| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   জাতীয় -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
কোটি টাকা ঘুষ দিয়েও প্রাথমিকের শিক্ষক হওয়া সম্ভব নয়: ফিজার

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি বলেছেন, কোটি টাকা ঘুষ দিয়েও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক হওয়া সম্ভব নয়। মন্ত্রণালয়ের কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারীর নাম ভাঙিয়ে প্রতারক চক্র যাতে টাকা হাতিয়ে নিতে না পারে এজন্য তিনি সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান। গতকাল শনিবার দুপুরে দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার হাবড়া দ্বিমুখী উচ্চবিদ্যালয় চত্বরে প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে সামাজিক উদ্বুদ্ধকরণ মতবিনিময় সভা ও মা সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মোস্তাফিজুর রহমান এমপি বলেন, প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে সরকার সব ধরনের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। এখন শুধু দরকার মানসম্পন্ন শিক্ষা। এটা নিশ্চিত করতে শিক্ষক, অভিভাবক ও পরিচালনা কমিটিকে একযোগে কাজ করতে হবে। প্রয়োজনে কমিউনিটি শিক্ষকের ব্যবস্থা করতে হবে। শিক্ষকদের মধ্যে যতক্ষণ দেশ প্রেম জাগ্রত হবে না ততক্ষণ পর্যন্ত মানসম্পন্ন শিক্ষা অর্জন সম্ভব হবে না। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহনাজ মিথুন মুন্নীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম-আল-হোসেন, মহাপরিচালক ড. এএফএম মনজুর কাদির, যুগ্ম সচিব পরিচালক (অর্থ) মহেশ চন্দ্র রায়, রংপুর বিভাগীয় উপ-পরিচালক ওয়াহাব, পার্বতীপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুল ইসলাম প্রামাণিক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা স্বপন কুমার রায় চৌধুরী প্রমুখ।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম-আল-হোসেন বলেন, প্রতিদিন শিশুদের দুইটি করে নতুন শব্দ শেখাতে হবে। ঝরে পড়ার হার শূন্যের কোটায় নিয়ে আসতে হবে। সেই সঙ্গে দুর্বল শিক্ষার্থীদের বাছাই করে তাদের প্রতি আলাদা যতœ নিতে হবে।

কোটি টাকা ঘুষ দিয়েও প্রাথমিকের শিক্ষক হওয়া সম্ভব নয়: ফিজার
                                  

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার এমপি বলেছেন, কোটি টাকা ঘুষ দিয়েও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক হওয়া সম্ভব নয়। মন্ত্রণালয়ের কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারীর নাম ভাঙিয়ে প্রতারক চক্র যাতে টাকা হাতিয়ে নিতে না পারে এজন্য তিনি সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান। গতকাল শনিবার দুপুরে দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুর উপজেলার হাবড়া দ্বিমুখী উচ্চবিদ্যালয় চত্বরে প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে সামাজিক উদ্বুদ্ধকরণ মতবিনিময় সভা ও মা সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মোস্তাফিজুর রহমান এমপি বলেন, প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে সরকার সব ধরনের সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। এখন শুধু দরকার মানসম্পন্ন শিক্ষা। এটা নিশ্চিত করতে শিক্ষক, অভিভাবক ও পরিচালনা কমিটিকে একযোগে কাজ করতে হবে। প্রয়োজনে কমিউনিটি শিক্ষকের ব্যবস্থা করতে হবে। শিক্ষকদের মধ্যে যতক্ষণ দেশ প্রেম জাগ্রত হবে না ততক্ষণ পর্যন্ত মানসম্পন্ন শিক্ষা অর্জন সম্ভব হবে না। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহনাজ মিথুন মুন্নীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম-আল-হোসেন, মহাপরিচালক ড. এএফএম মনজুর কাদির, যুগ্ম সচিব পরিচালক (অর্থ) মহেশ চন্দ্র রায়, রংপুর বিভাগীয় উপ-পরিচালক ওয়াহাব, পার্বতীপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুল ইসলাম প্রামাণিক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা স্বপন কুমার রায় চৌধুরী প্রমুখ।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম-আল-হোসেন বলেন, প্রতিদিন শিশুদের দুইটি করে নতুন শব্দ শেখাতে হবে। ঝরে পড়ার হার শূন্যের কোটায় নিয়ে আসতে হবে। সেই সঙ্গে দুর্বল শিক্ষার্থীদের বাছাই করে তাদের প্রতি আলাদা যতœ নিতে হবে।

রেলের উন্নয়নে সরকার মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে: রেলমন্ত্রী
                                  

রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, দেশের বৃহত্তম রেলওয়ে কারখানা আধুনিকায়ন করা হবে। সেই সঙ্গে রেলের শূন্য পদ পূরণ করা হবে। রেলের প্রয়োজনে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ করা হবে। গতকাল শনিবার বিকেলে নীলফামারীর সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানায় বাংলাদেশ রেলওয়ের রেলপথ, সেতু, সিগন্যালিং ও রোলিং স্টক রক্ষণাবেক্ষণ এবং ট্রেন পরিচালনা বিষয়ক কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, সরকার রেলের উন্নয়নে মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। যাত্রী সাধারণের কথা বিবেচনায় নিয়ে নতুন নতুন রেলপথ বসছে। এসময় তিনি আমদানি নির্ভরতা কমানোর জন্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আরও আন্তরিকভাবে কাজ করার আহ্বান জানান। মন্ত্রী আরও বলেন, যারা রেলের জমি লিজ নিয়ে খাজনা দিচ্ছে না এবং রেলভূমিতে অবৈধভাবে স্থাপনা তৈরি করে বসবাস করছেন অথবা ব্যবসা করছেন তাদের উচ্ছেদ করা হবে। কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. শামছুজ্জামান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- নীলফামারীর জেলা প্রশাসক মো. হাফিজুর রহমান চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন- পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক মো. হারুন-অর-রশীদ। মন্ত্রী প্রথমে রেলওয়ে অফিসার্স ক্লাবে এসে পৌঁছলে রেলওয়ে জেলা পুলিশের একটি দল গার্ড অব অনার দেন। এতে নেতৃত্ব দেন রেলওয়ে জেলার পুলিশ সুপার সিদ্দিকী তাঞ্জিলুর রহমান। এর আগে, সকালে মন্ত্রী দিনাজপুরের পার্বতীপুরে মধ্যপাড়া পাথর খনি পরিদর্শন করেন। তিনি পাথর খনি কর্তৃপক্ষের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে বাংলাদেশ রেলপথে মধ্যপাড়ার পাথর পরিবহন ও ব্যবহারের সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা করেন।

 

বরিশালে ছিনতাই হওয়া পাঁচ মণ ইলিশসহ গ্রেফতার ৩
                                  

পটুয়াখালীর মহিপুর থেকে গোপালগঞ্জ যাওয়ার পথে বরিশাল-ঢাকা মহাসড়ক থেকে ছিনতাই হওয়া পাঁচ মণ ইলিশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় ছিনতাইয়ের ঘটনায় ব্যবহৃত দুইটি পিকআপভ্যান ও ঘটনার সাথে জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো-পিকআপভ্যানের মালিক বিশ্বজিৎ সরকার, পিকআপ ভ্যানচালক তাপস সরকার ও তাদের সহযোগি মনিরুজ্জামান।

ঘটনার সাথে জড়িত মুন্না মোল্লা ওরফে নুরে আলম এবং রাশেদকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুর ১২টায় বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনারের (উত্তর) কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন উপ-পুলিশ কমিশনার মোঃ মোকতার হোসেন। তিনি জানান, মাছ ছিনতাইয়ের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার বাদী জালাল উদ্দিন পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর বন্দর থেকে দেড়লাখ টাকা মূল্যের ৫ মণ ইলিশ মাছ ক্রয় করেন। মৎস্য ব্যবসায়ী জালাল ও তার শ্যালক এলাহি ইসলাম গত ১০ সেপ্টেম্বর ইলিশগুলো একটি পিকআপ ভ্যান ভাড়া করে গোপালগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়।

ওই পিকআপভ্যানচালক তাপস ১১ সেপ্টেম্বর ভোরে গাড়িটি বরিশাল এয়ারপোর্ট থানাধীন অমৃত গুড়া মসলার ফ্যাক্টরির সামনের ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের পাশে থামায়। এ সময় সেখানে মোটরসাইকেলে করে পলাতক আসামি মুন্না মোল্লা ওরফে নুরে আলম ও গ্রেফতারকৃত মনিরুজ্জামান হাজির হন। ঘটনার সময় গ্রেফতারকৃত অপর আসামি বিশ্বজিৎ সরকার পাশের রাস্তার মোড়ে অবস্থান নেয়। পরে তারা ইলিশবহনকারী পিকআপ ভ্যানটিকে চালক তাপসের সহায়তায় মহাসড়কের পাশের শাখা রোডে নিয়ে যায় এবং মৎস্য ব্যবসায়ী জালাল ও তার শ্যালককে পিকআপ ভ্যান থেকে নামিয়ে মারধর করেন।

একপর্যায়ে তাদের হত্যার হুমকি দিয়ে অন্য একটি পিকআপ ভ্যান এনে আসামিরা ইলিশগুলো নিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। বিষয়টি ১২ সেপ্টেম্বর এয়ারপোর্ট থানাকে অবহিত করার পর পুলিশের তিনটি দল অভিযানে নেমে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই তিনজনকে গ্রেফতার ও ছিনতাই হওয়া ৫ মণ ইলিশ উদ্ধার করেন। আদালতের মাধ্যমে ছিনতাই হওয়া মাছগুলো ব্যবসায়ীদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মোঃ মোকতার হোসেন।

 

সবার আস্থা ও গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছে ফায়ার সার্ভিস: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী
                                  

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি বলেন, ফায়ার সার্ভিস সবার আস্থা ও গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছে। মানুষের জানমাল রক্ষা করায় হলো ফায়ার সার্ভিসের প্রধান কাজ। অগ্নি কান্ড, দুর্ঘটনা, নৌডুবিসহ বিভিন্ন দুর্যোগ মোকাবেলায় ফায়ার সার্ভিস কাজ করে ইতিমধ্যেই প্রশংসিত হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস দক্ষতার সাথে সেবা পৌঁছে দিচ্ছে। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে বহুতল ভবনের যে কোনো দুর্যোগ মোকাবেলায় সক্ষম হচ্ছে ফায়ার সার্ভিস। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এখন বহুমাত্রিক সেবাকাজে নিয়োজিত।

গতকাল শনিবার বেলা ১১টায় এক কোটি ৬৫ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নির্মিত রাজশাহীর বাঘা উপজেলার বাঘা-আড়ানী সড়কের তেঁথুলিয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ফলক প্রতিস্থাপন কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যেকালে তিনি এ কথা বলেন। আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাজশাহীর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক নূরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাঘা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আ.লীগের যুগ্ম সম্পাদক এ্যাড. লায়েব উদ্দিন লাভলু, বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা, রাজশাহী গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদ রানা, সহকারি পরিচালক আবদুর রশিদ। ওয়ার হাউজ ইন্সপেক্টর ফারুক হোসেনের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন বাউসা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান শফিক, ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম টগর, সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেন প্রমুখ। এ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন এক কোটি ৬৫ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নির্মান করা হয়েছে।

অপর দিকে বাঘা সদরে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে ভবনের উদ্বোধন করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা। বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড. লায়েব উদ্দিন লাভলু, মুক্তিযোদ্ধা আাবদুল খালেক, মুক্তিযোদ্ধা জনাব আলী। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, সাবেক চেয়ারম্যান শফিউর রহমান শফিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

পরিবেশ দূষণের প্রভাব বিবেচনায় নিয়ে গাড়ি আমদানীর ক্ষেত্রে ট্যাক্স নির্ধারণের প্রস্তাব
                                  

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভায় পরিবেশ দূষণের প্রভাব বিবেচনায় নিয়ে গাড়ি আমদানীর ক্ষেত্রে ট্যাক্স নির্ধারণের প্রস্তাবনা তৈরী করতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে পরামর্শ দেয়া হয়েছে। কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরীর সভাপতিত্বে গতকাল শনিবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সভায় এ পরামর্শ দেয়া হয়।সভায় আগামি নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসের মধ্যে এ প্রস্তাবনা তৈরী করে অর্থ মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের উদ্যোগ নেয়ার সুপারিশ করা হয়। কমিটির সদস্য পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন, উপমন্ত্রী হাবিবুর নাহার, মোঃ মোজাম্মেল হোসেন, দীপংকর তালুকদার, নাজিম উদ্দিন আহমেদ, জাফর আলম, মোঃ রেজাউল করিম বাবলু এবং খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেন সভায় অংশগ্রহণ করেন।

সভায় বঙ্গবন্ধু কনজারভেশন করিডোর, সিএএসই প্রকল্পের খাতওয়ারী ব্যায়ের চিত্র উপস্থাপন, ঝটঋঅখ প্রকল্পের পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা এবং প্রকল্পের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। কমিটি আমিন বাজারের ডাম্পিং স্টেশনের সমস্যা নিরসনে জরুরী ভিত্তিতে কার্যকর ব্যবস্থা হিসেবে বন্ধ করার নোটিশ প্রদানসহ সর্বোচ্চ জরিমানা আরোপের সুপারিশ করে। কমিটি বিশুদ্ধ বায়ু এবং টেকসই পরিবেশ (সিএএসই) প্রকল্পের খাতওয়ারী ব্যায়ের চিত্র অসম্পূর্ণ এবং ভুল হওয়ায় পরবর্তী সভায় সঠিক তথ্য উপস্থাপনের সুপারিশ করে।

সভায় টেকসই বনায়ন এবং জীবনযাত্রা (এসইউএফএএল) প্রকল্প সময় অনুযায়ী সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে প্রাক পরিকল্পনা তৈরীসহ একটা সুষ্ঠু প্রশিক্ষণ মডিউল তৈরী করতে মন্ত্রণালয়কে উদ্যোগ নেয়ার সুপারিশ করা হয়। পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বিএফআইডিসির চেয়ারম্যানসহ মন্ত্রণালয় ও সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

 

নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশ: ৮৫ শতাংশ বৃদ্ধি করে নতুন বেতন কাঠামো
                                  

সংবাদপত্র কর্মীদের বেতন-ভাতা সর্বোচ্চ ৮৫ শতাংশ বাড়িয়ে নবম ওয়েজবোর্ডের (নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড রোয়েদাদ, ২০১৯) গেজেট প্রকাশ করেছে সরকার। গত বৃহস্পতিবারের গেজেটটি গতকাল শনিবার প্রকাশ করা হয়। নতুন বেতন কাঠামো অনুযায়ী বেতন-ভাতা আগের তুলনায় ৮০ থেকে ৮৫ শতাংশ বেড়েছে। নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড অষ্টম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ডের মতো পাঁচটি শ্রেণিতে সংবাদপত্র ও সংবাদ সংস্থা বিন্যাস করেছে। অষ্টম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ডের মতো শ্রেণিবিন্যাসে সংবাদপত্র ও সংবাদ সংস্থার বার্ষিক গ্ৰস আয় ও প্রচার সংখ্যার ভিত্তি অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে।

তবে নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড বার্ষিক গ্রস আয় ও প্রচার সংখ্যা ছাড়াও দৈনিক সংবাদপত্র প্রতিষ্ঠানে জনবল এবং দৈনিক পত্রিকার পৃষ্ঠার সংখ্যা ভিত্তি হিসেবে সংযোজন করেছে। নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ডের চেয়ারম্যান গত বছরের ১ মার্চ থেকে নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ডের রোয়েদাদ ঘোষণা পর্যন্ত সংবাদপত্র ও সংবাদ সংস্থায় নিয়োজিত সাংবাদিক, সাধারণ কর্মচারী ও প্রেস শ্রমিকদের মূল বেতনের ওপর ৪৫ শতাংশ হারে অন্তর্বর্তীকালীন মহার্ঘ ভাতা সুপারিশ করেছি, যা পরবর্তীতে নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড রোয়েদাদের সাথে অন্তর্ভুক্ত হবে বলে সুপারিশ করেছে বলে গেজেটে উল্লেখ করা হয়েছে। নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড রোয়েদাদের গেজেট নোটিফিকেশনের দিন থেকে তা কার্যকর হবে। সংবাদপত্র ও বার্তা সংস্থার কর্মীদের জন্য নতুন বেতন কাঠামো নির্ধারণের জন্য গত বছরের ২৯ জানুয়ারি নবম মজুরি বোর্ড গঠন করা হয়।

১৩ সদস্যের এই বোর্ডে চেয়ারম্যান সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. নিজামুল হক। এ ছাড়া সংবাদপত্র প্রতিষ্ঠানের মালিকপক্ষ এবং সাংবাদিক ও সংবাদপত্র কর্মচারী বা শ্রমিকদের প্রতিনিধিত্বকারী সমসংখ্যক প্রতিনিধিও ছিলেন ওয়েজবোর্ডে। সরকারের কাছে সুপারিশ দিতে বোর্ডকে ছয় মাস সময় দেয়া হয়েছিল। পরে নবম মজুরি বোর্ডের মেয়াদ আরও তিন মাস বাড়ানো হয়। গত বছরের ১১ সেপ্টেম্বর নবম বেতন কাঠামো চূড়ান্ত করার আগে প্রতি মাসের মূল বেতনের ওপর ৪৫ শতাংশ হারে মহার্ঘ ভাতা ঘোষণা করে সরকার। এ মহার্ঘ ভাতা ২০১৮ সালের ১ মার্চ থেকে কার্যকর ধরা হয়। এ মহার্ঘ ভাতা বোর্ডের নির্ধারিত সামগ্রিক বেতন কাঠামোর সঙ্গে সমন্বিত হবে। ২০১৮ সালের ৪ নভেম্বর সচিবালয়ে তখনকার তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর কাছে ‘নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড রোয়েদাদ ২০১৮’ সুপারিশমালা জমা দেন বোর্ডের চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. নিজামুল হক। পরে গত বছরের ৩ ডিসেম্বর নবম ওয়েজবোর্ডের সুপারিশ মন্ত্রিসভা বৈঠকে উপস্থাপন করা হয়।

ওই দিনই নতুন এই বেতন কাঠামো পরীক্ষা করে বাস্তবায়নের সুপারিশ দিতে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরকে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট মন্ত্রিসভা কমিটি গঠন করা হয়। নতুন সরকার গঠিত হলে চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি মন্ত্রিসভা বৈঠকে ‘৯ম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড রোয়েদাদ, ২০১৮’ পরীক্ষায় ইতোপূর্বে গঠিত মন্ত্রিসভা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। পুনর্গঠিত সাত সদস্যের মন্ত্রিসভা কমিটির আহ্বায়ক করা হয় ওবায়দুল কাদেরকে।

সৈয়দ আশরাফের অসমাপ্ত কাজ বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর
                                  

কিশোরগঞ্জের কৃতিসন্তান আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের অসমাপ্ত কাজগুলো বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। গতকাল শুক্রবার সকালে কিশোরগঞ্জের কালেক্টরেট সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় তিনি এ প্রতিশ্রুতি দেন। প্রতিমন্ত্রী বলেন, কিশোরগঞ্জ রেলওয়ে অঞ্চলের মানোন্নয়নে সহযোগিতা করা হবে, যাতে এ অঞ্চলের মানুষ নিরাপদে ও আরামদায়ক ভ্রমণ করতে পারেন। নরসুন্দা নদীর সৌন্দর্য বর্ধনসহ ঢাকা-কিশোরগঞ্জের মধ্যে চলাচলকারী আরও একটি ভালো মানের আন্তঃনগর ট্রেন চালু করার বিষয়টি তিনি সভায় উল্লেখ করেন।

জেলা প্রশাসক (ডিসি) সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন- পুলিশ সুপার (এসপি) মাশরুকুর রহমান খালেদ, সিভিল সার্জন ডা. হাবিবুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আব্দুল্লাহ আল-মাসউদ, অতিরিক্ত জেল প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও জিপি বিজয় শংকর রায়, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এমএ আফজল, কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পারভেজ মিয়া, কিশোরগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হাবিবুর রহমান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মশিউর রহমান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আসাদ উল্লাহ, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক বিলকিছ বেগম, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বাচ্চু প্রমুখ।

সভা শেষে চাচা শ্বশুর সৈয়দ নজরুল ইসলামের যশোদলের বাড়ি সংলগ্ন মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন এবং শাশুড়ি সৈয়দা আমেনা খাতুনের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে যোগ দেন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। বিকেলে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে গুণিজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি যোগ দেবেন। এছাড়াও রাতে কিশোরগঞ্জ সার্কিট হাউসে জেলায় কর্মরত বিসিএস প্রশাসন ক্যাডার কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় ও নৈশভোজে যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে তার।

 

 সুষ্ঠু শ্রম অভিবাসনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সংশ্লিষ্টদের ঐক্য চান প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী
                                  

 প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেছেন, সুষ্ঠু শ্রম অভিবাসনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সংশ্লিষ্ট সকলকে এক হয়ে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, তা না হলে আমাদের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা ব্যাহত হতে পারে।

মন্ত্রী গতকাল শুক্রবার সকালে হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার ‘দ্যা প্যালেস’ রিসোর্টে ‘বাংলাদেশে অভিবাসন ব্যবস্থাপনায় কৌশলগত পরামর্শ : প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। নিরাপদ, নিয়মিত, সুশৃংখল, দায়িত্বশীল অভিবাসনের লক্ষ্য পূরণই বর্তমান সরকারের অঙ্গীকার এ কথা উল্লেখ করে ইমরান আহমদ বলেন, এ বিষয়ে সরকার ইতোমধ্যে অনেকগুলো উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এর সুফল আমরা পেতে শুরু করেছি। তিনি বলেন, ২০১৭ সালে ১০ লাখ লোক বিদেশে প্রেরণ করা হয়েছে। এ বৎসর এখন পর্যন্ত ৪ লাখ ৭০ হাজারের মত লোক বিদেশে গেছে। সরকার এখন চায় দক্ষ জনশক্তি প্রেরণ করতে। তাই যারা বিদেশে যেতে চায় তাদের জন্য বিশেষ প্রশিক্ষণেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, বিদেশে যাতে আমাদের লোকজন নিরাপদে থাকে এবং দেশের ভাবমূর্তি উন্নত হয় তার জন্যও কাজ করছে সরকার।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব রৌনক জাহান, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক মো. সেলিম রেজা, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন, যুগ্মসচিব নাসরীন জাহান, আইওএম বাংলাদেশ’র চিফ অব মিশন গিওর্গি গিগারিও, আইওএম বাংলাদেশ’র হেড অফ মাইগ্রেশন এ- ডেভেলপমেন্ট প্রাভিনা গুরুং প্রমুখ অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এবং আইওএম’র কর্মকর্তারা এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

 

দেশের ৯২ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছে: স্পিকার
                                  

 দেশের ৯২ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছে বলে জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সময়ে দেশের দারিদ্র্যের হার ৪০ শতাংশ থেকে ২১ শতাংশে নিয়ে আসা হয়েছে। সাড়ে ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের স্থলে বর্তমানে ২৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদিত হচ্ছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট, মন্দির-মসজিদ সর্বক্ষেত্রেই উন্নয়ন হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টায় দিনাজপুর গোড়-এ শহীদ বড় ময়দানে মুক্তিযুদ্ধের পশ্চিমাঞ্চলীয় জোনের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ সংবিধান প্রনয়ন কমিটিটর সদস্য ও বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর জননেতা এম. আবদুর রহিমের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি কথাগুলো বলেন। শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, আব্দুর রহিমের মতো ত্যাগী মানুষÑযিনি নিজের জীবনকে তুচ্ছ করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে থেকে স্বাধীন দেশ উপহার দিয়েছেন; সেই দেশকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে নিয়ে যেতে সবাইকে কাজ করতে হবে।

এম. আবদুর রহিম সমাজকল্যাণ ও মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্রের আয়োজনে ও সংগঠনটির সভাপতি অ্যাড. আজিজুল ইসলাম জুগলুর সভাপতিত্বে সভায় অন্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক নঈম নিজাম, একাত্তর টিভির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক বাবু, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ইনায়েতুর রহিম, জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম, জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম, বিশ্বজিৎ ঘোষ কাঞ্চন প্রমুখ।

 

সারাদেশে স্বাভাবিকভাবেই সার-বীজ বিতরণ হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী
                                  

সার ও বীজ বিতরণে মুনাফার লোভে ব্যবসায়িরা ছোটখাটো দুর্নীতি করতে পারে। তবে সারাদেশে স্বাভাবিকভাবেই সার-বীজ বিতরণ হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে মন্ত্রীদের জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তরপর্বে আওয়ামী লীগের সদস্য আবু জাহিরের এক সম্পূরক প্রশ্নের উত্তরে কৃষিমন্ত্রী এ তথ্য জানান। এ সময় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন। আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বিএনপির দুই মেয়াদে সার নিয়ে অমানবিকভাবে দুর্নীতি হয়েছে। যার ফলে সফল উৎপাদন কমে গিয়েছিল। ৯৫ সালে সারের দাবি জানালে ১৮ জন কৃষককে হত্যা করা হয়। এরপর আবার ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসার পর ৫ বছরই সারের সংকট ছিল।

আমরা ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর ৭ জানুয়ারি আমাদের মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকেই তৎকালীন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী সারের দাম কমানোর এজেন্ডা এনেছিলেন। তখন সারের দাম কমানো হয়। ৭২ টাকার টিএসপি কমিয়ে ২২ টাকা, ৯০ টাকার ডিএসপি কমিয়ে ২৫ টাকা করা হয়। ৬০ টাকার পটাশ কমিয়ে ১৫ টাকা করা হয়। এখনও সেই ১৫ টাকায়ই বিক্রি হচ্ছে। আমরা এক পয়সাও সারের দাম বাড়াইনি। সারের জন্য কৃষককে মেম্বারের কাছে, ডিলারের কাছে দৌড়াতে হয় না। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের যারা সার বিতরণের সঙ্গে জড়িত তারা যথেষ্ট সতর্ক। যেভাবে বলা হচ্ছে এক শ্রেণীর ব্যবসায়ী প্রতারণা করে। আমি বলবো প্রতারণা অনেক কমে গেছে।

ফলে কৃষক ঠিকমতো সার ও বীজ পাচ্ছে, উৎপাদন বেড়েছে। মন্ত্রী আরও বলেন, গত মৌসুমে আমাদের ধান উৎপাদনের টার্গেট ছিল ১ কোটি ৪০ লাখ। কিন্তু উৎপাদন হয়েছে ১ কোটি ৫২ লাখ। ছোটখাটো অনিয়ম-দুর্নীতি হতে পারে, ব্যবসায়িরা মুনাফার লোভে এটা করতে পারে। তবে সারাদেশে স্বাভাবিকভাবেই সার-বীজ বিতরণে হচ্ছে। ফলে উৎপাদন বেড়েছে।

প্রতিটি ইউনিয়নে ভূমি অফিস ভবন নির্মাণ করা হবে: ভূমিমন্ত্রী
                                  

ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জানিয়েছেন, দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে ভূমি অফিস ভবন নির্মাণের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সংসদে বিরোধী দলের সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার তারকা চিহ্নিত এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী একথা জানান।

সাইফুজ্জামান চৌধুরী জানান, ‘সমগ্র দেশে শহর ও ইউনিয়ন ভূমি অফিস নির্মাণ প্রকল্পে’-এর আওতায় দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে একটি করে ভূমি অফিস ভবন নির্মাণের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। পর্যায়ক্রমে সকল ইউনিয়নে একটি করে একটি করে ভূমি অফিস নির্মাণ করা হবে। এ ছাড়া প্রতি বছর জরাজীর্ণ ইউনিয়ন ভূমি অফিসসমূহ পর্যায়ক্রমে মেরামত হরা হচ্ছে।

ড্রোন আমদানির নীতিমালা করছে সরকার: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী
                                  

ড্রোন আমদানি ও পরিচালনার নীতিমালা করছে সরকার। এই নীতিমালা তৈরির কাজ চূড়ান্ত পর্যায়ে। নীতিমালা হলে সরকারের কাছে ড্রোন সংক্রান্ত তথ্য সংরক্ষিত থাকবে বলে জানিয়েছেন বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে মন্ত্রীদের জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের এক প্রশ্নের উত্তরে প্রতিমন্ত্রী একথা জানান।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী বলেন, বর্তমানে দেশে ড্রোনের সংখ্যা নিরূপিত হয়নি। সমগ্র বিশ্বে ড্রোন একটি নতুন বিষয়। বিশ্বের অন্য দেশের মতো ড্রোন পরিচালনা ও আমদানির বিষয়ে সুস্পষ্ট নীতিমালা প্রস্তুতের লক্ষ্যে বেসামারিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য মন্ত্রণালয় ও দপ্তর/সংস্থা কাজ করছে। নীতিমালা প্রকাশের পর রাষ্ট্রীয়ভাবে সরকারের কাছে ড্রোন সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য সংরক্ষিত থাকবে বলে আশা করা যায়। তিনি বলেন, সম্প্রতি দেখা যায়, কিছু উৎসাহী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান বিনা অনুমতিতে বাংলাদেশের আকাশসীমায় আনম্যান্ড এরিয়েল ভেহিক্যাল সিস্টেম (ইউএভি/ইউএএস), রিমোট কন্ট্রোল প্লেন অথবা খেলনা প্লেন প্রভৃতি উড্ডয়ন পরিচালনা করছে। এসব অনুমোদিত উড্ডয়নের ফলে নিয়মিত উড্ডয়নকারী বিভিন্ন অনুমোদিত দেশি-বিদেশি প্লেন, হেলিকপ্টার ও দ্রুতগতি সম্পন্ন সামরিক বিমানের সঙ্গে আকস্মিক দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

বাংলাদেশে আনম্যান্ড ভেহিক্যাল সিস্টেম (ইউএভি/ইউএএস) বা রিমোট দিয়ে পরিচালিত প্লেন বা ড্রোনের ব্যবহার দিন দিন বাড়ছে। এ কারণে ইউএভি/ইউএএস পরিচালনার ক্ষেত্রে একটি সুনির্দিষ্ট নীতিমালার প্রয়োজনীয়তা বেবিচক তথা সরকার অনুভব করেছে। সে মোতাবেক ড্রোন নীতিমালা প্রস্তুতের লক্ষ্যে মন্ত্রণালয় ও সংস্থার কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত কমিটি কাজ করছে, যা বর্তমানে চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। ওই নীতিমালায় ড্রোনের আকার, রেজিস্ট্রেশন ও উড্ডয়ন সংক্রান্ত তথ্যাদিসহ অন্যান্য বিষয়ও অন্তর্ভুক্ত থাকবে।

 

মাতৃত্বকালীন ছুটি ৬ মাস থেকে ৮ মাস করা হবে: ডেপুটি স্পিকার
                                  

 ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বি মিয়া বলেছেন, শিগগিরই মাতৃত্বকালীন ছুটি ৬ মাস থেকে বাড়িয়ে ৮ মাসে করা হবে। তিনি বলেন, শিশুদের বেড়ে উঠতে তার যতেœ যেন কোন ঘাটতি না হয় সে লক্ষ্যে বর্তমান সরকারের মাতৃত্বকালীন ছুটি বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের আইপিডি সম্মেলন কক্ষে শিশু অধিকার বিষয়ক সংসদীয় ককাস ও চাইল্ড রাইটস অ্যাডভোকেসি কোয়ালিশন ইন বাংলাদেশ আয়োজিত ‘বর্তমান শিশু অধিকার পরিস্থিতি ও করণীয়’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ডেপুটি স্পিকার এ কথা বলেন।

তিনি বলেন,একজন মা যেনো গর্ভবতী হওয়ার দিন থেকেই সকল বাধা অতিক্রম করতে পারে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন।প্রধানমন্ত্রীর এ দৃঢ় পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ও শিশু অ্যাডভোকেসির জন্য তৃণমুল থেকে সাংসদ পর্যন্ত সকলকে এক যোগে কাজ করতে হবে বলেও জানান তিনি। ডেপুটি স্পিকার বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলতেন ‘শিশু বাঁচলে জাঁতি বাঁচবে’। তাই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে হলে আমাদের দেশের শত্রুদের চিহ্নিত করে শিশুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। শিশুদের প্রতি জাতির জনকের যে অবদান তা আমরা আজও ছাপিয়ে যেতে পারিনি। শিশুদের উন্নয়নে বর্তমান সরকারের নানা অবদান তুলে ধরে তিনি বলেন,শিশু পাচারের পরিমাণ উল্লেথযোগ্য হারে কমে এসেছে,প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বাচ্চাদের ঝড়ে পড়ার হার ৫ শতাংশে নেমে এসেছে।

শিশু অধিকার বিষয়ক সংসদীয় ককাসের সভাপতি সংসদসদস্য মোঃ শামসুল হক টুকুর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় সংসদ সদস্য ডাঃ সামিল উদ্দিন আহম্মেদ শিমুল, মোঃ আছলাম হোসেন সওদাগর, অ্যারমা দত্ত, উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম, আদিবা আনজুম মিতাসহ সেভ দ্য চিলড্রেন, আইন ও সালিশ কেন্দ্র, একশন এইড ও প্লান এর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

দেশের প্রথম সৌরবিদ্যুৎকেন্দ্রের যাত্রা শুরু
                                  

 কর্ণফুলীতে বাঁধ দিয়ে যেখানে দেশের একমাত্র জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের যাত্রা শুরু হয়েছিল, সেই কাপ্তাই থেকেই প্রায় ছয় দশক পর জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হচ্ছে সৌর বিদ্যুৎ। সরকারিভাবে স্থাপিত কোনো সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে জাতীয় গ্রিডে বিদ্যুৎ সরবরাহের ঘটনা দেশে এটাই প্রথম বলে কর্ণফুলী জল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক এটিএম আব্দুজ্জাহের জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল বুধবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ‘কাপ্তাই ৭.৪ মেগাওয়াট সোলার পিডি গ্রিড কানেকটেড বিদ্যুৎকেন্দ্রের’ উদ্বোধন করেন। সরকার ২০২০ সালের মধ্যে দেশের মোট উৎপাদিত বিদ্যুতের ১০ শতাংশ সৌরশক্তি থেকে পাওয়ার পরিকল্পনা করেছে। এরই অংশ হিসেবে দেশের বিভিন্ন স্থানে চলছে সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের কাজ।

এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংক-এডিবির সহযোগিতায় প্রায় ৭৭ কোটি টাকা ব্যয়ে কাপ্তাইয়ে সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্রে নির্মাণের জন্য চীনের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান জেডটিই করপোরেশনের সঙ্গে ২০১৭ সালের ৯ জুলাই চুক্তি করে পিডিবি। এরপর রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় ১৯৬২ সালে গড়ে তোলা কর্ণফুলী জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান বাঁধ সংলগ্ন ২৩ একর খালি জায়গায় শুরু হয় সারি সারি সৌর প্যানেল বসানোর কাজ। কর্ণফুলী জল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক এটিএম আব্দুজ্জাহের বলেন, মে মাস থেকে তারা পরীক্ষামূলকভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদন করছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর এখন জাতীয় গ্রিডে আনুষ্ঠানিক সরবরাহ শুরু হচ্ছে। এ প্রকল্প থেকে প্রতি কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে ৫ টাকা ৪৮ পয়সা ব্যয় ধরা হয়েছে বলে জানান ব্যবস্থাপক। আগামী দুই বছর এ বিদ্যুৎকেন্দ্রের সার্বিক দায়িত্ব থাকবে জেডটিইর হাতে। পরে তা কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে। জেডটিইর প্রকৌশলী মো. আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, মোট ২৪ হাজার ১২টি সৌর প্যানেল থেকে এ প্রকল্পে বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে।

ইনভার্টার রয়েছে ২৪০টি। মোট উৎপাদন ক্ষমতা ৭.৪ মেগাওয়াট, তবে আবহাওয়া অনুযায়ী উৎপাদন কমবেশি হবে। পরীক্ষামূলক উৎপাদনে এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৬ দশমিক ৫ মেগাওয়াট পাওয়া গেছে। এই সৌর প্যানেলগুলোর মেয়াদ ২৫ বছর। আর ইনভার্টারের ১০ বছর ওয়ারেন্টি। এরপর পরিবর্তন করে উৎপাদন চালিয়ে নেওয়া যাবে বলে জানান সিদ্দিক। কর্ণফুলী জল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপক আব্দুজ্জাহের জানান, এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের অর্থায়নে কাপ্তাই হ্রদে ৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতার আরও একটি সৌর বিদ্যুৎ প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে।

 

 

নৌপথ খননের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী খুবই আন্তরিক: খালিদ মাহমুদ
                                  

নৌপথ খনন কাজের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুবই আন্তরিক বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেছেন, খনন কাজে তদারকি আরও জোরদার করতে হবে। পাশাপাশি দাফতরিক কাজে আরও গতিশীলতা আনতে হবে। গতকাল বুধবার সচিবালয়ে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) উন্নয়ন, আর্থিক ও প্রশাসনিক সভায় এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। সভায় জানানো হয়, বিআইডব্লিউটিএ ২০১৮-১৯ অর্থবছরে প্রায় ২৪৪ কোটি টাকা আয় করেছে।

ঢাকার চারপাশে নদীর সীমানা পিলার স্থাপন, ওয়াকওয়ে নির্মাণ কাজ তরান্বিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করে জানানো হয় যে, কামরাঙ্গীরচর ও রামচন্দ্রপুরে সীমানা পিলার স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে। নদী তীরে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও বর্জ্য উত্তোলনের জন্য ছয়টি নতুন এক্সাভেটর সংগ্রহ করা হয়েছে। নদীকে দূষণমুক্ত করতে ‘রিভার ক্লিনার ভেসেল’ সংগ্রহ করা হবে। নৌপথ খননে আরও ড্রেজিং সংগ্রহের কাজ চলমান রয়েছে।

এছাড়া জামালপুরের বাহাদুরাবাদঘাট ও গাইবান্ধার বালাশীঘাটের মধ্যে দ্রুত ফেরি সার্ভিস চালু করা, শূন্যপদে জনবল নিয়োগ, চিলমারী নদীবন্দরসহ অন্যান্য নদীবন্দর ও ঘাটগুলোর উন্নয়ন কাজ দ্রুত শেষ করার বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়। সভায় অন্যান্যের মধ্যে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ভোলা নাথ দে এবং বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর এম মাহবুব-উল-ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে চীনের ভূমিকা আরও জোরালো হবে: চীনা রাষ্ট্রদূত
                                  

রোহিঙ্গাদের শান্তিপূর্ণ প্রত্যাবাসনে চীনের ভূমিকা আরও জোরালো হবে বলে জানিয়েছেন চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং। গতকাল বুধবার জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী’র সাথে তার কার্যালয়ে চীনের রাষ্ট্রদূত সৌজন্য সাক্ষাৎ করেতে এলে এই কথা জানান। বাংলাদেশকে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বন্ধুপ্রতীম দেশ হিসেবে অভিহিত করে চীনের রাষ্ট্রদূত বলেন, পারস্পারিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রতিবেশী দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। আঞ্চলিক সংযোগ বৃদ্ধি এ অঞ্চলের সকল দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি বয়ে আনবে। সাক্ষাৎকালে তারা রোহিঙ্গাদের শান্তিপূর্ণ নিরাপদ প্রত্যাবাসন, বাংলাদেশে বিনিয়োগ ও দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের প্রসার নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন।

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে চীনের আরও শক্তিশালী ভূমিকা রাখা দরকার উল্লেখ করে স্পিকার বলেন, রোহিঙ্গা নাগরিকরা যাতে নির্ভয়ে নিজ দেশে স্থায়ী ও শান্তিপূর্ণভাবে প্রত্যাবর্তন করতে পারে সেটা নিশ্চিত করে মানবিক এ সমস্যা সমাধানে চীনকে ভূমিকা রাখতে হবে। চীনের সাথে বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে স্পিকার শিরীন শারমিন বলেন, বাংলাদেশের সাথে চীনের এ সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরও জোরদার করা হবে। বাংলাদেশের অন্যতম উন্নয়ন অংশীদার চীন। এ সময়ে স্পিকার বাংলাদেশের অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও বাণিজ্যে চীনের ভূমিকার প্রশংসা করেন এবং সকল সহযোগিতা অব্যাহত রাখার অনুরোধ জানান। পদ্মা ব্রীজ বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের নতুন দিগন্তের সূচনা করবে উল্লেখ করে শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, চীনের কারিগরি সহায়তা নিয়ে পদ্মা ব্রীজ নির্মিত হচ্ছে।

রাজধানীর সাথে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের যোগাযোগ বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে চীন বেশ আন্তরিক। ভবিষ্যতে দু’দেশের সংসদ সদস্যদের সফর বিনিময় এ সম্পর্কে নতুন মাত্রা যোগ করবে। চীন সফরের স্মৃতিচারণ করে স্পিকার বলেন, ওই সফরে ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেস অব চীনের স্পিকার তাঁকে বেইজিং এ উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান। এসময় বাংলাদেশস্থ চীন দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং সংসদ সচিবালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


   Page 1 of 374
     জাতীয়
কোটি টাকা ঘুষ দিয়েও প্রাথমিকের শিক্ষক হওয়া সম্ভব নয়: ফিজার
.............................................................................................
রেলের উন্নয়নে সরকার মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে: রেলমন্ত্রী
.............................................................................................
বরিশালে ছিনতাই হওয়া পাঁচ মণ ইলিশসহ গ্রেফতার ৩
.............................................................................................
সবার আস্থা ও গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছে ফায়ার সার্ভিস: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
পরিবেশ দূষণের প্রভাব বিবেচনায় নিয়ে গাড়ি আমদানীর ক্ষেত্রে ট্যাক্স নির্ধারণের প্রস্তাব
.............................................................................................
নবম ওয়েজবোর্ডের গেজেট প্রকাশ: ৮৫ শতাংশ বৃদ্ধি করে নতুন বেতন কাঠামো
.............................................................................................
সৈয়দ আশরাফের অসমাপ্ত কাজ বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর
.............................................................................................
 সুষ্ঠু শ্রম অভিবাসনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সংশ্লিষ্টদের ঐক্য চান প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী
.............................................................................................
দেশের ৯২ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছে: স্পিকার
.............................................................................................
সারাদেশে স্বাভাবিকভাবেই সার-বীজ বিতরণ হচ্ছে: কৃষিমন্ত্রী
.............................................................................................
প্রতিটি ইউনিয়নে ভূমি অফিস ভবন নির্মাণ করা হবে: ভূমিমন্ত্রী
.............................................................................................
ড্রোন আমদানির নীতিমালা করছে সরকার: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
মাতৃত্বকালীন ছুটি ৬ মাস থেকে ৮ মাস করা হবে: ডেপুটি স্পিকার
.............................................................................................
দেশের প্রথম সৌরবিদ্যুৎকেন্দ্রের যাত্রা শুরু
.............................................................................................
নৌপথ খননের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী খুবই আন্তরিক: খালিদ মাহমুদ
.............................................................................................
রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে চীনের ভূমিকা আরও জোরালো হবে: চীনা রাষ্ট্রদূত
.............................................................................................
প্রতিবন্ধী, বেদে ও হিজড়াদের ঘর দেবে সরকার: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
জাতির প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে দিনরাত পরিশ্রম করছি: সংসদে প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
বিশ্বের শীর্ষ নারী নেত্রীদের তালিকায় শেখ হাসিনা
.............................................................................................
নিরাপদ পানি ও স্যানিটেশন সমস্যার সমাধানে সরকার বদ্ধপরিকর: পরিকল্পনামন্ত্রী
.............................................................................................
রাষ্ট্রপতির সঙ্গে কেনিয়ার হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ
.............................................................................................
সংসদে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি বিএনপি’র এমপি হারুনের কৃতজ্ঞতা
.............................................................................................
সংসদে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট (সংশোধন) বিল, ২০১৯ উত্থাপন
.............................................................................................
শিক্ষাখাতে অনিয়মকারীদের চিহ্নিত করে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
সরকার পাট খাতের সমস্যা সমাধানে সচেষ্ট: পাটমন্ত্রী
.............................................................................................
প্রয়োজনে অবৈধ দখল উচ্ছেদ করা হবে: রেলমন্ত্রী
.............................................................................................
সংসদ অধিবেশন শুরু, চলবে ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত
.............................................................................................
নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে সচেতনতার পাশাপাশি প্রয়োজন সুশাসন
.............................................................................................
শহরের পাশাপাশি গ্রামেও পরিষেবা পৌঁছে দিতে কাজ করা হচ্ছে: পরিকল্পনামন্ত্রী
.............................................................................................
সাক্ষরতা কর্মসূচিকে সামাজিক আন্দোলনে পরিণত করতে হবে: রাষ্ট্রপতি
.............................................................................................
সরকারের প্রচেষ্টায় দেশে সাক্ষরতার হার বৃদ্ধি পেয়েছে: প্রধানমন্ত্রী
.............................................................................................
সংসদ অধিবেশন বসছে আজ
.............................................................................................
এ বছরই যমুনায় আলাদা রেল সেতু নির্মাণ শুরু: রেলমন্ত্রী
.............................................................................................
উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে শিশুদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে: তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
ব্যাক্তি বিশেষের সন্তুষ্টির জন্য নয়, জনগণের উন্নয়নে রাজনীতি করুন: গণপূর্ত মন্ত্রী
.............................................................................................
টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে আমরা খুব ভাল করব: ভূমিমন্ত্রী
.............................................................................................
রোহিঙ্গা: শ্রীলঙ্কার সমর্থন চায় বাংলাদেশ, মিয়ানমারের ওপর চাপ অব্যাহত রাখবে অস্ট্রেলিয়া
.............................................................................................
ফেরিঘাটে তিতাসের মৃত্যু: যুগ্ম সচিব ও ডিসির দোষ পায়নি তদন্ত কমিটি
.............................................................................................
সড়ক নিরাপত্তায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে টাস্কফোর্স গঠন
.............................................................................................
সম্মিলিতভাবে সমুদ্র সম্পদের টেকসই ব্যবস্থাপনায় জোর প্রধানমন্ত্রীর
.............................................................................................
হলি আর্টিজানে নিহত জাপানিদের নামে হবে মেট্রোরেলের স্টেশনের নাম
.............................................................................................
কৌশলে প্রকল্প বাড়ানো ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে পরিকল্পনা কমিশন
.............................................................................................
কৌশলে প্রকল্প বাড়ানো ঠেকাতে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে পরিকল্পনা কমিশন
.............................................................................................
নতুন সুযোগ ও সেবা যুক্ত হওয়ায় লেনদেন বাড়ছে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে
.............................................................................................
আশুরা উপলক্ষে ডিএমপি’র ১৩ নির্দেশনা
.............................................................................................
এডিবির অর্থায়নে চার লেন হবে ৪ মহাসড়ক
.............................................................................................
মেট্রোরেলের উত্তরা-মতিঝিলের কাজ ৩০ শতাংশ, উত্তরা-আগারগাঁওয়ের কাজ এগিয়েছে ৪৬ শতাংশ
.............................................................................................
খাদ্য সংগ্রহ নীতিমালা ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ
.............................................................................................
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন ডিজিটাল: জব্বার
.............................................................................................
জোর করে রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে পাঠানো হবে না: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
উপদেষ্টা: আজাদ কবির
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ হারুনুর রশীদ
সম্পাদক মন্ডলীর সহ-সভাপতি: মামুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
যুগ্ম সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বার্তা সম্পাদক: মুজিবুর রহমান ডালিম
স্পেশাল করাসপনডেন্ট : মো: শরিফুল ইসলাম রানা
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]