১২ শাওয়াল ১৪৪১ , ঢাকা, শুক্রবার, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৫ জুন , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

  
Share Button
   উপসম্পাদকীয়
দর্শনহীন শিক্ষার ফল ব্লু হোয়েল সংস্কৃতি
  তারিখ: 13 - 10 - 2017

গোটা দুনিয়ায় বিজ্ঞাপন বাজারের দৈনিক বিনিয়োগ কত? লেনদেন কত? মুনাফাই বা কত? হতে পারে এই অঙ্ক কয়েক হাজার বিলিয়ন ডলার। হতে পারে কয়েক লাখ বিলিয়ন ডলার বা আরো বেশি।
গুগলের কাছে জানতে চাইলে সঠিক অঙ্ক জানা যায় বটে। কিন্তু কি দরকার গন্ধমাদনের মতো অঙ্কের এই বোঝা মাথায় বয়ে বেড়ানোর। আমাদের জন্য শুধু এই তথ্যটুকু জানা জরুরি যে বিজ্ঞাপনদুনিয়া প্রতিদিন ভোক্তাসাধারণের ভোগস্পৃহাকে শান দেওয়ার জন্য সম্ভাব্য সব রকম কসরত করে যাচ্ছে। এক্স ব্র্যান্ডের জুতা ব্যবহার না করলে পা দু’খানার আর কি এমন মূল্য অথবা ওয়াই ব্র্যান্ডের পারফিউমে চারপাশ মাতিয়ে-তাতিয়ে না তুললে শরীরটাই যে আবর্জনার ভাগাড় অথবা জি ব্র্যান্ডের সানগ্লাস চোখে না তুললে চারপাশে দেখা সব দৃশ্যই ঊষর ধূসর মরুভূমিÑএই মন্ত্র প্রতিদিন বিজ্ঞাপন বাজার শুনিয়ে যাচ্ছে। বিজ্ঞাপনের এই মোহমায়াময় পে অফ লাইনের খপ্পরে পড়িনি এ কথা নিশ্চত করে আমরা কেউ বলতে পারি না। তবে বলতে পারলে মন্দ হতো না। প্রতিদিনের টানাপড়েনের জীবনে হাজারটা পণ্য ক্রেতাদের ক্রয়তালিকায় প্রবেশ করিয়ে দিচ্ছে এই সম্মোহনী পে অফ লাইন। এ তালিকার কয়টি প্রয়োজনীয় আর কয়টি অপ্রয়োজনীয়, একটু স্থির মন নিয়ে তা যাচাই-বাছাই করলে দেখা যেত বেশির ভাগ পণ্যই অপ্রয়োজনীয়। এই যে হাজারটা অপ্রয়োজনীয় পণ্য জীবনে ঢুকে গেল এবং জীবনকে আরো নিষ্ফল প্রতিযোগিতার দিকে ঠেলে দিল এ-ও একরকম ব্লু হোয়েলের চোরাবালি। অপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনার জন্য মধ্যবিত্ত হাঁসফাঁস করবে, কিনতে না পেরে আক্ষেপ-আফসোস করবে, জীবনটাকে বৃথা ভাববে, ক্রেতাদের মনে এই অনুভব ঢুকিয়ে দেওয়াই বিজ্ঞাপন বাজারের প্রধান দর্শন। প্রতারক পে অফ লাইন প্রতিদিন অপ্রয়োজনীয়কে প্রয়োজনীয় বানাচ্ছে। আমাদের অজান্তে আমাদের অলক্ষে আমাদের কষ্টার্জিত ব্যক্তিগত পুঁজি চলে যাচ্ছে হাতে গোনা কয়েকটি ব্র্যান্ডিং বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের ঘরে। এই অর্থে বিশ্বের নামিদামি বহুজাতিক ব্র্যান্ডিং প্রতিষ্ঠানগুলোকে ফ্যাসিস্ট বললে ভুল বলা হয় না। স্বল্পোন্নত বা দরিদ্র কোনো দেশের বেডরুমের ড্রেসিং টেবিলে কোন ব্র্যান্ডের ক্রিম থাকবে বা কোন কম্পানির হেয়ার জেল থাকবে, তা যখন অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র বা যুক্তরাজ্যের কোনো প্রতিষ্ঠান নিয়ন্ত্রণ করে তখন একে ফ্যাসিজম বলাটা নিশ্চয়ই খুব অতিরঞ্জন নয়। বহুজাতিক ব্র্যান্ডিং প্রতিষ্ঠান শুধু যে আমাদের পোশাক, জুতা, কসমেটিকস বা এক্সেসরিজই নিয়ন্ত্রণ করছে তা নয়, তারা নিয়ন্ত্রণ করছে আমাদের চর্ব্য-চোষ্য-লেহ্য-পেয়কেও। পানির কাজ শরীরের তরল জলীয় অংশ পূরণ করা। এখন এই পানীয় পাঁচ হাজার ফুট উঁচু ঝরনা থেকে সংগ্রহ করলে তা কতখানি মিনারেলসমৃদ্ধ, কতখানি জীবাণুমুক্তÑএই মায়াজাল ছড়িয়ে এক বোতল পানির মূল্য নির্ধারণ হয়েছে ৬৫ লাখ টাকা। বেভারলি হিলস কম্পানির নির্ধারিত এই মূল্যও এখন সংগত মনে হচ্ছে আমাদের। বিজ্ঞাপনের এমনই মোহমায়া! পেয় গেল, চর্ব্য প্রসঙ্গে আসি। বারবিকিউ বা ঝলসানো খাবারের জনপ্রিয়তার কথা কারো অজানা নয়। কেন এই জনপ্রিয়তা? সিদ্ধ খাবারের চেয়ে ঝলসানো খাবারে অপচয় হয় বেশি। বারবিকিউ জাতীয় খাবারে যত অংশ অপচয় হয় অন্য কোনো প্রক্রিয়ায় রান্না খাবারে অতটা অপচয় হয় না। নৃতাত্ত্বিক ক্লদ লেভি স্ট্রস দেখিয়েছেন, এই অপচয়টুকুই বারবিকিউ খাবারের জনপ্রিয়তার মূল কারণ। অসন-বসন-ভূষণ শুধু দ্রব্যগুণে প্রিয় হয়ে ওঠে তা নয়, প্রিয় হয়ে ওঠার গোপন রহস্য অভিজাত অনুভূতি জেগে ওঠার অনুভবে। যে সংস্কৃতি অপচয়প্রবণ, সেই সংস্কৃতিকে ধারণ করার মধ্যে তথাকথিত অভিজাত শ্রেণি হয়ে ওঠার মানসিকতা কাজ করে। খাবারকে ঝলসে শুরুতেই অর্ধেক খাবার অপচয় করার মধ্যে এবং এই অপচয় প্রবণতার ভোগবাদিতার আনন্দ। যে ইউরোপ-আমেরিকা দাঁড়িয়ে আছে এশিয়া-আফ্রিকা আর লাতিন আমেরিকার শোষিত সম্পদের ওপর তাদের রেসিপি পণ্য কেনার জন্য প্রাক্তন কলোনিয়ালদের কাঙালের মতো হামলে পড়া নিশ্চয়ই উপভোগ্য বহুজাতিক করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য। তাদের খাবার খাওয়ার জন্য কলোনিয়ালদের হামলে পড়ার এই প্রবণতা দেখে নিশ্চয়ই তাদের উপনিবেশকালীন সুখ অনুভব হয়। তাদের সৃষ্ট দুর্ভিক্ষের সময় যেভাবে আমরা খাবারের জন্য হামলে পড়তাম, এখন সুভিক্ষের সময়ও তেমনভাবে হামলে পড়ছি। দেশের বহুল প্রচারিত একটি সংবাদমাধ্যমের কাছে দেশের প্রথম সারির একজন সেলিব্রিটি বলেছেন, তাঁর সাড়ে ৩০০ জোড়া জুতা আছে। নতুন আরেক জোড়া কিনে এনে জুতার আলমারি খুলে দেখেন হুবহু ওরকম আরেক জোড়া জুতা আলমারিতে সংরক্ষিত আছে। এসব খুব খারাপ দৃষ্টান্ত। এ জাতীয় স্টেটমেন্ট সংযমের দর্শনকে বিদ্রƒপ করে এবং ওই সেলিব্রিটির অনুসারীদের অন্যায় ভোগবাদিতাকে উৎসাহিত করে। আরো মুশকিল, সেলিব্রিটিদের এই দিঘল চাহিদা কোথায় থামবে তা তাদের নিজেদেরও অজানা। অসনে-বসনে-ভূষণে-যতনে বিশেষ বিশেষ আবেশ তৈরি করেও তারা অতৃপ্ত। চাহিদা যেমন অনন্ত, অসন্তোষও তেমনি অসীম। এই যে অসীম চাহিদা ও অনন্ত অসন্তোষের সংস্কৃতি, এটা তৈরি হলো কিভাবে, ভুলটা কোথায়?
প্রথম ও প্রধান ভুল শিক্ষাব্যবস্থায়। প্রাচ্যের শিক্ষাগুরুরা জানিয়ে গেছেন, বাইরের সাজসজ্জায় মানুষ বড় হয় না, বড় হয় ভেতরের শিক্ষায়। শিক্ষা যখন ব্রত ছিল তখন কঠিন নিয়মে নিজেকে সংযত রাখতে হতো শিক্ষার্থীদের। রাজার সন্তানকেও শিক্ষার জন্য গুরুর সঙ্গে তপোবনে গিয়ে থাকতে হতো। গুরুর জন্য কাঠ কাটা, জল তুলে আনা, গ্রাম গ্রামান্তর থেকে গুরুর জন্য ভিক্ষা করে আনা, কঠিন বিছানায় শোয়া, খালি পায়ে থাকা, দুষ্প্রবৃত্তি দমনে ২৪ ঘণ্টা নিজের সঙ্গে যুদ্ধ করাÑএসবই প্রাচীন ভারতের শিক্ষা। এসব আজ হাসির খোরাক ছাড়া কিছু নয়, আষাঢ়ে গল্পও মনে হতে পারে। কিন্তু আজকের শিক্ষার দর্শন নিয়েও গরিমা প্রকাশের এমন কিছু নেই। যে শিক্ষা নিজের ভোগমত্ততা ছাড়া অন্যের কাজে আসে না, শিক্ষার্থীকে নির্লোভ রাখে না, পীড়িত দুর্বল অক্ষমকে সাহায্য করতে শেখায় না সেই শিক্ষার শেষ পরিণতি যে কী সে তো চারপাশে তাকালেই দেখতে পাই। নীরব চিন্তা সর্বাপেক্ষা গভীর চিন্তা, নীরব বেদনা সর্বাপেক্ষা তীব্র বেদনা এবং নীরব অনুভব সর্বাপেক্ষা শ্রেষ্ঠ অনুভবÑপ্রাচ্যের এই দর্শনকে উপেক্ষা করে মোবাইল কম্পানিগুলো দিন-রাত কথা বলে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছে। ইন্টারনেটে আসক্ত শিশু-কিশোরদের বড় একটি অংশের দশা হয়েছে পরশ পাথরের খেপার মতো। নদীর ¯্রােতের ওপর মেঘের ছায়া, জলের ওপর জলবিন্দুর নৃত্য, চারপাশের সপ্রাণ তৃণলতা বৃক্ষ, কোনো কিছুর দিকে তাকানোর সময় এদের নেই। আকাশ থেকে বর্ষা তার আঁচল সরিয়ে নিলে শরতের আকাশ যে কি প্রসন্ন লাবণ্যময় চেহারা নিয়ে হাজির হয়, সে দৃশ্যও এদের মনোযোগ টানতে পারে না। প্রযুক্তির প্রবেশদ্বার দিয়ে বিশ্বায়নের সংস্কৃতির সঙ্গে তাদের সংযোগ ঘটেছে, কিন্তু বন্ধ হয়েছে মানুষ এবং চারপাশের প্রকৃতির সঙ্গে সংযোগের দুয়ার। যে শিশু শুধু পায় তার জীবন হয়ে যায় বদ্ধ গুহা। পরিণতি ব্লু হোয়েল আসক্তি। ঠিক যে কোন কোন শিক্ষার্থী তার বিদ্যা-বুদ্ধির আলোয় চারপাশ ধাঁধিয়ে দিচ্ছে, কিন্তু লক্ষ করতে হবে এদের সংখ্যা কত? বেশিসংখ্যক শিক্ষার্থীর জীবনের লক্ষ ও দর্শন কী? ব্লু হোয়েলে আসক্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা আশঙ্কাজনক বেড়ে যাওয়াও নিশ্চয়ই কাজের কথা নয়। নীতির সঙ্গে প্রযুক্তি এবং পুঁজির সঙ্গে নৈতিকতার গোলমাল বাধিয়ে প্রসন্নতার বদলে জীবনে আমরা উপদ্রব আমদানি করছি কি না সেটা ভাবার জন্য অন্তত কিছু সময় থিতু হওয়া দরকার।


জয়া ফারহানা

 





         
   আপনার মতামত দিন
     উপসম্পাদকীয়
জনস্বাস্থ্য, অর্থনীতি ও পরিবেশের ক্ষতির কারণে তামাক টেকসই উন্নয়নের অন্তরায়
.............................................................................................
কৃষির পাশাপাশি শিল্প উন্নয়ন এবং কৃষক ফেডারেশনকথা
.............................................................................................
কৃষির পাশাপাশি শিল্প উন্নয়ন এবং কৃষক ফেডারেশনকথা
.............................................................................................
ঈদ এবং মাদক... ওরা বানায় : আমরা সেবন করি
.............................................................................................
নুসরাত কেন চলে যাবে...
.............................................................................................
এই দেশের সড়কে কে নিরাপদ?
.............................................................................................
রাজনীতির হঠাৎ হাওয়ার চমক
.............................................................................................
রাজনীতিতে ব্যবসায়ীদের অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে
.............................................................................................
ওজোনস্তরের নতুন দুঃসংবাদ
.............................................................................................
বিজ্ঞান গবেষণা ও বাংলাদেশ
.............................................................................................
বিশ্ব আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচার চাই
.............................................................................................
চীনা ‘ইউয়ান’, ভারতীয় ‘রুপী’, তুর্কী ‘লিরা’ সবার দাম কমছে
.............................................................................................
এখনো নিয়মিত মৃত্যু সড়কে কে দায় নেবে
.............................................................................................
মাঠের লড়াইয়ে লক্ষ্য হোক জয়
.............................................................................................
একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের আশায়
.............................................................................................
আর কত রক্ত ঝড়বে জাতির বিবেকের?
.............................................................................................
হুমকিতে নয়, আলোচনায়ই সমাধান
.............................................................................................
বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসব বাংলা নববর্ষ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস, পরীক্ষা বাতিল এবং অবিচার...
.............................................................................................
ভাষাশ্রদ্ধায় আসুন উচ্চারণ করি ‘বিজয় বাংলাদেশ’
.............................................................................................
চার বছরের উন্নয়ন অগ্রগতি ধারাবাহিকতা রক্ষা করাই বড় চ্যালেঞ্জ
.............................................................................................
শিক্ষা ধ্বংসে বইয়ের বোঝা-সৃজনশীল এবং ফাঁসতন্ত্র
.............................................................................................
প্রশ্নফাঁস আর কোচিংবাণিজ্যে শিক্ষার অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁসের দায় কে নেবে?
.............................................................................................
মায়ের ভাষার অবহেলা কেন করছি আমরা?
.............................................................................................
সবাই জেগে উঠুক ভেজালের বিরুদ্ধে
.............................................................................................
নির্বাচন কমিশনের কর্মক্ষমতা ও ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস ও শিক্ষার দৈন্যদশা রোধ সম্ভব
.............................................................................................
মশা আর মাছি ধুলার সঙ্গে বেশ আছি!
.............................................................................................
বাংলাদেশ ব্যাংকের তদারকি ও নিয়ন্ত্রণক্ষমতা বাড়াতে হবে
.............................................................................................
প্যারাডাইস পেপার্স : সারাবিশ্বে সমস্যা ও সমাধান
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর অগ্নিগর্ভ ভাষণ : ইউনেস্কোর স্বীকৃতি
.............................................................................................
রোহিঙ্গাদের ত্রাণ ও পূনর্বাসনে দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী
.............................................................................................
নিরাপদ পথ দিবস চাই
.............................................................................................
রোহিঙ্গা গণযুদ্ধের সূচনা হোক, স্বাধীন হোক আরকান
.............................................................................................
দর্শনহীন শিক্ষার ফল ব্লু হোয়েল সংস্কৃতি
.............................................................................................
সাবধানে চালাবো গাড়ী, নিরাপদে ফিরবো বাড়ী
.............................................................................................
বন্ধুদেশের ঋণের বোঝা এবং নতুন প্রজন্মের ভাবনা
.............................................................................................
চালে চালবাজী : সংশ্লিষ্টদের চৈতন্যোদয় হোক
.............................................................................................
৫ প্রস্তাবে বাংলাদেশে সংকট : দুর্ভিক্ষ আসন্ন
.............................................................................................
ভুখা মানুষের স্বার্থে সরকারকে কঠোর হতে হবে
.............................................................................................
রোহিঙ্গা তরুণের চিঠি এবং আমাদের করণীয়
.............................................................................................
ষোড়শ সংশোধনী বাতিল প্রসঙ্গে অনেকের অভিমত
.............................................................................................
তরুন প্রজন্মের সৈনিকেরা জেগে উঠলে কোন অপশক্তিই বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও উন্নয়নের পথ রুদ্ধ করতে পারবে না
.............................................................................................
আদর্শ সংবাদ ও সাংবাদিকতা
.............................................................................................
নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় সাহসী হতে হবে
.............................................................................................
পাবনা বইমেলা সাহিত্যকে সম্মৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে
.............................................................................................
আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো...
.............................................................................................
ক্ষণজন্মা কিংবদন্তী মাদার বখশ
.............................................................................................
গ্রামীণ মানুষের সম্পদ বাড়ছে না, ঋণ বাড়ছে
.............................................................................................
Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale
Digital Load Cell
Digital Indicator
Digital Score Board
Junction Box | Chequer Plate | Girder
Digital Scale | Digital Floor Scale

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD