বৃহস্পতিবার , ১৬ রবিঃ আউয়াল ১৪৪১ | ১৪ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   শিক্ষা-সাহিত্য -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
উচ্চশিক্ষা কমিশন হচ্ছে না, ক্ষমতা বাড়ছে ইউজিসির

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) ক্ষমতা বাড়ানো হচ্ছে। উচ্চশিক্ষার পরিধি ও ব্যাপ্তি অনেক গুণ বেড়ে যাওয়ায় গত কয়েক বছর থেকে ইউজিসির সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। বলা হচ্ছিল, ইউজিসি ‘দন্তহীন বাঘে’ পরিণত হয়েছে। ‘ঢাল নাই তলোয়ার নাই নিধিরাম সর্দার’। ক্ষমতা বৃদ্ধি পেলে এ রূপ অপবাদ হয়তো আর শুনতে হবে না ‘ইউজিসি’কে।

জানা গেছে, ইউজিসির বর্তমান কমিশন দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই এ ব্যাপারে নতুন করে চিন্তাভাবনা শুরু হয়েছে। কমিশনের বর্তমান চেয়ারম্যানসহ একাধিক সদস্য নতুন নিয়োগ পেয়েছেন। এ ছাড়া এবারই প্রথম কমিশনে একজন সদস্যকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে, যিনি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মনোনীত হয়েছেন। কমিশন সদস্যদের সবাই এই সংস্থাকে আর ‘দাফতরিক প্রতিষ্ঠান’ হিসেবে দেখতে চান না। তাৎক্ষণিক যেকোনো পদক্ষেপ নিতে ‘মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায়’ যেন থাকতে না হয়। এ অবস্থার অবসান চান কমিশনের সব সদস্য।

এ ছাড়াও বর্তমানে পাবলিক (৪৮) ও প্রাইভেট (১০৭) বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যানুপাতে ইউজিসি কাজের চাপে অনেকটাই অকেজো হতে বসেছে। তাই উচ্চশিক্ষার মান নিশ্চিত করতে সংস্থার আমূল পরিবর্তনের পাশাপাশি ক্ষমতায়ন এবং স্বাধীনভাবে কাজ করার নিশ্চয়তা বিধান করা হচ্ছে বলে ইউজিসির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে। এ ব্যাপারে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে সবুজ সঙ্কেত পেয়েছে কমিশন। এ লক্ষ্য নিয়ে গত ১৭ অক্টোবর পূর্ণাঙ্গ কমিশন প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করে। এ সময় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীও উপস্থিত ছিলেন। সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর সবুজ সঙ্কেতে কমিশনে এক বা একাধিক সদস্যের সমন্বয় কমিটি গঠিত হবে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে। সে কমিটি ইউজিসির ক্ষমতায়নের সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা বা একটি আইনের পূর্ণাঙ্গ খসড়া প্রণয়ন করে মন্ত্রণালয়ে পাঠাবে। মন্ত্রণালয় সেটিকে আইনি রূপ দিতে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে। এবারের প্রস্তাবনা যেন অতীত পরিণতির মুখে না পড়ে, তারও ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে সূত্র জানায়।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ইউজিসিকে বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন। তারই আলোকে ইউজিসি কিছু পদক্ষেপও নিয়েছে। সূত্র জানায়, এ বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী স্পষ্ট করেছেন, উচ্চ শিক্ষার নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন-ইউজিসি নামটিই সঠিক এবং আশপাশের একাধিক দেশে এ নামেই এ ধরনের প্রতিষ্ঠান কাজ করছে। হায়ার এডুকেশন কমিশন নামে নতুন প্রতিষ্ঠান তৈরির প্রয়োজন নেই।

বৈঠকে ইউজিসি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের জন্য বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের মতো একটি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট করতে সরকারের সহায়তা চায়। ইউজিসি জানায়, দেশে প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে কলেজ পর্যন্ত সব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের জন্য পৃথক প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট রয়েছে। কিন্তু উচ্চ শিক্ষার শিক্ষকদের জন্য এ ধরনের কোনো প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট নেই। সমালোচকরা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা স্বপ্রশিক্ষিত। এ ছাড়াও ইউজিসির জনবল বৃদ্ধি, নতুন স্থান সঙ্কুলানের জন্য পাশের জমি বরাদ্দ দেয়ার প্রস্তাবসহ বেশ কিছু সুপারিশ করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের পরপরই ইউজিসি মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়ে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি, প্রোভিসি ও ট্রেজারারের শূন্য পদে দ্রুত নিয়োগ দেয়ার অনুরোধ জানায়। মন্ত্রণালয়কে এ ধরনের নির্দেশনা মূলক অনুরোধ ইউজিসির ইতিহাসে এ প্রথম বলেও একটি সূত্র নয়া দিগন্তকে জানায়। কারণ ১৯৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ একটি প্রতিষ্ঠান। সব নির্বাহী ক্ষমতা মন্ত্রণালয়ের হাতে। ইউজিসি কেবল মন্ত্রণালয়কে সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ব্যাপারে সুপারিশ ও পরামর্শই দিতে পারে; নির্দেশনামূলক কোনো ক্ষমতা নেই কমিশনের।

ক্ষমতায়নের ব্যাপারে যে বিষয়গুলোকে প্রধান্য দেয়ার কথা ইউজিসির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, তার মধ্যে প্রধান হচ্ছে, পাবলিক-প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অনিয়ম রোধে সরাসরি হস্তক্ষেপ করা, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে লাগামহীন বিষয় খুলে ছাত্র ভর্তি এবং অনৈতিকভাবে সনদবাণিজ্যের রাশ টেনে ধরা, আর্থিক অনিয়ম হলে সেখানে বরাদ্দ বন্ধ করা, শিক্ষকসহ যেকোনো নিয়োগে অনিয়ম হলে সরাসরি বন্ধ করার ক্ষমতা থাকা ইত্যাদি বিষয় অন্তর্ভুক্ত।

ইউজিসির সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর এ কে আজাদ চৌধুরীর আমলের (২০১১-২০১৫) শুরুতেই ইউজিসির কাঠামো পরিবর্তনসহ উচ্চ শিক্ষাকে যুগোপযোগী এবং বিশ্বমানের নিশ্চিত করতে ‘হায়ার এডুকেশন কমিশন’ নামে পৃথক কমিশন গঠনের প্রস্তাব করে একটি খসড়া আইনের কাঠামো পাঠানো হয়েছিল মন্ত্রণালয়ের কাছে। কিন্তু গতকাল বুধবার পর্যন্ত তা আলোর মুখ দেখেনি। অভিযোগ রয়েছে, হায়ার এডুকেশন কমিশনের যে প্রস্তাবনা ইউজিসি দিয়েছিল তাতে, আমলাতন্ত্রের কর্তৃত্ব ও মন্ত্রণালয়ের প্রভাব মুক্ত একটি স্বাধীন কমিশনের কথা বলা ছিল। কিন্তু মন্ত্রণালয়ে যাওয়ার পর তা ব্যাপক সংশোধন ও পরিবর্তন করায় ইউজিসিই তা থেকে সরে যায়। ফলে গত ১১ বছরেও তা আর এগোয়নি।

উচ্চশিক্ষা কমিশন হচ্ছে না, ক্ষমতা বাড়ছে ইউজিসির
                                  

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) ক্ষমতা বাড়ানো হচ্ছে। উচ্চশিক্ষার পরিধি ও ব্যাপ্তি অনেক গুণ বেড়ে যাওয়ায় গত কয়েক বছর থেকে ইউজিসির সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। বলা হচ্ছিল, ইউজিসি ‘দন্তহীন বাঘে’ পরিণত হয়েছে। ‘ঢাল নাই তলোয়ার নাই নিধিরাম সর্দার’। ক্ষমতা বৃদ্ধি পেলে এ রূপ অপবাদ হয়তো আর শুনতে হবে না ‘ইউজিসি’কে।

জানা গেছে, ইউজিসির বর্তমান কমিশন দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই এ ব্যাপারে নতুন করে চিন্তাভাবনা শুরু হয়েছে। কমিশনের বর্তমান চেয়ারম্যানসহ একাধিক সদস্য নতুন নিয়োগ পেয়েছেন। এ ছাড়া এবারই প্রথম কমিশনে একজন সদস্যকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে, যিনি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মনোনীত হয়েছেন। কমিশন সদস্যদের সবাই এই সংস্থাকে আর ‘দাফতরিক প্রতিষ্ঠান’ হিসেবে দেখতে চান না। তাৎক্ষণিক যেকোনো পদক্ষেপ নিতে ‘মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায়’ যেন থাকতে না হয়। এ অবস্থার অবসান চান কমিশনের সব সদস্য।

এ ছাড়াও বর্তমানে পাবলিক (৪৮) ও প্রাইভেট (১০৭) বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যানুপাতে ইউজিসি কাজের চাপে অনেকটাই অকেজো হতে বসেছে। তাই উচ্চশিক্ষার মান নিশ্চিত করতে সংস্থার আমূল পরিবর্তনের পাশাপাশি ক্ষমতায়ন এবং স্বাধীনভাবে কাজ করার নিশ্চয়তা বিধান করা হচ্ছে বলে ইউজিসির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে। এ ব্যাপারে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে সবুজ সঙ্কেত পেয়েছে কমিশন। এ লক্ষ্য নিয়ে গত ১৭ অক্টোবর পূর্ণাঙ্গ কমিশন প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করে। এ সময় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীও উপস্থিত ছিলেন। সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর সবুজ সঙ্কেতে কমিশনে এক বা একাধিক সদস্যের সমন্বয় কমিটি গঠিত হবে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে। সে কমিটি ইউজিসির ক্ষমতায়নের সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা বা একটি আইনের পূর্ণাঙ্গ খসড়া প্রণয়ন করে মন্ত্রণালয়ে পাঠাবে। মন্ত্রণালয় সেটিকে আইনি রূপ দিতে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে। এবারের প্রস্তাবনা যেন অতীত পরিণতির মুখে না পড়ে, তারও ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে সূত্র জানায়।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ইউজিসিকে বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন। তারই আলোকে ইউজিসি কিছু পদক্ষেপও নিয়েছে। সূত্র জানায়, এ বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী স্পষ্ট করেছেন, উচ্চ শিক্ষার নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন-ইউজিসি নামটিই সঠিক এবং আশপাশের একাধিক দেশে এ নামেই এ ধরনের প্রতিষ্ঠান কাজ করছে। হায়ার এডুকেশন কমিশন নামে নতুন প্রতিষ্ঠান তৈরির প্রয়োজন নেই।

বৈঠকে ইউজিসি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের জন্য বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের মতো একটি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট করতে সরকারের সহায়তা চায়। ইউজিসি জানায়, দেশে প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে কলেজ পর্যন্ত সব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের জন্য পৃথক প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট রয়েছে। কিন্তু উচ্চ শিক্ষার শিক্ষকদের জন্য এ ধরনের কোনো প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট নেই। সমালোচকরা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা স্বপ্রশিক্ষিত। এ ছাড়াও ইউজিসির জনবল বৃদ্ধি, নতুন স্থান সঙ্কুলানের জন্য পাশের জমি বরাদ্দ দেয়ার প্রস্তাবসহ বেশ কিছু সুপারিশ করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের পরপরই ইউজিসি মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়ে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি, প্রোভিসি ও ট্রেজারারের শূন্য পদে দ্রুত নিয়োগ দেয়ার অনুরোধ জানায়। মন্ত্রণালয়কে এ ধরনের নির্দেশনা মূলক অনুরোধ ইউজিসির ইতিহাসে এ প্রথম বলেও একটি সূত্র নয়া দিগন্তকে জানায়। কারণ ১৯৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ একটি প্রতিষ্ঠান। সব নির্বাহী ক্ষমতা মন্ত্রণালয়ের হাতে। ইউজিসি কেবল মন্ত্রণালয়কে সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ব্যাপারে সুপারিশ ও পরামর্শই দিতে পারে; নির্দেশনামূলক কোনো ক্ষমতা নেই কমিশনের।

ক্ষমতায়নের ব্যাপারে যে বিষয়গুলোকে প্রধান্য দেয়ার কথা ইউজিসির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, তার মধ্যে প্রধান হচ্ছে, পাবলিক-প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অনিয়ম রোধে সরাসরি হস্তক্ষেপ করা, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে লাগামহীন বিষয় খুলে ছাত্র ভর্তি এবং অনৈতিকভাবে সনদবাণিজ্যের রাশ টেনে ধরা, আর্থিক অনিয়ম হলে সেখানে বরাদ্দ বন্ধ করা, শিক্ষকসহ যেকোনো নিয়োগে অনিয়ম হলে সরাসরি বন্ধ করার ক্ষমতা থাকা ইত্যাদি বিষয় অন্তর্ভুক্ত।

ইউজিসির সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর এ কে আজাদ চৌধুরীর আমলের (২০১১-২০১৫) শুরুতেই ইউজিসির কাঠামো পরিবর্তনসহ উচ্চ শিক্ষাকে যুগোপযোগী এবং বিশ্বমানের নিশ্চিত করতে ‘হায়ার এডুকেশন কমিশন’ নামে পৃথক কমিশন গঠনের প্রস্তাব করে একটি খসড়া আইনের কাঠামো পাঠানো হয়েছিল মন্ত্রণালয়ের কাছে। কিন্তু গতকাল বুধবার পর্যন্ত তা আলোর মুখ দেখেনি। অভিযোগ রয়েছে, হায়ার এডুকেশন কমিশনের যে প্রস্তাবনা ইউজিসি দিয়েছিল তাতে, আমলাতন্ত্রের কর্তৃত্ব ও মন্ত্রণালয়ের প্রভাব মুক্ত একটি স্বাধীন কমিশনের কথা বলা ছিল। কিন্তু মন্ত্রণালয়ে যাওয়ার পর তা ব্যাপক সংশোধন ও পরিবর্তন করায় ইউজিসিই তা থেকে সরে যায়। ফলে গত ১১ বছরেও তা আর এগোয়নি।

দীর্ঘ প্রতিক্ষিত ফরিদগঞ্জের মূলপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন
                                  

এস. এম ইকবাল:
শান্তিপূর্ন ভাবে চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার মূলপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে দীর্ঘ প্রতিক্ষীত ৬ নভেম্বর (বুধাবর) অনুষ্ঠিত ওই নির্বাচনটি শান্তিপূর্ন ভাবে সম্পন্ন করার জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত ছিলেন। এবারের নির্বাচনে ৪টি অভিভাবক পদে প্রার্থী ছিলেন ৮ জন, সংরক্ষিত ১টি পদে মহিলা সদস্য ছিলেন ২ জন ও ২টি পদে শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচনে প্রার্থী ছিলেন ৪ জন। মোট ভোটার ছিল ৪৫৮ জন।


বিজয়ী অভিভাবক প্রতিনিধিরা হলেন মহসিন তপাদার ২৬১ ভোট, জাহাংগীর আলম ১৬২ ভোট, সুলতান আহাম্মদ খাঁন ১৫৬, ভোট ও মো. মোজাম্মেল হোসেন ১৫৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছে। একই নির্বাচনে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য হিসেবে জেসমিন আক্তার ২৫৭ ভোট ও শিক্ষক প্রতিনিধি হিসেবে শিক্ষকদের ভোটে আক্তার হোসেন ৮ ভোট ও নাজির আহাম্মেদ ৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।


সরেজমিনে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে দেখা পুরুষ ভোটারের চেয়ে নারী ভোটারের সংখ্যাই বেশী। দীর্ঘক্ষন লাইনে দাঁড়িয়ে নারী ভোটার ও পুরুষ ভোটাররা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে দেখা যায়। তবে ভোটারগন বলছে এবারের নির্বাচনটি কয়েক প্রার্থী কাছে মর্যাদার লড়াই হিসেবে দেখছেন অনেকেই। যে কারনে ভোট কেন্দ্রের আশে পাশে এবার বহিরাগত লোকদের উপস্থিতি ছিল লক্ষনীয়। যা নাকি ওই স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির বিগত নির্বাচন গুলোতে দেখা যায়নি।


স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির বর্তমান সভাপতি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার সহিদুল্লা তপাদার নির্বাচনে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, শিক্ষার মান উন্নয়নের স্বার্থে নির্বাচনে ভোটারগন যাতে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচন করতে পারে সে জন্য আইনগত সকল ব্যবস্থা নেয়া হয়েছিল।
নির্বাচনটি সর্ম্পূন্ন অবাধ ও সুষ্ঠ ভাবে সম্পন্ন করার জন্য প্রিজাইডিং অফিসার হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার শাহাদাত হোসেন।

সকাল থেকে আবারো আন্দোলনে জাবি শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা
                                  

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে বুধবার সকাল থেকে ফের আন্দোলন শুরু করেছেন আন্দোলনকারীরা। আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলী‌গের হামলা ও অ‌নি‌র্দিষ্টকা‌লের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধের প্র‌তিবা‌দে শহীদ মিনা‌রে সকাল নয়টা থে‌কে গণজামা‌য়েত শুধু হ‌য়ে‌ছে।

ই‌তোম‌ধ্যে আন্দোলনকারীরা শ‌হীদ মিনার থে‌কে এক‌টি মি‌ছিল শুরু ক‌রে জমা‌য়েত বৃদ্ধি করার চেষ্টা কর‌ছে। মি‌ছিল‌টি জা‌বির বি‌ভিন্ন সড়ক প্রদ‌ক্ষিণ ক‌রে আবার শহীদ মিনা‌রে এ‌সে সম‌া‌বে‌শে যে‌াগ দি‌বে।

জানা যায়, সংহ‌তি সমা‌বে‌শে ও গণজমা‌য়েতে অংশ নি‌তে দে‌শের খ্যাতন‌ামা বু‌দ্ধিজী‌বী ও শিক্ষা‌বিদরা জা‌বির উ‌দ্দে‌শ্যে রওনা হ‌য়ে‌ছেন।

এ‌দি‌কে সকা‌লে ভি‌সির সমর্থ‌নে ছাত্রলী‌গের বি‌ক্ষোভ মি‌ছিল শুরু হওয়ার কথা থাক‌লেও এখ‌নো শুরু হয়‌নি।

এরআগে মঙ্গলবার সন্ধ্যার থে‌কে বি‌ক্ষোভ মি‌ছিল ক্যাম্পা‌সের বি‌ভিন্ন সড়ক প্রদ‌ক্ষিণ ক‌রে জমা‌য়েত বৃ‌দ্ধি কর‌তে থা‌কে। রাত নয়টার দি‌কে মি‌ছিল‌টি বঙ্গমাতা শেখ ফ‌জিলতু‌ন্নেসা মু‌জিব হ‌লের সাম‌নে আসে এবং হ‌লের ভেত‌রে মি‌ছিল ক‌রলে ছাত্রীদের অংশগ্রহণ বাড়‌তে থাকে। এরপর পা‌শের সু‌ফিয়া কামাল হ‌লের গেট বন্ধ ক‌রে দি‌লে আন্দোলনরত ছাত্রীরা হ‌লের গেট ভে‌ঙ্গে ফে‌লে এবং ভেত‌রে মি‌ছিল ক‌রে আসে।

পরে প্রী‌তিলতা হ‌লের প্রথম গেট‌টি ভে‌ঙ্গে ফেলে ছাত্রীরা। তারপর ভেত‌রের মেইন গেট ভে‌ঙ্গে আন্দোলনকারীরা আরো ছাত্রী‌কে মি‌ছি‌লে নি‌য়ে আসে।এছাড়াও দীর্ঘ সময় ধ‌রে নওয়াব ফয়জু‌ন্নেসা হ‌লের সাম‌নে অবস্থান করার পর হ‌লের তালা ভে‌ঙ্গে ভেতর থে‌কে অনেক নারী আন্দোলনকারী অংশগ্রহণ করে।

সর্ব‌শেষ বিশাল মি‌ছিল‌টি প্রা‌ন্তিক গেট হয়ে আবা‌রো ভি‌সির বাসভব‌নের সাম‌নে আসে। ভি‌সির বাসভব‌নে সাম‌নের রাস্তায় বি‌ক্ষোভ সমা‌বেশ করা হয়। মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপাচার্যের বাসভবনের পাশ থেকে অবস্থান তুলে নেয়ার ঘোষণা দেন আন্দোলনকারীরা। পরবর্তী আন্দোলন আরও জোরালো করতেই সাময়িকভাবে রাতের কর্মসূচি স্থগিত করা হয়।

জেব্রা ক্রসিং না থাকলে রাস্তা পার করে দেবে পুলিশ
                                  

যেসব রাস্তায় জেব্রা ক্রসিং বা ফুট ওভারব্রিজ নেই, সেসব জায়গায় ট্রাফিক বিভাগের সদস্যরা রাস্তা পার করে দেবেন বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন (ডিএমপি) পুলিশ কমিশনার শফিকুল ইসলাম। গতকাল সোমবার সকাল ১১টার দিকে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে সড়ক আইন ২০১৮-এর প্রয়োগ বিষয়ক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা জানান। পথচারীরা জেব্রা ক্রসিং বা ফুট ওভারব্রিজ দিয়ে পার না হলে নতুন আইনে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে। এই টাকার পরিমাণ আগে ছিল ২০০। রাজধানীর অনেক সড়কে ওভারব্রিজ বা জেব্রা ক্রসিং নেই। সেক্ষেত্রে কী করা হবে-জানতে চাইলে পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘যেসব জায়গায় জেব্রা ক্রসিং নেই, সেখানে ট্রাফিক বিভাগের কর্মকর্তারা পথচারীদের রাস্তা পারাপারে সাহায্য করবেন।’


মামলার ধারাগুলো নিয়ে তিনি বলেন, ‘এই মামলায় কিছু বৈচিত্র্য আছে। এখানে সাজার পরিমাণ উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি করা হয়েছে। ভয়ে হলেও মানুষের মধ্যে আইন মানার প্রবণতা সৃষ্টি হবে। উন্নত বিশ্বের মতো আইন ভঙ্গের জন্য পয়েন্ট কাটার সিস্টেম করা হয়েছে।’


আইনের ধারাগুলোয় সর্বনিম্ন টাকার পরিমাণ লেখা না থাকলেও সর্বোচ্চ শাস্তির পরিমাণ উল্লেখ রয়েছে। সেক্ষেত্রে পুলিশ কীভাবে মামলা দেবে-জানতে চাইলে কমিশনার বলেন, ‘কেউ যদি প্রথমবার নতুন আইন ভঙ্গ করে, তাহলে তাকে সামান্য পরিমাণ জরিমানা করা হবে। একইসঙ্গে তাকে একটি লিফলেট দেওয়া হবে।

তিনি পরবর্তীতে একই অপরাধ করলে আইন অনুযায়ী পুরো জরিমানা বা শাস্তি ভোগ করতে হবে। এক সপ্তাহ নতুন আইনে কোনও মামলা হবে না। এরপর থেকে রসিদের মাধ্যমে মামলা নেওয়া শুরু হবে। আর পজ মেশিনের সার্ভার আপডেট করার পরে এ পদ্ধতিতে মামলা করা হবে।’

জবিতে ১ম বর্ষে ভর্তি শুরু ১১ নভেম্বর
                                  

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের চার বছর মেয়াদী স্নাতক (সম্মান) ও বিবিএ ১ম বর্ষের ভর্তি কার্যক্রম আগামি ১১ নভেম্বর-২০১৯ থেকে শুরু হচ্ছে। ইউনিট-১ (বিজ্ঞান শাখা), ইউনিট-২ (মানবিক শাখা), ইউনিট-৩ (বাণিজ্য শাখা), বিশেষায়িত ৪টি বিভাগ (সংগীত, চারুকলা, নাট্যকলা ও ফিল্ম এ- টেলিভশন বিভাগ) এবং ইনস্টিটিউটভুক্ত বিভাগসমূহে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণরা ভর্তি হতে পারবেন।

১ম দফা মনোয়নপ্রাপ্তদের ১১ নভেম্বর থেকে ১৭ নভেম্বর এর মধ্যে ভর্তি ফি জমা দান ও ১১ নভেম্বর থেকে ১৮ নভেম্বরের মধ্যে প্রয়োজনীয় সনদপত্র জমা দিতে হবে। আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে ২য় দফা মনোনয়নপ্রাপ্তদের ২১ নভেম্বর হতে ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত ভর্তি ফি জমা প্রদান এবং ২১ নভেম্বর হতে ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত প্রয়োজনীয় সনদপত্রাদি জমা প্রদান করতে হবে। আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে ৩য় দফা মনোনয়নপ্রাপ্তদের ২৮ নভেম্বর হতে ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ভর্তি ফি জমা প্রদান এবং ২৮ নভেম্বর হতে ২ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রয়োজনীয় সনদপত্রাদি জমা প্রদান করতে হবে। আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে ৪র্থ দফা মনোনয়নপ্রাপ্তদের ৫ ডিসেম্বর হতে ৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত ভর্তি ফি জমা প্রদান এবং ৫ ডিসেম্বর হতে ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রয়োজনীয় সনদপত্র জমা প্রদান করতে হবে। আসন শূন্য থাকা সাপেক্ষে ৫ম দফা মনোনয়নপ্রাপ্তদের ১২ ডিসেম্বর হতে ১৫ ডিসেম্বর ভর্তি ফি জমা প্রদান এবং ১২ ডিসেম্বর হতে ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রয়োজনীয় সনদপত্র জমা প্রদান করতে হবে।

ভর্তি পরীক্ষায় উর্ত্তীণ ‘মুক্তিযোদ্ধার সন্তান/নাতি-নাতনি কোটায় আবেদনকারীদের সাক্ষাৎকার ১৭ ডিসেম্বর এবং অন্যান্য কোটায় আবেদনকারীদের সাক্ষাৎকার ১৮ ডিসেম্বর সকাল ১০টা থেকে সংশ্লিষ্ট ডিন অফিসে এবং বিভাগসমূহে অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপ্রাপ্ত বিভাগে ভর্তির সময় ওয়েবসাইট থেকে প্রিন্টকৃত এবং স্বাক্ষরিত আবেদন ফরম পরীক্ষার হলে প্রত্যবেক্ষক কর্তৃক স্বাক্ষরিত প্রবেশ পত্র, এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষার মূল সনদপত্র ও নম্বরপত্রসহ প্রতিটির একটি করে ফটোকপি, এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষার মূল সনদপত্র/নম্বরপত্র, মূল রেজিস্ট্রেশন কার্ডসহ প্রতিটির একটি করে ফটোকপি এবং সম্প্রতি তোলা ২ কপি পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি সংশ্লিষ্ট বিভাগে সনদপত্র ও কাগজপত্র জমা প্রদান হবে। কোটায় আবেদনকারীদের সাক্ষাৎকারের সময় কোটার স্বপক্ষে প্রয়োজনীয় সকল মূল সনদসহ কাগজপত্র নিয়ে সশরীরে উপস্থিত হতে হবে। শুক্রবার ও শনিবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১২টা ও বিকাল ৩টা থেকে ৫টা এবং অন্যান্য দিনগুলোতে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত সকল সনদসহ কাগজপত্র জমা দিতে হবে। মেধাতালিকা অনুযায়ী প্রাপ্ত বিভাগে ভর্তির পর আসন খালি থাকা ও যোগ্যতা থাকা সাপেক্ষে শিক্ষার্থীর বিষয় পছন্দক্রম ও মেধাক্রম অনুসারে স্বয়ংক্রিয়ভাবে (অটো মাইগ্রেশন) বিষয় পরিবর্তন হবে।

অটো মাইগ্রেশনের যেকোন পর্যায়ে অথবা মাইগ্রেশন শুরুর পূর্বে কোন শিক্ষার্থী পছন্দ মতো বিষয় পেলে এবং সে আর মাইগ্রেশন না চাইলে নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই মাইগ্রেশন বন্ধের জন্য ডিন অফিসের নির্ধারিত ফরমে আবেদন করতে হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সরাসরি ডিন অফিসে উপস্থিত হয়ে মাইগ্রেশন বন্ধের আবেদন না করলে পরবর্তীতে আর কোনো আবেদন বিবেচনা করা হবে না এবং অটো মাইগ্রেশনের মাধ্যমে প্রাপ্ত বিষয়ে তাকে পড়তে হবে। ভর্তি ফি জমাদানের নিয়ম/পদ্ধতি ও ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্যাদি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (http://jnu.ac.bd Ges http://admissionjnu.info)  দেওয়া হয়েছে।

 

জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার প্রথম দিন অনুপস্থিত ৬৬ হাজার ১৯৪ জন
                                  

জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার প্রথম দিন ১০ শিক্ষা বোর্ডে অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৬৬ হাজার ১৯৪ জন। বহিষ্কৃত পরীক্ষার্থী ৩৮ জন এবং পরিদর্শক একজন। আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি এবং ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক এ তথ্য জানিয়েছেন। গতকাল শনিবার সারাদেশে বাংলা বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

পরীক্ষার সূচি অনুযায়ী, ২ নভেম্বর হতে পরীক্ষা শুরু হয়ে শেষ হবে ১১ নভেম্বর। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি সকাল ৯টায় কেরানীগঞ্জের জিঞ্জিরা পিএম পাইলট উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ে জেএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ঢাকায় ১৩ হাজার ১৯২ জন, রাজশাহীতে চার হাজার ৮২১ জন, কুমিল্লায় চার হাজার ৬৭ জন, যশোরে চার হাজার ৪৪০ জন, চট্টগ্রামে তিন হাজার ৪৬১ জন, সিলেটে দুই হাজার ৯৯৬ জন, বরিশালে তিন হাজার ১৬৩ জন, দিনাজপুরে পাঁচ হাজার ৮৩৪ জন, ময়মনসিংহে দুই হাজার ৯৯৮ জন এবং মাদরাসা বোর্ডে ২১ হাজার ২৩২ জন ছিল।

ঢাকায় দুইজন, রাজশাহীতে পাঁচজন, কুমিল্লায় দুইজন, বরিশালে আটজন, দিনাজপুরে একজন, ময়মনসিংহে ৩৬ জন এবং মাদরাসা বোর্ডে দুইজন পরীক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছে। আর ময়মনসিংহে বহিষ্কার হয়েছেন এক পরিদর্শক। প্রথম দিন জেএসসিতে ২০ লাখ ৭২ হাজার ২৫৪ জনের মধ্যে ২০ লাখ ২৭ হাজার ২৯২ জন উপস্থিত ছিল। অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৪৪ হাজার ৯৬২ জন। অন্যদিকে, জেডিসিতে ৩ লাখ ৭৬ হাজার ৭৩৪ জনের মধ্যে অংশ নেয় ৩ লাখ ৫৫ হাজার ৫০২ জন। অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২১ হাজার ২৩২ জন।

ডেন্টালে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ, পাসের হার ৮৮.৫২ ভাগ
                                  

 সরকারি-বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ, ইউনিট ও ইনস্টিটিউটে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ১৯ হাজার ৭৭৮ জনের মধ্যে ১৭ হাজার ৫১৭ জন পাস করেছে। শতকরা হিসাবে পাসের হার ৮৮ দশমিক ৫২ ভাগ। ১০০ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নপত্রে নেয়া পরীক্ষায় সর্বোচ্চ প্রাপ্ত নম্বর ৯২ দশমিক ৫০।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ জানান, গতকাল শনিবার দুপুরের পর ফলাফল প্রকাশিত হয়। উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে থেকে জাতীয় মেধাতালিকার ভিত্তিতে প্রথমে সরকারি একটি ডেন্টাল কলেজ ও আটটি ডেন্টাল ইউনিটে ৫১৭টি সাধারণ আসন, মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ১০টি আসন ও পশ্চাৎপদ জনগোষ্ঠীর জন্য পাঁচটি আসনসহ সর্বমোট ৫৩২টি আসনে ভর্তি করা হবে।

আগামী ১৬ নভেম্বর থেকে ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হবে। ২০২০ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে সরকারি ডেন্টাল কলেজে ক্লাস শুরু হবে বলে তিনি জানান। গত শুক্রবার ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য ২৫ হাজার ১১৬ জন আবেদন করলেও অংশগ্রহণ করেন ১৯ হাজার ৭৮৮ জন। স্বল্পতম সময়ে ২৭ ঘণ্টার মধ্যে ফলাফল প্রকাশিত হলো।

জেএসসি-জেডিসিতে বসেছে সাড়ে ২৬ লাখ শিক্ষার্থী
                                  

জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা আজ শনিবার থেকে শুরু হচ্ছে। এতে অংশ নিচ্ছে ২৬ লাখ ৬১ হাজার ৬৮২ জন।

উভয় পরীক্ষাই শুরু হয়েছে সকাল ১০টায়। জেএসসি পরীক্ষা শেষ হবে আগামী ১১ নভেম্বর ও জেডিসি পরীক্ষা শেষ হবে আগামী ১৩ নভেম্বর।

এবার মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২৬ লাখ ৬১ হাজার ৬৮২ জন। এর মধ্যে ছাত্র ১২ লাখ ২১ হাজার ৬৯৫ জন এবং ছাত্রী ১৪ লাখ ৩৯ হাজার ৯৮৭ জন । ছাত্রের তুলনায় ছাত্রীর সংখ্যা ২ লাখ ১৮ হাজার ২৯২ জন বেশি।

চলতি বছর মোট কেন্দ্রের সংখ্যা ২ হাজার ৯৮২টি। মোট ২৯ হাজার ২৬২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা এই পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। এ বছর বিদেশে মোট ৯টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে। প্রতিবন্ধীদের জন্য অতিরিক্ত ২০ মিনিট ও অটিস্টিক শিশুদের জন্য অতিরিক্ত ৩০ মিনিট সময় দেওয়া হবে।

এবার জেএসসিতে পরীক্ষার্থীদের সাতটি বিষয়ে ৬৫০ নম্বরের পরীক্ষা দিতে হবে। ইংরেজি ছাড়া সব বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা দিতে হবে। শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য, কর্ম ও জীবনমুখী শিক্ষা, চারু ও কারুকলা, কৃষি শিক্ষা, গার্হস্থ্য বিজ্ঞান, আরবি, সংস্কৃত, পালি বিষয়সমূহ ধারাবাহিক মূল্যায়ন করা হবে।

উপাচার্যের অপসারণ দাবি জাবিতে সর্বাত্মক ধর্মঘট অব্যাহত
                                  

 জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো সর্বাত্মক ধর্মঘট পালন করেছেন আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ও পুরাতন প্রশাসনিক ভবন এবং বিভিন্ন অ্যাকাডেমিক ভবনে প্রবেশের ফটকে অবস্থান নেন আন্দোলনকারীরা। দেখা যায়, নতুন ও পুরাতন প্রশাসনিক ভবন অবরোধ করে রেখেছেন আন্দোলনকারীরা। এ ছাড়া পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে ‘উপাচার্য অপসারণ মঞ্চ’ করে অবস্থান করেন তারা। অবরোধের কারণে অফিসকক্ষে প্রবেশ করতে পারেননি কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

অন্যদিকে সর্বাত্মক অবরোধের কারণে অধিকাংশ বিভাগে পূর্বনির্ধারিত ক্লাস-পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। ফলে কার্যত বন্ধ ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান অচলাবস্থা নিরসনে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনায় বসেনে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নেতারা। বেলা সাড়ে ১১টায় শিক্ষক সমিতির রুমে এ আলোচনা সভা শুরু হয়। আলোচনা সভায় শিক্ষক সমিতির নেতারা ও আন্দোলনকারীদের একটি প্রতিনিধি দল অংশ নেন।

অন্যদিকে, সর্বাত্মক ধর্মঘটকে উপেক্ষা করে ক্লাস ও পরীক্ষা নেন একাধিক উপাচার্যপন্থি শিক্ষক। এ ছাড়া ভবনে প্রবেশের সময় আন্দোলনকারীদের সঙ্গে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন তারা।

আজ থেকে জাবিতে ধর্মঘট-লাগাতার অবরোধ ঘোষণা
                                  

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের অপসারণ দাবিতে আজ সোমবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রশাসনিক ভবন অবরোধের ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এছাড়াও সর্বাত্মক ধর্মঘটেরও ঘোষণা দেন তারা। গতকাল রোববার বিকেলে দিনব্যাপী অবরোধ কর্মসূচি শেষে পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে ‘উপাচার্য অপসারণ মঞ্চ’ থেকে এক সমাবেশে এ কর্মসূচির ঘোষণা দেন সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট (মার্ক্সবাদী) জাবি শাখার সভাপতি মাহাথির মুহাম্মদ। এর আগে সকাল থেকে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে প্রশাসনিক ভবন অবরোধ করেন আন্দোলনরত শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।


সমাবেশে নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সাঈদ ফেরদৌস বলেন, এ আন্দোলন কোনো ব্যক্তি বিশেষকে অপসারণের আন্দোলন নয়। এটি একটি দুর্নীতিমুক্ত ও জবাবদিহিমূলক বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার আন্দোলন।


বাংলা বিভাগের অধ্যাপক শামীমা সুলতানা বলেন, উপাচার্যের বিরুদ্ধে নয়, আমরা দুর্নীতিবাজের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছি। উপাচার্যের বিরুদ্ধে যে লুটপাট ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে তার সুষ্ঠু তদন্তের দাবিতে আন্দোলন করে যাচ্ছি। কিন্তু প্রশাসন থেকে এই যৌক্তিক আন্দোলন বানচালের জন্য নানা নাটক উপস্থাপন করা হচ্ছে। অধ্যাপক ফারজানা ইসলামকে অনতিবিলম্বে পদত্যাগ করতে হবে।


ছাত্র ইউনিয়নের কার্যকরী সদস্য রাকিবুল হক রনি বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের এই নায্য আন্দোলন প্রশ্নবিদ্ধ করার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। আন্দোলনে ভীত হয়েই প্রশাসন থেকে এসব অপকৌশলের অবলম্বন করা হচ্ছে। দুর্নীতিবাজ প্রশাসন ও এই উপাচার্য যতদিন থাকবে আমরা আন্দোলন অব্যাহত রাখবো।


ছাত্রফ্রন্ট (মার্ক্সবাদী) জাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত দে’র সঞ্চালনায় সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, দর্শন বিভাগের অধ্যাপক আনোয়ারুল্লাহ ভূঁইয়া, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ দিদার, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের মুখপাত্র আরমানুল ইসলাম খান প্রমুখ।

 

অস্ত্রসহ আটক ছাত্রলীগের সাবেক ২ নেতাকে ঢাবি থেকে বহিষ্কার
                                  

 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) হাজি মুহম্মদ মুহসীন হল থেকে পিস্তলসহ আটক ছাত্রলীগের সাবেক দুই নেতাকে এবার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী এ তথ্য জানান।

বহিষ্কৃতরা হলেন- শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক ক্রীড়াবিষয়ক উপ-সম্পাদক হাসিবুর রহমান তুষার এবং দর্শন বিভাগের ছাত্র ও ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সাবেক অর্থবিষয়ক উপ-সম্পাদক আবু বকর।

ঢাবি প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, তাদের সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না এই বিষয়ক চিঠির জবাব সাতদিনের মধ্যে দিতে বলা হয়েছে। ৮ অক্টোবর রাতে মুহসীন হলের ১২১ নম্বর কক্ষ থেকে পিস্তল, বটি, সিসিক্যামেরা, হাতুড়ি, লাঠিসহ আটক করা হয় তাদের।

চুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ
                                  

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইটে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়।

পরীক্ষা কমিটির সদস্য সচিব ও বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, এবারের ভর্তি পরীক্ষায় ১২টি বিভাগে ভর্তির জন্য নিয়মিত ৮৯০ আসনের (১১ টি উপজাতি কোটাসহ ৯০১ আসন) বিপরীতে প্রাথমিকভাবে বাছাইকৃত ১০ হাজার ৯৭২ জন প্রার্থীর মধ্যে ৮ হাজার ৪৮১ জন পরীক্ষায় নেন। এরমধ্যে মেধা তালিকায় উত্তীর্ণ ৪ হাজার জনের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী জানান, ৬ নভেম্বর সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত মেধাতালিকা অনুযায়ী ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে।

আসন খালি থাকা সাপেক্ষে অপেক্ষমাণ তালিকা থেকে ভর্তির জন্য প্রথম অপেক্ষমাণ তালিকা ৬ নভেম্বর বিকেলে এবং ২য় অপেক্ষমাণ তালিকা ১৩ নভেম্বর বিকেলে প্রকাশ করা হবে। ভর্তি সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড এবং নিজস্ব ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে বলে জানান তিনি।

‘ঢাবিতে ছাত্রলীগের হামলা হয়, ব্যবস্থা নেয় না প্রশাসন’
                                  

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান বলেছেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের হামলায় ৯ জন আহত হয়েছে। দুইজন নারী অসৌজন্যমূলক আচরণ এবং লাঞ্ছনার শিকার হয়েছেন।’


হাফিজুর রহমান বলেন, ‘ঢাবিতে ছাত্রলীগ হামলা করলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। এর আগে যে হামলা হয়েছে তার বিচার দাবিতে আমরা স্মারকলিপি দিয়েছিলাম। কিন্তু তারা কোন বিচার করেনি।’ গতকাল রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন হাফিজুর রহমান।
হাফিজুর রহমান বলেন, ‘ঢাবিসহ প্রত্যেকটা ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসের আঁতুরঘর বানিয়ে ফেলেছে। আমরা যেখানে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে কাজ করছি সেখানে হামলার শিকার হয়েছি। যারা এই হামলার সঙ্গে জড়িত তারা সবাই ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতাকর্মী।’


তিনি আরো বলেন, ‘আমরা চাই ক্যাম্পাসে সহাবস্থান বজায় থাকুক। আমরা গণতান্ত্রিক পরিবেশ চাই। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে এই দাবি জানাচ্ছি।’
ছাত্রদলের ঢাবি সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার বলেন, ‘আমরা এখানে সকালে সংবাদ সম্মেলন থেকে বের হয়েই ডিবির কয়েকটি টিম আমাদের গ্রেপ্তার করার চেষ্টা করেছে। আমাদের প্রশ্ন হল ঢাবি প্রশাসন ছাড়া কেন তারা আমাদের ঢাবি ছাত্রদের গ্রেপ্তার করবে? আমরা তো সবাই বর্তমানে ঢাবির ছাত্র।’ মেহেদী আরো বলেন, ‘আমরা যখন মধুর ক্যান্টিনে যাই তখন আমাদের জন্য কোন চেয়ার-টেবিল থাকে না। আমরা প্রতিবাদস্বরূপ ফ্লোরে বসি। আজকেও (গতকাল রোববার) বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নেতাকর্মীরা সেখানে গিয়ে চেয়ার-টেবিল না পেয়ে ফ্লোরে বসি। সেখানে ছাত্রলীগ হামলা করেছে।’


তিনি আরো বলেন, ‘আমরা আগামি দিনে সাধারণ ছাত্রদের জন্য কাজ করে যাব। সেখানে যত বাধাবিঘœ আসুক, আমাদের কাজ আমরা করেই যাব।’ তিনি অভিযোগ করেন, ‘যারা বুয়েট ছাত্র আবরারকে হত্যা করেছিল তারাই আমাদের ওপর হামলা করেছে। এতে আমাদের ৯ জন আহত হয়েছেন। আর দুইজন মেয়ে কর্মীকে লাঞ্ছিত করেছে।’

বাউবি’র ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ
                                  

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ। দেশের একমাত্র উš§ুক্ত ও দূরশিক্ষা নির্ভর এ বিশ্ববিদ্যালয় ১৯৯২ সালের ২১ অক্টোবর প্রতিষ্ঠা লাভ করে। সারা দেশে উšমুক্ত এবং দূরশিক্ষণের মাধ্যমে ঝড়ে পড়া, সুযোগ বঞ্চিত নারী পুরুষ ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য দেশের সকল বয়সের সকল মানুষের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বাউবি।

প্রতিষ্ঠার এই সময়ে ৫৭টি আনুষ্ঠানিক অ্যাকাডেমিক প্রোগ্রাম ও ১৯টি অনানুষ্ঠানিক শিক্ষা প্রোগ্রামে প্রায় ৬ লাখ শিক্ষার্থী দেশজুড়ে ১৫৭৬টি স্টাডি সেন্টারে মাধ্যমিক থেকে পি.এইচ.ডি শিক্ষা পর্যায় পর্যন্ত শিক্ষার্থী এ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা গ্রহন করছে। সারা দেশে ১২টি আঞ্চলিক কেন্দ্র,৮০টি উপ-আঞ্চলিক কেন্দ্রের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়টি তাদের শিক্ষা ও প্রশাসনিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে। তথ্য প্রযুক্তি ও ইলেকটনিক্স মিডিয়া ব্যবহারের মাধ্যমে উš§ুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার সুযোগ সবার জন্য অবারিত করেছে। বাউবি সূত্র জানায়,শিক্ষা, কৃষি, ব্যবসা, আইন, বিজ্ঞান,কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং,স্বাস্থ্য শিক্ষাসহ বিভিন্ন বিষয়ে অ্যাকাডেমিক প্রোগ্রামে স্নাতক (সম্মান) এবং মাস্টার্সসহ পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা প্রোগ্রামে শিক্ষার্থীরা এখান থেকে স্বল্প খরচে লেখা পড়া করে পেশাগত ক্ষেত্রে দক্ষতার স্বাক্ষর রাখছে।

বেতার ও টেলিভিশনের অনুষ্ঠান,ওয়েব রেডিও,ওয়েব টেলিভিশন বাউবি টিউব, ফেসবুক, ই-বুক, মোবাইল এপ্স, ইউটিউবভিত্তিক বিভিন্ন পর্যায়ে শিক্ষা কার্যক্রম শিক্ষার্থীদেরকে অতি সহজেই পঠনপাঠন ও শিক্ষণের ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। পাশাপাশি ই-লার্নিং সেন্টার, মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্র, ওপেন এডুকেশন রির্সোস, লানিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম এবং অনলাইন এডুকেশন, অনলাইন ভর্তি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৬ হাজার টিউটর,১৫ হাজার পরীক্ষক এবং প্রশাসনিক ও আর্থিক ব্যবস্থাপনা,কর্মকান্ড ইত্যাদি সফলভাবে পরিচালনার মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়টিকে একটি ভার্চূয়াল বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে।

প্রবাসি বাংলাদেশিদের দক্ষতা বাড়াতে দক্ষিণ কোরিয়া,কুয়েত,সৌদি আরব,মালয়েশিয়া অনলাইনে বাউবি’র এইচএসসি ও বিএ প্রোগ্রাম সম্প্রতি চালুর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

রাবিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরু আজ
                                  

 রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আজ সোমবার। তিনটি ইউনিটের অধীনে ৪ হাজার ৭১৩টি আসনের বিপরীতে ৭৮ হাজার ৯০ জন ভর্তিচ্ছু প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

জানা যায়, আজ সোমবার প্রথম দিন সকাল ৯টা থেকে ১০টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত ইউনিট-এ এর গ্রুপ-১ এর (রোল ১০০০১ থেকে ২৫৫৬৫ পর্যন্ত), বেলা ১১টা ৪৫ থেকে দেড়টা পর্যন্ত ইউনিট-এ এর গ্রুপ-২ এর (রোল ৫০০০১ থেকে ৬৫৫৬৪ পর্যন্ত), এরপর বিকেল ৩টা থেকে ৪টা ৪৫ পর্যন্ত ইউনিট-বি এর গ্রুপ-১ এর (বাণিজ্য) রোল ১০০০১ থেকে ১৮৬৩৭ পর্যন্ত এবং গ্রুপ-২ (অ-বাণিজ্য) রোল ৮০০০১ থেকে ৮৭০৯৫ এর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে ১০টা ৪৫ পর্যন্ত ইউনিট-সি এর গ্রুপ-১ (বিজ্ঞান) এর রোল ১০০০১ থেকে ২৫২৫৭ পর্যন্ত, বেলা ১১টা ৪৫ থেকে দেড়টা পর্যন্ত ইউনিট-সি এর গ্রুপ-২ (বিজ্ঞান) রোল ৫০০০১ থেকে ৬৫২৫৬ পর্যন্ত ও গ্রুপ-৩ (অ-বিজ্ঞান) রোল ৮০০০১ থেকে ৮০৭১৬ পর্যন্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

প্রতিটি পরীক্ষার সময়কাল ১ ঘণ্টা ৪৫ মিনিট। এর মধ্যে প্রথম ৫০ মিনিট এমসিকিউ, পরবর্তী ১৫ মিনিট এমসিকিউ উত্তরপত্র সংগ্রহ ও লিখিত পরীক্ষার উত্তরপত্র দেওয়া হবে। শেষ ৪০ মিনিট লিখিত পরীক্ষা হবে। এমসিকিউ পরীক্ষার পরবর্তী ১৫ মিনিট পরীক্ষা হলের বাইরে যাওয়া যাবে না।

এদিকে, পরীক্ষায় জালিয়াতি ঠেকাতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আবদুস সোবহান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে জালিয়াতি ঠেকাতে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে। এর বাইরেও পরীক্ষা চলাকালে ক্যাম্পাসে একটি ভ্রাম্যমাণ আদালত থাকবে। কোনো ধরনের জালিয়াতির প্রমাণ পাওয়া গেলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ 

পরীক্ষার নির্দেশনা অনুযায়ী, পরীক্ষার হলে কোনো ধরনের ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস (ক্যালকুলেটর, মোবাইল ফোন, হেডফোন, মেমোরিযুক্ত ঘড়ি) সঙ্গে আনা যাবে না। ভর্তি পরীক্ষাসহ সংশ্লিষ্ট যাবতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (http://admission.ru.ac.bd/undergraduate/) থেকে জানা যাবে। 

 

ivwe‡Z fwZ© cix¶v ïiæ AvR

GdGbGm: ivRkvnx wek¦we`¨vj‡q (ivwe) 2019-20 wk¶ve‡l©i mœvZK cÖ_g e‡l©i fwZ© cix¶v ïiæ n‡”Q AvR †mvgevi| wZbwU BDwb‡Ui Aax‡b 4 nvRvi 713wU Avm‡bi wecix‡Z 78 nvRvi 90 Rb fwZ©”Qy cÖwZØw›ØZv Ki‡eb|

Rvbv hvq, AvR †mvgevi  cÖ_g w`b mKvj 9Uv †_‡K 10Uv 45 wgwbU ch©šÍ BDwbU-G Gi MÖæc-1 Gi (†ivj 10001 †_‡K 25565 ch©šÍ), †ejv 11Uv 45 †_‡K †`oUv ch©šÍ BDwbU-G Gi MÖæc-2 Gi (†ivj 50001 †_‡K 65564 ch©šÍ), Gici we‡Kj 3Uv †_‡K 4Uv 45 ch©šÍ BDwbU-we Gi MÖæc-1 Gi (evwYR¨) †ivj 10001 †_‡K 18637 ch©šÍ Ges MÖæc-2 (A-evwYR¨) †ivj 80001 †_‡K 87095 Gi cix¶v AbywôZ n‡e| g½jevi mKvj 9Uv †_‡K 10Uv 45 ch©šÍ BDwbU-wm Gi MÖæc-1 (weÁvb) Gi †ivj 10001 †_‡K 25257 ch©šÍ, †ejv 11Uv 45 †_‡K †`oUv ch©šÍ BDwbU-wm Gi MÖæc-2 (weÁvb) †ivj 50001 †_‡K 65256 ch©šÍ I MÖæc-3 (A-weÁvb) †ivj 80001 †_‡K 80716 ch©šÍ cix¶v AbywôZ n‡e|

cÖwZwU cix¶vi mgqKvj 1 NÈv 45 wgwbU| Gi g‡a¨ cÖ_g 50 wgwbU GgwmwKD, cieZ©x 15 wgwbU GgwmwKD DËicÎ msMÖn I wjwLZ cix¶vi DËicÎ †`Iqv n‡e| †kl 40 wgwbU wjwLZ cix¶v n‡e| GgwmwKD cix¶vi cieZ©x 15 wgwbU cix¶v n‡ji evB‡i hvIqv hv‡e bv|

Gw`‡K, cix¶vq RvwjqvwZ †VKv‡Z me ai‡bi cÖ¯‘wZ †bIqv n‡q‡Q e‡j KZ©„c‡¶i c¶ †_‡K Rvbv‡bv n‡q‡Q| wek¦we`¨vj‡qi DcvPvh© Aa¨vcK Ave`ym †mvenvb e‡jb, Ôwek¦we`¨vj‡q RvwjqvwZ †VKv‡Z me ai‡bi cÖ¯‘wZ wb‡q‡Q| Gi evB‡iI cix¶v PjvKv‡j K¨v¤úv‡m GKwU åvg¨gvY Av`vjZ _vK‡e| †Kv‡bv ai‡bi RvwjqvwZi cÖgvY cvIqv †M‡j Zvr¶wYK e¨e¯’v †bIqv n‡e|Õ

cix¶vi wb‡`©kbv Abyhvqx, cix¶vi n‡j †Kv‡bv ai‡bi B‡j±ªwbK wWfvBm (K¨vjKz‡jUi, †gvevBj †dvb, †nW‡dvb, †g‡gvwihy³ Nwo) m‡½ Avbv hv‡e bv|  fwZ© cix¶vmn mswkøó hveZxq Z_¨ wek¦we`¨vj‡qi I‡qemvBU (http://admission.ru.ac.bd/undergraduate/) †_‡K Rvbv hv‡e| 

 

 

রাবিতে ভর্তি পরীক্ষা কাল
                                  

 রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে এ বছর ভর্তিপরীক্ষা হবে আগামীকাল সোম ও আগামী মঙ্গলবার। এবার বহুনির্বাচনী পদ্ধতির পাশাপাশি লিখিত পরীক্ষাও হবে। গতকাল শনিবার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রভাষ কুমার কর্মকার লিখিত বক্তব্যে বলেন, অপতৎপরতা ঠেকাতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাসহ এরইমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এবার তিনটি ইউনিটে মোট চার হাজার ৭১৩ আসনের বিপরীতে এ ইউনিটে ৩১ হাজার ১২৯ জন, বি ইউনিটে ১৫ হাজার ৭৩২ জন এবং সি ইউনিটে ৩১ হাজার ২২৯ জন চূড়ান্ত প্রতিযোগী রয়েছেন। তিনি বলেন, সোমবার সকাল ৯টা থেকে পৌনে ১১টা পর্যন্ত এ ইউনিটের গ্রুপ-১ (রোল নম্বর ১০০০১-২৫৫৬৫), বেলা পৌনে ১২টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত এ ইউনিটের গ্রুপ-২ (রোল নম্বর ৫০০০১-৬৫৫৬৪) এবং বিকাল ৩টা থেকে পৌনে ৫টা পর্যন্ত বি ইউনিটের গ্রুপ-১ (বাণিজ্য, রোল: ১০০০১-১৮৬৩৭) এবং বি ইউনিটের গ্রুপ-২ (অ-বাণিজ্য, রোল: ৮০০০১-৮৭০৯৫) নম্বরধারী শিক্ষার্থীদের ভর্তিপরীক্ষা হবে। মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে পৌনে ১১টা পর্যন্ত সি ইউনিটের গ্রুপ-১ (বিজ্ঞান, রোল নম্বর ১০০০১-২৫২৫৭) এবং বেলা পৌনে ১২টা দেড়টা পর্যন্ত সি ইউনিটের গ্রুপ-২ (বিজ্ঞান, রোল নম্বর ৫০০০১-৬৫২৫৬) ও একই ইউনিটের গ্রুপ-৩ (অ-বিজ্ঞান, রোল নম্বর ৮০০০১-৮০৭১৬) ভর্তি পরীক্ষা হবে।

প্রতিটি পরীক্ষার সময় ১ ঘণ্টা ৪৫ মিনিট। এর মধ্যে প্রথম ৫০ মিনিট এমসিকিউ। পরবর্তী ১৫ মিনিট এমসিকিউয়ের উত্তরপত্র সংগ্রহ ও লিখিত পরীক্ষার উত্তরপত্র দেওয়া হবে। শেষ ৪০ মিনিট লিখিত পরীক্ষা হবে। ভর্তিপরীক্ষাসহ সংশ্লিষ্ট তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে। এ বছর ভর্তিপরীক্ষার্থী মহিলা অভিভাবকদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের পশ্চিম দিকের ছাত্রী জিমনেশিয়ামে রাত্রিযাপনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

একই সঙ্গে পর্রীক্ষা চলাকালে শিক্ষাথীদের নারী অভিভাবকদের জন্য শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র ও নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তন উন্মুক্ত থাকবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য আনন্দ কুমার সাহা, কোষাধ্যক্ষ মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ, বিভিন্ন অনুষদের ডিন ও শিক্ষকরা সংবাদ সম্মেলনে ছিলেন।


   Page 1 of 60
     শিক্ষা-সাহিত্য
উচ্চশিক্ষা কমিশন হচ্ছে না, ক্ষমতা বাড়ছে ইউজিসির
.............................................................................................
দীর্ঘ প্রতিক্ষিত ফরিদগঞ্জের মূলপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সম্পন্ন
.............................................................................................
সকাল থেকে আবারো আন্দোলনে জাবি শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
জেব্রা ক্রসিং না থাকলে রাস্তা পার করে দেবে পুলিশ
.............................................................................................
জবিতে ১ম বর্ষে ভর্তি শুরু ১১ নভেম্বর
.............................................................................................
জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার প্রথম দিন অনুপস্থিত ৬৬ হাজার ১৯৪ জন
.............................................................................................
ডেন্টালে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ, পাসের হার ৮৮.৫২ ভাগ
.............................................................................................
জেএসসি-জেডিসিতে বসেছে সাড়ে ২৬ লাখ শিক্ষার্থী
.............................................................................................
উপাচার্যের অপসারণ দাবি জাবিতে সর্বাত্মক ধর্মঘট অব্যাহত
.............................................................................................
আজ থেকে জাবিতে ধর্মঘট-লাগাতার অবরোধ ঘোষণা
.............................................................................................
অস্ত্রসহ আটক ছাত্রলীগের সাবেক ২ নেতাকে ঢাবি থেকে বহিষ্কার
.............................................................................................
চুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ
.............................................................................................
‘ঢাবিতে ছাত্রলীগের হামলা হয়, ব্যবস্থা নেয় না প্রশাসন’
.............................................................................................
বাউবি’র ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ
.............................................................................................
রাবিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরু আজ
.............................................................................................
রাবিতে ভর্তি পরীক্ষা কাল
.............................................................................................
নন-এমপিও শিক্ষকদের গণঅবস্থান কর্মসূচি
.............................................................................................
সরকারি মেডিকেল কলেজে ভর্তি শুরু ২১ অক্টোবর
.............................................................................................
ক্ষমা চাইলেন বুয়েটের ভিসি, বহিষ্কার ১৯, দলীয় রাজনীতি নিষিদ্ধ
.............................................................................................
জবিতে বহিরাগত প্রবেশে নিষেধাঙ্গা
.............................................................................................
মুখ খুলতে শুরু করেছেন নির্যাতনের শিকার বুয়েট ছাত্ররা
.............................................................................................
সব কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় সরকারের দলকানা প্রশাসন দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে: ভিপি নুর
.............................................................................................
আবরার হত্যার বিচারসহ ৭ দফা দাবিতে উত্তাল বুয়েট
.............................................................................................
জবিতে বিজনেস কেইস কম্পিটিশনের সেমিফাইনাল অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
ভিসির পদত্যাগপত্র পেয়েছি, আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
শিক্ষার্থীদের ‘জানোয়ার’ বলে লাথি মারতে চাইলেন সেই উপাচার্য
.............................................................................................
‘ইদান পুরস্কার’ পাচ্ছেন ফজলে হাসান আবেদ
.............................................................................................
অভিযুক্ত ডাকসু নেতাদের পদ শূন্য ঘোষণায় ভিসিকে ভিপি নুরের চিঠি
.............................................................................................
এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা পিছিয়ে ১১ অক্টোবর
.............................................................................................
ঢাবির ‘চ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা আজ
.............................................................................................
দক্ষ নিউক্লিয়ার ইঞ্জিনিয়ার গড়ে তোলার তাগিদ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রীর
.............................................................................................
শিক্ষার্থীদের শান্তিকামী মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে: মহিবুল
.............................................................................................
ঢাবির ভর্তি পরীক্ষায় এবার প্রতি আসনে লড়বেন ৩৯ জন
.............................................................................................
রাবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু হচ্ছে আজ
.............................................................................................
এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা: আজ থেকে মেডিকেল কোচিং বন্ধ রাখার নির্দেশ
.............................................................................................
বরিশালের সেই ১৮ পরীক্ষার্থীসহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা
.............................................................................................
বর্ধিত ফি আদায়কারী কলেজের তালিকা চাইলেন শিক্ষামন্ত্রী
.............................................................................................
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
.............................................................................................
প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী সমাপনী শুরু ১৭ নভেম্বর
.............................................................................................
৬ষ্ঠ থেকে ৮ম শ্রেণিতে বাধ্যতামূলক হচ্ছে কর্মমুখী শিক্ষা
.............................................................................................
বৃষ্টি এলেই বাজে ছুটির ঘন্টা দেখার কেউ নেই
.............................................................................................
কুবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু ১ সেপ্টেম্বর
.............................................................................................
মনের সুখই আসল সুখ বা অপরকে সুখী করানোই প্রকৃত সুখ
.............................................................................................
একবেলা খাবার পাবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা
.............................................................................................
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক ভর্তির আবেদন কার্যক্রম শুরু
.............................................................................................
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা শুরু ২৬ অক্টোবর থেকে
.............................................................................................
২০১৯ সালের জেএসসি পরীক্ষা ও কেন্দ্র ফি ২৫০ টাকা
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের নূর মোহাম্মদ শিক্ষা ফাউন্ডেশনের বৃত্তি প্রদান
.............................................................................................
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন শুরু ১ আগস্ট থেকে
.............................................................................................
৪০তম বিসিএস প্রিলিমিনারিতে উত্তীর্ণ ২০ হাজার ২৭৭
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]