২৪ জিলক্বদ ১৪৪১ , ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৬ জুলাই , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   সারাদেশ -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
নাগেশ্বরীতে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, পানিবন্দী অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ

কুড়িগ্রামে নাগেশ্বরীতে বন্যা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি ঘটেছে। পানির নীচে চলে গেছে বিস্তীর্ণ এলাকা। পানিবন্দী হয়ে পড়েছে প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ।দ্বিতীয় দফা বন্যায় পানি বাড়ছে গত ৩ দিন ধরে। একের পর এক গ্রাম চলে যাচ্ছে পানির নীচে। তলিয়ে যাচ্ছে ঘর-বাড়ি। রাস্তা-ঘাটের ওপর দিয়ে অনেক উচ্চতায় পানি প্রবাহিত হওয়ায় ভেঙ্গে পড়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা।

অবস্থার ভয়াবহতায় অনেকে বাড়ি-ঘর ছেড়ে আশ্রয় নিচ্ছেন বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে। কেউ ঘরের ভেতরে চৌকির ওপরে চৌকি দিয়ে অথবা বাঁশের উঁচু মাচা তৈরি করে বসবাস করছেন। সময় যত যাচ্ছে ততই ফুরিয়ে আসছে তাদের শুকনো খাবারের মজুদ। অনেকের ঘরে চাউল, ডাল থাকলেও চারদিকের অথৈ পানিতে তাদের রান্নার সুযোগ নেই। টিউবওয়েল তলিয়ে যাওয়ায় দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানির সংকট। তৃণভূমি তলিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি শুকনো খড় পানিতে ভিজে নষ্ট হওয়ায় দেখা দিয়েছে গো-খাদ্যের সংকট। বন্যা যত দীর্ঘায়িত হচ্ছে ততই বাড়ছে বানভাসিদের দুর্ভোগ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস জানায়, চলতি এ বন্যায় উপজেলার ১০ ইউনিয়নের ৪৮টি গ্রাম সম্পূর্ণ তলিয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৫ হাজার ৫২৮ পরিবারের ৪৪ হাজার ৭৯৯ জন মানুষ। ইতিমধ্যে বানভাসিদের মাঝে ৬০ মে.টন চাউল, নগদ ৬ লক্ষ ৩০ হাজার, শিশু খাদ্যের জন্য ১ লক্ষ ১৫ হাজার ও গো-খাদ্যের জন্য ৮০ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে। আরও বরাদ্ধ পাওয়া গেছে ৩৬ মে.টন চাউল, ৮০ হাজার টাকা, শিশু খাদ্যের জন্য ৪০ হাজার ও গো-খাদ্যের জন্য ৪০ হাজার টাকা। যা বিতরণ করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুর আহমেদ মাছুম জানান, বন্যা মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রগুলো। অবস্থার আরও অবনতি ঘটলে যাতে দ্রুত বন্যা দুর্গতদের বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে নেওয়া যায় এজন্য ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের নৌকা প্রস্তুত রাখতে বলা হয়েছে।

নাগেশ্বরীতে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, পানিবন্দী অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ
                                  

কুড়িগ্রামে নাগেশ্বরীতে বন্যা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি ঘটেছে। পানির নীচে চলে গেছে বিস্তীর্ণ এলাকা। পানিবন্দী হয়ে পড়েছে প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ।দ্বিতীয় দফা বন্যায় পানি বাড়ছে গত ৩ দিন ধরে। একের পর এক গ্রাম চলে যাচ্ছে পানির নীচে। তলিয়ে যাচ্ছে ঘর-বাড়ি। রাস্তা-ঘাটের ওপর দিয়ে অনেক উচ্চতায় পানি প্রবাহিত হওয়ায় ভেঙ্গে পড়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা।

অবস্থার ভয়াবহতায় অনেকে বাড়ি-ঘর ছেড়ে আশ্রয় নিচ্ছেন বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে। কেউ ঘরের ভেতরে চৌকির ওপরে চৌকি দিয়ে অথবা বাঁশের উঁচু মাচা তৈরি করে বসবাস করছেন। সময় যত যাচ্ছে ততই ফুরিয়ে আসছে তাদের শুকনো খাবারের মজুদ। অনেকের ঘরে চাউল, ডাল থাকলেও চারদিকের অথৈ পানিতে তাদের রান্নার সুযোগ নেই। টিউবওয়েল তলিয়ে যাওয়ায় দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানির সংকট। তৃণভূমি তলিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি শুকনো খড় পানিতে ভিজে নষ্ট হওয়ায় দেখা দিয়েছে গো-খাদ্যের সংকট। বন্যা যত দীর্ঘায়িত হচ্ছে ততই বাড়ছে বানভাসিদের দুর্ভোগ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস জানায়, চলতি এ বন্যায় উপজেলার ১০ ইউনিয়নের ৪৮টি গ্রাম সম্পূর্ণ তলিয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৫ হাজার ৫২৮ পরিবারের ৪৪ হাজার ৭৯৯ জন মানুষ। ইতিমধ্যে বানভাসিদের মাঝে ৬০ মে.টন চাউল, নগদ ৬ লক্ষ ৩০ হাজার, শিশু খাদ্যের জন্য ১ লক্ষ ১৫ হাজার ও গো-খাদ্যের জন্য ৮০ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে। আরও বরাদ্ধ পাওয়া গেছে ৩৬ মে.টন চাউল, ৮০ হাজার টাকা, শিশু খাদ্যের জন্য ৪০ হাজার ও গো-খাদ্যের জন্য ৪০ হাজার টাকা। যা বিতরণ করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুর আহমেদ মাছুম জানান, বন্যা মোকাবিলায় সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রগুলো। অবস্থার আরও অবনতি ঘটলে যাতে দ্রুত বন্যা দুর্গতদের বন্যা আশ্রয় কেন্দ্রে নেওয়া যায় এজন্য ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের নৌকা প্রস্তুত রাখতে বলা হয়েছে।

করোনায় চট্টগ্রামের উপ পুলিশ কমিশনার মিজানের মৃত্যু
                                  

কোভিড-১৯ মহামারীতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) উপকমিশনার মিজানুর রহমান।


রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সোমবার ভোরে তার মৃত্যু হয়।

সিএমপির বিশেষ শাখার উপপুলিশ কমিশনার আবদুল ওয়ারিশ যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ ছাড়া সিএমপির জনসংযোগ কর্মকর্তা মির্জা সায়েমের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ার পর ২৮ জুন ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে পঠিয়ে দেয়া হয় মিজানুর রহমানকে। তার স্ত্রী ও সন্তানও এই ভাইরাসে আক্রান্ত।

২২তম বিসিএসের মাধ্যমে পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেয়া মিজানুর রহমানই প্রথম এসপি পদমর্যাদার কর্মকর্তা, যিনি করোনাভাইরাসে মারা গেলেন।

টেকনাফে বিজিবির সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত
                                  

কক্সবাজারের টেকনাফে বিজিবির সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে শনিবার দিবাগত রাতে এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহত মো. ছৈয়দ আলম (৩৫) টেকনাফ পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড এলাকার মো. সৈয়দ আহমদের ছেলে।


টেকনাফ ২ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খানের ভাষ্যমতে, ‘টেকনাফ স্থলবন্দর সংলগ্ন ১৪ নম্বর ব্রিজের কাছে কেয়ারী খাল এলাকা দিয়ে ইয়াবার একটি বড় চালান মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে, এমন সংবাদে তাদের একটি বিশেষ টহলদল রাত ২টার দিকে অবস্থান নেয়। টহলদল দূর হতে দুইজন সন্দেহজনক ব্যক্তিকে খালের পাড়ে দেখে। কিছুক্ষণ পর এক ব্যক্তিকে নাফনদী সাঁতরিয়ে মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দেখা যায়। তিনি খালের মুখে আসার সাথে সাথে পূর্বে থেকে অপেক্ষমান দুই ব্যক্তি তার কাছে এগিয়ে যায়। টহলদল চ্যালেঞ্জ করলে বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে তারা। তাৎক্ষণিক টহলদলটি তাদের ধাওয়া করলে সশস্ত্র ইয়াবা কারবারীরা বিজিবি সদস্যদের ওপর অতর্কিতভাবে গুলিবর্ষণ করে। এসময় বিজিবির টহলদলটি সরকারি সম্পদ এবং নিজেদের জান ও মাল রক্ষার্থে কৌশলগত অবস্থান নিয়ে পাল্টা গুলিবর্ষণ করে। ফলে উভয় পক্ষের মধ্যে প্রায় ৩-৪ মিনিট গুলি বিনিময় হয়।’


‘পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক মাদক কারবারীকে উদ্ধার করা হয়। তাকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জরুরি চিকিৎসা শেষে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে পৌঁছালে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে,’ বলেন তিনি।

ঘটনাস্থল থেকে ৪০ হাজার ইয়াবা, ১টি এলজি ও এক রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধারের দাবি করেছে বিজিবি।

 

সূত্র : ইউএনবি

 

করোনা কেড়ে নিল আরডিএ মহাপরিচালকের প্রাণ
                                  

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বগুড়া পল্লী উন্নয়ন একাডেমির (আরডিএ) মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) আমিনুল ইসলাম মারা গেছেন।


শনিবার সকাল ৯টার দিকে আমিনুল ইসলাম মৃত্যুবরণ করেন।

রামেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মহাপরিচালক আমিনুল ইসলাম হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন ছিলেন।

গত ২২ জন বগুড়ার টিএমএসএস-এ নমুনা দেন আমিনুল ইসলাম। পরের দিন ২৩ জুন নমুনা পরীক্ষায় তার করোনা পজিটিভ আসে। সেসময় তিনি আরডিএ সেন্টারে নিজের বাংলোতে আইসোলেশনে চলে যান।

পরে তার শারিরীক অবস্থার অবনতি হলে গত ২৯ জুন রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার স্ত্রী ও দুই ছেলে রাজশাহীতে বসবাস করেন।

আমিনুল ইসলাম বিসিএস অষ্টম ব্যাচের প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা হিসেবে ১৯৮৯ সালের ২০ ডিসেম্বর যোগদান করেন।


সুদীর্ঘ কর্মজীবনে তিনি রাজশাহী অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক, খাদ্য মন্তণালয়ের উপসচিব, সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসক ও নাটোর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

২০১৯ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি আমিনুল ইসলাম বগুড়া পল্লী উন্নয়ন একাডেমিতে (আরডিএ) মহাপরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। চলতি বছরের জুনে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের ‘নিয়ন্ত্রণাধীন দফতর/সংস্থা’ কাটাগরিতে ‘শুদ্ধাচার পুরস্কার’ অর্জন করেন তিনি।

আমিনুল ইসলাম সামাজিক আন্দোলন স্কাউটিং কার্যক্রমের সঙ্গে নিবিড়ভাবে যুক্ত ছিলেন। স্কাউটস এর একজন লিডার ট্রেনার ছিলেন তিনি। বিগত পাঁচ বছর যাবত বাংলাদেশ স্কাউট রাজশাহী অঞ্চলের আঞ্চলিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

আমিনুল ইসলাম স্কাউটসের ন্যাশনাল সার্টিফিকেট এ্যাওয়ার্ড, মেডেল অব মেরিট, বার টু দ্যা মেডেল, প্রধান জাতীয় কমিশনার এ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছেন।

শাহেদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চায় নিজ জেলা সাতক্ষীরার মানুষ
                                  

সাতক্ষীরার ছেলে শাহেদ করিম, ঢাকায় গিয়ে হয়েছেন মো: শাহেদ। শাহেদের বাড়ি সাতক্ষীরা শহরের কামালনগর এলাকায়। এখানে বর্তমানে তার আর কিছুই নেই। সব বিক্রি করে অনেক আগেই তারা ঢাকায় চলে যান।


তার বাবার নাম সিরাজুল করিম ও মায়ের নাম সাফিয়া করিম। এক সময় তার মা সাতক্ষীরা জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা ছিলেন।

তবে, সাতক্ষীরার আপামর মানুষ আলোচিত এই মো: শাহেদের ঘৃণীত অপরাধের দায়িত্ব নিতে রাজি নন। তাকে বেশিরভাগ মানুষ না চিনলেও সবাই এক বাক্যে তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন। সাতক্ষীরার দলীয় নেতাকর্মীসহ প্রত্যেকেই তার অপকর্মের শাস্তি দাবি করেছেন।

এদিকে পুলিশ তার ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহে এবং তার অপরাধ কর্মকান্ডের ব্যাপারে খোঁজখবর নিতে মাঠে নেমেছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বাবা সিরাজুল করিম ও মা সাফিয়া করিম শাহেদের অনৈতিক কর্মকান্ড ও তার বিরুদ্ধে মামলার পাহাড় নিয়ে চিন্তিত ছিলেন। শাহেদ বরাবরই ঢাকায় থাকতেন, সাতক্ষীরায় আসতেন কম। সাতক্ষীরার মানুষ তার বিরুদ্ধে তেমন কিছুই জানতো না। তার ভিন্নধর্মী শারীরিক অবয়ব ও টেলিভিশন টকশো’তে তাকে দেখে চিনতো, কিন্তু শাহেদ করিম যে সাতক্ষীরার ছেলে সেটা বেশিরভাগ মানুষ জানতো না।



তার মা মারা যাওয়ার পর তার বাবা শহরের প্রাণকেন্দ্র কামালনগরে অবস্থিত করিম সুপার মার্কেট ও তাদের বসতভিটা বিক্রি করে স্থায়ীভাবে সাতক্ষীরা ছেড়ে চলে যান ঢাকায়। যে কারণে সাতক্ষীরার বেশিরভাগ মানুষ তাদের সম্পর্কে তেমন কিছু জানতেন না।

সাতক্ষীরা নাগরিক আন্দোলনের সদস্য সচিব অ্যাড. আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান মাসুম ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন জানান, শাহেদকে সাতক্ষীরাবাসী সবাই প্রতারক হিসেবে চেনেন। তারা এই প্রতারকের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান।

সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ মো: নজরুল ইসলাম জানান, স্বাস্থ্যসেবার নামে শাহেদ যেভাবে মানুষকে প্রতারণা করেছে এটি নিঃসন্দেহে লজ্জাজনক ও দুঃখজনক। আইনের সর্বোচ্চ প্রয়োগের মাধ্যমে এ ধরনের প্রতারকের শাস্তি হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি।

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ যুবক নিহত
                                  

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই যুবক নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- সাদ্দাম হোসেন (২২) ও আবদুল জলিল (৩২)।


পুলিশের দাবি, নিহত দুজন তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী ও পলাতক আসামি। সাদ্দামের নামে ইয়াবাসহ ১৭ মামলা এবং জলিলের নামে ১৩টি মামলা রয়েছে। নিহত সাদ্দাম হোসেন উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের মৌলভীবাজারের মৃত সুলতান আহমদ ওরফে চায় বাদশার ছেলে ও আবদুল জলিল (৩২) হোয়াইক্যং পশ্চিম মহেশখালীয়াপাড়ার মৃত অলি আহাম্মদের ছেলে।

সোমবার রাত ১টার দিকে উপজেলা হোয়াইক্যং ইউনিয়নের কম্বোনিয়াপাড়ার বড়ছড়ায় উত্তরে খালের পাড়ে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, রাত ৮টার দিকে মৌলভীবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদকসহ পলাতক আসামি সাদ্দাম হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

পরে জিজ্ঞাসাবাদের পর সাদ্দামকে নিয়ে রাত ১টার দিকে ইয়াবা, অস্ত্র উদ্ধারে উপজেলা কম্বোনিয়া বড়ছড়ার মোহাম্মদ হাসান মেম্বারের বাড়ির উত্তরে খালপাড়ে পৌঁছালে তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এতে পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মশিউর রহমান, কনস্টেবল অভিজিৎ দাস ও মো. এমরান আহত হন। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে।

উভয়পক্ষের গোলাগুলির সময় পালাতে গিয়ে সাদ্দামসহ আবদুল জলিল গুলিবিদ্ধ হন। এ সময় অন্যরা পালিয়ে যান।

তিস্তার পানি বাড়ছে হু হু করে
                                  

ভারী বর্ষণ আর উজানের পাহাড়ি ঢলে তিস্তা নদীর পানি আবারো বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। শনিবার সকাল ৬টা থেকে তিস্তা নদীর পানি নীলফামারীর ডালিয়া তিস্তা ব্যারেজ পয়েন্টে বিপৎসীমার ২২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ক্রমাগত পানি বৃদ্ধির কারণে এরই মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে তিস্তা পাড়ের মানুষের মাঝে।


নীলফামারীর ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পুর্বাভাস সর্তকীকরণ কেন্দ্র জানায়, শনিবার ভোর রাত থেকে তিস্তা নদীর পানি হু হু করে বাড়তে থাকে। যা শনিবার সকাল ৬ টায় তিস্তার পানি বৃদ্ধি পেয়ে ৫২ দশমিক ৮২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে (বিপদসীমা ৫২ দশমিক ৬০ সেন্টিমিটার)। পানির গতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে তিস্তা ব্যারেজের ৪৪টি জলকপাট খুলে রাখা হয়েছে।

এদিকে তিস্তার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ডিমলা উপজেলার পূর্বছাতনাই,টেপাখড়িবাড়ী,খগাখড়িবাড়ী, খালিশা চাপানি, ঝুনাগাছ চাপানি, গয়াবাড়ী ও জলঢাকা উপজেলার গোলমুন্ডা, শৌলমারি ও ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়নের প্রায় ১৫টি চরের মানুষজন বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে বলে জানিয়েছেন ওইসব ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধিরা।

পানি উন্নয়ন বোর্ড নীলফামারীর ডালিয়া ডিভিশনের নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম জানান, গত দুই দিনের ভারী বর্ষণ ও উজানের ঢলে তিস্তা নদীর পানি আজ সকাল ৬টা থেকে বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

সিলেটে চিকিৎসকসহ আরও ৮২ জনের করোনা শনাক্ত
                                  

সিলেটে চিকিৎসকসহ আরও ৮২ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. হিমাংশু লাল রায় জানান, হাসপাতালের ল্যাবে ২৮২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৮০ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। তাদের মধ্যে সাতজন চিকিৎসকও রয়েছেন।

এর আগে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় ২৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এর মধ্যে সিলেট জেলার দুজন রয়েছেন।

এ নিয়ে সিলেট জেলায় মোট ২ হাজার ৬৩২ জনের করোনা শনাক্ত হলো।

সব মিলিয়ে বুধবার রাত পর্যন্ত সিলেট বিভাগে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৯০৮ জন। এর মধ্যে সুনামগঞ্জে ১ হাজার ১৫ জন, হবিগঞ্জে ৭২২ জন ও মৌলভীবাজারে ৫৩৯ জন রয়েছেন।

সিলেট বিভাগে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩০৪ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ৪১২ জন, সুনামগঞ্জে ৪৫৯ জন, হবিগঞ্জে ২১৮ জন এবং মৌলভীবাজারে ২১৫ জন আছেন।

এখন পর্যন্ত সিলেট বিভাগে করোনা আক্রান্ত রোগী মারা গেছেন ৭৮ জন। এর মধ্যে সিলেট জেলায় সর্বোচ্চ ৬১ জন, সুনামগঞ্জে ৭ জন, হবিগঞ্জে ৬ জন এবং মৌলভীবাজারে ৪ জন রয়েছেন।

গোপালগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭`শ ছাড়ালো
                                  

গোপালগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭০০ ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এক স্বাস্থ্যকর্মীসহ নতুন করে আরও ২৭ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে গোপালগঞ্জে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭১১ জনে। একই সময়ে সুস্থ হয়েছেন ২৬ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৭৯ জন। জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাড়িতে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩২১ জন। গোপালগঞ্জ সদর, কোটালীপাড়া মুকসুদপুর, কাশিয়ানী ও টুঙ্গিপাড়ায় মারা গেছেন ১১ জন।

বৃহস্পতিবার সকালে গোপালগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ এ তথ্য জানান। তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে গোপালগঞ্জ সদরে ৪ জন, মুকসুদপুরে ৮ জন, কোটালীপাড়ায় ৬ জন, কাশিয়ানীতে ২ জন ও টুঙ্গিপাড়ায় ৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের বসতবাড়িসহ আশপাশের বেশ কয়েকটি বাড়িঘর লকডাউন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে আক্রান্তদের পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, এ পর্যন্ত ৫ হাজার ২৯৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে মুকসুদপুরে ১৬৪ জন, কাশিয়ানীতে ১৪২ জন, গোপালগঞ্জ সদরে ১৮৭ জন, টুঙ্গিপাড়ায় ১০৮ জন ও কোটালীপাড়া উপজেলায় ১১০ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ৬০ জন চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন।

করোনায় প্রাণ হারালেন আরো দুই চিকিৎসক
                                  

মরণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো দুই চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে ৫৭ জন চিকিৎসক মারা গেলেন। সর্বশেষ মারা যাওয়া দুই চিকিৎসক হলেন- ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের পেডিয়াট্রিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. গোলাম সারোয়ার এবং ইমপালস হাসপাতালের গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজি ও হেপাটোলজি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মোহসীন কবীর।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ বুধবার ভোররাতে তাদের মৃত্যু হয়ডা. গোলাম সারোয়ার ও ডা. মোহসীন কবীরদুই চিকিৎসকের মৃত্যুর তথ্য গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন ফাউন্ডেশন ফর ডক্টরস সেফটি রাইটস অ্যান্ড রেসপন্সিবিলিটিসের (এফডিএসআর) যুগ্ম-সম্পাদক ডা. রাহাত আনোয়ার চৌধুরী।

তিনি জানান, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ১৫তম ব্যাচের ছাত্র ডা. গোলাম সারোয়ার আজ বুধবার ভোররাত ৪টায় রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।ইমপালস হাসপাতালঅন্যদিকে, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের ২২তম ব্যাচের ছাত্র ডা. মোহসীন কবীরও ভোররাতে ইমপালস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।ডা. রাহাত আনোয়ার জানান, এ নিয়ে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৫৭ জন চিকিৎসকের মৃত্যু হলো। এর বাইরে করোনার উপসর্গ নিয়ে আরো আট চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে।

ফরিদগঞ্জে গৃহবধূ হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন
                                  

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি :

 চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার সুবিদপুর পূর্ব ইউনিয়নের বড়গাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রী মেহেরুননেছা প্রীতি (২০) নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ তুলে অভিযুক্তদের সনাক্ত করে বিচারের দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেছেন ঐ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্র- ছাত্রী, শিক্ষক, এলাকাবাসী। সোমবার বড়গাঁও উচ্চ বিদ্যালয় চত্বরে নিহতের স্বজন ও ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক এবং বিভিন্ন শ্রেনী পেশার পাঁচ শতাধিক লোকের উপস্থিতিতে সকাল ১০টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

গৃহবধূ মেহেরুননেছা প্রীতি উপজেলার গুপ্টি পশ্চিম ইউনিয়নের হোগলী গ্রামের সজিব হোসেন এর স্ত্রী। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন নিহতের চাচা আবুল কাশেম, বড়গাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র শামীম হোসাইন, আব্দুল মোতালেব, প্রীতির সহপাঠী, গল্লাক ডিগ্রি কলেজের ছাত্রী মারিয়া ভূঁইয়া। ওই ইউনিয়নের ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম, বড়গাঁও উচ্চ বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য আশরাফ খান আশু, বড়গাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের সহ- শিক্ষক আমির হোসেন চৌধুরী মানববন্ধনে অংশ নেয়।

মানববন্ধনে নিহত প্রীতির চাচা আবুল কাশেম বলেন, ১ বছর ২ মাস আগে হোগলী গ্রামের মৃত বাবলু পাটওয়ারীর সাথে প্রীতির বিয়ে হয়। সজিব মাদকাসক্ত ছিল, সে প্রায়ই কারনে অকারণে প্রীতিকে মারধর করতো। প্রীতি হত্যার আগের দিন (বৃহস্পতিবার) রাতে প্রীতির বোনের জন্মদিনে যাওয়া নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরের দিন শুক্রবার সকালে তাকে ব্যাপক মারধর করে এবং তাকে হত্যা করে। পরে তা আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়। তিনি আরো বলেন, হত্যার খবর পেয়ে আমরা ঐ বাড়িতে গিয়ে দেখি তারা তড়িঘড়ি করছে লাশ থানায় পাঠানোর ব্যবস্থা করছে। আমরা পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যা মামলা করার চেষ্টা করলেও পুলিশ হত্যা মামলা না করে অপমৃত্যুর মামলা রুজু করে।

উল্লেখ্যঃ গত শুক্রবার সকালে থানা পুলিশ হোগলী গ্রামের স্বামী সজিব হোসেনের ঘর থেকে প্রীতির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। ঐদিন থানায় এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়।

ফরিদগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ শহীদ হোসেন বলেন, মানববন্ধনের বিষয়ে কিছু জানা নেই। তবে গত শুক্রবার মেহেরুননেছা প্রীতি নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছিল। ওই ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরে এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।  

খুলনায় করোনা আক্রান্ত ৫ জনের মৃত্যু
                                  

খুলনায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৫জনের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত তাদের মৃত্যু হয়। এরমধ্যে খুলনা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনজন, হাসপাতাল থেকে ঢাকায় নেয়ার পথে একজন ও নিজ বাসায় মারা গেছেন।

খুলনা করোনা হাসপাতালের মুখপাত্র ডা. শেখ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ জানান, খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের রেডিওলজি বিভাগের টেকনোলজিস্ট মো. বাবর আলী গত ১৯ জুন খুলনা করোনা হাসপাতালে ভর্তি হন। সোমবার রাত পৌনে ৯টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নগরীর দোলখোলা এলাকার সমর দাস (৬৭) গত ২৩ জুন হাসপাতালে ভর্তি হন। সোমবার রাত পৌনে ৮টায় তার মৃত্যু হয়। ফুলতলা উপজেলার যুগ্মিপাশা গ্রামের আনোয়ারা বেগম (৮৫) গত ২৬ জুন হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় তার মৃত্যু হয়। অপরদিকে, রাত ১০টার দিকে নগরীর শান্তিধাম মোড়ের ডাক্তার গলিতে আব্দুল হালিম (৫০) নামে এক ব্যবসায়ী করোনা আক্রান্ত হয়ে নিজ বাসায় মারা যান।

এছাড়া, নগরীর বাবু খান রোডের ডিপার্টমেন্টাল স্টোর ‘আসাদ স্টোর’ এর মালিক আনিসুর রহমান গত ২৩ জুন খুলনা করোনা হাসপাতালে ভর্তি হন। সোমবার বিকালে তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু।

যমুনার পানি বৃদ্ধি, অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী
                                  

গত কয়েকদিন যাবত যমুনার অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি ফলে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে। এতে অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে পানি। অনেক স্থানে দেখা দিয়েছে ভাঙন। গৃহহারা হয়েছে শত শত পরিবার।

জানা যায়, গত কয়েকদিনে যমুনার পানি অতিমাত্রায় বৃদ্ধির কারণে যমুনা নদী তীরবর্তী গ্রামগুলোতে ব্যাপক ভাঙন দেখা দিয়েছে। এতে গৃহহীন হয়ে পড়েছে শত শত পরিবার। তলিয়ে গেছে পাট, আউশ ধান, তিল, সজ, বাদামসহ কয়েক হাজার একর জমির ফসল।

চর চন্দনী গ্রামের কৃষক রহিজ উদ্দিন জানান, ‘একদিকে নদীর পানি বাড়ছে, অন্যদিকে বাড়ি ভাঙছে। যা আবাদ করছিলাম সব বানে তলায়া গেছে। বাড়ি ঘর গরু ছাগল লইয়া কনু যামু কি করমু কিছুই দিসা পাইতাছি না।’

গাবসারা ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনির জানান, ইউনিয়নের প্রায় ১৫টি গ্রামে ভাঙন দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যেই ভূইয়াপাড়া, ফলদাপাড়া, রামপুর, খন্দকার পাড়া, চন্দনী, নিকলাপাড়া, মেঘারপটল গ্রামে প্রায় ৩শ’ ১০টি পরিবার নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। ভাঙনকবলিত ছিন্নমূল পরিবারগুলো অতিকষ্টে বিভিন্ন স্থানে আশ্রয় নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। উপজেলার অর্জুনা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে প্রায় ২৫০টি পরিবারের ঘরবাড়ি নদীগর্ভে বিলিন হয়েছে বলে জানান ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী মোল্লা।

এদিকে ভাঙন আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে উপজেলার অর্ধশতাধিক গ্রামের মানুষ। গোবিন্দাসী ইউনিয়নের খানুর বাড়ি, ভালকুটিয়া ও কষ্টাপাড়া গ্রামের প্রায় অর্ধশতাধিক বাড়ি যমুনার গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। হুমকির মুখে রয়েছে গোবিন্দাসী গরুর হাট, গোবিন্দাসী উচ্চ বিদ্যালয়, ৩শ’ বছরের পুরানো কষ্টাপাড়া কালি মন্দির, খানুরবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতল ভবনসহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। নিকরাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন সরকার জানান, কোনাবাড়ী, বাহাদুর টোকনা ও পলশিয়া গ্রামে ৪৫টি পরিবারের বাড়িঘর যমুনায় বিলীন হয়েছে।

টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: সিরাজুল ইসলাম জানান, যমুনার পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় আপাতত জিও ব্যাগ ফেলা বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে পানি কমার সাথে সাথে পুনরায় জিও ব্যাগ ফেলা হবে।

ভূঞাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা: নাসরিন পাভীন জানান, ভাঙন কবলিত পরিবারের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। তাদের জন্য এ পর্যন্ত কোন ত্রাণ বরাদ্দ পাইনি। তবে এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

ফরিদগঞ্জে আরও ৫ জনের করোনা শনাক্ত!
                                  
এস.এম ইকবাল :
 
ফরিদগঞ্জে আরও ৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তরা হচ্ছেন ১নং বালিথুবা পশ্চিম ইউনিয়নের খাড়খাদিয়া গ্রামের মো. বাহাউদ্দিন (৩০), ২নং বালিথুবা পূর্ব ইউনিয়নের বালিথুবা গ্রামের মো.রাছেল (২৬), ৬নং গুপ্টি পশ্চিম ইউনিয়নের শাহ জাহান মোল্লা (৬৫), ৯নং গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের বাটিয়ালপুর গ্রামের রিনা আক্তার (২২) ও ১০ নং গোবিন্দপুর দক্ষিন ইউনিয়নের চরভাগল গ্রামের নেওয়াজ আহমেদ (৪০)।

রবিবার (২৮ জুন ২০২০ খ্রি.) ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়। এদিকে আজ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসা ১০ টি রিপোর্টের মধ্যে ৫ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

এ নিয়ে ফরিদগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৬ জনে।  

ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আশরাফ আহমেদ চৌধুরী জানান, রবিবার দুপুরে আসা ১০টি রিপোর্টের মধ্যে ৬টি রিপোর্টই পজিটিভ আসে। এ পর্যন্ত পাওয়া ৩৬৪ টি রিপোর্টের মধ্যে ৩১৯ জনের রিপোর্ট এসেছে এর মধ্যে ৮৬ জনের করোনা পজিটিভ হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ৭ জন মারা গেছেন এবং ৪৯ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এছাড়া ৪৫ জনের রিপোর্ট অপেক্ষমান রয়েছে।
ফরিদগঞ্জে সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তাসহ নতুন করোনা শনাক্ত ৬, মোট ৮১ জন
                                  

এস.এম ইকবাল :

ফরিদগঞ্জে আরও ৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তরা হচ্ছেন ফরিদগঞ্জ সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা ফজলে রাব্বি (২৯), পৌর এলাকার পশ্চিম বড়ারী গ্রামের নিবাশ মজুমদার (৬৫), ১নং বালিথুবা পশ্চিম ইউনিয়নের খাড়খাদিয়া গ্রামের আব্দুল বাতেন (৬৫), ৬নং গুপ্টি ইউনিয়নের সাইসাঙ্গা গ্রামের আব্দুর রব (৮০), ১৪ নং ফরিদগঞ্জ দক্ষিন ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামের মো:রফিক (৫০) ও ১৫নং রুপসা উত্তর ইউনিয়নের বারপাইকা গ্রামের সাবেক মহিলা মেম্বার রাবেয়া বেগম (৫২) এর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

শনিবার (২৭ জুন ২০২০ খ্রি.) ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করে। এদিকে আজ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসা ২৪ টি রিপোর্টের মধ্যে ৬ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

এ নিয়ে ফরিদগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮১ জনে।  

ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আশরাফ আহমেদ চৌধুরী জানান, ফরিদগঞ্জে বৃহস্পতিবারন রাত ১১ টায় আসা ২৪ রিপোর্টের মধ্যে ৬টি রিপোর্টই পজিটিভ আসে। এ পর্যন্ত পাওয়া ৩৬৪ টি রিপোর্টের মধ্যে ৩০৯ জনের রিপোর্ট এসেছে এর মধ্যে ৮১ জনের করোনা পজিটিভ হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ৭ জন মারা গেছেন এবং ৪৩ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এছাড়া ৫৫ জনের রিপোর্ট অপেক্ষমান রয়েছে।

এস.এম ইকবাল :

ফরিদগঞ্জে আরও ৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তরা হচ্ছেন ফরিদগঞ্জ সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা ফজলে রাব্বি (২৯), পৌর এলাকার পশ্চিম বড়ারী গ্রামের নিবাশ মজুমদার (৬৫), ১নং বালিথুবা পশ্চিম ইউনিয়নের খাড়খাদিয়া গ্রামের আব্দুল বাতেন (৬৫), ৬নং গুপ্টি ইউনিয়নের সাইসাঙ্গা গ্রামের আব্দুর রব (৮০), ১৪ নং ফরিদগঞ্জ দক্ষিন ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামের মো:রফিক (৫০) ও ১৫নং রুপসা উত্তর ইউনিয়নের বারপাইকা গ্রামের সাবেক মহিলা মেম্বার রাবেয়া বেগম (৫২) এর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

শনিবার (২৭ জুন ২০২০ খ্রি.) ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করে। এদিকে আজ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসা ২৪ টি রিপোর্টের মধ্যে ৬ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।

এ নিয়ে ফরিদগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮১ জনে।  

ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আশরাফ আহমেদ চৌধুরী জানান, ফরিদগঞ্জে বৃহস্পতিবারন রাত ১১ টায় আসা ২৪ রিপোর্টের মধ্যে ৬টি রিপোর্টই পজিটিভ আসে। এ পর্যন্ত পাওয়া ৩৬৪ টি রিপোর্টের মধ্যে ৩০৯ জনের রিপোর্ট এসেছে এর মধ্যে ৮১ জনের করোনা পজিটিভ হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে ৭ জন মারা গেছেন এবং ৪৩ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এছাড়া ৫৫ জনের রিপোর্ট অপেক্ষমান রয়েছে।

সুনামগঞ্জে ভারি বর্ষণে নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে
                                  

 বিভিন্ন উপজেলা অধিকাংশ আমনের বীজতলা তলিয়ে যাওয়ায় জমি চাষাবাদ ও বীজ বপন অনিশ্চিতের আশংকা করছেন কৃষকরা।

অপরদিকে হু হু করে পানি বাড়তে থাকায় মাছের পুকুর তলিয়ে যাওয়ার আশংকায় হতাশ হয়ে পড়েছেন মৎস্যচাষ খ্যাত দোয়ারাবাজার সদর ও সুরমা ইউনিয়নের শতাধিক খামারিরা। এছাড়া জমিতে পানি উঠায় দোয়ারাবাজার উপজেলার বগুলাবাজার, লক্ষীপুর, বাংলাবাজার ও নরসিংপুর ইউনিয়নের সবজি চাষীরা পড়েছেন বিপাকে।

এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত পানিবৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে।

এ দিকে, তাহিরপুর-সুনামগঞ্জ সড়কের আনোয়ারপুর সেতুর পূর্বাংশের এপ্রোচ নির্মাণাধীন সড়কটি ৩ ফুট পানির নিচে। শুক্রবার সকাল থেকেই তাহিরপুর সুনামগঞ্জ সড়কে সকল প্রকার যানবাহন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

শুক্রবার বিকেল বেলা সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, এপ্রোচের দু’পাড়ে যানবাহন রেখে নৌকা যোগে সড়কে চলাচলকারী যাত্রীরা আসা যাওয়া করছেন। সড়কের এমন দুরবস্থা দেখে সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন নির্মাণ কাজের তদারকি কর্মকর্তা তাহিরপুর এলজিইডি অফিসের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফজলুল হকের সাথে কথা বলেন এবং সংশ্লিষ্টদেরকে দ্রুত চলাচলের উপযোগী করার জন্য তাগিদ দেন।

এ সময় উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফজলুল হক জানান, কাজটি ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ২ কোটি টাকা ব্যয়ে টেন্ডার হয়। পরবর্তীতে দরপত্র সংশোধনী প্রাক্ষলনে ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে ৩ কোটি টাকায় কার্যাদেশ প্রদান করা হয়।

সুনামগঞ্জের পানিউন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: সহিবুর রহমান বলেন, গত দুই দিন যাবৎ ভারি বৃষ্টির কারণে উজানের ঢলে পানি ক্রমেই বাড়ছে। নদ-নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে। ভারি বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢল অব্যহত থাকলে পানি আরো বাড়তে পারে।

সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুর আহাদ বলেন, জেলাতে এখনো বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি। আমরা পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছি বিভিন্ন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাদের ও মাঠ প্রশানসনকে এ বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান কারা হয়েছে।

সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন বলেন, জেলা শহরের সাথে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম তাহিরপুর-সুনামগঞ্জ সড়ক। আনোয়ারপুর সেতুর পূর্বাংশের এপ্রোচ নির্মাণাধীন কাজে গাফিলতির কারণে চলাচলে বিঘ্নতার সৃষ্টি হয়েছে। দ্রুত কাজটি সম্পন্নের জন্য এলজিইডি কর্তৃপক্ষকে বলা হয়েছে। এছাড়া আমার নির্বাচনী এলাকা জামালগঞ্জ, তাহিরপুর, ধর্মপাশা ও মধ্যনগর এলাকায় যেখানেইসড়ক যোগাযোগ সমস্যা হবে সেখানেই পরিদর্শন করে প্রকৌশলীদের দ্রুত ব্যবস্থা নিতে বলে দিচ্ছি।


   Page 1 of 431
     সারাদেশ
নাগেশ্বরীতে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, পানিবন্দী অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ
.............................................................................................
করোনায় চট্টগ্রামের উপ পুলিশ কমিশনার মিজানের মৃত্যু
.............................................................................................
টেকনাফে বিজিবির সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত
.............................................................................................
করোনা কেড়ে নিল আরডিএ মহাপরিচালকের প্রাণ
.............................................................................................
শাহেদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চায় নিজ জেলা সাতক্ষীরার মানুষ
.............................................................................................
টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ যুবক নিহত
.............................................................................................
তিস্তার পানি বাড়ছে হু হু করে
.............................................................................................
সিলেটে চিকিৎসকসহ আরও ৮২ জনের করোনা শনাক্ত
.............................................................................................
গোপালগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৭`শ ছাড়ালো
.............................................................................................
করোনায় প্রাণ হারালেন আরো দুই চিকিৎসক
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে গৃহবধূ হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন
.............................................................................................
খুলনায় করোনা আক্রান্ত ৫ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
যমুনার পানি বৃদ্ধি, অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে আরও ৫ জনের করোনা শনাক্ত!
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তাসহ নতুন করোনা শনাক্ত ৬, মোট ৮১ জন
.............................................................................................
সুনামগঞ্জে ভারি বর্ষণে নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে
.............................................................................................
বিপৎসীমার ওপরে কুড়িগ্রামের ৩ নদ-নদীর পানি
.............................................................................................
আখাউড়া ইউএনও করোনায় আক্রান্ত
.............................................................................................
স্বাস্থ্যবিধির অজুহাতে লঞ্চের ভাড়া বৃদ্ধির পায়তারা বন্ধ করুন
.............................................................................................
নৈশপ্রহরীকে হত্যা, পুলিশের সঙ্গে ‘গোলাগুলিতে’ ৩ ডাকাত নিহত
.............................................................................................
করোনা উপসর্গে খুলনা জিলা স্কুলের শিক্ষকসহ ৩ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
কুমিল্লায় করোনা উপসর্গে ৬ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
বগুড়ায় নতুন করে ১০৯ জন আক্রান্ত, মৃত ২
.............................................................................................
ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা করে ৪ লাখ টাকা ছিনতাই
.............................................................................................
পাহাড়ধসের আশঙ্কা, ৩ নম্বর সতর্কসংকেত
.............................................................................................
টান দিলেই উঠে আসছে রাস্তার কার্পেটিং!
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে ১ কি.মি. সড়কের বেহাল দশা, ধানের চারা লাগিয়ে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ
.............................................................................................
করোনা চিকিৎসায় রাজি না থাকায় চসিকের ১০ চিকিৎসক বরখাস্ত
.............................................................................................
‘চিকিৎসা অবহেলায়’ রোগীর মৃত্যু, স্বজনদের হামলায় ডাক্তারের মৃত্যু
.............................................................................................
করোনায় চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন হাসপাতালের চিকিৎসকের মৃত্যু
.............................................................................................
বগুড়ায় ৩ জনের মৃত্যু, রেকর্ড আক্রান্ত
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে আরও পাঁচ জনের করোনা পজিটিভ
.............................................................................................
রেড ও ইয়োলো জোনে ৩০ জুন পর্যন্ত ছুটি
.............................................................................................
বগুড়া জেলার নমুনা পরীক্ষা শেষে শনাক্তের হার ৫০ শতাংশ
.............................................................................................
২৮ বছর পর এই প্রথম ব্যালটের মাধ্যমে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের নির্বাচন
.............................................................................................
চাঁদপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে ৫ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
গভীর রাতে ফোন পেয়ে লাশ দাফনে খোরশেদ ও তার টিম
.............................................................................................
ফরিদঞ্জের এমপির প্রচেষ্টায় একটি নতুন গাড়ী পেল থানা পুলিশ
.............................................................................................
সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত
.............................................................................................
২৪ ঘন্টায় চাঁদপুরে করোনা উপসর্গে সর্বোচ্চ ১০ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
আরও ২ চিকিৎসকের প্রান গেলো করোনায়
.............................................................................................
চাঁদপুরে করোনার উপসর্গ নিয়ে মেরিন ইঞ্জিনিয়ার ও মুক্তিযোদ্ধাসহ ৭ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
চাঁদপুরে ৩ দিনের ব্যবধানে তিন ইউপি চেয়ারম্যানের মৃত্যু
.............................................................................................
হাজীগঞ্জে বাবার পর করোনা উপসর্গে ছেলের মৃত্যু
.............................................................................................
দেশে করোনায় আর্থিক উপর্জনে ক্ষতিগ্রস্ত ৯৫ শতাংশ মানুষ
.............................................................................................
করোনায় পপুলার গ্রুপের চেয়ারম্যানের মৃত্যু
.............................................................................................
করোনায় এনআরবি ব্যাংকের চেয়ারম্যানের পর এবার ম্যানেজারের মৃত্যু
.............................................................................................
চিকিৎসা সেবা প্রদানে চরম অব্যবস্থাপনা, ভর্তি নিচ্ছেনা করোনাহীন রোগীও
.............................................................................................
করোনা ভাইরাসে সৌদিতে ফরিদগঞ্জের সাইফুদ্দিন তালুকদারের মৃত্যু
.............................................................................................
রাজশাহীতে ট্রেন থেকে নেমে প্ল্যাটফর্মেই মৃত্যু
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ইউরোপ মহাদেশ বিষয়ক সম্পাদক- প্রফেসর জাকি মোস্তফা (টুটুল)
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD