৩ শাবান ১৪৪১, ঢাকা, রবিবার, ১৫ চৈত্র ১৪২৬, ২৯ মার্চ , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আইন-আদালত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
কুড়িগ্রামের সাবেক ডিসিসহ চারজনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা

মধ্যরাতে স্থানীয় এক সাংবাদিককে ধরে নিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সাজা দেওয়ার ঘটনায় প্রত্যাহার হওয়া কুড়িগ্রামের সাবেক জেলা প্রশাসক (ডিসি) সুলতানা পারভীনসহ জেলা প্রশাসনের চার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা হয়েছে।

একই সঙ্গে কেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, এ জন্য ১০ দিনের মধ্যে জবাব দিতে নোটিশ দেওয়া হয়েছে। জনপ্রশাসন সচিব শেখ ইউসুফ হারুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে ১৫ ও ১৬ মার্চ ওই চার কর্মকর্তাকে কুড়িগ্রাম থেকে প্রত্যাহার করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করা হয়। সুলতানা পারভীন ছাড়া বাকি কর্মকর্তারা হলেন কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসনের সাবেক সিনিয়র সহকারী কমিশনার (আরডিসি) নাজিম উদ্দিন, সহকারী কমিশনার রিন্টু বিকাশ চাকমা ও এস এম রাহাতুল ইসলাম।

১৩ মার্চ মধ্যরাতে কুড়িগ্রামের বাংলা ট্রিবিউনের জেলা প্রতিনিধি আরিফুল ইসলাম রিগ্যানকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে পরে মাদক মামলায় সাজা দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। পরে অবশ্য জামিনে মুক্ত হন তিনি। তাকে নৃশংসভাবে নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ করেন আরিফুল ইসলাম। তার অভিযোগ, জেলা প্রশাসনের আরডিসি (সিনিয়র সহকারী কমিশনার) নাজিম উদ্দিন বাড়িতে ঢুকে তাকে পেটান। আর এনকাউন্টারে দেওয়ারও হুমকি দেন। জেলা প্রশাসকের অনিয়ম নিয়ে প্রতিবেদন লেখার কারণেই তার ওপর নিগ্রহ করা হয় বলে অভিযোগ করেন আরিফুল।

ঘটনার পর জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছিলেন, সাবেক ডিসিকে প্রত্যাহারসহ অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কুড়িগ্রামের সাবেক ডিসিসহ চারজনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা
                                  

মধ্যরাতে স্থানীয় এক সাংবাদিককে ধরে নিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সাজা দেওয়ার ঘটনায় প্রত্যাহার হওয়া কুড়িগ্রামের সাবেক জেলা প্রশাসক (ডিসি) সুলতানা পারভীনসহ জেলা প্রশাসনের চার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা হয়েছে।

একই সঙ্গে কেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, এ জন্য ১০ দিনের মধ্যে জবাব দিতে নোটিশ দেওয়া হয়েছে। জনপ্রশাসন সচিব শেখ ইউসুফ হারুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে ১৫ ও ১৬ মার্চ ওই চার কর্মকর্তাকে কুড়িগ্রাম থেকে প্রত্যাহার করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করা হয়। সুলতানা পারভীন ছাড়া বাকি কর্মকর্তারা হলেন কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসনের সাবেক সিনিয়র সহকারী কমিশনার (আরডিসি) নাজিম উদ্দিন, সহকারী কমিশনার রিন্টু বিকাশ চাকমা ও এস এম রাহাতুল ইসলাম।

১৩ মার্চ মধ্যরাতে কুড়িগ্রামের বাংলা ট্রিবিউনের জেলা প্রতিনিধি আরিফুল ইসলাম রিগ্যানকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে পরে মাদক মামলায় সাজা দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। পরে অবশ্য জামিনে মুক্ত হন তিনি। তাকে নৃশংসভাবে নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ করেন আরিফুল ইসলাম। তার অভিযোগ, জেলা প্রশাসনের আরডিসি (সিনিয়র সহকারী কমিশনার) নাজিম উদ্দিন বাড়িতে ঢুকে তাকে পেটান। আর এনকাউন্টারে দেওয়ারও হুমকি দেন। জেলা প্রশাসকের অনিয়ম নিয়ে প্রতিবেদন লেখার কারণেই তার ওপর নিগ্রহ করা হয় বলে অভিযোগ করেন আরিফুল।

ঘটনার পর জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছিলেন, সাবেক ডিসিকে প্রত্যাহারসহ অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শর্ত ভঙ্গ করলে খালেদা জিয়ার মুক্তির সিদ্ধান্ত বাতিল হয়ে যাবে: এটর্নি জেনারেল
                                  

এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, যে শর্তে বেগম খালেদা জিয়ার সাজা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে তাকে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে সেই শর্ত ভঙ্গ করলে তার জামিন বাতিল হয়ে যাবে।
সুপ্রিমকোর্টে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বুধবার এ কথা বলেন।

সরকার চাইলে খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করতে পারে বলেও মত দেন এটর্নি জেনারেল।
পৃথক দুর্নীতি মামলায় দন্ডিত হয়ে কারা হেফাজতে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে শর্ত সাপেক্ষে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক গতকাল তার গুলশানের বাসায় সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। এরপর সব আইনি ও প্রশাসনিক প্রক্রিয়া শেষে কারা হেফাজতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থা থেকে তিনি মুক্তি পান।
আইনমন্ত্রী মঙ্গলবার জানান, ‘কারাবন্দী বেগম খালেদা জিয়ার সাজা ৬ মাসের জন্য স্থগিত রেখে তাকে ৬ মাসের জন্য মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ সময়ের মধ্যে তিনি নিজ বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে পারবেন। তবে বিদেশে যেতে পারবেন না।’

 

আনিসুল হক বলেছেন, ফৌজদারি কার্যবিধি আইনের ৪০১ (১) ধারা অনুযায়ী বেগম খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করে তাকে ছয় মাসের জন্য মুক্তি দেয়া হচ্ছে। তবে এই ছয় মাস তাকে নিজের বাসায় থাকতে হবে। তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়া পরিবারের সদস্যদের আবেদনের কারণে সরকার ৪০১ ধারায় তার দন্ড স্থগিত করে মুক্তির এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আনিসুল হক বলেন, মানবিক কারণে খালেদা জিয়ার বয়স বিবেচনায় নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশক্রমে তার সাজা স্থগিত করে মুক্তির এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। চিকিৎসার জন্য তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে যেতে পারবেন।

এর আগে বয়স ও অসুস্থতার কারণে তাকে মুক্তি দিতে পরিবারের পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা হয়েছিল। এই আবেদনে সাড়া দিয়ে সরকার মুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দন্ডপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে যান খালেদা জিয়া। নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কারাগার থেকে পরে চিকিৎসার জন্য তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্বিবিদ্যালয় হাসপাতালে রাখা হয়। সেখানেই তার চিকিৎসা হচ্ছিল।
সূত্র : বাসস

সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচন: প্রথমদিনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত
                                  

 সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির (বার) ২০২০-২১ সেশনের নির্বাচনে গতকাল বুধবার প্রথমদিনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এদিন তিন হাজার ৩১ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। গতকাল বুধবার সকাল ১০টা থেকে আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে এ ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

এ নির্বাচন প্রতিদিন সকাল ১০টায় শুরু হয়ে চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। তবে মাঝখানে দুপুর ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত একঘণ্টার বিরতি থাকবে। ১৪টি পদের বিপরীতে এ নির্বাচনে মোট প্রার্থী হয়েছেন ৩১ জন। নির্বাচনে সরকার সমর্থক বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের (সাদা প্যানেল) প্রার্থীরা হলেন- সভাপতি পদে আবু মোহাম্মদ আমিন উদ্দিন (এএম আমিন উদ্দিন), সহ-সভাপতি মো. মনিরুজ্জামান ও সাকিলা রওশন, সম্পাদক শাহ মঞ্জুরুল হক, কোষাধ্যক্ষ ড. মো. এনামুল হক, সহ-সম্পাদক মোহাম্মদ বাকির উদ্দিন ভূঁইয়া ও মোহাম্মদ ইমতিয়াজ ফারুক, সদস্য পদে মো. হুমায়ুন কবির, মো. কামরুজ্জামান, মো. সাফায়েত হোসেন (সজীব), মো. তারজেল হোসেন, মিন্টু কুমার মণ্ডল, মোহাম্মদ মশিউর রহমান ও মোহাম্মদ জগলুল কবির। বিএনপি সমর্থক জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেলে (নীল প্যানেল) প্রার্থীরা হলেন, সভাপতি পদে জয়নুল আবেদীন, সহ-সভাপতি মো. আবদুল জব্বার ভূঁইয়া ও মো. জালাল উদ্দিন, সম্পাদক মো. রুহুল কুদ্দুস কাজল, কোষাধ্যক্ষ রাগীব রউফ চৌধুরী, সহ-সম্পাদক মাহমুদ হাসান ও আইয়ুব আলী আশ্রাফী, সদস্য আমিরুল ইসলাম (খোকন), মার-ই-আম খন্দকার, মোহাম্মদ মোহাদ্দেস-উল-ইসলাম (টুটুল), মো. শফিউর রহমান, মোহাম্মদ মহসিন কবির, মোহাম্মদ শরিফ উদ্দিন (রতন) ও মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন।

এ দুই প্যানেলের বাইরে সভাপতি পদে ইউনুছ আলী আকন্দ, সহ-সম্পাদক পদে ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূঁইয়া ও সদস্য পদে তপন কুমার দাস প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ নির্বাচন পরিচালনার জন্য জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এফ হাসান আরিফের নেতৃত্বে সাত সদস্যের নির্বাচন উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে। সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০১৯-২০ সেশনের নির্বাচনে সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন সরকার সমর্থক সাদা প্যানেলের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন। অন্যদিকে, সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছিলেন বিএনপি সমর্থক নীল প্যানেলের ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন। গত বছরের ১৩ মার্চ ও ১৪ মার্চ ওই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১৪টি পদের মধ্যে সভাপতিসহ ছয়টি পদে সরকার সমর্থক সাদা প্যানেল নির্বাচিত হয়। অন্যদিকে সম্পাদকসহ আটটি পদে বিএনপি সমর্থক নীল প্যানেল নির্বাচিত হয়।

 

ড. ইউনূসের আদালতে ক্ষমা প্রার্থনা, ৭ হাজার টাকা অর্থদন্ড
                                  

শ্রম আইন সংক্রান্ত মামলায় সাড়ে ৭ হাজার টাকা জরিমানা দিয়েছেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস। জরিমানার টাকা পরিশোধ করে আদালতের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন গ্রামীণ কমিউনিকেশনসের চেয়ারম্যান নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস। আদালত তাকে ক্ষমা করে মামলার দায় থেকে খালাস দিয়েছে।

গত ২০ ফেব্রুয়ারি ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতের চেয়ারম্যান রহিবুল আলমের আদালতে তিনি এসে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। এ ধরনের ভুল আর হবে না বলেও তিনি আদালতকে আশ্বাস দেন। তিনি আদালতকে বলেন, এরপর থেকে তিনি শ্রম আইন মেনে চলবেন। এরপর আদালত ড.ইউনুসসহ চার আসামিকে সাড়ে সাত হাজার করে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করে মামলা থেকে খালাস দেন।

এর আগে ৫ জানুয়ারি শ্রম আইনের দশটি নিয়ম লঙ্ঘন করায় ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতে এ মামলা করেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের শ্রম পরিদর্শক (সাধারণ) তরিকুল ইসলাম। মামলায় ড. ইউনূস ছাড়াও তিনজনকে বিবাদি করা হয়।

মামলার অপর বিবাদীরা হলেন- গ্রামীণ কমিউনিকেশনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজনীন সুলতানা, পরিচালক আ. হাই খান ও উপ-মহাব্যবস্থাপক (জিএম) গৌরি শংকর।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, মামলার বাদী ২০১৯ সালের ১০ অক্টোবর গ্রামীণ কমিউনিকেশনসে সরেজমিনে পরিদর্শনে গিয়ে প্রতিষ্ঠানটির ১০টি বিধি লঙ্ঘনের বিষয় দেখতে পেয়েছেন।

এর আগেও গত ৩০ এপ্রিল এক পরিদর্শক প্রতিষ্ঠানটি পরিদর্শন করে ত্রুটিগুলো সংশোধনের নির্দেশনা দেন। এরপর ৭ মে ডাকযোগে এ বিষয়ে বিবাদী পক্ষ জবাব দিলেও তা সন্তোষজনক হয়নি। পরে ২৮ অক্টোবর বর্তমান পরিদর্শক আবারও তা অবহিত করেন। নির্দেশনা বাস্তবায়ন না করে বিবাদীরা ফের সময়ের আবেদন করেন। কিন্তু আবেদনের সময় অনুযায়ী তারা জবাব দাখিল করেননি। এতে প্রতীয়মান হয় যে, বিবাদীরা শ্রম আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল নন।

এমতাবস্থায় বিবাদীরা বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬, বাংলাদেশ শ্রম (সংশোধন) আইন, ২০১৩ ধারা ৩৩ (ঙ) এবং ৩০৭ মোতাবেক দণ্ডনীয় অপরাধ করায় এ মামলা করা হয়। বাসস

অর্থ আত্মসাতের মামলায় ২ ব্যাংক কর্মকর্তা কারাগারে
                                  

মর্টগেজদাতাদের স্বাক্ষর জাল করে ঋণের অঙ্ক বৃদ্ধি এবং সোয়া চার কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের (ইউসিবিএল) দুই কর্মকর্তাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল রোববার দুপুরে যশোরের সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মো. ইখতিয়ারুল ইসলাম মল্লিকের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে বিচারক তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আসামিরা হলেন ইউসিবিএল ব্যাংক যশোর শাখার সাবেক ম্যানেজার ইউসুফ আলী ও খুলনা শাখার বর্তমান অপারেশন ম্যানেজার স্বপন কুমার আইচ। দুদকের পিপি আশরাফুল আলম বিপ্লব জানান, যশোর শহরের বেজপাড়া এলাকার বাসিন্দা আসাদুজ্জামান বাবু তার প্রতিষ্ঠানের নামে ইউসিবিএল ব্যাংক থেকে ২০০৯ সালের ১৮ মে এক কোটি ৪৫ লাখ টাকার ঋণ নেন। ঋণ নেওয়ার জন্য তিনি তার ব্যবসায়িক বন্ধু মামলার বাদী এমএ তুহিন ও তার দুই ভাইয়ের ৫৫ দশমিক ৩২ শতাংশ জমি বন্ধক রাখেন। ৬ মাসের মধ্যে ঋণ পরিশোধ করে সম্পত্তি দায়মুক্ত করতে চুক্তিও করা হয়। কিন্তু আসাদুজ্জামান বাবু ঋণ পরিশোধ না করে ব্যাংক ম্যানেজার ইউসুফ আলী ও ক্রেডিট ইনচার্জ স্বপন কুমার আইচের সহায়তায় মর্টগেজদাতাদের স্বাক্ষর জাল করেন। এই স্বাক্ষর ব্যবহার করে তিনটি ডিড অব এগ্রিমেন্ট অব ফারদার চার্জ সম্পাদন করে ঋণের অঙ্ক এক কোটি ৪৫ লাখ টাকা থেকে চার কোটি ২৫ লাখ টাকায় উন্নীত করেন এবং সব টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেন।

পরে ঋণ পরিশোধের জন্য মর্টগেজদাতাদের কাছে ব্যাংক চিঠি পাঠালে তারা টাকা আত্মসাতের বিষয়টি জানতে পারে। এরপর মর্টগেজদাতা এমএ তুহিন বাদী হয়ে আসাদুজ্জামান বাবুসহ ব্যাংক কর্মকর্তাদের নামে ২০১৮ সালের অক্টোবরে মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে ২০১৯ সালের ৩১ অক্টোবর আদালতে চার্জশিট দাখিল করে দুদক। পিপি আরও জানান, দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর মামলার আসামি ইউসিবিএল ব্যাংকের কর্মকর্তা ইউসুফ আলী ও স্বপন কুমার আইচ গতকাল রোববার আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। বিচারক শুনানি শেষে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। তিনি বলেন, এ মামলার চারটি ধারা অজামিনযোগ্য। ফলে সহজে তারা জামিন পাবেন বলে মনে হয় না।

ভিপি নূরকে ৩ দিনের মধ্যে পাসপোর্ট দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ
                                  

 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ-ডাকসুর সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নূরকে তিন দিনের মধ্যে পাসপোর্ট দিতে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে এ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাসপোর্ট দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে নূরের করা একটি রিট আবেদনে জারি করা রুল যথাযথ ঘোষণা করে বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর হাই কোর্ট বেঞ্চ গতকাল বুধবার এই রায় দিয়েছে।

আদালতে রুলের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মহসীন রশিদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন আবু ইয়াহিয়া দুলাল। রায়ের পর নূরের আইনজীবী সাংবাদিকদের বলেন, রায়ের অনুলিপি পাওয়ার তিন দিনের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ভিপি নূরকে পাসপোর্ট দিতে পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মহসিন রশিদ বলেন, আবেদন করে নির্ধারিত সময়ে পাসপোর্ট না পেয়ে স্বরাষ্ট্র সচিব ও পাসপোর্টের ডিজিকে লিগ্যাল নোটিশ দিয়েছিলেন নূর। তাদের কাছ থেকে কোনো সাড়া না পেয়ে হাই কোর্টে এই রিট করেছিলেন তিনি। গত ১ অগাস্ট এই রিট আবেদন করে নূর সাংবাদিকদের বলেছিলেন, আমি ডাকসু ভিপি হয়েও এ পর্যন্ত চার বার ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীদের দ্বারা আক্রমণের শিকার হয়েছি। সে কারণে আমি আহত। চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য আমাকে বিদেশে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

সে কারণে ২৩ এপ্রিল ইমার্জেন্সি পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেছিলাম যথাযথ নিয়মে। ২ মে পাসপোর্ট দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু রহস্যজনক কারণে দীর্ঘদিন পাসপোর্টটি ঝুলিয়ে রাখা হল। পরে আদালতের শরণাপন্ন হই। তিনি আরও বলেন, পাসপোর্ট একটি মানুষের মৌলিক অধিকার। আমি ঢাবির কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের নির্বাচিত ভিপি। ছাত্রপ্রতিনিধি হিসেবে বাইরের দেশের স্টুডেন্ট ইউনিয়নের সঙ্গে প্রোগ্রাম থাকতে পারে। নেপালের একটি ইউনিভার্সিটির ইনভাইটেশনে গেস্ট ছিলাম। কিন্তু পাসপোর্ট না থাকায় যেতে পারিনি। অক্সফোর্ড ইউনিয়নের সঙ্গে আমাদের প্রোগ্রাম হওয়ার কথা। কিন্তু পাসপোর্ট না থাকায় যেতে পারছি না।

ভিপি নুর আরও বলেন, আমার ভিপি পদের মেয়াদ আগামী বছরের ১১ মার্চ পর্যন্ত। ওই রিটের প্রাথমিক শুনানি করে বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও মোহাম্মদ আলীর হাই কোর্ট বেঞ্চ রুল জারি করে। রুলে নুরুল হক নূরকে কেন জরুরি ভিত্তিতে পাসপোর্ট দিতে নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়। ওই রুলই যথাযথ ঘোষণা করে রায় দিয়েছে উচ্চ আদালত।

আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন ফখরুলসহ ৩ বিএনপি নেতা
                                  

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে সুপ্রিমকোর্ট এলাকায় গাড়ি ভাঙচুর, পুলিশের কাজে বাধা ও হামলার অভিযোগে হওয়া মামলায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায় জামিন পেয়েছেন। হাইকোর্টের দেওয়া আগাম জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর গতকাল বুধবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশ আদালতে তারা আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন তারা। শুনানি শেষে বিচারক তাদের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। বিএনপির আইনজীবী জয়নাল আবেদীন মেজবাহ জামিনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

২০১৯ সালের ২৬ নভেম্বর বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে সুপ্রিমকোর্ট এলাকায় গাড়ি ভাঙচুর, পুলিশের কর্তব্য কাজে বাধা ও হামলার ঘটনায় শাহবাগ থানায় মামলাটি করেন ওই থানার উপপরিদর্শক মতিউর রহমান।

মামলায় মির্জা ফখরুলসহ ২৮ জনকে আসামি করা হয়। এ ছাড়া আসামি করা হয় অজ্ঞাতানামা আরো ৫০০ জনকে। এই মামলায় মির্জা ফখরুলসহ তিন জনকে ২০১৯ সালের ২৮ নভেম্বর হাইকোর্ট অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন। হাইকোর্টের জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নিলেন।

একসাথে ৩ আসামির জবানবন্দি, শরীয়তপুরের বিচারককে হাই কোর্টে তলব
                                  

 একটি হত্যা মামলার তিন আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি একসাথে কিভাবে নিয়েছেন, সে বিষয়ে ব্যাখ্যা জানতে শরীয়তপুরের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীনকে ডেকেছে হাই কোর্ট। আগামী ২৯ মার্চ তাকে আদালতে এসে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে। মামলার দুই আসামির জামিন শুনানিতে গতকাল রোববার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাই কোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

আদালতে জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সাব্বির হামজা চৌধুরী ও রেজাউল করিম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন (বাপ্পী)। ২০১৮ সালের ৫ জুলাই ভ্যানচালক খলিল ফকির হত্যার অভিযোগে দুইজনকে আসামি করে শরীয়তপুরের জাজিরা থানায় মামলা করা হয়। এ মামলার অভিযোগপত্রে রুবেল চৌকিদার, লিটন সানি ও আলী হোসেন বেপারিকে অন্তর্ভুক্ত করার পর ১৯ জুলাই এই তিন আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেন শরীয়তপুরের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীন। পরবর্তীতে আসামি লিটন সানি ও মো. আলী হোসেন বেপারি জামিন চেয়ে হাই কোর্টে আবেদন করেন। ওই জামিন আবেদনের শুনানিতে ধরা পড়ে একই সময়ে তিন আসামির জবানবন্দি নেওয়ার বিষয়টি।

আইনজীবী রেজাউল করিম সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি নজরে আসলে আদালত শরীয়তপুরের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীনকে তলব করেন। একই সঙ্গে দুই আসামি সানি ও মো. আলী হোসেন বেপারিকে ৬ মাসের জামিন দিয়েছেন। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন (বাপ্পী) বলেন, আদালত আগামী ২৯ মার্চ শরীয়তপুরের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিমকে তলব করেছেন।

৭ দেহরক্ষীসহ জিকে শামীমমের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু
                                  

 রাজধানীর গুলশান থানায় অস্ত্র আইনে করা মামলায় আলোচিত যুবলীগ নেতা জিকে শামীমসহ তার ৭ দেহরক্ষীর বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে। গতকাল বুধবার ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালতে সাক্ষ্য দেন র‌্যাব-১ এর ডিএডি মিজানুর রহমান। সাক্ষ্য শেষে তাকে জেরা করেন তাদের আইনজীবী। এ দিন জেরা শেষ না হওয়ায় পরবর্তী জেরার জন্য ৩০ মার্চ নতুন দিন ধার্য করেন আদালত। এর আগে গত ২৮ জানুয়ারি ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলম আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

এ সময় আসামিরা নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করেন। আদালতের পেশকার জুয়েল আহম্মেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে ২৭ অক্টোবর ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা র‌্যাব-১ এর উপপরিদর্শক শেখর চন্দ্র মল্লিক চার্জশিট (অভিযোগপত্র) জমা দেন। জি কে শামীমের সাত দেহরক্ষী হলেন- দেলোয়ার হোসেন, মুরাদ হোসেন, জাহিদুল ইসলাম, সহিদুল ইসলাম, কামাল হোসেন, সামসাদ হোসেন ও আমিনুল ইসলাম। গত ২০ সেপ্টেম্বর গুলশানের নিজ কার্যালয়ে সাত দেহরক্ষীসহ গ্রেফতার হন জি কে শামীম। পরে তার বিরুদ্ধে অস্ত্র, মাদক ও অর্থপাচার আইনে তিনটি মামলা হয়। মামলার এজাহারে শামীমকে চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ, অবৈধ মাদক ও জুয়া ব্যবসায়ী বলে উল্লেখ করা হয়।

খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি দুপুর ২টায়
                                  

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি রবিবার দুপুর ২টায় শুরু হবে।

রাষ্ট্রপক্ষের সময় আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই সময় নির্ধারণ করেন।

এর আগে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় জামিন শুনানি দিনের কার্যতালিকার এক নম্বরে ছিলো।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন (বাপ্পী) বলেন, অ্যাটর্নি জেনারেল এ মামলায় শুনানিতে অংশ নেবেন। তিনি এখন অন্য মামলায় ব্যস্ত থাকায় দুপুর ২টা পর্যন্ত সময় চাওয়া হয়েছে।

এদিকে খালেদা জিয়ার জামিন শুনানিকে কেন্দ্র করে সুপ্রিম কোর্ট এলাকার নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। তল্লাশি ও পরিচয় নিশ্চিত হয়ে জনসাধারণকে আদালতে প্রবেশ করতে দিচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা করে ঢাকার বিশেষ আদালত-৫। এরপর থেকে তিনি কারাবন্দী।

শারীরিক অসুস্থতার কারণে গত বছরের এপ্রিলে চিকিৎসার জন্য তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয়। তখন থেকে তিনি সেখানেই আছেন।

এনামুল বাছিরের পদোন্নতির রুল খারিজ
                                  

পুলিশের বরখাস্ত উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মিজানুর রহমানের কাছ থেকে ঘুষ লেনদেনের অভিযোগ ওঠার পর সাময়িক বরখাস্ত হওয়া দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছিরের পদোন্নতি প্রশ্নে জারি করা রুল খারিজ করেছেন হাইকোর্ট। রুলের চূড়ান্ত শুনানির পর গতকাল বুধবার রায় ঘোষণা করেন বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর হাইকোর্ট বেঞ্চ। আদালতে দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। খন্দকার এনামুল বাছিরের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ কামাল হোসেন। মহাপরিচালক পদে পদোন্নতি পেতে দুদকের নিষ্ক্রিয়তা চ্যালেঞ্জ করে রিটের পর গত ২ জানুয়ারি কেন তাকে প্রমোশন দেওয়া হবে না, এ মর্মে রুল জারি করেন। পরে অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেন যে, দুদকের আটটি মহাপরিচালক পদের মধ্যে একটি তার জন্য খালি রাখতে। এর মধ্যে গত ১১ জুলাই খন্দকার এনামুল বাছিরের জন্য মহাপরিচালক পদ খালি রাখতে আগের দেওয়া আদেশ তুলে নেন হাইকোর্ট। রায়ের পরে খুরশীদ আলম খান বলেন, তার বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে একটি ফৌজদারি মামলা চার্জশিট হয়েছে। এমনকী তাকে বরখাস্তও করা হয়েছে। তাই এখন তার প্রমোশনের প্রশ্নই আসে না। আদালত গতকাল বুধবার রুলটি খারিজ করে দিয়েছেন। গত বছরের ১৬ জুলাই ডিআইজি মিজান ও বাছিরের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। মামলার এজাহারে বলা হয়, খন্দকার এনামুল বাছির কমিশনের দায়িত্ব পালনকালে অসৎ উদ্দেশ্যে নিজে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার আশায় ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন। ডিআইজি মিজানুর রহমানকে অবৈধ সুযোগ দেওয়ার উদ্দেশ্যে ঘুষ হিসেবে নিয়েছেন তার অবৈধভাবে অর্জিত ৪০ লাখ টাকা। গোপন করেছেন ঘুষের ওই টাকার অবস্থান। এর মাধ্যমে তিনি দুর্নীতি প্রতিরোধ আইন ও মানি লন্ডারিং আইনে অপরাধ করেছেন। এ মামলায় গত ৯ ফেব্রুয়ারি অভিযোগ আমলে নিয়েছেন আদালত।

ভুল আসামির সাজা খাটার বিষয়ে অনুসন্ধানের নির্দেশ হাইকোর্টের
                                  

 দুর্নীতির মামলায় মূল আসামি মো. জুয়েল রানার পরিবর্তে মো. আবদুল কাদের নামের অপরজন সাজা খাটছেন বলে দাবি তোলা আসামি পক্ষের আইনজীবীর অভিযোগ অনুসন্ধানের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি মামলাটি আগামী ৫ মার্চ শুনানির জন্য দিন নির্ধারণ করেছেন। বিষয়টি অনুসন্ধান করে দুই সপ্তাহের মধ্যে পুলিশ সুপার, বরিশালের এসবির পুলিশ সুপার, লিগ্যাল অ্যান্ড প্রসিকিউশন শাখা এবং দুদককে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

আসামির জামিন শুনানিতে গতকাল মঙ্গলবার হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে আসামিপক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. মোতাহার হোসেন সাজু। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক, সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল হেলেনা বেগম চায়না, মাহজাবিন রাব্বানী দীপা, কাজী শামসুন নাহার কণা ও ঈশিতা পারভীন। আর দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এস এম আবদুর রউফ। মামলা সূত্রে জানা যায়, ভুয়া ও জাল নথি দিয়ে ব্যাংক গ্যারান্টার করে ইউসিবিএল ব্যাংকের বংশাল শাখা থেকে দুই কোটি ৬৮ লাখ ৭৪ হাজার ২৭৫ টাকা উত্তোলন করে আত্মসাতের অভিযোগ পায় দুদক। পরে দুদকের সহকারী পরিচালক মো. আবদুল ওয়াহিদ ২০০৮ সালের ১১ আগস্ট শাহবাগ থানার মামলা করেন।

ওই মামলায় সাতজনকে আসামি করা হয়। সেখানে মো. জুয়েল রানা ৫ নম্বর আসামি। পরবর্তীতে দুদকের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ বেলাল হোসেন তদন্ত করে ২০০৯ সালের ১ এপ্রিল অভিযোগপত্র দেন। মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালত ২০১৬ সালের ২০ ডিসেম্বর ৫ আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে ১০ বৎসর করে সশ্রম কারাদণ্ড ও ৪০ লাখ টাকা করে জরিমানা করেন। এতে মো. জুয়েল রানারও সাজা হয়। তবে মো. জুয়েল রানা বিচার প্রক্রিয়ার সময় অনুপস্থিত ছিলেন। ২০১৭ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর তাকে গ্রেফতার করা হয়। ওই মামলায় জামিন চেয়ে জুয়েল রানার পক্ষে হাইকোর্টে জামিন আবেদন করা হয়।

শুনানিতে আসামিপক্ষের আইনজীবী জানান, সাজা খাটা আসামি মো. জুয়েল রানা নয় সে মো. আবদুল কাদের। তবে মো. জুয়েল রানা ও মো. আবদুল কাদেরের পিতার নাম ও ঠিকানা একই। পিতার নাম বরিশালের বাবুগঞ্জের ছাতিয়া গ্রামের মৃত আয়নাল ঢালী।

 

চিকিৎসার জন্য বিদেশ যেতে খালেদার জামিন আবেদন
                                  

চিকিৎসার জন্য বিদেশ যেতে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন জমা দেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার তাঁর জামিন আবেদন হাইকোর্টে তোলা হবে। সর্বশেষ গত ডিসেম্বরে আপিল বিভাগে জামিন আবেদন খারিজ করে দেওয়ার পর দুই মাসের মাথায় আবারও জামিন আবেদন করছেন তাঁর আইনজীবীরা। খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন গতকাল মঙ্গলবার বলেন, আগামীকাল (আজ বুধবার) আমরা জামিন আবেদন হাইকোর্টে দাখিল করব। তাঁর আরেক আইনজীবী সগীর হোসেন বলেন, আদালতের দপ্তরে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন জমা দেওয়া হয়েছে।

জামিন আবেদনে বলা হয়, ১২ ডিসেম্বরের পরে তার শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। আবেদনকারী (খালেদা জিয়া) এখন মারাত্মকভাবে (সিরিয়াসলি) অসুস্থ। অন্যের সাহায্য ছাড়া তিনি চলতে পারেন না। এমনকি অন্যের সাহায্য ছাড়া তিনি খাবার এবং ওষুধও নিতে পারেন না। সুতরাং তার বিদেশে, যেমন যুক্তরাজ্যে অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট/থেরাপি (বায়োলজিক এজেন্ট) দরকার। এখন বিদেশে মডার্ন অ্যাডভান্স থেরাপি চিকিৎসার জন্য অসুস্থার নতুন যুক্তিতে জামিন প্রার্থনা করা হয়েছে। পরে তার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, আমাদের তো দেখা করতে দেয় না, আমরা তার (খালেদা জিয়া) আত্মীয় স্বজনের মাধ্যমে জানতে পারলাম, আগে যে অবস্থা ছিল তার থেকে আরো অবনতি হয়েছে। বিশেষ করে তার ডায়াবেটিস এখন ১৪/১৫-এর নিচে নামছে না। এখন তিনি বসতেও পারেন না, খেতেও পারেন না, এই অবস্থা দেখছি। এজন্য আমরা জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা এবং আমাদের নীতি-নির্ধারণী ফোরাম এক সাথে বসে সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিষয়টি নিয়ে আবার আমরা আদালতের কাছে যাবো।

আজকে মোটামুটিভাবে পিটিশনটা রেডি করে এফিডেভিট করেছি। কালকে আদালতের কাছে যাবো, জামিন চাইবো। কোন যুক্তিতে জামিন চাওয়া হয়েছে এমন প্রশ্নে জয়নুল আবেদীন বলেন, আমাদের একটাই কারণ সেটা হলো মানবিক। খালেদা জিয়া অসুস্থ, তাকে বাঁচানো দরকার। আমাদের দেশের আদালত তো মানুষের জন্য। সে কথাগুলো বলবো। তিনি বলেন, আমরা আবেদনে লিখেছি, উনাকে জামিন দিলে চিকিৎসার জন্য দেশের বাহিরে পাঠাবো। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাবন্দী আছেন খালেদা জিয়া। গত বছরের ১ এপ্রিল থেকে অসুস্থ হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন আছেন। বিএনপি শুরু থেকেই এ মামলাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা বলে আসছে। জামিন পাওয়ার যোগ্য হলেও খালেদাকে সরকার জামিন দিচ্ছে না বলে বিএনপির অভিযোগ। ২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিচারিক আদালতের রায়ে খালেদা জিয়াকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়। এই সাজা বাতিল চেয়ে একই বছরের ১৮ নভেম্বর হাইকোর্টে আপিল করেন খালেদা জিয়া। শুনানি নিয়ে গত বছরের ৩০ এপ্রিল হাইকোর্ট ওই আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন। একই সঙ্গে খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রে বিচারিক আদালতের দেওয়া জরিমানার আদেশ স্থগিত করেন। এ ছাড়া বিচারিক আদালতে থাকা মামলার নথি তলব করেন হাইকোর্ট। গত ২০ জুন মামলার নথি হাইকোর্টে আসার পর খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন আদালতে তুলে ধরেন তাঁর আইনজীবীরা। ৩১ জুলাই জামিন আবেদন খারিজ করেন হাইকোর্ট।

হাইকোর্টে জামিন চেয়ে বিফল হয়ে গত ১৪ নভেম্বর আপিল বিভাগে লিভ টু আপিল করেন খালেদা জিয়া। এই জামিন আবেদনের শুনানিতে ২৮ নভেম্বর আপিল বিভাগ খালেদা জিয়ার সবশেষ স্বাস্থ্যগত অবস্থা সম্পর্কে জানাতে মেডিকেল বোর্ড গঠন করে বোর্ডের মেডিকেল রিপোর্ট ৫ ডিসেম্বরের মধ্যে দাখিল করতে নির্দেশ দেন। সেদিন (৫ ডিসেম্বর) মেডিকেল প্রতিবেদন জমা না পড়ায় শুনানি পিছিয়ে ১২ ডিসেম্বর তারিখ ধার্য করেন আদালত। ১২ ডিসেম্বরের শুনানিতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন ছয় সদস্যের আপিল বিভাগ খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন সর্বসম্মতিক্রমে খারিজ করে দিয়েছেন। তবে আদালত খালেদা জিয়ার সম্মতিতে তাঁকে উন্নত চিকিৎসা দিতে বলেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে। এদিকে খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ নেওয়ার সুপারিশ করতে বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানিয়ে আবেদন করা হয়।


আইনি লড়াইয়ে প্রস্তুত দুদক: এদিকে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন পাওয়ার পর দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) জানিয়েছে, তারা আইনি লড়াইয়ে প্রস্তুত রয়েছে। জামিন আবেদন দায়েরের পর গতকাল মঙ্গলবার দুদকের আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, ১৮ ফেব্রুয়ারি বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে খালেদা জিয়ার একটি আবেদন পেয়েছি। তার পক্ষে আবেদন করেছেন আইনজীবী সগির হোসেন লিয়ন। আবেদনের ২৪ নম্বর প্যারায় বলা হয়েছে, ১২ ডিসেম্বরের পরে তার (খালেদা জিয়া) শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। অন্যের সাহায্য ছাড়া তিনি চলতে পারেন না। এমনকি অন্যের সাহায্য ছাড়া তিনি খাবার এবং ওষুধও নিতে পারেন না। সুতরাং তার বিদেশে, তথা যুক্তরাজ্যের মতো দেশে অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট/থেরাপি(বায়োলজিক এজেন্ট) দরকার। কিন্তু আইনগতভাবে দুদক কাউকে ছাড় দেবে না। সে যে-ই হোক। অতীতেও দেয়নি, ভবিষ্যতেও দেবে না। আমরা জামিন আবেদন পেয়ে পর্যালোচনা করেছি। আইনি লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত আছি। এছাড়া আবেদনের ১৯ নম্বর প্যারায় অ্যানেক্স কোর্ট এর কথা বলা হয়েছে। অর্থাৎ বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

 

আবরার হত্যা মামলা দ্রুতবিচার ট্রাইবুনালে নিতে বাবার আবেদন
                                  

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলা দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বরাবর আবেদন করেছেন তার বাবা বরকতউল্লাহ। গতকাল সোমবার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের আইন-২ শাখা বরাবর আবেদনটি ঢাকার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জমা দেওয়া হয়। আবরারের বাবার সঙ্গে এ সময় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে যান ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আব্দুল্লাহ আবু, নিহত আবরার ফাহাদের ছোট ভাই আবরার ফাইয়াজসহ তার স্বজনরা। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, তারা আবেনদনটি যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছে দেবে।

আবেদনে আবরারের বাবা বলেন, মামলাটির বিচারকার্য বিলম্বিত হলে সাক্ষীদের বৈরিতাসহ ন্যায়বিচার বঞ্চিত হওয়ার আশঙ্কা করছি। মামলার বিচার দ্রুত নিষ্পত্তির লক্ষ্যে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হলে দ্রুততার সঙ্গে ন্যায়বিচার নিশ্চিত হবে বলে আমি আশাবাদী। এর আগে গতকাল সোমবার সকালে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে অভিযোগ গঠন শুনানির দিন ধার্য ছিল। তখন আবরারের বাবা বরকতউল্লাহ আদালতে বলেন, মামলাটি দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের জন্য আমরা আবেদন করবো। তাই সময় চাচ্ছি। পরে আদালত অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য আগামী ১৮ মার্চ দিন ধার্য করেন। আবরারের বাবা বরকতউল্লাহ বলেন, বাদীর হাজিরা দিতে আমরা আজ (গতকাল সোমবার) আদালতে এসেছিলাম। আমরা চাই মামলাটি দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর হোক ও দ্রুত এর বিচারকার্য শেষ হোক। সেজন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বরাবর আমরা আবেদন করেছি। আশা করছি, দ্রুততার ভিত্তিতে ট্রাইব্যুনালে এ মামলার বিচার হবে এবং আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা হবে। গত বছর ১৩ নভেম্বর এই মামলায় ২৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) লালবাগ জোনাল টিমের পরিদর্শক মো. ওয়াহিদুজ্জামান। পরে ১৮ নভেম্বর অভিযোগপত্র গ্রহণ করে পলাতক চার আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। পরোয়ানা অনুযায়ী গ্রেফতার করতে না পারায় গত ৩ ডিসেম্বর তাদের সম্পদ ক্রোকের নির্দেশ দেওয়া হয়। সে সময় ৫ জানুয়ারির মধ্যে ক্রোকী পরোয়ানা তামিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। এরপর ৫ জানুয়ারি পলাতক আসামিদের হাজিরে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আদেশ দেওয়া হয়। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের বিষয়ে প্রতিবেদন দাখিলের একদিন আগে মোর্শেদ অমত্য ইসলাম নামে পলাতক এক আসামি আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন।

আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠান। এখন পলাতক আছেন তিন আসামি। তারা হলেন- মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম ও মোস্তবা রাফিদ। এর মধ্যে মোস্তবা রাফিদের নাম এজাহারে ছিল না। পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরও পলাতক বাকি আসামিরা হাজির না হলে তাদের অনুপস্থিতিতেই বিচার শুরু হবে বলে জানান রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী। মামলায় অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে এজাহারভুক্ত ১৯ জন এবং এজাহার বহির্ভূত ৬ জন। গ্রেফতারদের মধ্যে ৮ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এদিকে তদন্ত চলাকালে মামলায় অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে ২১ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তারা হলেন- বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল, সহ-সভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার, ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিওন, উপ-সমাজসেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ, উপ-আইন সম্পাদক অমিত সাহা, শাখা ছাত্রলীগ সদস্য মুনতাসির আল জেমি, মুজাহিদুর রহমান মুজাহিদ, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির ও ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, আবরারের রুমমেট মিজানুর রহমান মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত, মনিরুজ্জামান মনির, আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মাজেদুর রহমান, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, এএসএম নাজমুস সাদাত এবং এস এম মাহমুদ সেতু।

ছাত্রলীগ হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্তদের সংগঠন থেকে বহিষ্কার করেছে। গ্রেফতারদের মধ্যে ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না, অমিত সাহা, মিজানুর রহমান মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত ও এস এম মাহমুদ সেতু ছাড়া বাকি সবাই এজাহারভুক্ত আসামি। এর মধ্যে আটজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। তারা হলেন- ইফতি মোশাররফ সকাল, মেফতাহুল ইসলাম জিওন, অনিক সরকার, মুজাহিদুর রহমান, মেহেদি হাসান রবিন, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভীর, মনিরুজ্জামান মনির ও এএসএম নাজমুস সাদাত। গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলে ছাত্রলীগের কিছু উচ্ছৃঙ্খল কর্মীর হাতে নির্দয় পিটুনির শিকার হয়ে মারা যান বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ। এ ঘটনায় পরদিন নিহতের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় একটি মামলা করেন।

প্রতি এক লাখ মানুষের জন্য বিচারক একজন: আইনমন্ত্রী
                                  

 বাংলাদেশে জনসংখ্যার তুলনায় বিচারপতির সংখ্যা কম বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, ‘বর্তমানে প্রতি এক লাখ মানুষের জন্য একজন বিচারক রয়েছেন। গতকাল সোমবার জাতীয় সংসদের প্রশ্ন-উত্তরে জাতীয় পার্টির (জাপা) মুজিবুল হক চুন্নুর প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উত্থাপিত হয়। আইনমন্ত্রী বলেন, জনসংখ্যার তুলনায় বিচারকের সংখ্যা খুবই কম। যেখানে ভারতে ৫০ হাজার জনে একজন, ইংল্যান্ডে ২০ হাজার জনে একজন, আমেরিকা, ফ্রান্স ও ইতালিতে ১০ হাজার জনে একজন বিচারক রয়েছেন, সেখানে বাংলাদেশে প্রতি একলাখ মানুষের জন্য মাত্র ১ জন বিচারক রয়েছেন।

আইনমন্ত্রীর তথ্য অনুযায়ী, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের ৭ জন বিচারপতির জন্য ২২ হাজার ৫৯৬টি, হাইকোর্ট বিভাগের ৯৭ জন বিচারপতির জন্য ৪ লাখ ৯০ হাজার ৮০০টি এবং নিম্ন আদালতে এক হাজার ৯৬৭ জন বিচারকের জন্য ৩১ লাখ ২৭ হাজার ২৪৩টি মামলা রয়েছে। ফরিদপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মনজুর হোসেনের প্রশ্নের জবাবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, গত ১০ বছরে (২০১০-২০১৯) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে ৩০ হাজার ৩০১ জনকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এ সময়ে নন-ক্যাডার পদে নিয়োগের জন্য ৬৭ হাজার ২০৩ জনকে নিয়োগের সুপারিশ করেছে পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি)। জাতীয় পার্টির মসিউর রহমান রাঙ্গার প্রশ্নের জবাবে ফরহাদ হোসেন জানান, জনস্বার্থে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পদ্ধতি রাষ্ট্রপতির এখতিয়ারভুক্ত বিশেষ ব্যবস্থা। তাই ব্যবস্থা বাতিল করার কোনও পরিকল্পনা আপাতত সরকারের নেই। চুক্তিভিত্তিক নিয়োগককে প্রশাসনিক কার্যক্রম উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী জানান, বিশেষায়িত পদে ও যেসব সরকারি প্রতিষ্ঠান বা সংস্থায় উপযুক্ত যোগ্যতাসম্পন্ন জনবল সংকট রয়েছে সে সব প্রতিষ্ঠান/সংস্থায় উপযুক্ত সামরিক/অসামরিক কর্মকর্তা/কর্মচারী এবং জনসাধারণের মধ্য থেকে বিশেষ যোগ্যতা সম্পন্ন ব্যক্তিকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেওয়ার মাধ্যমে দাফতরিক কার্যক্রম চলমান রাখা হয়। প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ না দিলে স্বাভাবিক দাফতরিক কার্যক্রম ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। জাতীয় পার্টির রুস্তম আলী ফরাজীর প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, দেশে বর্তমানে ১৫৩ জন নারী কর্মকর্তা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হিসেবে কর্মরত আছেন। চট্টগ্রাম-১১ আসনের এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম জানান, সামুদ্রিক মাছের নিরাপদ বিচরণ ও প্রজননের জন্য সরকার বঙ্গোপসাগরের ৬৯৮ বর্গকিলোমিটার এলাকাকে মেরিন রিজার্ভ ঘোষণা করা হয়েছে। ওই এলাকা রক্ষণাবেক্ষণের জন্য নৌবাহিনীকে ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে।

ফেনী-২ আসনের নিজাম উদ্দিন হাজারীর প্রশ্নের জবাবে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী জানান, বর্তমানে দেশ মৎস্য চাষ উপযোগী সরকারি জলাশয়ের সংখ্যা ৪৮ হাজার ৮৩১টি। এসব জলাশয়ের মোট আয়তন তিন লাখ ৮৪ লাখ ১২৪ দশমিক ৫৬ হেক্টর বলে জানান তিনি।

জেলা জজদের আর্থিক ক্ষমতাবৃদ্ধি ও আইনজীবীদের ‘ইথিকস’ থাকা জরুরি: তথ্যমন্ত্রী
                                  

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, আজকের বাস্তবতায় জেলা জজদের ‘আনলিমিটেড’ আর্থিক ক্ষমতা থাকা প্রয়োজন আর সমাজের দুষ্কৃতিকারীরা যাতে আইনের ফাঁক-ফোকর দিয়ে বের হতে না পারে, সেজন্য আইনজীবীদের ‘ইথিকস’ মানা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। চট্টগ্রামের প্রায় ২ হাজার আইনজীবীর সম্মেলনে মন্ত্রী বলেন, জেলা জজের আর্থিক ক্ষমতা মাত্র ৫ লক্ষ টাকা আর চট্টগ্রাম শহরের শহরতলীতেও রাস্তার পাশে এক কাঠা জমির দাম ৫০ লক্ষ টাকা। আমাদের গ্রামে এবং উপজেলা শহরে এককাঠা জমির দাম কমপক্ষে ৫ লক্ষ টাকা।

আর ডিস্ট্রিক্ট জজের আইনি ক্ষমতা হচ্ছে মাত্র ৫ লক্ষ টাকা। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এই ক্ষমতা ৫ কোটি টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধির জন্য নির্দেশনা দিয়েছিলেন কিন্তু হাইকোর্টের একজন আইনজীবী রিট করে সেটি বন্ধ করে রেখেছেন’ উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, গুটিকতক আইনজীবী আছেন, যাদের আইন পেশায় কোনো মামলা নেই। তাদের কাজ হচ্ছে কোনো একটি পাবলিক ইস্যুতে রিট করা, এটিই তাদের মূল ব্যবসা। সেই ধরণের একজন আইনজীবী রিট করে এটিকে বন্ধ করে রেখেছেন। মন্ত্রী বলেন, তিনি সম্প্রতি এই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে আইনমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলেন। আইনমন্ত্রী এই রিটটি সমাধা করে এটি যাতে বাড়ানো যায়, সে বিষয়ে উদ্যোগ নেবার আশ্বাস দেন। তবে, তিনি মনে করেন, আজকের বাস্তবতায় জেলা জজদের ‘আনলিমিটেড’ আর্থিক ক্ষমতা থাকা প্রয়োজন। ড. হাছান আরো বলেন, আমি মনে করি, ‘ইথিকস’ নিয়ে চলা আইনজীবীদের অত্যন্ত প্রয়োজন। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করার সাধারণ মানুষকে আইনি সহায়তা দেয়া, সমাজে দুষ্কৃতিকারীরা যাতে আইনের ফাঁকফোকর দিয়ে বের হতে না পারে, সেজন্য আইনজীবীদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। চট্টগামের জেলা আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে তথ্যমন্ত্রী তার পিতা প্রখ্যাত আইনজীবী ও চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এবং সাবেক জেলা পাবলিক প্রসিকিউটর আলহাজ¦ নূরুচ্ছাফা তালুকদারের নবম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গত রোববার সন্ধ্যায় আয়োজিত স্মরণসভায় বক্তব্যে সমাজ পরিবর্তন এবং আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রেও আইনজীবীদের ভূমিকাকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেন।

কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। নীতি নিয়ে চলা প্রসঙ্গে স্মরণসভার সভাপতি অ্যাডভোকেট ইব্রাহীম হোসেন চৌধুরী বাবুলের উদাহরণ দিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, তার (এডভোকেট ইব্রাহীম) সাথে আমার দীর্ঘদিনের সম্পর্ক। তিনি বলেছেন, তিনি ইয়াবার মামলা করেন না, গ্যাংস্টার, অ্যাসিড নিক্ষেপ ও মানব পাচার মামলা করেন না। জামিনের জন্য আইনি লড়াইয়ে তার সুনাম আছে। কিন্তু এই চারটা বিষয়ের মামলা তিনি করেন না। যদিও এগুলো করলে তিনি অনেক ফিস পাবেন, তবুও করেন না। এসময় চট্টগ্রামসহ দেশের জেলা আইনজীবীদের অন্যতম দাবি, ‘সার্কিট বেঞ্চ স্থাপন করা’ প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমি জানি যে, চট্টগ্রামে একসময় হাইকোর্টে বেঞ্চ স্থাপন করা হয়েছিল। আমাদের সংবিধানে সার্কিট বেঞ্চ স্থাপনের কথা বলা আছে।

কিন্তু ঢাকার আইনজীবীরা এটার বিরোধিতা করেন। সেই কারণে অনেকবার উদ্যোগ নেয়ার পরও এটি সম্ভবপর হয়নি। আমি ব্যক্তিগতভাবে এই দাবির একমত পোষণ করি। এ নিয়ে আমি আইনমন্ত্রীর সাথেও কথা বলেছি। ক’দিন আগে প্রধান বিচারপতির সাথে আলাপ করেছি। হাইকোর্টের আইনজীবীরা সেটা চান না। তবে আমি মনে করি, সাংবিধানিকভাবে যেটা করার কোনো বাধা নেই, সেবিষয়ে আপনাদের জোরালো দাবি নিশ্চয়ই বাস্তবায়ন হবে।


   Page 1 of 75
     আইন-আদালত
কুড়িগ্রামের সাবেক ডিসিসহ চারজনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা
.............................................................................................
শর্ত ভঙ্গ করলে খালেদা জিয়ার মুক্তির সিদ্ধান্ত বাতিল হয়ে যাবে: এটর্নি জেনারেল
.............................................................................................
সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচন: প্রথমদিনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত
.............................................................................................
ড. ইউনূসের আদালতে ক্ষমা প্রার্থনা, ৭ হাজার টাকা অর্থদন্ড
.............................................................................................
অর্থ আত্মসাতের মামলায় ২ ব্যাংক কর্মকর্তা কারাগারে
.............................................................................................
ভিপি নূরকে ৩ দিনের মধ্যে পাসপোর্ট দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ
.............................................................................................
আত্মসমর্পণ করে জামিন পেলেন ফখরুলসহ ৩ বিএনপি নেতা
.............................................................................................
একসাথে ৩ আসামির জবানবন্দি, শরীয়তপুরের বিচারককে হাই কোর্টে তলব
.............................................................................................
৭ দেহরক্ষীসহ জিকে শামীমমের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি দুপুর ২টায়
.............................................................................................
এনামুল বাছিরের পদোন্নতির রুল খারিজ
.............................................................................................
ভুল আসামির সাজা খাটার বিষয়ে অনুসন্ধানের নির্দেশ হাইকোর্টের
.............................................................................................
চিকিৎসার জন্য বিদেশ যেতে খালেদার জামিন আবেদন
.............................................................................................
আবরার হত্যা মামলা দ্রুতবিচার ট্রাইবুনালে নিতে বাবার আবেদন
.............................................................................................
প্রতি এক লাখ মানুষের জন্য বিচারক একজন: আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
জেলা জজদের আর্থিক ক্ষমতাবৃদ্ধি ও আইনজীবীদের ‘ইথিকস’ থাকা জরুরি: তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
জুয়া খেলা নিষিদ্ধে হাইকোর্টের রায় চেম্বারে বহাল
.............................................................................................
সরকারি চাকরি আইনে বরখাস্তের ৪২ ধারার বিধান নিয়ে হাইকোর্টে রুল
.............................................................................................
বিসিএসে সর্বোচ্চ বয়সসীমা নিয়ে হাইকোর্টের রুল
.............................................................................................
২১ ফেব্রুয়ারির পাশাপাশি ৮ ফাল্গুন জাতীয়ভাবে মূল্যায়নের জন্য রিট
.............................................................................................
ঝিনাইদহে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড
.............................................................................................
জামিন জালিয়াতি চক্রের মূলহোতাসহ গ্রেফতার ৪
.............................................................................................
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদণ্ড
.............................................................................................
হবিগঞ্জে অস্ত্র মামলায় ইউপি চেয়ারম্যানের ১০ বছর কারাদণ্ড
.............................................................................................
আরও ৮ জেলার প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ স্থগিত
.............................................................................................
পাহাড় কেটে রাস্তা নির্মাণ: সিডিএকে ১০ কোটি টাকা জরিমানা
.............................................................................................
রাজবাড়ীতে এসআই হত্যা মামলায় ৭ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
সংসদে ট্যারিফ কমিশন বিল পাস
.............................................................................................
ভিপি নুরকে পাসপোর্ট না দেয়ার কারণ জানতে চান হাইকোর্ট
.............................................................................................
ভিপি নুরকে পাসপোর্ট না দেয়ার কারণ জানতে চান হাইকোর্ট
.............................................................................................
বিভিন্ন দেশে উচ্চ আদালতের ভাষা
.............................................................................................
মাদারীপুরে কুপিয়ে হত্যা: হাইকোর্টে একজনের মৃত্যুদণ্ড বহাল, চারজন খালাস
.............................................................................................
৩০ জুন পর্যন্ত জরিমানা ছাড়া যানবাহনের কাগজ হালনাগাদের সুযোগ
.............................................................................................
রিফাত হত্যার তিন সাক্ষীকে জেরা করলেন আসামিপক্ষের ১০ আইনজীবী
.............................................................................................
দুদকের মামলায় গ্রেপ্তার এনু, রিমান্ডে রুপন
.............................................................................................
দেশ গড়ার প্রত্যয়ে ছাত্রদের প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে: আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
দুদকের মামলায় বিএনপির মেয়রপ্রার্থী ইশরাকের বিচার শুরু
.............................................................................................
রিট খারিজ, ৩০ জানুয়ারিই হচ্ছে ঢাকার দুই সিটির ভোট
.............................................................................................
হাসপাতালের তথ্য প্রকাশের ওপর নিষেধাজ্ঞা বাতিল
.............................................................................................
ড. ইউনূসকে শ্রম আদালতে তলব
.............................................................................................
সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘অ্যান্টি র‌্যাগিং স্কোয়াড’ গঠনের নির্দেশ
.............................................................................................
আইনজীবীদের দায় মুক্তির বিধান নিয়ে রুল
.............................................................................................
১৫০ দিনের বেশি সময় ওএসডি করে রাখা অবৈধ: হাইকোর্ট
.............................................................................................
বায়ুদূষণ রোধে ঢাকাসহ পাঁচ জেলায় অবৈধ ইটভাটা বন্ধের প্রতিবেদন হাইকোর্টে
.............................................................................................
অর্থ আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগে এসকে সিনহার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
.............................................................................................
হাইকোর্টের আইনজীবী হতে প্রিলিমিনারি পরীক্ষা দিতে হবে
.............................................................................................
এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন আইন সংশোধনের খসড়া অনুমোদন
.............................................................................................
বাংলাদেশ আইন সমিতির সম্মেলন আজ
.............................................................................................
ফখরুল-খসরু-রিজভীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আদেশ ২২ জানুয়ারি
.............................................................................................
অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে গুলশানে ভ্রাম্যমাণ আদালত
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD