| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

  
Share Button
   উপসম্পাদকীয়
এই দেশের সড়কে কে নিরাপদ?
  তারিখ: 09 - 04 - 2019

তারেক মাসুদ থেকে আবরার, ছোট রাস্তা থেকে মহাসড়ক, রিকশাযাত্রী থেকে বাসযাত্রী, কেউ কোথাও নিরাপদ নয়। নিরাপত্তা শব্দটিই এখন কোথাও নেই, অন্তত সড়কে নেই। এই কথাটি বলার জন্য কোনও বিশেষজ্ঞ হতে হয় না। একজন সাধারণ মানুষই বলতে পারেন, আমাদের সড়কে কোনও ধরনের নিরাপত্তা নেই।
বছরের পর বছর একটি ফুটফুটে বাচ্চাকে মানুষ করে তুলতে একজন অভিভাবকের কী পরিমাণ অমানুষিক পরিশ্রম, ভালোবাসা, আত্মত্যাগ জড়িত, তা আমরা জানি। সেই বাচ্চা বা তরুণ যখন রাস্তায় নামছে তখন তাকে আমরা নিরাপত্তা দিতে পারছি না। প্রতিবার একজন মায়ের কোল খালি করছি আর বলছি ‘আমরা লজ্জিত’। সত্যিই ধিক আমাদের নিজেকে। ধিক আমাদের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সবাইকে।
এই দেশের সড়কে কে নিরাপদ? যার ব্যক্তিগত গাড়ি আছে তিনি? নাকি গণপরিবহনের বাইরে ব্যক্তিগতভাবে গাড়ি ভাড়া করে সামর্থ্য আছে তিনি? এদের কেউ না কেউ, কখনও না কখনও রাস্তায় নামবেন তখন একটি যন্ত্রমানব খেকো বাস এসে তার জীবনটা কেড়ে নেবে না, এই নিশ্চয়তা কে দেবে?
বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির তথ্যমতে, ২০১৮ সালে ৫৫১৪টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৭২২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১৫ হাজার ৪৬৬ জন। মৃত্যুর সংখ্যা শুনতে শুনতে আমাদের চোখ, কান, শরীর সয়ে গেছে। সয়ে গেছে আমাদের গোটা ইন্দ্রিয়। এই ৭২২১ জনকে একসঙ্গে করে যদি দেখেন তাহলে বুঝবেন সংখ্যাটা আসলে কত বড়, কত বিশাল। কতটা অসহায় আমরা এই সড়ক-মহাসড়কের কাছে, তা দুর্ঘটনার এক তথ্যতে স্পষ্ট।
আবরার আহমেদ চৌধুরী। বিশ বছর বয়সী মেধাবী তরুণ। এই তরুণের আমাদের দেশকে অনেক কিছুই দেওয়ার কথা ছিল, ছিল দেশের একজন হয়ে সুনাম অক্ষুণœ রাখার কথা, ছিল বাংলাদেশকে বিশ্বের বুকে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কথা। কিন্তু সেই তরুণকে একজন বাসচালকের হাতে প্রাণ দিতে হলো। সিরাজুল ইসলামের যে চালক তরুণ আবরারের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে তার বয়স ২৯। যার প্রাণ গেলো আর যে প্রাণ নিলো দুইজনের বয়স ‘দুই’য়ের ঘরে। দুর্ভাগ্য একজন জীবিত, একজন মৃত। গণমাধ্যমে দেখেছি ওই বাসের চালক সিরাজুল ওইদিনই একজন নারীকে ধাক্কা মারে। তার গাড়ি চালানো কেমন হতে পারে তা আর নতুন করে কাউকে বলতে হবে না।
২.
২০০৯ সালে বর্তমান সরকার ঘোষণা দিয়েছিল, ফিটনেসবিহীন গাড়ি আর চলবে না। রাজধানী থেকে ২০ বছরের পুরনো সব বাস তুলে দেওয়া হবে। তার দুই বছর পর সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর দায়িত্ব পেলেন ওবায়দুল কাদের। মন্ত্রিত্ব নেওয়ার এক বছর পরে তিনি ফিটনেসবিহীন যানবাহন তুলে দেওয়ার ঘোষণা দিলেন। তা আর কার্যকর হলো না।
দীর্ঘ আট বছর ধরে দেশবাসী শুধু ঘোষণাই শুনলো। এইসব ঘোষণা আর বাস্তবায়িত হলো না। ফিটনেসবিহীন গাড়ি যে সড়কে বীরদর্পে চলেছে তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে স্কুল-কলেজের ছোট ছেলেমেয়েরা। নড়বড়ে-ভাঙাচোরা বাস, লাইসেন্সবিহীন চালক, নিয়ম না মানার প্রতিযোগিতা সবই যেন একের পর এক লাইনে সাজানো। মন্ত্রী, পুলিশ বা সরকারি গাড়ির চালকও যে ‘ফিটনেসবিহীন’ তা গতবারই নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীরা আবিষ্কার করেছিল। গোটা যোগাযোগ খাতটি কতটা বিশৃঙ্খল পরিস্থিতিতে চলছে তার নমুনা পাওয়া যায় এতে।
এবার একটু ভিন্ন প্রসঙ্গে যাই, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্যমতে, চলতি অর্থবছরে (২০১৮-১৯) সাময়িক হিসাবে মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি হবে ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ, যা এ যাবৎকালের রেকর্ড। বাংলাদেশে এর আগে ৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়নি। প্রবৃদ্ধির পাশাপাশি মাথাপিছু আয়ও বাড়বে। মাথাপিছু বার্ষিক আয় বেড়ে দাঁড়াবে এক হাজার ৯০৯ ডলার।
আবার ২০১৭ সালের আগস্টে বুয়েটের সড়ক দুর্ঘটনা গবেষণা ইনস্টিটিউটের এক গবেষণার তথ্যমতে, দেশে সড়ক দুর্ঘটনা এবং এর প্রভাবে সৃষ্ট ক্ষয়ক্ষতির আর্থিক পরিমাণ বছরে প্রায় ৪০ হাজার কোটি টাকা। এসব দুর্ঘটনার কারণে বছরে মোট জাতীয় উৎপাদনের ২ থেকে ৩ শতাংশ হারাচ্ছে বাংলাদেশ। একদিকে আমাদের জিডিপি যেমন বৃদ্ধি পাচ্ছে অপরদিকে সড়ক দুর্ঘটনায় মেধাবী প্রাণ হারাতে হারাতে আমাদের জিডিপি কমছে।
৩.
যদি চুক্তিভিত্তিক গাড়ি চালানো বন্ধ না হয়, যদি গোটা পরিবহন খাতকে কঠোর নিয়ন্ত্রণে আনা না যায়, যদি পরিবহন মালিকদের কারণে সরকারি দ্বিতল বাস বন্ধ থাকে, যদি পরিবহন মালিকদের কারণে নৌপথ এবং রেলপথকে অব্যবস্থাপনায় ধুঁকে ধুঁকে মরতে হয়, যদি ছোট থেকে শুরু করে মহাসড়কের চালকদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনা না যায়, যদি গোটা পরিবহন খাতকে ঢেলে সাজিয়ে বৃহৎ পরিকল্পনা করা না যায় এবং সর্বোপরি যাত্রীদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি না হয় তবে কখনও সড়কে শান্তি এবং স্বস্তি ফিরবে না।
কখনও আমার সন্তান, কখনও আপনার সন্তান বা কখনও আমি সড়কেই মারা যাবো। কখনও আমার মায়ের বুক খালি হবে, কখনও আপনার মায়ের বুক খালি হবে। নিরাপদ সড়কের দাবিতে নেমে শিক্ষার্থীদের গলা ফাটানো বিক্ষোভ দেখেই বোঝা যায় তারা আমাদের প্রশাসনের ওপর কতটা বিরক্ত এবং ক্ষুব্ধ। যেখানে স্কুল থেকে শুরু করে কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছেলেমেয়েদের আমরা সন্তুষ্ট করতে পারছি না, তাদের একটা দাবি আমরা পূরণ করতে পারছি না, সেখানে তারা কীসের আশায় আমাদের ওপর ভরসা করবে? কেন ভরসা করবে?

 বিনয় দত্ত 

লেখক: কথাসাহিত্যিক ও সাংবাদিক





         
   আপনার মতামত দিন
     উপসম্পাদকীয়
নুসরাত কেন চলে যাবে...
.............................................................................................
এই দেশের সড়কে কে নিরাপদ?
.............................................................................................
রাজনীতির হঠাৎ হাওয়ার চমক
.............................................................................................
রাজনীতিতে ব্যবসায়ীদের অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে
.............................................................................................
ওজোনস্তরের নতুন দুঃসংবাদ
.............................................................................................
বিজ্ঞান গবেষণা ও বাংলাদেশ
.............................................................................................
বিশ্ব আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচার চাই
.............................................................................................
চীনা ‘ইউয়ান’, ভারতীয় ‘রুপী’, তুর্কী ‘লিরা’ সবার দাম কমছে
.............................................................................................
এখনো নিয়মিত মৃত্যু সড়কে কে দায় নেবে
.............................................................................................
মাঠের লড়াইয়ে লক্ষ্য হোক জয়
.............................................................................................
একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের আশায়
.............................................................................................
আর কত রক্ত ঝড়বে জাতির বিবেকের?
.............................................................................................
হুমকিতে নয়, আলোচনায়ই সমাধান
.............................................................................................
বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসব বাংলা নববর্ষ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস, পরীক্ষা বাতিল এবং অবিচার...
.............................................................................................
ভাষাশ্রদ্ধায় আসুন উচ্চারণ করি ‘বিজয় বাংলাদেশ’
.............................................................................................
চার বছরের উন্নয়ন অগ্রগতি ধারাবাহিকতা রক্ষা করাই বড় চ্যালেঞ্জ
.............................................................................................
শিক্ষা ধ্বংসে বইয়ের বোঝা-সৃজনশীল এবং ফাঁসতন্ত্র
.............................................................................................
প্রশ্নফাঁস আর কোচিংবাণিজ্যে শিক্ষার অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁসের দায় কে নেবে?
.............................................................................................
মায়ের ভাষার অবহেলা কেন করছি আমরা?
.............................................................................................
সবাই জেগে উঠুক ভেজালের বিরুদ্ধে
.............................................................................................
নির্বাচন কমিশনের কর্মক্ষমতা ও ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস ও শিক্ষার দৈন্যদশা রোধ সম্ভব
.............................................................................................
মশা আর মাছি ধুলার সঙ্গে বেশ আছি!
.............................................................................................
বাংলাদেশ ব্যাংকের তদারকি ও নিয়ন্ত্রণক্ষমতা বাড়াতে হবে
.............................................................................................
প্যারাডাইস পেপার্স : সারাবিশ্বে সমস্যা ও সমাধান
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর অগ্নিগর্ভ ভাষণ : ইউনেস্কোর স্বীকৃতি
.............................................................................................
রোহিঙ্গাদের ত্রাণ ও পূনর্বাসনে দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী
.............................................................................................
নিরাপদ পথ দিবস চাই
.............................................................................................
রোহিঙ্গা গণযুদ্ধের সূচনা হোক, স্বাধীন হোক আরকান
.............................................................................................
দর্শনহীন শিক্ষার ফল ব্লু হোয়েল সংস্কৃতি
.............................................................................................
সাবধানে চালাবো গাড়ী, নিরাপদে ফিরবো বাড়ী
.............................................................................................
বন্ধুদেশের ঋণের বোঝা এবং নতুন প্রজন্মের ভাবনা
.............................................................................................
চালে চালবাজী : সংশ্লিষ্টদের চৈতন্যোদয় হোক
.............................................................................................
৫ প্রস্তাবে বাংলাদেশে সংকট : দুর্ভিক্ষ আসন্ন
.............................................................................................
ভুখা মানুষের স্বার্থে সরকারকে কঠোর হতে হবে
.............................................................................................
রোহিঙ্গা তরুণের চিঠি এবং আমাদের করণীয়
.............................................................................................
ষোড়শ সংশোধনী বাতিল প্রসঙ্গে অনেকের অভিমত
.............................................................................................
তরুন প্রজন্মের সৈনিকেরা জেগে উঠলে কোন অপশক্তিই বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও উন্নয়নের পথ রুদ্ধ করতে পারবে না
.............................................................................................
আদর্শ সংবাদ ও সাংবাদিকতা
.............................................................................................
নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় সাহসী হতে হবে
.............................................................................................
পাবনা বইমেলা সাহিত্যকে সম্মৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে
.............................................................................................
আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো...
.............................................................................................
ক্ষণজন্মা কিংবদন্তী মাদার বখশ
.............................................................................................
গ্রামীণ মানুষের সম্পদ বাড়ছে না, ঋণ বাড়ছে
.............................................................................................
ইসি গঠনে বিএনপি’র ফর্মূলা সুধিজনের ভাবনায় যুগোপযোগী
.............................................................................................
কর্পোরেট বিশ্বায়ন ও নয়া সমবায় আন্দোলন প্রসঙ্গে
.............................................................................................
ইছামতি নদী উদ্ধার এখন পাবনাবাসীর সময়ের দাবী
.............................................................................................
ঈদের জামাতে শোলাকিয়ার ঈদগাহ ময়দান, বেদনার অশ্রুধারা
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
উপদেষ্টা: আজাদ কবির
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ হারুনুর রশীদ
সম্পাদক মন্ডলীর সহ-সভাপতি: মামুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
যুগ্ম সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বার্তা সম্পাদক: মুজিবুর রহমান ডালিম
স্পেশাল করাসপনডেন্ট : মো: শরিফুল ইসলাম রানা
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]