| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   শিক্ষা-সাহিত্য -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার ওপর জরিপ করবে জাইকা

 বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার ওপর জরিপ করতে আগামি জুন মাসে এক কর্মশালার আয়োজন করছে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা)। ইউজিসি এবং জাইকার যৌথ উদ্যোগে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল বুধবার তিন সদস্যের এক প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ বিশ^বিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের(ইউজিসি) কার্যালয়ে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী মোল্লা’র সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে এ কথা জানান।

জাইকা, বাংলাদেশের সিনিয়র রিপ্রেজেনটেটিভ (আরবান ডেভেলপমেন্ট) মি. কজি মটোমরি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। আলোচনাকালে নেতৃবৃন্দ বাংলাদেশে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণার উন্নয়নে কাজ করার বিষয়েও আগ্রহ প্রকাশ করে। প্রফেসর ইউসুফ আলী মোল্লা তার বক্তব্যে বলেন, জাইকার প্রস্তাবটি বন্ধুপ্রতীম বাংলাদেশ এবং জাপানের উচ্চশিক্ষা এবং গবেষণায় একটি নবদিগন্তের সূচনা করবে। তিনি বলেন, ইউজিসি বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়ন ও আন্তর্জাতিকীকরণে বিদেশি সহযোগিতাকে স্বাগত জানায়।

জাপানকে উন্নয়নের বৃহৎ অংশীদার উল্লেখ করে প্রফেসর মোল্লা বলেন, বাংলাদেশের শিক্ষা, অবকাঠামো এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে এ দেশটি ব্যাপক অবদান রাখছে। এসময় প্রফেসর ড. দিল আফরোজা বেগম, প্রফেসর ড. মো. আখতার হোসেন, সদস্য, ইউজিসি, ড. মো. খালেদ, সচিব, ইউজিসি এবং ড. মো. ফখরুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার ওপর জরিপ করবে জাইকা
                                  

 বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার ওপর জরিপ করতে আগামি জুন মাসে এক কর্মশালার আয়োজন করছে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা)। ইউজিসি এবং জাইকার যৌথ উদ্যোগে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল বুধবার তিন সদস্যের এক প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ বিশ^বিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের(ইউজিসি) কার্যালয়ে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী মোল্লা’র সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে এ কথা জানান।

জাইকা, বাংলাদেশের সিনিয়র রিপ্রেজেনটেটিভ (আরবান ডেভেলপমেন্ট) মি. কজি মটোমরি প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। আলোচনাকালে নেতৃবৃন্দ বাংলাদেশে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণার উন্নয়নে কাজ করার বিষয়েও আগ্রহ প্রকাশ করে। প্রফেসর ইউসুফ আলী মোল্লা তার বক্তব্যে বলেন, জাইকার প্রস্তাবটি বন্ধুপ্রতীম বাংলাদেশ এবং জাপানের উচ্চশিক্ষা এবং গবেষণায় একটি নবদিগন্তের সূচনা করবে। তিনি বলেন, ইউজিসি বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়ন ও আন্তর্জাতিকীকরণে বিদেশি সহযোগিতাকে স্বাগত জানায়।

জাপানকে উন্নয়নের বৃহৎ অংশীদার উল্লেখ করে প্রফেসর মোল্লা বলেন, বাংলাদেশের শিক্ষা, অবকাঠামো এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে এ দেশটি ব্যাপক অবদান রাখছে। এসময় প্রফেসর ড. দিল আফরোজা বেগম, প্রফেসর ড. মো. আখতার হোসেন, সদস্য, ইউজিসি, ড. মো. খালেদ, সচিব, ইউজিসি এবং ড. মো. ফখরুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সাধারণ শিক্ষায় যুক্ত হচ্ছে ভোকেশনাল কোর্স
                                  

মাধ্যমিক স্তরের সাধারণ শিক্ষায় যুক্ত হচ্ছে ভোকেশনাল কোর্স। কারিগরি শিক্ষার প্রতি আগ্রহ বৃদ্ধি ও দক্ষ জনশক্তি তৈরিতে সরকার এ কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এর আওতায় প্রাথমিকভাবে দেশের ৬৪০টি প্রতিষ্ঠানে দুটি করে ট্রেড কোর্স চালু করা হবে। পরবর্তী সময়ে এ কর্মসূচি মাধ্যমিকের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (স্কুল-মাদরাসা) চালু করা হবে।

৬৪০ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ কোর্স চালু করতে রোববার (১৯ মে) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এ বিষয়ে আগামী ২৭ মে আবারও সভা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভায় আগামী নভেম্বরের মধ্যে শিক্ষক নিয়োগ, অবকাঠামো নির্মাণসহ প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে তাগিদ দেওয়া হয়।

 

সভা সূত্রে জানা যায়, মাধ্যমিকের সাধারণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের আওতায় নবম-দশম শ্রেণিতে এসএসসি/দাখিল ভোকেশনাল কোর্স চালু করা হবে। কর্মসূচির আওতাভুক্ত প্রতিটি প্রতিষ্ঠান কারিগরি শিক্ষা বোর্ড পরিচালিত ১২টি ট্রেডের মধ্যে পছন্দ অনুসারে দুটি ট্রেড চালু করবে। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানে দুটি  ট্রেডে মোট (প্রতি ট্রেডে ৪০ জন করে) ৮০ জন শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পাবে।

মাধ্যমিক পর্যায়ে ভোকেশনাল শিক্ষা দিতে হলে ৬৪০ স্কুল-মাদরাসায় নতুন করে প্রায় সাড়ে ছয় হাজার শিক্ষক-কর্মচারীর পদ সৃষ্টি করা হবে। নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানে অতিরিক্ত তিনটি করে শ্রেণিকক্ষ নির্মাণের কাজ চলছে। ভোকেশনাল কোর্স চালু করতে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দুজন ট্রেড ইন্সপেক্টর, একজন করে বাংলা, ইংরেজি, সমাজবিজ্ঞান, গণিত, পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়ন বিষয়ের সহকারী শিক্ষক, একজন করে কম্পিউটার প্রদর্শক ও ল্যাব সহকারী নিয়োগের প্রস্তাব করা হয়েছে।

শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় ৮০ শতাংশই অকৃতকার্য
                                  

১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় ১ লাখ ৫২ হাজার জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। আর অকৃতকার্য হয়েছেন ৮০ শতাংশই পরীক্ষার্থী।

রবিবার এনটিআরসির ওয়েবসাইটে শিক্ষক নিবন্ধন প্রিলির ফল প্রকাশ করা হয়। এ পরীক্ষায় মোট ৮ লাখ ৭৬ হাজার ৩৩ জন অংশ নেন।

প্রিলিমিনারিতে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মধ্যে স্কুল পর্যায়ের ৫৫ হাজার ৫৯৬ জন, স্কুল পর্যায় ২–এর ৪ হাজার ১২৯ এবং কলেজ পর্যায়ের ৯২ হাজার ২৭৫ জন রয়েছেন।

এ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ২৬ ও ২৭ জুলাই দ্বিতীয় ধাপের লিখিত পরীক্ষা দিতে হবে। এরপর লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের শেষ ধাপে মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে।

প্রিলির ফল এনটিআরসির ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে। এ ছাড়া উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে ফল জানানো হয়েছে। এনটিআরসির ওয়েবসাইট লিংক: (ntrca.teletalk.com.bd)

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলে সন্তুষ্ট না হয়ে উত্তরপত্র পুনঃমূল্যায়নের জন্য রেকর্ড সংখ্যক আবেদন!
                                  

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলে সন্তুষ্ট না হয়ে সারাদেশে এক লাখ ৬৫ হাজার ৬৫৮ জন শিক্ষার্থী তাদের উত্তরপত্র পুনঃমূল্যায়নের জন্য আবেদন করেছে। এসএসসিতে পরীক্ষার খাতা চ্যালেঞ্জ করে এটি রেকর্ড সংখ্যক আবেদন বলে জানা গেছে।

বুধবার (১৫ মে) দেশের সকল বোর্ডে খোঁজ নিয়ে এমন তথ্য পাওয়া যায়।

জানা গেছে, এবার দশ বোর্ডের মধ্যে ঢাকা বোর্ডে ৫৮ হাজার ৭০ জন, বরিশালে ৮ হাজার ৪৮০ জন, চট্টগ্রামে ১৯ হাজার ১৮৩ জন, দিনাজপুরে ১২ হাজার ৫৪০ জন, রাজশাহীতে ১৫ হাজার ১৭৩ জন, সিলেটে ১০ হাজার ৫৪১ জন, কুমিল্লা বোর্ডে ১৩ হাজার ২২৬ জন, মাদরাসা বোর্ডে ১১ হাজার ৭৪৫ জন এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ১৬ হাজার ৭০০ জন শিক্ষার্থী খাতা পুনঃমূল্যায়নের আবেদন করেছে।

অন্যদিকে একেকজন শিক্ষার্থী একাধিক বিষয়ের ফলাফল চ্যালেঞ্জের কারণে উত্তরপত্রের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে, এ সংখ্যা দাঁড়িয়েছে তিন লাখ ৩৮ হাজার ৬২৯টিতে। এর মধ্যে ঢাকা বোর্ডে এক লাখ ৪০ হাজার ৯২৩টি, বরিশালে ১৫ হাজার ৫২৭টি, চট্টগ্রামে ৪৪ হাজার ২৯৭টি, দিনাজপুরে ২৬ হাজার ৯২৫টি, রাজশাহীতে ৩০ হাজার ২৩১টি, কুমিল্লায় ১৯ হাজার ২৬টি, সিলেটে ১৮ হাজার ৯১০টি, মাদরাসা বোর্ডে ২৩ হাজার ৭২৪টি এবং কারিগরি বোর্ডে ১৯ হাজার ৬৬টি উত্তরপত্র পুনঃমূল্যায়নের আবেদন জমা পড়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ফলাফল চ্যালেঞ্জ করা এক লাখ ৬৫ হাজার ৬৫৮ শিক্ষার্থীর মধ্যে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ দেশসেরা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীও আছে। বেশিরভাগ আবেদন পড়েছে ইংরেজি ও গণিত বিষয়ে। আবেদনের তালিকার ওপরের দিকে আছে ধর্মও। ১২টি পত্রের মধ্যে একেকজন শিক্ষার্থীর সর্বনিম্ন দুটি থেকে সর্বোচ্চ ৪-৫টি পত্র চ্যালেঞ্জ করার রেকর্ডও রয়েছে।

ঢাকা বোর্ডে সবচেয়ে বেশি আবেদন পড়েছে গণিতের খাতা পুনঃমূল্যায়নের ২২ হাজার ১৫০টি। দ্বিতীয় স্থানে আছে ধর্ম ১৫ হাজার। আর তৃতীয় স্থানে ইংরেজি প্রথমপত্র ১২ হাজার ৭০০টি।

রাজশাহী বোর্ডে ৬ হাজার ৫০০ শিক্ষার্থী গণিত, ৩ হাজার ৬ জন রসায়ন, ২ হাজার ৩১২ জন ইংরেজি প্রথমপত্র এবং ২ হাজার ৯৭৮ জন ধর্ম বিষয়ের ফল পুনঃমূল্যায়ন চেয়েছে। এভাবে অন্যান্য বোর্ডে গণিত, ইংরেজি এবং ধর্ম বিষয়ের ফল নিয়ে বেশি অসন্তোষ শিক্ষার্থীদের।

বোর্ড কর্মকর্তারা জানান, পাবলিক পরীক্ষার খাতা পুনঃমূল্যায়নের ক্ষেত্রে সবকটি উত্তরে নম্বর দেয়া হয়েছে কি-না, প্রাপ্ত নম্বর গণনা ঠিক রয়েছে কি-না, প্রাপ্ত নম্বর ওএমআর শিটে (কম্পিউটারে ফল প্রণয়নে পাঠযোগ্য ফরম) উত্তোলনে ভুল হয়েছে কি-না এবং প্রাপ্ত নম্বর অনুযায়ী ওএমআর শিটের বৃত্ত ভরাট ঠিক আছে কি-না এসব বিষয় দেখা হবে। বিষয়গুলো ঠিক থাকলে তবে সেই খাতা নতুন করে মূল্যায়ন করা হবে।

গত ৬ মে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়। ফল প্রকাশের পরদিনই শুরু হয় খাতা চ্যালেঞ্জের আবেদন প্রক্রিয়া। চলে ১৩ মে পর্যন্ত। আবেদনকারীরা ফল জানতে পারবে ২ জুনের মধ্যে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক  বলেন, বরাবরের মতো অনেক পরীক্ষার্থী নিজেদের ফলে সন্তুষ্ট না হয়ে পুনঃনিরীক্ষার জন্য আবেদন করেছেন। নিময় অনুযায়ী এসব খাতা নতুনভাবে নিরীক্ষা করা হবে।

তিনি বলেন, এসব আবেদনকারীর মধ্যে যারা এক বা দুই কম পাওয়ায় জিপিএ-৫ পাননি অথবা কৌতূহলী হয়েও কেউ কেউ আবেদন করে থাকে। তবে এবার ইসলাম ধর্ম বিষয়ের ফলে আপত্তি জানিয়ে বেশি আবেদন জমা হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

 

 

একাদশ-দ্বাদশ কোর্সে ভর্তির আবেদন শুরু কাল থেকে
                                  

আগামীকাল রবিবার থেকে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন শুরু হচ্ছে। অনলাইন ও এসএমএসের মাধ্যমে উচ্চ মাধ্যমিকে ভর্তির আবেদন করা যাবে। প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে শিক্ষার্থীরা কলেজে ভর্তির সুযোগ পাবেন। একজন শিক্ষার্থী সর্বোচ্চ দশটি কলেজ পছন্দ দিতে পারবে।

 

নীতিমালা অনুযায়ী, ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া ১২ মে থেকে শুরু হয়ে ২৩ মে পর্যন্ত চলবে। যারা পুনঃনিরীক্ষণের জন্য আবেদন করবে তাদেরও এই সময়ের মধ্যে আবেদন করতে হবে। তবে পুনঃনিরীক্ষণের পর যাদের ফলাফল পরিবর্তন হবে তারা ৩-৪ জুনের মধ্যে আবেদন করতে পারবে।

 

আবেদন প্রক্রিয়া শেষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিতদের তালিকা ১০ জুন প্রকাশ করা হবে। এসএমএস ও স্ব-স্ব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নোটিশ বোর্ডে তালিকা প্রকাশ করা হবে। ১১-১৮ জুনের মধ্যে শিক্ষার্থীদের মনোনয়নপ্রাপ্ত কলেজে নিশ্চায়ন করতে হবে। অন্যথায় আবেদন বাতিল হবে।

 

২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ক্লাস শুরু হবে ১ জুলাই থেকে। যেসব শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নির্বাচিত হবে না তারা ১৯-২০ জুনের মধ্যে ফের আবেদন করতে পারবে। কোনো ধরনের ফি দেওয়া ছাড়াই তাদের আবেদনে নতুন কলেজ সংযোজন ও বিয়োজন করতে পারবে। একই সময়ের মধ্যে যারা আবেদন করবে না বা ভর্তির নিশ্চয়তা সম্পন্ন করবে না তারাও আবেদন করতে পারবে।

আরো পড়ুন : ‘গরমে কষ্ট পাচ্ছেন দেবতারা’, মন্দিরে এসি-ফ্যান

অনলাইনে যেভাবে আবেদন করতে হবে : অনলাইনে আবেদন করতে হলে www.xiclassadmission.gov.bd এ ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন করতে হবে। অনলাইনে আবেদনের আগে শিক্ষার্থীকে শুধু টেলিটক/রকেট/শিওরক্যাশ ব্যবহার করে অনলাইনের আবেদন ফি এসএমএস এর মাধ্যমে দিতে হবে। প্রার্থীকে তার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার রোল নম্বর, বোর্ড, পাসের সাল এবং রেজিস্ট্রেশন নম্বর ব্যবহার করে টেলিটক/রকেট/শিওরক্যাশ এর মাধ্যমে ১৫০ টাকা ফি জমা দিতে হবে। এক্ষেত্রে টেলিটক সিম থেকে মোবাইলের মেসেজ অপশনে গিয়ে CAD স্পেস WEB স্পেস পরীক্ষা পাসের Board এর নামের প্রথম তিন অক্ষর স্পেস পরীক্ষার রোল স্পেস পরীক্ষা পাসের বর্ষ লিখে ১৬২২২ নম্বরে সেন্ড করতে হবে।

 

ফিরতি এসএমএস এ আবেদনকারীর নাম ও আবেদন ফি বাবদ ১৫০ কেটে নেওয়া হবে তা জানিয়ে একটি পিন কোড দেওয়া হবে। ফি দিতে সম্মত থাকলে ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে CADYESPINCONTACT NUMBER (বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে পুনঃনিবন্ধিত মোবাইল নম্বর) লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে। ফি সঠিকভাবে জমা হলে প্রার্থীর মোবাইলে নিশ্চিতকরণের একটি Transaction IDসহ SMS যাবে। টেলিটক/রকেট/শিওরক্যাশ মাধ্যমে নির্ধারিত আবেদন ফি ১৫০ টাকা জমা দেওয়ার পর আবেদনকারীকে নির্ধারিত website- এ www.xiclassadmission.gov.bd Apply Online -এ ক্লিক করতে হবে। এরপর প্রদর্শিত তথ্য ছকে এসএসসি বা সমমান পরীক্ষা পাসের রোল নম্বর, বোর্ড ও পাসের সন এবং রেজিস্ট্রেশন নম্বর দিয়ে সঠিকভাবে এন্ট্রি করতে হবে।

 

এরপর প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া শেষ হলে আবেদনকারী একটি ফরম পাবে, সেটি ডাউনলোড করে নিতে হবে। একইভাবে সর্বনিম্ন ৫টি এবং সর্বোচ্চ ১০টি প্রতিষ্ঠানে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে প্রার্থীকে। অনলাইনে আবেদনের ক্ষেত্রে সর্বনিম্ন ৫টি কলেজে আবেদন করলেও ১৫০ টাকা আবার ১০টি কলেজে আবেদন করলেও ১৫০ টাকা চার্জ করবে। এ ছাড়া এসএমএস এর মাধ্যমে আবেদন শুধু টেলিটক প্রি-পেইড সংযোগ থেকে সর্বোচ্চ ১০টি কলেজে আবেদন করা যাবে।

 

আবেদনের জন্য মোবাইল এর মেসেজ অপশনে গিয়ে এভাবে টাইপ করতে হবে- CAD ভর্তিচ্ছু কলেজ/মাদ্রাসার EIIN ভর্তিচ্ছু গ্রুপের নামের প্রথম দুই অক্ষর এসএসসি/সমমান পরীক্ষা পাসের বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষরএসএসসি/সমমান পরীক্ষা পাসের রোল নম্বর এসএসসি/সমমান পরীক্ষা পাসের সাল এসএসসি/সমমান পরীক্ষা পাসের রেজিস্ট্রেশন নম্বর ভর্তিচ্ছু শিফটের নাম ভার্সনকোটার নাম (যদি থাকে)। এরপর মেসেজটি send করতে হবে ১৬২২২ নম্বরে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৪ দিনের ছুটি শুরু হচ্ছে রোববার
                                  

 বর্ষাকালীন, রোজা, শবে কদর, ঈদুল ফিতর মিলিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট ৩৪ দিনের ছুটি শুরু হচ্ছে রোববার থেকে; ছুটি চলবে ১৩ জুন পর্যন্ত।

বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার (একাডেমিক) এস এম আকবর হোসাইন এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, রমজান (শবে কদর, ঈদুল ফিতরসহ), বর্ষাকালীন অবকাশ উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস ১২ মে থেকে ১৩ জুন পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

তবে এ ছুটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলো খোলা থাকবে বলে জানিয়েছেন শামসুন্নাহার হলের প্রাধ্যক্ষ লায়লা খালেদা আঁখি। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে অবকাশকালে হলগুলো খোলা রাখা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ থাকাকালে হলের অফিসিয়াল কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও আবাসিক শিক্ষার্থীদের ডাইনিং, ক্যান্টিনসহ অন্যান্য সুবিধা বহাল থাকবে। ছুটির এসময়ে শাটল ট্রেন নতুন সূচি ধরে চলবে বলে জানিয়েছেন সহকারী প্রক্টর নিয়াজ মোর্শেদ রিপন।

একাদশে ভর্তিতে কলেজগুলোকে ভাগ করা হবে
                                  

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে সরকারি-বেসরকারি কলেজগুলোকে তিনটি শ্রেণিতে ভাগ করা হবে। গত বছর একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা এবং এইচএসসির ফলের ভিত্তিতে ‘এ’, ‘বি’ ও ‘সি’ শ্রেণিতে ভাগটি হচ্ছে। ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকেরা যাতে বিভ্রান্তি ও প্রতারণার শিকার না হয়, সে জন্য কোন কলেজ কোন শ্রেণির তা নির্ধারণে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, যে কলেজগুলোতে গতবার (২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষ) একাদশ শ্রেণিতে কমপক্ষে ৬০০ শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছিল এবং এইচএসসিতে পাসের হার কমপক্ষে ৭০ শতাংশ ছিল সেগুলো ‘এ’ শ্রেণিভুক্ত হবে। যেসব কলেজে অন্তত ৬০০ শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছিল এবং পাসের হার ৭০ থেকে ৫০ শতাংশের মধ্যে সেগুলো ‘বি’ শ্রেণির এবং যেগুলোতে পাসের হার ৫০ শতাংশের কম, আবার শিক্ষার্থীও ৬০০ জনের কম, সেগুলো ‘সি’ শ্রেণিভুক্ত হবে।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীন কলেজগুলোকে তিন শ্রেণিতে ভাগ করে প্রাথমিক তালিকাও করা হয়েছে। বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক গতকাল বলেন, অনেক সময় কলেজগুলো ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের বিভ্রান্ত করে। আবার প্রায় একই নামে একাধিক কলেজও আছে। তাই কলেজগুলোতে তিন শ্রেণি করে বোর্ডের ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে।

আন্তশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটিরও চেয়ারম্যান জিয়াউল হক। তিনি মনে করেন, যেহেতু ঢাকা বোর্ড এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে, অন্য বোর্ডগুলোও তা অনুসরণ করবে। বিষয়টি নিয়ে অন্য শিক্ষা বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করা হবে।

ঢাকা বোর্ডে ‘এ’ শ্রেণির কলেজে আসন ১ লাখ
প্রাথমিক তালিকা অনুযায়ী, ঢাকা বোর্ডের অধীন ‘এ’ শ্রেণির কলেজ ৮২টি। এগুলোতে আসন প্রায় ১ লাখ। ‘এ’ শ্রেণিতে থাকা ঢাকার উল্লেখযোগ্য কয়েকটি কলেজ হলো ঢাকা কলেজ, নটর ডেম কলেজ, ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ, রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ, সরকারি বিজ্ঞান কলেজ, হলিক্রস কলেজ, মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ন্যাশনাল আইডিয়াল কলেজ, ঢাকা কমার্স কলেজ, ঢাকা সিটি কলেজ, আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজ, বি এ এফ শাহীন কলেজ, শহীদ বীর উত্তম লে. আনোয়ার গার্লস কলেজ, সেন্ট যোসেফ উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, শামসুল হক খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক কলেজ, বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আবদুর রউফ পাবলিক কলেজ।

১২ লাখ আসন খালি থাকবে 
সারা দেশের কলেজ ও মাদ্রাসায় একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির কাজটি হবে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে। শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তারা জানান, দেশে একাদশ শ্রেণিতে পড়ানোর মতো কলেজ ও মাদ্রাসা আছে ৭ হাজার ৩৬৩টি। এর মধ্যে কলেজ ৪ হাজার ৬০০টি। গত বছর এসব কলেজ ও মাদ্রাসায় একাদশে আসন ছিল ২৯ লাখ ৩৩ হাজার ৬০৫টি। এবারও প্রায় একই থাকছে। যদিও কোনো কোনো কলেজ আসন বাড়াতে আবেদন করেছে। এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাস করেছে প্রায় সাড়ে ১৭ লাখ। ফলে প্রায় ১২ লাখ আসন খালি থাকবে।

ভর্তির আবেদন যেভাবে
একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য ১২ মে আবেদন শুরু হবে, চলবে ২৩ মে পর্যন্ত। ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থীকে অনলাইনে কমপক্ষে ৫টি ও সর্বোচ্চ ১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্য পছন্দক্রম দিয়ে আবেদন করতে হবে। অনলাইনে আবেদন করতে হবে www.xiclassadmission.gov.bd ঠিকানায়। টেলিটক মোবাইল ফোনের মাধ্যমেও এসএমএস করে আবেদনের সুযোগ আছে। শিক্ষার্থীর ফল ও পছন্দক্রমের ভিত্তিতে একটি প্রতিষ্ঠানে ভর্তির জন্য নির্বাচন করে দেওয়া হবে। ৩০ জুনের মধ্যে ভর্তি শেষ করে আগামী ১ জুলাই থেকে ক্লাস শুরু হবে।

৪৫ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ৮ হাজার ৮৮ কোটি টাকার বাজেট অনুমোদন
                                  

 বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) দেশের ৪৫টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ২০১৯-২০ অর্থবছরে ৮ হাজার ৮৮ কোটি ৪৯ লাখ টাকার বাজেট অনুমোদন করেছে। এর মধ্যে ৫ হাজার ৮৯ কোটি ৪৬ লাখ টাকার অনুন্নয়ন এবং ২ হাজার ৯৯৯ কোটি ৩ লাখ টাকার উন্নয়ন বাজেট রয়েছে। বিগত বছরের তুলনায় অনুন্নয়ন বাজেট ১৪ দশমিক ৪৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। নতুন অর্থবছরে সবচেয়ে বেশি অনুন্নয়ন বাজেট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭৬৪ কোটি ৬৫ লাখ টাকা এবং সবচেয়ে কম বাজেট সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা।

সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথমবারের মতো অনুন্নয়ন ও উন্নয়ন বাজেটে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এছাড়া কমিশন ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে ইউজিসি’র জন্য ৫০ কোটি ৯৭ লাখ টাকার বাজেট অনুমোদন করেছে। ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে ইউজিসি’র ১৫৫তম পূর্ণ কমিশন সভায় গতকাল সোমবার এ বাজেট অনুমোদিত হয় বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। সভায় বাজেট উপস্থাপন করেন কমিশনের অর্থ ও হিসাব বিভাগের পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) মো. রেজাউল করিম হাওলাদার। উচ্চশিক্ষায় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর গবেষণার জন্য ২০১৯-২০ অর্থবছরে মূল বাজেটে ৬৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা বরাদ্দ ধরা হয়েছে, যা বিগত বছরের তুলনায় ২ কোটি টাকা বেশি। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এখাতে বরাদ্দ আগের অর্থবছরের তুলনায় ৩ শতাংশ বৃদ্ধি করে ৬২ দশমিক ৩৬ কোটি টাকা করা হয়েছে।

সভায় ইউজিসি সদস্য ড. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী মোল্লা, ড. দিল আফরোজা বেগম, ড. মো. আখতার হোসেন, ড. এম. শাহ নওয়াজ আলি উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া পরিকল্পনা কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব আবুল কালাম আজাদ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. গিয়াসউদ্দীন মিয়া, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. আনোয়ার হোসেন, শেরে-বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের প্রফেসর ড. মো. ফরহাদ হোসেন, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ড. আনোয়ার খসরু পারভেজ, ইউজিসি সচিব ড. মো. খালেদ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব মফিজ উদ্দিন আহমেদ এবং ইউজিসি’র বিভাগীয় প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

১০৭ প্রতিষ্ঠানে সবাই ফেল
                                  

চলতি বছরে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ১০৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে কেউ পাস করেনি। তবে গত বছরের তুলনায় এ সংখ্যা কমেছে। গত বছর ১০৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে সবাই ফেল করেছিল।

 

সোমবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজধানীর সেগুন বাগিচায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ তথ্য জানান।

 

শূন্য শতাংশ পাসের হার রাজশাহীতে একটি, যশোরে একটি, বরিশালে দুটি, দিনাজপুরে একটি এবং কারিগরি শিক্ষাবোর্ডে ৪৩টি প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

শূন্য ভাগ পাস প্রতিষ্ঠানগুলোর বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, সে সব প্রতিষ্ঠানের বিষয়গুলো খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

এদিকে ঢাকায় ১৪৬, রাজশাহীতে ৪৩১, কুমিল্লায় ১৩২, যশোরে ২৭৫, চট্টগ্রামে ৩০, বরিশালে ৫০, সিলেটে ২২, দিনাজপুরে ১৩৮, মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডে ১ হাজার ২৬৩ ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ৯৬ প্রতিষ্ঠানে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে।

এসএসসি ও সমমানে পাসের হার ৮২.২০
                                  

চলতি বছর এসএসসি ও সমমানে পাসের হার ৮২.২০ শতাংশ। গত বছরের চেয়ে এবার পাসের হার বেড়েছে শতকরা ৪.৪৩ ভাগ। মোট জিপিএ ৫ এক লাখ ৫ হাজার ৫৯৪ জন। মোট পাসের হার বৃদ্ধি পেলেও জিপিএ ৫ প্রাপ্তির হার কমেছে।

সোমবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজধানীর সেগুন বাগিচায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ২০১৯ সালের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল ঘোষণা করেন।

গত রবছর এ পরীক্ষায় ৭৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ শিক্ষার্থী শিক্ষার্থী পাস করেছিল, যাদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১ লাখ ১০ হাজার ৬২৯ জন। সেই হিসাবে এবার পাসের হার বেড়েছে দশমিক ৪ শতাংশ ৪৩। তবে পূর্ণাঙ্গ জিপিএ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমেছে ৫ হাজার ৩৫ জন।

এবার এসএসসিতে সাধারণ শিক্ষা বোর্ডগুলোর তত্ত্বীয় পরীক্ষা ২ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে ২৬ ফেব্রুয়ারি শেষ হয়। ব্যবহারিক পরীক্ষা ২৭ ফেব্রুয়ারি শুরু হয় ৫ মার্চ। মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের তত্ত্বীয় পরীক্ষা ২ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে ২৭ ফেব্রুয়ারি শেষ হয়। ব্যবহারিক পরীক্ষা ২৮ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হয় ৬ মার্চ।

এবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩ শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন। এদের মধ্যে ১০ লাখ ৬৪ হাজার ৮৯২ জন ছাত্রী এবং ১০ লাখ ৭০ হাজার ৪৪১ জন ছাত্র।

যেভাবে পাবে এসএসসি ও সমমানের ফলাফল
                                  

মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল আগামী ৬ মে সোমবার প্রকাশ করা হবে। সকাল ১০টায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির হাতে ফলাফলের সারসংক্ষেপ তুলে দেবেন বিভিন্ন বোর্ডের চেয়ারম্যানরা। পরে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশ করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। দুপুর ২টার পর থেকে পরীক্ষার্থীরা ফল জানতে পারবেন।

প্রতিবারের মতো এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে পাওয়া যাবে। এ জন্য SSC লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে আবার স্পেস দিয়ে পাসের বছর লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠাতে হবে।

আরও পড়ুন: তাপমাত্রা ফের বাড়বে

মাদ্রাসা বোর্ডের ক্ষেত্রে Dakhil লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে আবার স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে পাসের সাল লিখে পাঠাতে হবে পাঠাতে হবে ১৬২২২ নম্বরে।

এছাড়া কারিগরি বোর্ডের এসএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষার ফল জানতে ssc লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে পাসের সাল লিখে পাঠাতে হবে ১৬২২২ নম্বরে। এছাড়াও www.educationboardresults.gov.bd ওয়েবসাইটে গিয়ে ফল ডাউনলোড করা যাবে।

এ বছর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩ শিক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে ১০ লাখ ৬৪ হাজার ৮৯২ জন ছাত্রী এবং ১০ লাখ ৭০ হাজার ৪৪১ জন ছাত্র। দেশের ১০টি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে গত ২ ফেব্রুয়ারি থেকে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়। ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৬ মার্চ পর্যন্ত ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ হয়। গত কয়েক বছর ধরে পরীক্ষা শেষের ৬০ দিনের মধ্যে পাবলিক পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হচ্ছে। আগামী ৯ মে পরীক্ষা শেষের ৬০তম দিন পূর্ণ হবে। ফলে এবার তার তিন দিন আগেই ফল প্রকাশ করা হচ্ছে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আজকের সব পরীক্ষা স্থগিত
                                  

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিতব্য আজ রোববারের সব পরীক্ষা অনিবার্য্য কারণে স্থাগত করা হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) বদরুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, স্থগিত এসব পরীক্ষার তারিখ ও সময় পরবর্তীতে জানিয়ে দেওয়া হবে। তবে পূর্বঘোষিত অন্যান্য পরীক্ষার সময়সূচি অপরিবর্তিত থাকবে।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ ৬ মে
                                  

এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে আগামী ৬ মে (সোমবার)। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সরকারি মাধ্যমিক) নাজমুল হক খান এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, আগামী সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে চলতি বছরের এসএসসির ফল প্রকাশ করবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের বাইরে, তাই তার অনুমতিক্রমে এ ফল প্রকাশ করা হচ্ছে। অন্যান্য বছর প্রধানমন্ত্রীর হাতে এ ফল তুলে দিতেন শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যানরা।

গত ২৪ এপ্রিল অতিরিক্ত সচিব (সরকারি বিদ্যালয়) নাজমুল হক জানিয়েছিলেন, আগামী ৪ থেকে ৬ মে’র মধ্যে ফল প্রকাশ করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী সময় নির্ধারণ করে দিলে ৪, ৫ অথবা ৬ মে ফল প্রকাশ করা হবে।

এর আগে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড থেকে এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশের জন্য ৪ থেকে ৬ মে সম্ভাব্য সময় উল্লেখ করে প্রস্তাব পাঠানো হয়। সেই প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়। এখন প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি নিয়ে এই ফল প্রকাশের দিন ঠিক করা হলো।

উল্লেখ্য, দেশের ১০টি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে গত ২ ফেব্রুয়ারি থেকে এসএসসি পরীক্ষা শুরু হয়। ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৬ মার্চ পর্যন্ত ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ হয়। এ পরীক্ষায় সারাদেশে মোট ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। তাদের মধ্যে এসএসসি পরীক্ষার্থী ১৭ লাখ ১০২ জন, দাখিল ৩ লাখ ১০ হাজার ১৭২ জন এবং এসএসসি ভোকেশনালে ১ লাখ ২৫ হাজার ৫৯ জন পরীক্ষার্থী।

গত কয়েক বছর ধরে পরীক্ষা শেষের ৬০ দিনের মধ্যে পাবলিক পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হচ্ছে। আগামী ৯ মে পরীক্ষা শেষের ৬০তম দিন পূর্ণ হবে। ফলে এবার তার তিন দিন আগেই ফল প্রকাশ করা হচ্ছে।

৩৯তম বিসিএসের ফল আজই প্রকাশিত হচ্ছে
                                  

৩৯তম বিশেষ বিসিএসের চূড়ান্ত ফল আজই প্রকাশ করতে যাচ্ছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। এজন্য বিকাল সাড়ে ৩টায় কমিশন সভা আহবান করা হয়েছে। সভা শেষে চূড়ান্ত ফলাফল সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে বলে দায়িত্বশীল একটি সূত্র ইত্তেফাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

চিকিৎসকদের জন্য ৩৯তম বিশেষ এই বিসিএস পরীক্ষা নেয়া হয়। এই পরীক্ষার মাধ্যমে সাড়ে ৪হাজারেরও বেশি চিকিৎসক নিয়োগ দেয়া হবে। চলতি মাসের মধ্যে ফলাফল প্রকাশের পরিকল্পনার কথা জানানো হয়েছিল। তবে অতিরিক্ত আরো আড়াই হাজার চিকিৎসক নিয়োগের সুপারিশের জন্য চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশে একটু বিলম্ব হচ্ছিল। এই বিসিএসে পদের সংখ্যা বাড়ছে না। পিএসসির পরিকল্পনা অনুযায়ী চলতি মাসেই ফল প্রকাশিত হচ্ছেই।

গত বছরের ৬ সেপ্টেম্বর ৩৯তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এরপর গত ৭ মার্চ এই বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ৩৯তম বিসিএসে ৪ হাজার ৫৪২ জন সহকারী সার্জন আর ২৫০ জন সহকারী ডেন্টাল সার্জন নেয়া হবে।

 

৩৯তম বিশেষ বিসিএসে প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় সহকারী সার্জন পদে ১৩ হাজার ২১৯ জন এবং সহকারী ডেন্টাল সার্জন পদে ৫১৩ জন প্রার্থী পাস করেছেন। পাস করা প্রার্থীরা চূড়ান্ত নিয়োগের জন্য মৌখিক পরীক্ষা দিয়েছেন। গত বছরের ৩ আগস্ট ৩৯তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রায় ৩৭ হাজার ৫৮৩ চাকরিপ্রত্যাশী অংশ নেন।

নারায়ণগঞ্জে ৪১০ টন মেয়াদোত্তীর্ণ খেজুর জব্দ
                                  

 নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পঞ্চবটি এলাকার আদর্শ ও শাহীন কোল্ড স্টোরেজে (হিমাগার) অভিযান চালিয়ে ৪১০ টন মেয়াদোত্তীর্ণ খেজুর জব্দ করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান (র‌্যাব)। এ সময় শাহীন কোল্ড স্টোরেজকে ৫০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। গতকাল সোমবার দুপুরে র‌্যাব- ১১ এর ভ্রাম্যমাণ আদালত এ অভিযান পরিচালনা করেন। এতে উপস্থিত ছিলেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সরোয়ার, র‌্যাব-১১ এর সিনিয়র এএসপি আলেপ উদ্দিন, সিনিয়র এএসপি জসিম উদ্দিন প্রমুখ।

আসন্ন রমজানকে কেন্দ্র করে এসব খেজুর বাজারে সরবরাহ করার জন্যই মজুদ করা হয়েছিল বলে জানায় র‌্যাব। এদিকে আদর্শ কোল্ড স্টোরেজ থেকে কয়েক কার্টন আপেল ও মালটা জব্দ করা হয়। র‌্যাব-১১ এর সিনিয়র এএসপি আলেপ উদ্দিন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দু`টি হিমাগারে অভিযান চালিয়ে ৪১০ টন মেয়াদোত্তীর্ণ নষ্ট খেজুর জব্দ করা হয়েছে। এ সময় একটি কোল্ড স্টোরেজকে জরিমানাও করা হয়েছে।

কম খরচে হয়রানিমুক্ত চিকিৎসা নিশ্চিত করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির
                                  

 রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ কম খরচে হয়রানিমুক্ত চিকিৎসা নিশ্চিত করতে চিকিৎসক ও সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। গতকাল সোমবার নগরীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ কমিউনিটি অফথ্যালমোলজিক্যাল সোসাইটির ৭ম দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে ভাষণকালে রাষ্ট্রপতি একথা বলেন। তিনি বলেন, অহেতুক পরীক্ষা-নিরীক্ষার নামে হয়রানির শিকার হয়ে রোগীরা যাতে প্রয়োজনীয় সেবা থেকে বঞ্চিত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

রাষ্ট্রপতি চিকিৎসা পেশাকে অত্যন্ত সম্মানজনক ও গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে অভিহিত করে বলেন, আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ রাখবো রোগীদের প্রতি আরো বেশি আন্তরিক ও ব্রতী হোন। অনেক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক যে পরিমাণ ফি আদায় করেন তা সাধারণ মানুষের ক্ষমতার বাইরে। তাই আপনাদের চিকিৎসা ব্যয় কমানোর উদ্যোগ নিতে হবে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার নামে রোগীরা যাতে প্রয়োজনীয় সেবা থেকে বঞ্চিত না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। মনে রাখবেন মানুষ বিভিন্ন রোগ থেকে আরোগ্য লাভের জন্য সৃষ্টিকর্তার পরই ডাক্তারদের উপর ভরসা করে থাকেন। তাই, তাদের আস্থার জায়গাটি অক্ষুণ রাখা আপনাদের পবিত্র দায়িত্ব। তাছাড়া আপনারা আজকে যে অবস্থানে আছেন, সেখানে পৌঁছাতে সাধারণ মানুষের অবদানও কিন্তু কম নয়। কারণ তাদের ট্যাক্সের টাকায়ই মেডিক্যাল কলেজের খরচ জোগানো হয়। তাই, তাদেরকে চিকিৎসা সেবা দেয়া আপনাদের নৈতিক দায়িত্ব ও কর্তব্য বলে আমি মনে করি। চিকিৎসা মানুষের অন্যতম প্রধান একটি চাহিদা।

জনগণের এ চাহিদা পূরণে বর্তমান সরকারের সর্বাত্মক প্রয়াসের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ, ডাক্তার-নার্স নিয়োগ, উন্নত যন্ত্রপাতি সংগ্রহসহ তৃণমূল থেকে শুরু করে প্রতিটি পর্যায়ে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে সার্বিক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, জেলা সদরের বাইরে, এমনকি ঢাকা বা বিভাগীয় শহরের বাইরে পদায়ন হলেই ডাক্তার-নার্সগণ বদলীর তদবির শুরু করেন। আর বদলী হতে না পারলে কোন রকমে সময় পার করার চেষ্টা করেন। এতে উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে জনগণ কাঙ্খিত চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হন। রাষ্ট্রপতি বলেন, গ্রাম, ইউনিয়ন, উপজেলা নিয়েই আমাদের দেশ। আপনাদের অনেকেই গ্রাম থেকে এসেছেন। তাই গ্রামের সাধারণ মানুষের কথা ভুলে গেলে চলবে না।

এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য প্রশাসনকে কঠোর নজরদারি রাখতে হবে। যাকে যে জায়গায় পদায়ন করা হবে সে জায়গায় দায়িত্ব পালন করতে হবে এবং তা আন্তরিকতার সাথে করতে হবে। হাসপাতাল ও চিকিৎসা কেন্দ্র থেকে যতটুকু সেবা দেয়া সম্ভব তা সবটুকু দিতে হবে। চিকিৎসা নিতে আসা জনগণ যাতে অহেতুক কোন হয়রানির শিকার না হয় তাও নিশ্চিত করতে হবে। চিকিৎসকদের বিভিন্ন সংগঠন এলক্ষ্যে কাযকর অবদান রাখতে পারে বলে আমি মনে করি। রাষ্ট্রপতি বলেন, গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর চক্ষু চিকিৎসা প্রদানের জন্য চক্ষু ক্যাম্প পরিচালনা একটি উল্লেখযোগ্য ও জনপ্রিয় মাধ্যম। কিন্তু এ ধরণের ক্যাম্পে চোখ অপারেশনের পর বেশ কিছু রোগী অন্ধত্বের শিকার হয়েছেন, যা অত্যন্ত দুঃখজনক এবং অপ্রত্যাশিত। এ ধরণের ক্যাম্প পরিচালনায় আরো সচেতন হওয়া প্রয়োজন বলে আমি মনে করি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরকে এ বিষয়টি গুরুত্বের সাথে মনিটর করার আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি বলেন, অন্ধত্ব মানব জীবনের একটি চরম অভিশাপ। অন্ধত্ব এখন শুধু সামাজিক সমস্যা নয়, অর্থনৈতিক উন্নয়নের সাথে সম্পৃক্ত। সমাজের এই হতভাগ্য দৃষ্টিহীন মানুষদের অন্ধত্বের অভিশাপ থেকে মুক্ত করতে বাংলাদেশের চক্ষু বিশেষজ্ঞগণ সক্রিয় ভূমিকা পালন করে আসছেন। এই সম্মেলনে দেশ-বিদেশের চক্ষু বিশেষজ্ঞগণের মহামিলন ঘটেছে। আমি মনে করি এই সম্মেলন তাঁদের নিজেদের মধ্যে পারস্পরিক দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের অপূর্ব সুযোগ সৃষ্টি করেছে। এর ফলে নিজেদের মধ্যে পেশাগত বন্ধন ও সামাজিক সৌহার্দ্য বৃদ্ধি পাবে। আমি আশা করি এই সম্মেলনের আলোচনা ও উপস্থাপিত বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ থেকে আপনারা যেমন উপকৃত হবেন তেমনি আমাদের দেশের চক্ষু চিকিৎসা সেবার মান বৃদ্ধি পাবে। রোগ নির্নয় ও প্রযুক্তিগত কৌশলের ক্ষেত্রেও নতুন নতুন দিকনির্দেশনা বেরিয়ে আসবে। চক্ষু চিকিৎসার ক্ষেত্রে সামগ্রিকভাবে আমাদের সক্ষমতা ও সামর্থ্য বৃদ্ধি পাবে।

রাষ্ট্রপতি সম্মেলনের সর্বাঙ্গীন সাফল্য কামনা করে আশা প্রকাশ করেন যে, ত্রিশ লাখ শহীদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের প্রিয় মাতৃভূমিকে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণের মাধ্যমে একটি সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশে পরিণত করতে দেশের সকল নাগরিক নিজ নিজ অবস্থান থেকে অবদান রাখবেন। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি, অফথ্যালমোলজিক্যাল সোসাইটির সভাপতি প্রফেসর ডা. শরফুদ্দিন আহমেদ, অল ইন্ডিয়া অফথ্যালমোলজিক্যাল সোসাইটির সাবেক সভাপতি ডা. দেবাশীষ ভট্টাচার্য, প্রখ্যাত চক্ষু চিকিৎসক দীন মোহাম্মদ নূরুল হক, সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ইনামুর রহমান চৌধুরী অন্যান্যের মধ্যে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

 


   Page 1 of 56
     শিক্ষা-সাহিত্য
বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার ওপর জরিপ করবে জাইকা
.............................................................................................
সাধারণ শিক্ষায় যুক্ত হচ্ছে ভোকেশনাল কোর্স
.............................................................................................
শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় ৮০ শতাংশই অকৃতকার্য
.............................................................................................
এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলে সন্তুষ্ট না হয়ে উত্তরপত্র পুনঃমূল্যায়নের জন্য রেকর্ড সংখ্যক আবেদন!
.............................................................................................
একাদশ-দ্বাদশ কোর্সে ভর্তির আবেদন শুরু কাল থেকে
.............................................................................................
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৪ দিনের ছুটি শুরু হচ্ছে রোববার
.............................................................................................
একাদশে ভর্তিতে কলেজগুলোকে ভাগ করা হবে
.............................................................................................
৪৫ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ৮ হাজার ৮৮ কোটি টাকার বাজেট অনুমোদন
.............................................................................................
১০৭ প্রতিষ্ঠানে সবাই ফেল
.............................................................................................
এসএসসি ও সমমানে পাসের হার ৮২.২০
.............................................................................................
যেভাবে পাবে এসএসসি ও সমমানের ফলাফল
.............................................................................................
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আজকের সব পরীক্ষা স্থগিত
.............................................................................................
এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ ৬ মে
.............................................................................................
৩৯তম বিসিএসের ফল আজই প্রকাশিত হচ্ছে
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জে ৪১০ টন মেয়াদোত্তীর্ণ খেজুর জব্দ
.............................................................................................
কম খরচে হয়রানিমুক্ত চিকিৎসা নিশ্চিত করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির
.............................................................................................
চাকরিতে প্রবেশের বয়স না বাড়ালে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি
.............................................................................................
পাঠ্যপুস্তকে ভুল-ত্রুটি সংশোধনের কাজ চলছে: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
শিক্ষাখাতে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দে সরকার বদ্ধপরিকর: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের দাবি পূরণের আশ্বাস কর্তৃপক্ষের
.............................................................................................
একাদশে ভর্তি শতভাগ মেধায়, কোটা পরে
.............................................................................................
ইতিহাসের এই দিনে
.............................................................................................
ঢাবিতে ছাত্রলীগের দুইপক্ষ মুখোমুখি : বৈশাখী কনসার্টের অনুমতি বাতিল
.............................................................................................
মুরাদনগরে চায়ের দোকানে আলিম পরীক্ষার ভিডিও ভাইরাল
.............................................................................................
ঢাবির ডিনস অ্যাওয়ার্ড পেলেন ২১ শিক্ষার্থী
.............................................................................................
বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে রাজপথে ববি শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
ভিসির পদত্যাগের দাবিতে ববি শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ
.............................................................................................
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন অব্যাহত
.............................................................................................
পুলিশ-ছাত্রলীগ সংঘর্ষে রণক্ষেত্র চবি ক্যাম্পাস
.............................................................................................
মদপানে রাবির দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু
.............................................................................................
প্রক্টরের আশ্বাসেও অনড় নুর, অবস্থান চলছে
.............................................................................................
জাবিতে ছিনতাইয়ের অভিযোগে ৫ ছাত্রলীগ কর্মী বহিষ্কার
.............................................................................................
ভিসির ‘রাজাকারের বাচ্চা’ বক্তব্যের প্রতিবাদে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ
.............................................................................................
নুরসহ ডাকসুর নবনির্বাচিত নেতারা দায়িত্ব নিলেন
.............................................................................................
জাবির গণরুমে র‌্যাগিংয়ের শিকার এক ছাত্রের করুণ কাহিনী
.............................................................................................
ঢাবির ৮ শিক্ষকের শাস্তি দাবির নিন্দা জানাল সাদা দল
.............................................................................................
ডাকসুর ফল গণভবনে তৈরি, ঘোষণা সিনেট থেকে: ছাত্রদল
.............................................................................................
পুনঃনির্বাচন ও ভিসির পদত্যাগ দাবিতে সোমবার ঢাবির ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা
.............................................................................................
ঢাবির লাল বাসে গণভবনে যাবেন ডাকসু নেতারা
.............................................................................................
পুনঃনির্বাচন সম্ভব নয়, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা: ঢাবি ভিসি
.............................................................................................
পুনঃনির্বাচন সম্ভব নয়, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে ব্যবস্থা: ঢাবি ভিসি
.............................................................................................
পুনঃতফসিলের দাবিতে টিএসসিতে বাম ছাত্রজোটের অবস্থান
.............................................................................................
সবার সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত: নুরুল হক নুরু
.............................................................................................
ছাত্রলীগ ছাড়া অন্য সব প্যানেলের ভোট বর্জনের ঘোষণা, নতুন তফসিলের দাবি
.............................................................................................
রাবির দুই শিক্ষককে হত্যার হুমকি
.............................................................................................
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এখন দ্রুতগামী ট্রেন : শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
ইডেনের সাবেক অধ্যক্ষ হত্যায় আরেক গৃহকর্মী গ্রেফতার
.............................................................................................
হলের বাইরে ভোটকেন্দ্রের দাবিতে ভিসির কার্যালয় ঘেরাও
.............................................................................................
জাবিতে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ-গোলাগুলি, প্রক্টরসহ আহত ১০
.............................................................................................
৯ বছর পর আজ মধুর ক্যান্টিন যাচ্ছে ছাত্রদল
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
উপদেষ্টা: আজাদ কবির
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ হারুনুর রশীদ
সম্পাদক মন্ডলীর সহ-সভাপতি: মামুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
যুগ্ম সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বার্তা সম্পাদক: মুজিবুর রহমান ডালিম
স্পেশাল করাসপনডেন্ট : মো: শরিফুল ইসলাম রানা
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]