ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ৯ আশ্বিন ১৪২৭ , ২৪ সেপ্টেম্বর , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

  
Share Button
   এক্সক্লুসিভ
ঢাকা শহরকে বাসযোগ্য রাখতে করনীয়
  তারিখ: 06 - 09 - 2020

ঢাকা শহরে জনগণের অন্যতম প্রধান সমস্যা যানজট, বায়ুদূষণ এবং জলাবন্ধতা। চোখ বন্ধ করে একবার এমন একটি ঢাকা শহরের কথা কল্পনা করুন, যেখানে আর এত তীব্র-অসহনীয় যানজট এবং বায়ুদূষণ, অথবা জলাবদ্ধতা নেই,বাস্তবে তা সম্ভব কি? এই যানজট ও বায়ুদূষণের জন্য অন্যতম বেশি দায়ী ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়া। অধিকাংশ সময়ই একটি ব্যক্তিগত গাড়ির ভেতরে একজন মাত্র যাত্রী বসে থাকেন। ঢাকা মহানগরীর সড়ক ব্যবস্থা উন্নয়নকল্পে হাঁটাপথ ও সাইকেলপথ রাখার কথা অনেক কাল ধরে বলা হয়ে থাকলেও কিন্তু বাস্তবে অপর্যাপ্ত হাঁটাপথগুলো অধিকাংশ সময় নির্মাণ করার জন্য খুঁড়ে রাখা হয় অথবা নির্মাণকাজের সামগ্রী দিয়ে পূর্ণ থাকে; এবং সড়কগুলোর ভেতরে উন্নত হাঁটাপথ ও সাইকেলপথ করার কোনোই ব্যবস্থা রাখা হয়নি। এছাড়াও লক্ষ্য করা যায়, হাঁটাপথের তলা দিয়ে ওয়াসার নালা, টেলিফোনের লাইন, বিদ্যুৎ লাইন ইত্যাদি। আবার হাঁটাপথগুলো একবার মেরামত হলেই তার উপরে মোটরসাইকেলের অবাধ যাতায়াত করে, এবং মোটরসাইকেল, ব্যক্তিগত গাড়ি পার্কিং করে রাখে এর কোনো জবাবদিহিতা নেই। তখন চলাচলে পথচারীকে অতিষ্ঠ হতে হয় এবং অনেকেই দূর্ঘটনায় আক্রান্তহচ্ছেন।

ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেল এখন ঢাকা নগরীর সবচেয়ে বড় আপদ হলেও রিকশা কোন প্রকার বায়ুদূষণ করে না, তারপরও অনেক সড়কে রিকশাপথ তুলে দেয়া হয়েছে, কিন্তু কেন তা করা হয় বোধগম্য নয়? নগরীর সড়কগুলোয় সিগনাল ব্যবস্থা উন্নয়নের জন্য শত শত কোটি টাকা খরচ করা হলেও পথচারী নিরাপদে রাস্তা পারাপারে পর্যাপ্ত জেব্রাক্রসিং নিশ্চিত করা হয়নি। ঢাকা সড়ক পরিবহণ সমন্বয় কর্তৃপক্ষের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ নগরীতে ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেল চলাচল ব্যবস্থার নিয়ন্ত্রণ করা এবং গণপরিবহণ, বাইসাইকেল, রিকশা, ভ্যান যানগুলো চলাচলের জন্য নির্দিষ্ট পথ করে দেওয়া।
যানবাহনের নির্গত ধোঁয়া ঢাকাকে বসবাসের অযোগ্য করে তুলেছে। পরিবেশ বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংস্থা গ্রিন পিস এক প্রতিবেদনের তথ্য মতে, বায়ুদূষণে বাংলাদেশে বছরে প্রায় সোয়া লাখ কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে এবং একই কারণে ২০১৮ সালে বাংলাদেশে ৯৬ হাজার শিশুর অকালমৃত্যু হয়েছে। এই জন্য ব্যক্তিগত যানবাহনের ব্যবহার বন্ধ করে এর বিকল্প স্বরূপ গণপরিবহন (যেমন: রেল, বাস, ট্রাম ইত্যাদি) ও নদী পথের মাধ্যমে যাতায়াত নিশ্চিত করা এবং পাশাপাশি অযান্ত্রিক যানবাহন বৃদ্ধিসহ (যেমন: রিকশা, বাইসাইকেল ইত্যাদি) ব্যবহার বাড়াতে হবে। প্রাথমিক ভাবে সকাল ৮টা হতে ১০টা পর্যন্ত এবং বিকাল ৫ টা হতে ৭ পর্যন্ত ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচলের উপর সার চার্জ আরোপ করা যেতে পারে। বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাওয়া-আসার জন্য ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার বন্ধে আইন ও নীতিমালা করা। দক্ষতার সাথে জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করা এবং কয়লা ও তেলের (যেমন: ডিজেল, অক্টেন ও পেট্রোলের) উপর নির্ভরতা কমাতে হবে, এর পাশাপাশি ক্লোরোফ্লোরো কার্বন জাতীয় গ্যাস নিঃসরণকারী যন্ত্রের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে নীতিমালা করে উচ্চহারে কর আরোপ এবং বাস্তবায়ন করা।

বাংলাদেশ সরকার বায়ুদূষণ হ্রাসে যেভাবে টু-স্টোক যানবাহন নিষিদ্ধ করেছিল, ঠিক তেমনি জলবায়ু বিপর্যয় প্রতিরোধে ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। এমনকি একই মানসম্পন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপন করা হলে প্রত্যেকেই বাড়ির নিকটের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়ালেখার সুযোগ পাবে, তখন যান্ত্রিক বাহনের ব্যবহার অনেক হ্রাস পাবে। আন্তর্জাতিক উদাহরণ: লুক্সেমবার্গএ সরকারী ভাবে শিক্ষার্থীদের জন্য গণপরিবহনে যাতায়াত বিনামূল্যে করে দেওয়া হয়েছে। এশিয়ার দেশ সিঙ্গাপুরে ব্যক্তিগত গাড়ির নিবন্ধন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।
পৃথিবীতে প্রতিদিন ১০ কোটি ব্যারেল জ্বালানী তেল ব্যবহার করা হয়। শুধুমাত্র প্লাস্টিকজাত পণ্য তৈরি করতে বছরে ১.৭ মিলিয়ান ব্যারল তেল পোড়াতে হয়। প্রতি কেজি প্লাস্টিক উৎপাদনে ২ থেকে ৩ কেজি কার্বন নিঃসরণ হয়। আমরা জানি তেল পোড়ালে কার্বন ডাই-অক্সাইড উৎপন্ন হয়, যা পরিবেশকে দূষিত করে। ফলে বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধিতে প্লাস্টিকের অত্যন্ত নেতিবাচক ভূমিকা রয়েছে। ২০০২ সাল থেকে সারাদেশে পলিথিন ব্যাগ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হলেও কর্তৃপক্ষের দেখবাল(মনিটরিং) এর যথেষ্ট ঘাটতি রয়েছে। এবং উক্ত আইনে একবার ব্যবহৃত (ওয়ান টাইম ইউজ) প্লাস্টিকজাত পণ্যকে যেমন: প্লাস্টিক প্লেট, কাপ, বোতল, স্ট্র, চামচ, খাবার বক্স ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। তাই একবার ব্যবহৃত (ওয়ান টাইম ইউজ) প্লাস্টিকজাত পণ্যকে বন্ধ করতে আইন ও নীতিমালা তৈরি করে মনিটরিং এর ব্যবস্থা নিশ্চিত করা প্রয়োজন।
বিশেষ করে প্লাস্টিকজাত পণ্য ব্যবহারে পর যত্রতত্র ছুঁড়ে ফেলার ফলে পানি, মাটি, জলাদ্বার, জ্বলজ পরিবেশ, নদী-নালা ও সামুদ্রিক পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। প্লাস্টিকজাত দ্রব্য পঁচে মাটির সঙ্গে মিশতে সময় লাগে কমপক্ষে ৪০০ বছর। এমনকি মেশার পরও তা ফসলি জমির মাটির উর্বরতা নষ্ট করে। প্লাস্টিকজাত পণ্য বৃষ্টির পানি আটকে নগরের ড্রেনেজ ব্যবস্থার ও খালের পানি চলাচলের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে এবং এগুলোকে অচল করে দেয় ফলেঢাকা শহরের জলাবন্ধতার অন্যতম কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই প্লাস্টিকজাত পণ্যের ব্যবহার বন্ধ করা গেলে বুড়িগঙ্গানদীসহ অন্য নদীগুলোও প্রাণ ফিরে পাবে, এবং অনেক জলাভূমি ও জলাদ্বারের জীব-বৈচিত্র্য ধ্বংসের হাত হতে রক্ষা পাবে। এই জন্য আমাদের স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা নিয়ে সমস্যার সমাধান করতে হবে। বিকল্প হিসাবে পাটের ও কাপড়ের থলে, এ্যালুমিনিয়াম, কাঁচ, স্টিল, কাসা, পিতলের ও আমাদের ঐতিহ্যবাহী মাটির তৈজসপত্র ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করতে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে।
এছাড়াও আমাদের দেশে ইটের ভাটায় যখন ইট পোড়ানো হয় তখন সেখান থেকে কালো ধোঁয়ার নির্গত হয়। সেখানকার সেই কালো ধোঁয়াও বায়ু দূষণের অন্যতম কারণ। ফলে বায়ুদূষণের কারণে দেখা দিচ্ছে তাপমাত্রার অস্বাভাবিক পরিবর্তন। রাজধানী ঘিরে থাকা কয়েক হাজার ইটভাটার নির্গত ধোঁয়া ঢাকাকে দূষণের অন্তিম পর্যায়ে নিয়ে গেছে। বায়ু দূষণের ফলে ঢাকা শহরের তাপমাত্রা আগের থেকে অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। ‘গ্লোবাল লিভঅ্যাবিলিটি ইনডেক্স’ এর তথ্য মতে, ঢাকা শহর বিশ্বে বসবাসের অনুপযোগী শহরগুলোর তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে আছে। অপরিকল্পিত নগরায়ণই এর মূল কারণ। আর এমন নগরায়ণের কারণে বছর বছর বেড়েছে ঢাকার ভূপৃষ্ঠের তাপমাত্রাও। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর গবেষণা অনুযায়ী, গত ১৮ বছরে ঢাকা শহরের ভূপৃষ্ঠের তাপমাত্রা ৪ থেকে সাড়ে ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত বাড়ছে। বায়ুমন্ডলে বাড়ছে যাচ্ছে কার্বন ডাই-অক্সাইড এর কারণে ওজন স্তর ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। রাজধানী ঢাকাকে ঘিরে থাকা ইটভাটার বন্ধ করা এখন জরুরী দরকার।
এছাড়াও ঢাকা শহরের জলাভূমির বেশির ভাগই এখন ভরাট করা হয়েছে। জলাভূমি মানবদেহের কিডনির মতো একটি শহরের কিডনি হিসেবে কাজ করে। শহরের জীববৈচিত্র্য রক্ষা ও ভূপৃষ্ঠের তাপমাত্রা কমাতেও এটি ভূমিকা রাখে।
পরিবেশ ভাল না থাকলে আমরা ভাল থাকতে পারব না। করোনা ভাইরাসের কারণে সরকার কর্তৃক লকডাইনের আদেশের ফলে যানজট ও বায়ুদূষণ অনেকাংশে কমে গিয়েছিল বটে, কিন্তু উক্ত আদেশ শিথিল করার কারণে ঢাকা শহরকে দূষণ ও যানজট আবার বেড়ে চলেছে। ঢাকা শহরকে দূষণ কমাতে এবং বাসযোগ্য রাখতে হলে ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ, প্লাস্টিকজাত পণ্য ব্যবহার বন্ধ করা, ঢাকাকে ঘিরে থাকা ইটভাটার বন্ধ করা অতীব জরুরী। এগুলো বাস্তবায়নেসর্বপ্রথম মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার বন্ধ করা, যেকোনো মূল্যে জলাভূমিগুলো রক্ষা করা এবং পাশাপাশি বৃক্ষরোপণ ও বাড়ির ছাদে বাগান করাসহ নানা পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন। খাদ্য তৈরিতে সবুজ গাছ বাতাস থেকে মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর কার্বন ডাই-অক্সাইড উপাদানটি সংগ্রহ করে। উদ্ভিদ তাপমাত্রা কমাতে সাহায্য করে এবং গাছের পাতা বায়ু পরিশোধনের ছাঁকনি হিসাবে কাজ করে। আর এসব না করলে ঢাকা শহরের দূষণ এবং তাপমাত্রা আরও বাড়বে। কিন্তু আমরা এই গাছ-পালা নির্বিচারে কেটে ফেলছি। এতে শহরে বাস করাই কঠিন হয়ে পড়বে। নবায়নযোগ্য জ্বালানীর ও সৌরশক্তি নির্ভর যন্ত্রের ব্যবহার বৃদ্ধি করতে হবে। শিল্প-কারখানা স্থাপন, গৃহায়ণ ও রাস্তাঘাট নির্মাণে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে যাতে করে পরিবেশ দূষিত না হয় এবং এলাকার ভূ-প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য ক্ষতিগ্রস্ত না হয়। তাই পরিবেশ দূষণরোধে ব্যক্তিগতভাবে যেমন সচেতন হতে হবে, তেমনি সমষ্টিগত ভাবে তা প্রতিরোধে রুখে দাঁড়াতে হবে।


আ ন ম মাছুম বিল্লাহ ভূঞা, আইনজীবি





         
   আপনার মতামত দিন
     এক্সক্লুসিভ
কার ফ্রি সির্টিস:ঢাকা শহরের বাস্তবতা
.............................................................................................
এবার ঢাকার মসজিদ ইউরোশিয়ান প্রিমিয়াম-২০২০ পুরস্কারে আর্কিটেকচার বিভাগে প্রথম
.............................................................................................
ইকোসিটি স্যাটেলাইট কনফারেন্সে স্বাস্থ্য ও পরিবেশকে প্রাধান্য দেয়ার অঙ্গীকার ৬ মেয়রের
.............................................................................................
প্রতিবন্ধী মানুষের গণস্থাপনায় প্রবেশগম্যতা নিশ্চিত করুন
.............................................................................................
ঢাকা শহরকে বাসযোগ্য রাখতে করনীয়
.............................................................................................
নারীর অগ্রগতিতে প্রয়োজন সুষ্ঠ পরিবেশ
.............................................................................................
বাড়ছে দাম্পত্য কলহের হার, ভাঙ্গছে সংসার, বিচ্ছেদে এগিয়ে নারীরা
.............................................................................................
‘বৈচিত্র্যময় সমাজ: অফুরন্ত সম্ভাবনা’ বই এর ডিজিটাল মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে হিজড়া ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার নিশ্চিত করার আহ্বান
.............................................................................................
পরিবেশ ও চাকরিকে সমন্বয় করে কাজ করার আহবান
.............................................................................................
দেশেই পালিয়ে রয়েছেন শাহেদ, গ্রেফতার হচ্ছেন না কেন
.............................................................................................
ঈদের আগেই গণস্বাস্থ্যের বিশ্বমানের করোনা আইসিইউ ইউনিটের উদ্বোধন
.............................................................................................
আগামী ৬ মাসের মধ্যে করোনার ভ্যাকসিন বাংলাদেশে আনবে গ্লোব
.............................................................................................
পার্কিং নীতিমালায় ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ন্ত্রণের আহ্বান
.............................................................................................
নারী নির্যাতন বন্ধে নতুন প্রজন্মকে এগিয়ে আসার আহ্বান
.............................................................................................
হিজড়া ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সুযোগ ও অধিকার নিশ্চিতের মাধ্যমে সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার আহ্বান
.............................................................................................
প্রবাসীদের অর্থে বদলে গেছে দক্ষিণাঞ্চলের জীবনমান
.............................................................................................
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ‘সংশোধন’ আইন ২০২০ এর খসড়া অনুমোদন
.............................................................................................
বিদেশ যাত্রায় এখন থেকে সঙ্গে রাখা যাবে ১০ হাজার ডলার
.............................................................................................
রক্তে রাঙ্গানো ফেব্রুয়ারি মাস শুরু
.............................................................................................
‘জলবায়ু বিপর্যয় রোধ করে গণহত্যা বন্ধ করুন’
.............................................................................................
সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদে রাজু ভাস্কর্যে ঢাবি শিক্ষার্থীর অবস্থান
.............................................................................................
সড়ক নিরাপদ থাকলে মানুষের প্রাণও নিরাপদ থাকবে: ইলিয়াস কাঞ্চন
.............................................................................................
শিল্পাঞ্চলে গড়ে উঠলে বদলে যাবে সন্দ্বীপ
.............................................................................................
শিল্পাঞ্চলে গড়ে উঠলে বদলে যাবে সন্দ্বীপ
.............................................................................................
কক্সবাজারকে ডিজিটাল পর্যটন সুপারসিটি ঘোষণার দাবি
.............................................................................................
ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন ২২ জানুয়ারি
.............................................................................................
দেশের সর্ববৃহৎ বিদ্যুৎকেন্দ্র পায়রায় পরীক্ষামূলক উৎপাদন শুরু
.............................................................................................
দুদকের ভয়ে স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নে অর্থ খরচে স্থবিরতা
.............................................................................................
নোয়াখালীর হাতিয়া-নিঝুম দ্বীপে হচ্ছে বিশেষ পর্যটন জোন
.............................................................................................
সরকারি হাসপাতালগুলোতে চালু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু কর্নার: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
ড্রিমলাইনার সোনার তরী ও অচিন পাখি আসছে ২১ ও ২৪ ডিসেম্বর
.............................................................................................
চীনে নির্মিত দুটি ফ্রিগেট নৌবাহিনীর কাছে হস্তান্তর
.............................................................................................
আগামী বিশ্বকে তরুণরাই নেতৃত্ব দেবে: বীর বাহাদুর
.............................................................................................
সৌদি, বাংলাদেশে হজযাত্রীর কোটা ১০ হাজার বাড়িয়েছে
.............................................................................................
ইউনেস্কো নির্বাহী পরিষদে সহ-সভাপতি নির্বাচিত বাংলাদেশ
.............................................................................................
সবার জন্য পেনশন ব্যবস্থা চালু করতে চায় সরকার: পরিকল্পনামন্ত্রী
.............................................................................................
নিউইয়র্কে সাদেক হোসেন খোকার জানাযায় সর্বস্তরের মানুষের ঢল
.............................................................................................
আরও ২২টি মিটারগেজ কোচ আসছে: রেলমন্ত্রী
.............................................................................................
পেনশন নিয়ে নতুন সুখবর দিল সরকার
.............................................................................................
জলবায়ু বিপর্যয়রোধে শিক্ষার্থীরাদের সাথে সচেতনতামূলক মতবিনিময় সভা
.............................................................................................
১ নভেম্বর থেকে কার্যকর হচ্ছে সড়ক পরিবহন আইন
.............................................................................................
নির্বাচনপ্রক্রিয়া দুর্নীতির আওতামুক্ত নয়: মাহবুব তালুকদার
.............................................................................................
৩ বছরে বিদেশ সফর করেছেন বিদ্যুৎ বিভাগের ৩ হাজার কর্মকর্তা
.............................................................................................
শিশু নির্যাতন ও ধর্ষণের ঘটনা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে নিষ্পত্তির দাবি
.............................................................................................
জানুয়ারির মধ্যে ঢাকা-ম্যানচেস্টার সরাসরি ফ্লাইট চালু হবে: বিমান সচিব
.............................................................................................
জানুয়ারির মধ্যে ঢাকা-ম্যানচেস্টার সরাসরি ফ্লাইট চালু হবে: বিমান সচিব
.............................................................................................
ডাবল লাইনের বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু জানুয়ারিতে: রেলমন্ত্রী
.............................................................................................
ছুটির নোটিশ
.............................................................................................
রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ভূমিকম্প
.............................................................................................
মিরপুরের ছয়টি পার্ক ও খেলার মাঠের ত্রিমাত্রিকনকশা প্রণয়ন করলেন স্থানীয়রা
.............................................................................................
Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale
Digital Load Cell
Digital Indicator
Digital Score Board
Junction Box | Chequer Plate | Girder
Digital Scale | Digital Floor Scale

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
সম্পাদক মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী
সম্পাদক কর্তৃক ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ইউরোপ মহাদেশ বিষয়ক সম্পাদক- প্রফেসর জাকি মোস্তফা (টুটুল)
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
যুগ্ম সম্পাদক: জুবায়ের আহমেদ
নির্বাহী সম্পাদক: শরিফুল ইসলাম রানা
বার্তা সম্পাদক : মোঃ আকরাম খাঁন
সহঃ সম্পাদক: হোসাইন আহমদ চৌধুরী
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
ফোন : ০২-৯৫৬২৮৯৯ মোবাইল: ০১৬৭০-২৮৯২৮০
ই-মেইল : swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD