১৮ জিলহজ ১৪৪১ , ঢাকা, রবিবার, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ৯ আগস্ট , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

  
Share Button
   উপসম্পাদকীয়
টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে তামাকজাত কোম্পানীগুলোকে দ্বায়বন্ধতার আওতায় আনা হোক
  তারিখ: 17 - 06 - 2020

কয়েক বছর পূর্বে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে রাস্তার পাশে বড় একটি বিলবোর্ডে লিখা চোখে পড়ল, সেখানে লিখা ছিল- “সবার সাথে বন্ধুত্ব, কারো সাথে বিদ্বেষ নয়” তখন উপরিউক্ত কথার অর্থ না বুঝলেও এখন কিছুটা বুঝা যাচ্ছে। পূর্বে শুধুমাত্র পশ্চিমা কিছু তামাক কোম্পানী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্নক ক্ষতিকর তামাকজাত পণ্য ব্যবসার অনুমতি পেলেও এখন এশিয়া একটি দেশকেও তামাকজাত পণ্য ব্যবসা করার অনুমতি দিয়েছে। গত বছর বিশ্ব তামাক মুক্ত দিবস এর প্রতিপাদ্য ছিল, `তামাক করে হৃৎপিন্ডের ক্ষয়, স্বাস্থ্যকে ভালোবাসি তামাককে নয়” এতেই বুঝা যাচ্ছে এই তথাকথিত বিনিয়োগ বোধগম্য কি? 

তামাক প্রাণঘাতী ও সর্বগ্রাসী পণ্য। জনস্বাস্থ্যের ঝুঁকি থাকার কারণে তামাকজাত পণ্যের ব্যবহার ও উৎপাদন পৃথিবীর প্রতিটি দেশে হুমকি হিসেবে দেখা হয়। তামাকের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ব্যবহারের ফলে জনস্বাস্থ্যের ঝুঁকিও প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। একজন পরোক্ষ ধূমপায়ীর একজন প্রত্যক্ষ ধূমপায়ীর তুলনায় তিনগুন বেশি নিকোটিন গ্রহণ করেন। ধূমপান কেবল ধূমপায়ীরই নয় অধূমপায়ীর শরীর এবং জীবনের জন্যও মারাত্নক হুমকি।
পক্ষান্তরে আমরা বিশাল সংখ্যক মানুষের অপমৃত্যু এবং জনস্বাস্থ্যকে উপেক্ষা করে তামাকজাত পণ্য উৎপাদনে বিদেশি বিনিয়োগকে আকৃষ্ট করেছি কেন তা আবার ভেবে দেখা দরকার? তথাকথিত বিনিয়োগের নামে জনস্বাস্থ্যকে অবহেলা করা সঠিক হবে কি? এই রকম ভাবে পর্তুগীজরা কুটির স্থাপন করে প্রথম ব্যবসার অনুমতি পায়, পরে ইংরেজরা ভারতীয় উপমহাদেশে আগমনের পর ব্যবসার অনুমতি পেয়ে কৃষকদেরকে নীল চাষে বাধ্য করে। শুধুমাত্র পরিবেশের ক্ষতি হবে এই জন্য ভারতের ন্যাশনাল গ্রিণ ট্রাইব্যুনাল দেশটির ইতিহাসে সবচেয়ে বড় বিদেশী বিনিয়োগের উন্নয়ন প্রকল্প খারিজ করে দিয়েছে। তাতে কি ভারতের উন্নয়ন থেমে গেছে?
কিছু লোকে সরকারের রাজস্ব কথা বলে থাকেন, আপনারা জানেন কি? শুধুমাত্র তামাকজাত পণ্য ব্যবহারের ফলে অসুস্থ্য হওয়ার কারণে চিকিৎসা করতে বছরে কি পরিমান অর্থ ব্যয় করতে হয় এবং কত নিরীহ মানুষ অকালে প্রাণ হারাচ্ছে? এর জন্য দায়ী কে? তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের কারণে চিকিৎসা ব্যয় বহুগুণে বেড়ে গেছে, যা বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় বিশাল বোঝাস্বরুপ। তামাকজনিত বিভিন্ন রোগে প্রতিবছর (প্রায়) ১ লাখ ৬১ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়। আর তামাকজনিত রোগব্যাধি ও অকাল মৃত্যুর কারণে বাংলাদেশে প্রতি বছর ৩০ হাজার ৫৭০ কোটি টাকা ব্যয় হয়, (২৩ জানুয়ারি ২০২০) মহান জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে এ তথ্য জানিয়েছেন মাননীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জনাব জাহিদ মালেক। ধূমপায়ীদের মহামারী করোনা ভাইরাস আক্রান্তের ঝুঁকি প্রায় ১৪ গুণ পর্যন্ত বাড়িয়ে তোলে। কোভিড-১৯ এই সময়ে জনস্বাস্থ্যের জন্য ুমরার উপর খরার ঘা" হয়ে দাড়িয়েছে।
বাংলাদেশে তামাকজাত পণ্যের চাষ বৃদ্ধি পাওয়ার অন্যতম কারণ রাষ্ট্রের পৃষ্ঠপোষকতায় কৃষিজাত পণ্যের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত না হওয়া। পূর্বে শুধুমাত্র রংপুর ও কুষ্টিয়া অঞ্চলে তামাক চাষ হলেও কৃষি পণ্যের ন্যায্য মূল্য না পাওয়া ফলে এখন রাজধানী ঢাকা শহরের আশে-পাশে এলাকাগুলোতেও তামাক চাষ শুরু হয়েছে। উদাহরণ হিসাবে বলা যায়- মানিকগঞ্জ, গাজীপুর। সরকার যদি বাংলাদেশ সংবিধান অনুসারে জনগণের পুষ্টির স্তর-উন্নয়ন ও জনস্বাস্থ্যের উন্নতিসাধন মূলক পণ্য উৎপাদনে সুদৃষ্টি প্রদান করতেন তাহলে তামাকজাত পণ্যের উৎপাদন এত বৃদ্ধি পেত কি?
এছাড়াও তামাকজাত পণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধির ক্ষেত্রে তামাকজাত কোম্পানীগুলো কৃষকদেরকে তামাক চাষ করার জন্য অগ্রিম অর্থ(দাদন দিয়ে) প্রদানের মাধ্যমে প্রণোদনা দিয়ে থাকে। কৃষক যদি কৃষি পণ্যের ন্যায্য মূল্য পেতেন তাহলে তামাক চাষ এতো বৃদ্ধি কি? ব্রিটিশ শাসন আমলে শক্তি প্রয়োগ করে নীল চাষে বাধ্য করা হত, এখন বিভিন্ন অপকৌশলে (যেমন- দাদন, প্রণোদনা ইত্যাদি) মাধ্যমে তামাক চাষে বাধ্য করা হচ্ছে।

তামাকের ভয়াবহতা সম্পর্কে মানুষকে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশেও বিভিন্ন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তামাকজাত পণ্যের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণের জন্য একটি আইন করা হলেও উক্ত আইনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির সরাসরি আইনের আশ্রয় লাভ বা আইনের মাধ্যমে প্রতিকার পাওয়ার বিধান নিশ্চিত করা হয়নি। এছাড়াও উক্ত আইনে বেশ কিছ সীমাবন্ধতা রয়েছে- জনসমাবেশ স্থলে ধূমপান করলে জরিমানার বিধান রাখা হলেও শুধুমাত্র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে জরিমানার বিধান রাখা হয় কিন্তু ধোঁয়াবিহীন তামাকজাত পণ্যের ক্ষেত্রে কোন প্রকার জরিমানার বিধান রাখা হয়নি। আমাদের প্রতিবেশি দেশ ভারতে শুধুমাত্র ম্যাজিস্ট্রেটই নয়, এইক্ষেত্রে স্কুলের শিক্ষকসহ পুলিশ অফিসারকে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে।
প্রতিবছর কি পরিমাণ এলাকাতে ও জমিতে তামাক চাষ বন্ধ করা হবে এবং আগামী ৫ বছরে কোন এলাকায় কতটুকু জমিনে তামাক চাষ বন্ধ করবে তার জন্য আইন ও নীতিমালা নিশ্চিত করা। তামাকজাত পণ্য ব্যবহারের ফলে জনস্বাস্থ্যের ক্ষতি এবং মানুষের অকাল মৃত্যুর জন্য তামাকজাত কোম্পানীগুলোকে দ্বায়বন্ধতার আওতায় আনা হোক। টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকার তামাকজাত পণ্য উৎপাদন ও ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে এবং প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির আইনগত প্রতিকার পাওয়ার বিধান করে উক্ত আইনকে আরো যোগপোযোগী করার পাশাপাশি আন্তরিকভাবে কাজ করলেই তবে ২০৪০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে তামাক মুক্ত করা সম্ভব হবে।

আ. ন. ম. মাছুম বিল্লাহ ভূঞা, আইনজীবি 





         
   আপনার মতামত দিন
     উপসম্পাদকীয়
চিকিৎসা ক্ষেত্রে মৌলিক সুবিদা পাচ্ছেনা মানুষ
.............................................................................................
স্মৃতি–বিস্মৃতির রহমান সাহেব
.............................................................................................
কোভিড-১৯: পলিথিন ও প্লাস্টিকজাত পণ্যের আধিপত্য
.............................................................................................
টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে তামাকজাত কোম্পানীগুলোকে দ্বায়বন্ধতার আওতায় আনা হোক
.............................................................................................
জনস্বাস্থ্য, অর্থনীতি ও পরিবেশের ক্ষতির কারণে তামাক টেকসই উন্নয়নের অন্তরায়
.............................................................................................
কৃষির পাশাপাশি শিল্প উন্নয়ন এবং কৃষক ফেডারেশনকথা
.............................................................................................
কৃষির পাশাপাশি শিল্প উন্নয়ন এবং কৃষক ফেডারেশনকথা
.............................................................................................
ঈদ এবং মাদক... ওরা বানায় : আমরা সেবন করি
.............................................................................................
নুসরাত কেন চলে যাবে...
.............................................................................................
এই দেশের সড়কে কে নিরাপদ?
.............................................................................................
রাজনীতির হঠাৎ হাওয়ার চমক
.............................................................................................
রাজনীতিতে ব্যবসায়ীদের অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে
.............................................................................................
ওজোনস্তরের নতুন দুঃসংবাদ
.............................................................................................
বিজ্ঞান গবেষণা ও বাংলাদেশ
.............................................................................................
বিশ্ব আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যার বিচার চাই
.............................................................................................
চীনা ‘ইউয়ান’, ভারতীয় ‘রুপী’, তুর্কী ‘লিরা’ সবার দাম কমছে
.............................................................................................
এখনো নিয়মিত মৃত্যু সড়কে কে দায় নেবে
.............................................................................................
মাঠের লড়াইয়ে লক্ষ্য হোক জয়
.............................................................................................
একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের আশায়
.............................................................................................
আর কত রক্ত ঝড়বে জাতির বিবেকের?
.............................................................................................
হুমকিতে নয়, আলোচনায়ই সমাধান
.............................................................................................
বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসব বাংলা নববর্ষ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস, পরীক্ষা বাতিল এবং অবিচার...
.............................................................................................
ভাষাশ্রদ্ধায় আসুন উচ্চারণ করি ‘বিজয় বাংলাদেশ’
.............................................................................................
চার বছরের উন্নয়ন অগ্রগতি ধারাবাহিকতা রক্ষা করাই বড় চ্যালেঞ্জ
.............................................................................................
শিক্ষা ধ্বংসে বইয়ের বোঝা-সৃজনশীল এবং ফাঁসতন্ত্র
.............................................................................................
প্রশ্নফাঁস আর কোচিংবাণিজ্যে শিক্ষার অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁসের দায় কে নেবে?
.............................................................................................
মায়ের ভাষার অবহেলা কেন করছি আমরা?
.............................................................................................
সবাই জেগে উঠুক ভেজালের বিরুদ্ধে
.............................................................................................
নির্বাচন কমিশনের কর্মক্ষমতা ও ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ
.............................................................................................
প্রশ্ন ফাঁস ও শিক্ষার দৈন্যদশা রোধ সম্ভব
.............................................................................................
মশা আর মাছি ধুলার সঙ্গে বেশ আছি!
.............................................................................................
বাংলাদেশ ব্যাংকের তদারকি ও নিয়ন্ত্রণক্ষমতা বাড়াতে হবে
.............................................................................................
প্যারাডাইস পেপার্স : সারাবিশ্বে সমস্যা ও সমাধান
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর অগ্নিগর্ভ ভাষণ : ইউনেস্কোর স্বীকৃতি
.............................................................................................
রোহিঙ্গাদের ত্রাণ ও পূনর্বাসনে দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী
.............................................................................................
নিরাপদ পথ দিবস চাই
.............................................................................................
রোহিঙ্গা গণযুদ্ধের সূচনা হোক, স্বাধীন হোক আরকান
.............................................................................................
দর্শনহীন শিক্ষার ফল ব্লু হোয়েল সংস্কৃতি
.............................................................................................
সাবধানে চালাবো গাড়ী, নিরাপদে ফিরবো বাড়ী
.............................................................................................
বন্ধুদেশের ঋণের বোঝা এবং নতুন প্রজন্মের ভাবনা
.............................................................................................
চালে চালবাজী : সংশ্লিষ্টদের চৈতন্যোদয় হোক
.............................................................................................
৫ প্রস্তাবে বাংলাদেশে সংকট : দুর্ভিক্ষ আসন্ন
.............................................................................................
ভুখা মানুষের স্বার্থে সরকারকে কঠোর হতে হবে
.............................................................................................
রোহিঙ্গা তরুণের চিঠি এবং আমাদের করণীয়
.............................................................................................
ষোড়শ সংশোধনী বাতিল প্রসঙ্গে অনেকের অভিমত
.............................................................................................
তরুন প্রজন্মের সৈনিকেরা জেগে উঠলে কোন অপশক্তিই বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও উন্নয়নের পথ রুদ্ধ করতে পারবে না
.............................................................................................
আদর্শ সংবাদ ও সাংবাদিকতা
.............................................................................................
নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় সাহসী হতে হবে
.............................................................................................
Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale
Digital Load Cell
Digital Indicator
Digital Score Board
Junction Box | Chequer Plate | Girder
Digital Scale | Digital Floor Scale

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
সম্পাদক মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী

সম্পাদক কর্তৃক ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন,
ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ইউরোপ মহাদেশ বিষয়ক সম্পাদক- প্রফেসর জাকি মোস্তফা (টুটুল)
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
ফোন : ০২-৯৫৬২৮৯৯ মোবাইল: ০১৬৭০-২৮৯২৮০
ই-মেইল : swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD