| বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আইন-আদালত -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
২ দিনের রিমান্ডে স্বর্ণ পাচারকারী

 ঢাকার একটি আদালত গতকাল শনিবার মোতালেব নামে এক স্বর্ণ পাচারকারীর দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে। তাকে গত শুক্রবার হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ছয়টি সোনার বারসহ আটক করা হয়। পুলিশ মোতালেবকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন জানালে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিম উদ্দীন এ আদেশ দেন। মোতালেব ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সে ওমানের মাসকট থেকে এখানে আসেন।

বিমানবন্দরের গ্রীন চ্যানেল এরিয়া পার হওয়ার সময় গত শুক্রবার রাত ১১টায় ৬৯৮ গ্রাম ওজনের ছয়টি স্বর্ণের বারসহ শুল্ক প্রতিরোধ দলের সদস্যরা তাকে আটক করে। এ ব্যাপারে শুল্ক আইনে বিমানবন্দর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

২ দিনের রিমান্ডে স্বর্ণ পাচারকারী
                                  

 ঢাকার একটি আদালত গতকাল শনিবার মোতালেব নামে এক স্বর্ণ পাচারকারীর দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে। তাকে গত শুক্রবার হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ছয়টি সোনার বারসহ আটক করা হয়। পুলিশ মোতালেবকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন জানালে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিম উদ্দীন এ আদেশ দেন। মোতালেব ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সে ওমানের মাসকট থেকে এখানে আসেন।

বিমানবন্দরের গ্রীন চ্যানেল এরিয়া পার হওয়ার সময় গত শুক্রবার রাত ১১টায় ৬৯৮ গ্রাম ওজনের ছয়টি স্বর্ণের বারসহ শুল্ক প্রতিরোধ দলের সদস্যরা তাকে আটক করে। এ ব্যাপারে শুল্ক আইনে বিমানবন্দর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

হোসেনি দালানে বোমা হামলা: শিশু আসামির বিরুদ্ধে পৃথক চার্জশিট ২৪ সেপ্টেম্বর
                                  

 রাজধানীর পুরান ঢাকার হোসেনি দালানে পবিত্র আশুরার তাজিয়া মিছিলের প্রস্তুতির সময় বোমা হামলা মামলার শিশু আসামি মাসুদ রানার বিরুদ্ধে পৃথক চার্জশিট দাখিলের জন্য আগামি ২৪ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছেন ট্রাইব্যুনাল। গতকাল সোমবার সন্ত্রাস দমন ট্রাইব্যুনালের ভারপ্রাপ্ত বিচারক মনির কামাল তদন্তকারী কর্মকর্তার আবেদন মঞ্জুর করে এ দিন ধার্য করেন। এ ছাড়া মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের জন্যও একই দিন ধার্য রয়েছে।

ট্রাইব্যুনালের পেশকার রুহুল আমীন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এদিন আসামি মাসুদ রানার বিরুদ্ধে শিশু আইনে পৃথক চার্জশিট দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক শফি উদ্দিন চার্জশিট দাখিল না করে ১৫ দিনের সময়ের আবেদন করেন। সময়ের আবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, চলতি বছরের ৩১ জুলাই আসামি মাসুদ রানা বিরুদ্ধে শিশু আইনে পৃথক চার্জশিট দাখিলের আদেশ প্রদান করেন আদালত। সম্প্রতি গুলিস্তান, মালিবাগ, পল্টন ও খামারবাড়ী মোড়ে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে অনুসন্ধানের কাজ ও পবিত্র আশুরা উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার ডিউটি থাকায় আসামির বিরুদ্ধে পৃথক চার্জশিট দাখিল করা সম্ভব হয়নি। তাই আরও ১৫ দিনের সময়ের আবেদন করছি। মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০১৫ সালের ২৩ অক্টোবর তাজিয়া মিছিলের প্রস্তুতিকালে জেএমবির সদস্যরা হোসেনি দালানে গ্রেনেড হামলা চালায়। এতে দু’জন নিহত ও শতাধিক আহত হন। পরে ওই ঘটনায় চকবাজার থানার এসআই জালাল উদ্দিন সন্ত্রাসবিরোধী আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

২০১৬ সালের ১৮ অক্টোবর ঢাকা মহানগর হাকিম আব্দুল্লাহ আল মাসুদের আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের পরিদর্শক শফি উদ্দিন ১০ আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন। চার্জশিটের সবাই জেএমবির সদস্য বলে উল্লেখ করা হয়। ২০১৭ সালের ৩১ মে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কামরুল হোসেন মোল্লা আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। একই সঙ্গে মামলাটি অষ্টম অতিরিক্ত আদালতে বদলি করা হয়। গত বছরের ১৪ মে মামলাটি অষ্টম অতিরিক্ত আদালত থেকে সন্ত্রাস দমন ট্রাইব্যুনালে বদলি করা হয়। বর্তমানে সন্ত্রাস দমন ট্রাইব্যুনালে মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য দিন ধার্য রয়েছে। মামলার আসামিদের মধ্যে কবির হোসেন, জাহিদ হাসান, রুবেল ইসলাম, আবু সাঈদ, আরমান ও মাসুদ রানা কারাগারে রয়েছেন। এ ছাড়া হাফেজ আহসান উল্লাহ মাসুদ, শাহ জালাল, ওমর ফারুক ও চাঁন মিয়া জামিনে আছেন।

জেলা হাসপাতালে আইসিইউ-সিসিইউ প্রকল্পের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চান হাইকোর্ট
                                  

দেশের সকল জেলা সদর হাসপাতালে ৩০ শয্যার ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ) ও করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ) স্থাপন প্রকল্পের অগ্রগতি জানতে চেয়েছে হাই কোর্ট। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরকে আগামি ২৩ অক্টোবরের মধ্যে এ বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাই কোর্ট বেঞ্চ গতকাল বুধবার এ আদেশ দেয়। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নুর উস সাদিক।

রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী বশির আহমেদ। গত ২১ মে আদালত আইসিইউ-সিসিইউর হালনাগাদ তালিকা চেয়েছিল। ২৬ জুনের মধ্যে সে তালিকা দেওয়ার কথা থাকলেও গত ২৯ জুলাই সে তালিকা দেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক মো. আমিনুল হাসান। প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশের ৪৭টি জেলা সদর হাসপাতালে ৩০ বেডের আইসিইউ-সিসিইউ স্থাপনের কাজ চলছে। আর ১৭টি হাসপাতালে আইসিইউ-সিসিইউ স্থাপনের কাজ প্রক্রিয়াধীন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আদালতকে জানায়, প্রতিটি জেলা সদর হাসপাতালে ৩০ বেডের আইসিইউ ও সিসিইউ স্থাপনের মত জায়গা আছে কিনা এবং প্রয়োজনীয় জনবল আছে কিনা তার তথ্য নেওয়া হচ্ছে। যেখানে জায়গা ও জনবলের সঙ্কট আছে, সেখানে প্রয়োজনীয় জায়গা তৈরি ও জনবল পদায়নের উদ্যেগ নেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি প্রয়োজন এবং অগ্রাধিকার বিবেচনায় যন্ত্রপাতি সরবরাহের পদক্ষেপ নেওয়ার কথাও প্রতিবেদনে বলা হয়।

যেসব জেলা সদর হাসপাতালে আইসিইউ-সিসিইউর কার্যক্রম চালু আছে, তার একটি তালিকাও আদালতে দিয়েছে স্বাস্থ্য অদিদপ্তর। সেখানে বলা হয়, কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ১০টি আইসিইউ ও ৩০টি সিসিইউ বেড চালু আছে। নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতালে আইসিইউ বেড না থাকলেও সিসিইউ বেড আছে দুটি। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে আইসিইউ বেড নেই, ১৫টি সিসিইউ বেড আছে। পাবনা জেলা সদর হাসপতালে চারটি আইসিইউ ও আটি সিসিইউ বেড আছে। ভোলা সদর হাসপাতালে সিসিইউ বেড আছে চারটি। এছাড়া কিশোরগঞ্জ, সিরাজগঞ্চ, মানিকগঞ্জ, নোয়াখালী, পটুয়াখালী, জামালপুর, রাঙামাটি, নেত্রকোনা, নওগাঁ, মাগুরা, চাঁদপুর এবং হবিগঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আইসিইউ-সিসিইউ বেড চালুর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়। হিউম্যান রাইটস লইয়ার্স অ্যান্ড সিকিউরিং এনভায়রনমেন্ট সোসাইটি অব বাংলাদেশের কোষাধ্যক্ষ মো. শাহ আলম গত বছরের জুলাইয়ে এ বিষয়ে একটি রিট করেন। পরে ওই বছরের ২৪ জুলাই হাই কোর্ট সব বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক, ল্যাবেরেটরি ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের চিকিৎসা সংক্রান্ত পরীক্ষার মূল্য তালিকা এবং ফি (উন্মুক্ত স্থানে) পাবলিক প্লেসে প্রদর্শনের নির্দেশ দেয়। এছাড়া ১৯৮২ সালের ‘মেডিকেল প্র্যাকটিস অ্যান্ড প্রাইভেট ক্লিনিকস অ্যান্ড ল্যাবরেটরিস (রেগুলেশন) অর্ডিন্যান্স’ অনুযায়ী নীতিমালা তৈরি এবং তা বাস্তবায়নের জন্য আদেশ পাওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করতে বলা হয়। সেই সঙ্গে রুলও জারি করে হাই কোর্ট। পরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আদেশ বাস্তবায়ন সংক্রান্ত প্রতিবেদন দেয় আদালতে। আদালত তখন দেশের সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিকগুলোতে কতগুলো ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ), করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ) আছে, তার একটি পরিসংখ্যান দিতে বলে।

সেই সঙ্গে আদালত একটি আইসিইউ ও সিসিইউ ইউনিট স্থাপনে কত টাকা খরচ হয়, কী পরিমাণ লোকবল ও বিশেষজ্ঞের প্রয়োজন, সে বিষয়েও প্রতিবেদন দিতে বলে। গত ২১ মে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের (হাসপাতাল ও ক্লিনিক সমূহ) পরিচালক মো. আমিনুল হাসান আদালতে সে প্রতিবেদন দেন। সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিকগুলোতে কতগুলো ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ) ও করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ) আছে, তার একটি তালিকাও তিনি দেন। এরপর আদালত ২৬ জুনের মধ্যে আইসিইউ ও সিসিইউর হালনাগাদ তালিকা চায়। সে তালিকা গত ২৯ জুলাই দাখিল করলেও বৃহস্পতিবার তা আদালতে উপস্থাপন করা হয়।

 

সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২ অক্টোবর
                                  

 সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে দায়ের করা দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য ২ অক্টোবর দিন ধার্য করেছেন আদালত। গতকাল বুধবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দুদকের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েস প্রতিবেদন দাখিলের নতুন এ দিন ধার্য করেছেন।

গত ১১ জুলাই একই আদালত মামলাটির এজাহার গ্রহণ করে তদন্তকারী কর্মকর্তাকে ২৮ আগস্ট প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য এ দিনটি ধার্য করে করেছিলেন। এর আগে গত ১০ জুলাই দুদকের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন বাদী হয়ে কমিশনের জেলা সমন্বিত কার্যালয় ঢাকা-১ এ অর্থপাচার ও দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনে মামলাটি দায়ের করেন। এস কে সিনহা ছাড়া অপর আসামিরা হলেন- ফারমার্স ব্যাংকের (বর্তমান পদ্মা ব্যাংক) সাবেক এমডি একেএম শামীম, সাবেক এসইভিপি গাজী সালাহউদ্দিন, ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট স্বপন কুমার রায়, সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. জিয়াউদ্দিন আহমেদ, ফাস্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট সাফিউদ্দিন আসকারী, ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. লুৎফুল হক, টাঙ্গাইলের বাসিন্দা মো. শাহজাহান, একই এলাকার বাসিন্দা নিরঞ্জন চন্দ্র সাহা, রণজিৎ চন্দ্র সাহা ও তার স্ত্রী সান্ত্রী রায়।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালের নভেম্বর থেকে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর- এ সময়ের মধ্যে সাবেক প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা নিজের ক্ষমতার অপব্যবহার করে অপরাপর আসামিদের সহযোগিতায় জালিয়াতি ও প্রতারণার মাধ্যমে প্রায় চার কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

সিটি করপোরেশনের গাফিলতির কারণে ডেঙ্গুতে এত মানুষের মৃত্যু : হাইকোর্ট
                                  

 ডেঙ্গু প্রতিরোধে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের গাফিলতির কারণে এত মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন, দুই মেয়র ডেঙ্গু নিয়ে শুরুতে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেননি। ডেঙ্গু নিয়ে দুই মেয়রের আচরণ দায়িত্বজ্ঞানহীন। এত মানুষ মারা গেল এসব দায় দুই মেয়র কোনোভাবে এড়াতে পারেন না। গতকাল মঙ্গলবার বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ ডেঙ্গু নিয়ে দুই সিটি কপোরেশনের প্রতিবেদন পেশের ওপর শুনানিকালে এ মন্তব্য করেন। পরে আদালত এ প্রতিবেদনের ওপর শুনানির জন্য অপর বেঞ্চে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেন, যেখানে ডেঙ্গু নিয়ে আগেই রুল জারি করা হয়েছে।

গতকাল আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ, দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পক্ষে সাঈদ আহমেদ রাজা ও উত্তর সিটি করপোরেশনের পক্ষে ছিলেন তৌফিক এনাম টিপু। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার। মশা নিধনে অকার্যকর ওষুধ আমদানিতে দুই সিটি করপোরেশনের কারা জড়িত এবং গাফিলতির বিষয়ে প্রতিবেদন দাখিল করতে আদালত এর আগে নির্দেশ দিয়েছিলেন। সেই মোতাবেক দুই সিটি কপোরেশন প্রতিবেদন নিয়ে আদালতে হাজির হয়। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কপোরেশনের পক্ষে আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা আদালতকে জানান, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অধীনে নতুন ওষুধ আনা হয়েছে। তিনি বলেন, আদালতের নির্দেশে গত ১১ আগস্ট থেকে নতুন ওষুধ ছিটানো শুরু হয়েছে।

২০ আগস্ট থেকে ভারত থেকে আনা নতুন ওষুধ ‘ডেল্টামেথরিন’ ছিটানো শুরু করে। এতে গত কয়েক দিন ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা আগের তুলনায় কমে এসেছে। আদালতের নির্দেশে প্রতিটি ওয়ার্ডে কতজন কাজ করছে, তার তালিকা দিয়েছি। দক্ষিণ সিটিতে মশক নিধনে ৪৭০ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করছে।
আইনজীবী আরো বলেন, দক্ষিণ সিটির পাশাপাশি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ও আদালতে প্রতিবেদন পেশ করেছে।
এ সময় আদালত বলেন, মশার উপদ্রব নিয়ন্ত্রণে আদেশ দেওয়ার পরও সিটি করপোরেশন কার্যকর ব্যবস্থা নিতে পারেনি। প্রতি বছর জনগণের করের টাকা বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে কিন্তু মশা নিয়ন্ত্রণে কোনো ফল পাওয়া যাচ্ছে না। মশা নিয়ন্ত্রণে এর আগে প্লেন থেকে ওষুধ ছিটানো হলেও এখন সে রকম ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। ‘সরকার দুই সিটি করপোরেশনের বাজেট বৃদ্ধি করেছে। সেই বাজেটের টাকা কোথায় যায়? ডেঙ্গু মহামারি আকার ধারণ করতে আর দেরি নেই। তারপরও দুই সিটির মেয়র কীভাবে বলেন, আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই, এটা বিস্ময়কর!’
আদালত বলেন, ‘এর আগে এ মামলার শুনানিতে সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের বলেছিলাম যে সামনে বর্ষা মৌসুম। মশা নিধনে ব্যাপক কার্যক্রম গ্রহণ করুন, যাতে এটা মহামারির আকার ধারণ না করতে পারে। কিন্তু এখন প্রতিনিয়ত গণমাধ্যমে দেখছি ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। সরকার অর্থ বরাদ্দ দিচ্ছে কিন্তু সেটার যথাযথ বাস্তবায়নের দায়িত্ব কার? অবশ্যই সিটি করপোরেশনের।’
হাইকোর্ট বলেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধে দুই সিটি করপোরেশনের গাফিলতির কারণে এত মানুষের মৃত্যু হয়েছে। দুই মেয়র ডেঙ্গু নিয়ে শুরুতে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেননি। ডেঙ্গু নিয়ে দুই মেয়রের আচরণ দায়িত্বজ্ঞানহীন। এত মানুষ মারা গেল! এসব দায় কোনোভাবে দুই মেয়র এড়াতে পারেন না। পরে আদালত এ প্রতিবেদনের ওপর শুনানির জন্য অপর বেঞ্চে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেন, যেখানে ডেঙ্গু নিয়ে আগেই রুল জারি করা হয়েছে। এর আগে মশা নিধনে অকার্যকর ওষুধ আমদানি ও সরবরাহে জড়িতদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি তদন্ত করতে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনকে বিষয়টি তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিয়ে প্রতিবেদন দিতে বলেছেন আদালত।


আদেশের পরে মনজিল মোরসেদ বলেন, ‘সিটি করপোরেশন মশা নিয়ন্ত্রণে যে ব্যবস্থা নিচ্ছে সেটা অকার্যকর। মিডিয়ায় রিপোর্ট এসেছে এই যে ওষুধগুলো দেওয়া হচ্ছে, সে ওষুধগুলোর মধ্যে কার্যকারিতা নেই। তারপরও ওই ওষুধগুলো তারা দিচ্ছে। এখানে ২০ থেকে ২২ কোটি টাকার অর্থনৈতিক সংশ্লিষ্টতা আছে। এগুলো চলেই যাচ্ছে। এগুলো দুর্নীতির মাধ্যমে নেওয়া হচ্ছে। যারা এ কাজগুলো করছে তাদের বিরুদ্ধে সিটি করপোরেশন কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না। পরে আদালত বলেছেন, যেহেতু ডেঙ্গু নিয়ে হাইকোর্টের অপর একটি বেঞ্চ রুল জারি করেছেন। ওই বেঞ্চে এ আবেদনের ওপরও শুনানির আবেদন করেন। এর আগে গত ২ জুলাই এ-সংক্রান্ত রিটের পরিপ্রেক্ষিতে মশা নিধনে কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট। দুই সপ্তাহের মধ্যে এফিডেভিট আকারে অবহিত করতে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত। এরপর দুই সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে গতকাল মঙ্গলবার দুটি প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপন করা হয়।


গত এপ্রিলে বায়ু দূষণ রোধে সিটি করপোরেশন ও পরিবেশ অধিদপ্তর কী পদক্ষেপ নিয়েছে, তা জানতে হাইকোর্টে রিট করেন মনজিল মোরসেদ। ওই রিট আবেদনের রুল বিচারাধীন থাকাবস্থায় আদালতে সম্পূরক আবেদন দেন তিনি। ওই আবেদনে বলা হয়, ঢাকা মহানগরে মশার উপদ্রব বেড়েই চলছে। বাড়ছে ডেঙ্গু রোগী। সিটি করপোরেশন এ ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ নিচ্ছে না। যদি কার্যকর পদক্ষেপ নিত, তাহলে মশার উপদ্রব কমানো সম্ভব হতো।

নোয়াখালীতে হত্যার দায়ে ২ জনের যাবজ্জীবন
                                  

নোয়াখালী সদর উপজেলার ব্যবসায়ী আরিফ হোসেনকে হত্যার দায়ে দুই জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর করে বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া দন্ডবিধির ৪১১ ধারায় দোষী সাবস্ত্য করে দু’জনকেই তিন বছর করে সশ্রম কারাদন্ড এবং ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়। গতকাল রোববার দুপুরে নোয়াখালীর অতিরিক্ত দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ফারুক এ রায় দেন।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন- একই উপজেলার চর দরবেশ গ্রামের আরিফুর রহমান পিয়াস ও মোরশেদ আলী সুমন। তারা দু’জনই পলাতক রয়েছেন। আদালতের বেঞ্চ সহকারী মো. জাকারুল ইসলাম জানান, নিহত ব্যবসায়ী আরিফ পারিবারিকভাবে ভাইদের সঙ্গে জ্বালানি তেলের ব্যবসা করতেন। ২০১৪ সালের ১৭ এপ্রিল তেল বিক্রির বাকি টাকা তোলার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন আরিফ। এ ঘটনায় নিহতের ভাই আমির হোসেন সুধারাম থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

পরের দিন ১৮ এপ্রিল চর দরবেশ গ্রামে আসামি আশিকুরের বসতঘরের পাশের কচুখেত থেকে মাটি খুঁড়ে নিখোঁজ আরিফের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ওই দিনই আমির বাদী হয়ে আরিফুর ও আলীসহ ছয় জনকে আসামি করে সুধারাম থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাডভোকেট মো. বোরহান আহমেদ ও মাহমুদ হাসান এবং আসামিপক্ষে অ্যাডভোকেট হারুনুর রশিদ হাওলাদার ও অ্যাডভোকেট স্বপন চন্দ্র পাল মামলাটি পরিচালনা করেন।

 

শিশু আদালত প্রতিষ্ঠায় সরকারের সদিচ্ছার অভাব রয়েছে: বিচারপতি ইমান আলী
                                  

 শিশু-কিশোরদের অপরাধের বিচারের জন্য শিশু আদালত প্রতিষ্ঠায় সরকারের সদিচ্ছার অভাব রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন সুপ্রিম কোর্ট স্পেশাল কমিটি অন চাইল্ড রাইটসের (এসসিএসসিসিআর) সভাপতি ও আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী। গতকাল শনিবার সুপ্রিম কোর্টের কনফারেনস কক্ষে ‘শিশু আইন-২০১৩’ নিয়ে আয়োজিত বিভাগীয় পরামর্শ সভায় তিনি এ অভিযোগ করেন।

জাতিসংঘের শিশু তহবিলÑইউনিসেফ এবং সুপ্রিম কোর্ট স্পেশাল কমিটি অন চাইল্ড রাইটস যৌথভাবে এ সভার আয়োজন করে। বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী বলেন, ২০১৭ সালের মে মাসে আইনমন্ত্রী পৃথক শিশু আদালত প্রতিষ্ঠার কথা বলেছিলেন। কিন্তু এরপর দুই বছর কেটে গেলেও সেটি বাস্তবায়ন হয়নি। তিনি বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন গরিব রাষ্ট্রেও শিশুদের জন্য আলাদা আদালত রয়েছে। কিন্তু দেশে এখনও এ ব্যবস্থা গড়ে না ওঠায় হতাশা প্রকাশ করেন তিনি। আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ এই বিচারপতি বলেন, শিশু-কিশোরদের অপরাধের বিচারের জন্য আলাদা ‘শিশু আদালত’ হওয়া উচিত। কারণ, শিশুদের বিচার হবে সংশোধনের উদ্দেশে, শাস্তি দেওয়ার উদ্দেশে নয়। শিশু আর প্রাপ্তবয়স্ক অপরাধীর বিচার একরকম নয়। প্রাপ্তবয়স্ক অপরাধীর ক্ষেত্রে শাস্তি দেওয়াই থাকে উদ্দেশ্য। কিন্তু শিশুদের ক্ষেত্রে সেটি নয়। বিচারপতি ইমান আলী বলেন, আইনেই বলা আছে, শিশু অপরাধীর বিচার তাড়াতাড়ি করতে হবে। কেননা, তাদের ভবিষ্যৎ সামনে। তাকে ভালো হওয়ার সুযোগ দিতে হবে।

তাই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শিশু আদালত স্থাপন করা জরুরি বলে মন্তব্য করেন তিনি। অনুষ্ঠানে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ, বিচারপতি নাইমা হায়দার প্রমুখ আলোচনায় অংশ নেন। এ ছাড়া খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ও পাবলিক প্রসিকিউটর, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্টেট এবং চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটরা উপস্থিতি ছিলেন।

মামলার ভারে জর্জরিত বিচার ব্যবস্থা: আইনমন্ত্রী
                                  

মামলার ভারে বিচারব্যবস্থা জর্জরিত বলে মন্তব্য করেছেন আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘ন্যাশনাল জাস্টিস অডিট বাংলাদেশ : ফলাফল উপস্থাপন ও আলোচনা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেছেন, ‘এই চাপ বিচারকদের ওপরও আছে। সরকার এ বিষয়ে সম্পূর্ণ ওয়াকিবহাল। মামলাজট কমাতে সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগ চলমান রয়েছে। আমরা মামলাজট পদ্ধতিগতভাবে নিরসন করতে চেয়েছি।’

মন্ত্রী বলেন, ‘অপেক্ষমাণ মামলা নিষ্পত্তির মাধ্যমে চাপ কমানোর চেষ্টা চললেও নতুন মামলার কারণে তা হচ্ছে না। দেশের আদালতগুলোতে ৩১ বা ৩২ কিংবা ৩৩ লাখ মামলা বিচারাধীন। তাই এটাকে অবশ্যই কমিয়ে আনতে হবে।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘জাস্টিস অডিট মতে, ২০১৩ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত আমাদের আদালগুলোতে মামলা নিষ্পত্তির হার বেড়েছে ১৮ শতাংশ। অন্যদিকে এই তিন বছরে মামলাজট বেড়েছে ২৯ শতাংশ। এভাবেই প্রতি বছর আদালতে বিচারাধীন মামলাজট বাড়ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আদালত বর্তমান মামলাজট কমাতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এর জন্য স্থানীয় পর্যায়ে ছোটখাটো বিরোধ মীমাংসার মাধ্যমে নতুন মামলার অন্তর্ভুক্তি হ্রাস ও সঠিক মামলা ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি বিকল্প পদ্ধতিতে বিরোধ নিষ্পত্তিতে উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে।’ এ সময় ফৌজদারি বিচার ব্যবস্থায় এই নিরীক্ষা (জাস্টিস অডিট) বিশ্বে প্রথম বলেও উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মো. গোলাম সারওয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইন ও বিচার বিভাগের যুগ্ম সচিব ও জিআইজেড বাংলাদেশ সংক্রান্ত প্রকল্পের জাতীয় প্রকল্প পরিচালক উম্মে কুলসুম। অনুষ্ঠানে জিআইজেড বাংলাদেশের রুল অব ল প্রোগ্রামের প্রধান প্রমিথা সেনগুপ্ত মাল্টিমিডিয়া উপস্থাপনার মাধ্যমে ন্যাশনাল জাস্টিস অডিট কী এবং জাস্টিস অডিট সম্পাদনের পটভূমি ব্যাখ্যা করেন।

অনুষ্ঠানে বলা হয়, মামলার দীর্ঘসূত্রিতা, মামলাজট, কারাগারের বন্দিসংখ্যা হ্রাস সর্বোপরি বাংলাদেশের ফৌজদারি বিচার ব্যবস্থার সামগ্রিক উন্নয়নে জাস্টিস অডিট একটি কৌশল বা পলিসি টুল হিসেবে কাজ করতে পারে।

আইন ও বিচার বিভাগ ও জিআইজেড বাংলাদেশের রুল অব ল প্রোগ্রামটি যৌথভাবে আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে জেলা ও দায়রা জজ এবং সমপর্যায়ের বিচারবিভাগীয় কর্মকর্তা, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটসহ সুপ্রিম কোর্ট ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা অংশ নেন।

হাইকোর্টের তিন বিচারপতিকে সাময়িক বিরতির নির্দেশ
                                  

হাইকোর্টের তিন বিচারপতির বিরুদ্ধে ‘অসদাচরণের’ দায়ে তদন্ত কাজ শুরুর পর থেকে তাদের দায়িত্ব থেকে সাময়িক সরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, নিয়মিত কার্যতালিকায় অন্য বিচারপতিদের নাম ও বেঞ্চ নম্বর উল্লেখ থাকলেও তিন বিচারপতির নাম রাখা হয়নি। এই তিন বিচারপতি হলেন- বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী, বিচারপতি কাজী রেজাউল হক এবং বিচারপতি একেএম জহুরুল হক।

সূত্র জানিয়েছে, দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় হাইকোর্ট বিভাগের এই তিন বিচারপতিকে আপাতত তাদের দায়িত্ব পালন থেকে বিরত রাখা হয়েছে। এ কারণে বৃহস্পতিবারের (২২ আগস্ট) কার্যতালিকায় তাদের নাম রাখা হয়নি।

তবে তিন বিচারকের বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানা যায় নি। এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, ‘আমিও শুনছি। তবে, আমার সাথে এখনও কারও কথা হয়নি। কী করা হচ্ছে, তাও জানি না।’

চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদক মামালায় যুবকের ১৫ বছরের কারাদন্ড
                                  

মাদক মামলায় চাঁপাইনবাবগঞ্জে আবদুল জলিল (২৭) নামে এক যুবককে ১৫ বছরের সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদন্ড দেওয়া হয়। গতকাল বুধবার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত দায়রা জজ শওকত আলী আসামির উপস্থিতিতে এ আদেশ দেন। আব্দুল জলিল জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার চরপাঁকা দশরশিয়া গ্রামের (বর্তমানে শিবগঞ্জ পৌর এলাকায় তর্ত্তিপুর গরু হাট এলাকায় বসবাসরত) রজবুল হকের ছেলে।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আঞ্জুমান আরা বেগম জানান, ২০১৮ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি বিকেলে শিবগঞ্জের নতুন আলীডাঙ্গা গ্রামের একটি আমবাগানে ৩৮৮০ পিস ইয়াবাসহ জলিলকে আটক করে র‌্যাব-৫।

এ ঘটনায় ওইদিন র‌্যাবের তৎকালীন উপপরিদর্শক (এসআই) মোস্তাকিন হোসেন জলিলকে একমাত্র আসামি করে শিবগঞ্জ থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও শিবগঞ্জ থানার তৎকালীন উপপরিদর্শক (এসআই) গোলাম মোস্তফা ২০১৮ সালের ১৭ এপ্রিল জলিলকে একমাত্র অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেন। এরপর সাতজনের সাক্ষ্য, প্রমাণ ও শুনানি শেষে আদালত গতকাল বুধবার জলিলকে দোষী সাব্যস্ত করে এ দন্ড দেন। আসামিপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট মাহতাব উদ্দিন।

পেপারবুক প্রস্তুত হলেই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার আপিল শুনানি: অ্যাটর্নি জেনারেল
                                  

 একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার পেপারবুক তৈরির পর পরই শুনানি শুরু হবে বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তিনি গতকাল মঙ্গলবার তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক ব্রিফিংয়ে একথা জানান। এর্টর্নি জেনারেল বলেন, পেপারবুক তৈরি হলে আমার পক্ষ থেকে আমি শুনানীর পদক্ষেপ নিবো। আদালতে প্রয়োজনীয় দরখাস্ত দিবো।চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি আলোচিত এই মামলায় আসামীদের পক্ষে আনা আপিল আবেদন গ্রহণ করে(এডমিশন) আদেশ দেয় হাইকোর্ট। দেড় দশক আগে ২০০৪ সালের একুশে আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাস বিরোধী শান্তি সমাবেশে নারকীয় গ্রেনেড হামলা চালানো হয়।

তখন বিএনপি-জামায়াত রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় ছিল। মূলত আওয়ামীলকে নেতৃত্ব শূন্য করতে বিএনপি-জামায়াত তথা চার দলীয় জোট সরকার রাষ্টযন্ত্র ব্যাবহার করে নৃশংসতম গ্রেনেড হামলা চালায়। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা শেখ হাসিনা এবং আওয়ামী লীগের শীর্ষ স্থানীয় কয়েকজন নেতা সেদিন অল্পের জন্য এই ভয়াবহ হামলা থেকে বেঁচে গেলেও মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বেগম আইভি রহমান ও অপর ২৪ জন নিহত হন। এছাড়াও এই হামলায় আরো ৪শ’ জন আহত হন। আহতদের অনেকেই চিরতরে পঙ্গু হয়ে গেছেন। তাদের কেউ কেউ আর স্বাভাবিক জীবন ফিরে পাননি।

দেশের বৃহৎ এই রাজনৈতিক সংগঠন আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূণ্য করতে এ হামলা করা হয়েছিল। এই বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলায় উল্লেখযোগ্য নিহতরা হলেন, আইভি রহমান, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত নিরাপত্তারক্ষী ল্যান্স করপোরাল (অব:) মাহবুবুর রশীদ, আবুল কালাম আজাদ, রেজিনা বেগম, নাসির উদ্দিন সরদার, আতিক সরকার, আবদুল কুদ্দুস পাটোয়ারি, আমিনুল ইসলাম মোয়াজ্ঝেম, বেলাল হোসেন, মামুন মৃধা, রতন শিকদার, লিটন মুনশী, হাসিনা মমতাজ রিনা, সুফিয়া বেগম, রফিকুল ইসলাম (আদা চাচা). মোশতাক আহমেদ সেন্টু, মোহাম্মদ হানিফ, আবুল কাশেম, জাহেদ আলী, মোমেন আলী, এম শামসুদ্দিন এবং ইসাহাক মিয়া। মারাত্মক আহতরা হলেন শেখ হাসিনা, আমির হোসেন আমু, প্রায়ত আবদুর রাজ্জাক, প্রয়াত সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত, ওবায়দুল কাদের, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, মোহাম্মদ হানিফ, এএফএম বাহাউদ্দিন নাসিম, নজরুল ইসলাম বাবু, আওলাদ হোসেন, সাঈদ খোকন, মাহবুবা পারভীন, অ্যাডভোকেট উম্মে রাজিয়া কাজল, নাসিমা ফেরদৌস, শাহিদা তারেক দিপ্তী, রাশেদা আখতার রুমা, হামিদা খানম মনি, ইঞ্জিনিয়ার সেলিম, রুমা ইসলাম, কাজী মোয়াজ্জেম হোসেইন, মামুন মল্লিক প্রমুখ।

পুলিশ এই হামলার পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ২১ জনকে চিহ্নিত করে। এর আগে বেশ কয়েকটি বিদেশী মিশন যেমন ব্রিটিশ স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড, ইউএস ফেডারেল ব্যুারো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) এবং ইন্টারপোল বাংলাদেশী তদন্তকারীদের যোগ দিলেও এসব প্রতিষ্ঠান বিএনপি সরকার তাদের সহযোগিতা করেনি বলে অভিযোগ করেছিল। একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বিএনপি নেতা লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদন্ড এবং বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সন তারেক রহমানসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়ে গত বছরের ১০ অক্টোবর রায় দেন বিচারিক আদালত। এই রায়ের বিষয়ে হাইকোর্টে আপিল মামলা শুনানীর অপেক্ষায় আছে। বর্তমানে শুনানীর জন্য পেপারবুক তৈরীর কাজ চলছে।

হাসপাতালে রোগী ভর্তির চিত্র দেখলেই ওষুধের কার্যকারিতা বোঝা যায়: হাইকোর্ট
                                  

বছরজুড়ে এডিস মশা নিধন ও ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সরকারের কোন কর্মপরিকল্পনা রয়েছে কিনা তা জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট। বিষয়টি জেনে আগামী সোমবার আদালতকে অবহিত করতে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার এই আদেশ দেন।

আদালত বলেছে, এ বছর যেহেতু মশার প্রকোপ দেখা দিয়েছে সেটা যে আগামীতে হবে না তার তো কোন নিশ্চয়তা নাই। এজন্য মশা নিধন ও ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সরকারের কর্মপরিকল্পনা থাকা দরকার। যেমনটা কলকাতায় রয়েছে। তারা মশা নিধনে এরিয়াল স্প্রে করে থাকে। আদালত বলেন, মশা নিধনে সিটি করপোরেশনগুলো নতুন ওষুধ ছিটাচ্ছে। কিন্তু এ বছর অনেক আগে থেকেই বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছিলো এডিশ মশার প্রকোপ নিয়ে। কিন্তু সিটি করপোরেশনগুলো তা আমলে নেয়নি। এক্ষেত্রে দুই সিটির অবহেলা রয়েছে। শুরুতেই স্থান নির্ধারন করে মশা নিধনে পদক্ষেপ নেয়া উচিত ছিলো।

আদালত বলেন, হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে প্রতিদিন রোগী ভর্তি হচ্ছে। ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা দেখলেই বোঝা যাচ্ছে ওই ওষুধ কতটা কার্যকর। যখন রোগী ভর্তি শূন্যের কোঠায় নেমে আসবে তখন প্রকৃত চিত্র বোঝা যাবে। যতক্ষণ পর্যন্ত হাসপাতালে রোগী ভর্তি বন্ধ না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমাদের উদ্বেগ থাকবেই।

আরো পড়ুন: ধর্ষণের মামলা তুলে নিতে ঘুষ দেয়ার কথা স্বীকার রোনালদোর

এর আগে স্থানীয় সরকার বিভাগের পক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী মাইনুল হাসান আদালতে বলেন, মশক নিধনে ও সচেতনতা সৃষ্টিতে উত্তর সিটি করপোরেশনকে প্রায় ১৬ শত এবং দক্ষিণ সিটি করপোরেশনকে ২২ শত অতিরিক্ত জনবল নিয়োগে আদেশ প্রদান এবং ১৫ কোটি টাকা বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছে।

এ পর্যায়ে আদালত বলেন, মশা তো কমছে না। প্রতিদিনই প্রায় দুই হাজারের কাছাকাছি লোক ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে।

উত্তর সিটি করপোরেশনের আইনজীবী তৌফিক ইনাম টিপু বলেন, ৪০ হাজার লিটার নতুন ওষুধ ক্রয় করা হয়েছে। আগস্ট মাস থেকে এই ওষুধ ছিটানো হচ্ছে। আদালত বলেন, নতুন ওষুধে মশা কি মরছে? আইনজীবী বলেন, অনেকটা কার্যকর। আর আমরা যত তথ্য উপাত্ত দেই না কেন যতক্ষণ পর্যন্ত হাসপাতালে রোগী ভর্তি বন্ধ না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত কোন কিছুই ঠিকভাবে চলছে বলা যাবে না। আদালত বলেন, নতুন জনবল নিয়োগ করেছেন তারা কোথায় কিভাবে কতক্ষণ কাজ করছে তার বিস্তারিত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করবেন। দুই সিটি করপোরেশনকে সোমবার এই প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

চুয়াডাঙ্গায় স্বর্ণ পাচার মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন
                                  

চুয়াডাঙ্গায় স্বর্ণ পাচার মামলায় দুই চোরকারবারিকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার বিকেলে আসামিদের অনুপস্থিতিতে চুয়াডাঙ্গা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ রবিউল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন। যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তরা হলেন- ঢাকার কেরানীগঞ্জের রামেরকান্দা গ্রামের মহি উদ্দিন খানের ছেলে নুরুল ইসলাম ও মুন্সিগঞ্জ জেলার লৌহজং উপজেলার কলুরগা গ্রামের ব্যাপারি পাড়ার নুরুল ইসলাম ব্যাপারির ছেলে মাসুদ রানা।

মামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের ৭ জুন সকালে চুয়াডাঙ্গার দর্শনা জয়নগর চেকপোস্ট দিয়ে দুই চোরাকারবারি ভারতে স্বর্ণ পাচারের জন্য অবস্থান করছে এমন সংবাদ পেয়ে সেখানে অবস্থান নেয় যশোর বেনাপোল শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত সার্কেলের একটি টিম। এ সময় আটক করা হয় চোরাকারবারি নুরুল ইসলাম ও মাসুদ রানাকে। পরে তাদের কাছে থাকা দু’টি ট্রলি ব্যাগ তল্লাশি করে বিশেষ কায়দায় লুকিয়ে রাখা অবস্থায় প্রায় আড়াই কেজি স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়। একই দিন যশোর বেনাপোল শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত সার্কেলের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা সাজিবুল ইসলাম দুই জনকে আসামি করে দামুড়হুদা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) আশরাফুল ইসলাম মামলার তদন্ত শেষে ২০১৮ সালের ৩১ জুলাই দুই জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

৮ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে গতকাল সোমবার বিকেলে চুয়াডাঙ্গা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ রবিউল ইসলাম আসামিদের অনুপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। পলাতক আসামিরা গ্রেফতারের পর থেকে সাজা কার্যকর হবে। আটক স্বর্ণ রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করার আদেশ দেন আদালত। উচ্চ আদালত থেকে আসামি নুরুল ইসলাম জামিন নেওয়ার পর থেকে পলাতক রয়েছেন। অপরদিকে, মাসুদ রানা রায় ঘোষণার দিন অনুপস্থিত ছিলেন।

 

 

ভোলায় ধর্ষণ মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন
                                  

ভোলায় এক মুক্তিযোদ্ধার মেয়েকে গণধর্ষণের দায়ে তিন জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর করে কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার ভোলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আতোয়ার রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১১ সালের জুলাই মাসে ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের এক মুক্তিযোদ্ধার মেয়ে গণধর্ষণের শিকার হন। এর দু’দিন পর ২০১১ সালে ভিকটিম নিজে বাদী হয়ে একই ইউনিয়নের রফিক মাল, ভুট্টু মেম্বার, বাশার সরদারসহ পাঁচজনকে নামে ভোলা সদর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলার দীর্ঘ তদন্ত শেষে আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোপত্র (চার্জশিট) দাখিল করে পুলিশ। আদালত তা গ্রহণ করে রফিক, ভুট্টু, বাশার, বাদশা ও কবিরের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে গতকাল বুধবার রফিক, ভুট্টু ও বাশারকে যাবজ্জীবন ও প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর করে কারাদন্ড দেন বিচারক। একই সময় এ মামলার অন্য দুই আসামি বাদশা ও কবির নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের খালাস দেওয়া হয়। আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) গোলাম মোরশেদ কিরণ তালুকদার বিষয়টি জানান।

 

নবম ওয়েজ বোর্ডের প্রজ্ঞাপন প্রকাশে হাইকোর্টের স্থিতাবস্থা
                                  

সংবাদপত্র কর্মীদের নতুন বেতন কাঠামো নবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেট (প্রজ্ঞাপন) প্রকাশের ওপর দুই মাসের স্থিতাবস্থা বজায় রাখার আদেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। নিউজ পেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব) করা রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল মঙ্গলবার রুলসহ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ইউসুফ আলী।

রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ইয়াসমিন বেগম। পরে আইনজীবী ইউসুফ আলী বলেন, আদালত নবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেট প্রকাশের ওপর দুই মাসের স্থিতাবস্থার আদেশ দিয়েছেন। একইসঙ্গে রুলও জারি করেছেন। এ কারণে এ সময়ে ওই গেজেট প্রকাশ করা যাবে না। তিনি বলেন, বিবাদীরা হচ্ছেন ওয়েজ বোর্ড-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির আহ্বায়ক, তথ্য সচিব, শ্রম সচিব ও নবম ওয়েজ বোর্ডের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. নিজামুল হক। ওবায়দুল কাদেরকে আহ্বায়ক করে চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি মন্ত্রিসভায় এ নবম ওয়েজ বোর্ড রোয়েদাদ বাস্তবায়ন সম্পর্কিত মন্ত্রিসভা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। ওইসময় মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম জানিয়েছিলেন, নবম ওয়েজ বোর্ডে সাংবাদিক-কর্মচারীদের পাঁচটি শ্রেণিতে ১৫টি গ্রেড রয়েছে। প্রথম তিনটি গ্রেডে মূল বেতনের ৮০ শতাংশ এবং নিচের তিন গ্রেডে ৮৫ শতাংশ বেতন বাড়ানোর সুপারিশ করা হয়েছে। এছাড়া ৬০-৭০ শতাংশ বাড়ি ভাড়া বাড়ানোর সুপারিশের পাশাপাশি মূল বেতনের ২০ শতাংশ হারে বৈশাখী ভাতা যুক্ত করার সুপারিশ করা হয়েছে।

গত বছরের ৪ নভেম্বর সাংবাদিকদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ডের রোয়েদাদের সুপারিশ তথ্যমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন নবম ওয়েজ বোর্ডের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. নিজামুল হক। এ সুপারিশ মন্ত্রিসভায় উত্থাপিত হয়। এর আগে আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. নিজামুল হককে প্রধান করে গত বছর ২৯ জানুয়ারি ১৩ সদস্যের নবম ওয়েজ বোর্ড গঠন করা হয়। ওয়েজ বোর্ডে সাংবাদিকদের বেতন কাঠামো চূড়ান্ত করে থাকে। ২০১২ সালে সাংবাদিকদের জন্য অষ্টম ওয়েজ বোর্ড গঠন করা হয়েছিলো। পরের বছর এই বোর্ড নতুন বেতন কাঠামো চূড়ান্ত করেছিলো।

শিশুদের জন্য নিরাপদ ইন্টারনেট নিশ্চিতে রুল
                                  

 শিশুদের নিরাপদ ইন্টারনেট দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে শিশুদের জন্য ক্ষতিকর, অশ্লীল, আপত্তিকর ওয়েবসাইট ‘বন্ধু’ও হরর গেইম বন্ধে কেন নির্দেশনা দেওয়া হবে না, তাও জানতে চেয়েছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার এই সংক্রান্ত এক রিটের শুনানির পর বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

একই সঙ্গে শিশুদের নিরাপদ ইন্টারনেট সেবা ও আপত্তিকর সাইটগুলো অপসারণ, মনিটরিং ও পর্যবেক্ষণের জন্য কেন একটি কর্তৃপক্ষ গঠন করা হবে না, তাও জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট। চার সপ্তাহের মধ্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় সচিব, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সচিব, শিক্ষা মন্ত্রণালয় সচিব, সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয় সচিব, আইন মন্ত্রণালয় সচিব ও মোবাইল অপারেটরগুলোসহ ১৫ জন বিবাদীকে এসব রুলে জবাব দিতে বলা হয়েছে। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন রিটকারী আইনজীবী মো. কামরুল হাসান। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী আসমা পারভিন ও সাজেদুল ইসলাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এ বিএম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার। পরে কামরুল ইসলামবলেন, বর্তমানে শিশু ও নারীদের প্রতি নিষ্ঠুর, নিপীড়ন ও ধর্ষণের মতো জঘন্য অপরাধ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

একইসঙ্গে দেশের আশঙ্কাজনকভাবে শিশু-কিশোরদের অপরাধ প্রবণতা বাড়ছে। মূলত প্রযুক্তিগত আসক্তির ফলে শিশুদের মানসিক ও শারীরিক বিকাশ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। মনোরোগ বিষেজ্ঞদের চেম্বারে আশঙ্কাজনকভাবে শিশু-কিশোরদের গেইম আসক্তি নিয়ে অভিভাবকরা ভিড় করছেন। এই আইনজীবী আরও বলেন, ইন্টারনেট প্রযুক্তির অশ্লীল-আপত্তিকর ও ক্ষতিকর দিকগুলোর প্রতি শিশুদের সংশ্লিষ্টতার কারণে সমাজ ব্যবস্থা ও নৈতিকতার চরম অবক্ষয় হচ্ছে। হরর ও আপত্তিকর গেইম খেলতে গিয়ে শিশুরা পর্নগ্রাফির সাইটে ঢুকে যাচ্ছে। এতে শিশুদের অবক্ষয় হচ্ছে বলেও গবেষণায় উঠে এসেছে। তাই এ থেকে পরিত্রাণ পেতে হাইকোর্টে রিট দায়ের করি। এরআগে, গত ২৮ জুলাই জনস্বার্থে রিটটি দায়েরের সময় ইন্টারনেট আসক্তি নিয়ে বিভিন্ন দেশের গবেষণাধর্মী প্রতিবেদনও হাইকোর্টে দাখিল করেন রিটকারী আইনজীবী মো. কামরুল হাসান।


   Page 1 of 69
     আইন-আদালত
২ দিনের রিমান্ডে স্বর্ণ পাচারকারী
.............................................................................................
হোসেনি দালানে বোমা হামলা: শিশু আসামির বিরুদ্ধে পৃথক চার্জশিট ২৪ সেপ্টেম্বর
.............................................................................................
জেলা হাসপাতালে আইসিইউ-সিসিইউ প্রকল্পের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চান হাইকোর্ট
.............................................................................................
সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ২ অক্টোবর
.............................................................................................
সিটি করপোরেশনের গাফিলতির কারণে ডেঙ্গুতে এত মানুষের মৃত্যু : হাইকোর্ট
.............................................................................................
নোয়াখালীতে হত্যার দায়ে ২ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
শিশু আদালত প্রতিষ্ঠায় সরকারের সদিচ্ছার অভাব রয়েছে: বিচারপতি ইমান আলী
.............................................................................................
মামলার ভারে জর্জরিত বিচার ব্যবস্থা: আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
হাইকোর্টের তিন বিচারপতিকে সাময়িক বিরতির নির্দেশ
.............................................................................................
চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদক মামালায় যুবকের ১৫ বছরের কারাদন্ড
.............................................................................................
পেপারবুক প্রস্তুত হলেই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার আপিল শুনানি: অ্যাটর্নি জেনারেল
.............................................................................................
হাসপাতালে রোগী ভর্তির চিত্র দেখলেই ওষুধের কার্যকারিতা বোঝা যায়: হাইকোর্ট
.............................................................................................
চুয়াডাঙ্গায় স্বর্ণ পাচার মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
ভোলায় ধর্ষণ মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
নবম ওয়েজ বোর্ডের প্রজ্ঞাপন প্রকাশে হাইকোর্টের স্থিতাবস্থা
.............................................................................................
শিশুদের জন্য নিরাপদ ইন্টারনেট নিশ্চিতে রুল
.............................................................................................
১৪ কোম্পানিরই পাস্তুরিত দুধ উৎপাদনে বাধা কাটলো
.............................................................................................
সুনামগঞ্জে বাবাকে হত্যার দায়ে ছেলের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ছাড়া কেউ ভিআইপি নন : হাইকোর্ট
.............................................................................................
ময়মনসিংহে হত্যা মামলায় বাবা-ছেলেসহ ৪ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
রেণুকে পিটিয়ে হত্যা: ৫ দিনের রিমান্ডে হৃদয়
.............................................................................................
ঋণ খেলাপিদের বিশেষ সুযোগ কেন বেআইনি নয়: হাইকোর্ট
.............................................................................................
সুপ্রিমকোর্ট প্রিমিয়ার লিগের উদ্বোধন করলেন প্রধান বিচারপতি
.............................................................................................
রূপপুরের দুর্নীতি নিয়ে সরকারের পদক্ষেপ জানতে চান হাইকোর্ট
.............................................................................................
ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল পদে নিয়োগ পেলেন ৭০ আইনজীবী
.............................................................................................
মাধ্যমিকের আইসিটি বিষয়ের ১৩৮ সহকারী শিক্ষকের পদ সংরক্ষণের নির্দেশ
.............................................................................................
নারায়ণগঞ্জে মাদক মামলায় যুবকের ১৪ বছরের কারাদন্ড
.............................................................................................
শিশু নির্যাতন রোধে প্রতিটি স্কুলে ‘অভিযোগ বক্স’ রাখার নির্দেশ হাইকোর্টের
.............................................................................................
গুলশান হামলার মামলায় আরও ছয়জনের সাক্ষ্যগ্রহণ
.............................................................................................
মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় ফিরোজ খাঁ’র রায় যেকোনো দিন
.............................................................................................
সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ১০৫ জন
.............................................................................................
বিচারকদের নামের আগে ডক্টর ব্যারিস্টার ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা
.............................................................................................
বাণিজ্যিক আইনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ মনোনিবেশ করবে: প্রধান বিচারপতি
.............................................................................................
পার্কিং-এর জায়গায় অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গে ফেলতে হাইকোর্টের নির্দেশ
.............................................................................................
কুষ্টিয়ায় মাদক মামলার আসামির যাবজ্জীবন
.............................................................................................
ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ঢাকার দুই সিটিকে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের
.............................................................................................
সিডান গাড়ি পেলেন ৬২ অতিরিক্ত জেলা জজ
.............................................................................................
ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নিয়োগের ক্ষেত্রে নতুনরা প্রাধান্য পাবে: আইনমন্ত্রী
.............................................................................................
স্থগিত মামলার তালিকা করতে হাইকোর্টের নির্দেশ
.............................................................................................
রাজধানীতে ফেনসিডিল উদ্ধারের মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
কারাবন্দি ও কারা চিকিৎসকের তালিকা চাইলেন হাইকোর্ট
.............................................................................................
উচ্চ আদালতের নির্দেশে দিনাজপুরে ২৯টি ইটভাটার বিরুদ্ধে মামলা
.............................................................................................
রাজধনীতে সিএনজি চালক হত্যায় ৮ জনের যাবজ্জীবন
.............................................................................................
মাদক মামলায় যুবকের ১২ বছরের কারাদন্ড
.............................................................................................
মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি বন্ধে হাইকোর্টে রিট
.............................................................................................
চাঁপাইনবাবগঞ্জে ছয় জেএমবি সদস্যকে ১০ বছর কারাদন্ড
.............................................................................................
পিছিয়ে গেল হাঙ্গার প্রজেক্ট কর্মী অহিদ হত্যা মামলার রায়
.............................................................................................
নোয়াখালীতে আদালত প্রাঙ্গণ থেকে আসামির পলায়ন
.............................................................................................
সুপ্রিমকোর্ট খুলছে আজ
.............................................................................................
মৌলভীবাজারে খুনের মামলায় এক আসামির যাবজ্জীবন
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
উপদেষ্টা: আজাদ কবির
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ হারুনুর রশীদ
সম্পাদক মন্ডলীর সহ-সভাপতি: মামুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
যুগ্ম সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বার্তা সম্পাদক: মুজিবুর রহমান ডালিম
স্পেশাল করাসপনডেন্ট : মো: শরিফুল ইসলাম রানা
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]