন রাখাইন। আমার বাবা-মায়ের মতো আমিও মিয়ানমারে জন্মগ্রহণ করেছি। তবে আমার জন্মের আগেই আমার নাগরিকত্ব কেড়ে নেয়া হয়েছে। আমরা নিশ্চিহ্ন হয়ে যাচ্ছি। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় যদি বিশ্বের সবচেয়ে নিপীড়িত এই জনগোষ্ঠীর পাশে না দাঁড়ায় তবে আমরা শেষ হয়ে যাব। সে ক্ষেত্রে আপনারাও হবেন এই অপরাধের একটি অংশ।

জাতীয়তার কারণে আমার চলাফেরা, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবার অধিকার এবং ক্যারিয়ার (চাকরি) কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রিত। আমি সরকারি চাকরিতে নিষিদ্ধ, উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ নেই আমার, রাজধানী ইয়াঙ্গুনে যেতে পারি না আমি। এমনকি উত্তর রাখাইন রাজ্য ছেড়ে যাওয়ার ওপরও নিষেধাজ্ঞা আছে। বৈষম্যের চরম রূপ আরোপ করা হয়েছে আমার ওপর, কারণ আমি একজন রোহিঙ্গা, রোহিঙ্গা মুসলিম। বছরের পর বছর ধরে আমাদের মৌলিক অধিকারগুলো অস্বীকার করা হয়েছে। হত্যা করা হয়েছে নিত্যদিন। খোলা জমিনে আমাদের খুন করা হচ্ছে, জোরপূর্বক ও পরিকল্পিতভাবে আমাদের গৃহহীন বানানো হচ্ছে। আমাদের চোখের সামনেই আমাদের ঘরবাড়িগুলো জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে। একটি বর্বর রাষ্ট্রের ভিকটিম আমরা। আমাদের অবস্থা ভালোভাবে উপলব্ধির জন্য একটি উদাহরণ দেয়া যেতে পারে- কল্পনা করে দেখুন তো, একটি খাঁচার ভেতরে ক্ষুধার্ত বিড়ালের সামনে একটি ইঁদুরের কী অবস্থা হয়। রোহিঙ্গাদের অবস্থা সেরকম। আমাদের বেঁচে থাকার একমাত্র উপায় হল পালিয়ে যাওয়া অথবা কেউ আমাদের উদ্ধার করবে সেই আশায় থাকা। রাখাইনে আমরা এখনও যারা অবস্থান করছি অন্য সম্প্রদায় থেকে আমাদের বিচ্ছিন্ন করার জন্য পরিকল্পিত প্রচারণা চালানো হচ্ছে। আমাদের বলা হয় ‘কালার’ বা কাইল্লা (নিগ্রো)। আমাদের বর্ণের কারণে বৌদ্ধরা আমাদের এভাবেই অপমান করে। শিশু কিংবা বৃদ্ধ কেউই এ অপমান থেকে রক্ষা পায় না। আমরা স্কুলে ও হাসপাতালে বৈষম্যের শিকার। যে কোনো মূল্যে আমাদের বর্জন করার পক্ষে প্রচার চালায় বৌদ্ধরা। বৌদ্ধরা বলে, ‘শুধু বৌদ্ধদের পণ্য কিনুন। একজন বৌদ্ধ একটি পয়সা পেলেও তারা একটি প্যাগোডা তৈরিতে সহায়তা করবে। কিন্তু আপনি যদি একজন মুসলিমকে একটি পয়সা দেন সে তৈরি করবে মসজিদ।’ এ ধরনের মন্তব্য সাধারণ হয়ে গেছে এবং এসব উগ্র বৌদ্ধ আমাদের ওপর হামলায় মদদ দেয়। অর্ধশতাব্দীর সামরিক আধিপত্য শেষে ২০১৫ সালের সংসদ নির্বাচনে যখন নোবেল শান্তি পুরস্কারজয়ী অং সান সুচি জয়ী হন তখন আমরা আশায় বুক বেঁধেছিলাম যে, এবার আমাদের ভাগ্য বদলে যাবে। আমরা মনে করেছিলাম গণতন্ত্রের বাতিঘরখ্যাত এই নারী আমাদের ওপর নির্যাতন ও নিপীড়নের অবসান ঘটাবেন। কিন্তু শিগগির আমরা স্পষ্ট বুঝতে পারলাম, তিনি তো আমাদের কণ্ঠস্বর হবেনই না, বরং আমাদের দুর্দশা উপেক্ষা করবেন। তার নীরবতা বলছে, তিনি এই সহিংসতার সহযোগী। শেষ পর্যন্ত তিনি ব্যর্থ হয়েছেন, আমাদের শেষ আশা বিফলে গেছে। বারবার রোহিঙ্গাদের ওপর নিপীড়নের কারণে গঠন করা হয় আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি বা আরসা। ক্ষুদ্র দলটি লড়াইয়ের শপথ নেয়। কিন্তু তাদের সম্বল শুধু লাঠি আর ইটের টুকরো। তারা জানে, মিয়ানমারের অস্ত্র সজ্জিত বাহিনীর সঙ্গে তারা লড়াই করতে সক্ষম হবে না, কিন্তু তারা হাল ছেড়ে দেয়নি। আজও আমাদের মা-বোনরা ধানক্ষেতে সন্তান জন্ম দেন। পালিয়ে যাওয়ার সময় শিশুদের গুলি করা হয় আর নারীদের লাশ ভাসে নদীতে।’
এই চিঠিটি আমাকে ক্রমশ সাহস-শক্তি যুগিয়েছে সত্য বলার-সত্য লেখার। এরই মধ্যে ড. মুহম্মদ ইউনূস চিঠি লিখেছেন, চিঠি লিখেছি আমিও জাতি সংঘের দপ্তরে। এ ব্যাপারে আশু পদক্ষেপ চেয়েছি। আমি মনে করি রাজনীতি সচেতন নতুন প্রজন্মের প্রতিটি প্রতিনিধির প্রয়োজন নির্মমতার রাস্তা থেকে কোন না কোন উপায়ে আশ্রিত রোহিঙ্গাদেরকে মুক্তি দেয়ার লক্ষে কাজ করা। তা না হলে ৫৬ হাজার বর্গমাইলের বাংলাদেশ ক্ষতিগ্রস্থ হবে, বিশ্বমানবতা ক্ষতিগ্রস্থ হবে। যা আমাদের কারোই কাম্য নয়। প্রতুল বা অপ্রতুল খাদ্য নিয়ে ভাবছি না; ভাবছি এই সমস্যা সমাধান নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার কথা। আসুন নিরন্তর এগিয়ে যাই দেশ-মানুষ-মানচিত্র-মাটি আর মানবতার রাস্তায় অবারিত ভালোবাসা...

 





         
   আপনার মতামত দিন
     উপসম্পাদকীয়
জনস্বাস্থ্য, অর্থনীতি ও পরিবেশের ক্ষতির কারণে তামাক টেকসই উন্নয়নের অন্তরায়
.............................................................................................
কৃষির পাশাপাশি শিল্প উন্নয়ন এবং কৃষক ফেডারেশনকথা
.............................................................................................
কৃষির পাশাপাশি শিল্প উন্নয়ন এবং কৃষক ফেডারেশনকথা
.............................................................................................
ঈদ এবং মাদক... ওরা বানায় : আমরা সেবন করি
.............................................................................................
নুসরাত কেন চলে যাবে...
.............................................................................................
এই দেশের সড়কে কে নিরাপদ?
.............................................................................................
রাজনীতির হঠাৎ হাওয়ার চমক
.............................................................................................
রাজনীতিতে ব্যবসায়ীদের অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে
.............................................................................................
ওজোনস্তরের নতুন দুঃসংবাদ
.............................................................................................
বিজ্ঞান গবেষণা ও বাংলাদেশ
.............................................................................................
বিশ্ব আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচার চাই
.............................................................................................
চীনা ‘ইউয়ান’, ভারতীয় ‘রুপী’, তুর্কী ‘লিরা’ সবার দাম কমছে
.............................................................................................
এখনো নিয়মিত মৃত্যু সড়কে কে দায় নেবে
.............................................................................................
মাঠের লড়াইয়ে লক্ষ্য হোক জয়
.............................................................................................
একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের আশায়
.............................................................................................
আর কত রক্ত ঝড়বে জাতির বিবেকের?
.............................................................................................
হুমকিতে নয়, আলোচনায়ই সমাধান
.............................................................................................
বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসব বাংলা নববর্ষ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস, পরীক্ষা বাতিল এবং অবিচার...
.............................................................................................
ভাষাশ্রদ্ধায় আসুন উচ্চারণ করি ‘বিজয় বাংলাদেশ’
.............................................................................................
চার বছরের উন্নয়ন অগ্রগতি ধারাবাহিকতা রক্ষা করাই বড় চ্যালেঞ্জ
.............................................................................................
শিক্ষা ধ্বংসে বইয়ের বোঝা-সৃজনশীল এবং ফাঁসতন্ত্র
.............................................................................................
প্রশ্নফাঁস আর কোচিংবাণিজ্যে শিক্ষার অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁসের দায় কে নেবে?
.............................................................................................
মায়ের ভাষার অবহেলা কেন করছি আমরা?
.............................................................................................
সবাই জেগে উঠুক ভেজালের বিরুদ্ধে
.............................................................................................
নির্বাচন কমিশনের কর্মক্ষমতা ও ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস ও শিক্ষার দৈন্যদশা রোধ সম্ভব
.............................................................................................
মশা আর মাছি ধুলার সঙ্গে বেশ আছি!
.............................................................................................
বাংলাদেশ ব্যাংকের তদারকি ও নিয়ন্ত্রণক্ষমতা বাড়াতে হবে
.............................................................................................
প্যারাডাইস পেপার্স : সারাবিশ্বে সমস্যা ও সমাধান
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর অগ্নিগর্ভ ভাষণ : ইউনেস্কোর স্বীকৃতি
.............................................................................................
রোহিঙ্গাদের ত্রাণ ও পূনর্বাসনে দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী
.............................................................................................
নিরাপদ পথ দিবস চাই
.............................................................................................
রোহিঙ্গা গণযুদ্ধের সূচনা হোক, স্বাধীন হোক আরকান
.............................................................................................
দর্শনহীন শিক্ষার ফল ব্লু হোয়েল সংস্কৃতি
.............................................................................................
সাবধানে চালাবো গাড়ী, নিরাপদে ফিরবো বাড়ী
.............................................................................................
বন্ধুদেশের ঋণের বোঝা এবং নতুন প্রজন্মের ভাবনা
.............................................................................................
চালে চালবাজী : সংশ্লিষ্টদের চৈতন্যোদয় হোক
.............................................................................................
৫ প্রস্তাবে বাংলাদেশে সংকট : দুর্ভিক্ষ আসন্ন
.............................................................................................
ভুখা মানুষের স্বার্থে সরকারকে কঠোর হতে হবে
.............................................................................................
রোহিঙ্গা তরুণের চিঠি এবং আমাদের করণীয়
.............................................................................................
ষোড়শ সংশোধনী বাতিল প্রসঙ্গে অনেকের অভিমত
.............................................................................................
তরুন প্রজন্মের সৈনিকেরা জেগে উঠলে কোন অপশক্তিই বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও উন্নয়নের পথ রুদ্ধ করতে পারবে না
.............................................................................................
আদর্শ সংবাদ ও সাংবাদিকতা
.............................................................................................
নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় সাহসী হতে হবে
.............................................................................................
পাবনা বইমেলা সাহিত্যকে সম্মৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে
.............................................................................................
আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো...
.............................................................................................
ক্ষণজন্মা কিংবদন্তী মাদার বখশ
.............................................................................................
গ্রামীণ মানুষের সম্পদ বাড়ছে না, ঋণ বাড়ছে
.............................................................................................
Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale
Digital Load Cell
Digital Indicator
Digital Score Board
Junction Box | Chequer Plate | Girder
Digital Scale | Digital Floor Scale

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD