বৃহস্পতিবার , ১৬ রবিঃ আউয়াল ১৪৪১ | ১৪ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   প্রবাসে বাংলা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
সৌদি থেকে ফিরলেন আরও ৬১ কর্মী

 আরও ৬১ জন বাংলাদেশি শ্রমিককে ফেরত পাঠিয়েছে সৌদি আরব সরকার। নিয়মভঙ্গের অভিযোগে তাদের ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। গত রোববার রাতে এই শ্রমিকরা দেশে পৌঁছেছেন। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহকারী পরিচালক তানভির হোসেন বলেন, বৈধ কাগজপত্র না থাকা, ইকামা থাকলেও বৈধ স্পন্সর না থাকা প্রভৃতি কারণ দেখিয়ে তাদের ফেরত পাঠানো হয়েছে।

২০১৭ সালে পাঁচ লাখ ৫১ হাজার ৩০৮ বাংলাদেশি কর্মী সৌদি যান। পরের বছরে যান দুই লাখ ৫৭ হাজার ৩১৭। চলতি বছরের আগস্ট পর্যন্ত গিয়েছেন দুই লাখ ৩৪ হাজার ৭১ জন। ব্র্যাক মাইগ্রেশনের তথ্যানুযায়ী, চলতি বছরে প্রায় ১৮ হাজার কর্মী দেশটি থেকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। আরও বহু কর্মী নিজ উদ্যোগে ফিরে এসেছেন। তাদের সংখ্যাটি অজানা।

 

সৌদি থেকে ফিরলেন আরও ৬১ কর্মী
                                  

 আরও ৬১ জন বাংলাদেশি শ্রমিককে ফেরত পাঠিয়েছে সৌদি আরব সরকার। নিয়মভঙ্গের অভিযোগে তাদের ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। গত রোববার রাতে এই শ্রমিকরা দেশে পৌঁছেছেন। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহকারী পরিচালক তানভির হোসেন বলেন, বৈধ কাগজপত্র না থাকা, ইকামা থাকলেও বৈধ স্পন্সর না থাকা প্রভৃতি কারণ দেখিয়ে তাদের ফেরত পাঠানো হয়েছে।

২০১৭ সালে পাঁচ লাখ ৫১ হাজার ৩০৮ বাংলাদেশি কর্মী সৌদি যান। পরের বছরে যান দুই লাখ ৫৭ হাজার ৩১৭। চলতি বছরের আগস্ট পর্যন্ত গিয়েছেন দুই লাখ ৩৪ হাজার ৭১ জন। ব্র্যাক মাইগ্রেশনের তথ্যানুযায়ী, চলতি বছরে প্রায় ১৮ হাজার কর্মী দেশটি থেকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। আরও বহু কর্মী নিজ উদ্যোগে ফিরে এসেছেন। তাদের সংখ্যাটি অজানা।

 

সৌদি থেকে দেশে ফিরলেন আরও ১৫৩ বাংলাদেশি
                                  

 বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরলেন আরও ১৫৩ জন শ্রমিক। বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকের অভিবাসন প্রকল্প সূত্রে এ তথ্য জানা যায়। ব্র্যাক সূত্রে জানা যায়, গত বুধবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে সৌদি এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে দেশে ফেরেন তারা। বরাবরের মতো প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহযোগিতায় ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম থেকে খাবার-পানিসহ নিরাপদে বাড়ি পৌঁছানোর জন্য জরুরি সহায়তা দেওয়া হয়।

ফেরত আসা শ্রমিক কুমিল্লার শাহজাহান মিয়া জানান, তিনি দেড় মাস আগে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন। কিন্তু ধরপাকড়ের শিকার হয়ে শূন্য হাতে দেশে ফিরতে হলো তাকে। কুষ্টিয়ার রুহুল আমিন শুধু শূন্য হাতে ফিরেছেন তাই নয়, তার পায়ের স্যান্ডেলটিও ছিল না। ১১ মাসেও খরচের টাকা তুলতে পারেননি। একবারে খালি হাতে ফিরতে হলো। ব্র্যাক অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান শরিফুল হাসান জানান, চলতি বছর এখন পর্যন্ত অন্তত ১৮ হাজার বাংলাদেশিকে সৌদি আরব থেকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। সাধারণ ফ্রি ভিসার নামে গিয়ে এক নিয়োগকর্তার বদলে অন্য জায়গায় কাজ করতে গিয়ে ধরা পড়ে ফেরত আসতে হচ্ছে।

অনেকে খরচের টাকাও তুলতে পারছেন না। এদিকে সৌদি আরবের বাংলাদেশ দূতাবাস বলছে, নির্দোষ কাউকে ফেরত পাঠানোর বিষয়টি জানতে পারলে তারা সৌদি সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করবে। দূতাবাসের এ তৎপরতার পাশাপাশি রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোকে দায়িত্ব নিতে হবে।

সৌ‌দি আরবে ধরপাকড় : একদিনেই ফিরলেন ২০০ বাংলাদেশী
                                  

সৌ‌দি আরবে বাংলাদে‌শী শ্রমিকদের ধরপাকড় ও দেশে ফেরত পাঠানো অব্যাহত রয়েছে। কাজের বৈধ অনুমোদন (আকামা) থাকা সত্ত্বেও শুক্রবার রাতে দুই শ` বাংলাদেশীকে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি থেকে ফিরতে হয়েছে।

ব্র্যাক অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান শরিফুল হাসান জানান, শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তারা বিমানযোগে দেশে ফেরেন। বরাবরের মতো এবারও দেশে ফেরা কর্মীদের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহযোগিতায় বিমানবন্দরে জরুরি খাবার-পানিসহ নিরাপদে বাড়ি পৌঁছানোর জন্য সহায়তা প্রদান করে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম। ‌

তিনি উল্লেখ করেন, চলতি বছ‌র ১৬ হাজারের বে‌শি বাংলাদেশী সৌদি আরব থেকে ফেরত এসেছে। এর মধ্যে চলতি মাসেই ওয়েজ আর্নাস কল্যাণ বোর্ডের সহযোগিতায় ৮০৪ জন জনকে ব্র্যাক সহযোগিতা করেছে। এর মধ্যে একদিনে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক কর্মী এলেন গতকাল শুক্রবার।

জানা যায়, সংসারে সচ্ছলতা আনতে মাত্র পাঁচ মাসে আগে বহু স্বপ্ন নিয়ে সৌদি আরব গিয়েছিলেন কুড়িগ্রামের আকমত আলী। ‌কিন্তু তার সে স্বপ্ন এখন দুঃস্বপ্ন। তার অভিযোগ, আকামার মেয়াদ আরো ১০ মাস থাকলেও তাকে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ফেরত আসা গোপালগঞ্জের ছেলে সম্রাট শেখ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আট মাসের আকামা ছিলো তার। নামাজ পড়ে বের হলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে কোনো কিছু না দেখেই দেশে পাঠিয়ে দেয়।

ফেরত আসা সাইফুল ইসলামের বাড়ী নারায়ণগঞ্জে। তার অভিযোগ, আকামার মেয়াদ দেখানোর পরেও তাকে দেশে পাঠানো হয়। সাইফুল বলেন সবে মাত্র নয় মাস আগে সৌদি গিয়েছিলেন, আকামার মেয়াদও ছিলো ছয় মাস।

চট্টগ্রাম জেলার আব্দুল্লাহ ব‌লেন, আকামা তৈরির জন্য আট হাজার রিয়াল জমা দিয়েছেন কফিলকে, কিন্তু পুলিশ গ্রেফতারের পর কফিল কোনো দায়িত্ব নেয়নি।

‌ফেরত আসা কর্মীরা সরকারকে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার দা‌বি জানান। আর কাউকে যেন তাদের মতো পরিস্থিতির শিকার হয়ে দেশে ফিরতে বাধ্য করা না হয় সে দা‌বিও করেন তারা।

ব্র্যাক অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান শরিফুল হাসান বলেন, ফেরত আসা কর্মীরা যেসব বর্ণনা দিচ্ছেন সেগু‌লো মর্মা‌ন্তিক। সাধারণ ফ্রি ভিসার নামে গিয়ে এক নিয়োগকর্তার বদলে আরেক জায়গায় কাজ করতে গিয়ে ধরা পড়লে অনেক লোক ফেরত আসতো। কিন্তু এবার অনেকেই বলছেন, তাদের আকামা থাকার পরেও ফেরত পাঠানো হচ্ছে। বিশেষ করে যাওয়ার কয়েক মাসের মধ্যেই অনেককে ফিরতে হচ্ছে যারা খরচের টাকার কিছুই তুলতে পারেননি।

তিনি আরো বলেন, রিক্রু‌টিং এজেন্সিগুলোকেই এই দায় নিতে হবে। পাশাপাশি নতুন করে কেউ যেন গিয়ে এমন বিপদে না পড়ে সেটা নিশ্চিত করতে হবে।

দক্ষিণ আফ্রিকায় ডাকাতের দেওয়া আগুনে বাংলাদেশির মৃত্যু
                                  

 দক্ষিণ আফ্রিকায় ডাকাতের দেওয়া আগুনে দগ্ধ হয়ে ইমরান (২৮) নামে বাংলাদেশি এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তার বাড়ি মাদারীপুরের শিবচরে। গতকাল বুধবার ভোরে সাউথ আফ্রিকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এর আগে গত সোমবার রাতে ডাকাতের দেওয়া আগুনে দগ্ধ হন ইমরান। ইমরানের খালাতো ভাই আবদুস সালাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। জানা গেছে, সাউথ আফ্রিকার ওরেঞ্জফার্ম এলাকায় দোকান করতো ইমরান। সোমবার রাতে বন্দুকধারী একদল ডাকাত এসে হানা দেয় তার দোকানে। ডাকাতি শেষে দোকান আটকে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় ডাকাতরা।

এ সময় আবদুর রহিম নামে শিবচরের আরও এক যুবক দগ্ধ হন। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে অন্য প্রবাসীরা স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাংলাদেশ সময় গতকাল বুধবার ভোরে তার মৃত্যু হয়। অন্যদিকে আহত রহিম চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ইমরানের মৃত্যুর খবর বাড়িতে পৌঁছালে স্বজনদের আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠে এলাকা। নিহত ইমরান উপজেলার দ্বিতীয়াখ- ইউনিয়নের মুজাফফরপুর খলিফাকান্দি এলাকার দুদু মিয়া খলিফার ছেলে।

নিহত ইমরানের খালাতো ভাই আবদুস সালাম বলেন, ডাকাতি করতে এসে ওর গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় ডাকাতরা। ওখানকার হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। কিন্তু বুধবার ভোরে আমরা তার মৃত্যুর খবর পাই।

সৌদিতে দুর্ঘটনায় নিহত ৩৬ জনের মধ্যে ১১ জন বাংলাদেশি
                                  

সৌদি আরবের মদিনায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩৬ জনের মধ্যে ১১ জনই বাংলাদেশি। গত ১৬ অক্টোবর দেশটির স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় মদিনা থেকে ১৯০ কিলোমিটার দূরে আল আকহাল নামের এলাকায় ওই দুর্ঘটনা ঘটে।

গতকাল শনিবার বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেদ্দার শ্রম কল্যাণ উইংয়ের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় ওই দুর্ঘটনায় নিহত ৩৬ জনের মধ্যে ১১ জনই বাংলাদেশি। শ্রম কল্যাণ উইংয়ের প্রথম সচিব কে এম সালাহউদ্দিন স্বাক্ষরিক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাসটিতে ৪০ জন যাত্রী ছিলেন। তাদের মধ্যে চারজন আহত হন যাদের কেউ বাংলাদেশি নন। দুর্ঘটনায় নিহত হন ৩৬ জন। তাঁদের দেহ পুড়ে ছাই হয়ে যায়। মদিনার আল-মিকাত হাসপাতালে নিহতদের ডিএনএনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। স্বজনরা যোগাযোগ করলে ওই হাসপাতাল এ শনাক্ত করার ব্যাপারে সহযোগিতা করবে বলে জানিয়েছে ওই হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগ। বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, বাসটি রিয়াদ হতে যাত্রা শুরু করেছিল। বাস কোম্পানিসূত্রে জানা যায় এর মধ্যে ১৩ জন ছিলেন বাংলাদেশি। তাদের মধ্যে কেবল নাম সংগ্রহ করা গেছে ১০ জনের। ওই ১৩ জনের মধ্যে দুজন মদিনায় নেমে যান। বাকি ১১ জন মক্কাগামী ওই বাসের যাত্রী ছিলেন বলে বাস কোম্পানিটি জানিয়েছে।

রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে বাস কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ওই ১৩ জন প্রবাসী বাংলাদেশির ইকামা নম্বর ও অন্যান্য তথ্য সংগ্রহ করার প্রচেষ্টা নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বাস কর্তৃপক্ষ এ জাতীয় তথ্য প্রদান করতে পারেনি। বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, সার্বিক অবস্থা পর্যালোচনায় দেখা যায় ডিএনএ পরীক্ষা ব্যতীত মৃত ব্যক্তিদের পূর্ণাঙ্গ তথ্য পাওয়ার সুযোগ নেই। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কনস্যুলেটের পক্ষ থেকে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ অব্যাহত আছে। গত ১৬ অক্টোবর সৌদি আরবের স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় রাজধানী রিয়াদ থেকে আসা উমরাহ যাত্রীবাহী একটি বাস মদিনা জেয়ারাহ শেষে মক্কার উদ্দেশে আসার পথে মদিনা শহর থেকে আনুমানিক ১৯০ কিলোমিটার দূরে আল আকহাল নামক স্থানে রাস্তা সংস্কারের কাজে নিয়োজিত একটি ভারি যান ধাক্কা দিলে বাসটিতে আগুন লেগে যায়।

অন্যদিকে মদিনার ট্রাফিক অফিস জানায় বাসটির চালক ছিলেন সিরিয়ার নাগরিক। সেই সঙ্গে বাসটির কোনো বিমার আওতায় না থাকায় কোনো ধরনের মৃত্যুজনিত ক্ষতিপূরণ পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। জেদ্দা বাংলাদেশ কনস্যুলেট থেকে এখনো কারো নাম প্রকাশ না করলেও একটি বিশেষ সূত্রে ছয়জনের নাম পাওয়া গেছে। তাঁরা হলেন, মোকতার হোসেন, হুমায়ুন কবির, নাসির, রুহুল আমিন, মানু মিয়া, সাকিব। বাকি পাঁচজনের পরিচয় নিশ্চিত করার চেষ্টা চলছে।

সৌদি থেকে ২ দিনে দেশে ফিরলেন ২৫০ বাংলাদেশি
                                  

 সৌদি আরব থেকে প্রতিদিন বাংলাদেশি কর্মীদের দেশে ফেরা অব্যাহত রয়েছে। গত শুক্রবার রাতেও সৌদি এয়ারলাইনসে ১২০ জন বাংলাদেশি কর্মী দেশে ফিরেছেন। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে ফেরেন আরো ১৩০ জন। অর্থাৎ দুই দিনে ২৫০ জন বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠিয়েছে সৌদি আরব। দেশে ফেরত যাওয়া বাংলাদেশি কর্মীদের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহযোগিতায় ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম খাবরসহ জরুরি সহায়তা প্রদান করেছে।

সৌদি আরব থেকে ফেরত আসা কর্মীদের অভিযোগ, সৌদি আরবে বেশ কিছুদিন ধরে ধরপাকড়ের শিকার হচ্ছে বাংলাদেশি শ্রমিকরা। সেই অভিযানে বাদ যাচ্ছে না বৈধ কর্মীরাও। গত শুক্রবার রাতে ফেরত আসা ঢাকার দোহার উপজেলার আনোয়ার হোসেন জানান, সৌদি আরবে একটি দোকানে তিনি কাজ করতেন। তাঁর আকামার মেয়াদ ছিল আরো ১১ মাস। কিন্তু দোকান থেকে ধরে তাঁকে দেশে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। ফেরত আসা কর্মীদের অনেকে অভিযোগ করেন, তাঁরা কর্মস্থল থেকে বাসায় ফেরার পথে পুলিশ তাঁদের গ্রেফতার করে। সে সময় নিয়োগকর্তাদের ফোন করা হলেও তারা দায়িত্ব নেয়নি।

আকামা থাকা সত্ত্বেও কর্মীদের ডিপোর্টেশন ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। আবার দীর্ঘদিন অবৈধভাবে থাকার কারণেও অনেককে আটক করে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। চলতি বছর সৌদি আরব থেকে এখন পর্যন্ত অন্তত ১১-১২ হাজার বাংলাদেশি কর্মী এরইমধ্যে দেশে ফিরেছেন।

সৌদি আরবে ছুরিকাঘাতে বাংলাদেশি খুন, গ্রেপ্তার ৩
                                  

সৌদি আরবের নাজরান শহরে  কথা কাটাকাটির জের ধরে জুনেদ আহমেদ (৩৫) নামে এক বাংলাদেশি খুন হয়েছে। এ ঘটনায় তিন বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করেছে সৌদি পুলিশ।

নিহত জুনেদ আহমদ সিলেট জেলার ছাতক উপজেলার সিংচাপইড় ইউনিয়নের বানিকান্দী গ্রাম নিবাসী আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে।

জানা যায়, গত ২৮ অক্টোবর রাত আনুমানিক ১টার সময় নিজ বাসা থেকে পার্শ্ববর্তী বাসায় থাকা তার আপন মামাতো ভাই ও শ্যালকসহ তিনজন মিলে জুনেদ আহমেদকে বাইরে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর হাতাহাতি ও মারধর করার এক পর্যায়ে ছুরিকাঘাত করলে ঘটনাস্থলে তিনি নিহত হন। 

নিহতের চাচা রহমত আলী আজ  মঙ্গলবার দৈনিক আমাদের সময়কে জানান, দেশে স্ত্রী ছাড়াও জুনেদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। দীর্ঘ ২০ বছর ধরে সৌদি আরবে বসবাস করে আসছিলেন তিনি। তার আপন মামাতো ভাই ও চাচা শ্বশুরের ছেলেকে তিনি নিজেই সৌদি আরবে এনেছিলেন।

নিহত জুনেদ আহমেদের খুনের সঙ্গে জড়িত তিন বাংলাদেশিকে স্থানীয়দের সহযোগিতায় পুলিশের কাছে সোর্পদ করা হয়। বর্তমানে তারা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। নিহত জুনেদ আহমদের লাশ নাজরানের একটি হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশি নিহত
                                  

বাংলাদেশ থেকে মোজাম্বিক হয়ে সাউথ আফ্রিকা বড় ভাইয়ের কাছে যাওয়ার পথে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের দুই সহোদর সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত এবং অপর ৩ যাত্রী আহত হয়েছেন। নিহত দুই সহোদর হলেন, বেগমগঞ্জ উপজেলার মিরওয়ারিশপুর গ্রামের মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে মোহাম্মদ আল আমিন (২৩) ও মোহাম্মদ আরাফাত (২১)। তাদের পিতা মোহাম্মদ হোসেন জানান, আমার মেঝো ছেলে আল আমিন ১৩ আগস্ট ও ছোট ছেলে মোহাম্মদ আরাফাত ৩১ আগস্ট দক্ষিন আফ্রিকার জোহানেন্সবার্গ এর যাওয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা থেকে বিমানযোগে মোজাম্বিক পৌঁছে।

দুই ভাই একত্রে একই গাড়ীতে গত বৃহস্পতিবার রাতে মোজাম্বিক থেকে দক্ষিন আফ্রিকার জোহানেন্সবার্গ এর উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিলে পথিমধ্যে সড়ক দূর্ঘটনায় আমার ২ ছেলে নিহত হয় এবং গাড়ীতে থাকা অপর ৩ বাংলাদেশী আহত হয়। তারা নিহত হওয়ার খবর এলাকায় পৌঁছলে, শোকের ছায়া নেমে আসে। পরিবারে চলছে শোকের মাতম। নিহতরা তিন ভাই দুই বোন। তাদের মধ্যে আল আমিন মেঝো এং আরাফাত সবার ছোট। বড় ভাই নাসির সাউথ আফ্রিকা আছেন। বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হারুন অর রশীদ জানান, এ বিষয়ে কেউ তাকে জানায় নি।


অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির লাশ উদ্ধার: নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার অজ্ঞাত পরিচয় এক ব্যক্তির (৪০) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার ভোরে উপজেলার আমিশাপাড়া ইউনিয়নের পূর্ব মানিক্যনগর এলাকার মসজিদ সংলগ্ন খাল থেকে ভাসমান লাশটি উদ্ধার করা হয়। স্থানীয়রা জানায়, ভোরে মুসল্লিরা ফজরের নামাজ পড়ে বের হয়ে পূর্ব মানিক্যনগর জামে মসজিদ সংলগ্ন খালে একটি মৃতদেহ ভাসতে দেখে সোনাইমুড়ী থানায় খবর দেয়। সোনাইমুড়ী থানার ওসি আবদুস সামাদ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। লাশের পরিচয় সনাক্ত করা যায়নি। লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণের প্রস্তুতি চলছে।

ওমানে অমানুষিক নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন বরিশালের নার্গিস
                                  

 অসহায় পরিবারের ভাগ্যের চাকা ঘোরাতে দালালের খপ্পরে ওমান গিয়ে অমানুষিক নির্যাতনের শিকার হয়ে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সহায়তা দেশে ফিরে এসেছেন গৃহবধূ নার্গিস বেগম। গতকাল সোমবার সকালে নিজবাড়িতে বসে নির্যাতনের বর্ণনা করতে গিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পরেন নার্গিস। নার্গিসের বাড়ি বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়নের সিংগা গ্রামে। ওই গ্রামের কামাল মাতুব্বরের স্ত্রী নার্গিস বেগম জানান, চলতি বছরের মে মাসে পূর্ব পরিচিত উজিরপুর উপজেলার মোড়াকাঠী গ্রামের মান্নান সরদারের পুত্র সিরাজুল ইসলাম তাকে ওমানে বিশ হাজার টাকা বেতন ও ভাল চাকরির প্রলোভন দেখায়।

পরিবারের অর্থনৈতিক চাকা সচল করার জন্য তিনি দালাল সিরাজের কথায় রাজী হয়ে তার (সিরাজ) দাবিকৃত ৮০ হাজার টাকা তুলে দেন। পরবর্তীতে ১৭ জুন তাকে ওমান পাঠানো হয়। সেখানে সিলেট জেলার পারভীন বেগম নামের এক ওমান প্রবাসী তাকে বিমানবন্দর থেকে রিসিভ করে তার বাসায় নিয়ে যায়। নার্গিস বেগম আরও জানান, ওমানে যাওয়ার কয়েকদিন পরে প্রবাসী পারভীন তাকে টাকার বিনিময়ে অনৈতিক কাজ করার প্রস্তাব দেয়। পারভীনের কথায় রাজি না হওয়ায় তাকে অমানুষিক নির্যাতন করা হয়। বিষয়টি তিনি (নার্গিস) মোবাইল ফোনের মাধ্যমে দালাল সিরাজুল ইসলামকে জানালে সে (সিরাজুল) পারভীনের কথায় রাজি হওয়ার জন্য বলে ফোনের লাইন বিচ্ছিন্ন করে দেয়।

পরবর্তীতে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সহায়তায় দেশ থেকে টাকা পাঠানোর পর অতিসম্প্রতি তিনি (নার্গিস) দেশে ফিরে আসেন। এ ঘটনায় শারিরিক নির্যাতনের শিকার হওয়া নার্গিস বেগম গত রোববার দালাল সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে ক্ষতিপূরনের দাবিতে বামরাইল ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সিরাজুল ইসলাম জানান, নার্গিস ওমানে চাকরি না করে দেশে ফিরে এসে নির্যাতন ও অনৈতিক কাজের মিথ্যে অভিযোগ ছড়াচ্ছে।

 

লন্ডনে ভিসা জালিয়াতির চক্রের চার বাংলাদেশিকে সাজা থেকে অব্যাহতি
                                  

লন্ডনের ইতিহাসে অন্যতম ভিসা কেলেঙ্কারির ঘটনায় অভিযুক্ত চার বাংলাদেশিকে সাজা থেকে অব্যাহতি দিয়েছে ব্রিটিশ আদালত। এর আগে ভিসা জালিয়াত চক্রের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ৩১ বছরের কারাদ-াদেশ দিয়েছিল আদালত। চক্রটি বড় ধরনের জালিয়াতি নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছিল।সাজা মওকুফ হওয়া চার ব্যক্তি হলেন- ট্যাক্সি ড্রাইভার মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান (৪৩), মাজাহারুল হক (৪৬), তার স্ত্রী মাকসুদা বেগম (৪৫), সাহিদা রোকসান (৪৭)।

বৃহস্পতিবার আদালত নতুন করে এ আদেশ জারি করেন।মামলার বিচারক মার্টিন গ্রিনফিথ বলেন, এই মামলাটির সাথে অবৈধ অভিবাসন বিষয়টি জড়িত। অনেকেই অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হতে এই দেশে আসেন। কিন্তু তাদের অবশ্যই প্রমাণ করতে হবে যে তাদের এই দেশে থাকার মতো যথেষ্ট আয় আছে।অপরাধ প্রমাণিত হওয়ার পরও সাজা থেকে অব্যাহতি দেয়ার বিষয়ে বিচারক মার্টিন গ্রিনফিথ বলেন: আমি তাদের সাজা দিয়ে জেলে পাঠাতে পারতাম, কিন্তু আজকে আমি কাউকে শাস্তি দিচ্ছি না। তবে এই বিষয়ে আদালত সুনির্দিষ্ট ব্যাখ্যা প্রকাশ করেনি।এই চক্রের বিরুদ্ধে প্রতারণাসহ, আয়কর ফাঁকি দেয়ার অভিযোগ রয়েছে। তাদের ২ বছরের জন্য কাজ করার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞাও জারি আছে।মূলত এই চক্রটি ব্রিটিশ সরকারকে ফাঁকি দিয়ে ভুয়া ভিসার কাগজপত্র তৈরি করতো।

তারা অসৎ উপায় অবলম্বন করে চাকরি আশা দিয়ে যুক্তরাজ্যে পাঠানোর নামে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছিল। এক একজনের ভিসা ইস্যু করার নামে এই চক্রটি অন্তত ৭০০ পাউ- হাতিয়ে নিত বলে জানা গেছে। ২০০৮-২০১৩ পর্যন্ত বিভিন্ন ভুয়া কোম্পানি খুলে তারা এই কার্যক্রম পরিচালনা করত বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে।গত বছরের নভেম্বরে এই মামলায় আদালত চার বাংলাদেশিসহ পাঁচজনকে ৩১ বছরের কারাদ- প্রদান করেছিল। এই চক্রের সাথে জড়িত আবুল কালাম ওরফে রেজাউল করিম বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল(বিএনপি)’র হয়ে বাংলাদেশে গত নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন।

 

দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা
                                  

দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন শহরে সন্ত্রাসীদের গুলিতে শরীয়তপুরের দুই যুবক নিহতের খরব পাওয়া গেছে। গত রোববার বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- নড়িয়া উপজেলার বিঝারি ইউনিয়নের কাপাশপাড়া গ্রামের ইব্রাহিম মোল্লার ছেলে মো. আলম মোল্লা (৩৪) ও ভেদরগঞ্জ উপজেলার কাইছকুড়ি গ্রামের শহর আলী মাঝির ছেলে মো. উজ্জ্বল মাঝি (৩২)। আলম মোল্লার হানিফা (৩) নামে এক ছেলে ও আফসা (৬) নামে এক মেয়ে রয়েছে।


আলম মোল্লার চাচাতো চাচা ফোরহাদ হোসেন বলেন, আলম দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন শহরের সুপার মার্কেটের একটি দোকানে চাকরি করতেন। ওই দোকানটিতে পাঁচজন কমর্চারী ছিল। রোববার রাতে কিছু সন্ত্রাসী দোকানে ডুকে চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দেয়ায় সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি গুলি করতে থাকে। এতে আলম গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যায়।
তিনি বলেন, আলমরা তিন বোন, এক ভাই। ওর মা অনেক আগেই মারা গেছেন। আর বৃদ্ধ বাবা বিছানায় পরে আছেন। তাদের কিছু ফসলি জমি ছিল। সেই জমি বিক্রি করে ও ঋণ করে পরিবার আলমকে দেড় বছর আগে দক্ষিণ আফ্রিকায় পাঠায়। আলম মোল্লার স্ত্রী রুমা আক্তার কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, আমার ছেলে-মেয়ে কাকে বাবা বলে ডাকবে? আমার সংসার কীভাবে চলবে?


এদিকে উজ্জ্বল মাঝির বড় ভাই মারুফ মাঝি বলেন, উজ্জ্বল প্রায় ১১ বছর ধরে দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন শহরে দোকান চালান। কয়েক দিন ধরে সেখানকার চাঁদাবাজরা তাদের কাছে চাঁদা দাবি করছিল। চাঁদা না দেয়ায় উজ্জলকে দোকানে ঢুকে গুলি করে হত্যা করে। একই সময় আলমকেও গুলি করে। স্থানীয়রা তাদের হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।


তিনি জানান, সেখানকার বাংলাদেশীরা জানিয়েছে তাদের মরদেহ কেপটাউন শহরের একটি হাসপাতালের হিমাগারে আছে।
শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের বলেন, দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউন শহরে সন্ত্রাসীদের গুলিতে শরীয়তপুরের দুই ব্যক্তির নিহতর সংবাদ লোকমুখে শুনেছি। কিন্তু সরকারিভাবে কোনো খবর আমাদের কাছে আসেনি। নিহতদের পরিবারকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

 

মেক্সিকোতে ১৭ বাংলাদেশি উদ্ধার
                                  

মেক্সিকো থেকে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পথে দেশটির উপকূলীয় রাজ্য ভারাক্রুজে একটি ট্রাকের পরিত্যক্ত ট্রেইলার থেকে ৬৫ জন অভিবাসী প্রত্যাশীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। আটকদের মধ্যে ১৭ জন বাংলাদেশি, ভারতীয় ৩৬ এবং শ্রীলঙ্কার ১২ জন রয়েছেন। শরীরে পানিশূন্যতা দেখা দেয়ায় কাহিল অবস্থায় ছিল এসব অভিবাসীরা। এ অবস্থায় বাংলাদেশ, ভারত আর শ্রীলঙ্কার ৬৫ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীর সন্ধান পেয়েছে মেক্সিকোর পুলিশ।

মেক্সিকো হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছিলেন তারা। সম্প্রতি মেক্সিকোর জননিরাপত্তা দফতর জানিয়েছে, ভেরাক্রুজ রাজ্যের হাইওয়েতে ৬৫ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীকে খুব কাহিল অবস্থায় উদ্ধার করে কেন্দ্রীয় পুলিশের একটি টহল দল। তাদের প্রত্যেককে খাবার, পানীয় এবং প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর কাছের একটি অভিবাসন কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে। জানা গেছে, দক্ষিণ এশিয়ার তিনটি দেশ থেকে যাওয়া ৬৫ জন অভিবাসনপ্রত্যাশী গত ২৪ এপ্রিল কাতার থেকে তুরস্কে যান। তারপর তুরস্ক থেকে কলম্বিয়া, কলম্বিয়া থেকে ইকুয়েডর, ইকুয়েডর থেকে পানামা, পানামা থেকে গুয়াতেমালা এবং অবশেষে গুয়াতেমালা থেকে মেক্সিকো পৌঁছান।

পমক্সিকোয় পৌঁছানোর পর কেয়াটসাকোরকোস নদী ধরে নৌকায় মেক্সিকোর উত্তর দিকের সীমান্তে চলে যান। কেন সেদিকে গেলেন তা মেক্সিকো কর্তৃপক্ষও বুঝতে পারছে না। কেননা, উত্তর সীমান্ত থেকে অনেক দূরে যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত। বরং নৌপথে উত্তর সীমান্তে যেতে অনেক দিন ব্যয় হওয়ায় সঙ্গে থাকা খাবার শেষ হয়ে যায় তাদের। পুলিশ উদ্ধার না করলে হয়ত জীবন বিপন্ন হতো তাদের। মেক্সিকোয় প্রায়ই অভিবাসনপ্রত্যাশীদের আটকের ঘটনা ঘটে। ধরা পড়া ৬৫ জনকে নিজ নিজ দেশে ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু করছে মেক্সিকো সরকার।

ফরিদগঞ্জের কৃতি সন্তান কাতারের ব্যবসায়ী জালাল আহাম্মেদের সম্মাননা অর্জন
                                  

এস.এম ইকবাল :

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতার প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের মধ্যে শ্রেষ্ঠত্বের পুরস্কার পেলেন চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে কৃতি সন্তান জালাল আহমেদ। গত বুধবার কাতারে বাংলাদেশ ফোরাম কাতার কতৃক আয়োজিত এক জাঁকজমক পূর্ণ কর্পোরেট নাইট অনুষ্ঠানের কাতারের বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদের হাত থেকে জালাল আহমেদ এই সম্মননা গ্রহণ করেন। সিআইপি জালাল আহমেদ কাতারে গোল্ডেন মার্বেল ইন্ডাষ্ট্রির প্রধান নির্বাহী । জালাল আহমেদ গত ২৩ বছর ধরে কাতারে ব্যবসায়ী হিসেবে সুনামের সাথে ব্যবসা করে চলছেন। সেখানে তিনি ৪টি মার্বেল পাথরের কারখানা স্থাপন করেন। যেখানে প্রায় সহস্রাধিক বাংলাদেশী কর্মরত রয়েছেন।  তিনি ফরিদগঞ্জ উপজেলার পৌর এলাকার হাজী আ: রশিদের বড় ছেলে। তিনি ব্যবসায়ী  হিসেবে ইতিমধ্যেই বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক সিআইপি হিসেবে মর্যাদা লাভ করেছেন।

জালাল আহমেদ ছোট ভাই সাহাবুদ্দিন আহমেদ সাবু জানান,  তার ভাই জালাল আহমেদ সর্বদা সাদামাটা জীবন যাপন করেন। গত ২৩ বছর ধরে তিনি কাতারে সুনামের সাথে কাতারে ব্যবসা করে আসছেন। কাতারে তার প্রতিষ্ঠানের নাম গোল্ডেন মার্বেল। তিনি ব্যবসা করার সাথে সাথে এলাকার লোকজনের জন্য নিবেদিত প্রাণ। নিজস্ব অর্থে তিনি  এতিম খানা ও মাদ্রাসা তৈরি করেছেন। সমাজের অসহায় ও দরিদ্র লোকজনের পাশে দাড়াচ্ছেন নিয়মিত। বছরে বিভিন্ন সময়ে দেশে এসে দরিদ্র মানুষের আর্থিক ভাবে সহযোগিতা করে তাদের স্বাবলম্বী করে গড়ে তোলার চেষ্টা এখনো করে যাচ্ছেন।

সাহাবুদ্দিন আরো জানান, তারা ৭ ভাই ২ বোন। এর মধ্যে এক বোন মাজেদা বেগম বর্তমান ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিন মেয়ে ও এক ছেলে নিয়ে জালাল আহমেদ স্ত্রীসহ কাতারেই থাকেন। প্রবাসী ব্যবসায়ী হিসেবে তিনি ইতিমধ্যেই কাতার সরকারের সুনজরে রয়েছেন। 

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা
                                  

 যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে এক বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা করেছে এক দুর্বৃত্ত। নিহত বাংলাদেশির নাম জয়নুল ইসলাম। তার বাড়ি মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার বর্ণি ইউনিয়নের কাজীবন্ধ গ্রামে। তিনি মিশিগানের ডেট্রয়েটের কাশ্মীর স্ট্রিটে পরিবারসহ বসবাস করতেন।

তিনি পেশায় একজন ট্যাক্সিচালক ছিলেন। নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তারাবির নামাজ পড়ে ট্যাক্সিক্যাব নিয়ে বের হওয়ার পর গত শুক্রবার দিবাগত রাত আনুমানিক দেড়টা থেকে ৩টার মধ্যে সন্ত্রাসী হামলায় গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন জয়নুল ইসলাম। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, অপরাধীকে শনাক্ত করার জোর প্রচেষ্টা চলছে।

বেঁচে যাওয়া ১৫ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন
                                  

লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিসিয়ার উপকূলবর্তী ভূমধ্যসাগরে অভিবাসীবাহী নৌকাডুবির ঘটনায় প্রাণে বেঁচে যাওয়া ১৫ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। মঙ্গলবার ভোর ৫টা ৫০ মিনিটে টার্কিশ এয়ারলাইন্সের টিকে-৭১২ বিমানযোগে দেশে পৌঁছান তারা।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে খবরটি নিশ্চিত করেছে। 

লিবিয়ার ত্রিপোলির বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্র জানায়, লিবিয়া হয়ে দুটি নৌকায় ইতালি যেতে চেয়েছিলেন অভিবাসী প্রত্যাশীরা। একটি নৌকায় প্রায় ৫০ এবং অন্যটিতে ৭০ জন যাত্রী ছিল। ওই দুটি নৌকা গত ৯ মে রাতে একই সময়ে যাত্রা শুরু করে। তবে একটি নৌকা নিরাপদে ইতালি পৌঁছালেও অন্যটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

ত্রিপোলির বাংলাদেশ দূতাবাসের লেবার কাউন্সিলর এ এস এম আশরাফুল ইসলাম বার্তা সংস্থা ইউএনবিকে বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৪ বাংলাদেশিকে জীবিত এবং এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। নিহত ব্যক্তির নাম উত্তম কুমার। তার বাড়ি শরীয়তপুরের নড়িয়ায়।

এর আগে ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় কতজন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে সে বিষয়ে নিশ্চিত কোনো তথ্য পাননি জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন বলেন, আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, উদ্ধার হওয়া ১৪ জনের সবাই বাংলাদেশি। এ ছাড়া নিহতদের মধ্যে কতজন বাংলাদেশি সে বিষয়ে নিশ্চিত তথ্য নেই। যেহেতু ৩৭ জনকে পাওয়া যাচ্ছে না, সেক্ষেত্রে ৩০ থেকে ৩৫ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সোমবার (১৪ মে) রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নৌকাডুবির নিহত ঘটনায় ২৭ বাংলাদেশির পরিচয় নিশ্চিত হয়েছে বলে জানানো হয়।

বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির পারিবারিক যোগাযোগ পুনঃস্থাপন (আরএফএল) বিভাগে দায়িত্বরত পরিচালক ইমাম জাফর শিকদার বলেন, তিউনিসিয়া রেড ক্রিসেন্টের আঞ্চলিক প্রধান মাঙ্গি স্লিমের মাধ্যমে উদ্ধার হওয়া চার বাংলাদেশির সঙ্গে কথা বলে নিহত ২৭ বাংলাদেশির পরিচয়ের বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছেন তারা। তবে লাশ না পাওয়ায় তাদের নাম এখনও নিখোঁজ ব্যক্তিদের তালিকায় রাখা হয়েছে।

সৌদি আরবে চালু হচ্ছে ‘গ্রিন কার্ড’
                                  

পেশাজীবী প্রবাসীদের সরাসরি স্থায়ী বসবাসের অনুমতি দিতে গ্রিন কার্ড চালু করছে সৌদি আরব।  গতকাল বুধবার সে দেশের মন্ত্রিসভায় প্রথমবারের মতো এই পরিকল্পনার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

দেশটির সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত ইকামা’ নামে এই পরিকল্পনার আওতায় বসবাসের অনুমতি পাওয়া প্রবাসীরা দেশটিতে ব্যবসা করা ও সম্পত্তি কেনার সুযোগ পাবেন।  এমনকি কোনো সৌদি স্পন্সর ছাড়াই পরিবারের সঙ্গে দেশটিতে বসবাস করতে পারবেন তারা।

বর্তমানে সৌদিতে যে ব্যবস্থা চালু আছে, তাতে সেখানে ওয়ার্ক পারমিট নিয়ে বসবাস করতে একজন সৌদি চাকরিদাতার স্পন্সরশিপের অপরিহার্যতা রয়েছে।  এ ব্যবস্থার আওতায় প্রায় এক কোটি বিদেশি সৌদি আরবে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত রয়েছেন।

তবে এখনও পরিকল্পনার বিস্তারিত প্রকাশ করা হয়নি।  নতুন ইকামা ব্যবস্থা নিয়ে আশাবাদী সৌদি কর্মকর্তারা। তাদের বিশ্বাস, এই ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে বেশি সংখ্যক বিনিয়োগকারী ও উদ্যোক্তাকে সৌদি আরবের প্রতি আকৃষ্ট করা সম্ভব হবে।


   Page 1 of 13
     প্রবাসে বাংলা
সৌদি থেকে ফিরলেন আরও ৬১ কর্মী
.............................................................................................
সৌদি থেকে দেশে ফিরলেন আরও ১৫৩ বাংলাদেশি
.............................................................................................
সৌ‌দি আরবে ধরপাকড় : একদিনেই ফিরলেন ২০০ বাংলাদেশী
.............................................................................................
দক্ষিণ আফ্রিকায় ডাকাতের দেওয়া আগুনে বাংলাদেশির মৃত্যু
.............................................................................................
সৌদিতে দুর্ঘটনায় নিহত ৩৬ জনের মধ্যে ১১ জন বাংলাদেশি
.............................................................................................
সৌদি থেকে ২ দিনে দেশে ফিরলেন ২৫০ বাংলাদেশি
.............................................................................................
সৌদি আরবে ছুরিকাঘাতে বাংলাদেশি খুন, গ্রেপ্তার ৩
.............................................................................................
দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
ওমানে অমানুষিক নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন বরিশালের নার্গিস
.............................................................................................
লন্ডনে ভিসা জালিয়াতির চক্রের চার বাংলাদেশিকে সাজা থেকে অব্যাহতি
.............................................................................................
দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা
.............................................................................................
মেক্সিকোতে ১৭ বাংলাদেশি উদ্ধার
.............................................................................................
ফরিদগঞ্জের কৃতি সন্তান কাতারের ব্যবসায়ী জালাল আহাম্মেদের সম্মাননা অর্জন
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগানে বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা
.............................................................................................
বেঁচে যাওয়া ১৫ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন
.............................................................................................
সৌদি আরবে চালু হচ্ছে ‘গ্রিন কার্ড’
.............................................................................................
ভূমধ্যসাগরে নিহতদের মধ্যে ২৭ বাংলাদেশির লাশ শনাক্ত
.............................................................................................
মন্ত্রণালয়ের অসহযোগিতায় প্রবাসী কর্মীর লাশ দেশে পদে পদে হয়রানি শিকার হচ্ছে স্বজনরা
.............................................................................................
ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে নিহতদের অধিকাংশই বাংলাদেশি
.............................................................................................
দু’দিনে দেশে ফিরলেন ৩৭৫ বাংলাদেশী
.............................................................................................
পরিচয় নিশ্চিত হলো সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত বাংলাদেশিদের
.............................................................................................
কাতারে শত শত কর্মী কফিল খুঁজে না পেয়ে পথে পথে ঘুরছেন
.............................................................................................
বাগদাদে জিম্মিদশা থেকে উদ্ধারে বাংলাদেশীদের আকুতি
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে শক্তিশালী টর্নেডোর আঘাতে নিহত ৮
.............................................................................................
লন্ডনে এক বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার
.............................................................................................
দেশে ফিরল মালয়েশিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫ যুবকের মরদেহ
.............................................................................................
আহত ফায়ারম্যান সোহেল রানা মারা গেছেন
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বাস দুর্ঘটনায় ৫ বাংলাদেশিসহ নিহত ১১
.............................................................................................
ইউরোপে পাড়ি জমাতে ভূমধ্যসাগরেই সিলেটী তরুণদের স্বপ্ন ধূলিস্যাৎ
.............................................................................................
ওমানে বাংলাদেশীসহ এক হাজার প্রবাসী গ্রেফতার
.............................................................................................
নজরুলের জীবন অবলম্বনে নাটক ‘নীলকণ্ঠ নজরুল’ যুক্তরাষ্ট্রে মঞ্চস্থ
.............................................................................................
দুর্নীতিগ্রস্ত সিনারফ্লাক্সের জালে আটকা ৭০ হাজার কর্মীর ভাগ্য
.............................................................................................
কুয়েতে চাকরি হারাচ্ছেন ৩ হাজার ১৪০ প্রবাসী
.............................................................................................
‘ল্যাটিন আমেরিকায় বাংলাদেশের স্বার্থ রক্ষার সময় এখনই’
.............................................................................................
জেদ্দায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
মুম্বাইয়ে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর শাহাদতবার্ষিকী পালন
.............................................................................................
সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ‘নিবিড় যোগাযোগ বলয় গঠন’
.............................................................................................
এক ক্লিকেই ডলার যাবে বাংলাদেশে
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ কামনা
.............................................................................................
সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
ইউরোপে থাকার সুযোগ হারাচ্ছে অবৈধ অবস্থানকারী লক্ষাধিক বাংলাদেশী
.............................................................................................
খালেদার মুক্তির দাবিতে যুক্তরাষ্ট্র যুবদলের জাতিসঙ্ঘে বিক্ষোভ
.............................................................................................
সাংবাদিক মঈনুল আলমের দাফন সম্পন্ন
.............................................................................................
কুয়েতে ঘুমের মধ্যে বাংলাদেশি যুবককে ছুরিকাঘাতে খুন
.............................................................................................
আর কেউ যেন গৃহকর্মী হিসেবে সৌদি না যায়
.............................................................................................
ইতালিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
ভিসার মেয়াদ শেষে দেশে না ফিরলে জরিমানা ৫০ হাজার রিয়াল
.............................................................................................
মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে ২ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষী নিহত
.............................................................................................
জর্জিয়ার সিনেটে বাংলাদেশি শেখ রহমানের জয়
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]