| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   অপরাধ -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে রাজস্ব কর্মকর্তাসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে দুদকে মামলা

আমদানি করা পণ্যে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে পৌনে দুই কোটি টাকা আত্মসাৎ করার দায়ে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের সাবেক দুই রাজস্ব কর্মকর্তাসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দু’টি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গত বৃহস্পতিবার বিকালে দুদক প্রধান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. নাসির উদ্দিন বাদী হয়ে মামলা দু’টি করেন। দুদক জেলা সমন্বিত কার্যালয় চট্টগ্রাম-১ উপ-সহকারী পরিচালক হোসাইন শরীফ এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, অভিযুক্তরা আমদানি করা পণ্যের শুল্ক ফাঁকি দিয়ে ঘুষ লেনদেনের মাধ্যমে এক কোটি ৭৫ লাখ ৫৪ হাজার ৬৫৫ টাকা আত্মসাৎ করেন। এ ঘটনায় বিকালে কাস্টম হাউসের সাবেক দুই রাজস্ব কর্মকর্তাসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার অভিযুক্তরা বর্তমানে পলাতক রয়েছে। তারা হলেন, চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের সাবেক রাজস্ব কর্মকর্তা শফিউল আলম, হুমায়ুন কবির, আমদানিকারক মেসার্স গ্যাবি ট্রেড ইন্টান্যাশনালের স্বত্বাধিকারী মো. কাশিফ ফোরকান, এমআর করপোরেশনের স্বত্বাধিকারী মো. হারুন শাহ এবং সিএন্ডএফ এজেন্টের মালিক আবুল হাসনাত সোহাগ।

 

শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে রাজস্ব কর্মকর্তাসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে দুদকে মামলা
                                  

আমদানি করা পণ্যে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে পৌনে দুই কোটি টাকা আত্মসাৎ করার দায়ে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের সাবেক দুই রাজস্ব কর্মকর্তাসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দু’টি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গত বৃহস্পতিবার বিকালে দুদক প্রধান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. নাসির উদ্দিন বাদী হয়ে মামলা দু’টি করেন। দুদক জেলা সমন্বিত কার্যালয় চট্টগ্রাম-১ উপ-সহকারী পরিচালক হোসাইন শরীফ এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, অভিযুক্তরা আমদানি করা পণ্যের শুল্ক ফাঁকি দিয়ে ঘুষ লেনদেনের মাধ্যমে এক কোটি ৭৫ লাখ ৫৪ হাজার ৬৫৫ টাকা আত্মসাৎ করেন। এ ঘটনায় বিকালে কাস্টম হাউসের সাবেক দুই রাজস্ব কর্মকর্তাসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার অভিযুক্তরা বর্তমানে পলাতক রয়েছে। তারা হলেন, চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের সাবেক রাজস্ব কর্মকর্তা শফিউল আলম, হুমায়ুন কবির, আমদানিকারক মেসার্স গ্যাবি ট্রেড ইন্টান্যাশনালের স্বত্বাধিকারী মো. কাশিফ ফোরকান, এমআর করপোরেশনের স্বত্বাধিকারী মো. হারুন শাহ এবং সিএন্ডএফ এজেন্টের মালিক আবুল হাসনাত সোহাগ।

 

যাত্রীর টাকাসহ ব্রিফকেস নিয়ে পালালেন উবার চালক!
                                  

মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে পরিচালিত অনলাইন পরিবহন নেটওয়ার্ক কোম্পানি- উবারে যাত্রা কতটা নিরাপদ? প্রতিষ্ঠানটি আমেরিকা ভিত্তিক অনলাইন পরিবহন নেটওয়ার্ক বাংলাদেশে যাত্রার পরই ব্যাপক সুনাম কুড়িয়েছিল। যত দিন যাচ্ছে এই প্রতিষ্ঠানটি ততই নানা ধরনের অপরাধের সাথে জড়াচ্ছে বলে অভিযোগ। প্রতিষ্ঠানটির ঝুড়িতে সুনামের পরিবর্তে যোগ হচ্ছে ভরি ভরি দুর্নাম। চুরি-ছিনতাই থেকে শুরু করে বেপরোয়া চালনায় যাত্রীর মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে এরই মধ্যে। যাত্রীর নিকট চালকের অভিনব আবদার, অতিরিক্ত ভাড়া আদায়সহ যাত্রীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার, যৌন হয়রানি-ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে। তবে অভিযোগেরও সঠিক সমাধান করতে সক্ষম হয়নি এই প্রতিষ্ঠানটি। সম্প্রতি মিরপুরের দারুস সালাম থানায় জালাল উদ্দিন নামে উবারের এক টেক্সিচালকের বিরুদ্ধে অভিনব প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। ফরিদপুর- ১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম সিরাজুল ইসলাম মৃধা ও রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাকসুদা সিরাজের ছেলে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এম এম গোলাম শওকত এ অভিযোগ করেন। গোলাম শওকতের করা অভিযোগ থেকে জানা যায়, গত ২১ আগস্ট দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর গুলশান- ২, রোড নং ৫৯ থেকে গাবতলী যাওয়ার উদ্দেশ্যে উবার সফটওয়্যারে ০১৯৪১৮৪১০০১ মোবাইল নম্বরে ফোন করেন। তার ফোন পেয়েই উবারের চালক জালাল উদ্দিন সাদা রংয়ের প্রাইভেটকার (ঢাকা মেট্রো-গ-২৭-৪১৭৮) গাড়ী নিয়ে তার বাসার সামনে হাজির হন এবং ০১৩০৫-৬৪৩০১৫ নম্বর থেকে তাকে ফোন করেন। যাবতীয় মালামাল নিয়ে জালালের গাড়ীতে উঠে গাবতলীর উদ্দেশ্যে যাত্রাও করেন শওকত। গাবতলী পৌঁছে গাড়ীতে থাকা অবস্থায় ভাড়া পরিশোধ করে বাইরে বের হয়ে সব মালামাল গাড়ী থেকে নামিয়েও নেন তিনি।

কিন্তু মুল্যবান কাগজপত্রসহ নগদ ১ লাখ ৭৩ হাজার টাকা রক্ষিক ব্রিফকেস চালকের সামনের সিট থেকে নামানোর আগেই চম্পট দেয় চালক জালাল উদ্দিন। ধাওয়া করেও ধরতে না পেরে উবারে ব্যবহৃত চালকের ফোন নম্বরে একাধিকবার ফোন করলেও আর রিসিভ করা হয়নি। শুধু তাই নয়- কিছুসময় পর সেই নম্বরটি বন্ধও করে দেয় চালক। বিষয়টি তাৎক্ষনিক উবার কর্তৃপক্ষকে অবগতও করেন গোলাম শওকত। অথচ উবার কর্তৃপক্ষ থেকে কোনো রকমের পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেন তিনি। তিনি বলেন, এ বিষয়ে ঘটনার পরদিনই (২২ আগস্ট ২০১৯) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের দারুস সালাম থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। যার নম্বর- ৯৪৪। কিন্তু তাতেও কোনো কাজ হয়নি। উবার কিংবা থানা কর্তৃপক্ষ এখনো কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করেই নীরব ভুমিকা পালন করছে। এদিকে সাধারণ ডায়েরীর তদন্তের দায়িত্বে থাকা দারুস সালাম থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মাহবুবুর রহমান জানান, তদন্তের স্বার্থে পুলিশের পক্ষ থেকে ওই চালকের তথ্যগত সহযোগিতা চেয়ে মেইল করা হলেও উবার কর্তৃপক্ষ এখনো কোনো ধরণের সহযোগিতা করেনি। এদিকে উবার চালক জালাল উদ্দিনের ব্যবহৃত বাংলালিংক অপারেটরের দুটি সিম কার্ডের নম্বর রেজিষ্ট্রেশনে ঠিকানা উল্লেখ করা হয়েছে- কামাল উদ্দিন, পিতা- নাছির উদ্দিন, মাতা- মনোয়ারা বেগম, বাসা- হোল্ডিং- ২৭১, সড়ক- ৯৯৯, ওয়ার্ড নং- ১৬, নিউমার্কেট- ১২০৫, ধানমন্ডি, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন। গ্রামের বাড়ী ভোলার দৌলতখান থানার চাউলতা তলি। আর গ্রামীণ সিমের নম্বর রেজিষ্ট্রেশন রয়েছে- নুর নাহার বেগম, পিতা- আবদুল গণি, মাতা- আছিয়া বেগম, হোল্ডিং- ৮৪, রাস্তা- ৯৯৯, ওয়ার্ড- ৪, গুলশান- ১২১২, বাড্ডা, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন। তবে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথোরিটি (বিআরটিএ) কার্যালয়ে চালক জালাল উদ্দিনের নাম-পরিচয় ও ঠিকানা উল্লেখ রয়েছে- জালাল উদ্দিন, পিতা- নাছির উদ্দিন, হাউজ নং- ৩, ব্লক- ডি, ওয়ার্ড- ৭, বাজার রোড। গোলাম শওকত ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, উবার মোবাইলে ও থানায় জিডি করার পরও উবার কর্তৃপক্ষ কেন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না, তা বুঝতে পারছি না। এরকম হলে- উবার ব্যবহারকারী যাত্রীরা নিরাপদ বোধ করবে কীভাবে। আমার মতো অনেকেই প্রতিনিয়ত এভাবেই প্রতারিত হচ্ছেন। উবার কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব কি? তারা কিভাবে নিরাপদ যাত্রা নিশ্চিত করছে, এমন প্রশ্ন রেখে প্রশাসনকে বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিও জানান সাবেক এ উপজেলা চেয়ারম্যান। দারুস সালাম থানার এএসআই মাহাবুবুর রহমান বলেন, ঘটনাটির তদন্ত চলমান রয়েছে। সার্বিক বিষয় অনুসন্ধান করা হচ্ছে।

অভিযুক্ত ব্যক্তির ফোন নম্বরটি এখন বন্ধ রয়েছে। উবারের কাছ থেকে তথ্য চেয়েছেন কিনা এবং কোনো ধরণের সহযোগিতা তারা করেছে কিনা- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এ ঘটনায় চালকের তথ্য চেয়ে উবার কর্তৃপক্ষককে মেইল করা হলেও এখনো পর্যন্ত উবার থেকে পুলিশকে কিছুই জানানো হয়নি। তবে ভুক্তভোগী ব্যক্তি থানায় চালকের সকল তথ্য জমা দিয়েছেন, সেই তথ্যের ভিত্তিতে চালককে আটক কিংবা গ্রেপ্তার করতে কোনো অভিযানে গিয়েছেন কী না জানতে চাইলে তিনি কোনো উত্তর দেননি। উবারের গণযোগাযোগ সংস্থা বেঞ্চমার্ক পিআর এর প্রধান পরামর্শদাতা আশরাফ কায়সারের মুঠোফোনে ফোন করে এ ঘটনার বিষয়ে জানাতে এবং ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে একাধিকবার ফোন করা হলেও নম্বরটি বন্ধ পাওয়ায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

১৮০ কোটি টাকার শুল্ক-কর ফাঁকির অভিযোগ
                                  

 বন্ডেড সুবিধার আওতায় আমদানি করা পণ্যে ১৮০ কোটি টাকার শুল্ক-কর ফাঁকি দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর প্রেক্ষিতে ১০৩টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে ঢাকা কাস্টমস বন্ড কমিশনারেট। বন্ড সুবিধার অপব্যবহার প্রতিরোধে ঢাকা কাস্টমস বন্ড কমিশনারেট চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে জুলাই এই ৬ মাসে ১৪২টি প্রিভেন্টিভ অভিযান পরিচালনা করে। এসব অভিযানে শুল্ক-কর ফাঁকির এই তথ্য পাওয়া যায়। এ বিষয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া বলেন, শিল্পায়নের বিকাশ ও রফতানি সম্প্রসারণের লক্ষে সরকার রফতানিমূখী শিল্পের জন্য বন্ড সুবিধা দিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু কিছু প্রতিষ্ঠান এর অপব্যবহার করছে। তাই আমরা বন্ডেড সুবিধার অপব্যবহার প্রতিরোধে কঠোর হচ্ছি। শুল্ক-কর ফাঁকির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, বন্ড সুবিধার অপব্যবহার প্রতিরোধে বন্ডেড ওয়্যারহাউজ আকস্মিক পরিদর্শন, রাত্রিকালীন টহল,অবৈধ বিক্রয়স্থলে হানা ও অনুসন্ধান কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। সূত্র জানায়, বন্ড কমিশনারেট পরিচালিত অভিযানে কেবল শুল্ক-কর ফাঁকি উদঘাটন হয়নি, পাশাপাশি আমদানিকৃত পণ্য চোরাইপথে খোলাবাজারে বিক্রয়ের অভিযোগে ৬৪টি পণ্যবাহী যানবাহন আটক ও ৫টি গুদাম সীলগালা করা হয়েছে। আটক হওয়া পণ্যের মধ্যে রয়েছে ফেব্রিক্স, কাগজ, বিওপিপি ফিল্ম, পিপি দানা, ডুপ্লেক্স বোর্ড, আর্টকার্ড, সুতা ইত্যাদি।

এছাড়া বন্ড সুবিধার অপব্যবহারের সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে এবং ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনায় মোট ৩১১টি প্রতিষ্ঠানের বন্ড লাইসেন্স স্থগিত এবং এসব প্রতিষ্ঠানের পিন নম্বর লক করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ৫টি প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স চূড়ান্ত বাতিল করা হয়েছে।

রংপুর শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ভূয়া প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের সদস্য আটক
                                  

 র‌্যাব-১৩, রংপুর এর সিপিএসসি ক্যাম্পের একটি আভিযানিক দল গতকাল শুক্রবার ভোরবেলা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুর উপজেলার চাদনীবজরা এলাকা থেকে শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ভূয়া প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের সদস্য মোহাম্মদ মাইদুল ইসলাম (২১) কে গ্রেফতার করেছে। এ সময় তার নিকট থেকে র‌্যাব সদস্যরা ২ টি মোবাইল ফোন, ১ টি মেমোরী কার্ড, ৩ টি সিমকার্ড এবং ১ টি বিকাশ সিমকার্ড উদ্ধার করেছে। সে উলিপুর উপজেলার চাদনীবজরা এলাকার ফুলবাবুর পুত্র বলে জানা গেছে।

গতকাল শুক্রবার অনুষ্ঠিত শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ভুয়া প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রলোভন দেখিয়ে গ্রেফতারকৃত অভিযুক্ত মাইদুল ইসলাম (২১) বিকাশ সিম কার্ডের মাধ্যমে আর্থিক লেনদেন করতো এবং ফেইসবুক আইডি ও মেসেঞ্জারের মাধ্যমে প্রশ্নপত্র গ্রহিতাদের সাথে লেনদেন করতো বলে জিজ্ঞাসাবাদে সে র‌্যাবের নিকট স্বীকার করেছে।

র‌্যাব -১৩, রংপুর এর কোম্পানি কমান্ডার এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোতাহার হোসেন সাংবাদিকদের নিকট প্রেরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, গ্রেফতারকৃত ভূয়া প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের সদস্যের বিরুদ্ধে উলিপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

নড়াইলে কলেজছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা
                                  

নড়াইলে কলেজছাত্র সাগর দাসকে (১৮) কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ৮টার দিকে নড়াইল-গোবরা সড়কের ধোপাখোলা মোড় এলাকায় রাস্তার পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সাগর নড়াইল সদরের উজিরপুর কলাইতলার গোদাই দাসের ছেলে এবং গোবরা মিত্র কলেজের উচ্চমাধ্যমিকশ্রেণির ছাত্র ছিলেন। তার মাথায় কোপের চিহৃসহ শরীরে আঘাত রয়েছে। এদিকে সাগরের মরদেহের পাশে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন ও বাইসাইকেল ছিল।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার বিকেলে বাইকেল নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে রাত অবধি ফিরে না আসায় সাগরকে অনেক খোঁজাখুজি করা হয়। এ ছাড়া তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলেও পরিবারের সদস্যরা কোনো সাড়া পাননি। পরে গতকাল বুধবার সকালে ওইস্থানে তার মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেন। এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন জানান, এ ঘটনায় জড়িত কাউকে সনাক্ত করা যায়নি। হত্যারহস্য উদ্ঘাটনের চেষ্টা চলছে।

কোটি টাকা দুর্নীতি মামলায় সাব রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার
                                  

 দুই কোটি ৩৮ লাখ টাকা দুর্নীতির মামলায় পাবনা সদর উপজেলার সাব-রেজিস্ট্রার মো. ইব্রাহিম আলীকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে শহরের পোস্ট অফিস এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে কমিশনের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন।

গত বছরের ১৫ অক্টোবর ইব্রাহিমের বিরুদ্ধে ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে রাজধানীর দারুস সালাম থানায় মামলা করেন দুদকের সহকারী পরিচালক শেখ গোলাম মাওলা।

ওই মামলায় আসামির বিরুদ্ধে দুই কোটি ৩৮ লাখ ১৪ হাজার ৯২৫ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন ও দখলে রেখে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন- ২০০৪ এর ২৭(১) ধারা এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন-২০১২ এর ৪ (২) ধারায় অভিযোগ আনা হয়। পরে গত মার্চে ইব্রাহিম আলীর দুর্নীতি সংক্রান্ত স্থাবর সম্পদ ক্রোক ও অস্থাবর সম্পদ ফ্রিজ করতে আদেশ দেয় আদালত।

মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ-ভ্যাকসিন বিক্রির দায়ে ৭৫ লাখ টাকা জরিমানা
                                  

 গরু, মহিষ, ছাগল, মুরগিসহ বিভিন্ন প্রাণীর মেয়াদোত্তীর্ণ ও অনুমোদনহীন ওষুধ এবং ভ্যাকসিন বিক্রির দায়ে রাজধানীর ফকিরাপুলের অ্যাডভান্স অ্যানিমেল সায়েন্স কোং লিমিটেডকে ৭৫ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। ওই প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন ছয় কর্মকর্তাকে দুই বছর করে জেল দেয়া হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে ফকিরাপুলের ১৪৯/এ ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউয়ের চতুর্থ তলার ওই প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালায় র‌্যাব। অভিযানে নেতৃত্ব দেন র‌্যাবের নির্বাহী মাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম। একই সময় প্রতিষ্ঠানটির লালমাটিয়া হেড অফিসেও অভিযান চালানো হয়।

এসময় র‌্যাব দেখতে পায় গরু, মহিষ, ছাগল, মুরগিসহ বিভিন্ন প্রাণীর শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য যেসব ভ্যাকসিন ব্যবহার করা হয় সেগুলোর অনেকগুলোর মেয়াদ শেষ হয়েছে ছয় বছর আগে। অথচ রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় এখনও বিক্রি হচ্ছে এসব ভ্যাকসিন। র‌্যাবের নির্বাহী মাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, ওই প্রতিষ্ঠানের ১০ কোটি টাকার মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ও ভ্যাকসিন জব্দ করা হয়েছে। যার মধ্যে অনেকগুলোর মেয়াদ ২০১২-১৩ সালেই শেষ হয়েছে।

এজন্য প্রতিষ্ঠানটিকে জরিমানা করা হয়েছে এবং ছয় কর্মকর্তাকে দুই বছর করে জেল দেয়া হয়েছে।

 

ফরিদগঞ্জে এক মাদক ব্যবসায়ী আটক
                                  

এস.এম ইকবাল:

ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ শুক্রবার গভীর রাতে একলাশপুর এলাকা থেকে ১১৫ পিছ ইয়াবা টেবলেট সহ মাদক ব্যবসায়ী মোঃ মেহেদী হাছানকে আটক করেছে ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ ।

ফরিদগঞ্জ পূর্ব একলাশপুর গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী মোঃ মেহেদী হাছান, সে এলাকায় দীর্ঘদিন মাদক ব্যবসা করে আসছে। পুলিশ দীর্ঘদিন থেকে মাদক ব্যবসায়ী মোঃ মেহেদী হাছানকে খুঁজছে।

গোপন সংবাদ পেয়ে একলাশপুর এলাকা থেকে মাদক ব্যবসায়ী মেহেদীকে ওসি আব্দুর রকিব এর নেতৃত্বে এএস আই ইলিয়াস ও এএস আই আঃ মমিন সহ তাকে আটক করে।

ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রকিব জানান, পুলিশ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে মাদক ব্যবসায়ীকেআটক করতে সক্ষম হয়েছে।

৮০ লাখ টাকাসহ সিলেটের ডিআইজি প্রিজনস পার্থ গ্রেফতার
                                  

অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের ডিআইজি (প্রিজন) পার্থ গোপাল বণিককে গ্রেফতার করা হয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল রোববার বিকালে রাজধানীর ধানম-ির ভূতের গলি এলাকায় তার বাসায় অভিযান ৮০ লাখ টাকা জব্দ করার পর তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ওই সব টাকা ঘুষ, দুর্নীতি ও অনিয়মের মাধ্যমে অর্জন করে পার্থ গোপাল বণিক তার বাসায় গচ্ছিত রাখেন। এর আগে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের সাবেক ডিআইজি থাকার সময় অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে গতকাল রোববার সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত দুদক প্রধান কার্যালয়ে পার্থ বণিককে জিজ্ঞাসাবাদ করেন কমিশনের পরিচালক মুহাম্মদ ইউছুফ। পরে ঘুষ ও দুর্নীতির কয়েক লাখ নগদ টাকা বাসায় রয়েছে- এমন তথ্যের ভিত্তিতে তাকে নিয়ে ইউছুফের নেতৃত্বে দুদকের একটি দল তার ভূতের গলি বাসায় অভিযান চালায়। এদিকে গতকাল রোববার কারাগারের অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে চট্টগ্রামের সাবেক সিনিয়র জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিককেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুদক।

দেশী-বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে : শিল্প প্রতিমন্ত্রী
                                  

শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেছেন, দেশের বিনিয়োগের অনুকূল রাজনৈতিক পরিবেশ বজায় থাকায় প্রতিদিন বিনিয়োগের নতুন নতুন প্রস্তাব আসছে। দেশী-বিদেশি বিনিয়োগ হার উল্লেখযোগ্য পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। গতকাল শনিবার রাজধানীর পূর্বাচলে অবস্থিত আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় জেএইচএম গ্রুপের ব্যবসা সম্মেলন ২০১৯-এ প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।


শিল্প প্রতিমন্ত্রী বলেন, শিল্পখাতের বিকাশে বেসরকারি উদ্যোগে নতুন নতুন শিল্প স্থাপনকে সরকার সর্বাধিক গুরুত্ব প্রদান করেছে। নতুন শিল্পকারখানা স্থাপনে শিল্প মন্ত্রণালয় সবধরনের সহায়তা প্রদান করছে। দেশে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত জনশক্তি তৈরীর লক্ষ্যে ঢাকায় একটি শিল্প বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।


ভারতের জেএইচএম গ্রুপ বাংলাদেশে বিনিয়োগ করায় শিল্প প্রতিমন্ত্রী তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে নতুন নতুন ভারী ও মাঝারি শিল্প স্থাপনে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।
সংসদ সদস্য খাদিজাতুল আনোয়ার সনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে জেএইচএম গ্রুপের চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, পরিচালক ও প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক মেহেদী হাসান বিপ্লব বক্তব্য রাখেন। পরে শিল্প প্রতিমন্ত্রী জেএইচএম গ্রুপের শ্রেষ্ঠ ডিলারদের পুরস্কার প্রদান করেন।

 

পাওনা টাকা না দিতে স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে খুন
                                  

 ব্যবসায়িক দ্বন্দ্ব এবং পাওনা টাকা না দিতে স্বর্ণ ব্যবসায়ী ও মহাজন সঞ্জয় ধরকে খুন করা হয়েছে। ঘটনার এক মাসের মধ্যে এ হত্যাকা-ের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। গত কয়েকদিন ধরে অভিযান চালিয়ে তিন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকা-ের রহস্য উন্মোচন হয়েছে। গ্রেফতার আসামিরা হলেন, চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পূর্ব কোদালা গ্রামের মলিতক বাড়ির বিকাশ কান্ত্মি মলিতক ওরফে তপন মলিতক, ইপিজেড থানার ব্যারিস্টার কলেজ রোডের সৈয়দ হোসেন মৌলভীর বাড়ির মো. শফিউল উমাম ওরফে বাদশা ও বন্দরটিলার সাচি মালুম রোডের ওষুধ দোকানি বিশ্বজিৎ মজুমদার। এদের মধ্যে তপন মলিতক ও বিশ্বজিৎ মজুমদার একই এলাকার দোকানদার। বাদশা পেশায় টমটম চালক। গত ২৩ জুন নগরের ইপিজেড থানার বন্দরটিলা সাচি মালুম রোডের আলী ম্যানশনের মনি শ্রী জুয়েলার্স থেকে সঞ্জয় ধরের জবাই করা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তার স্ত্রী রেখা ধর অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে ইপিজেড থানায় মামলা দায়ের করেন।


পুলিশ সুত্র জানায়, হত্যাকা-ের শিকার স্বর্ণ দোকানের মালিক সঞ্জয় ধর দীর্ঘদিন ধরে বিকাশ কান্ত্মি মলিতক ওরফে তপন মলিতকের দোকানে চাকরি করতেন। ২০১৫ সালে সেখান থেকে বের হয়ে পৃথকভাবে দোকান দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন সঞ্জয়। এরপর তপন মলিতকের কাছে চাকরিকালে ১০ লাখ টাকা পাবেন দাবি করে আইনি নোটিশ পাঠান। বিষয়টি জুয়েলার্স সমিতির মাধ্যমে সুরাহা হয়। কিন্তু এ নিয়ে সঞ্জয় ধরের সঙ্গে তপন মলিতকের দ্বন্দ্ব লেগে থাকে। সঞ্জয় ধর দোকান শুরু করলে তপন মলিতকের অনেক গ্রাহক তার কাছে চলে যায়।

এনিয়েও ক্ষিপ্ত ছিলেন তপন মলিতক। শফিউল উমাম ওরফে বাদশা পেশায় টমটম চালক। তিনি সঞ্জয় ধরের কাছ থেকে এক লাখ টাকা সুদে ধার নেন। দীর্ঘদিন সুদ পরিশোধ করে আসছিলেন বাদশা। এরপরও সঞ্জয় ধরের কাছে থাকা বাদশার একটি চেকে দশ লাখ টাকা বসিয়ে তা ডিজঅনার করে বাদশার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে দেন সঞ্জয় ধর। এ নিয়ে দুই জনের মধ্যে বিরোধ শুরু হয়। একই এলাকার ওষুধের দোকানি বিশ্বজিৎ মজুমদারের সঙ্গেও সঞ্জয়ের কাছ থেকে নেওয়া সুদের টাকা নিয়ে বিরোধ দেখা দেয়। বিরোধের জের ধরে তিনজিন মিলে সঞ্জয় ধরকে হত্যার পরিকল্পনা করে। গত ২১ জুন বিকালে তপন মলিতকের দোকানের সামনে বাদশার দেখা হয়। রাত ১১টার দিকে বাদশাকে দোকানে আসতে বলেন তপন মলিতক। বাদশা তপন মলিতকের দোকানে গিয়ে দেখতে পান বিশ্বজিৎ ও তপন মলিতক শলা পরামর্শ করছেন। একসঙ্গে তিনজন বের হয়ে সঞ্জয় ধরের দোকানে যান। দোকানের সার্টার অর্ধেক নামানো ছিল। প্রথমে বাদশা দোকানে ঢুকে সঞ্জয় ধরের মুখ চেপে ধরে। এরপর তপন মলিতক দোকানে ঢুকে সঞ্জয় ধরকে মাটিতে ফেলে হাত-পা চেপে ধরে।

এ সময় সঞ্জয় ধরের ডান বাহুতে ঘুমের ইনজেকশন পুশ করে বের হয়ে যান বিশ্বজিৎ। বাদশা তার কোমরে থাকা ছোরা দিয়ে সঞ্জয় ধরের মাথা চেপে ধরে জবাই করে দেন। বাদশার কাছ থেকে ছোরা নিয়ে তপন মলিতক সঞ্জয় ধরের পেটে ছুরিকাঘাত করে। সঞ্জয় ধরকে হত্যার পর দোকানে থাকা সিসি ক্যামেরা ভাংচুর করে বাদশা। সিসি ক্যামেরা ও যন্ত্রপাতি খুলে নিয়ে যায় তপন মলিতক।
ইপিজেড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ওসমান গণি বলেন, চাঞ্চল্যকর হত্যাকা-টির তদন্তে তিনজনের সম্পৃক্ত থাকার বিষয়টি বেরিয়ে আসে। পরে চট্টগ্রাম নগর ও জেলার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে হত্যাকা-ে জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা হত্যাকা-ে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। আসামিরা জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, ব্যবসায়িক দ্বন্দ্ব ও পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের জের ধরে তিনজনে মিলে সঞ্জয় ধরকে হত্যা করেছে।

অবৈধভাবে পাজেরো ব্যবহার: তৃতীয় শ্রেণির সেই দুই কর্মচারীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা
                                  

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) দুটি পাজেরো গাড়ি দশ বছর ধরে অবৈধভাবে ব্যবহার করার অভিযোগে তৃতীয় শ্রেণির দুই কর্মচারীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন- দুদক। গতকাল বুধবার দুদকের সহকারী পরিচালক মো. খলিলুর রহমান সিকদার বাদী হয়ে কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১ এ মামলাটি দায়ের করেন। পিডিবি ট্রেড ইউনিয়ন- সিবিএ’র সাবেক সভাপতি জহিরুল ইসলাম চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন মিয়াকে মামলায় আসামি করা হয় বলে দুদকের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন। গত ১৪ জুলাই এই মামলা দায়েরের অনুমোদন দেয় দুদক। এর আগে গত ১১ ও ১২ ফেব্রুয়ারি তৃতীয় শ্রেণির এই দুই কর্মচারীর কবল থেকে পাজেরো গাড়ি দুটি উদ্ধার করে দুদক।

পিডিবির জরুরি প্রয়োজনে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের (ভিআইপি) জন্য গাড়ি দুটি ’স্ট্যান্ডবাই’ রাখার নিয়ম উল্লেখ করে মামলায় বলা হয়, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী নিজেকে ভিআইপি হিসেবে দাবি করে ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে ২০১০ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত সময়ে পাজেরোটি (সিলেট-ঘ-০২-০০৩৩) ব্যবহার করেন। একইভাবে আলাউদ্দিন নিজেকে ভিআইপি দাবি করে একই সময়কালে অপর পাজেরো গাড়িটি (ঢাকা মেট্টো-ঘ-১১-২৮২৭) ব্যবহার করেন। ঘটনাটি সামনে আসার পর একে একটি ‘বড় অপরাধ’ হিসেবে চিহ্নিত করে দুদক। দুদকের অভিযোগ, শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ‘প্রভাব খাটিয়ে’ গাড়ি দুটি প্রায় ১০ বছর পর্যন্ত অবৈধভাবে ব্যবহার করা হয়েছে।

মামলায় বলা হয়, জহিরুল ও আলাউদ্দিন গাড়ির জ¦ালানি, মেরামত ও সংরক্ষণ বাবদ সরকারের এক কোটি ১৫ লাখ ৬৩ হাজার টাকা ক্ষতিসাধনের মাধ্যমে আত্মসাৎ করেন। এসব অভিযোগে আসামিদের বিরুদ্ধে দ-বিধির ৪০৯ ধারা ও ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলা করা হয় বলে জানিয়েছেন প্রনব। জহিরুল পিডিবিতে সর্বশেষ সহকারী হিসাব রক্ষক হিসেবে ২০১৮ সালে অবসরে যান; আর আলাউদ্দিন স্টেনোটাইপিস্ট কাম কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে ২০১৭ সালে অবসর নেন।

ধর্মকে পুঁজি করে ৩০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ, এফআইসিএলের চেয়ারম্যান গ্রেফতার
                                  

৩০০ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় ফারইস্ট ইসলামি মাল্টি কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেডের (এফআইসিএল) চেয়ারম্যান শামীম কবিরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রাজধানীতে সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান। মোল্যা নজরুল ইসলাম বলেন, ৩০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে শামীম কবিরকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ ছাড়া মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনসহ মোট ২৮টি মামলা রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। একটি মামলায় তাঁর তিন বছর সাজাও হয়েছে। চার বছর ধরে পলাতক ছিলেন তিনি। বিশেষ পুলিশ সুপার বলেন, সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইম ইউনিট গত ৯ জুলাই শামীম কবিরকে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা থেকে গ্রেফতার করে। এ সময় তাঁর কাছ থেকে একটি নোয়া মাইক্রোবাস, দুটি মোবাইল ফোন, শামীম কবিরের পাসপোর্ট, ২৯টি জমির দলিল, ডিভিআর ও চারটি চেক বই জব্দ করা হয়েছে। শামীম কবিরকে তিন দিনের রিমান্ডে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করছে সিআইডি। মোল্যা নজরুল ইসলাম বলেন, শামীম কবির কুমিল্লায় নিজ উপজেলা চৌদ্দগ্রামের মুন্সিরহাটে ফারইস্ট ইসলামি মাল্টি কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড নামের একটি কোম্পানি খোলেন। এরপর কোম্পানিটির আরো শাখা বিস্তার করতে থাকেন তিনি। সেই ধারাবাহিকতায় থানা থেকে জেলা পর্যায়ে এবং চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন স্থানে এফআইসিএলের শাখা অফিস খোলেন। শামীম কবির ইসলাম ধর্মকে পুঁজি করে কতিপয় ধর্মভীরু ও স্বল্পশিক্ষিত লোকদের আল্লাহর কিছু মহান বাণী শোনাতেন।

পবিত্র কোরআন শরিফ রাখতেন অফিসে। এরপর লোকজনকে অফিসে দাওয়াত দিয়ে এফআইসিএলে বিনিয়োগ করতে বলতেন। এ ছাড়া তিনি পাড়ায় পাড়ায় ওয়াজ করে নিজেকে ধর্মের বরপুত্র দাবি করে তাঁর প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করতে বলতেন। বিনিয়োগ করলে লাখ টাকায় প্রতি মাসে ২ থেকে আড়াই হাজার টাকা পর্যন্ত মুনাফা দেওয়ার কথা বলে লিফলেট বিতরণ ও পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতেন। সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার বলেন, ওয়াদা অনুযায়ী তিনি ২০০৭ সাল থেকে ১২ সাল পর্যন্ত মুনাফা দিয়ে গ্রাহক সংগ্রহ করেন। এভাবে টানা কয়েক বছর মুনাফা পেয়ে সাধারণ মানুষ অন্য সব স্থান থেকে টাকা তুলে এফআইসিএলে রাখা শুরু করে। এমনকি বেশি লাভের আশায় ধার-দেনা করে, পেনশনের টাকা অথবা জমি বিক্রি করে গ্রাহক এখানে টাকা রাখতেন।

এভাবে ২০ হাজার গ্রাহকের ৩০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করে ২০১৩-১৪ সালে প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ করে দেন। এরপর তিনি আত্মগোপনে চলে গিয়ে মালয়েশিয়ায় চলে গেছেন বলে এলাকায় প্রচার করতে থাকেন। শামীম কবিরের বরাত দিয়ে মোল্যা নজরুল ইসলাম বলেন, আত্মসাৎ করা টাকা দিয়ে তিনি তাঁর নিজ গ্রাম ও সিলেটের জৈন্তাপুরে প্রাসাদসম বাড়ি, বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ শহরে প্লট ও ফ্ল্যাট কেনাসহ বিভিন্ন জেলায় ৪০ একর জমি কিনেছেন তিনি। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ২০১৫ সালে শামীম কবিরের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং আইনে একটি মামলা করে। সেই মামলা বর্তমানে সিআইডি তদন্ত করছে বলেও জানিয়েছেন মোল্যা নজরুল ইসলাম।

ঠাকুরগাঁওয়ে ৮ হাজার ইয়াবা উদ্ধার, এসআই আটক
                                  

 ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলায় আট হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট ও দুই কেজি গাঁজা উদ্ধার করেছে পুলিশ; এ ঘটনায় পুলিশের এক এসআই ও তার সহযোগীকে আটক করা হয়েছে। গতকাল রোববার পুরাতন ডাকবাংলো থেকে তাদের আটক করা হয় বলে জানান ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান মনির। আটকরা হলেন এসআই হেলাল উদ্দীন প্রমাণিক (৪৫) ও তার সহযোগী মানিক আলী (২৫)। এসআই হেলাল বর্তমানে ঠাকুরগাঁও আদালতে কর্মরত রয়েছেন।


পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান মনির বলেন, পাঁচ দিন আগে পীরগঞ্জ উপজেলা থেকে আকিমুল ইসলাম নামে একজন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। এরপর তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি এসআই হেলাল উদ্দীন প্রমাণিকের কাছ থেকে মাদকদ্রব্য ক্রয় করে বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করেন বলে জানান। তার এই তথ্যের ভিত্তিতে এসআই হেলাল উদ্দীন প্রমাণিকের উপর নজরদারি বাড়ানো হয়।


মনিরুজ্জামান আরও বলেন, গতকাল রোববার দুপুরে কক্সবাজার থেকে এসে পীরগঞ্জ উপজেলার পুরাতন ডাকবাংলোতে প্রবেশ করেন এসআই হেলাল উদ্দীন প্রমাণিক ও তার সহযোগী মানিক আলী। সেখানে আগে থেকেই ওত পেতে থাকা ডিবি পুলিশের একটি দল অভিযান চালায়। এ সময় আট হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট ও দুই কেজি গাজাসহ এসআই হেলাল উদ্দীন প্রমাণিক ও মানিককে হাতেনাতে আটক করা হয়। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

চুরি হওয়া ৪ হাজার জ্যাকেট উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৬
                                  

চট্টগ্রামের একটি পোশাক কারখানার জ্যাকেটভর্তি কভার্ড ভ্যান চুরির ঘটনায় ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ; উদ্ধার করা হয়েছে চুরি যাওয়া চার হাজারের বেশি জ্যাকেট। নগরীর বায়েজীদ বোস্তামী থানা এলাকায় আমিন জুট মিল উত্তর গেইট সংলগ্ন মৃধাপাড়া এলাকা থেকে গতকাল মঙ্গলবার ভোর রাতে তাদের গ্রেপ্তার করে চার হাজার ৩২০টি জ্যাকেট উদ্ধার করা হয়। গ্রেপ্তাররা হলেন- শাহাদাত হোসেন (২৮), ওবায়দুল হক (৩৭), সোহাগ হোসেন (৩২), সিরাজ মিয়া (২৮), কভার্ড ভ্যান চালক রুবেল হোসেন (২২) ও মো. সুমন (৩০)।


গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (উত্তর) মীর্জা সায়েম মাহমুদ জানান, উদ্ধার করা জ্যাকেটগুলো নগরীর চাক্তাই এলাকার ডীপস অ্যাপরেলস নামের একটি পোশাক কারখানায় তৈরি করা হয়েছিল ফ্রান্সে রপ্তানির জন্য।
“সোমবার রাতে কারখানা থেকে আটটি কভার্ড ভ্যানে করে জ্যাকেটগুলো রপ্তানির জন্য ইসহাক ব্রাদার্সের ডিপোতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। সাতটি কভার্ড ভ্যান ঠিক সময়ে ডিপোতে পৌঁছালেও একটি পৌঁছায়নি।”
অভিযোগ পেয়ে গোয়েন্দা পুলিশ কাজ শুরু করে। রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমিন জুট মিলের উত্তর গেইট মৃধাপাড়াস্থ হক ফুড এজেন্সির পরিত্যক্ত গুদামে অভিযান চালানো হয়।
“অভিযানে গুদাম ন থেকে ৪ হাজার ৩২০টি জ্যাকেট উদ্ধার ও ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।”


গোয়ন্দা কর্মকর্তা সায়েম বলেন, গ্রেপ্তাররা সংঘবদ্ধ চোর। তারা বিভিন্ন কারাখানায় তৈরি পোশাক রপ্তানির জন্য বন্দরে নেওয়ার পথে গাড়িসহ চুরি করে।
“আসামিরা জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে গার্মেন্টেসে তৈরি বিভিন্ন ধরনের পোশাক বিদেশে শিপমেন্ট করার আগে চক্রটি গাড়ি চালকের সাহযোগিতায় অন্য স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে কার্টন থেকে পোশাক বের ঝুট কিংবা অন্যকিছু দিয়ে ফের কার্টন প্যাকিং করে যথাস্থানে পৌঁছে দেয়।”


তিনি আরও বলেন, এ চক্রের সদস্যরা কভার্ড ভ্যানে কন্টেইনারের সিলগালা করা তালা না খুলে তালা লাগানোর ঘরটি কেটে দরজা খুলে ফেলে। পরে পোশাকগুলো সরানোর পর কার্টন রেখে আবার সেটি ঝালাই করে দেয়। গ্রেপপ্তারদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে বলে জানান সায়েম।

 

কক্সবাজারে ১ লাখ ৭০ হাজার ইয়াবাসহ আটক ২
                                  

কক্সবাজার শহরের তারাবনিয়ার ছড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে একটি বসতঘর থেকে ১ লাখ ৭০ হাজার ইয়াবাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা। গত শুক্রবার দিবাগত রাতে এ অভিযান চালানো হয়।

আটকরা হলেন-টেকনাফের লেদা এলাকার মৃত আবুল সামার ছেলে মো. রবিউল আলম (৩১) ও হ্নীলা ইউনিয়নের রঙ্গিখালী এলাকার মো. হেলাল উদ্দিনের ছেলে মো.আবছার উদ্দিন (১৬)। এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে দীন মোহাম্মদ নামের একজন পালিয়ে গেছে বলে জানায় র‌্যাব। র‌্যাব-১৫ ব্যাটালিয়ানের কোম্পানি কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান জানান, তারাবনিয়ার ছড়া এলাকার হাজী দানু আলমের বাড়িতে কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী ইয়াবা বেচা-কেনার উদ্দেশ্য অবস্থান করছে। গোপন সূত্রে এমন খবর পেয়ে তিনি এবং সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. শাহ আলমের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল ওই বাড়িতে অভিযান চালায়।

এ সময় ওই বাড়ির বারান্দা থেকে ১ লাখ ৭০ হাজার ইয়াবাসহ দুইজনকে আটক করা হয়। তিনি আরও জানান, র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে দীন মোহাম্মদ নামের একজন পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

 


   Page 1 of 9
     অপরাধ
শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে রাজস্ব কর্মকর্তাসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে দুদকে মামলা
.............................................................................................
যাত্রীর টাকাসহ ব্রিফকেস নিয়ে পালালেন উবার চালক!
.............................................................................................
১৮০ কোটি টাকার শুল্ক-কর ফাঁকির অভিযোগ
.............................................................................................
রংপুর শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার ভূয়া প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের সদস্য আটক
.............................................................................................
নড়াইলে কলেজছাত্রকে কুপিয়ে হত্যা
.............................................................................................
কোটি টাকা দুর্নীতি মামলায় সাব রেজিস্ট্রার গ্রেপ্তার
.............................................................................................
মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ-ভ্যাকসিন বিক্রির দায়ে ৭৫ লাখ টাকা জরিমানা
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে এক মাদক ব্যবসায়ী আটক
.............................................................................................
৮০ লাখ টাকাসহ সিলেটের ডিআইজি প্রিজনস পার্থ গ্রেফতার
.............................................................................................
দেশী-বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে : শিল্প প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
পাওনা টাকা না দিতে স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে খুন
.............................................................................................
অবৈধভাবে পাজেরো ব্যবহার: তৃতীয় শ্রেণির সেই দুই কর্মচারীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা
.............................................................................................
ধর্মকে পুঁজি করে ৩০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ, এফআইসিএলের চেয়ারম্যান গ্রেফতার
.............................................................................................
ঠাকুরগাঁওয়ে ৮ হাজার ইয়াবা উদ্ধার, এসআই আটক
.............................................................................................
চুরি হওয়া ৪ হাজার জ্যাকেট উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৬
.............................................................................................
কক্সবাজারে ১ লাখ ৭০ হাজার ইয়াবাসহ আটক ২
.............................................................................................
চট্টগ্রামে ২০০ লিটার মদসহ দুইজন গ্রেফতার
.............................................................................................
ব্যাংকের ৩১ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বগুড়ায় ব্যবসায়ী গ্রেফতার
.............................................................................................
লালমনিরহাটে বাইপাস সড়কে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন
.............................................................................................
চার আঙুল কেটে নিলেন ছাত্রলীগ নেতা
.............................................................................................
বিসিএস ক্যাডার প্রভাষককে ছাত্রলীগের কিল, ঘুষি ও লাথি
.............................................................................................
বরিশালে চার মাসে ১৯ খুন, ১৩২ নারী ও ১০শিশু নির্যাতনের শিকার
.............................................................................................
বাহিনীতে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার ৬
.............................................................................................
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ ৫ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ
.............................................................................................
চাঁদাবাজির অভিযোগে শরীয়তপুরে ৩ পুলিশ বরখাস্ত
.............................................................................................
বিআরটিএ’র কাগজপত্র জালিয়াত চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার
.............................................................................................
প্রাইভেটকারে গণমাধ্যমের স্টিকার ব্যবহার করে ইয়াবা পাচার
.............................................................................................
ঢিলের আঘাতে চুরমার বনলতা এক্সপ্রেস!
.............................................................................................
আগুনে নিঃশেষ জীবিকার শেষ সম্বল ছুঁয়ে আর্তনাদ
.............................................................................................
এফআর টাওয়ারে আগুনের ঘটনায় পুলিশের মামলা
.............................................................................................
গুলশানে যান চলাচল স্বাভাবিক
.............................................................................................
এসি বিস্ফোরণে দগ্ধ স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু
.............................................................................................
বাসায় খাদ্যমন্ত্রীর মেয়ে জামাইয়ের মৃত্যু, স্বজনদের দাবি হত্যাকাণ্ড
.............................................................................................
এবার চকবাজারে ভাঙারি দোকানে বিস্ফোরণ, দগ্ধ ৩
.............................................................................................
আগুন লাগা বস্তির পাশের ডোবায় মিলল ২ শিশুর লাশ
.............................................................................................
স্মার্টরা যেভাবে ধ্বংস করে তাদের ক্যারিয়ার
.............................................................................................
ঢা‌বিতে গাছ প‌ড়ে নারী নিহত, আহত ৭
.............................................................................................
রাজধানীতে গ্যাসলাইন বিস্ফোরণ, দুই গাড়িতে আগুন
.............................................................................................
উচ্ছেদ অভিযানে বাধা: আটক ছাত্রলীগ নেতা মুচলেকায় মুক্ত
.............................................................................................
কোটি টাকার সরকারি ও নকল ক্যান্সার ঔষধ জব্দ, গ্রেফতার ২
.............................................................................................
সবুজবাগে বাসায় নটর ডেম কলেজ ছাত্রের লাশ
.............................................................................................
ইন্টারভিউ দিতে এসে প্রাণ গেল নারী ‍চিকিৎসকের
.............................................................................................
পাকিস্তান হাই কমিশনে চুরি, ৬ চোর পাকড়াও
.............................................................................................
তেজগাঁওয়ে মালবাহী ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত
.............................................................................................
লঞ্চের কেবিন থেকে ব্লগার জুলভার্ন ‘নিখোঁজ’
.............................................................................................
পোস্তগোলা ব্রিজ এলাকায় শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ-গোলাগুলি, নিহত ১, আহত শতাধিক পুলিশ
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধুর খুনি রশিদের জামাতা গ্রেফতারের পর রিমান্ডে
.............................................................................................
‘ফেসবুকে গুজব ছড়ানোয়’ গ্রেপ্তার ফারিয়া রিমান্ডে
.............................................................................................
পরিবহন শ্রমিকদের জন্য অবাধ ‘নেশা
.............................................................................................
গুজব ছড়ানোর দায় স্বীকার করেছে নওশাবা : র‌্যাব
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
উপদেষ্টা: আজাদ কবির
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ হারুনুর রশীদ
সম্পাদক মন্ডলীর সহ-সভাপতি: মামুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
যুগ্ম সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বার্তা সম্পাদক: মুজিবুর রহমান ডালিম
স্পেশাল করাসপনডেন্ট : মো: শরিফুল ইসলাম রানা
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]