৩ শাবান ১৪৪১, ঢাকা, রবিবার, ১৫ চৈত্র ১৪২৬, ২৯ মার্চ , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   অপরাধ -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
মোবাইল ব্যাংকিং প্রতারণা চক্রের মূল হোতা আটক

 বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিংয়ের এজেন্টদের নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন দিয়ে গ্রাহকদের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে প্রতারণা করে আসা একটি চক্রের মূলহোতাকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এরপর চক্রটি মোবাইল ব্যাংকিং অফিসের নম্বর ক্লোন করে গ্রাহককে ফোন দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিতো। চক্রের সদস্যরা গ্রাহকদের ফোন করে বিভিন্ন কোড ডায়াল করতে বলতেন অথবা তারা মেসেজ দিয়ে বিভিন্ন লিংক পাঠাতেন।

গ্রাহকরা সেই কোড ডায়াল করলে বা লিংকে ক্লিক করলেই গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা নিয়ে নিতেন তারা। গতকাল শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর টিকাটুলীতে র‌্যাব-৩ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল রকিবুল হাসান। তিনি জানান, গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে মিরপুর-১ এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে মোবাইল ব্যাংকিং প্রতারক চক্রের মূলহোতা মো. সোহেল আহম্মেদকে (৩৬) আটক করেছে র‌্যাব সদস্যরা। এ সময় তার কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ সিমকার্ড, মাল্টি সিম গেটওয়ে ডিভাইস, একটি ল্যাপটপ, একটি সিগন্যাল বুস্টার, তিনটি মডেম ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়েছে। আটক সোহেলকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে তিনি জানান, সোহেল ২০১৭ সাল থেকে এ প্রতারণার কাজে জড়িত। প্রতারণার মাধ্যমে তিনি এখন পর্যন্ত বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এ চক্রে আরও ৪/৫ জনের নাম জানা গেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তবে তদন্তের স্বার্থে তাদের নাম এখনই বলা যাবে না।

আমরা অতি শিগগিরই তাদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করবো। চক্রটির প্রতারণার ধরন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কোনো গ্রাহক যদি মোটা অংকের টাকা লেনদেন করতো, তাহলে সেই নম্বর ও তথ্য এজেন্টরা চক্রটিকে জানিয়ে দিতো। তখন তারা মোবাইল ব্যাংকিং কোম্পানির নম্বর ক্লোন করে সেন্ডার বা রিসিভারকে কল দিয়ে বলতো- আমি মোবাইল ব্যাংকিংয়ের অফিস থেকে বলছি, আপনি যেই টাকা পাঠিয়েছেন বা এসেছে, সেই টাকা ভুল নম্বরে চলে গিয়েছে। এমন সব ভুয়া কৌশল অবলম্বন করে গ্রাহকদের বিভিন্ন কোড ডায়াল করতে বলতেন অথবা তারা মেসেজ দিয়ে বিভিন্ন লিংক পাঠাতেন। গ্রাহকরা সেই কোড বা লিংকে ক্লিক করলেই প্রতারক চক্রটি গ্রাহকের টাকা নিয়ে নিতো।

মোবাইল ব্যাংকিং প্রতারণা চক্রের মূল হোতা আটক
                                  

 বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিংয়ের এজেন্টদের নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশন দিয়ে গ্রাহকদের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে প্রতারণা করে আসা একটি চক্রের মূলহোতাকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এরপর চক্রটি মোবাইল ব্যাংকিং অফিসের নম্বর ক্লোন করে গ্রাহককে ফোন দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিতো। চক্রের সদস্যরা গ্রাহকদের ফোন করে বিভিন্ন কোড ডায়াল করতে বলতেন অথবা তারা মেসেজ দিয়ে বিভিন্ন লিংক পাঠাতেন।

গ্রাহকরা সেই কোড ডায়াল করলে বা লিংকে ক্লিক করলেই গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা নিয়ে নিতেন তারা। গতকাল শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর টিকাটুলীতে র‌্যাব-৩ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল রকিবুল হাসান। তিনি জানান, গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে মিরপুর-১ এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে মোবাইল ব্যাংকিং প্রতারক চক্রের মূলহোতা মো. সোহেল আহম্মেদকে (৩৬) আটক করেছে র‌্যাব সদস্যরা। এ সময় তার কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ সিমকার্ড, মাল্টি সিম গেটওয়ে ডিভাইস, একটি ল্যাপটপ, একটি সিগন্যাল বুস্টার, তিনটি মডেম ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়েছে। আটক সোহেলকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে তিনি জানান, সোহেল ২০১৭ সাল থেকে এ প্রতারণার কাজে জড়িত। প্রতারণার মাধ্যমে তিনি এখন পর্যন্ত বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এ চক্রে আরও ৪/৫ জনের নাম জানা গেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তবে তদন্তের স্বার্থে তাদের নাম এখনই বলা যাবে না।

আমরা অতি শিগগিরই তাদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করবো। চক্রটির প্রতারণার ধরন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কোনো গ্রাহক যদি মোটা অংকের টাকা লেনদেন করতো, তাহলে সেই নম্বর ও তথ্য এজেন্টরা চক্রটিকে জানিয়ে দিতো। তখন তারা মোবাইল ব্যাংকিং কোম্পানির নম্বর ক্লোন করে সেন্ডার বা রিসিভারকে কল দিয়ে বলতো- আমি মোবাইল ব্যাংকিংয়ের অফিস থেকে বলছি, আপনি যেই টাকা পাঠিয়েছেন বা এসেছে, সেই টাকা ভুল নম্বরে চলে গিয়েছে। এমন সব ভুয়া কৌশল অবলম্বন করে গ্রাহকদের বিভিন্ন কোড ডায়াল করতে বলতেন অথবা তারা মেসেজ দিয়ে বিভিন্ন লিংক পাঠাতেন। গ্রাহকরা সেই কোড বা লিংকে ক্লিক করলেই প্রতারক চক্রটি গ্রাহকের টাকা নিয়ে নিতো।

রাজবাড়ীতে স্কুলশিক্ষককে গুলি করে হত্যা
                                  

 রাজবাড়ীর পাংশায় আসাদুল বারী খান (৪২) নামে এক স্কুলশিক্ষককে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার কসবামাজাইল ইউনিয়নের সুবর্ণখোলা গ্রামের গড়াই নদীর পাড় থেকে তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত আসাদুল বারী খান পাংশা উপজেলার কসবামাজাইল ইউনিয়নের সুবর্ণখোলা গ্রামের মৃত খোরশেদ খানের ছেলে এবং কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার সেনগ্রাম উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

নিহতের ভাতিজা সাদ্দাম খান বলেন, গতকাল শুক্রবার ভোর সাড়ে ৬টার দিকে নিজ গ্রামে তার অসুস্থ চাচা মো. খলিলুর রহমান খানকে দেখে বাড়ি ফিরছিলেন আসাদুল। তখন একদল দুর্বৃত্ত তাকে হত্যা করে। তার পায়ে ও বুকে গুলির চিহ্ন রয়েছে। স্থানীয় জজ আলী বিশ্বাসের সঙ্গে তার পূর্বশত্রুতা রয়েছে। জজ আলী বিশ্বাসের লোকজনই তাকে হত্যা করেছে বলে পরিবারের সদস্যরা দাবি করছেন।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান জানান, আসাদুল বারী খানের হত্যার বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে প্রায় দেড়শ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো মামলা করা হয়নি। মামলা হলে পুলিশ যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

কুমিল্লায় সালিশ বৈঠকে ছুরিকাঘাতে যুবককে হত্যা, আটক ২
                                  

কুমিল্লার দেবিদ্বারে স্কুলছাত্রী বোনকে উত্ত্যক্ত করার ঘটনায় ডাকা শালিস বৈঠকে অভিযুক্ত বখাটে দলবল নিয়ে হামলা চালিয়ে ওই ছাত্রীর চাচাতো ভাইকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে। গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার জাফরগঞ্জ ইউনিয়নের রঘুরামপুর আড়াইবাড়ি দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আবদুল আউয়াল (৩০) ওই গ্রামের ধুনু মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় আরও অন্তত ৮/৯ জন আহত হয়েছে।

তাদের মধ্যে গুরুতর আহত তিনজনকে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ওই ছাত্রীর বাবা আবদুস সাত্তার জানান, তার মেয়ে এ বছর স্থানীয় গঙ্গামণ্ডল রাজ ইনস্টিটিউশান থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। একই গ্রামের ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে আসলাম (২২) তার মেয়েকে স্কুলে যাওয়া-আসার পথে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করত। এ নিয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান অফিসে একাধিকবার শালিস বৈঠক হলেও আসলামকে থামানো যাচ্ছিল না। গত বৃহস্পতিবার সকালে ওই ছাত্রী পার্শ্ববর্তী কালিকাপুর গ্রামে নানার বাড়িতে বেড়াতে যায়। এরপর ওইদিন দুপুরেই সে নানার বাড়ি থেকে মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জে তার খালার বাসায় যায়। কিন্তু আসলাম খবর পেয়ে ওই কিশোরীর নানার বাড়ি কালিকাপুরে গিয়ে তাকে খুঁজতে থাকে। এ সময় ওই ছাত্রীকে লুকিয়ে রাখা হয়েছে ভেবে তাকে বের না করে দিলে সবাইকে হত্যা করা হবে বলেও হুমকি দেয় সে। এ ঘটনায় রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ির পাশের দোকানের সামনে শালিস বৈঠক ডাকা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শালিস বৈঠকে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে আসলাম ও তার ১০/১২ জন সহযোগী ওই কিশোরীর স্বজনদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে থাকে। এ সময় আসলাম ওই কিশোরীর চাচাতো ভাই আবদুল আউয়ালের ঘাড়ে ছুরিকাঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই আউয়ালের মৃত্যু হয়। দেবিদ্বার থানার ওসি মো. জহিরুল আনোয়ার জানান, এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আসলামের বাবা ছিদ্দিকুর রহমান পুলিশি হেফাজতে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এছাড়াও আসলামের বড় ভাই আকিজকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্যান্যের গ্রেফতারের অভিযান চলেছে।

রাজশাহীতে স্কুল ব্যাগে সাড়ে ৫ কেজি গাঁজাসহ যুবক আটক
                                  

রাজশাহীর বাঘায় স্কুল ব্যাগে সাড়ে ৫ কেজি গাঁজাসহ পলাশ আহাম্মেদ (২০) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার দুপুরে বাঘা পৌর এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। পলাশ আহাম্মেদ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার ভাগজোত গ্রামের কামাল শেখের ছেলে। বাঘা থানা সূত্রে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে পলাশ আহাম্মেদ ঢাকাগামী বাসের জন্য বাঘা পৌর মোড়ে স্কুল ব্যাগ ঘাড়ে করে দাঁড়িয়ে ছিল।

এ সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাঘা থানার এসআই সইবুর রহমান তার ব্যাগ তল্লাশী করে। তার ব্যাগের মধ্যে রাখা ছিল একটি কোল বালিশ। সেই কোল বালিশের মধ্যে থেকে উদ্ধার করা হয় সাড়ে ৫ কেজি গাঁজা। পরে তাকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। পলাশ আহাম্মেদ জানান, এই প্রথম অর্থের প্রয়োজনে এক ব্যাক্তির ব্যাগটি ঢাকায় পৌছে দেয়ার চুক্তিতে বাঘায় এসেছিলাম। কিন্তু বাস আসার আগেই পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।

বাঘা থানা ওসি নজরুল ইসলাম জানান, আটক পলাশ আহাম্মেদ তার অপরাধ স্বীকার করেছে। এ ঘটনায় মাদক দ্রব্যনিয়ন্ত্র আইনে একটি মামলা দিয়ে শনিবার সকালে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।

কুড়িগ্রামে ইয়াবাসহ ছাত্রলীগের দুই নেতা গ্রেফতার
                                  

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার রামখানার ইউনিয়নের ছাত্রলীগ সভাপতি এরশাদুল হক ও সহ-সভাপতি সফিকুল ইসলামকে ইয়াবাসহ গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ। গতকাল শুক্রবার ভোররাতে উপজেলার রামখানা ইউনিয়ন থেকে ৩০ পিস ইয়াবাসহ তাদের গ্রেফতার করা হয়। ডিবি পুলিশ কুড়িগ্রামের ওসি মোখলেছুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ওসি মোখলেছুর রহমান জানান, এরশাদুল মাদক সেবনের পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে মাদকের কারবার করে আসছিল। তার বিরুদ্ধে আগে থেকেই মাদক সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ ছিল। রামখানা ইউনিয়নের নাখারগঞ্জ বাজার থেকে শফিকুল ইসলামসহ তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ৩০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। নাগেশ্বরী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফজলুল করিম সাজু বলেন, এরশাদুল রামখানা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি। তার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার অভিযোগ আগে থেকেই ছিল। এর আগেও জেলা পুলিশ সুপার তাকে সতর্ক করেছিলেন। কিন্তু সে এরপরও ইয়াবাসহ গ্রেফতার হয়েছে বলে জানতে পেরেছি। আমরা তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করে কেন্দ্রে প্রতিবেদন পাঠাবো।

নাগেশ্বরী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান বলেন, এরশাদুল হকের বিরুদ্ধে আগে থেকেই মাদক সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে। এর আগে তাকে থানা পুলিশের হেফাজত থেকে ছাড়িয়ে আনা হয়েছিল। সম্প্রতি সে বিয়ে করেছে। বিয়ে করার পর ছাত্রলীগের পদ এমনিতেও থাকে না। জেলা কমিটি না থাকায় তাৎক্ষণিক কোনও ব্যবস্থা নিতে পারছি না। কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান বলেন, এর আগেও তাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। এবারও তাকে ইয়াবাসহ গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ। ডিবি পুলিশ কুড়িগ্রামের ওসি মোখলেছুর রহমান বলেন, গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলমান।

ভূয়া কাগজে ব্যাংক থেকে টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারকচক্র
                                  

জালিয়াতি করে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক শ্যামনগর শাখা থেকে সাত লাখেরও বেশী টাকা হাতিয়ে নিয়েছে একটি প্রতারকচক্র। জমির ভূয়া কাগজ প্রদর্শণ করে প্রায় এক বছর পুর্বে চার কিস্তিতে ঐ টাকা উত্তোলন করা হয়। সংশ্লিষ্ট মৌজা ও খতিয়ানে কোন জমি না থাকার পরও নকল কাগজ তৈরী করে ব্যাংক কতৃপক্ষের চোখে ধুলো দিয়ে তাদের ঋণ পাওয়ার ঘটনা বিস্ময়ের সৃষ্টি করেছে। আতাউর রহমান ও জিয়াউর রহমান নামের দুই ভাই ৪১৬, ৪৬৮, ১২২ ও ৮৯ নম্বর ব্যাংক কেসের অনুকুলে সাত লাখ চল্লিশ হাজার টাকা উত্তোলন করে। তারা দু’জন শ্যামনগর উপজেলার ঈশরীপুর ইউনিয়নের গোমানতলী গ্রামের মৃত আবদুল মজিদের পুত্র।

জানা গেছে নভেম্বর ২০১৮ থেকে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারী সময়ের মধ্যে ভাই অজিয়ার ও আতাউরের স্ত্রী ফিরোজাসহ পরিবারের সাত সদস্যরের নামে ঐ টাকা উত্তোলন করা হয়। ২০/১১/১৮. ২৫/১১/১৮, ০৪/১২/১৮ এবং ০৭/০২/১৯ তারিখে উত্তোলনকৃত টাকার জন্য আটুলিয়া মৌজায় ৭৪৬, ৭৪৭ ও ৭৪২ নম্বর এস এ ক্ষতিয়ানে পৈত্রিক সুত্রে প্রাপ্ত ৮.৯২ একর জমির মালিকানার কাগজপত্র জমা দেয় তারা। কিন্তু অনুসন্ধানে জানা গেছে আটুলিয়া মৌজায় তাদের নামে এক শতকও জমি নেই। উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিসের যে পর্শ্চা ও ডিপি খতিয়ান ব্যাংকে জমা দেয়া হয়েছে সেগুলোও জাল। এমন ভূয়া কাগজপত্র জমা দিয়ে ব্যাংক থেকে ঋণ পাওয়ার ঘটনার সাথে ব্যাংক কতৃপক্ষের সংশ্লিষ্টতা থাকতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। অনুসন্ধানকালে জানা গেছে এক বছর মেয়াদী ঋণ প্রস্তাবের অনুকুলে এসব টাকা উত্তোলন করা হলেও অদ্যাবধি কোন টাকা জমা দেয়নি প্রতারক চক্র।

এদিকে নির্ধারিত সময়সীমা অতিক্রান্ত হলেও প্রদত্ত ঋণের টাকা আদায়ে ব্যাংক কতৃপক্ষের তৎপরতা চোখে পড়েনি। এবিষয়ে আতাউর রহমান জানান, আমার আব্বা যে কাগজপত্র দিয়ে ইতঃপূর্বে ঋণ নিত, আমি সেগুলো জমা দিয়ে ঋণ নিয়েছি। জমির মালিকানার বিষয়ে তিনি বলেন, আগের ফাইলে থাকা খাজনার দাখিলা দেখিয়ে আটুলিয়া ইউনিয়ন ভূমি অফিস থেকে নুতন দাখিলা গ্রহন করি। তবে ‘সময়মত টাকা পরিশোধ করা হবে’ বলেও তিনি জানান। এবিষয়ে কৃষি ব্যাংকের ঋণ কর্মকর্তা আবদুল আহাদ বলেন কিছুদিন আগে তিনি সংশ্লিস্ট এলাকার দায়িত্ব পাওয়ায় ঋণের দায় তার নয়। ঋণ প্রদানকারী কর্মকর্তা মাসুদুল কবীর জানান, আতাউর রহমানের পিতার নামে ঋণ সংক্রান্ত ফাইল দেখে তিনি তা নবায়ন করেছেন মাত্র।

তবে খাজনা পরিশোধের রশিদ যথাযথ ছিল বলে তিনি দাবি করেন শ্যামনগর শাখা ব্যবস্থাপক আবদুল জলিল প্রামানিক জানান, চার মাস পুর্বে তিনি সংশ্লিষ্ট শাখায় যোগদান করায় প্রদত্ত ঋণের বিষয়ে কিছু জানেন না। গত চার/পাঁচ দিন পুর্বে বিষয়টি অবহিত হওয়ার পর তিনি তদন্ত করার উদ্যোগ নিয়েছেন। স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে আতিয়ার রহমান এলাকার একজন চিহ্নিত মামলাবাজ ও প্রতারক। মানুষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানীসহ জাল-জালিয়াতি করে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে অনৈতিক সুযোগ সুবিধা নিয়ে থাকে।

 

 

 

শাহজালাল বিমানবন্দরে ১৫টি সোনার বার আটক
                                  

 হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা ১৫টি সোনার বার আটক করেছে, যার আনুমানিক বাজার মূল্য ৭৫ লাখ টাকা। গতকাল রোববার সকাল ১১টায় কলকাতাগামী ইউ এস বাংলা এয়ারলাইনস (ফ্লাইট নং-বিএস ২০১) এর যাত্রী মো. পাশার বহনকৃত ব্যাগ ও দেহ তল্লাশি করে জুতার ভিতর থেকে ১৪ টি ও জামার পকেট থেকে ১টি সহ মোট ১৫টি সোনার বার উদ্ধার করা হয়।

যাত্রীর পাসপোর্ট নং-ইই ০১৩৭৫৪৬। শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। আটককৃত সোনার বিষয়ে শুল্ক আইনে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

 

গৃহবধূকে অ্যাসিড নিক্ষেপের অভিযোগে আটক ২
                                  

 দিনাজপুরে এক গৃহবধূকে অ্যাসিড নিক্ষেপের অভিযোগে দেবর ও ননদকে আটক করা হয়েছে। তারা হলো- দিনাজপুর পৌর এলাকার মামুনের মোড়ের মিজানুর রহমানের ছেলে রাজ (২০) ও ময়ুরী বেগম (৩০)। গৃহবধূর স্বামী তানভীরুল রহমান রাহুল (২৬) পলাতক। গতকাল রোববার দুপুরে কোতোয়ালি থানার ওসি মোজাফ্ফর হোসেন জানান, গৃহবধূ রিয়া বেগম দিনাজপুর এম. আবদুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি রয়েছেন। তার শরীরের প্রায় ১২ থেকে ১৫ শতাংশ পুড়ে গেছে। আটকদেরকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।


ওসি জানান, রিয়া বেগম দিনাজপুরের সুইহারী মাঝাডাঙ্গা গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের মেয়ে। ৪ বছর আগে দিনাজপুর পৌর এলাকার মামুনের মোড়ের মিজানুর রহমানের ছেলে তানভীরুল রহমান রাহুলের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। শনিবার রাত ৮টার দিকে দিনাজপুরের বাণিজ্য মেলা থেকে রিয়া বেগম, তার মা ও ভাবী মিলে সুইহারী মাঝাডাঙ্গা যাচ্ছিলেন।

পথে হিরাহার পাকা রাস্তার ওপর রিয়ার স্বামী তানভীর রহমান রাহুলসহ আরও ৬জন রিয়ার মা ও ভাবীকে অটোরিকশা থেকে নামিয়ে মারধর করে। রিয়া বেগম এগিয়ে গেলে তার স্বামী রাহুল ও অন্যরা তাকে অ্যাসিড নিক্ষেপ করে।

 

বরিশালে মাদকের আস্তানা থেকে আ. লীগ নেতাসহ আটক ৩
                                  

বরিশাল নগরীর একটি মাদকের আস্তানায় অভিযান চালিয়ে ২৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল মোর্শেদ প্রিন্সকে (৪২) আটক করেছে পুলিশ। এ সময় তার দুই বন্ধুকেও আটক করা হয়।

আটক তিনজনের কাছে ৩১ পিস ইয়াবা পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার বিকেলে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দায়ের করা মামলায় তাদের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হলে বিচারক পলি আফরোজ তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এর আগে গত শুক্রবার রাতে নগরীর শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের পেছনের সড়কে (মেডিকেল কলেজ লেন) রিয়াজ স্টিল আলমারি তৈরির কারখানায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে পুলিশ। আটক জালাল মোর্শেদ প্রিন্স নগরীর ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের কশিপুর এলাকার বাসিন্দা। আটক অন্য দুজন হলেন- মেডিকেল কলেজ লেন এলাকার বাসিন্দা রিয়াজ স্টিল আলমারি তৈরির কারখানার মালিক আব্দুল্লাহ আল রিয়াজ (৪৩) ও চান্দুমার্কেট এলাকার বাসিন্দা মোসলেম মোর্শেদ সুজন (৪২)। কোতোয়ালি থানা পুলিশের এসআই টিপু সুলতান জানান, রিয়াজ স্টিল আলমারি কারখানার মধ্যে মাদক সেবন ও কেনাবেচা হচ্ছে- এমন তথ্যের ভিত্তিতে গত শুক্রবার রাতে সেখানে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ৩১ পিস ইয়াবাসহ তিনজনকে আটক করা হয়। এ ছাড়া কারখানার মধ্যে কয়েকটি কক্ষ থেকে ইয়াবা সেবনের বিভিন্ন সরঞ্জাম পাওয়া গেছে। আটক তিনজন মাদক সেবন ও কেনাবেচার সঙ্গে জড়িত বলে জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন। স্থানীয়রা জানান, স্টিল আলমারি কারখানার মালিক আব্দুল্লাহ আল রিয়াজ নগরীর চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। এর আগে প্রাইভেটকারে করে ফেনসিডিলের বিশাল একটি চালান বরিশালে নিয়ে আসার সময় রিয়াজ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হয়েছিলেন। জামিনে বেরিয়ে আবার মাদক ব্যবসা শুরু করেন রিয়াজ। স্থানীয়রা আরও জানান, স্টিল আলমারি কারখানাটি মাদকের আস্তানা হিসেবে এলাকায় পরিচিত।

ওই কারখানায় প্রতিদিন ঠিকাদার, উঠতি নেতা, ছাত্র, যুবক, ব্যবসায়ীরাই আসা-যাওয়া করতো। কেনাবেচা হতো মাদক। কারখানার মধ্যে মাদক সেবনেরও ব্যবস্থা ছিল। মাদক ব্যবসা চালাতে সহায়তা করতেন ২৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল মোর্শেদের মত কয়েকজন প্রভাবশালী ব্যক্তি। ফলে মাদক বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে এলাকার মানুষ মুখ খুলতে সাহস পায়নি। কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের ওসি নুরুল ইসলাম জানান, ইয়াবাসহ আটক তিন ব্যক্তির বিরুদ্ধে এসআই টিপু সুলতান বাদী হয়ে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেছেন। বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

 

সিরাজগঞ্জে ছিনতাই-ডাকাতির অভিযোগে গ্রেপ্তার ৬
                                  

 সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলায় পৃথক অভিযান চালিয়ে ছিনতাই ও ডাকাতির অভিযোগে ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সদর থানার ওসি হাফিজুর রহমান জানান, সয়দাবাদ ইউনিয়নের পূর্ব মোহনপুর ও শহর রক্ষা বাঁধের হার্ডপয়েন্ট এলাকায় গতকাল রোববার অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। আটককৃতরা হলেন সদর উপজেলার হাট সারটিয়া গ্রামের আবুল আজিজের ছেলে আবদুল মমিন (২১), একই গ্রামের মোজাম্মেল হোসেনের ছেলে ফিরোজ (২১), মোহনপুর গ্রামের সিরাজ আলীর ছেলে মো. বরাত (২০), জেলা শহরের দত্তবাড়ি মহল্লার শামসু খলিফার ছেলে সুমন খলিফা (২২), একই মহল্লার রফিক মিয়ার ছেলে রাব্বি খলিফা (২০) ও বিন্দুপাড়ার আবদুর রহিমের ছেলে প্রান্ত (১৯)।


ওসি হাফিজুর বলেন, তারা দীর্ঘদিন ধরে সয়দাবাদ-বেলকুচি আঞ্চলিক সড়ক ও রানীগ্রাম-গুণেরগাঁতি আঞ্চলিক সড়কে যানবাহন ও পথচারীদের কাছ থেকে ডাকাতি ও ছিনতাই করে আসছিলেন। গত শনিবার রাতে এক নারীকে ছুরি দিয়ে ভয় দেখিয়ে টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনা ঘটে। আটকের পর তাদের কাছ থেকে ছিনতাই হওয়া নগদ ২৩ হাজার ৫০০ টাকা ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই নারী বাদী হয়ে মামলা করেছেন। ছয় আসামিকে গতকাল রোববার দুপুরে আদালতের নির্দেশে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি হাফিজুর রহমান।

বিনা টিকিটে রেলভ্রমণের দায়ে ৬শ যাত্রীর জরিমানা
                                  

টিকিট ছাড়া ভ্রমণের দায়ে পাবনার ঈশ্বরদীতে দুটিনে পাঁচটি আন্তঃনগর ট্রেনের ছয়শ যাত্রী থেকে জরিমানাসহ ভাড়া আদায় করেছে রেলওয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত। পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের পাকশি বিভাগীয় ব্যবস্থাপক আসাদুল হক জানান, গত শুক্রবার সকাল থেকে গতকাল শনিবার দুপুর পর্যন্ত এই অভিযানে জরিমানাসহ ভাড়া বাবদ এক লাখ ১২ হাজার টাকা আদায় করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ভাড়াবাবদ ৭৫ হাজার টাকা এবং জরিমানা বাবদ ৩৭ হাজার টাকা।

বিনাটিকিটের যাত্রীদের জন্য এই অভিযান অব্যাহত থাকবে। আসাদুল হক জানান, পাকশি বিভাগীয় রেলওয়ের বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (ডিসিও) ফুয়াদ হোসেন আনন্দের নেতৃত্বে শুক্রবার ও শনিবার দুদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঈশ্বরদী-খুলনা রেলরুটের ‘পাকশি’ স্টেশনে পাঁচটি আন্তঃনগর ট্রেনে ব্লক চেকিং অভিযান চালিয়ে বিনাটিকিটের যাত্রীদের টিকিট করানো হয়। এই পাঁচ ট্রেন হলো রাজশাহী থেকে গোয়ালন্দগামী মধুমতী এক্সপ্রেস, রাজশাহী থেকে খুলনাগামী সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস, গোবরা থেকে রাজশাহীগামী টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস, খুলনা থেকে চিলাহাটিগামী রুপসা এক্সপ্রেস এবং রাজশাহী থেকে খুলনাগামী কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস।

পাকশি বিভাগীয় রেলওয়ের বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (ডিসিও) ফুয়াদ হোসেন আনন্দ বলেন, দেশের বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী এই পাঁচ আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজ রয়েছে পাকশি স্টেশনে। প্রতিবছর পাকশির ফুরফুরা শরীফে বার্ষিক মাহফিলে দেশের বিভিন্ন স্হান থেকে হাজার হাজার মানুষ আসেন। ফেরার সময় টিকিট কাউন্টারে অতিরিক্ত ভিড় থাকায় অনেকেই বিনাটিকিটে ট্রেনে ওঠার জন্য অপেক্ষা করে থাকেন। পাকশি স্টেশনে পাঁচটি আন্তঃনগর ট্রেনে চেক করে টিকিটবিহীন যাত্রীদের টিকিট করানো হয়েছে। ব্লক চেকিং-এর সময় উপস্থিত ছিলেন পাকশি বিভাগীয় সহকারী বাণিজ্যিক কর্মকর্তা মজিবুর রহমান, ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরীক্ষক আবদুল আলিম বিশ্বাস মিঠু, শফিকুল ইসলাম, বরকত-উল্লাহ, আল-আমিন প্রমুখ।

 

রাজশাহীতে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার
                                  

 রাজশাহী মহানগরের দেওয়ানপাড়া এলাকা থেকে অজ্ঞাতপরিচয় (৪৫) এক ব্যক্তির ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার ভোরে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়ক থেকে লাশ উদ্ধার করে। নিহত ব্যক্তির মরদেহের ওপর দিয়ে যানবাহন চলে যাওয়ায় তা বিকৃতি হয়ে গেছে। মহানগরের কাটাখালি থানার ওসি জিল্লুর রহমান জানান, ভোরে দেওয়ানপাড়া এলাকার রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কের ওপর একটি লাশ পড়েছিল।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল গিয়ে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তবে কীভাবে তার মৃত্যু হয়েছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। রাস্তার ওপর পড়ে থাকা মরদেহের ওপর দিয়ে যানবাহন চলাচল করায় তা ক্ষতবিক্ষত হয়ে গেছে। তার নাম-পরিচয় জানা যায়নি। তার পরনে লুঙ্গি ও শার্ট ছিল। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর (ইউডি) মামলা হবে বলেও জানান ওসি জিল্লুর।

৯০ লাখ টাকা খুইয়েছেন সাবেক এমপি, প্রতারক চক্রের ৩ সদস্য আটক
                                  

 ম্যাগনেটিক রাইস কয়েন ব্যবসার নামে প্রতারক চক্রকে ৯০ লাখ টাকা দিয়ে প্রতারিত হয়েছেন জাতীয় পার্টির সাবেক সংসদ সদস্য প্রকৌশলী এম তালহা। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার তদন্তের সূত্র ধরে গত রোববার রাজধানীর বনানী এলাকা থেকে প্রতারক চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ। গ্রেফতাররা হলেনন- জসিম উদ্দিন, সুজন মিয়া ও লাল মিয়া।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ২০ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডি সদর দফতরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (এসএসপি) মোস্তফা কামাল। তিনি জানান, প্রতারক চক্রটি ২০১৯ সালের জুলাইয়ে জাতীয় পার্টির সাবেক সংসদ সদস্য শিল্পপতি প্রকৌশলী এম তালহাকে জানায়, তাদের কাছে বহু মূল্যবান ম্যাগনেটিক রাইস কয়েন আছে। ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ আমলের এ ম্যাগনেটিক কয়েনের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে অন্তর্জাতিক বাজারে। আমেরিকার স্পেস রিসার্চ সেন্টার নাসার কাছে কোটি টাকায় বিক্রি করা যাবে এই কয়েন। কৌতূহলী হয়ে কথিত কয়েনটি দেখার ইচ্ছে প্রকাশ করেন ওই নেতা। এরপর তাদের মধ্যে চলে কয়েনের দরদাম। ওই নেতাকে বলা হয়, তাদের পূর্ব পরিচিত ভারতীয় খ্যাতনামা কোম্পানির একজন প্রতিনিধি বর্তমানে বাংলাদেশে অবস্থান করছেন।

তিনি কয়েনগুলো কেনায় ব্যাপক আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। সাবেক সাংসদ তালহা রাজি হলে তাকে গুলশানের ওয়েস্টিন হোটেলে নিয়ে যায় প্রতারক চক্রটি। সেখানে চক্রের আরেক সদস্য আমিনুল ইসলাম নিজেকে ইউরেনিয়াম এনার্জি লিমিটেডের সিনিয়র টেকনিশিয়ান হিসেবে দাবি করেন। তিনি দাবি করেন, বাংলাদেশের অনেক নামি প্রতিষ্ঠান, ব্যক্তি তার মাধ্যমে ম্যাগনেটিক কয়েনের ব্যবসা করেই সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে। জাতীয় পার্টির ওই নেতা আগ্রহ দেখালে প্রতারক চক্রের একাধিক সদস্য বিভিন্ন সময়ে তার বাসায় আসেন। নানান ধরনের কথা বলে তাদের সঙ্গে ম্যাগনেটিক কয়েন ব্যাবসায় বিনিয়োগে প্রলুব্ধ করেন। কথিত কয়েনের মালিকের কাছ থেকে কয়েনের ইউনিট ক্রয়, আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষা করে রিপোর্ট সংগ্রহ, প্যাকিং প্রক্রিয়া, বিদেশি ক্রেতা প্রতিষ্ঠান প্রতিনিধির বিভিন্ন ব্যয়ভার বহন, বিক্রয় মধ্যস্থতাকারী এজেন্টের পাওনা অগ্রিম দেওয়াসহ বিভিন্ন কথা বলে ওই নেতার কাছ থেকে ৯০ লাখ ৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়।

এক পর্যায়ে ভিকটিম তালহা বুঝতে পারেন তিনি প্রতারিত হয়েছেন। এরপর গতবছরের সেপ্টম্বরে ডিএমপির বনানী থানায় এ বিষয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। পরে মামলাটির তদন্ত শুরু করে সিআইডি। এসএসপি মোস্তফা কামাল বলেন, গত রোববার সিআইডি জানতে পারে প্রতারক চক্রটি আবারো ভিকটিম তালহাকে রাইস কয়েনের প্রলোভন দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে প্রতারক চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়।

ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় : ডিবির ৬ সদস্য সাময়িক বরখাস্ত
                                  

ঢাকার সদরঘাট এলাকা থেকে এক ব্যবসায়ীকে অপহরণের পর ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে চার লাখ টাকা মুক্তিপণ আদায় করেছেন ঢাকা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ছয় সদস্য। ঘটনার প্রাথমিক সত্যতার ভিত্তিতে অভিযুক্ত ছয়জনকে সাসপেন্ড (সাময়িক বরখাস্ত) করা হয়েছে। সাময়িক বরখাস্ত ছয়জনের মধ্যে একজন উপ-পরিদর্শক (এসআই), একজন সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই), তিনজন কনস্টেবল এবং একজন ড্রাইভার (কনস্টেবল) রয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মারুফ হোসেন সরদার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে সামাজিক নিরাপত্তার স্বার্থে বিভাগীয় তদন্ত সম্পন্ন হওয়ার আগ পর্যন্ত সাময়িক বরখাস্ত হওয়া ডিবি সদস্যদের নাম প্রকাশ করতে রাজি হননি এসপি।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীর নাম মো. সোহেল। তিনি দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের নাজিরাবাগ হাসেম মিয়ার বাড়ি এলাকার বাসিন্দা। গত বৃহস্পতিবারই ঢাকা জেলা পুলিশ পুলিশ সুপার বরাবর অভিযোগ করেছেন তিনি। অভিযোগপত্রে সোহেল উল্লেখ করেন, গত ২৯ জানুয়ারি (বুধবার) আনুমানিক সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সদরঘাট থেকে ব্যবহারের জন্য দুটি লুঙ্গি কিনে বাসায় ফিরছিলেন তিনি। সুত্রাপুর থানাধীন লালকুঠির নৌকাঘাটে পৌঁছানো মাত্র হঠাৎ করে পাঁচ-ছয়জন তাকে চারপাশ থেকে ঘিরে ফেলে। তারা কেরাণীগঞ্জের ডিবির পরিচয় দিয়ে সোহেলকে হাতকড়া পরিয়ে নৌকায় তুলে বুড়িগঙ্গা নদীর ওপারে নিয়ে যায়। এরপর কেরানীগঞ্জ আলম মার্কেটের সম্মুখে রাস্তার ওপরে নিয়ে নম্বরপ্লেটবিহীন সাদা রঙের মাইক্রোবাসে তোলে সোহেলকে। একটি কালো রঙের কাপড় দিয়ে সোহেলের চোখ বেঁধে তাকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় তারা। সেখানে নিয়ে কাটার-প্লাস দিয়ে চেপে সোহেলের হাতের আঙুল ও নখ জখম করা হয় এবং লাঠি দিয়ে বেদম পেটানো হয় তাকে। এক পর্যায়ে আগ্নেয়াস্ত্র মাথায় ঠেকিয়ে মুক্তিপণ হিসেবে সোহেলের কাছে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করে তারা। টাকা না দিলে মামলায় ফাঁসিয়ে জেলে পাঠানোর, এমনকি ক্রসফায়ারে ফেলে দেয়ার হুমকিও দেয়া হয়। এরপর ভুক্তভোগী সোহেলের ব্যবহৃত সিম নং-০১৩০৯৯২১৫০৬ ও ০১৭৭০৫৪৬৫৩৩ থেকে তার পরিবারের দুটি মোবাইল নম্বরে কল করে তারা। কখনো তারা নিজেরা কথা বলে, কখনো সোহেলকে দিয়ে পরিবারের কাছে মুক্তিপণের টাকা চায়। টাকা দিলে সোহেলকে ছেড়ে দেবে, নইলে ক্রসফায়ারে দেবে বলে শাসানো হয় তার পরিবারের সদস্যদের।

এক পর্যায়ে সোহেলের স্ত্রী-বোনসহ পরিবারের সদস্যরা মুক্তিপণ দিতে রাজি হন। অপহরণকারীদের কথামতো ওই রাতেই টাকা নিয়ে সোহেলের পরিবার মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধ মোড়ে যায়। তবে সেখানে তারা দেখা না করে আবার বছিলা ব্রিজে যেতে বলে সোহেলের স্বজনদের। বছিলা ব্রিজে যাওয়ার পর সোহেলের পরিবারের তিন সদস্যকে সাড়ে চার লাখ টাকাসহ মাইক্রোবাসে তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। টাকা নিয়ে রাত সাড়ে ১১টার দিকে তারা বিভিন্ন কাগজে সই নিয়ে সোহেলকে শিখিয়ে দেয়া কথাবার্তা মোবাইলফোনে ভিডিও আকারে ধারণ করে। অভিযোগপত্রে সোহেল বলেন, বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে এবং হুমকি দিয়ে তারা বলে- এসব বিষয় ভবিষ্যতে যদি কারও কাছে প্রকাশ হয়, তাহলে আমাকে ও পরিবারকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হবে। নয়তো ধরে নিয়ে গিয়ে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলা হবে।

অভিযোগপত্রে সোহেল আরও বলেন, ডিবি পুলিশ পরিচয়দাতাদের আমি দেখলে চিনতে পারব, তাদের ভেতরে ডাকাডাকির কারণে আমি একজনের নাম রাজিব বলে জানতে পারি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা জেলা পুলিশের সুপার মো. মারুফ হোসেন সরদার বলেন, যার যার বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছি, প্রাথমিক সত্যতার ভিত্তিতে সাসপেন্ড করেছি। অভিযোগ তদন্ত করা হবে। তদন্তসাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঘুষের নালিশ পেয়ে ভূমি কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করলেন ডিসি
                                  

ঘুষ গ্রহণের প্রমাণ পেয়ে সাতক্ষীরার ভোমরা ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মহাসীন হোসেনকে বরখাস্ত করেছেন জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম মোস্তফা কামাল। গতকাল রোববার বিকেল ৪টার দিকে আকস্মিক ভোমরা ইউনিয়ন ভূমি অফিস পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক। ভূমি অফিসে উপস্থিত সেবাগ্রহীতাদের একজন জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ করেন, অতিরিক্ত টাকা দিলেও কাজ করে দিচ্ছেন না ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা। ঘুষ ছাড়া এখানে কাজ হয় না। জেলা প্রশাসক বিষয়টি আমলে নিয়ে ঘুষ গ্রহণকারী ভূমি কর্মকর্তার নাম জানতে চান। ওই সেবাগ্রহীতা ভোমরা ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মহাসীন হোসেনের নাম জানান।

জেলা প্রশাসক তাৎক্ষণিক ওই ভূমি কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্তের নির্দেশ দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবাশীষ চৌধুরী। ঘটনার বিষয়ে জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল জানান, সরকারি সেবা দেয়ার নামে অবৈধভাবে আর্থিক সুবিধা গ্রহণের অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হওয়ায় ভোমরা ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মহাসীন হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।


তিনি বলেন, অনেক আগেই সাতক্ষীরা জেলাকে ঘুষ ও দুর্নীতিমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। ঘুষ গ্রহণ করেছে এমন অভিযোগ পেলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

বাবার বিরুদ্ধে প্রতিবন্ধী মেয়েকে ছাদ থেকে ফেলে হত্যার অভিযোগ
                                  

 ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে হযরত আলী নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রতিবন্ধী কন্যাশিশুকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলার চাপালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অভিযোগ উঠেছে, মরিয়ম খাতুন (৬) নামের ওই প্রতিবন্ধী শিশুকে বাড়ির ছাদ থেকে ফেলে হত্যা করেন তার বাবা হযরত আলী।

কালীগঞ্জ থানার এসআই কাজী আবুল খায়ের জানান, গতকাল শনিবার সকালে বাবা হযরত আলী তার মেয়েকে মারধর করেন। এরপর মারতে মারতে নিজ বাড়ির ছাদে নিয়ে যান। পরে ছাদ থেকে নিচে ফেলে দেন। শিশুটিকে প্রথমে কালীগঞ্জ হাসাপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তারপর সেখান থেকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

সেখান থেকে ঢাকায় নেওয়ার পথে আরিচা ফেরিঘাটে শিশুটি মারা যায়। এসআই আবুল খায়ের জানান, শিশুটির পিতা শহরের একটি গ্যারেজ মালিক। বেশ কিছুদিন আগে গাড়ির টায়ার ফেটে আঘাত পান হযরত আলী। এরপর থেকেই তার মানসিক সমস্যা দেখা দেয়। কালীগঞ্জ থানার ওসি মাহফুজুর রহমান জানান, শিশুটির পিতা মানসিক রোগী। আলী নিজে মেয়েকে ছাদ থেকে ফেলে দেওয়ার ঘটনা স্বীকার করেছেন। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

 


   Page 1 of 13
     অপরাধ
মোবাইল ব্যাংকিং প্রতারণা চক্রের মূল হোতা আটক
.............................................................................................
রাজবাড়ীতে স্কুলশিক্ষককে গুলি করে হত্যা
.............................................................................................
কুমিল্লায় সালিশ বৈঠকে ছুরিকাঘাতে যুবককে হত্যা, আটক ২
.............................................................................................
রাজশাহীতে স্কুল ব্যাগে সাড়ে ৫ কেজি গাঁজাসহ যুবক আটক
.............................................................................................
কুড়িগ্রামে ইয়াবাসহ ছাত্রলীগের দুই নেতা গ্রেফতার
.............................................................................................
ভূয়া কাগজে ব্যাংক থেকে টাকা হাতিয়ে নিল প্রতারকচক্র
.............................................................................................
শাহজালাল বিমানবন্দরে ১৫টি সোনার বার আটক
.............................................................................................
গৃহবধূকে অ্যাসিড নিক্ষেপের অভিযোগে আটক ২
.............................................................................................
বরিশালে মাদকের আস্তানা থেকে আ. লীগ নেতাসহ আটক ৩
.............................................................................................
সিরাজগঞ্জে ছিনতাই-ডাকাতির অভিযোগে গ্রেপ্তার ৬
.............................................................................................
বিনা টিকিটে রেলভ্রমণের দায়ে ৬শ যাত্রীর জরিমানা
.............................................................................................
রাজশাহীতে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার
.............................................................................................
৯০ লাখ টাকা খুইয়েছেন সাবেক এমপি, প্রতারক চক্রের ৩ সদস্য আটক
.............................................................................................
ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় : ডিবির ৬ সদস্য সাময়িক বরখাস্ত
.............................................................................................
ঘুষের নালিশ পেয়ে ভূমি কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করলেন ডিসি
.............................................................................................
বাবার বিরুদ্ধে প্রতিবন্ধী মেয়েকে ছাদ থেকে ফেলে হত্যার অভিযোগ
.............................................................................................
পাওনা ২০ টাকার জন্য চানাচুর বিক্রেতা খুন
.............................................................................................
বগুড়ায় যুবলীগ নেতার ছুরিকাঘাতে ব্যবসায়ীর মৃত্যু
.............................................................................................
থানা হেফাজতে মৃত্যু: ময়নাতদন্ত সম্পন্ন, মাথায়-পায়ে আঘাতের চিহ্ন
.............................................................................................
নাটোরের চলনবিলে খেজুর রসে বিষ ছিটিয়ে পাখি শিকার
.............................................................................................
চট্টগ্রামে শাহ আমানতে ১২টি স্বর্ণের বারসহ ২ যাত্রী আটক
.............................................................................................
নাটোরে ১০ লাখ টাকার হেরোইনসহ বাসযাত্রী আটক
.............................................................................................
দিনাজপুরে পৌনে ২ কোটি টাকাসহ প্রকল্প কর্মকর্তা আটক
.............................................................................................
সাতক্ষীরায় পাইপ বসাতে উপকূল রক্ষা বাঁধ কাটলো চিংড়ি ঘের মালিকরা
.............................................................................................
স্বামীকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগ কার্যালয়ে পোশাককর্মীকে ধর্ষণ
.............................................................................................
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দেড় মণ গাঁজাসহ আটক ৪
.............................................................................................
লালমনিরহাটে সরকারি গাছ কাটার অভিযোগে যুবলীগ নেতা আটক
.............................................................................................
ফরিদপুরে এনজিও’র ব্যবস্থাপনা পরিচালকের ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার
.............................................................................................
যাত্রীবাহী বাসে ৮০ হাজার ইউএস ডলারসহ আটক ২
.............................................................................................
বগুড়ায় ঘুষের টাকাসহ সহকারী কর কমিশনার গ্রেফতার
.............................................................................................
প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের প্রশ্ন ফাঁসে জড়িত ১৫ শিক্ষক
.............................................................................................
বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি বিদ্যালয়েও হবে রোবটিক্স ল্যাব: প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী
.............................................................................................
অনিয়মের অভিযোগে সিলেট রেলস্টেশনের ম্যানেজারসহ ৮ জন বদলি
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জে সাড়ে নয় হাজার ইয়াবাসহ আটক ২
.............................................................................................
গণপূর্তের প্রধান প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে সীমাহীন দুর্নীতির অভিযোগ
.............................................................................................
বরিশালে প্রধান শিক্ষকের লালসায় অন্তঃস্বত্তা ছাত্রী
.............................................................................................
ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়ি থেকে অস্ত্র ও অস্ত্র তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার
.............................................................................................
বরিশালে সচিবালয় কর্মচারীর বাড়ি থেকে ৫ বস্তা গাঁজা উদ্ধার
.............................................................................................
জনবল নিয়োগে অনিয়ম ও জালিয়াতির প্রমাণ মিলেছে ‘‘ইফার’’ বিরুদ্ধে
.............................................................................................
ঢাকা মেডিকেলের জাল সনদ দেওয়া চক্রের এক সদস্য গ্রেফতার
.............................................................................................
ফেনসিডিল পাচারের সময় ইউপি সদস্য আটক
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে অস্ত্র ও মটরবাইকসহ দুই ছিনতাইকারীকে আটক করেছে পুলিশ
.............................................................................................
লবণ-পেঁয়াজ নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: ইন্দিরা
.............................................................................................
ভারতে পাচারকালে সাতক্ষীরা সীমান্তে ১১৫ কেজি ইলিশসহ আটক ১
.............................................................................................
অস্ত্র ও ফেনসিডিলসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে মাদকসহ ওয়ারেন্ট ভূক্ত আসামী আটক
.............................................................................................
পারটেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যানের ছেলের গাড়ি থেকে মাদক-গুলি উদ্ধার
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জে ১’শ পিচ ইয়াবা সহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
.............................................................................................
টাকার জন্য অন্ধ মহিলার ভিজিডি’র কার্ড কেটে দিয়েছে ইউপি সদস্য
.............................................................................................
১৯ দিনের শিশুকে পানিতে চুবিয়ে হত্যা করল বাবা!
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD