রবিবার , ১৯ সফর ১৪৪১ | ১৯ অক্টোবর ২০১৯ | ৩ কার্তিক ১৪২৬ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

  
Share Button
   জাতীয়
ভারত ও বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের পারস্পরিক স্বার্থে কাজ করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
  তারিখ: 05 - 10 - 2019

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বর্তমানে সর্বকালের সেরা সম্পর্ক বিরাজ করছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উভয় দেশের ব্যবসায়ীদের নিজ নিজ জনগণের পারস্পরিক স্বার্থে কাজ করে এই অঞ্চলকে আরও সমৃদ্ধ করার আহ্বান জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি আপনাদের সকলকে প্লাটফর্মটির সর্বোত্তম ব্যবহার করতে এবং আমাদের জনগণের পারস্পরিক বৃহত্তর স্বার্থে উভয় দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখার অনুরোধ করছি এবং এর মাধ্যমে আমরা আমাদের দেশ ও এই অঞ্চলকে আরও সমৃদ্ধ এবং ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত করতে পারবো।

প্রধানমন্ত্রী গতকাল শুক্রবার নয়া দিল্লিতে আইসিটি মৌর্য হোটেলের কামাল মহল হলে ভারত-বাংলাদেশ বিজনেস ফোরামের (আইবিবিএফ) উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রদত্ত ভাষণে একথা বলেন। আইবিবিএফের প্লাটফর্মের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ ও ভারত সবচেয়ে ভাল সম্পর্ক উপভোগ করছে। রাজনৈতিক নেতৃত্ব ও আপনাদের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ সুনিশ্চিত করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। প্লাটফর্মটি রয়েছে এবং আমরা আপনাদের প্রচেষ্টা সহজ করার জন্য সকল ধরনের সহায়তা প্রদানের জন্য প্রস্তুত রয়েছি। প্রধানমন্ত্রী ভারতের ব্যবসায়ীদের বংলাদেশের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং হাইটেক পার্কগুলোতে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, বেশ কয়েকটি হাইটেক পার্ক প্রযুক্তি এবং উদ্ভাবনী উদ্যোগের জন্যও প্রস্তুত রয়েছে। মংলা, ভেড়ামারা ও মিরেরসরাইয়ে ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের জন্য তিনটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রস্তুত করেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের এই তিনটি ভারতীয় অর্থনৈতিক অঞ্চলে ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের পর্যাপ্ত বিনিয়োগ আমাদের রফতানিযোগ্য খাতকে আরও প্রশস্ত করতে সহায়তা করবে। আমরা সারাদেশে একশ বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ বাস্তবায়ন করছি, যার মধ্যে প্রায় ১২টি তৈরী হয়ে গেছে যেখানে ৪টি অঞ্চল ৩টি দেশের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে, যোগ করেন তিনি। এই অঞ্চলের অর্থনৈতিক কেন্দ্র হিসেবে বাংলাদেশের গড়ে ওঠার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বাংলাদেশের কৌশলগত ভৌগলিক অবস্থান দেশটিকে এই অঞ্চলের অর্থনীতির কেন্দ্র হিসেবে গড়ে ওঠার ক্ষেত্রে ব্যাপক সম্ভাবনার সৃষ্টি করেছে। পশ্চিমে ভারত, উত্তর দিকে চীন এবং পূর্বদিকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, বাংলাদেশ ৪ বিলিয়ন মানুষের বাজারের মাঝামাঝি রয়েছে। বৈশ্বিক সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগ (এফডিআই) প্রবৃদ্ধির উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে আমাদের সরকারের দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে বাংলাদেশে বৈশ্বিক এফডিআই’র ধারাবাহিক প্রবৃদ্ধি বৈদেশিক বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশে প্রতি ক্রমবর্ধমান আস্থারই প্রতিফলন। সংসদের প্রাসঙ্গিক আইন এবং দ্বিপক্ষীয় বিনিয়োগ চুক্তির দ্বারা বিদেশি বিনিয়োগকে সুরক্ষা প্রদান করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা একসঙ্গে আরো বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ দেখতে চাই যেখানে ভারতীয় বড় বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে শিল্প স্থাপন করতে এবং আমাদের মধ্যে বিদ্যমান উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার সুযোগ নিয়ে উত্তর ভারতের রাজ্যগুলো এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় দেশগুলোতে পণ্য রপ্তানী করতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা জানি যে, বিশ্বের বেশিরভাগ বর্ধিষ্ণু অর্থনীতির দেশগুলো তাদের প্রতিবেশী দেশগুলিতেই তাদের প্রাথমিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগের প্রকল্প গ্রহণ করেছে। একইভাবে ভারতীয় ব্যবসায়ী নেতারা আমাদের অর্থনৈতিক সম্ভাবনাকে আরও এগিয়ে নিতে খুব বড় ভূমিকা পালন করেতে পারেন এবং ঐক্যবদ্ধভাবে আমরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ বা ‘সোনার বাংলাদেশ’ গড়ে তুলতে সক্ষম হব এবং এভাবেই আমরা আমাদের শহীদ এবং মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা নিবেদন করতে পারি, বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে ভারতীয় ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দকে দেশে সবচেয়ে উদার বিনিয়োগ নীতি বলবৎ থাকার বিষয়টি পুণরায় স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশে সবচেয়ে উদার বিনিয়োগের পরিবেশ বিরাজ করছে। যার মধ্যে রয়েছে-বৈদেশিক বিনিয়োগের আইনি সুরক্ষা, উদার রাজস্ব ব্যবস্থা, মেশিনপত্র আমদানীর ক্ষেত্রে বিশেষ ছাড়, আনরেসট্রিকটেড এক্সিট পলিসি, সম্পূর্ণ বিনিয়োগ ও পুঁজি নিয়ে চলে যাবার সুবিধাসহ নানাবিধ সুযোগ সুবিধা। এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, সংসদের প্রাসঙ্গিক আইন এবং দ্বিপক্ষীয় বিনিয়োগ চুক্তির দ্বারা ও বিদেশি বিনিয়োগকে সুরক্ষা প্রদান করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের বিশাল জনসংখ্যা, যাদের বেশির ভাগের বয়স ২৫ বছরের কম, যারা অত্যন্ত প্রতিযোগিতামূলক মজুরিতে নিযুক্ত হতে প্রস্তুত রয়েছেসহ বাংলাদেশের সম্ভাবনার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, দ্রুত নগরায়নের ফলে বিদ্যুতের চাহিদা বৃদ্ধি এবং মধ্যবিত্ত শ্রেনীর ক্রমবর্ধমান প্রবৃদ্ধি বাংলাদেশে বিনিয়োগকারীদের বাজার সম্ভাবনার দিকেই ইঙ্গিত করে। সন্ত্রাস এবং দুর্নীতির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকার ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অনুসরণ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ১৬২ মিলিয়ন জনসংখ্যা সমন্বিত একটি প্রগতিশীল ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্র।

দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগের ক্রমবর্ধমান প্রবণতা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিগত বছরগুলোতে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের পরিমাণ ক্রমাগত বৃদ্ধি পেয়েছে। বাণিজ্যের ভারসাম্য যদিও এখন পর্যন্ত ভারতের পক্ষে রয়েছে। তিনি আরও বলেন, দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্যের পরিমাণ প্রায় ১০ বিলিয়ন ডলার। ২০১৮ সালে, বাংলাদেশে ৮ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলারের পণ্য রফতানি করে ভারত এবং বাংলাদেশ এই দেশটির আটতম বৃহত্তম রপ্তানী গন্তব্য। ভারতে আমাদের রপ্তানীও গত বছরের প্রথমবারের মতো ১ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়েছে। সুতরাং, অগ্রগতি দৃশ্যমান, তবে, বাণিজ্য ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে আমাদের সম্পর্ক আরও গভীর করার অনেক সুযোগ রয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ভবিষ্যতে বাংলাদেশে পেঁয়াজসহ যে কোন পণ্যের রপ্তানি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত আগে থেকে জানানোর জন্য অনুরোধ জানান। তিনি হিন্দিতে বলেন, হঠাৎ করে আপনারা বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দিয়েছেন। আগে নোটিশ দিলে আমরা অন্য দেশ থেকে ব্যবস্থা করতে পারতাম। ভবিষ্যতে এমন কিছু করলে আগে জানালে ভালো হয়। শেখ হাসিনা তাঁর বাসায় রাঁধুনিকে রান্নায় পেঁয়াজ ব্যবহার করতে নিষেধ করেছেন বলেও রসিকতা করে জানান। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ভারতের শিল্প ও রেলমন্ত্রী পীযূষ গয়াল, বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী, ফেডাবেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এ- ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই)-ও সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, ভারতের কনফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রির (সিআইআই)-র সভাপতি বিক্রম শ্রীকান্ত কিরলসকার, ফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান চেম্বার্স অব কমার্স এ- ইন্ডাষ্ট্রি (এফআইসিসিআই)-র সভাপতি সন্দীপ সোমনি অ্যাসোসিয়েটেড চেম্বার্স অব কমার্স এ- ইন্ডাষ্ট্রি অব ইন্ডিয়া (এএসএসওসিএইচএএম)-এর সভাপতি বালকৃষ্ণ গোয়েঙ্কা। অনুষ্ঠানে ‘প্রতিশ্রুতিশীল বাংলাদেশ’ শীর্ষক একটি ভিডিও উপস্থাপনা পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠানে ভারতে শিল্প ও রেলমন্ত্রী পীযূষ গয়াল বলেন, বাংলাদেশ ও ভারত এখন সবচেয়ে দৃঢ় সম্পর্ক উপভোগ করছে। তিনি সুসম্পর্কেও এই সুবিধা গ্রহণ করে দুই দেশের মানুষের উন্নতির জন্য অর্থনীতি এবং ব্যবসা-বাণিজ্য খাতকে আরও নতুন উচ্চতায় পৌঁছে দিতে উভয় দেশের ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি উভয় দেশের মধ্যে বাণিজ্য ভারসাম্য বজায় রাখার প্রয়োজনীযতার উপরও জোর দেন। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সী ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগ নিয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। শেখ হাসিনা উল্লেখ করেন যে, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সম্পর্ক এযাবতকালের মধ্যে সর্বোচ্চ উচ্চতায় পৌঁছেছে। মোদিজি নিজে যাকে ‘সোনালী অধ্যায়’ বলে অভিহিত করেছেন। তিনি বলেন, আমরা দৃঢ় আস্থাশীল যে আগামী বছরগুলোতে আমরা এই সম্পর্ক আরো নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে পারবো। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভারত-বাংলাদেশ সহযোগিতার সম্পর্ক শুরু হয়েছে ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধকালে। ১৯৭১-এর চেতনা সব সময় আমাদের সম্পর্কের ক্ষেত্রে দিক-নির্দেশনা দিয়ে আসছে।

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় ভারত সরকার এবং দেশটির জনগণের কাছ থেকে যে সমর্থন ও সহযোগিতা বাংলাদেশ পেয়েছে প্রধানমন্ত্রী শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতার সঙ্গে তা স্মরণ করেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভূরাজনৈতিক রূপান্তর ও চ্যালেঞ্জ সত্ত্বেও ‘পারস্পরিক স্বার্থ’ ও ‘অভিন্ন ভবিষ্যৎ’ গড়ে তোলার নীতির ওপর ভিত্তি করে আমরা আমাদের সম্পর্ক জোরদার ও সংহত করতে সক্ষম হয়েছি। আমাদের সহযোগিতা নিরাপত্তা, জ¦ালানি, যোগাযোগ, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, প্রতিরক্ষা, সংস্কৃতি এবং জনগণের মধ্যে সম্পর্ক ও যোগাযোগসহ সকল ক্ষেত্রে সম্প্রসারিত হয়েছে। গত ১০ বছরে বাংলাদেশের ব্যাপক অর্থনৈতিক অগ্রগতির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা গত এক দশকে উল্লেখযোগ্য অর্থনৈতিক উন্নয়নে সক্ষম হয়েছি, যা উন্নয়নের মডেল হিসেবে স্বীকৃতি অর্জন করেছে। বাংলাদেশকে বিশ্বের দ্রুত বিকাশমান অর্থনীতিগুলোর অন্যতম দেশ হিসেবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের তৈরি পোশাক রফতানিতে দ্বিতীয়, অভ্যন্তরীণ মৎস্য উৎপাদনে তৃতীয়, মিঠাপানির মৎস্য উৎপাদনে চতুর্থ, চাল উৎপাদনে চতুর্থ এবং রেমিটেন্স অর্জনে অষ্টম বৃহত্তম অবস্থানে রয়েছে। গত এক দশকে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের সাফল্য তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, গত ১০ বছরে আমাদের জিডিপি প্রবৃদ্ধি গড়ে ৭ শতাংশ থেকে গত বছরে ৮.১ শতাংশে পৌঁছেছে এবং আশা করা হচ্ছে চলতি অর্থবছরে তা ৮.৩ শতাংশ দাঁড়াবে।

তিনি বলেন, মুদ্রাস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫.৪ শতাংশ, মাথাপিছু আয় ২০০৬ সালের ৫৪৩ মার্কিন ডলার থেকে ৩.৫ গুণ বেড়ে ২০১৯ সালে প্রায় ২০০০ মার্কিন ডলার দাঁড়িয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রার মজুদ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, রফতানি ২০০৫-০৬ সালের চেয়ে ৩ গুণ বেড়ে ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে দাঁড়িয়েছে ৪০.৫৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। প্রাইস ওয়াটারহাউস কুপার্স-এর পরিসংখ্যান তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০৩০ সাল নাগাদ বাংলাদেশ হবে বিশ্বের ২৯তম বৃহত্তম অর্থনীতি। বিশ্বব্যাংকে সাম্প্রতিক প্রকাশনায় বাংলাদেশকে বিশ্বের দ্রুত বিকাশমান অর্থনীতির ৫টি দেশের অন্তর্ভুক্ত করেছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, এইচএসবিসি ২০১৮ সালে তাদের রিপোর্টে উল্লেখ করেছে বাংলাদেশ ২০৩০ সাল নাগাদ বিশ্বের ২৬তম বৃহত্তম অর্থনীতি এবং দ্রুত বিকাশমান তিনটি অর্থনীতির একটি। এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংকের আউটলুক ২০১৯ রিপোর্টের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, বাংলাদেশ হবে এশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীর অঞ্চলের দ্রুত বিকাশমান অর্থনীতি। তিনি বলেন, এই অর্জন সম্ভব হয়েছে বলিষ্ঠ নেতৃত্ব, সুশাসন, অব্যাহত রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা এবং জোরদার সামষ্টিক অর্থনৈতিক নীতির সুবাদে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এইসব অর্জন বাংলাদেশকে ‘সোনার বাংলায়’ রূপান্তরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন পূরণের সাফল্য এনে দিয়েছে। যদি এই ইতিবাচক ধারা অব্যাহত থাকে, যদি আমাদের লক্ষ্য বাস্তবায়ন করতে পারি আমরা আশা করি, ২০৪১ সাল নাগাদ বাংলাদেশকে উন্নত দেশের পরিণত করা সম্ভব হবে। তিনি দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরো জোরদার করতে রাজনৈতিক কূটনীতির পাশাপাশি অর্থনৈতিক কূটনীতির উপরেও গুরুত্ব আরোপ করেন।

 





         
   আপনার মতামত দিন
     জাতীয়
কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত পরিচ্ছন্ন রাখার আহ্বান পরিবেশমন্ত্রীর
.............................................................................................
শিশু নির্যাতনকারীদের ক্ষমা নেই: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
ডিসেম্বরের মধ্যেই গ্যাস সমস্যার সমাধান: জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
দেশে সকল ধর্ম-বর্ণের মানুষ নিরাপদ: গণপূর্ত মন্ত্রী
.............................................................................................
কৃষিকে আরও আধুনিক ও পরিবেশবান্ধব করতে হবে: রেলমন্ত্রী
.............................................................................................
রাষ্ট্রপতির কাছে জাপানি দূতের পরিচয়পত্র পেশ
.............................................................................................
একাদশ সংসদের পঞ্চম অধিবেশন বসছে ৭ নভেম্বর
.............................................................................................
সংবাদকর্মীদের সমস্যা সমাধানের আশ্বাস তথ্য প্রতিমন্ত্রীর
.............................................................................................
বাংলাদেশের কৃষি এখন বিশ্বের অন্যতম রোল মডেলু: খাদ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভূমি অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে: ভূমিমন্ত্রী
.............................................................................................
ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণের হটলাইন চালুর সময় প্রধানমন্ত্রীকে অতিথি করার পরামর্শ হাইকোর্টের
.............................................................................................
আজ বিশ্ব খাদ্য দিবস
.............................................................................................
আজ মুন্সিগঞ্জের ১৩টি সেতু উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
সংসদীয় গণতন্ত্র চর্চায় এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ: স্পিকার
.............................................................................................
অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: শিল্পমন্ত্রী
.............................................................................................
বিশ্ব মান দিবস আজ
.............................................................................................
কৃষককে বেশি সুবিধা দিয়ে ধান কেনার চেষ্টা হবে: খাদ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
আবরার হত্যা নিয়ে জাতিসংঘের মন্তব্য অনাকাক্সিক্ষত: পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়
.............................................................................................
ভিসি হওয়ার জন্য লেজুড়বৃত্তি রাজনীতি করছেন শিক্ষকরা : হানিফ
.............................................................................................
ভিসি হওয়ার জন্য লেজুড়বৃত্তি রাজনীতি করছেন শিক্ষকরা : হানিফ
.............................................................................................
ক্যাসিনো মার্কা যুবলীগ চাই না: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী
.............................................................................................
সব উপজেলায় পথশিশুদের জন্য পুনর্বাসন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হবে: ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা
.............................................................................................
উন্নয়ন প্রকল্পে কাজের মান নিশ্চিত করতে হবে: রাষ্ট্রপতি
.............................................................................................
দেশে আইন, নীতি ও নিয়মের ঘাটতি নেই : গণপূর্ত মন্ত্রী
.............................................................................................
আত্মহত্যা প্রতিরোধ বিষয়টি পরিবার হতেই শুরু হতে হবে: তথ্য প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
ছাত্রছাত্রীদের আবেগের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করছি: তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
আবরার হত্যার পেছনে ভারতীয় চক্রান্ত রয়েছে: জাফরুল্লাহ
.............................................................................................
বিদেশি কূটনীতিকদের বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ না করার আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর
.............................................................................................
শুধু টাকার পেছনে না ছুটে মানুষের সেবা করুন: আইনজীবীদের রাষ্ট্রপতি
.............................................................................................
আমরা দুর্নীতিতে ‘প্রচন্ড উন্নতি’ করেছি: সুলতানা কামাল
.............................................................................................
প্রবৃদ্ধির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দুর্নীতি বাড়ছে: রাষ্ট্রপতি
.............................................................................................
মত প্রকাশের জন্য পিটিয়ে হত্যা গণতন্ত্রের জন্য ভয়ঙ্কর: মেনন
.............................................................................................
বন্যা পরিস্থিতি এবার ভালভাবে মোকাবিলা করা গেছে: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী
.............................................................................................
ফেনী নদীর ‘খুব সামান্য’ পানি যাবে ত্রিপুরায়: পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়
.............................................................................................
আধুনিক কৃষি যন্ত্রপাতি ক্রয়ে ৭৫ শতাংশ পর্যন্ত ভর্তুকি দিচ্ছে সরকার: প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে ৭টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত
.............................................................................................
দিল্লিতে ‘ঠাকুর পিস অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন শেখ হাসিনা
.............................................................................................
দেশকে অন্ধকারে ঠেলে দিচ্ছে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন: নাসিম
.............................................................................................
ভারত ও বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের পারস্পরিক স্বার্থে কাজ করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
‘শেখ হাসিনা গবেষণা ইনস্টিটিউট’ প্রতিষ্ঠার দাবি নৌপ্রতিমন্ত্রীর
.............................................................................................
শেখ হাসিনাকে ইমরান খানের ফোন
.............................................................................................
বৈষম্য দূর করতেই দুর্নীতি বিরোধী অভিযান: ভয়েস অব আমেরিাকাকে প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
অবকাঠামোর সঙ্গে মানব উন্নয়নের বিষয়টি অগ্রাধিকার দিচ্ছে বাংলাদেশ আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু আজ
.............................................................................................
জনগণের কল্যাণ নিশ্চিত হলে এসডিজি অর্জন সহজ হবে: স্পিকার
.............................................................................................
দু’দিনের সফরে খুলনায় রাষ্ট্রপতি
.............................................................................................
এসডিজি অর্জনে সেফলি ম্যানেজড স্যানিটেশন নিশ্চিত করতে হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী
.............................................................................................
পিতা-মাতা ভরণ পোষণ বিধিমালা জারি করা হবে: সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
রাষ্ট্রপতির কাছে চার দূতের পরিচয়পত্র পেশ
.............................................................................................
আজ বিশ্ব প্রবীণ দিবস
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
উপদেষ্টা: আজাদ কবির
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ হারুনুর রশীদ
সম্পাদক মন্ডলীর সহ-সভাপতি: মামুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
যুগ্ম সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বার্তা সম্পাদক: মুজিবুর রহমান ডালিম
স্পেশাল করাসপনডেন্ট : মো: শরিফুল ইসলাম রানা
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]