৩ শাবান ১৪৪১, ঢাকা, রবিবার, ১৫ চৈত্র ১৪২৬, ২৯ মার্চ , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   সারাদেশ -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ জন নিহত

কক্সবাজারের টেকনাফে শুক্রবার রাতে পৃথক কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চারজন নিহতের কথা জানিয়েছে বিজিবি ও পুলিশ।

শনিবার সকালে টেকনাফ ২ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান জানান, শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার একটি বড় চালান টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে প্রবেশ করছে, এমন গোপন সংবাদের খবরে বিজিবির একটি বিশেষ টিম টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের লেদার ছ্যুরিখাল নামক এলাকায় নিকটস্থ নাফনদী এলাকায় অবস্থান নেয়।

এসময় একটি নৌকায় ৪-৫ জন লোক ওই এলাকা দিয়ে প্রবেশ করে। তাদের দেখে সন্দেহ হলে চ্যালেঞ্জ করলে বিজিবি’র উপস্থিতি টের পেয়ে ইয়াবা পাচারকারিরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এসময় বিজিবির তিন সদস্য আহত হন।

তিনি দাবি করেন, পরে বিজিবিও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে ইয়াবা পাচারকারিরা গুলি করতে করতে নৌকা থেকে লাফ দিয়ে কেওড়া বাগানের দিকে পালিয়ে যায়। পরে ওই এলাকা থেকে ইয়াবা ও অস্ত্রসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় অজ্ঞাত তিনজনকে উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

ওই কর্মকর্তার দাবি, ঘটনাস্থল থেকে ১ লাখ ৮০ হাজার পিস ইয়াবা, দুটি দেশীয় তৈরি বন্ধুক, ২ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ১টি গুলির খালি খোসা, ১টি ধারালো কিরিচ উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

অন্যদিকে একই রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মুছা আকবর (৩৬) নামে আরও এক ব্যক্তি নিহতের কথা জানায় পুলিশ।

নিহতের বাড়ি টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ের তুলাতুলী এলাকায়।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশের ভাষ্য, পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ লিপ্ত হলে পাল্টা গুলিতে একজন নিহত হয়। এ ঘটনায় পুলিশের তিন সদস্য আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

নিহত চারজনের মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ জন নিহত
                                  

কক্সবাজারের টেকনাফে শুক্রবার রাতে পৃথক কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চারজন নিহতের কথা জানিয়েছে বিজিবি ও পুলিশ।

শনিবার সকালে টেকনাফ ২ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান জানান, শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার একটি বড় চালান টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে প্রবেশ করছে, এমন গোপন সংবাদের খবরে বিজিবির একটি বিশেষ টিম টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের লেদার ছ্যুরিখাল নামক এলাকায় নিকটস্থ নাফনদী এলাকায় অবস্থান নেয়।

এসময় একটি নৌকায় ৪-৫ জন লোক ওই এলাকা দিয়ে প্রবেশ করে। তাদের দেখে সন্দেহ হলে চ্যালেঞ্জ করলে বিজিবি’র উপস্থিতি টের পেয়ে ইয়াবা পাচারকারিরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এসময় বিজিবির তিন সদস্য আহত হন।

তিনি দাবি করেন, পরে বিজিবিও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে ইয়াবা পাচারকারিরা গুলি করতে করতে নৌকা থেকে লাফ দিয়ে কেওড়া বাগানের দিকে পালিয়ে যায়। পরে ওই এলাকা থেকে ইয়াবা ও অস্ত্রসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় অজ্ঞাত তিনজনকে উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠায়। সেখানে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

ওই কর্মকর্তার দাবি, ঘটনাস্থল থেকে ১ লাখ ৮০ হাজার পিস ইয়াবা, দুটি দেশীয় তৈরি বন্ধুক, ২ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ১টি গুলির খালি খোসা, ১টি ধারালো কিরিচ উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

অন্যদিকে একই রাতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মুছা আকবর (৩৬) নামে আরও এক ব্যক্তি নিহতের কথা জানায় পুলিশ।

নিহতের বাড়ি টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ের তুলাতুলী এলাকায়।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশের ভাষ্য, পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ লিপ্ত হলে পাল্টা গুলিতে একজন নিহত হয়। এ ঘটনায় পুলিশের তিন সদস্য আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

নিহত চারজনের মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মনিরামপুরের সেই এসিল্যান্ডকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি
                                  

ভ্রাম্যমাণ আদালতে তিন বৃদ্ধকে কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখার ঘটনায় যশোরের মনিরামপুরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। ছুটির পর তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মাস্ক না পরায় শুক্রবার বিকেলে তাদের কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়। একই সঙ্গে ছবি মোবাইলে ধারণ করেন। রাতে এ ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় জনসমাগম নিয়ন্ত্রণে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানের নেতৃত্বে শুক্রবার বিকেল থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত উপজেলার বিভিন্নস্থানে অভিযান চালায়। বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে চিনাটোলা বাজারে অভিযানের সময় তিনি দেখতে পান এক বৃদ্ধ সাইকেল চালিয়ে আসছিলেন। এবং অপর একজন রাস্তার পাশে বসে সবজি বিক্রি করছিলেন। তবে তাদের মুখে মাস্ক ছিল না।

এ সময় পুলিশ ওই দুই বৃদ্ধকে শাস্তি হিসেবে তাদের কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন। শুধু তাই নয়, এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজেই তার মোবাইল ফোনে এ চিত্র ধারণ করেন। এ ছাড়া পরে অপর এক ভ্যান চলককে অনুরূপভাবে কান ধারিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন। এসি ল্যান্ড সাইয়েমা হাসান এ শাস্তি দেওয়ার সত্যতা সাংবাদিকদের কাছে স্বীকার করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান উল্লাহ শরিফী এ বিষয়ে সাংবাদিকদের জানান, কান ধরিয়ে দাঁড় করানোর বিষয়টি দুঃখজনক। বিষয়টি তিনি খতিয়ে দেখবেন।

টাঙ্গাইলে সিমেন্ট বোঝাই ট্রাক উল্টে নিহত ৫
                                  

টাঙ্গাইল শহরের বাইপাসে সিমেন্ট বোঝাই একটি ট্রাক উল্টে ৫ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত ১১ জন। 

আজ শনিবার সকাল ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ট্রাকটি ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গের দিকে যাচ্ছিল। হাইওয়ে পুলিশের এলেঙ্গা ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. কামাল হোসেন সংবাদমাধ্যমে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

মো. কামাল হোসেন জানান, আজ সকালে টাঙ্গাইল শহর বাইপাসে দুর্ঘটনা ঘটেছে। ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী একটি ট্রাকটি সকাল ৬টার দিকে শহর বাইপাসের কান্দিলা নামক স্থানে পৌঁছালে চালক নিয়ন্ত্রণ হারান। এরপর ট্রাকটি রোড আইল্যান্ডের সঙ্গে ধাক্কা লেগে রাস্তার মধ্যেই উল্টে যায়। হতাহতদের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে পাওয়া যায়নি।

বগুড়ায় ওরস মাহফিল বন্ধ করতে গিয়ে হামলার শিকার পুলিশ, গ্রেফতার ২৪
                                  

বগুড়ায় এক পীরের মাজারে চলা ওরস মাহফিল বন্ধ করার কথা বলায় মারপিটের শিকার হয়েছেন দুই পুলিশ কর্মকর্তা। পীরের অনুসারীরা তাদের ওপর হামলা চালিয়ে পিটিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে । এ ঘটনার পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে সাবেক পৌর কাউন্সিল নুরুল ইসলাম নুরু ও শফিকুল ইসলাম নয়নসহ ওই পীরের ২৪ মুরিদকে আটক করে। আজ বৃহস্পতিবার তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে গ্রেফতার দেখানো হয়।

গতকাল রাতে শহরের গোয়ালগাড়িতে শাহসুফি আলহাজ্ব হযরত মাওলানা ছেরাজুল হক চিশতী (রহ.) মাজার প্রাঙ্গণে এ ঘটনা ঘটে। আহত পুলিশ পরিদর্শক নান্নু খান ও সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) জাহিদকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অমান্য করে পীরের আস্তানায় বার্ষিক ওরস মাহফিলের আয়োজন করা হয়। দুপুরের পর থেকে সেখানে বিভিন্ন এলাকার নারী ও পুরুষ মুরিদেরা আসতে শুরু করেন। সেখানে গরু জবাই করে রান্নার আয়োজনও করা হয়। এমতাবস্থায় ওরস মাহফিল বন্ধ রাখার জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে কয়েক দফা নিষেধ করা হয়। সন্ধ্যার পর পীরের আস্তানায় নারী-পুরুষরা সম্মিলিতভাবে জিকির শুরু করেন। এলাকার লোকজনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাত নয়টার দিকে উপ-শহর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ নান্নু খানসহ তিনজন পুলিশ সেখানে গিয়ে করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাবের কথা বলে ওরস মাহফিল বন্ধ করতে বলেন। এতে পীরের অনুসারীরা দুই পুলিশকে তাদের আস্তানায় আটকে রেখে বেদম মারপিট করে।

খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে আহত দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে উদ্ধার করেন। বিপুল সংখ্যক পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পীরের আস্তানা সংলগ্ন একটি চারতলা বাসভবনে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেন মুরিদরা। পরে বগুড়া সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী (মিডিয়া) হ্যান্ডমাইকে তাদেরকে আত্মসমর্পনের আহ্বান জানান। পরে রাত ১০টার দিকে ভবনের বিভিন্ন কক্ষ থেকে অর্ধ শতাধিক নারী-পুরুষ ও শিশু বের হয়ে আসেন।পরে পুলিশ পীরের অনুসারী ২৪ জন পুরুষকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

বগুড়া সদর থানার ওসি এসএম বদিউজ্জামান বৃহস্পতিবার দুপুরে জানান, পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় আটক ২৪ জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

দিনাজপুরে বকেয়া বেতনের দাবিতে বিক্ষোভে গুলি, নিহত ১
                                  

দিনাজপুরের বিরলে রুপালী বাংলা জুট মিলে বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকদের বিক্ষোভে পুলিশের গুলিতে একজন নিহতের অভিযোগ উঠেছে। বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকের এ ঘটনায় নিহত সুরত আলী (৩৬) বিরল পৌরসভা এলাকার হোসনা গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে।

বিরল থানার ওসি শেখ নাসিম হাবিব নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, শ্রমিকদের হামলায় ৩ পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, বুধবার বিকালে কোন প্রকার নোটিশ ছাড়াই মিল বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। এ সময় বকেয়া বেতনের দাবিতে বুধবার সন্ধ্যা থেকে রুপালী বাংলা জুট মিলের শ্রমিকরা বিক্ষোভ শুরু করে। পরিস্থিতি নিয়ে সন্ধ্যায় মিলের সংশ্লিষ্টদের সাথে শ্রমিকদের সাথে আলোচনা হলেও বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকরা অনড় থাকে। এক পর্যায়ে শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবিতে ভাংচুর শুরু করে। পরে বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে পুলিশের সাথে শ্রমিকদের সংঘর্ষ হয়। এ সময় পুলিশ কয়েক রাউন্ড গুলি চালালে একজন নিহত হয় এবং সংঘর্ষের ঘটনায় প্রায় ১০ জন আহত হন। সূত্র : ইউএনবি

খাগড়াছড়িতে যুবকের মৃত্যু, চিকিৎসকের ধারণা করোনা ভাইরাস
                                  

খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে করোনা ভাইরাসের লক্ষণ নিয়ে ভর্তি হওয়ার ১০ ঘণ্টা পর এক মারমা যুবকের মৃত্যু ঘটেছে। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ প্রচণ্ড জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে সাজাই র্মামা (৩০) নামে ওই যুবক হাসপাতালে ভর্তি হন। 

তার পরিবার জানায়, তিনি গত ৯ মার্চ থেকে প্রচণ্ড জ্বর, ব্যাথা, কাশি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। তার বাড়ি খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি উপজেলার মাইসছড়ির নুনছড়ি গ্রামে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খাগড়াছড়ি ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মিটন চাকমা।

জেলা সদর হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ওই যুবককে হাসপাতালে আইসোলেশনে রাখা হয়। চিকিৎসাও চলছিল। বুধবার রাত আনুমানিক নয়টার দিকে তার মৃত্যু হয়। 

সিভিল সার্জন জানান, আপাতত: করোনা রোগী ধরেই লাশটির সৎকার করার জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

খাগড়াছড়ি আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. পূর্ণ জীবন চাকমা জানান, বিষয়টি সম্পর্কে দুপুরেই আইইডিসিআরে অবহিত করা হয়েছিল। মৃত ব্যক্তির রক্তের নমুনা করোনা ভাইরাস পরীক্ষার জন্য ঢাকায় আইইডিসিআরকে পাঠানো হবে। এদিকে রোগীর সংস্পর্শে আসায় হাসপাতালের দুইজন চিকিৎসক, দুইজন নার্স ও একজন আয়াকে হাসপাতালের প্রাতিষ্ঠানিক হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। মৃত রোগীর নমূনা পরীক্ষার রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত তারা কোয়ারেনটিনেই থাকবেন।

করোনা আতঙ্কে হাসপাতাল ছাড়ছেন রোগীরা
                                  

করোনাভাইরাস আতঙ্কে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রোগীদের সংখ্যা কমে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা বেশ কয়েকজন রোগী করোনার আতঙ্কে হাসপাতাল ছেড়েছেন।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, কয়েক দিন আগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে কয়েকজন রোগী ডিএমসি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসেন। তারা চিকিৎসকদের কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে সরকারের নির্ধারণ করা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যান। সেখানে কয়েকজন আক্রান্ত হয়েছেন করোনাভাইরাসে। ওই সব রোগীর যারা চিকিৎসা দিয়েছিলেন এরকম চারজন চিকিৎসককে রাখা হয়েছে হোম কোয়ারেন্টিনে। তাদের মধ্যে দুইজন মেডিসিন বিভাগের ও দুইজন কিডনি বিভাগের চিকিৎসক।

এ ঘটনা হাসপাতালে ছড়িয়ে পড়ায় কয়েক দিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগী ও তাদের স্বজনরা আতঙ্কে হাসপাতাল ছেড়েছেন। তারা কোনো প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসা করাবেন বলে জানান। বিশেষ করে গত কয়েক দিনে করোনাভাইরাসে কয়েকজন মৃত্যুর খবরে হাসপাতালে ভর্তিকৃত রোগী ও তাদের স্বজনরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। এমনকি আগের মতো নতুন রোগীও আসছেন না।

হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি থাকা রোগী আবুল কালাম মঙ্গলবার স্বেচ্ছায় হাসপাতাল ছেড়েছেন। এ সময় তার এক স্বজন বলেন, শুনেছি এখানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত লোকজন এসেছিল। এ কারণে তিনি রোগীকে কোনো প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করাবেন। এভাবে আবুল কালামের মতো প্রতিদিনই রোগীরা ভয়ে হাসপাতাল ছাড়ছেন বলে জানা গেছে।

হাসপাতালের বহির্বিভাগের ওয়ার্ড মাস্টার আবুল বাসার জানান, হাসপাতালে বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন দুই থেকে আড়াই হাজার রোগী চিকিৎসা নিতে আসেন। বর্তমানে করোনাভাইরাসের কারণে রোগী অর্ধেকের কম আসে। একই চিত্র জরুরি বিভাগেও দেখা যায়।

এ ব্যাপারে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ও মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডাক্তার খান মো: আবুল কালাম আজাদের কাছে রোগী আসার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাংলাদেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়ার পর থেকে ঢামেক হাসপাতালে নিউমোনিয়া, জ্বর, ঠাণ্ডা, কাশি নিয়ে প্রতিদিন অনেক রোগী আসছেন। এদের মধ্যে তিন থেকে চারজন রোগীর বক্তব্য শোনার পর তাদের ঢামেকের বাইরে সরকারের নির্ধারণ করা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছিল। সেখানে ওই রোগীদের করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। তাদের যেসব চিকিৎসক চিকিৎসা দিয়েছেন এমন চারজন চিকিৎসককে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। চারজনই ঢামেক হাসপাতালের চিকিৎসক। এরপর থেকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা ও ভর্তিকৃত রোগীদের মধ্যে করোনাভাইরাসে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ফলে এখানে রোগী অর্ধেকে নেমে এসেছে এবং ভর্তিকৃত রোগীরা স্বেচ্ছায় চলে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, আমাদের চিকিৎসাসেবায় কোনো কমতি নেই। আমাদের পর্যাপ্ত চিকিৎসক রয়েছেন।

ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন বলেন, আমাদের এখানে সব মিলে রোগীর ধারণক্ষমতা প্রায় তিন হাজার। সেখানে রোগী থাকত নির্ধারিত পাঁচ হাজারের মতো। তবুও রোগীদের চিকিৎসা দেয়ার ব্যাপারে কোনো কমতি ছিল না। আমাদের সাধ্যমতো রোগীদের চিকিৎসা দিয়ে আসছি। বর্তমানে করোনাভাইরাসের কারণে অর্ধেকে নেমে এসেছে রোগী। তবে ডাক্তার, নার্স ও কর্মচারী আগের মতোই আছে। রোগীদের চিকিৎসায় কোনো ধরনের অসুবিধা হচ্ছে না। ওষুধসহ সব কিছু পর্যাপ্ত আছে।

জেলা-উপজেলায় টহলে সেনাবাহিনী
                                  

সামাজিক দূরত্ব ও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুবিধার্থে গত মঙ্গলবার (২৫ মার্চ) থেকে বিভাগীয় ও জেলা শহরগুলোতে মাঠে রয়েছে সশস্ত্র বাহিনী।

জেলা ম্যাজিস্ট্রেটদের সমন্বয়ে সেনাবাহিনী করোনাভাইরাসসংক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাব্যবস্থা, সন্দেহজনক ব্যক্তিদের কোয়ারেন্টিনের ব্যবস্থা পর্যালোচনা করছে। বিশেষ করে বিদেশফেরত ব্যক্তিদের কেউ নির্ধারিত কোয়ারেন্টিনের বাধ্যতামূলক সময় পালনে ত্রুটি বা অবহেলা করছে কি-না, তা পর্যালোচনা করছে।

এদিকে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে গতকাল থেকে সেনাবাহিনী দায়িত্ব পালন করছে। মানুষকে ঘরে থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়ে মাইকিং করছে স্থানীয় প্রশাসন।

সেনা সদস্যরা বিদেশফেরত নাগরিকদের হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করা, জনসমাগম রোধ করা, বাজার মনিটরিংসহ নানা কাজে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা করছেন।

এরইমধ্যে দেশের বিভিন্ন উপজেলা প্রশাসন মাইকিং করে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ঘর থেকে বের না হওয়ার জন্য অনুরোধ করেছে। এরপর নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দোকান ছাড়া অন্যান্য বিপণিবিতান বন্ধ দেখা যায়। রাস্তাঘাটেও লোকজন খুব কম লক্ষ্য করা গেছে। সেনা সদস্যদের টহলের খবরে মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছে কম।

গতকাল সকাল থেকেই অনেক জেলায় বিপণিবিতান বন্ধ রয়েছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী চায়ের দোকানসহ বিভিন্ন স্থানে জনসমাগম রোধ, সামাজিক দূরুত্ব বজায় রাখার নির্দেশনা বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী। তবে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের কিছু দোকান খোলা রয়েছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই মানুষের ভিড়ও কমা শুরু হয়।

চিকিৎসাদলসহ সেনা সদস্যরা বিভিন্ন উপজেলায় গতকাল থেকেই কাজ শুরু করেছেন। সেই সঙ্গে কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ৩৪টি রোহিঙ্গা শিবিরেও কাজ করছে তাঁরা। রাজবাড়ী, ফরিদপুর, খুলনা, পঞ্চগড়, নাটোর, নওগাঁসহ দেশের বিভিন্ন জেলায়ও গতকাল থেকে কাজ করছে সেনাবাহিনী।

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ইতালি ফেরত প্রবাসীর মৃত্যু
                                  

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ইতালি ফেরত আব্দুল খালেক (৬০) নামে এক প্রবাসী মারা গেছেন। গতকাল রোববার রাতে শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি মারা যান। তার বাড়ি শহরের জগন্নাথপুর এলাকায়।

এ ঘটনায় করোনা সন্দেহে মৃত ব্যক্তির চারপাশের ১০টি ঘর এবং দুটি বেসরকারি হাসপাতালের মানুষের চলাচল সীমিত করেছে উপজেলা প্রশাসন। ঘটনার রাতে দুই হাসপাতালে যারা কর্মরত ছিলেন, তাদের হাসপাতালের ভেতরেই অবস্থান করতে বলা হয়েছে। পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে মৃত ব্যক্তির বাড়ির চারপাশেও।

স্থানীয়রা জানান, ওই ব্যক্তি দেড় যুগ আগে ইতালিতে যান। তার দুই ছেলে বর্তমানে ইতালিতে আছেন। তবে ইতালির পরিস্থিতি নাজুক পর্যায়ে যাওয়ার পর গত ২৮ ফেব্রুয়ারি তিনি দেশে আসেন।

ওই ব্যক্তি ইতালি থেকে ফেরার বিষয়টি উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির নজরে আনেননি। এমনকি স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য কোনো হাসপাতালেও যাননি এবং এলাকায় স্বাভাবিক চলাফেরা করছিলেন বলেও জানান স্থানীয়রা।

জানা গেছে, গত শনিবার থেকে ওই প্রবাসী জ্বর ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। অবস্থার অবনতি হলে রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তাকে শহরের আবেদীন হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসক তাকে আইসোলেশন সেন্টারে যেতে বলেন। কিন্তু স্বজনরা তাকে সেখানে না নিয়ে ডক্টরস চেম্বার নামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেয়। সেখানে রাত ১১টার দিকে আব্দুল খালেকের মৃত্যু হয়।

উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বুলবুল আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মৃত ওই ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন কি-না সেটা জানতে ঢাকা থেকে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) প্রতিনিধিনিরা ভৈরবে এসেছেন। তারা নমুনা সংগ্রহের কাজ করছেন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপর আর ভরসা নয় : ফারুকী
                                  

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের আতঙ্কে এখন পুরো বিশ্ব। দিন দিন বাড়ছে সংক্রমণ। এ নিয়ে সারা বিশ্বের মানুষই এখন উদ্বিগ্ন। কোনোভাবেই আটকানো যাচ্ছে না মৃত্যুর মিছিল। প্রাণঘাতী এই ভাইরাস ইতোমধ্যেই হানা দিয়েছে বাংলাদেশে। করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে মারা গেছেন দু’জন। আর আক্রান্ত হয়েছেন ২৭ জন।

এমন পরিস্থিতিতে দেশ ও জাতীর উদ্দেশ্যে সরকারের পাশাপাশি নানা সচেতনতামূলক বার্তা দিচ্ছেন শোবিজ অঙ্গনের তারকারাও। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে প্রচার করা হচ্ছে অসংখ্য সচেতনবার্তা।

জনপ্রিয় নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী তার ফেসবুকে লিখেছেন- ‘আমেরিকার আর্মি নাকি চিন্তা করছে নিউইয়র্ক সিটির হোটেলগুলাকে হাসপাতালে পরিণত করার। যত হাসপাতাল আছে সব রোগীতে ভরে যাচ্ছে। তাই তাদের এই ভাবনা। আর আমরা হাসপাতাল থাকার পরও কাজে লাগাবো না? এই তিনদিনে কতগুলা মন ভেঙে দেয়ার ঘটনা যে শুনেছি। জ্বর হয়েছে, কোনো প্রাইভেট হাসপাতাল নিচ্ছে না। কাশি হয়েছে, নিচ্ছে না। ডায়রিয়া হয়েছে, নিচ্ছে না। আজকে শুনলাম কিডনির রোগীর ডায়লাইসিস করাবে, ইউনাইটেড হাসপাতাল করবে না। কারণ রোগী কিছুদিন আগে ইন্ডিয়া থেকে এসেছে। হচ্ছেটা কী দেশে? মানুষ কী বিনা চিকিৎসায় মারা যাবে?’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘কেন প্রাইভেট হাসপাতালগুলাকে করোনা চিকিৎসা করার জন্য প্রস্তুত করা হবে না? নির্ধারিত সরকারি হাসপাতাল কয়জনের চিকিৎসা দিতে পারবে? করোনা ছাড়াও মানুষের জ্বর, শ্বাসকষ্ট হতে পারে। তাদের কি চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার নাই? করোনা রোগীরও কী চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার নাই? সরকারে থাকা বন্ধুরা, আপনারা কী দয়া করে এই জিনিসগুলা অ্যাড্রেস করতে পারেন? নিশ্চিত করতে পারেন মানুষ যে কোনো রোগ নিয়ে যে কোনো হাসপাতালে গেলেই চিকিৎসা পাবে। তার জন্য যা যা করা দরকার, পিপিই-ট্রেনিং যা লাগে দ্রুত করান। দরকার লাগে হাই পাওয়ার টাস্কফোর্স করেন টপ ডাক্তার আর সশস্ত্র বাহিনীর লোকজন দিয়ে।’

সবশেষে ফারুকী লিখেছেন, ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপর আর ভরসা কইরেন না এই বেলা। দুই মাস সময় পাইয়াও তারা যে নিদারুণ অযোগ্যতা আর অবহেলার পরিচয় দিছে, তার জন্য তাদেরকে ইতিহাসের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।’

করোনার কারণে বিদ্যুৎ-গ্যাস বিলের বিলম্ব মাশুল মওকুফ
                                  

করোনাভাইরাস আতংকের মধ্যে ব্যাংকে গিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে এখনই বিদ্যুৎ ও গ্যাসের বিল দেওয়ার প্রয়োজন নেই। সময় করে আস্তে-ধীরেই লাইন ছাড়া বিল দেওয়ার ব্যবস্থা করে দিলো বিদ্যুৎ ও জ¦ালানি বিভাগ। জুন মাস পর্যন্ত গ্যাসের বিল দেওয়ার ক্ষেত্রে আর বিলম্ব মাশুল দিতে হবে না গ্রাহকদের। অন্যদিকে মে মাস পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিল দেওয়ার ক্ষেত্রে বিলম্ব মাশুল দিতে হবে না। করোনা প্রতিরোধে বিলম্ব মাশুল সাময়িক সময়ের জন্য মওকুফ করা হয়েছে।

জ¦ালানি বিভাগের উপসচিব আকরামুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক আদেশে বলা হয়েছে, নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে আবসিক গ্যাস বিল পরিশোধের জন্য বিপুল সংখ্যক গ্রাহককে প্রায় একই সময়ে উপস্থিত হতে হয়। বিল পরিশোধের ক্ষেত্রে এমন পরিস্থিতি করোনা ভাইরাস সংক্রমণকে ত্বরান্বিত করে। এর প্রেক্ষিতে সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অবিলম্বে এই আদেশ কার্যকর হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকায় গ্যাস সরবরাহকারী কোম্পানি তিতাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলী মো. মামুনবলেন, আমরা গ্রাহকদের সুরক্ষার কথা চিন্তা করেছি। বিলম্ব মাশুল না নেওয়ার কারণে আস্তে-ধীরে গ্রাহকেরা তাদের গ্যাস বিল দিতে পারবে। ভিড়ের মধ্যে লাইনে দাঁড়িয়ে নিজেদের করোনা ভাইরাসের ঝুঁকির মধ্যে আর ফেলতে হবে না। অথবা অন্য কোনও কারণেও যদি বিল দিতে দেরি করেন তাও জুন পযন্ত তার বিলম্ব মাশুল মওকুফ করা হয়েছে।

 

পাথরঘাটায় ২৬ কেজি হরিণের মাংস জব্দ
                                  

বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার বিষখালী নদী সংলগ্ন কালমেঘা ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে ২৬ কেজি হরিণের মাংস জব্দ করেছে কোস্টগার্ড। গতকাল রোববার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিক করেছেন কোস্টগার্ডের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন কমান্ডার (পেটি অফিসার) মো. বেলায়েত হোসেন। এর আগে শনিবার দিনগত রাতে ওই ইউনিয়নে ছোনবুনিয়া বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে মাংসগুলো জব্দ করা হয়।

মো. বেলায়েত হোসেন জানান, ছোনবুনিয়া বেড়িবাঁধ হয়ে দু’টি মোটরসাইকেলে করে বস্তায় হরিণের মাংস নিয়ে যাচ্ছে- এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার দিনগত রাতে অভিযান চালানো হয়। সেসময় অভিযানে বিষয়টি টের পেয়ে মোটরসাইকেল দু’টি ও একটি বস্তা ফেলে রেখে পালিয়ে যায় পাচারকারীরা চলে যায়। পরে ওই বস্তা থেকে ২৬ কেজি হরিণের মাংস জব্দ যায়। জব্দ করা হরিণের মাংসগুলো ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্দেশে কেরোসিন দিয়ে মাটিচাপা দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

লাল পতাকা উত্তোলন প্রবাসীদের বাড়িতে
                                  

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাগুরায় প্রবাসীদের বাড়ির সামনে শনিবার লাল পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। প্রবাসীরা হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকলে সদর উপজেলার জগদল ইউপির চেয়ারম্যান তাদের পরিবারের জন্য পুরস্কার ঘোষণা করেছেন।

প্রশাসন ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাগুরায় বিদেশ ফেরতদের বাড়ির সামনে লাল পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। শনিবার মাগুরা সদর উপজেলার জগদল ইউপিতে ২২টি বাড়ির সামনে লাল পতাকা টানিয়ে দেয়া হয়েছে জনগণকে সর্তক করতে। এছাড়া জগদল ইউপিতে বিদেশ ফেরতরা হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকলে তাদের পরিবারের জন্য জগদল ইউপির চেয়ারম্যান পুরস্কার ঘোষণা করেছেন। মাগুরায় বিদেশ ফেরত ১৪৪জন হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে।

জগদল ইউপির চেয়ারম্যান সৈয়দ রফিকুল ইসলাম জানান, জগদল ইউপিতে বিদেশ থেকে আসা ২২টি বাড়ির সামনে লাল পতাকা টানিয়ে দেয়া হয়েছে জনগণকে সর্তক করতে। এছাড়া জগদল ইউপিতে বিদেশ ফেরতরা হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকলে তাদের পুরস্কার দেয়া হবে।

মাগুরা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সুফিয়ান জানান, জগদল ইউপিতে ২২টি বাড়ির সামনে লাল পতাকা টানানো হয়েছে। মাদারীপুর থেকে আসা একটি পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য বলা হয়েছে।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, বিদেশ ফেরতদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তারা বাড়িতে ১৪দিন থাকার জন্য অনুরোধ করেছেন।

মাগুরার সিভিল সার্জন অফিসের সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মো: জিল্লুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, ইতালী, বাহারাইন, সিঙ্গাপুর, তুরস্ক, সৌদী আরবসহ বিভিন্ন দেশ থেকে ফেরত ১৪৪জনকে পর্যবেক্ষনে রাখা হয়েছে। এদের প্রত্যেকের বাড়িতে ১৪দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদের শরীরে এখনও কোন জ্বর, সর্দি কাশির লক্ষণ পাওয়া যায়নি।

সিলেটে আইসোলেশনে থাকা যুক্তরাজ্য ফেরত এক নারীর মৃত্যু
                                  

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে হাসপাতালের আইসোলেশনে থাকা যুক্তরাজ্য ফেরত এক নারীর (৬১) মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে সিলেট শহীদ শামসুদ্দীন হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

ওই নারীর বাসা সিলেট নগরীর শামীমাবাদ আবাসিক এলাকায় বলে জানা গেছে। তবে তার মৃত্যু করোনা ভাইরাসের কারণে হয়েছে কি না তা সিলেট বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক দেব পদ রায় নিশ্চিত নন।

তিনি সকালে  জানান, আইইডিসিআরের একটি টিম স্যাম্পল নিতে সিলেট আসছে। এখন আমরা বিভাগীয় কমিশনার ও মেয়রসহ শামসুদ্দীন হাসপাতালে সভায় বসেছি। আমাদের পরবর্তী করণীয় কি তা সিদ্ধান্ত নিতে।

গত ৪ মার্চ যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফিরেছিলেন ওই নারী। এরপর শুক্রবার জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে শহীদ শামসুদ্দীন হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন তিনি।

আজ রবিবার আইইডিসিআর থেকে লোকজন এসে তার রক্ত পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহের কথা ছিল।

বাজার নিয়ন্ত্রণে অভিযান: প্রতিবাদে রাজশাহী-রংপুরে বাজার বন্ধের ঘোষণা
                                  

করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার প্রতিবাদে রাজশাহী ও রংপুর নগরীতে কিছু ব্যবসায়ী রোববার থেকে পাইকারি বাজার বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন। গতকাল শনিবার রংপুর নগরীর জেলা পরিষদ মিনি মার্কেট ও নবাবগঞ্জ বাজারে ম্যাজিস্ট্রেটসহ ভ্রাম্যমাণ আদালতের সদস্যদের অবরুদ্ধও করেন ব্যবসায়ীরা। করোনাভাইরাস ছড়ানোর কারণে মানুষের খাবার কেনার হুড়োহুড়ির মধ্যে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে দেশের বিভিন্ন স্থানে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বেশি রাখার কারণে গতকাল শনিবার বিভিন্ন স্থানে ব্যবসায়ীদের জরিমানা করা হয়েছে।

প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-
রাজশাহী: ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার প্রতিবাদে রাজশাহীর কাঁচাবাজার পাইকারি ব্যবসায়ীরা গতকাল শনিবার বিক্ষোভ করেছেন। এর আগে গতকাল শনিবার দুপুরে পেঁয়াজের দাম বেশি নেওয়া রাজশাহী সাহেববাজার মাস্টারপাড়া কাঁচা পণ্যের পাইকারি বাজারে এক ব্যবসায়ীর ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এরপর ব্যবসায়ীরা বিক্ষোভ মিছিল করে বাজার বন্ধের ঘোষণা দেন। কাঁচাবাজার পাইকারি ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ফাইজুল ইসলাম বলেন, আমরা যে দামে পণ্য কিনছি তার চেয়ে কম দামে বিক্রি করতে নির্দেশ দিয়ে যাচ্ছেন প্রশাসনের লোকজন। মালামাল কেনার রশিদ দেখিয়েও লাভ হচ্ছে না। এতে ব্যবসায়ীরা ব্যাপক লোকসানে পড়ছেন। তিনি বলেন, আমাদের পোঁয়াজ কেনা ৪২ টাকার উপরে পড়ে গেছে। সেখানে ৩৫ টাকা করে বিক্রি করা সম্ভাব নয়। তাই বাজার বন্ধ রাখার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া কোনো উপায় নেই। জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু আসলাম বলেন, সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশে বাজার মনিটরিং করা হচ্ছে। যারা নিয়ম মেনে ব্যবসা করছেন তাদের কোনো জরিমানা করা হচ্ছে না। আমরা কেবল অসাধু ব্যবসায়ীদের আইন মেনে অর্থদণ্ড দিচ্ছি। এতে বাজার পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকছে। জেলা প্রশাসকের নির্দেশ না আসা পর্যন্ত আমরা বাজারে অবস্থান করে মনিটরিং কার্যক্রম চালিয়ে যাব। তিনি বলেন, পেঁয়াজের দাম কেজি প্রতি ৩৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিল। সেখানে লিটন হাজি নামের একজনের আড়াতে সেই পেঁয়াজ ৪৫ টাকা বিক্রি করা হচ্ছিল। এ কারণে জরিমানা করা হয়েছে।
রংপুর: রংপুর নগরীর নবাবগঞ্জ বাজারে বাধার মুখে পড়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত। করোনাভাইরাস ছড়ানোর মধ্যে নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় দুদিন ধরে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জান, দ্বিতীয় দিনের মতো গতকাল শনিবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্টেট রাহাদ কুতুবের নেতৃত্বে জেলা পরিষদ সুপার মার্কেট ও পরে নবাবগঞ্জ বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালায়। এ সময় বেশি দাম নেওয়ার অভিযোগে একটি দোকানকে ৫ হাজার টাকা ও পরে আরেকটি দোকানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ সময় ব্যবসায়ীরা সব দোকানপাট বন্ধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। একপর্যায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের একটি দোকানে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ করেন তারা। নবাবগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী বলেন, অন্যায়ভাবে জরিমানা করা হচ্ছে। আমরা ব্যবসায়ীরা অনির্দিষ্টকালের জন্য বাজার বন্ধ ঘোষণা করলাম।


সাতক্ষীরা: জিনিসপত্র উচ্চমূল্যে বিক্রয় করে বাজার অস্থিতিশীল করা, কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করা ও পণ্যের মূল্যতালিকা প্রদর্শন না করার অভিযোগে সাতক্ষীরায় ভ্রাম্যমাণ আদালত নয় ব্যবসায়ীকে এক লাখ ৭৯ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। গতকাল শনিবার দুপুরে শহরের সুলতানপুর বড়বাজারে সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়। আসাদুজ্জামান জানান, কাঁচামাল পাইকারী ব্যবসায়ী মেসার্স রনি ভান্ডারের মালিক আবদুল গফফরকে ভূয়া ভাউচার বানিয়ে বেশি দামে পণ্য বিক্রির অভিযোগে ৫০ হাজার টাকা ও খুচরা কাঁচামাল ব্যবসায়ী ইশার আলীকে বেশি দামে সবজি বিক্রির অভিযোগে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া সদর উপজেলা ঝাউডাঙ্গা বাজারের দুই কাঁচামাল ব্যবসায়ীকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এদিকে, তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা ও ত্রিশমাইলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আজহার আলী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ছয় ব্যবসায়ীকে ৫৪ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন।


নেত্রকোণা: নেত্রকোণায় চাল, ডাল, আলু, রসুনসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়ানোর কারণে আট ব্যবসায়ীকে ২২ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। দণ্ডিতরা হলেন পৌর সুপার মার্কেটের ব্যবসায়ী আজিজুল হক, লিটন, আবুল কালাম আজাদ, হাদিছ মিয়া, সুবল চন্দ্র দাস, লোকমান মিয়া, মেছুয়া বাজারের শহীদ মিয়া ও জয়ের বাজারের প্রদীপ। জেলা বাজার নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা আজমল হোসাইন বলেন, গতকাল শনিবার সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন জয়েরবাজার, পৌর সুপার মার্কেট, মেছুয়াবাজারে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী হাকিম অব্দুল কাইয়ুম, নারায়ণ চন্দ্র বর্মণ ও লোকমান হোসেন পৃথক ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেছেন।


ভোলা: জেলার সদর, দৌলতখান, লালমোহন ও মনপুরা উপজেলায় চাল-পেঁয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য অতিরিক্ত দামে বিক্রি করায় ২৬ ব্যবসায়ীকে চার লাখ তিন হাজার ৫০০ টাকা অর্থদণ্ড করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল শনিবার দিনব্যাপী এসব অভিযান চালানো হয়। সদরের ৮ ব্যবসায়ীকে ১ লাখ ৯৭ হাজার টাকা, দৌলতখানে পাঁচ ব্যবসায়ীকে ৫১ হাজার টাকা, লালমোহনে ৭ ব্যবসায়ীকে এক লাখ ৪০ হাজার টাকা ও মনপুরা উপজেলায় ৬ ব্যবসায়ীকে ১৫ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পিয়াস চন্দ্র দাস ও নাদির হোসেন শামিমের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত চলে জেলা শহরের খালপাড় রোডে। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত লালামোহন বাজারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাবিবুল হাসান রুমির নেতৃত্বে অভিযান চালানো হয়। দৌলতখান উপজেলায় গত শুক্রবার রাতে অভিযান চলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জীতেন্দ্র কুমার নাথের নেতৃত্বে। মনপুরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে ভ্রম্যমাণ আদালত চালানো হয়। ভোলা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক বলেন, করোনাভাইরাসকে কেন্দ্র করে কোনো ব্যবসায়ী চাল-পেঁয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী বেশি দামে বিক্রি করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বাজার নিযন্ত্রণে জেলা প্রশাসনের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।


জয়পুরহাট: জয়পুরহাটে পৌর শহরের পূর্ব বাজারে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অতিরিক্তি মূল্য নেওয়ায় চার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল শনিবার দুপুরে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিল্টন চন্দ্র রায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। মিল্টন চন্দ্র রায় বলেন, করোনাভাইরাস আতঙ্কে সাধারণ মানুষ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয় শুরু করেছে। এই সুযোগে অসাধু ব্যবসায়ীরা বেশি দামে পণ্য বিক্রি করছে। তাই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে মোল্লা ট্রেডার্স, জনতা স্টোর, জাহানারা স্টোর, বাবু স্টোর নামের চার প্রতিষ্ঠানকে মোট ১২ হাজার ৫ শত টাকা জরিমানা করা হয়।

রাজশাহীতে ফিরেছেন ৮০৯ প্রবাসী, কোয়ারেন্টাইন না মানায় ৯ জনের জরিমানা
                                  

সম্প্রতি বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের ঝুঁকি নিয়ে রাজশাহীতে ফিরেছেন ৮০৯ জন প্রবাসী। তারা রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা। গত বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নিজ এলাকায় ফিরেছেন। করোনা সংক্রমণ সন্দেহে তারা সবাই বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। এরইমধ্যে হোম কোয়ারেন্টাইন শেষ হয়েছে ৪০ জনের। বাকিরা এখনও হোম কোয়ারেন্টাইনে।

যথাযথভাবে হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতে কাজ করছে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তর। নিষেধাজ্ঞা ভেঙে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ানোয় জরিমানা করা হয়েছে ৯ জনকে। গতকাল শুক্রবার সকালে রাজশাহী মহানগরীর সাহেববাজার এলাকায় করোনা সচেতনতায় প্রচারপত্র বিলি করার সময় এ তথ্য জানান বিভাগীয় কমিশনার হুমায়ুন কবির খোন্দকার। তিনি বলেন, রাজশাহীতে করোনাভাইরাস আক্রান্ত কোনো রোগী এখনও সনাক্ত হয়নি, সেই সঙ্গে আইসোলেশনেও কেউ নেই। এলাকায় ফেরা প্রবাসীদের বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হচ্ছে। বিষয়টি কঠোরভাবে নজরদারিও করা হচ্ছে।

প্রচারণায় অংশ নিয়ে পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি একেএম হাফিজ আক্তার বলেন, করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার গুজব ছড়িয়ে সাধারণ মানুষের মনে ভীতি সৃষ্টি করা হচ্ছে। এজন্য সাধারণ মানুষকে আরও সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। সকালে সাহেববাজার এলাকায় ঘুরে ঘুরে সচেতনতামূলক প্রচারপত্র বিতরণ করা হয়েছে। এ সময় রাজশাহী জেলা প্রশাসক হামিদুল হকসহ প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


   Page 1 of 419
     সারাদেশ
টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ জন নিহত
.............................................................................................
মনিরামপুরের সেই এসিল্যান্ডকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি
.............................................................................................
টাঙ্গাইলে সিমেন্ট বোঝাই ট্রাক উল্টে নিহত ৫
.............................................................................................
বগুড়ায় ওরস মাহফিল বন্ধ করতে গিয়ে হামলার শিকার পুলিশ, গ্রেফতার ২৪
.............................................................................................
দিনাজপুরে বকেয়া বেতনের দাবিতে বিক্ষোভে গুলি, নিহত ১
.............................................................................................
খাগড়াছড়িতে যুবকের মৃত্যু, চিকিৎসকের ধারণা করোনা ভাইরাস
.............................................................................................
করোনা আতঙ্কে হাসপাতাল ছাড়ছেন রোগীরা
.............................................................................................
জেলা-উপজেলায় টহলে সেনাবাহিনী
.............................................................................................
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ইতালি ফেরত প্রবাসীর মৃত্যু
.............................................................................................
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপর আর ভরসা নয় : ফারুকী
.............................................................................................
করোনার কারণে বিদ্যুৎ-গ্যাস বিলের বিলম্ব মাশুল মওকুফ
.............................................................................................
পাথরঘাটায় ২৬ কেজি হরিণের মাংস জব্দ
.............................................................................................
লাল পতাকা উত্তোলন প্রবাসীদের বাড়িতে
.............................................................................................
সিলেটে আইসোলেশনে থাকা যুক্তরাজ্য ফেরত এক নারীর মৃত্যু
.............................................................................................
বাজার নিয়ন্ত্রণে অভিযান: প্রতিবাদে রাজশাহী-রংপুরে বাজার বন্ধের ঘোষণা
.............................................................................................
রাজশাহীতে ফিরেছেন ৮০৯ প্রবাসী, কোয়ারেন্টাইন না মানায় ৯ জনের জরিমানা
.............................................................................................
প্রয়োজনে বাস, ট্রেন ও নৌ চলাচল বন্ধ করবে সরকার
.............................................................................................
এবার রাঙামাটিতে ৫ শিশুর মৃত্যু, অসুস্থ আরও ‘একশ’
.............................................................................................
হাসাপাতালে জ্বর, কাশি, গলা ব্যথা নিয়ে আসা এক রোগীর মৃত্যু
.............................................................................................
নিরাপত্তা চেয়ে কর্মবিরতিতে রামেক’র ইন্টার্ন চিকিৎসকরা
.............................................................................................
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিদেশ ফেরত ৯ হাজার জনের মধ্যে কোয়ারেন্টাইনে মাত্র ১৪ জন!
.............................................................................................
কারখানায় থার্মাল স্ক্যানার বসানোর নির্দেশ
.............................................................................................
জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক কোষাধ্যক্ষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু
.............................................................................................
ময়মনসিংহে চালককের লাশের সাথে রক্তমাখা হাতুড়ি উদ্ধার
.............................................................................................
নাটোরে গাছে বিধবার ঝুলন্ত মৃতদেহ
.............................................................................................
নাটোরে গাছে বিধবার ঝুলন্ত মৃতদেহ
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে শিক্ষার্থীদের উপর হামলার প্রতিবাদে মানব বন্ধন ও সড়ক অবরোধ
.............................................................................................
সার্জিক্যাল মাস্কের সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৩০ টাকা নির্ধারণ
.............................................................................................
বাহরাইনে আটকা পড়া ৬৮ বাংলাদেশি দেশে ফিরে গেছেন
.............................................................................................
২৬তম স্প্যানে দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর ৪ কিলোমিটার
.............................................................................................
৪-১০ এপ্রিল জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ
.............................................................................................
প্রথমবারের মতো তিন বাংলাদেশি আক্রান্ত নভেল করোনাভাইরাসে
.............................................................................................
পাটকলে শূন্য পদে বদলি শ্রমিকদের নিয়োগের দাবি
.............................................................................................
গাইবান্ধায় বজ্রপাতে নারী নিহত, আহত আরও ৫
.............................................................................................
সুনামগঞ্জে জমির বিরোধে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন
.............................................................................................
পটুয়াখালী-বরগুনায় ১০ ঘন্টা করে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে ১০ দিন
.............................................................................................
টেকনাফে রোহিঙ্গা-র‍্যাবের গোলাগুলি, নিহত ৭
.............................................................................................
নওগাঁয় সীমান্তে অপরাধে জড়িত ২৯৩ জনের আত্মসমর্পণ
.............................................................................................
পাবনায় আনসার আল ইসলামের দুই সদস্য গ্রেফতার
.............................................................................................
কক্সবাজারে মালয়েশিয়াগামী ১৬ রোহিঙ্গা উদ্ধার, দালাল আটক
.............................................................................................
চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় যুবক নিহত
.............................................................................................
চট্টগ্রামে পুলিশ বক্সে বোমা বিস্ফোরণ, পুলিশসহ আহত ৫
.............................................................................................
নোয়াখালীতে হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
কুড়িগ্রাম সীমান্তে ভারতীয় যুবক ও ২ বাংলাদেশি কিশোর আটক
.............................................................................................
বেদখল হওয়া খাস পুকুর-জলাশয় উদ্ধার করা হবে: ভূমিমন্ত্রী
.............................................................................................
কুষ্টিয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ১
.............................................................................................
বরিশালের অজপাড়াগাঁয়ে চিত্রা হরিণের খামার
.............................................................................................
ঠাকুরগাঁওয়ে অজ্ঞাত রোগে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৩
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জে বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ আরেকজনের মৃত্যু
.............................................................................................
জমির বিরোধে গোপালগঞ্জে মসজিদে আগুন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD