বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

  
Share Button
   বিবিধ
অনিরাপদ পানিতে দেশে দিনে দিনে কলেরার প্রকোপের মাত্রা বাড়ছে
  তারিখ: 20 - 05 - 2018

ডায়রিয়ার আড়ালে দেশে কলেরার বিস্তার ঘটছে। বাংলাদেশে এখন মৌসুমি ডায়রিয়ার প্রকোপ নিয়মিত হয়ে পড়েছে। তাছাড়া সারাবছরই কমবেশি ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। তবে ডায়রিয়ার প্রতি মানুষের আগের মতো ভয় এখন আর নেই। কিন্তু ভয়ের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে কলেরা। বিশেষ করে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা ডায়রিয়ায় আক্রান্তদের মধ্যে প্রায় ২০ শতাংশই কলেরায় আক্রান্ত থাকে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের অভিমত, কলেরার প্রকোপের মাত্রা দিনে দিনে আরো বাড়ছে। ডায়াবেটিসসহ অন্যান্য রোগে আক্রান্তরা কলেরায় আক্রান্ত হলে রোগীর জীবন মারাত্মক ঝুঁকির মুখে পড়ে। এজন্য প্রধানত দূষিত বা অনিরাপদ পানিকে দায়ি করা হয়। এজন্য শুধু পানের জন্য ব্যবহৃত পানিই নয়, বরং খাদ্য প্রস্তুত থেকে শুরু করে সব কাজেই ব্যবহৃত পানি নিরাপদ হতে হবে। স্বাস্থ্য বিভাগ সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, নানা কারণে এদেশে কলেরার বিষয়টি আলোচনায় আসছে না। কিন্তু বাসবতবতা হচ্ছে- দেশ থেকে কলেরাকে নির্মূল করতে যায়নি। বরং আরো বেশি করে জেঁকে বসছে। সাধারণ মানুষ ঠিক ডায়রিয়া আর কলেরার পার্থক্য বুঝতে না পারলেও চিকিৎসক বা গবেষকরা তা ঠিকই শনাক্ত করতে পারছেন। শুধুমাত্র বাংলাদেশেই নয়, বিশ্বের অনেক দেশেই এখনো ডায়রিয়ার পাশাপাশি কলেরার বিস্তার ঘটছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যানুসারে বাংলাদেশসহ বিশ্বেরে ৬৯টি দেশে প্রতিবছর ২৯ মিলিয়ন মানুষ কলেরার কবলে পড়ে, যাদের মধ্যে বছরে প্রায় এক লাখ মানুষের মৃত্যু ঘটে। কলেরায় আক্রান্ত রোগীর শরীরে পানিশূন্যতার মাত্রা খুব তীব্রতর হয়ে ওঠে। একই সঙ্গে তাৎক্ষণিকভাবে কিডনিসহ অন্যান্য প্রত্যঙ্গ বিকলের আশঙ্কা থাকে। যার পরিণতিতে মৃত্যুঝুঁকি অনেক বেড়ে যায়। এমনকি যেকোনো কলেরা আক্রান্ত মানুষ মাত্র এক ঘণ্টার মধ্যেও মারা যেতে পারে। আর একজন মানুষের শরীর কলেরায় চূড়ান্ত পর্যায়ে আক্রান্ত হলে তার মাধ্যমে আরো ৩ জন সংক্রামিত হতে পারে। তবে আক্রান্ত হওয়ার পর দ্রুত চিকিৎসা দেয়া গেলে ভয় থাকে না।

সূত্র জানায়, কলেরা শুধু পানিবাহিত রোগই নয়, তাকে খাদ্যবাহিত রোগও বলা হয়। কারণ এর জীবাণু যে শুধু খাবার পানিতেই সীমাবদ্ধ আছে তা নয়, বরং ওই পানি দিয়ে যেকোনো খাবার প্রস্তুত, হাত ধোয়া কিংবা থালা-বাসন ধোয়ার কাজ করলেও তা প্রক্রিয়াগত কারণেই মানুষের দেহে প্রবেশ করতে পারে। ফলে শুধু খাবার পানিকে নিরাপদ করলেই চলবে না, রান্না বাদে সব কিছুতেই নিরাপদ পানি নিশ্চিত করতে হবে। কলেরা বা ডায়রিয়াসহ যেকোনো জীবাণুযুক্ত পানি দিয়ে যদি একটি ফল ধুয়ে দেয়া হয়, সেই ফল খেলে তো ওই জীবাণু পেটে যাবেই। আইসিডিডিআরবি নিজস্ব হাসপাতাল জরিপের উপাত্ত অনুসারে কয়েক বছর ধরেই তাদের হাসপাতালে আগত প্রতি ৪ জন রোগীর মধ্যে একজন কলেরায় আক্রান্ত ছিল। আবার কলেরায় আক্রান্তদের মধ্যে গড়ে ১৮ থেকে ২০ শতাংশ রোগী থাকে শিশু। আর আইসিডিডিআরবির হাসপাতালে আসা সব রোগীর মধ্যে সর্বাধিক ‘ভিব্রিও কলেরি-০১’ জীবাণুই বেশি ছিল। শিশুদের এমনিতেই রোগ প্রতিরোধক্ষমতা কম থাকে, সে ক্ষেত্রে ডায়রিয়ার ঝুঁকিও থাকে অনেক বেশি; যাদের মধ্যে বড় একটি অংশ কলেরার জীবাণুতে আক্রান্ত হয়। কিন্তু শিশুদের খাবার খাওয়ার ক্ষেত্রে যদি সতর্কতা অবলম্বন করা হয় তবে এ বিপদ থেকে সুরক্ষা সম্ভব। বিশেষ করে খাওয়ার আগে ভালো করে হাত ধোয়া, শিশুদের বাইরের খাবার না খাইয়ে ঘরে তৈরি সম্পূরক খাবার খাওয়ানো এবং ৬ মাস বয়স পর্যন্ত অন্য কোনো কিছু মুখে না দিয়ে কেবল মায়ের বুকের দুধ খাওয়াতে পারলে কলেরার কোনো জীবাণুই শিশুকে আক্রান্ত করার সুযোগ থাকে না।

সূত্র আরো জানায়, দেশে কলেরার প্রকোপ দিনে দিনে আরো বাড়ছে। এজন্য দায়ি মূলত অনিরাপদ পানি। যেমন সাপ্লাই পানির পাইপ বেশির ভাগ সময়ই পরিষ্কার বা পরির্তন করা হয় না। ফলে সেখানে যেমন জীবাণুর ঘাঁটি থাকে, আবার ওই জরাজীর্ণ পাইপ ছিদ্র হয়ে আশপাশের মল-মূত্রের লাইনের অথবা স্যুয়ারেজ লাইনের সঙ্গে একাকার হয়ে যায়। তাছাড়া নানা পথখাবারের মাধ্যমেও অনিরাপদ পানি থেকে মানুষের দেহে কলেরা বা ডায়রিয়ার জীবাণু ঢুকে পড়ছে। এককালে গ্রামে কলেরার প্রকোপ বেশি থাকলেও এখন শহর এলাকার মানুষের মধ্যেই কলেরার প্রকোপ বেশি দেখা যাচ্ছে।

এদিকে রোগতত্ত্ববিদ ছাড়াও জলবায়ু পরিবর্তনজনিত রোগের ওপর কাজ করা এক দল গবেষক বাংলাদেশে দ্রুত সময়ের মধ্যে কলেরা আরো ভয়াবহভাবে ফিরে আসতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছেন। ওই গবেষণার কাজে স্যাটেলাইট প্রযুক্তি ব্যবহার করে কলেরা বিস্তারের সমর্থনে নানা তথ্য-উপাত্ত পাওয়া গেছে। স্যাটেলাইট প্রযুক্তিভিত্তিক দল গবেষক দলটি বঙ্গোপসাগরসহ দেশের ভেতরে কয়েকটি এলাকার নদ-নদী ও প্রাকৃতিক পরিবেশ পর্যবেক্ষণ করে একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছেন; যেখানে তারা দেখিয়েছেন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও তাপমাত্রাজনিত প্রভাবের কারণে দ্রুত সময়ের মধ্যে বাংলাদেশের বেশির ভাগ এলাকার পানির অবস্থা এমন হবে, যা কলেরার জীবাণুর জন্য খুবই উপযোগী থাকবে। ফলে ওই পানির মাধ্যমে মানুষের শরীরে কলেরার বিস্তার ঘটবে। 

অন্যদিকে সম্প্রতি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম সচিবালয়ে এক পর্যালোচনা সভায় বলেন, দেশের সার্বিক ডায়রিয়া পরিস্থিতি নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। সব সরকারি হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগীদের সেবা দেয়ার জন্য চিকিৎসক, নার্স প্রস্তুত আছে এবং পর্যাপ্ত ওষুধ ও স্যালাইন মজুদ আছে। ওই সভায় আরো জানানো হয়, এ বছর অন্যান্য বছরের তুলনায় সারা দেশে এখনো ডায়রিয়ার প্রকোপ কম। তবে ঢাকা বিভাগে ডায়রিয়া রোগীর হার বেশি।

এ প্রসঙ্গে আইইডিসিআরের বর্তমান পরিচালক অধ্যাপক ড. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, কলেরাসহ পানিবাহিত সব রোগ থেকে মুক্তির জন্য নিরাপদ পানির কোনো বিকল্প নেই। সেক্ষেত্রে স্যানিটেশন কাঠামো বা সিস্টেমের উন্নতি হলেও সাপ্লাই চেইনে কোথাও যদি জীবাণুযুক্ত পানির সংযুক্তি ঘটে, তবেই বিপদ বয়ে আনে। তাই সব ক্ষেত্রে সবাইকে নিরাপদ পানির ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে।

 

Awbivc` cvwb‡Z †`‡k w`‡b w`‡b K‡jivi cÖ‡Kv‡ci gvÎv evo‡Q

GdGbGm G·K¬zwmf: Wvqwiqvi Avov‡j †`‡k K‡jivi we¯Ívi NU‡Q| evsjv‡`‡k GLb †gŠmywg Wvqwiqvi cÖ‡Kvc wbqwgZ n‡q c‡o‡Q| ZvQvov mviveQiB Kg‡ewk Wvqwiqvq AvµvšÍ n‡”Q gvbyl| Z‡e Wvqwiqvi cÖwZ gvby‡li Av‡Mi g‡Zv fq GLb Avi †bB| wKš‘ f‡qi KviY n‡q `uvwo‡q‡Q K‡jiv| we‡kl K‡i nvmcvZv‡j wPwKrmv wb‡Z Avmv Wvqwiqvq AvµvšÍ‡`i g‡a¨ cÖvq 20 kZvskB K‡jivq AvµvšÍ _v‡K e‡j Rvwb‡q‡Qb we‡klÁiv| Zv‡`i AwfgZ, K‡jivi cÖ‡Kv‡ci gvÎv w`‡b w`‡b Av‡iv evo‡Q| Wvqv‡ewUmmn Ab¨vb¨ †iv‡M AvµvšÍiv K‡jivq AvµvšÍ n‡j †ivMxi Rxeb gvivZ¥K SyuwKi gy‡L c‡o| GRb¨ cÖavbZ `~wlZ ev Awbivc` cvwb‡K `vwq Kiv nq| GRb¨ ïay cv‡bi Rb¨ e¨eüZ cvwbB bq, eis Lv`¨ cÖ¯‘Z †_‡K ïiæ K‡i me Kv‡RB e¨eüZ cvwb wbivc` n‡Z n‡e| ¯^v¯’¨ wefvM mswkøó m~‡Î Gme Z_¨ Rvbv hvq|

mswkøó m~Î g‡Z, bvbv Kvi‡Y G‡`‡k K‡jivi welqwU Av‡jvPbvq Avm‡Q bv| wKš‘ evmeZeZv n‡”Q- †`k †_‡K K‡jiv‡K wbg©~j Ki‡Z hvqwb| eis Av‡iv †ewk K‡i †Ru‡K em‡Q| mvaviY gvbyl wVK Wvqwiqv Avi K‡jivi cv_©K¨ eyS‡Z bv cvi‡jI wPwKrmK ev M‡elKiv Zv wVKB kbv³ Ki‡Z cvi‡Qb| ïaygvÎ evsjv‡`‡kB bq, we‡k¦i A‡bK †`‡kB GL‡bv Wvqwiqvi cvkvcvwk K‡jivi we¯Ívi NU‡Q| wek¦ ¯^v¯’¨ ms¯’vi Z_¨vbymv‡i evsjv‡`kmn we‡k¦‡i 69wU †`‡k cÖwZeQi 29 wgwjqb gvbyl K‡jivi Ke‡j c‡o, hv‡`i g‡a¨ eQ‡i cÖvq GK jvL gvby‡li g„Zz¨ N‡U| K‡jivq AvµvšÍ †ivMxi kix‡i cvwbk~b¨Zvi gvÎv Lye ZxeªZi n‡q I‡V| GKB m‡½ Zvr¶wYKfv‡e wKWwbmn Ab¨vb¨ cÖZ¨½ weK‡ji Avk¼v _v‡K| hvi cwiYwZ‡Z g„Zz¨SyuwK A‡bK †e‡o hvq| GgbwK †h‡Kv‡bv K‡jiv AvµvšÍ gvbyl gvÎ GK NÈvi g‡a¨I gviv †h‡Z cv‡i| Avi GKRb gvby‡li kixi K‡jivq P~ovšÍ ch©v‡q Avµvš— n‡j Zvi gva¨‡g Av‡iv 3 Rb msµvwgZ n‡Z cv‡i| Z‡e AvµvšÍ nIqvi ci `ªæZ wPwKrmv †`qv †M‡j fq _v‡K bv|

m~Î Rvbvq, K‡jiv ïay cvwbevwnZ †ivMB bq, Zv‡K Lv`¨evwnZ †ivMI ejv nq| KviY Gi RxevYy †h ïay Lvevi cvwb‡ZB mxgve× Av‡Q Zv bq, eis IB cvwb w`‡q †h‡Kv‡bv Lvevi cÖ¯‘Z, nvZ †avqv wKsev _vjv-evmb †avqvi KvR Ki‡jI Zv cÖwµqvMZ Kvi‡YB gvby‡li †`‡n cÖ‡ek Ki‡Z cv‡i| d‡j ïay Lvevi cvwb‡K wbivc` Ki‡jB Pj‡e bv, ivbœv ev‡` me wKQy‡ZB wbivc` cvwb wbwðZ Ki‡Z n‡e| K‡jiv ev Wvqwiqvmn †h‡Kv‡bv RxevYyhy³ cvwb w`‡q hw` GKwU dj ay‡q †`qv nq, †mB dj †L‡j †Zv IB RxevYy †c‡U hv‡eB| AvBwmwWwWAviwe wbR¯^ nvmcvZvj Rwi‡ci DcvË Abymv‡i K‡qK eQi a‡iB Zv‡`i nvmcvZv‡j AvMZ cÖwZ 4 Rb †ivMxi g‡a¨ GKRb K‡jivq AvµvšÍ wQj| Avevi K‡jivq AvµvšÍ‡`i g‡a¨ M‡o 18 †_‡K 20 kZvsk †ivMx _v‡K wkï| Avi AvBwmwWwWAviwei nvmcvZv‡j Avmv me †ivMxi g‡a¨ me©vwaK ÔwfweªI K‡jwi-01Õ RxevYyB †ewk wQj| wkï‡`i Ggwb‡ZB †ivM cÖwZ‡iva¶gZv Kg _v‡K, †m †¶‡Î Wvqwiqvi SyuwKI _v‡K A‡bK †ewk; hv‡`i g‡a¨ eo GKwU Ask K‡jivi RxevYy‡Z AvµvšÍ nq| wKš‘ wkï‡`i Lvevi LvIqvi †¶‡Î hw` mZK©Zv Aej¤^b Kiv nq Z‡e G wec` †_‡K myi¶v m¤¢e| we‡kl K‡i LvIqvi Av‡M fv‡jv K‡i nvZ †avqv, wkï‡`i evB‡ii Lvevi bv LvB‡q N‡i ‰Zwi m¤ú~iK Lvevi LvIqv‡bv Ges 6 gvm eqm ch©šÍ Ab¨ †Kv‡bv wKQy gy‡L bv w`‡q †Kej gv‡qi ey‡Ki `ya LvIqv‡Z cvi‡j K‡jivi †Kv‡bv RxevYyB wkï‡K AvµvšÍ Kivi my‡hvM _v‡K bv|

m~Î Av‡iv Rvbvq, †`‡k K‡jivi cÖ‡Kvc w`‡b w`‡b Av‡iv evo‡Q| GRb¨ `vwq g~jZ Awbivc` cvwb| †hgb mvcøvB cvwbi cvBc †ewki fvM mgqB cwi®‹vi ev cwiZ©b Kiv nq bv| d‡j †mLv‡b †hgb RxevYyi NvuwU _v‡K, Avevi IB RivRxY© cvBc wQ`ª n‡q Avkcv‡ki gj-g~‡Îi jvB‡bi A_ev my¨qv‡iR jvB‡bi m‡½ GKvKvi n‡q hvq| ZvQvov bvbv c_Lvev‡ii gva¨‡gI Awbivc` cvwb †_‡K gvby‡li †`‡n K‡jiv ev Wvqwiqvi RxevYy Xy‡K co‡Q| GKKv‡j MÖv‡g K‡jivi cÖ‡Kvc †ewk _vK‡jI GLb kni GjvKvi gvby‡li g‡a¨B K‡jivi cÖ‡Kvc †ewk †`Lv hv‡”Q|

Gw`‡K †ivMZË¡we` QvovI Rjevqy cwieZ©bRwbZ †iv‡Mi Ici KvR Kiv GK `j M‡elK evsjv‡`‡k `ªæZ mg‡qi g‡a¨ K‡jiv Av‡iv fqvenfv‡e wd‡i Avm‡Z cv‡i e‡j c~e©vfvm w`‡q‡Qb| IB M‡elYvi Kv‡R m¨v‡UjvBU cÖhyw³ e¨envi K‡i K‡jiv we¯Ív‡ii mg_©‡b bvbv Z_¨-DcvË cvIqv †M‡Q| m¨v‡UjvBU cÖhyw³wfwËK `j M‡elK `jwU e‡½vcmvMimn †`‡ki †fZ‡i K‡qKwU GjvKvi b`-b`x I cÖvK…wZK cwi‡ek ch©‡e¶Y K‡i GKwU c«wZ‡e`b ‰Zwi K‡i‡Qb; †hLv‡b Zviv †`wL‡q‡Qb, cÖvK…wZK `y‡h©vM I ZvcgvÎvRwbZ cÖfv‡ei Kvi‡Y `ªæZ mg‡qi g‡a¨ evsjv‡`‡ki †ewki fvM GjvKvi cvwbi Ae¯’v Ggb n‡e, hv K‡jivi RxevYyi Rb¨ LyeB Dc‡hvMx _vK‡e| d‡j IB cvwbi gva¨‡g gvby‡li kix‡i K‡jivi we¯Ívi NU‡e|

Ab¨w`‡K m¤úªwZ ¯^v¯’¨ I cwievi Kj¨vY gš¿x †gvnv¤§` bvwmg mwPevj‡q GK ch©v‡jvPbv mfvq e‡jb, †`‡ki mvwe©K Wvqwiqv cwiw¯’wZ wb‡q AvZw¼Z nIqvi wKQy †bB| me miKvwi nvmcvZv‡j Wvqwiqv †ivMx‡`i †mev †`qvi Rb¨ wPwKrmK, bvm© cÖ¯‘Z Av‡Q Ges ch©vß Ilya I m¨vjvBb gRy` Av‡Q| IB mfvq Av‡iv Rvbv‡bv nq, G eQi Ab¨vb¨ eQ‡ii Zyjbvq mviv †`‡k GL‡bv Wvqwiqvi cÖ‡Kvc Kg| Z‡e XvKv wefv‡M Wvqwiqv †ivMxi nvi †ewk|

G cÖm‡½ AvBBwWwmAv‡ii eZ©gvb cwiPvjK Aa¨vcK W. gxiRv`x †mweªbv †d¬viv Rvbvb, K‡jivmn cvwbevwnZ me †ivM †_‡K gyw³i Rb¨ wbivc` cvwbi †Kv‡bv weKí †bB| †m‡¶‡Î m¨vwb‡Ukb KvVv‡gv ev wm‡÷‡gi DbœwZ n‡jI mvcøvB †PB‡b †Kv_vI hw` RxevYyhy³ cvwbi mshyw³ N‡U, Z‡eB wec` e‡q Av‡b| ZvB me †¶‡Î mevB‡K wbivc` cvwbi e¨vcv‡i m‡PZb _vK‡Z n‡e|

 





         
   আপনার মতামত দিন
     বিবিধ
অনলাইন গণমাধ্যম নিবন্ধনে আবেদন ৩০ জুন পর্যন্ত
.............................................................................................
বেসরকারি ব্যবস্থাপনা ট্রেন পরিচালনার চুক্তির মেয়াদ বাড়িয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ
.............................................................................................
দেশি-বিদেশি বেসরকারি সংস্থার নিবন্ধন ও নিয়ন্ত্রণে নতুন আইন করছে সরকার
.............................................................................................
২০ মে থেকে ৬৫ দিন বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরা নিষিদ্ধ
.............................................................................................
টিআইবি’র গবেষণা প্রত্যাখ্যান করল ঢাকা ওয়াসা
.............................................................................................
নদী রক্ষায় ১০ বছর মেয়াদী মহাপরিকল্পনার খসড়া চূড়ান্ত
.............................................................................................
নতুন সড়ক আইন দ্রুত কার্যকর হচ্ছে না!
.............................................................................................
বায়ুদূষণে মৃত্যুতে বাংলাদেশ পঞ্চম
.............................................................................................
শহরের প্রত্যেকের তৈলচিত্র আঁকছেন ব্রিটিশ চিত্রকর
.............................................................................................
আবার যে কারণে হাসপাতালে `বৃক্ষ-মানব`
.............................................................................................
সংসদ নির্বাচন : সাংগঠনিক ইউনিটের জরুরি সভা ডেকেছে ছাত্রলীগ
.............................................................................................
আবার ভাসবে টাইটানিক
.............................................................................................
অনুশোচনায় আত্মহত্যা করেছিলেন সেই ফটো সাংবাদিক
.............................................................................................
‘১৮ বছরের আগে কোনো শিশুকে রাজনীতিতে অন্তর্ভুক্তিকরণ নয়’
.............................................................................................
নিমেষেই অদৃশ্য হয় যে প্রাণী
.............................................................................................
সক্ষমতা সূচকে বাংলাদেশের একধাপ অবনমন
.............................................................................................
ঈদুল আযহার বন্ধের নোটিশ
.............................................................................................
অর্গানিক গরুর চাহিদার সাথে দামও বেশি
.............................................................................................
ঢাকা বাঁচাতে দরকার কার্যকর সমন্বিত পরিকল্পনা
.............................................................................................
নিয়মের ঊর্ধ্বে ১৪ লাখ রিকশা
.............................................................................................
বেসরকারি মেডিক্যাল, ক্লিনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টার স্থাপন ও নবায়ন ফি বাড়ছে ৫০ গুণ
.............................................................................................
ইসলামের শিক্ষা মানুষকে দেয় প্রশান্তি ও আত্ম-বিশ্বাস: নওমুসলিম জয়নাব
.............................................................................................
বেপরোয়া জবি ছাত্রলীগ নিয়ন্ত্রণ নেই নেতাদের
.............................................................................................
কমছে কেন পেঙ্গুইনের সংখ্যা
.............................................................................................
সাগর উত্তাল, বন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত
.............................................................................................
এক মাসে ৩১ কোটি টাকার চোরাচালান পণ্য ও মাদকদ্রব্য উদ্ধার করেছে বিজিবি
.............................................................................................
দেশে এখনও ৮.৮ শতাংশ মানুষ কেরোসিনের আলোয় নির্ভরশীল
.............................................................................................
ছয় মাসে ২০২১টি শিশু নির্যাতনের শিকার
.............................................................................................
বাংলাদেশে এইডস রোগে আক্রান্ত ৮৬৫ জন
.............................................................................................
মাদক কারবারে শৃঙ্খলা বাহিনীর ২৫০ জন
.............................................................................................
বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু ৭২ বছর
.............................................................................................
‘খাদ্য সংকটে’ শূন্যরেখার রোহিঙ্গারা
.............................................................................................
রোহিঙ্গাদের জন্য ১৬ কোটি টাকা সহায়তা দেবে জাপান
.............................................................................................
গ্যাস উত্তোলন ও অনুসন্ধানে সরকারি সংস্থার কচ্ছপগতিতে কাটছে না সঙ্কট
.............................................................................................
প্লাস্টিকের উৎপাদন ও ব্যবহার রোধে আইনের কঠোর প্রয়োগ দাবি টিআইবি’র
.............................................................................................
শতভাগ ঈদ বোনাস দাবি বেসরকারি শিক্ষকদের
.............................................................................................
সংরক্ষিত নেই সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ সফরের সুনির্দিষ্ট তথ্যাবলী
.............................................................................................
আরও দু’বছর কুয়েতের রাষ্ট্রদূত থাকছেন আবুল কালাম
.............................................................................................
জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে প্রাধান্য দেয়ার ওপর গুরুত্বারোপ
.............................................................................................
চলন্ত ট্রেনে ঢিল ছোঁড়া দুষ্কৃতকারীদের নিয়ন্ত্রণে কঠোর আইন করার উদ্যোগ
.............................................................................................
সরকারি চাকুরেদের বেতন বাড়ছে ভোটের আগে
.............................................................................................
অনিরাপদ পানিতে দেশে দিনে দিনে কলেরার প্রকোপের মাত্রা বাড়ছে
.............................................................................................
সর্বোচ্চ উৎপাদনেও নিয়ন্ত্রণে নেই লোডশেডিং
.............................................................................................
রোহিঙ্গাদের দ্বিতীয় তালিকা প্রস্তুত, নিতে রাজি হয়নি মিয়ানমার
.............................................................................................
বই সঙ্কটে আটকে রয়েছে বিপুলসংখ্যক পাসপোর্ট
.............................................................................................
সড়ক বিভাগের সচিব নজরুলকে আরও ২ বছরের চুক্তিতে নিয়োগ
.............................................................................................
বাজারের ৭৫ শতাংশের বেশি প্রাস্তুরিত দুধ সরাসরি পানের জন্য নিরাপদ নয়
.............................................................................................
আরো ৩ দিন বজ্রবৃষ্টির সম্ভাবনা
.............................................................................................
দক্ষিণ গোলার্ধে ৭৮ ফুট উঁচু ঢেউয়ের রেকর্ড
.............................................................................................
ভোক্তার স্বার্থ রক্ষায় বিভিন্ন পণ্যের ভেজাল রোধে ৯টি ল্যাবরেটরি স্থাপনের উদ্যোগ
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]