বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   প্রবাসে বাংলা -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত বাংলাদেশি প্রবাসীর মৃত্যু

কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রোববার সন্ধ্যায় হোসাইন আহমেদ (২৮) নামের এক বাংলাদেশি যুবক মারা গেছেন। তিনি মৌলভীবাজারের কুলাউড়া পৌর শহরের জয়পাশা এলাকার বাসিন্দা।

এলাকাবাসী ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, হোসাইন কাতারে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন। ৬ আগস্ট একটি পিকআপভ্যানে করে কর্মস্থলে যাওয়ার সময় কাতারের আলকুর এলাকায় গাড়ি থেকে ছিটকে তিনি সড়কে পড়ে যান। এতে মাথায় চোট পান। স্থানীয় একটি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল মারা যান।

হোসাইনের শ্বশুর উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা ও গণমাধ্যমকর্মী জয়নাল আবেদিন দুর্ঘটনার খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, হোসাইনের তিন বছর বয়সী এক ছেলে আছে। হোসাইনের লাশ দেশে আনার চেষ্টা চলছে।

কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত বাংলাদেশি প্রবাসীর মৃত্যু
                                  

কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রোববার সন্ধ্যায় হোসাইন আহমেদ (২৮) নামের এক বাংলাদেশি যুবক মারা গেছেন। তিনি মৌলভীবাজারের কুলাউড়া পৌর শহরের জয়পাশা এলাকার বাসিন্দা।

এলাকাবাসী ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, হোসাইন কাতারে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন। ৬ আগস্ট একটি পিকআপভ্যানে করে কর্মস্থলে যাওয়ার সময় কাতারের আলকুর এলাকায় গাড়ি থেকে ছিটকে তিনি সড়কে পড়ে যান। এতে মাথায় চোট পান। স্থানীয় একটি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল মারা যান।

হোসাইনের শ্বশুর উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা ও গণমাধ্যমকর্মী জয়নাল আবেদিন দুর্ঘটনার খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, হোসাইনের তিন বছর বয়সী এক ছেলে আছে। হোসাইনের লাশ দেশে আনার চেষ্টা চলছে।

সৌদি থেকে ফিরলেন আরো ৪১৭ বাংলাদেশি
                                  

চলমান করোনা মহামারির মধ্যে সৌদি আরব থেকে ৪১৭ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। এর মধ্যে দেশটিতে গিয়ে আটকে পড়া এবং প্রবাসী শ্রমিকরাও রয়েছেন। সৌদি আরবের রিয়াদ থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ (চার্টার্ড) ফ্লাইটে তারা দেশে ফেরেন।

বিমানবন্দর সূত্রে জানা যায়, আজ রোববার দিনগত রাত পৌনে ৯টার দিকে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান ওইসব বাংলাদেশি।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উপ-মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। দুই দেশের সরকারের করোনা সংক্রান্ত নির্দেশনা অনুযায়ী ভ্রমণ করায় ওইসব বাংলাদেশির কাউকেই প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হয়নি বলেও জানান তিনি।

জানা যায়, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের মহামারি শুরু হওয়ায় বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় সৌদি আরবে আটকা পড়েন এসব বাংলাদেশি। দুই দেশের সরকারের সহযোগিতায় তারা দেশে ফিরলেন। তবে সর্বশেষ যারা ফিরেছেন তাদের মধ্যে প্রবাসী শ্রমিকরাও রয়েছেন।

সংকটের মধ্যেই দুই দেশ থেকে ফিরেছেন ৩০৪ জন বাংলাদেশি
                                  

বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী চলমান করোনা সংকটের মধ্যেই দুই দেশ থেকে ৩০৪ জন বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। আজ বুধবার সন্ধ্যার পর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এবং ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের আলাদা বিশেষ ফ্লাইটে দেশে ফেরেন তারা।

জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইটে ১৬০ জন বাংলাদেশি সিঙ্গাপুর থেকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান। ইউএস-বাংলার জনসংযোগ শাখার জিএম মো.কামরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অন্যদিকে, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইটে ১৪৪ জন বাংলাদেশি মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর থেকে বুধবার সন্ধ্যা ৬টা ৫০ মিনিটে ঢাকায় আসেন। বিমানের জনসংযোগ শাখার উপ-মহাব্যবস্থাপক তাহেরা খন্দকার এ তথ্য জানান।ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে লকডাউন ও কারফিউসহ নানা বিধি-নিষেধ জারি করা হয়। ফলে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে আটকা পড়েন হাজার হাজার বাংলাদেশি। এ অবস্থায় বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করে ওইসব বাংলাদেশিকে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে।

করোনার সংকট শুরুর পর থেকে ইতোমধ্যে সৌদি আরব, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, কুয়েত, কাতার, ভারত, মালদ্বীপ, মালয়েশিয়া এবং ইউরোপের বিভিন্ন দেশে বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করা হয়েছে। এসব দেশ থেকে কয়েক হাজার বাংলাদেশিকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

জেদ্দা থেকে ফিরলেন ৪০৯ জন
                                  

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের মহামারি শুরু হওয়ায় বন্ধ হয়ে যায় আন্তর্জাতিক ফ্লাইট। ফলে অনেক দেশে আটকা পড়েন বাংলাদেশিরা। আবার বিশ্বের বিভিন্ন দেশে, বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যে যাওয়া শ্রমিকদের একটা বড় অংশ কাজ হারিয়ে সমস্যায় পড়েছেন। এসব বাংলাদেশিকে ফেরাতে বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করে আসছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স

এরই অংশ হিসেবে এবার সৌদি আরবের জেদ্দা থেকে দেশে ফিরেছেন ৪০৯ বাংলাদেশি। আজ শুক্রবার সকালে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ (চার্টার্ড) ফ্লাইটে তারা দেশে ফেরেন।

জানা গেছে, করোনাভাইরাসের মহামারির কারণে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে অনেক বাংলাদেশি আটকা পড়েছেন। এর মধ্যে সৌদি আরব অন্যতম। দেশটির সঙ্গে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ থাকায় তারা দেশে ফিরতে পারছিলেন না। পরে সৌদি আরব ও বাংলাদেশ সরকারের যৌথ উদ্যোগ তাদের ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেওয়া হয়।হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর

এরই অংশ হিসেবে দেশটিতে বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করে আসছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। এর আগেও সৌদি আরব থেকে বেশ কিছু বাংলাদেশিকে ফেরত আনা হয়েছে। সর্বশেষ যারা দেশে ফিরেছেন তাদের মধ্যে সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকরাও রয়েছেন।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উপ-মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সর্বশেষ যারা দেশে এসেছেন তাদের কোভিড-১৯ নেগেটিভ সার্টিফিকেট থাকায় কাউকেই প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হয়নি।

প্রসঙ্গত, করোনার মহামারি শুরুর পর থেকেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আটকে পড়াদের ফেরাতে বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করছে বিমান বাংলাদেশ। এর আগে কুয়েত, কাতার, মালদ্বীপ, ভারত, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও অন্যান্য দেশ থেকে বাংলাদেশিদের ফেরত আনা হয়েছে। সেইসঙ্গে এই কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

পাঠাও’র সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাহিমের ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার
                                  

দেশের বহুল ব্যবহৃত রাইড শেয়ারিং অ্যাপ পাঠাও’র সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহ খুন হয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরের ম্যানহাটন এলাকার নিজ অ্যাপার্টমেন্ট থেকে তার ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গতকাল মঙ্গলবার ফাহিমের লাশ পায় নিউইয়র্ক পুলিশ। সেখানকার ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, ‘ফাহিমের শরীরের হাত-পা, মাথা সবকিছু খণ্ড-বিখণ্ড ছিল। আমরা এগুলো পেয়েছি।’

পাঠাওয়ের সহপ্রতিষ্ঠাতার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন তার আত্মীয় আতাউর বাবুল। তিনি বলেন, ‘ফাহিমের বোন তার খোঁজ না পেয়ে ৯১১ ফোন করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।’

গত বছর ২.২ মিলিয়ন ডলার দিয়ে ম্যানহাটনের ডাউনটাউনে একটি অ্যাপার্টমেন্ট কেনেন ফাহিম। তার বাবার নাম সালেহ উদ্দিন। গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামে।

যুক্তরাষ্ট্রের বেন্টলি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইনফরমেশন সিস্টেম পড়াশোনা করতেন ফাহিম। নাইজেরিয়া আর কলম্বিয়াযতের তার দুটি রাইড শেয়ারিং অ্যাপ কোম্পানি রয়েছে।

ইতালি ফিরলেন ১৩৭২ বাংলাদেশি
                                  

ইতালিতে করোনাভাইরাসের মহামারি দেখা দিলে দেশে ফিরে আসেন অনেক বাংলাদেশি প্রবাসী। এরপর ফ্লাইট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আর ফিরে যেতে পারেননি তারা। এদিকে ইতালিতে বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি উন্নতির দিকে। ফের স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফিরতে শুরু করেছে মানুষ।

অন্যদিকে বাংলাদেশে ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করেছে মহামারির প্রাদুর্ভাব। পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় আজ বৃহস্পতিবার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইটে ইতালি ফিরে গেলেন আরো ২৭৬ জন বাংলাদেশি।

দুপুর ১২টার দিকে বিশেষ এই ফ্লাইটটি ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ইতালির রোমের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। বিমানবন্দর সূত্র গণমাধ্যমকে তথ্যটি নিশ্চিত করেছে। এ নিয়ে বিমানের বিশেষ পাঁচটি ফ্লাইটে এখন পর্যন্ত ১ হাজার ৩৭২ প্রবাসী ইতালিতে ফিরে গেছেন।

জানা গেছে, ফ্লাইটের যাত্রীরা সবাই দীর্ঘদিন যাবত ইতালিতে বসবাস করছেন। সেখানে মহামারি দেখা দিলে দেশে ফিরে আসেন তারা। এখন পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় ইতালিতে ফিরে যাওয়ার জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন। সেই প্রেক্ষিতে তাদের জন্য বিশেষ এই ফ্লাইটটি পরিচালনা করা হয়।

তাদের বেশিরভাগই সেখানের গ্রিন কার্ড পাওয়া নাগরিক। এর আগে গত ১২ জুন ফিরে যাওয়া ২৮৭ জনের মধ্যে একজনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত করা হয়েছে। তবে সামাজিক নিরাপত্তার স্বার্থে তার পরিচয় প্রকাশ করেনি ইতালির হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

ইতালিতে মহামারি করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত ২ লাখ ৪০ হাজার ৭৬০ জন মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন। এদের মধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন ৩৪ হাজার ৭৮৮ জন। বিপরীতে সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৯০ হাজার ৭১৭ জন। সেখানে নতুন করে সংক্রমিত হওয়ার সংখ্যাও কমে এসেছে।

আবুধাবি থেকে দ্বিতীয় ধাপে ফিরলেন ১৫২ বাংলাদেশী
                                  

করোনাভাইরাসের কারণে আবুধাবিতে আটকা পড়া আরো ১৫২ বাংলাদেশী নাগরিক দেশে ফিরেছেন।

বাংলাদেশী যাত্রীদের বহনকারী ইউএস-বাংলার একটি বিশেষ ফ্লাইট বুধবার সকাল ৮টা ৫০ মিনিটে ঢাকায় অবতরণ করে।

আবুধাবিতে আটকা পড়া বাংলাদেশীদের ফিরিয়ে আনার সুবিধার্থে বাংলাদেশ বিমানবাহিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের তত্ত্বাবধানে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফটের মাধ্যমে বিশেষ ফ্লাইটটি পরিচালনা করেছে।

আবুধাবি থেকে আসা সব যাত্রী করোনাভাইরাস নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে ভ্রমণ করেছেন।

প্রসঙ্গত, কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবের কারণে প্রায় চার মাস ধরে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিভিন্ন শহরে আটকা পড়েছিলেন বাংলাদেশী অনেক নাগরিক।

এর আগেও কোভিড-১৯ এর জন্য চেন্নাই, কলকাতা, দিল্লি, কুয়ালালামপুর, ব্যাংকক, আবুধাবি ও দুবাইতে আটকা পড়া বাংলাদেশী নাগরিকদের বিভিন্ন সময়ে ফিরিয়ে আনতে বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করেছে ইউএস-বাংলা।

 
 
সৌদিতে চাকরি হারানোর ঝুঁকিতে লাখো বাংলাদেশি
                                  

মধ্যপ্রাচ্যে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার সৌদি আরব। দেশটিতে বর্তমানে বিভিন্ন সেক্টরে কর্মরত রয়েছেন প্রায় ২২ লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক। করোনা ভাইরাস মহামারীর কারণে গত তিন মাসে লাখেরও বেশি মানুষের সে দেশে যাওয়া আটকে গেছে। এদের অর্ধেকেরও বেশি ছুটি কাটাতে দেশে এসে আর ফিরতে পারেননি।

বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকের হিসাব অনুযায়ী, চলতি বছর ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি থেকে মার্চে ফ্লাইট চলাচল বন্ধের আগ পর্যন্ত বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে দুই লাখের বেশি অভিবাসী শ্রমিক ফেরত এসেছেন। তবে ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি থেকে মার্চে ফ্লাইট চলাচল বন্ধের আগ পর্যন্ত সৌদি আরব থেকে ৪১ হাজারের মতো শ্রমিক দেশে ফিরেছেন। পরে চার্টার্ড বিমানে ফিরেছেন আরও ১৩ হাজারের বেশি। এদেরও একটি বড় অংশ সৌদি আরব থেকে আসেন। এ ছাড়া গত তিন মাসে সৌদি আরবে যাওয়ার কথা ছিল এমন শ্রমিকের সংখ্যা ৫০ হাজারের বেশি।

বাংলাদেশ থেকে গড়ে ৫০-৬০ হাজারের মতো শ্রমিক প্রতি মাসে বিদেশে কাজের জন্য যান। তাদের মধ্যে সবচেয়ে বড় অংশটি যান সৌদি আরবে। দেশটিতে গত জানুয়ারি মাসেও গেছেন অন্তত ৫২ হাজার, ফেব্রুয়ারিতে ৪৪ হাজার আর মার্চে ফ্লাইট বন্ধের আগ পর্যন্ত গেছেন ৩৮ হাজার।

 

 

সম্প্রতি সৌদি আরবের ইংরেজি দৈনিক সৌদি গেজেটে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, মহামারীর কারণে এ বছর সৌদির শ্রমবাজারে ১২ লাখ বিদেশি কর্মী চাকরি হারাবেন। একটি স্থানীয় গবেষণা সংস্থার বরাত দিয়ে প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, নির্মাণ খাত, পর্যটন (হজ), রেস্তোরাঁসহ বিভিন্ন খাতে এই চাকরিচ্যুতি ঘটতে পারে।

বাংলাদেশ সরকারের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যে সৌদি আরবের রিয়াদ দূতাবাস এবং জেদ্দা কনস্যুলেট জেনারেলের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছে, যেন সেখানে বাংলাদেশি কর্মীরা বিপদে না পড়েন। তিনি জানান, যাদের বৈধ পাসপোর্ট এবং আকামা রয়েছে, তাদের চুক্তি যেন বহাল থাকে সেজন্য জেদ্দা-রিয়াদে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন বাংলাদেশের কর্মকর্তারা। বিষয়টি নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ আন্তঃমন্ত্রণালয় আলোচনা চলছে।

করোনার কারণে সৌদি আরবে কর্মসংস্থান হুমকির মুখে পড়েছে। এ অবস্থায় করণীয় সম্পর্কে অভিবাসন বিশেষজ্ঞরা বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছেন। সবার আগে সুস্থ থাকতে হবে। করোনা সংক্রমণ থেকে নিরাপদ থাকতে হবে, শারীরিক সুস্থ থাকার জন্য স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে হবে। সুস্থ না থাকলে সৌদি আরবসহ কোনো দেশেই বিমান ভ্রমণ করা যাবে না এবং গেলেও চুক্তি বহাল থাকবে না; আতঙ্কিত হওয়ার প্রয়োজন নেই। মানসিকভাবে সুস্থ থাকার চেষ্টা করতে হবে; বর্তমান পরিস্থিতিতে সংশ্লিষ্ট এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ রাখুন, হালনাগাদ তথ্যের দিকে চোখ রাখুন; নতুন কোনো দক্ষতা অর্জনের চেষ্টা করুন এবং বিদেশে শ্রমিক হিসেবে নিজের অধিকার সম্পর্কে জানুন।

সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফিরলেন ২৬২ বাংলাদেশি
                                  

করোনা ভাইরাসের কারণে দেশের বিমানবন্দর বন্ধ থাকায় সিঙ্গাপুরে আটকে ছিলেন অনেক বাংলাদেশি। তাদের মধ্যে ২৬২ জনকে ফিরিয়ে এনেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইট।বুধবার রাতে বিমানের বিশেষ (চার্টার) ফ্লাইটটি ২৬২ বাংলাদেশিকে নিয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

বিমানবন্দর সূত্র জানায়, আগতরা সিঙ্গাপুরে চাকরি হারানো শ্রমিক, পর্যটক, সেখানে চিকিৎসা করাতে যাওয়া রোগী এবং শিক্ষার্থী। সবাই হেলথ ও করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে ফিরেছেন। তাদের ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, করোনার কারণে ভারত, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, মালদ্বীপ, লন্ডনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আটকে থাকা বাংলাদেশিদের বিশেষ ফ্লাইটে ফিরিয়ে আনছে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী উড়োহজাহাজ সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিক নিয়োগ আপাতত স্থগিত
                                  

স্থানীয়দের কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিতে বিদেশি শ্রমিক নেওয়া আপাতত স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছে মালয়েশিয়া। গতকাল সোমবার দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানান এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন।

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মালয়েশিয়া সফল হলেও টানা ‘মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার’ চলার কারণে বিপর্যস্ত অর্থনীতি চাঙ্গা করার পদক্ষেপের অংশ হিসেবে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে মালয়েশিয়ার সরকার। এর ফলে বাংলাদেশ-নেপালসহ বেশ কয়েকটি দেশ থেকে শ্রমিক নেওয়ার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আপাতত স্থগিত হয়ে গেল।

মানবসম্পদ উন্নয়নের জন্য মন্ত্রী বলেন, এ বছর বিদেশ থেকে আর কোনো শ্রমিক আনা হবে না। তবে বিদেশিরা পর্যটক ভিসায় আসতে পারবেন।

তিনি আরও বলেন, ‘প্রায় দুই মিলিয়ন বিদেশি শ্রমিক রয়েছে আমাদের দেশে, আমরা চাচ্ছি স্বদেশীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজের সুযোগ তৈরি করে দিতে। এ বছর আমরা এটি পর্যবেক্ষণ করবো, কতটা ফলপ্রসূ হচ্ছে সেটি দেখে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

স্থানীয়দের চাকরি বাছাই না করে যেকোনো ধরনের চাকরি করারও পরামর্শ দেন মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানান। এ সময় বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস কাটিয়ে উঠলে যেকোনো সময় সিদ্ধান্তের পরিবর্তন আসতে পারে বলেও জানান তিনি।

মালয়েশিয়ায় অবৈধ শ্রমিকদের আবারো বৈধতা দেয়ার চিন্তা
                                  

মালয়েশিয়া সরকার দেশটিতে অবৈধভাবে অবস্থানরত বিদেশী শ্রমিকদের কিভাবে আবারো বৈধতা দেয়া যায় সে ব্যাপারে চিন্তা-ভাবনা শুরু করেছে। যেখানে মধ্যেপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব, কুয়েত, কাতার, ওমানসহ অন্যান্য দেশ থেকে বৈধ-অবৈধ শ্রমিকদের দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে, সেখানে মালয়েশিয়া সরকার করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মহামারীর সময়ে দেশটিতে অবৈধভাবে অবস্থানরত বিদেশী শ্রমিকদের বৈধতা দেয়ার বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা শুরু করেছে।

মালয়েশিয়ার যেসব নিয়োগকারী কোম্পানি করোনাভাইরাসের কারণে অর্থনৈতিক সঙ্কটে পড়ে শ্রমিক রাখার সমক্ষতা হারিয়েছে, তাদের যাতে দেশে ফেরত না পাঠিয়ে মালয়েশিয়ায় অন্য কোম্পানিতে চাকরির সুযোগ দেয়ার লক্ষ্যে স্থানান্তর করা যায় (ট্রান্সফার) সে ব্যাপারে দেশটির লেবার মিনিস্ট্রি নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর ফলে চাকরি হারানো লাখ লাখ বাংলাদেশীসহ বিদেশী শ্রমিককে আর মালয়েশিয়া থেকে নিজ দেশে ফিরতে হচ্ছে না বলে মনে করছে দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশনসহ অন্যান্য দেশের দূতাবাস সংশ্লিষ্টরা। 

গতকাল সোমবার মালয়েশিয়ার ব্যবসায়ী কমিউনিটির একাধিক নেতা নাম না প্রকাশের শর্তে নয়া দিগন্তকে বলেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি শুরুতে আতঙ্ক ছড়ালেও মালয়েশিয়ান সরকারের কঠোর লকডাউন পরিকল্পনা মানার কারণে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তবে এই ভাইরাসের কারণে মালয়েশিয়ার অর্থনৈতিক পরিস্থিতি নাজুক অবস্থায় চলে গেছে। ইতোমধ্যে দেশটিতে থাকা নামীদামি কোম্পানিসহ বহু কোম্পানি দেউলিয়া হয়েছে। অনেক কোম্পানি বন্ধ হয়েছে। এতে এসব কোম্পানিতে কর্মরত লাখ লাখ বিদেশী (বৈধ-অবৈধ) শ্রমিক চাকরি হারিয়ে এখন বেকার হয়ে পড়েছেন। এদের অনেকে এখন খুব কষ্টের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। এমতাবস্থায় মালয়েশিয়ার লেবার (শ্রম) মিনিস্ট্রি থেকে চাকরি হারিয়ে বেকার হওয়া বিদেশী শ্রমিকদের বিষয়ে সুসংবাদের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে যে, তাদেরকে অন্য কোম্পানিতে স্থানান্তর হওয়ার সুযোগ দিয়েছে সরকার। এখনো সত্য মিথ্যা জানি না। যদি এমনটি হয় তাহলে তো অনেক ভালো হবে। এসব শ্রমিকদের দেশে ফেরত যেতে হবে না। 

এক প্রশ্নের উত্তরে একজন ব্যবসায়ী জানান, শুনছি আবারো মালয়েশিয়া সরকার অবৈধ শ্রমিকদের বৈধতা (রি হায়ারিং) দেয়ার বিষয়ে চিন্তাভাবনা শুরু করেছে। তবে এটি কিভাবে এবং কবে থেকে শুরু হতে পারে সেটি আমরা জানতে পারিনি। 

গতকাল সোমবার বিকেলে মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মুহ. শহীদুল ইসলাম এর সাথে এসব বিষয়ে বক্তব্য নিতে যোগাযোগ করা হলে তিনি টেলিফোন ধরেননি। ক্ষুদেবার্তা পাঠানোর পরও তিনি কোনো উত্তর দেননি। তবে হাইকমিশনের ঊর্ধ্বতন একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে ইতোমধ্যে মালয়েশিয়ায় বহু কোম্পানি দেউলিয়া হয়ে গেছে। অনেকগুলো বন্ধের পথে রয়েছে। তাহলে বেকার হওয়া শ্রমিকদের কী হবে ? তারা কি দেশে ফেরত চলে যাবে? এই প্রক্রিয়ায় আরো অনেক দেশের শ্রমিক বেকার হয়ে পড়েছে দেশটিতে। এরমধ্যে বাংলাদেশী শ্রমিকের সংখ্যাই বেশি। এই অবস্থায় মালয়েশিয়ার লেবার মিনিস্ট্রির সাথে শ্রমিক আমদানি করা দেশগুলোর দূতাবাস ও হাইকমিশনের সাথে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

ওই বৈঠকের মধ্যমনি বাংলাদেশের হাইকমিশনার মুহ. শহীদুল ইসলাম লেবার মিনিস্ট্রিকে বোঝাতে সক্ষম হয়েছেন, এসব শ্রমিকদের দেশে ফেরত না পাঠিয়ে অন্য চালু থাকা কোম্পানিতে ট্রান্সফারের সুযোগ দেয়া হলে তখন অসহায় শ্রমিকদের আর দেশে ফিরে যেতে হবে না। বিষয়টি বিবেচনা করে সেদেশের লেবার মিনিস্ট্রি তিন দিন আগে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়ে জানায়, বন্ধ হওয়া কোম্পানির শ্রমিকরা অন্য কোম্পানিতে স্থানান্তর হতে পারবে। মূল কথা হচ্ছে যে সমস্ত নিয়োগকর্তা শ্রমিক রাখার সক্ষমতা হারিয়ে ফেলেছে তাদেরকে অন্য কোম্পানিতে স্থানান্তর করা যাবে। এ নিয়ে শ্রমিকরা স্থানান্তরের নিয়ম নেমে লেবার মিনিস্ট্রিতে আবেদন করতে পারবে। লেবার মিনিস্ট্রি অফিসিয়ালি সিদ্ধান্তটি নিলেও আমাদেরকে এখনো জানায়নি। অপর এক প্রশ্নের উত্তরে ওই কর্মকর্তা বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে অনেক মালয়েশিয়ান চাকরি হারিয়েছে। এরমধ্যে বাংলাদেশী শ্রমিকের সংখ্যা বেশি। এ জন্য মন্ত্রণালয় ও হাইকমিশনের প্রচেষ্টায় অবশেষে আমরা শ্রমিকদের দেশে ফেরত পাঠানোর কার্যক্রম ঠেকাতে সক্ষম হয়েছি। নতুন করে মালয়েশিয়ায় রি-হায়ারিং সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তরে তারা বলেন, এ নিয়ে এখনই মিডিয়াতে কথা বলার সময় আসেনি। তবে আমাদের সব ধরনের কার্যক্রম আমরা চালিয়ে যাচ্ছি।

উল্লেখ্য এর আগে পৌনে তিন লাখ অবৈধ বাংলাদেশী শ্রমিককে বৈধ হওয়ার সুযোগ দিয়েছিলেন মাহাথির মোহাম্মদ সরকার। এবারো বর্তমান সরকার কয়েক লাখ অবৈধ বিদেশী শ্রমিককে রি-হায়ারিং এর মাধ্যমে বৈধ হওয়ার সুযোগ দিতে যাচ্ছে। এমনটি মনে করছেন হাইকশিনের দায়িত্বশীলরা।

সৌদিতে বাংলাদেশি প্রকৌশলীর করোনায় মৃত্যু
                                  

সৌদি আরবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আবদুল মালেক (৫৯) নামে এক বাংলাদেশি প্রকৌশলী। গতকাল শুক্রবার রিয়াদ শহরে একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

আব্দুল মালেক লক্ষীপুরের কমলনগর উপজেলার চরলরেন্স ইউনিয়নের হাজিগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা ছিলেন।

এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন মালেকের শ্যালক মাহাবুবুল আলম দোলন। তিনি জানান, ৩৭ বছর ধরে সৌদি আরবের রিয়াদে একটি ইলেকট্রনিক্স কোম্পানিতে কাজ করতেন প্রকৌশলী আবদুল মালেক। কয়েকদিন আগে তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার তিনি মারা যান। ইসলামি নিয়ম অনুযায়ী রিয়াদে তাকে দাফন করা হবে।

মালেকের স্ত্রী, এক ছেলে ও দুই মেয়ে বাংলাদেশে বসবাস করেন।

সৌদি আরব-কাতারে বাড়ছে করোনা রোগী, ঝুঁকিতে প্রবাসীরা
                                  

সৌদি আরবে আজ শুক্রবার নতুন করে তিন হাজার ৯২১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো এক লাখ ১৯ হাজার ৯৪২ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ৩৬ জন। এর ফলে দেশটিতে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৮৯৩ জনের মৃত্যু হলো। এর মধ্যে ২৮৯ জন প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছেন বলে স্থানীয় সাংবাদিকেরা জানিয়েছেন।

এদিকে, কাতারে একদিনে নতুন করে এক হাজার ৫১৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। কাতারে এ পর্যন্ত ৭৬ হাজার ৫৮৮ জন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৫৩ হাজার ২৯৬ জন।

এছাড়া আজ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক ব্যক্তি মারা গেছে। এই নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ৭০ জনে। পার্সটুডে

আজ কাতার থেকে ফিরছেন আটকেপড়া ৪১৪ বাংলাদেশি
                                  

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে কাতারে আটকেপড়া ৪১৪ জন বাংলাদেশি আজ বুধবার দেশে ফিরছেন। সন্ধ্যায় দোহার হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের (ডি৭৭৭-৩০০বোয়িং) বিশেষ ফ্লাইটটি স্বাস্থ্যবিধি মেনে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবে।

কাতারস্থ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের কান্ট্রি ম্যানেজার রেজাউল আহসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত বুধবার (৩ জুন) বিশেষ ফ্লাইটে কাতার থেকে বাংলাদেশে প্রত্যাবর্তনের জন্য কাতারস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস এক জরুরি নোটিশ আহ্বান করেন। ওইসময় অনলাইনের মাধ্যমে সর্বমোট ৪১৯ জন বাংলাদেশি দেশে ফেরার আবেদন করেন। তাদের মধ্যে ৪১৪ জন দেশে ফেরার জন্য বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের টিকিট সংগ্রহ করেছেন।

কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদ বলেন, ‘কাতার সরকার ও বাংলাদেশ সরকারের অনুমোদনক্রমে আমরা প্রথম ধাপে ৪১৪ জন বাংলাদেশি নাগরিককে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ ফ্লাইটে দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছি। সতর্কতা অবলম্বনে যেসব বিমানযাত্রী দেশে যাবেন তাদের অবশ্যই কাতার থেকে ফ্রি করোনাভাইরাসমুক্ত প্রত্যয়নপত্র নিয়ে যাবেন, না হয় দেশে ১৪ দিন সরকারি কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।’

বিশ্বব্যাপী করোনা সংক্রমণের পর বিভিন্ন দেশের লকডাউনের কারণে আকাশে পথে বিমান চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে বিভিন্ন দেশে আটকেপড়া বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনতে কাজ করছে বাংলাদেশ সরকার।

কুয়েতে রিমান্ডে বাংলাদেশি সাংসদ কাজী শহীদ ইসলাম ওরফে পাপুল
                                  

মানবপাচারের অভিযোগে কুয়েতে গ্রেপ্তার হয়েছেন লক্ষীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহীদ ইসলাম ওরফে পাপুল। এবার তাকে রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দেওয়া হয়েছে কুয়েতের পাবলিক প্রসিকিউটরের পক্ষ থেকে। দেশটির সিআইডির আবেদনের প্রেক্ষিতে গতকাল এই আদেশ দেওয়া হয়। খবর দুবাইয়ের প্রভাবশালী সংবাদপত্র গালফ নিউজের।

গত শনিবার এমপি পাপুলকে আটক করে কুয়েতের সিআইডি (ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট)। এতদিন সিআইডির হেফাজতে রেখেই তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এবার অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে রিমান্ডে নেওয়া হল। জানা যায়, তিনি প্রাথমিকভাবে মানবপাচার ও অবৈধ মুদ্রা পাচারের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন।

শুরুতে পাঁচ অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে কুয়েতের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তারা প্রত্যেকেই সাংসদ পাপুলকে ৩ হাজার দিনার করে দিয়েছেন। এছাড়া প্রতিবছর ভিসা নবায়নের জন্য মোটা অংকের টাকা দিতে হয় তাকে। ওই পাঁচজনের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী গত শনিবার আটক করা হয় পাপুলকে। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, এমন অসংখ্য মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত এই সংসদ সদস্য।

লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যায় আরো ৪ জন গ্রেফতার
                                  

লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যার ঘটনায় বাংলাদেশ থেকে আরো চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রবিবার রাতে তাদের গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। সোমবার এক ক্ষুদে বার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া ও পাবলিক রিলেশন্স বিভাগ। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করা হবে।

ডিএমপি জানায়, গ্রেফতারকৃতরা স্থানীয় দালাল, দেশীয় পাচারকারী ও লিবিয়া ক্যাম্পের মালিক।

ওই হত্যার ঘটনায় দেশে রবিবার (৭ জুন) পর্যন্ত ২২টি মামলা করা হয়েছে। এসব মামলায় এখন পর্যন্ত ১৭ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের বিভিন্ন ইউনিট।

প্রসঙ্গত, লিবিয়ায় গত ২৮ মে ২৬ বাংলাদেশিকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার পর সম্প্রতি এক জরুরি ভিডিও কনফারেন্সে বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, যারা আমাদের দেশের নাগরিকদের প্রতারণার মাধ্যমে বিদেশে নিয়েছে, যাদের কারণে এই নির্মম মৃত্যু ঘটেছে তাদের একজনকেও ছাড় দেয়া হবে না। দেশে ও বিদেশে যেখানেই লুকিয়ে থাকুক না কেন এদের প্রত্যেককে খুঁজে বের করা হবে।


   Page 1 of 16
     প্রবাসে বাংলা
কাতারে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত বাংলাদেশি প্রবাসীর মৃত্যু
.............................................................................................
সৌদি থেকে ফিরলেন আরো ৪১৭ বাংলাদেশি
.............................................................................................
সংকটের মধ্যেই দুই দেশ থেকে ফিরেছেন ৩০৪ জন বাংলাদেশি
.............................................................................................
জেদ্দা থেকে ফিরলেন ৪০৯ জন
.............................................................................................
পাঠাও’র সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাহিমের ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার
.............................................................................................
ইতালি ফিরলেন ১৩৭২ বাংলাদেশি
.............................................................................................
আবুধাবি থেকে দ্বিতীয় ধাপে ফিরলেন ১৫২ বাংলাদেশী
.............................................................................................
সৌদিতে চাকরি হারানোর ঝুঁকিতে লাখো বাংলাদেশি
.............................................................................................
সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফিরলেন ২৬২ বাংলাদেশি
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় বিদেশি শ্রমিক নিয়োগ আপাতত স্থগিত
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় অবৈধ শ্রমিকদের আবারো বৈধতা দেয়ার চিন্তা
.............................................................................................
সৌদিতে বাংলাদেশি প্রকৌশলীর করোনায় মৃত্যু
.............................................................................................
সৌদি আরব-কাতারে বাড়ছে করোনা রোগী, ঝুঁকিতে প্রবাসীরা
.............................................................................................
আজ কাতার থেকে ফিরছেন আটকেপড়া ৪১৪ বাংলাদেশি
.............................................................................................
কুয়েতে রিমান্ডে বাংলাদেশি সাংসদ কাজী শহীদ ইসলাম ওরফে পাপুল
.............................................................................................
লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যায় আরো ৪ জন গ্রেফতার
.............................................................................................
লিবিয়ায় গুলি করে ২৬ বাংলাদেশিকে হত্যা
.............................................................................................
দেশে ফিরতে হাজারো কুয়েত প্রবাসীর রাতভর বিক্ষোভ
.............................................................................................
কুয়েতে ক্যাম্পে থাকা সাড়ে ৪ হাজার বাংলাদেশি দেশে ফিরতে চান
.............................................................................................
সিঙ্গাপুরে একদিনে ৫৭০ বাংলাদেশীর করোনা শনাক্ত
.............................................................................................
কাতারে করোনায় ৫ শতাধিক বাংলাদেশী আক্রান্ত, মৃত্যু ৩
.............................................................................................
যুক্তরাজ্যের ছায়া মন্ত্রী হলেন টিউলিপ সিদ্দিক
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে সাবেক এমপি সিরাজুল ইসলামের মৃত্যু
.............................................................................................
ব্রিটেনে আটকা পড়া বাংলাদেশীদের হাই কমিশনের সাথে যোগাযোগ করার পরামর্শ
.............................................................................................
করোনাভাইরাস: যুক্তরাষ্ট্রে পিতাসহ মুন্সীগঞ্জের চিকিৎসকের মৃত্যু
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় গৃহবন্দি ৬ লাখ বাংলাদেশি
.............................................................................................
আরও ১৫৫ বাংলাদেশি ফিরলেন ইতালি থেকে
.............................................................................................
জেদ্দায় পাসপোর্ট ভোগান্তিতে বাংলাদেশী প্রবাসীরা
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি যুবক নিহত
.............................................................................................
সৌদি থেকে ফিরলো আরও ১০৯ বাংলাদেশি
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় ২০০ বাংলাদেশিসহ মোট চার শতাধিক বিভিন্ন দেশি আটক
.............................................................................................
বাংলাদেশ থেকে বিনা খরচে কর্মী নেওয়ার পরিকল্পনা মালয়েশিয়ার
.............................................................................................
সৌদি থেকে ফিরলেন ১৫ নারীসহ আরও ১০৬ বাংলাদেশি
.............................................................................................
ইরাকে বাংলাদেশিদের বাংলাদেশ দূতাবাসের সতর্কতা
.............................................................................................
মালয়েশিয়া থেকে দেশে ফেরা অবৈধরা ৫ বছর ব্ল্যাকলিস্টেড
.............................................................................................
প্রবাসে বাড়ছে বাংলাদেশি শ্রমিকের মৃত্যুর সংখ্যা
.............................................................................................
এজেন্সির অভিনব স্টাইলে প্রতারণা এখনো অব্যাহত,নিঃস্ব বিদেশগামী শ্রমিকরা
.............................................................................................
লিবিয়ায় ৩ কর্মীর মরদেহসহ ১৫২ কর্মী দেশে ফিরেছে
.............................................................................................
দুবাইয়ে প্রবাসীদের এনআইডি কার্যক্রম শুরু
.............................................................................................
সৌদি থেকে ফিরলেন আরও ৬১ কর্মী
.............................................................................................
সৌদি থেকে দেশে ফিরলেন আরও ১৫৩ বাংলাদেশি
.............................................................................................
সৌ‌দি আরবে ধরপাকড় : একদিনেই ফিরলেন ২০০ বাংলাদেশী
.............................................................................................
দক্ষিণ আফ্রিকায় ডাকাতের দেওয়া আগুনে বাংলাদেশির মৃত্যু
.............................................................................................
সৌদিতে দুর্ঘটনায় নিহত ৩৬ জনের মধ্যে ১১ জন বাংলাদেশি
.............................................................................................
সৌদি থেকে ২ দিনে দেশে ফিরলেন ২৫০ বাংলাদেশি
.............................................................................................
সৌদি আরবে ছুরিকাঘাতে বাংলাদেশি খুন, গ্রেপ্তার ৩
.............................................................................................
দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ বাংলাদেশি নিহত
.............................................................................................
ওমানে অমানুষিক নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন বরিশালের নার্গিস
.............................................................................................
লন্ডনে ভিসা জালিয়াতির চক্রের চার বাংলাদেশিকে সাজা থেকে অব্যাহতি
.............................................................................................
দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
সম্পাদক মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী

সম্পাদক কর্তৃক ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন,
ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ইউরোপ মহাদেশ বিষয়ক সম্পাদক- প্রফেসর জাকি মোস্তফা (টুটুল)
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
ফোন : ০২-৯৫৬২৮৯৯ মোবাইল: ০১৬৭০-২৮৯২৮০
ই-মেইল : swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD