১৮ জিলহজ ১৪৪১ , ঢাকা, রবিবার, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ৯ আগস্ট , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   রাজনীতি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনের সিদ্ধান্ত সোমবার

এস. এম ইকবাল, চাঁদপুর প্রতিনিধি :  

বিএনপির প্রার্থী মারা যাওয়ায় বাতিল হওয়া চাঁদপুর পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিষয়ে সোমবার (১০ আগস্ট) সিদ্ধান্ত নেবে নির্বাচন কমিশন। এদিন বিকেল ৩টায় নির্বাচন কমিশনের ৬৭তম সভায় এ বিষয়ে আলোচনা হবে।

ইসির উপ-সচিব (সংস্থাপন-২) মো. শাহ আলম স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত এক চিঠিতে এ তথ্য জানা যায়। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সভাপতিত্বে ওইদিন বিকেল ৩টায় বৈঠকটি ইসির সচিবালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকে অন্য কমিশনাররাও উপস্থিত থাকবেন।

চিঠি থেকে জানা যায়, বৈঠকে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের নির্বাচন পরিচালনার জন্য আইনের খসড়া উপস্থাপন ও অনুমোদন, জাতীয় সংসদ ও স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের জন্য নির্বাচন এবং বিবিধ বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে।

বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সফিকুর রহমান ভূঁইয়ার মৃত্যুতে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয় চাঁদপুর পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন। গত ২৯ মার্চ এ নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। গত ১৬ মার্চ গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে নির্বাচন স্থগিত করে কমিশন।

গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আগামি ২৯ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য চাঁদপুর পৌরসভার সাধারণ নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী গত ১৩ মার্চ মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুতে স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) নির্বাচন বিধিমালা, ২০১০ এর বিধি-২০ অনুসারে মেয়র পদের নির্বাচনী কার্যক্রম বাতিল ঘোষণা করা হলো।

পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সংরক্ষিত কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলর পদের নির্বাচন স্থগিত করার জন্য নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত প্রদান করেছে উল্লেখ করা হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনের সিদ্ধান্ত সোমবার
                                  

এস. এম ইকবাল, চাঁদপুর প্রতিনিধি :  

বিএনপির প্রার্থী মারা যাওয়ায় বাতিল হওয়া চাঁদপুর পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিষয়ে সোমবার (১০ আগস্ট) সিদ্ধান্ত নেবে নির্বাচন কমিশন। এদিন বিকেল ৩টায় নির্বাচন কমিশনের ৬৭তম সভায় এ বিষয়ে আলোচনা হবে।

ইসির উপ-সচিব (সংস্থাপন-২) মো. শাহ আলম স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত এক চিঠিতে এ তথ্য জানা যায়। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সভাপতিত্বে ওইদিন বিকেল ৩টায় বৈঠকটি ইসির সচিবালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকে অন্য কমিশনাররাও উপস্থিত থাকবেন।

চিঠি থেকে জানা যায়, বৈঠকে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের নির্বাচন পরিচালনার জন্য আইনের খসড়া উপস্থাপন ও অনুমোদন, জাতীয় সংসদ ও স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের জন্য নির্বাচন এবং বিবিধ বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে।

বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সফিকুর রহমান ভূঁইয়ার মৃত্যুতে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয় চাঁদপুর পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন। গত ২৯ মার্চ এ নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। গত ১৬ মার্চ গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে নির্বাচন স্থগিত করে কমিশন।

গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আগামি ২৯ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য চাঁদপুর পৌরসভার সাধারণ নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী গত ১৩ মার্চ মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুতে স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) নির্বাচন বিধিমালা, ২০১০ এর বিধি-২০ অনুসারে মেয়র পদের নির্বাচনী কার্যক্রম বাতিল ঘোষণা করা হলো।

পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সংরক্ষিত কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলর পদের নির্বাচন স্থগিত করার জন্য নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত প্রদান করেছে উল্লেখ করা হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

ইসিতে আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দেয়নি বিএনপিসহ ৬টি দল
                                  

নির্বাচন কমিশনে (ইসি) নিবন্ধিত ছয়টি রাজনৈতিক দল গত বছরে তাদের আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দেয়নি। দেশের অন্যতম বৃহত্তম দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) আবেদন করে সময় বাড়িয়ে বর্ধিত সময়ের মধ্যেও তারা তাদের দলের আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দিতে পারেনি। ঈদের ছুটি থাকায় ৩ আগস্ট হিসাব জমা দেয়ার শেষ দিন ছিল। করোনার কারণ দেখিয়ে বিএনপিসহ পাঁচটি দল সময় বাড়ানোর অনুরোধ করেছে। এ কারণে হিসাব দেয়ার সময় বাড়ছে বলে জানা গেছে।

ইসি সংশ্লিষ্ট শাখা সূত্রে জানা গেছে, গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) অনুযায়ী, প্রতিবছর ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নির্বাচন কমিশনের কাছে আগের পঞ্জিকা বছরের আয়-ব্যয়ের হিসাব দলগুলোকে জমা দিতে হয়। এবার ৩১ জুলাই ঈদের ছুটি শুরু হয়। তাই আইন অনুযায়ী ঈদের ছুটি শেষে ৩ আগস্ট হিসাব দেয়ার সময় অতিক্রান্ত হয়েছে। সময়মত হিসাব দাখিল করেনি সেসব দল হলো, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি), জাতীয় পার্টি (জেপি), বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, গণফ্রন্ট, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) ও ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ)। তবে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টিসহ সময় মতো বার্ষিক আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দিয়েছে ৩৪টি দল। উল্লেখ্য, হিসাব জমা দেয়ার জন্য নিবন্ধিত ৪১ দলকে নির্বাচন কমিশন চিঠি দেয় গত জুলাই মাসের শুরুতে।

ইসির কর্মকর্তারা জানান, সংশ্লিষ্টদের সময় বাড়ানোর আবেদনের ফাইল ইসির কাছে উপস্থাপন করা হবে। কমিশন মনে করলে সময় বাড়াবে। তবে বিগত সময়েও দলগুলোর আবেদনের কারণে ইসি সময় বাড়িয়েছিল। প্রতি বছরই কোনো না কোনো কারণে সময় বাড়ানো হয়। এবারেও প্রায় এক মাস সময় বাড়ানো হতে পারে।

এদিকে, রাজনৈতিক দল নিবন্ধন বিধিমালা ২০০৮-এর ধারা ৯ (খ) তে বলা হয়েছে, প্রতি বছরের ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে পূর্বের বছরের সংশ্লিষ্ট দলের আর্থিক লেনদেন একটি রেজিস্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্সি ফার্ম দিয়ে অডিট করিয়ে সেই রিপোর্টের একটি কপি নির্বাচন কমিশনে জমা দিতে হবে। গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ অনুযায়ী নিবন্ধিত কোনো দল পরপর তিন বছর কমিশনে তথ্য প্রদানে ব্যর্থ হলে সেই দলের নিবন্ধন বাতিলের বিধান রয়েছে।

পরিকল্পিতভাবে চামড়া শিল্পকে ধ্বংস করা হচ্ছে : মান্না
                                  

গত কয়েক বছর ধরে পরিকল্পিতভাবে সরকারের যোগসাজশে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে চামড়া শিল্পকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে দাঁড় করানো হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, চামড়া শিল্প রক্ষায় সরকার আবারো ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। গতবছর কোরবানির পশুর চামড়ার দামের যে বিপর্যয় আমরা দেখেছি তারপরেও সরকার এই অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য কোনো ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করেনি।

মঙ্গলবার নাগরিক ঐক্যের সদস্য শাকিব আনোয়ার স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি এসব কথা বলেন।

মান্না বলেন, গতবছর চামড়ার দাম না পেয়ে অনেককে চামড়া মাটিতে পুঁতে ফেলতে দেখা গেছে। অনেক মৌসুমি ব্যবসায়ী চামড়া কিনে ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করতে না পারায় সর্বস্বান্ত হয়েছেন। এর পেছনে কাজ করেছে একটি সংঘবদ্ধ সিন্ডিকেট। অথচ সরকার সেদিকে কোনো নজর দেয়নি। উপরন্তু এবছর ঈদের কয়েকদিন আগে সরকারের পক্ষ থেকে চামড়ার ২০%-২৭% কম মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু সেই নির্ধারিত মূল্যেও চামড়া বিক্রি করতে পারেনি মানুষ।

তিনি বলেন, গেল বছরের অভিজ্ঞতা থেকে মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ীরা এ বছর চামড়া কিনতে আগ্রহী ছিল না। ফলশ্রুতিতে এবছরও চামড়া নির্ধারিত মূল্যের অর্ধেকেরও কম দামে, কোথাও কোথাও নামমাত্র মূল্যে বিক্রি হয়েছে। এমনকি এবারো অনেকে চামড়া মাটিতে পুঁতে ফেলেছেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, এই চামড়ার টাকার সম্পূর্ণ হক দেশের গরীব মানুষের।

ডাকসুর সাবেক ভিপি বলেন, করোনা এবং বন্যায় বিপর্যস্ত দেশের নিম্নবিত্ত মানুষের কোনো দায়িত্ব নিতে সরকার ব্যর্থ হয়েছে। তার উপরে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে কোরবানির পশুর চামড়া থেকেও গরিব মানুষের হক নষ্ট করা হয়েছে। চামড়ার ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে এ বছরও সরকার সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ। আরো স্পষ্ট করে বলতে গেলে সরকার এবং সরকার দলীয় ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের মাধ্যমেই গরিবের হক আবারো নষ্ট করা হল। আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, আমি আগেও অনেকবার বলেছি, এই সরকারের হাতে দেশ নিরাপদ নয়, দেশের মানুষ নিরাপদ নয়, দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিরাপদ নয়, দেশের অর্থনীতি নিরাপদ নয়। সরকার প্রতিটি ক্ষেত্রে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। এই সরকার যতদিন থাকবে ততদিন দেশের মানুষের সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক মুক্তি সম্ভব নয়। তাই জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য এখনই দল-মত নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা একেবারেই ভঙ্গুর : মির্জা ফখরুল
                                  

বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা একেবারেই ভঙ্গুর বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সদ্য মরহুম সভাপতি শফিউল বারী বাবুর বাসায় পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা জানানোর পর সাংবাদিকদের কাছে বিএনপি মহাসচিব এই মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, বাবুর (শফিউল বারী বাবু) এভাবে মৃত্যু- এটা আরেকটা সত্য উৎঘাটিত করেছে যে, বাংলাদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা একেবারেই ভঙ্গুর। এখানের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার প্রতি যে মানুষ আস্থা রাখতে পারে না- বাবুর অসুস্থতা, তার চলে যাওয়া এটাই প্রমাণ করে। অনেকে অভিযোগ করে যে, বাংলাদেশের মানুষেরা বাইরে চিকিৎসা করতে যায় কেন? এজন্য যায় যে, এখানে আপনার ডায়োগনেসিস করা সম্ভব হয় না, ডায়োগনেসিসে সমস্যা হয়, বিভিন্নভাবে এখানকার..। সমস্ত ব্যবস্থাটা ইট সেলফ রোগীদের জন্য একটা সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়।

শফিউল বারী বাবুকে ‘মেধাবী’ নেতা হিসেবে অভিহিত করে মির্জা ফখরুল বলেন, বাবুর মতো একজন জনপ্রিয়, সচেতন রাজনৈতিক নেতা এভাবে চলে যাবে এটা আমরা কল্পনাই করতে পারিনি। তার অল্প সময়ের জীবনের ক্যারিয়ার বর্ণাঢ্য। তাকে শুধু বিএনপির জন্য নয়, তাকে দেশের জন্য, মানুষের জন্য প্রয়োজন ছিল। হি হেভ অল দ্যা কোয়ালিটিজ, তার সম্ভাবনা ছিলো। তিনি এদেশের রাজনীতির ক্ষেত্রে একটা ব্যতিক্রম। আমি কিছুক্ষণ আগে তার স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলছিলাম- দুইটা বাচ্চা রেখে গেছে। মাথা গুজার ঠাঁইটুকু নাই। এখনো ভাড়া বাসায় থাকেন। তার স্ত্রীও কাজ করছিলো একেবারে। এখন তাকে অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে। আমার একটাই অনুরোধ থাকবে সকলের কাছে- তার পরিবার, স্ত্রী-সন্তানদের আমাদের নিজেদের মানুষ মনে করে আমরা যেন এগিয়ে আসি এবং সহযোগিতার হাত বাড়াই।

তিনি বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আমাকে বলেছেন যে, আমরা তার (বাবুর) সঙ্গে আছি, আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানও বলেছেন যে, আমি আছি তার সঙ্গে। আমরা সবাই তার সঙ্গে আছি, এই লড়াই শুধু তার স্ত্রী একা লড়বে না, তার সাথে আমরাও লড়বো। আল্লাহ তায়ালা বাবুকে বেহেশত নসিব করুক। তার স্ত্রী ও সন্তানদেরকে এই শোক সহ্য করবার ক্ষমতা দিক, বাবু চলে যাওয়ায় আমাদের দলের নেতা-কর্মীরা যেভাবে ভেঙ্গে পড়েছে আল্লাহ তাদেরকে শোক সহ্য করবার শক্তি দিক।

এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুরে নিউ ইস্কাটনে শাইনপুকুর এপার্টমেন্টে মরহুম শফিউল বারী বাবুর বাসায় গিয়ে বিএনপি মহাসচিব বাবুর স্ত্রী বিথীকা বিনতে হোসাইনের সাথে কথা বলে সমবেদনা জানান। বাবুর ছোট দুই ছেলে মেয়ে ফাতেমা বারী তুহিন ও আয়হান বারী সাঈদকে কাছে নিয়ে আদর করেন মির্জা ফখরুল। এসময় বিএনপি নেতা কামরুজ্জামান রতন, প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, মোস্তাফিজুর রহমান, সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, গোলাম সারোয়ার, ইয়াসীন আলী, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

খালেদা জিয়ার মুক্তির সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন ঈদের পর
                                  

ঈদের পর সরকারের কাছে অসুস্থ বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন করবে পরিবার। ওই আবেদনে খালেদা জিয়াকে দেশের বাইরে নিয়ে উন্নত চিকিৎসা করানোর সুযোগ প্রদানেরও দাবি জানানো হবে। একই সাথে বিএনপি চেয়ারপারসনের স্থায়ী জামিনের বিষয়ে দলের আইনজীবীরা আদালতের দ্বারস্থ হবেন। দলীয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। 

টানা ২৫ মাস কারাভোগের পর গত ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে ৬ মাসের জন্য মুক্তি পান খালেদা জিয়া। শর্ত ছিল, এই সময়ে তিনি বাসায় থেকে চিকিৎসা নেবেন, যেতে পারবেন না দেশের বাইরে। কিন্তু খালেদা জিয়া করোনার মধ্যে মুক্তি পাওয়ায়, তার চিকিৎসার বিষয়ে এখনো কোনো কার্যকর উদ্যোগই নিতে পারেনি বিএনপি। রাজধানীর গুলশানের বাসায় একান্ত পরিবেশেই চিকিৎসকের পরামর্শে দিন কাটছে তার। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার উদ্যোগ নিতে চায় বিএনপি। কিন্তু মুক্তির সময়সীমা ঘনিয়ে আসায় দলীয় প্রধানের অসুস্থতা নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে উদ্বেগ ভর করেছে। 

বিএনপির সিনিয়র এক নেতা জানান, পরিবারের আবেদনের ভিত্তিতেই খালেদা জিয়া মুক্তি পেয়েছেন। তারাই তখন বিষয়টি মধ্যস্থতা করেছেন। এখন আবারো পরিবারের পক্ষ থেকেই সরকারের কাছে মুক্তির সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন করা হবে। ওই নেতা জানান, বিদেশে নিয়ে চিকিৎসা করানোর বিষয়টি নিয়ে হইচই করার কিছু নেই। কারণ এর আগেও খালেদা জিয়া সিঙ্গাপুর, লন্ডন এবং আমেরিকায় চিকিৎসা নিয়েছেন। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থার তেমন কোনো উন্নতি না হওয়ায় পরিবারের পক্ষ থেকে বিদেশে নিয়েই চিকিৎসার কথা ভাবা হচ্ছে। আর যেহেতু তার বড় ছেলে তারেক রহমান লন্ডনে রয়েছেন তাই খালেদা জিয়া যদি দেশের বাইরে চিকিৎসার জন্য যেতে যান তবে সেখানে যাওয়াটাই স্বাভাবিক। 

জানা গেছে, সরকারের কাছে সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন করার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। এ জন্য খালেদা জিয়ার বর্তমান শারীরিক অবস্থার প্রয়োজনীয় প্রামাণিক কাগজপত্রও চিকিৎসক টিমের কাছে চাওয়া হয়েছে। ঈদের পর সেগুলো সংযুক্ত করে আবেদনপত্র স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জমা দেয়া হবে। 
খালেদা জিয়ার বোন সেলিমা ইসলাম গতকাল বুধবার নয়া দিগন্তকে বলেন, মুক্তির সময়সীমা বাড়ানোর জন্য অবশ্যই আবেদন করা হবে। তবে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসা করানোর বিষয়ে এখনো কোনো আলোচনা হয়নি বলে জানান তিনি। 

৭৭ বছর বয়সী খালেদা জিয়া আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিসসহ নানা রোগে ভুগছেন। মুক্তি পাওয়ার আগে তিনি বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। কিন্তু সেখানে তার কোনো সঠিক চিকিৎসা হয়নি বলে বিএনপির বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। 
জানা গেছে, বিএনপি খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে কোনো রাজনীতি করতে চায় না। তবে চিকিৎসা ছাড়াই তাকে আবারো কারাগারে নিয়ে যাওয়া হলে, পরিস্থিতি ভিন্ন দিকে মোড় নিতে পারে বলে তাদের আশঙ্কা। 

বিএনপির নেতারা বলেছেন, সরকার ভালো করেই জানে, উন্নত চিকিৎসা হওয়াতো দূরে থাক, করোনার কারণে খালেদা জিয়াকে এখন পর্যন্ত কোনো হাসপাতালে নেয়া সম্ভব হয়নি। তাই বাস্তÍবতা মেনে নিয়েই সরকারকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সুচিকিৎসার জন্য মুক্তির সময়সীমা বাড়াতে হবে। 

কিছু দিন আগে আইনমন্ত্রী গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, সরকার অনুমতি দিলে খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিয়েও চিকিৎসা দেয়া যাবে। খালেদা জিয়ার পরিবার ও বিএনপি নেতাদের বিশ্বাস, সেই অনুমতি তারা পাবেন। ফলে সাময়িক মুক্তির মেয়াদের ছয় মাস শেষে কারাগারে যেতে হবে না খালেদা জিয়াকে। ফিরোজায় থেকে পাশের হাসপাতাল ইউনাইটেডে চিকিৎসা গ্রহণ অথবা লন্ডনে ছেলের বাসায় থেকে যুক্তরাজ্যের ভালো কোনো হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণের ব্যবস্থা নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সাথে আলোচনা চলছে বলে জানা গেছে। 
এ দিকে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে দলের নেতাকর্মী ছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের মধ্যে উদ্বেগ রয়েছে। প্রতিদিনই ফোনে ঐক্যফ্রন্ট, জোট কিংবা বামদল নেতাদের কেউ না কেউ খালেদা জিয়া কেমন আছেন, তা জানতে চাচ্ছেন। 

অন্য দিকে আদালত খুললে খালেদা জিয়ার স্থায়ী জামিন চাওয়ার বিষয়ে চিন্তাভাবনা চলছে। দলের এক আইনজীবী জানান, খালেদা জিয়ার সাথে এরই মধ্যে কয়েকজন সিনিয়র আইনজীবী দেখা করে করণীয় নিয়ে আলোচনা করেছেন। খালেদা জিয়াকে তার বিরুদ্ধে থাকা ৩৭ মামলার সর্বশেষ অবস্থা অবহিত করা হয়েছে। খালেদা জিয়া এই ব্যাপারে পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন।

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে এখন অধিকতর উষ্ণ : কাদের
                                  

প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ ও সুদৃঢ় হলে পারম্পরিক উন্নয়ন এবং অমীমাংসিত সমস্যা সমাধান সহজেই সম্ভব বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে এখন অধিকতর উষ্ণ, সৌহার্দ্যপূর্ণ এবং উন্নয়নমুখী।’

ওবায়দুল কাদের আজ মঙ্গলবার সকালে সচিবালয়স্থ কার্যালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশের সৌজন্য সাক্ষাত শেষে ব্রিফিং-এ একথা বলেন।

সড়ক পরিবহন মন্ত্রী বলেন, ভারত বাংলাদেশের বন্ধুত্ব সময়ের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ এবং ’৭১ এর রক্তের রাখিবন্ধনে আবদ্ধ। সড়ক অবকাঠামো উন্নয়ন ও গণপরিবহণের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে ভারতীয় ঋণ কর্মসূচির আওতায় বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়েও হাইকমিশনারের সাথে আলাপ হয়েছে বলে মন্ত্রী এসময় জানান।

তিনি বলেন, দুই দেশের সম্পর্কের সেতুবন্ধ সময়ের পরিক্রমায় দিন-দিন নবতর মাত্রায় উন্নীত হচ্ছে।

সড়ক অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পসমূহ এগিয়ে নিতে হাইকমিশনারের সহযোগিতার জন্য মন্ত্রী তাকে ধন্যবাদ জানান। সূত্র : বাসস

স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু আর নেই
                                  

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু আর নেই। মঙ্গলবার ভোর পৌণে চারটার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর এপোলো হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন তিনি। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সকাল ১০টায় নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর বাদ আসর লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হবে বলে জানা গেছে।

শফিউল বারী বাবুর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
এর আগে আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শফিউল বারী বাবুর অক্সিজেন লেভেল মারাত্মকভাবে কমে যায়। পরে সেখান থেকে রাত দেড়টার দিকে অ্যাপোলো হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ সময় হাসপাতালে ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক দলের সহসভাপতি গোলাম সারোয়ার, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূইয়া জুয়েল, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াসিন আলীসহ স্বেচ্ছাসেবক দল, বিএনপি ছাত্রদলসহ বিভিন্ন অংগ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এরআগে হাসপাতালে বাবুকে দেখতে গিয়েছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ধানের শীষের মেয়র প্রার্থী প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন অনেকেই।

বাবুর মৃত্যুতে দলের সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার স্ত্রী স্ত্রী বিথীকা বিনতে হোসাইন, এক ছেলে ও মেয়েশিশুসহ অসংখ্য শুভাকাঙ্ক্ষী রয়েছে।

ভারতের পানির কারনে বাংলাদেশের বন্যা পরিস্থিতি চরমে: মির্জা ফখরুল
                                  

একদিকে করোনাভাইরাস অন্যদিকে বন্যা- এই দুই ধাক্কায় দেশের মানুষের জীবন নাজুক হয়ে উঠেছে। দুটোর একটিও সরকার নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না। যেখানে করোনাভাইরাসের টেস্ট বাড়ানোর কথা, উল্টো সেখানে কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতির কথা উঠে আসছে প্রতিদিনই।

কথাগুলো বলেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সোমবার এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বন্যার জন্য দায়ী সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতি। সরকার ভারতের সঙ্গে আলোচনা করে উজান থেকে পানি ছেড়ে দেওয়া বন্ধ করতে পারছে না।

ফখরুল বলেন, বন্যার কারণে মানুষের জীবন বিপন্ন হয়ে উঠছে। ভারত অভিন্ন নদীগুলোর সকল বাঁধ-ব্যারেজের-গেট খুলে দেওয়ার কারণে উজান থেকে পানি নেমে আসছে। এতে করে বাংলাদেশের ব্রহ্মপুত্র, যমুনা, মেঘনা, মহানন্দ, পদ্মা, তিস্তা ও ধরলা নদীর অববাহিকার ৩৪টি জেলা পানিতে ভেসে গেছে।

মির্জা ফখরুল আরো বলেন, ভারতের সঙ্গে আমাদের ১৫৪টি অভিন্ন নদী। একমাত্র ফারাক্কা ছাড়া আর কোনো নদীর পানিবণ্টন নিয়ে ভারতের সঙ্গে চুক্তিতে আসা সম্ভব হয়নি। তিস্তা নিয়ে গত ১০ বছর ধরে এই সরকার নানা কথা বলে যাচ্ছে। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। অথচ ভারতের ক্ষেত্রে ট্রানজিট, বন্দর ব্যবহার ঠিকই চালু আছে। সরকার তার নতজানু অবস্থান থেকে না বেরুতে পারলে সমাধান হবে না।

ঢাকা-১৮ আসনে বিএনপির মনোনয়নে চমক দেখাতে পারেন ফরিদগঞ্জের আব্বাস উদ্দিন
                                  

চাঁদপুর, ফরিদগঞ্জ (প্রতিনিধি) এস.এম ইকবাল:

ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশি জাতীয়তাবাদী কর আইনজীবী ফোরামের সভাপতি সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী মো. আব্বাস উদ্দিন।

আব্বাস উদ্দিনের অনুসারী নেতাকর্মীরা বলছেন, দলের উচ্চ পর্যায় থেকে সবুজ সংকেত পেয়ে তিনি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতার জন্য চুড়ান্ত প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ঢাকা-১৮ আসনে বিএনপির মনোনয়ন চুড়ান্তের ক্ষেত্রে অ্যাডভোকেট আব্বাস উদ্দিন বিশেষ চমক হিসাবে থাকছেন বলে অভিমত তাদের। ভার্চুয়াল মাধ্যমে তাঁর প্রার্থীতার বিষয়ে সরব বিএনপির নেতাকর্মী ও আইনজীবিরা।

ঢাকা ট্যাক্সেসবার এসোসিয়েশনের সাবেক দুই বারের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট অ্যাডভোকেট আব্বাস উদ্দিন বর্তমানে বাংলাদেশ ট্যাক্সেসবার ল’ইয়ার এসোসিয়েশনের অতিরিক্ত মহসাচিবের দায়িত্ব পালন করছেন। সর্বশেষ অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ বার কাউন্সিল নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্যানেল থেকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন এ আইনজীবি নেতা। বৃহত্তর কুমিল্লা কর আইনজীবি কল্যাণ সমিতির সভাপতি ও বৃহত্তর কুমিল্লা আইনজীবী কল্যাণ সমিতির সাবেক সভাপতি ছিলেন তিনি।

জানা যায়, ছাত্রজীবন থেকে বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত অ্যাডভোকেট আব্বাস উদ্দিন। বিএনপির দলীয় কর্মসূচি বাস্তবায়নে তিনি ছিলেন অগ্রগামী। বিশেষ করে রাজধানীতে আইনজীবিদের পক্ষ থেকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে দেওয়া সকল কর্মসূচি বাস্তবায়নে তিনি সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া কারাবন্দী থাকা অবস্থায় দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে জাতীয়তাবাদী ঘরানার আইনজীবিদের সংগঠিত করে খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলন কর্মসূচি বেগবান করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি। এছাড়া, বিভিন্ন সেমিনার-সিম্পোজিয়ামে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও কারাগার থেকে তার মুক্তি দাবি করে আসছিলেন আইনজীবী নেতা আব্বাস উদ্দিন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অ্যাডভোকেট আব্বাস উদ্দিন এ প্রতিনিধিকে বলেন, আমি দলের স্বার্থে সব সময় কাজ করেছি। বিশেষ করে আইনজীবিদের সংগঠিত করে খালেদা জিয়ার মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তির দাবীতে আন্দোলন করে আসছিলাম। সব সময় চেষ্টা করেছি সরকারের দমন নিপিড়নের শিকার বিএনপির নেতাকর্মীদের পাশে থাকাতে। দুঃসময়ে দলীয় নেতাকর্মীদের পাশাপাশি জনগনের পাশে ছিলাম।

নির্বাচনে প্রার্থীতার বিষয়ে অপরএক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঢাকার-১৮ আসনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। করোনার কারনে যশোর ও বগুড়া উপ-নির্বাচনে বিএনপি ছাড় দিলেও এই আসনে বিএনপি ছাড় দেবে না। এখানকার বিএনপি অত্যন্ত সংগঠিত। এ আসনে যে কোন মূল্যে বিএনপির প্রার্থীর জয় নিশ্চিত করতে নেতাকর্মীরা বদ্ধপরিকর। মূলত বিএনপির নেতাকর্মী ও আইনজীবিরা চাওয়ায় ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে বিএনপি থেকে আমি মনোনয়ন প্রত্যাশি। আমার দৃঢ় বিশ্বাস দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয়, দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে আমি ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত করে বিএনপি চেয়ারপার্সন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে উপহার দিতে পারবো, ইনশাআল্লাহ। এ আসনে নির্বাচনে ভোট কেন্দ্র দখল, কারচুপি সহ সরকারি দলের জুলম প্রতিরোধ বিএনপি ঐক্যবদ্ধ।

রাজধানীর উত্তরা ১১ নং সেক্টরের বাসিন্দা অ্যাডভোকেট আব্বাস উদ্দিন চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জের কৃতি সন্তান। সমাজসেবা ও দান অনুদানের জন্য সেখানেও তিনি বেশ জনপ্রিয়।

উল্লেখ্য, ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য সাহারা খাতুন গত ১০ জুলাই মৃত্যুবরণ করেন। তার মৃত্যুতে শূণ্য আসেন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হলে শিগ্রই এ আসনে উপ-নির্বাচন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। একাদশ সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১৮ থেকে ধানের শীষের প্রার্থী ছিলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল জেএসডির নেতা শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন। এ আসনে বিএনপির মনোনয়ন চান দলটির ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কফিল উদ্দিন আহমেদ এবং ঢাকা মহানগর উত্তর যুবদলের সভাপতি এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন।

ঢাকায় শূন্য হওয়া দু’টি সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি
                                  

ঢাকায় শূন্য হওয়া দু’টি সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি। আনুষ্ঠানিকভাবে এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা না হলেও দলের নীতিনির্ধারকদের সাথে কথা বলে এই তথ্য জানা গেছে। যদিও দলটি করোনা মহামারীর মধ্যে অনুষ্ঠিত যশোর-৬ ও বগুড়া-১ উপনির্বাচনে অংশ নেয়নি।

ঢাকায় নির্বাচনে অংশ নেয়ার ক্ষেত্রে দলটির মত, যখন ঢাকা-৫ ও ঢাকা-১৮ আসনে উপনির্বাচন হবে, তখন করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলে আসতে পারে। এ দিকে দল নির্বাচনে যাওয়ার পক্ষে রয়েছে, এমন সিগন্যাল পেয়ে সম্ভাব্য প্রার্থীরাও নড়েচড়ে বসেছেন। ডিজিটাল মাধ্যম কিংবা নিজ বাসায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ বাড়ানোর কাজ শুরু করেছেন তারা।

বিএনপি নেতারা বলছেন, ঢাকার উত্তর-দক্ষিণ প্রবেশমুখের এই দু’টি আসন রাজনৈতিকভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দু রাজধানীতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগকে এই দু’টি আসন ছেড়ে দেয়া ঠিক হবে না। করোনাকালে স্থবির হয়ে যাওয়া সাংগঠনিক কার্যক্রম কিছুটা হলেও এই নির্বাচনে অংশ নেয়ার মধ্য দিয়ে গতি লাভ করতে পারে। তা ছাড়া ঢাকা-৫ ও ঢাকা-১৮ আসন শূন্য হয়েছে অল্প কিছু দিন আগে। তাই দ্রুতই এই আসনগুলোতে নির্বাচন করতেই হবে নির্বাচন কমিশনের এমন সাংবিধানিক কোনো বাধ্যবাধকতাও নেই। পরিস্থিতি বিবেচনায় ধরে নেয়া যেতে পারে আগামী ২ মাস পরে এই আসনগুলোর নির্বাচন হবে। তত দিনে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে। ফলে নির্বাচনে অংশ নিতে কোনো সমস্যা থাকবে না।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ প্রসঙ্গে বলেন, দলের স্থায়ী কমিটির মিটিংয়ে আলোচনা করে ঢাকার উপনির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। দলের সিনিয়র এক নেতা বলেন, নির্বাচন কমিশন মহামারীর মধ্যেই যশোর আর বগুড়ার উপনির্বাচন সম্পন্ন করেছে। নির্বাচন মানে উৎসব, নেতাকর্মীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ; কিন্তু ওই নির্বাচনে এসব কিছুই ছিল না। একতরফা একটি নির্বাচন হয়েছে। বিএনপি এই মহামারীতে নেতাকর্মীদের বিপদের মধ্যে ফেলে দিতে চায়নি বলেই নির্বাচন পেছানোর পক্ষে ছিল।

গত ৬ মে ঢাকা-৫ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা আর ১০ জুলাই ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য সাহারা খাতুন মারা যান। তাদের মৃত্যুতে এই দু’টি আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-৫ আসনে বিএনপির মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন মহানগর বিএনপির নেতা নবী উল্লাহ নবী। উপনির্বাচনে নবী উল্লাহ নবী যেমন নির্বাচন করতে চান, তেমনি দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী রয়েছেন আরো কয়েকজন।

আসন্ন এই নির্বাচনে অংশ নিতে চান মহানগর বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বিএনপির বাণিজ্যবিষয়ক সম্পাদক সালাহউদ্দিন আহমেদ। ঢাকা-৫ আসনের সাবেক এমপিও ছিলেন তিনি।  সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেন, বিগত সংসদ নির্বাচনের দিন পুরো জাতি দেখেছে, কারচুপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে আমাকে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে। ক্ষমতাসীন দলের ক্যাডাররা আমাকে ও আমার ছেলে তানভীর আহমেদ রবিনকে গুরুতর আহত করার পরেও জ্ঞান থাকা পর্যন্ত সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য লড়াই করেছি। ঢাকা-৫ আসনের সাবেক সফল এমপি হিসেবে স্থানীয় নেতাকর্মী, সমর্থক, গণ্যমান্য বাক্তিরা আসন্ন উপনির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য আমাকে চাপ দিচ্ছে। এসব বিষয় বিবেচনা করে দলের হাইকমান্ড যদি আমাকে মনোনয়ন দেয়, তাহলে আমি নির্বাচন করতে প্রস্তুত।

নির্বাচনের মাধ্যমে কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত বিএনপির, জামায়াত ছাড়তে চান নেতারা
                                  

জামায়াতে ইসলামীকে ২০-দলীয় জোট থেকে বের করে দেওয়ার পাশাপাশি দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন পর্যায়ের কমিটি গঠনের পক্ষে মতামত দিয়েছেন একজন ছাড়া বিএনপির স্থায়ী কমিটির বাকি সদস্যরা। চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানও এখন জামায়াত ছেড়ে দেওয়ার পক্ষে বলে নীতিনির্ধারণী সূত্রে জানা গেছে।

গতকাল শনিবার বিকাল ৫টা থেকে আড়াই ঘণ্টাব্যাপী চলা স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়াল বৈঠকে দলের ভুলত্রুটি ও করণীয় নিয়ে আলোচনায় এ মতামত তুলে ধরেন নেতারা। তবে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটিতে আগের বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৩৩ শতাংশ নারী নেতৃত্ব নিশ্চিত করার বিষয়ে একটি খসড়া চূড়ান্ত হওয়ার কথা থাকলেও গতকালের বৈঠকে এ নিয়ে কোনো আলোচনাই হয়নি। জানা গেছে, তারেক রহমানের ঘনিষ্ঠ কিছু পুরুষ নেতার বাধার কারণেই বিষয়টি গতকাল স্থায়ী কমিটিতে আলোচনা হয়নি।

ভার্চুয়াল এ বৈঠকে লন্ডন থেকে সভাপতিত্ব করেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। বৈঠকে নিজ নিজ বাসা থেকে অংশ নেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বরচন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী,

বেগম সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। বৈঠক সূত্রে জানা যায়, বৈঠকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ও বন্যা পরিস্থিতির পাশাপাশি রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়েও আলোচনা হয়েছে। একজন সদস্য দীর্ঘ সময় ধরে বক্তব্য রাখেন। সেখানে স্থায়ী কমিটির ওই নেতা জামায়াত ছেড়ে দেওয়া, ভোটাভুটির মাধ্যমে দলের বিভিন্ন পর্যায়ের কমিটি গঠনসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বক্তব্য দেন। বৈঠক শেষে স্থায়ী কমিটির ওই নেতার বক্তব্যে অন্য সিনিয়র নেতারা একে অপরের কাছে ক্ষোভ এবং হতাশা প্রকাশ করেন।

বৈঠক সম্পর্কে স্থায়ী কমিটির এক নেতা বলেন, আজকের বৈঠকে জামায়াত ছেড়ে দেওয়া ও দল পুনর্গঠন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। জামায়াতের বিষয়ে জোটের সঙ্গে সরাসরি সম্পৃক্ত এমন এক নেতা ছাড়া বাকিরা সবাই ছেড়ে দেওয়ার পক্ষে স্পষ্ট করে মত দেন। দেশি-বিদেশি সবার মতকে প্রাধান্য দিয়ে কাজটি করা উচিত বলেও মনে করেন নেতারা।

স্থায়ী কমিটির আরেক নেতা বলেন, আগামীতে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের সব কমিটিতে নেতৃত্ব বাছাই হবে নির্বাচনের মাধ্যমে। কোনো কমিটিই কাউন্সিলবিহীন বা অনির্বাচিত হবে না। করোনা পরিস্থিতির পরে বিএনপির সাংগঠনিক পুনর্গঠন প্রক্রিয়া কী হবে তা নিয়েই মূলত সবাই বক্তব্য দিয়েছেন। সবাই একমত হন, আগামীতে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের সব কমিটিই হবে নির্বাচনের মাধ্যমে। এ সময় কমিটি গঠনে অতীতে ভুলত্রুটি নিয়েও কথা বলেন স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। বৈঠকে কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। সাংগঠনিক পুনর্গঠন প্রক্রিয়া নিয়ে আরও বিস্তারিত আলোচনা পরবর্তী বৈঠকে হবে। বৈঠকে চলমান করোনা পরিস্থিতি নিয়েও আলোচনা হয়। করোনা পরিস্থিতিতে নেতাকর্মীর সবাইকে সতর্ক থেকে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানানো হয়।

সাহেদ যেমন তার সরকারও তেমন : রিজভী
                                  

বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ক্ষমতাসীন সরকারের সমালোচনা করে বলেছেন, রিজেন্টের সাহেদ যেমন তার সরকারও তেমন। কেননা জেকেজি ও রিজেন্ট মানুষকে করোনার টেস্টের নামে মৃত্যুর সনদ দিয়েছে। রিজেন্টের শাহেদকে গ্রেফতারের বিষয়টি কোনো নাটক কি না তা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেন রিজভী।

বুধবার সকালে নয়া পল্টনে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে লক্ষণভিত্তিক চিকিৎসা ক্যাম্প ও বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে হোমিওপ্যাথিক ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (এইচ-ড্যাব)।

সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে রুহুল কবির রিজভী বলেন, আজকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে হোমিওপ্যাথি ড্যাবের উদ্যোগে বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ করছে। এটা মানবতাবাদী কর্মকাণ্ড। আসলে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বের প্রতি আস্থা রেখে যারা এই কাজ করছেন তারা সত্যিকারের করোনা যোদ্ধা।

তিনি সরকারের সমালোচনা করে বলেন, ক্ষমতাসীনরা দেশের মানুষ নিয়ে কোনো কাজ করেনি। আসলে কয়লা ধুইলে যেমন ময়লা যায় না। তেমনই স্বভাব যায় না মরলে। স্বাস্থ্য খাতের দুর্নীতির সাথে সরকার ও তাদের মন্ত্রী এমপিদের ছেলে মেয়েরা জড়িত।

তিনি বলেন, আজকে জেকেজি ও রিজেন্ট মানুষকে করোনার টেস্টের নামে মৃত্যুর সনদ দিয়েছে। কিন্তু তাদেরকে ধরা হয় না। আর আমাদের মানিকগঞ্জের ছোট মেয়ে পলি, নোয়াখালীর টিটু হায়দার, ও ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আকরামকে গ্রেফতার করেন।

রিজভী বলেন, এই যে রিজেন্টের সাহেদকে গ্রেফতার হলো এটা নাটক। সাহেদের মা আওয়ামী মহিলা লীগের নেতা। তাহলে সাহেদ হাওয়া ভবনের লোক হয় কী করে? তার কেলেঙ্কারি ফাঁস হওয়ার আগে তো তিনি আওয়ামী লীগেরই লোক। তার অতীতের টকশোতে বক্তব্যে শোনা যায় যে, সেনাপ্রধান থেকে শুরু করে সিপাহী এবং আইজিপি থেকে কনস্টেবল পর্যন্ত ও সচিব থেকে চৌকিদার পর্যন্ত সবাই এই সরকারকে চায়। আসলে যেমন সাহেদ তেমন তার সরকার।

রিজভী বলেন, আসলে সুধা ভবনের লোক দুর্নীতি করলে তারা হাওয়া ভবনের লোক হয়ে যায়। এসব বলে জনগণকে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। এটাই আওয়ামী লীগের নীতি। তারা তো মৃত মানুষের নামে, হজ্জ পালনরত মানুষের নামে মামলা দিয়েছে। কারণ জিয়াউর রহমানের জনপ্রিয়তায় ভীত হয়ে শেখ হাসিনা এসব করছে। আজকে খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তার কারণে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মূলত যারাই জনগণের জন্য কাজ করে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়। এখন আপনারা যা কিছু বলেন না কেনো জনগণ তা বিশ্বাস করে না।

তিনি আরো বলেন, হঠাৎ করেই পুলিশ এখন শরীয়তপুরের ধানের শীষের প্রার্থী মিয়া নূর উদ্দিন অপুকে রিমান্ড নিয়েছে। কারণ তাকে চাপ দিয়ে জোর করে কোনো তথ্য বের করে জনগণকে বিভ্রান্ত করার জন্য। এটা নাটক ছাড়া কিছু নয়। যাতে সাহেদ ও জেকেজির কেলেঙ্কারি আড়াল হয়ে যায়। আজকে কার কী পরিণতি হবে কেউ জানি না। তারপরও সামর্থ্য মোতাবেক কাজ করে যাবো।

ডাঃ অহিদুল ইসলাম চৌধুরী স্বপনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জাতীয়তাবাদী হোমিওপ্যাথিক ফোরামের সভাপতি ডাঃ শামসুজ্জোহা আলম, সাধারণ সম্পাদক কাজী মাহবুবুল আলম সেলিম, মহাসচিব ডাঃ শাহজালাল আহমেদ প্রমুখ।

দুটি আসনে উপ-নির্বাচন : চলছে নিয়ম রক্ষার ভোট
                                  

যশোর-৬ ও বগুড়া-১ সংসদীয় আসনে চলছে নিয়ম রক্ষার ভোট গ্রহণ। মহামারী ও বন্যার মাঝেই ‘সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার’ কথা বলে আয়োজন করা হয়েছে এ নির্বাচনের।

মঙ্গলবাল সকাল ৯টায় দুই নির্বাচনী এলাকায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে, একটানা চলবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত।

এর মধ্যে বগুড়ায় বন্যার পানি বেড়ে যাওয়ায় ১৬টি ভোটকেন্দ্র স্থানান্তর করে অস্থায়ী কেন্দ্র স্থাপন করে ভোট গ্রহণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

নিয়ম অনুযায়ী, আগের দিন ভোটের সরঞ্জাম ও সুরক্ষা সামগ্রী কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়া হলেও ব্যালট পেপার পৌঁছানো হয়েছে মঙ্গলবার সকালে ভোট শুরুর আগে।

রিটার্নিং কর্মকর্তারা বলছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে ভোটার ও নির্বাচনী কর্মকর্তাদের জন্য প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সামগ্রী রাখা হয়েছে। সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভোট দেবেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন এবং নিয়মিত হাত পরিষ্কার রাখবেন।

সাড়ে পাঁচ লাখ ভোটারের এ দুই উপ-নির্বাচনে সুরক্ষা সামগ্রীর জন্য আলাদা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। পাশাপাশি প্রথাগতভাবে নির্বাচন পরিচালনা ও আইন শৃঙ্খলা মিলিয়ে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে।

বিএনপি ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী থাকলেও ভোট নিয়ে তাদের অনীহার মধ্যে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীর জন্য এটা হতে যাচ্ছে অনেকটা ‘আনুষ্ঠানিকতার’ নির্বাচন। বিএনপি বলছে, এ সময় ভোটে অংশগ্রহণ থাকবে না; আর জাতীয় পার্টি ভোট পেছানোর দাবি জানিয়ে সাড়া পায়নি।

গত ১৮ জানুয়ারি আবদুল মান্নান মারা গেলে বগুড়া-১ আসনটি শূন্য হয়। এ আসনে তিন লাখ ৩০ হাজার ৮৯৩ জন ভোটার। আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়েছেন সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের সহধর্মিণী সাহাদারা মান্নান।

অপরদিকে, আওয়ামী লীগের ইসমাত আরা সাদেক গত ২১ জানুয়ারি মারা যাওয়ায় যশোর-৬ আসনটি শূন্য হয়। এ আসনে দুই লাখ তিন হাজার ১৮ জন ভোটার। এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়েছেন শাহীন চাকলাদার।

বিএনপি শুধু ঘরের মধ্যে বসে বসে মায়া কান্না দেখায় : তথ্যমন্ত্রী
                                  

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, করোনা শনাক্ত ও চিকিৎসা বিষয়ে জেকেজি ও সাহেদের দুর্নীতি ও প্রতারণা সরকারই উদ্ঘাটন করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে। তিনি বলেন, “এর কোনোটিই পত্রিকার রিপোর্ট বা অন্য কেউ অভিযোগের আঙ্গুল তোলার পরে নয়, সরকার নিজেই এখানে অনিয়ম খতিয়ে দেখার প্রেক্ষিতেই বিষয়গুলো উঠে এসেছে।

হাছান মাহমুদ সচিবালয় তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন।

মন্ত্রী আরো জানান, ‘জেকেজি’র প্রধান নির্বাহী এবং চেয়ারম্যান দু’জনকেই গ্রেফতার করা হয়েছে, সাহেদের দু’টি হাসপাতাল সিলগালা করা হয়েছে, মামলা হয়েছে। সাহেদকে গ্রেফতার করতে পারবে বলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে দৃঢ়ভাবে বলা হয়েছে। এরপর নানাজনে নানা বক্তব্য দিচ্ছেন, বিএনপিও মুখ খুলছে। কিন্তু এগুলো সরকারই উদ্ঘাটন করেছে।’

ড. হাছান বলেন, “তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি এদেরকে সংশ্লিষ্ট করার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আরো সতর্ক হওয়ার অবশ্যই প্রয়োজনীয়তা ছিল। ”

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব পৃথিবীতে দেখা দেয়ার পর থেকেই সরকার দেশের মানুষকে সুরক্ষা দেয়ার জন্য নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হবার পরপরই মুজিববর্ষের সমস্ত আনুষ্ঠানিকতা ও আমাদের মহান স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে। অর্থাৎ এক্ষেত্রে যা যা করা প্রয়োজন সবকিছুই সরকার শুরু থেকেই করে এসেছে এবং মানুষের সুরক্ষায় সর্বোচ্চ সামর্থ দিয়ে চেষ্টা করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী দিবানিশি কাজ করে এই করোনাভাইরাস মোকাবিলা করে দেশের অর্থনীতিকে বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষার চেষ্টা করছেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সরকারের এসকল প্রচেষ্টার কারণেই বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর হার পৃথিবীতে সর্বনিম্ন দেশগুলোর মধ্যে একটি, ভারত-পাকিস্তানের চেয়েও আমাদের দেশে মৃত্যুহার কম এবং সরকার আরো সুচারুভাবে কাজ করতে চায় বিধায় এই অনিয়ম, দুর্নীতিগুলো উদ্ঘাটন করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করছে।’

বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকারের পদক্ষেপ নিয়ে বিএনপি’র বিরূপ মন্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কখন যে বলে বসেন, সরকারের উদাসীনতার কারণে বানের পানি এসেছে -আমি সেই শংকার মধ্যেই আছি।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা জানেন যে, কিছু দিন আগে এই করোনার মধ্যে ঘূর্ণিঝড় হয়েছিল। সেটি সফলতার সাথে মোকাবিলা করার মাধ্যমে মানুষের জান-মাল-সম্পদ রক্ষা করা হয়েছে, পুনর্বাসন করা হয়েছে ও কাজ চলছে। বন্যার ক্ষেত্রেও সরকার ইতোমধ্যে অনেক ব্যবস্থা নিয়েছে। বিএনপি শুধু ঘরের মধ্যে বসে বসে মায়া কান্না দেখায়, কিন্তু জনগণের জন্য সাহার্যের হাত প্রসারিত করে না। তাদের রাজনীতিটা হচ্ছে টেলিভিশন আর সংবাদ সম্মেলন কেন্দ্রিক। এর বাইরে তাদের আর কোনো রাজনীতি নেই।’

এসএসসি পাস সাহেদ কিভাবে পত্রিকার ডিক্লারেশন পেয়েছে -এ প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘পত্রিকার ডিক্লারেশন ডিসি অফিস থেকে নিতে হয় এবং ডিক্লারেশন পাওয়ার জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতার কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। সাহেদ পত্রিকার ডিক্লারেশন নিলেও সেই পত্রিকা বের করেছে কি না, সেটি ডিএফপি (চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তর) খতিয়ে দেখছে। এক্ষেত্রে যদি কোনো অনিয়ম হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে। এখানে আমি মনে করি, একজন প্রতারকের হাতে পত্রিকার ডিক্লারেশন থাকবে কি না- সেটি বিবেচনায় নেয়া জরুরি।’

অনলাইন সংবাদ পোর্টালের বিষয়ে ড. হাছান বলেন, ‘আমরা অনলাইনগুলোর রেজিষ্ট্রেশন দেয়ার উদ্যোগ এই মার্চ মাসেই নিয়েছিলাম। কিন্তু করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার প্রেক্ষিতে সেটি স্থগিত ছিল। তবে সরকারের সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোর প্রতিবেদনের ভিত্তিতে আমরা শীঘ্রই রেজিষ্ট্রেশন দেবো।

তিনি আরো জানান, আর যেগুলোর বিষয়ে নেতিবাচক প্রতিবেদন এসেছে, সেগুলোর ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বাসস

 

দলের ভেতরের ‘বর্ণচোরাদের’ হুশিয়ার ওবায়দুল কাদেরের
                                  

দলের ভেতরে বর্ণচোরা সেজে যারা অর্থসম্পদ বৃদ্ধির চেষ্টা করে দলের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করবে, তাদের ছাড় দেয়া হবে না বলে হুশিয়ার করে দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি আজ সকালে রাজধানীতে সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ এ দেশের মাটি ও মানুষের সংগঠন, জনগণের বুকের গভীরে রয়েছে এর শেকড়। এই দলে এসে নাম ভাঙিয়ে অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে কাউকে ভাগ্যবদলাতে দেয়া যাবে না।

তিনি বলেন, দলের দুঃসময়ের পরীক্ষিত কর্মীদের পেছনে রেখে আওয়ামী লীগে আশ্রয়ী-লোভী ও ষড়যন্ত্রকারীদের দলে আর সুযোগ নেই।

অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির বিষয়টি তুলে ধরে সেতুমন্ত্রী বলেন, অন্যায়ের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান অত্যন্ত কঠোর। এ বিষয়ে শেখ হাসিনা সরকার স্বপ্রণোদিত হয়ে দুর্নীতি উদ্ঘাটন করে এবং আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করে আসছে।

‘ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান থেকে শুরু করে ত্রাণ কার্যক্রম, স্বাস্থ্য খাতসহ যেখানেই অনিয়ম-দুর্নীতি সেখানেই কঠোর অবস্থানে সরকার।’

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে জনগণকে বাঁচানোর লক্ষ্যে সরকার ও আওয়ামী লীগ সর্বাত্মক কাজ করছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ইতিমধ্যে সব রাজনৈতিক কর্মসূচি বাদ দিয়ে ক্ষেত্রবিশেষ সীমিত করে জনগণের দুর্দশা কমানো, সংক্রমণ রোধ এবং জীবিকার নিরাপত্তা বিধানকে রাজনীতি হিসেবে নিয়েছে।

বিএনপির সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি অসহায় মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সমালোচনার নামে সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার করে রাজনৈতিক বিচ্ছিন্নতাকাল উদযাপন করছে, তারা জনগণের দুর্দশা, অসহায়ত্ব চোখে দেখে না, বিএনপি সার্কাসের হাতির মতো নেতিবাচকতার বৃত্তে ঘুরপাক খাওয়া আর চিরাচরিত মিথ্যাচারকে রাজনৈতিক কৌশল হিসেবে নিয়েছে।

তিনি বলেন, জনগণ এখন আর তাদের মিথ্যাচারে বিভ্রান্ত হয় না। বিএনপির মরিচা ধরা কৌশল আজ অকৌশলে রূপ নিয়ে বুমেরাং হচ্ছে।
‘দেশের মানুষ এখন দোষারোপের রাজনীতি পছন্দ করে না। অথচ বিএনপি এমন মিথ্যাচার করে যে, তার জবাব না দিয়েও পারা যায় না। এখন রাজনীতি হতে হবে মানুষকে বাঁচানো ও বৈশ্বিক সংকট করোনার সংক্রমণ রোধ’-যোগ করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক।

এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
                                  

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ মঙ্গলবার। গত বছরের এই দিনে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। করোনা বৈশ্বিক পরিস্থিতির কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দিনটি পালনে জাতীয় পার্টি, এরশাদ ট্রাস্ট ও ব্যক্তিগতভাবে বেগম রওশন এরশাদের উদ্যোগে নানা কর্মসূচি পালনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।


সকালে দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে রংপুরে এরশাদের কবর জিয়ারত করে দুপুরে ফিরে কেন্দ্রীয় কার্যালয় কাকরাইল ও বনানীর পৃথক অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন দলের বর্তমান চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের। বেলা ১১টায় গুলশানে জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদের বাসভবনে মিলাদ মাহফিল ও সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়াও এরশাদ ট্রাস্টের পক্ষ থেকে বেলা ১২টায় কাকরাইলে পার্টির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এরশাদের প্রতীকী বেদীতে শ্রদ্ধা নিবেদন, বিকেলে প্রেসিডেন্ট পার্কে স্মরণসভা ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।

হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ১৯৩০ সালের ১ ফেব্রুয়ারি অবিভক্ত ভারতের কোচবিহার জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। পরে তার পরিবার রংপুরে চলে আসে। রংপুরেই প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা শেষ করে ১৯৫০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে

স্নাতক শেষ করে ১৯৫২ সালে পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে যোগ দেন এরশাদ। ১৯৬৯ সালে লেফটেন্যান্ট কর্নেল পদে পদোন্নতি পেয়ে ১৯৭১-৭২ সালে সপ্তম ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন। মুক্তিযুদ্ধের পর পাকিস্তান থেকে প্রত্যাবর্তন করেন। ১৯৭৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে তিনি ব্রিগেডিয়ার পদে পদোন্নতি লাভ করেন। ওই বছরই আগস্ট মাসে মেজর জেনারেল পদে পদোন্নতি দিয়ে তাকে সেনাবাহিনীর উপপ্রধান হিসেবে নিয়োগ করা হয়। ১৯৭৮ সালের ডিসেম্বর মাসে এরশাদকে সেনাবাহিনী প্রধান পদে নিয়োগ দেয়া হয়। ১৯৭৯ সালে তিনি লেফটেন্যান্ট জেনারেল পদে পদোন্নতি লাভ করেন।

১৯৮২ সালের ২৪ মার্চ রাষ্ট্রক্ষমতায় আসেন। ১৯৯০ সালের ৬ ডিসেম্বর পদত্যাগ করেন। ১৯৯১ সালে এরশাদ গ্রেফতার হন। ১৯৯১ সালে জেলে অন্তরীণ থাকা অবস্থায় এরশাদ রংপুরের পাঁচটি আসনে বিজয়ী হন। ১৯৯৬ সালের সাধারণ নির্বাচনেও এরশাদ সংসদে পাঁচটি আসনে বিজয়ী হন। ১৯৯৭ সালের ৯ জানুয়ারি জামিনে মুক্ত হন। ২০০১ সালের অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এরশাদের জাতীয় পার্টি ১৪টি আসনে জয়ী হয়। ২০০৬ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের সঙ্গে মহাজোট গঠন করেন। ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের নির্বাচনে তার দল ২৭টি আসনে বিজয়ী হয়। এরপর দশম ও চলতি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি চলতি জাতীয় সংসদে বিরোধী দলের নেতা ছিলেন।

কবর জিয়ারতে রংপুরে আসছেন জিএম কাদের : রংপুর ব্যুরো জানায়, ঢাকা থেকে শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে নিয়ে আজ সকালে রংপুরে আসবেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা জিএম কাদের এমপি। সাবেক সফল রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মাজার জিয়ারতে তিনি আসছেন। পরে বিকাল ৪টায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান শীর্ষ নেতাদেরসহ বিমানযোগে ঢাকা থেকে রওনা দিয়ে সৈয়দপুর বিমানবন্দর থেকে রংপুরে আসবেন। বেলা সাড়ে ১০টায় জিএম কাদের পল্লী নিবাসে উপস্থিত হয়ে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। এ সময় মিলাদ মাহফিল ও দোয়ায় অংশ নেবেন।


ঢাকায় ফিরে তিনি বিকাল সাড়ে ৪টায় জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ মাহফিল ও আলোচনা সভায় অংশ নেবেন।


   Page 1 of 267
     রাজনীতি
চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনের সিদ্ধান্ত সোমবার
.............................................................................................
ইসিতে আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দেয়নি বিএনপিসহ ৬টি দল
.............................................................................................
পরিকল্পিতভাবে চামড়া শিল্পকে ধ্বংস করা হচ্ছে : মান্না
.............................................................................................
দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা একেবারেই ভঙ্গুর : মির্জা ফখরুল
.............................................................................................
খালেদা জিয়ার মুক্তির সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন ঈদের পর
.............................................................................................
বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে এখন অধিকতর উষ্ণ : কাদের
.............................................................................................
স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু আর নেই
.............................................................................................
ভারতের পানির কারনে বাংলাদেশের বন্যা পরিস্থিতি চরমে: মির্জা ফখরুল
.............................................................................................
ঢাকা-১৮ আসনে বিএনপির মনোনয়নে চমক দেখাতে পারেন ফরিদগঞ্জের আব্বাস উদ্দিন
.............................................................................................
ঢাকায় শূন্য হওয়া দু’টি সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি
.............................................................................................
নির্বাচনের মাধ্যমে কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত বিএনপির, জামায়াত ছাড়তে চান নেতারা
.............................................................................................
সাহেদ যেমন তার সরকারও তেমন : রিজভী
.............................................................................................
দুটি আসনে উপ-নির্বাচন : চলছে নিয়ম রক্ষার ভোট
.............................................................................................
বিএনপি শুধু ঘরের মধ্যে বসে বসে মায়া কান্না দেখায় : তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
দলের ভেতরের ‘বর্ণচোরাদের’ হুশিয়ার ওবায়দুল কাদেরের
.............................................................................................
এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
.............................................................................................
বন্যার্তদের জন্য সরকারের ত্রাণ তৎপরতা নেই : রিজভী
.............................................................................................
বহির্বিশ্বে ‘বিপদের মুখে’ পড়তে যাচ্ছে বাংলাদেশ: রিজভী
.............................................................................................
সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন আর নেই
.............................................................................................
আ’লীগকে আবারো ক্ষমতায় আনতে ইসি’র রাজনৈতিক দল নিবন্ধন সংশোধনের উদ্যোগ : ফখরুল
.............................................................................................
স্বাস্থ্য খাতে অনিয়মের বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান শুরু: ওবায়দুল কাদের
.............................................................................................
নিবন্ধন আইনের খসড়ায় মতামতের সময় বাড়িয়েছে ইসি
.............................................................................................
মানুষের মুখ বন্ধ করতে ডিজিটাল আইনে মামলার হিড়িক : রিজভী
.............................................................................................
করোনা সংকটে দৃঢ় মনোবল নিয়ে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে: কাদের
.............................................................................................
আমীর হোসেন আমু ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র
.............................................................................................
করোনা পরিস্থিতিতে গণমাধ্যমের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ : তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
ফখরুলের চিঠি নিয়ে ইসিতে বিএনপির প্রতিনিধি দল
.............................................................................................
দুর্নীতি ও লুটপাটই হচ্ছে ওবায়দুল কাদেরের কাছে পূর্ণিমার আলো : রিজভী
.............................................................................................
পূর্ণিমার রাতেও বিএনপি অমাবস্যার অন্ধকার দেখতে পায়: কাদের
.............................................................................................
সরকারের অবহেলায় করোনা সংক্রমণের বিস্তার ঘটেছে
.............................................................................................
‘বিএনপি নেতারা আইসোলেশনে থেকে সরকারের দোষ ধরে’
.............................................................................................
বিএনপির সাবেক মন্ত্রী গিয়াস উদ্দিন আর নেই
.............................................................................................
পাটকল বন্ধ করে সাফল্য প্রচার করা হাস্যকর ব্যাপার : খুলনা বিএনপি
.............................................................................................
আজ ইসিতে যাচ্ছে বিএনপি’র প্রতিনিধিদল
.............................................................................................
সংসদের সামনে বিএনপি এমপিদের বিক্ষোভ
.............................................................................................
ভয় দেখিয়ে বিএনপির প্রতিবাদ দমানো যাবে না : রিজভী
.............................................................................................
সরকারের অব্যবস্থাপনায় পুরো স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে : ফখরুল
.............................................................................................
বিএনপির সাংগঠনিক কার্যক্রম ১৫ জুলাই পর্যন্ত স্থগিত
.............................................................................................
স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অপসারণ চাইলেন বিএনপির সাংসদ হারুন
.............................................................................................
মুঈনে মোহতামীমের পদ থেকে আমি পদত্যাগ চাইনি : বাবুনগরী
.............................................................................................
আবারো হত্যার হুমকি ভিপি নূরদের
.............................................................................................
গণতন্ত্রকে হত্যা করে নবউদ্যোমে বাকশাল চালু করা হয়েছে: রিজভী
.............................................................................................
মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুতে খাজে আহমেদ মজুমদারের শোক
.............................................................................................
আ`লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম এর মৃত্যুতে যুবলীগ নেতা হেলাল উদ্দিন এর শোক
.............................................................................................
অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও বেশি যাত্রী উঠানো প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের শামিল: কাদের
.............................................................................................
আওয়ামী লীগের দুর্নীতি ও ভুলের কারণেই ৭৪‘র দুর্ভিক্ষ হয়েছিল : মির্জা ফখরুল
.............................................................................................
সাদ এরশাদ ও রংপুর মহানগর জাপার পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন
.............................................................................................
দুই বাহিনীর ১১৮৮ জনের মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিল
.............................................................................................
অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ সেতুমন্ত্রীর
.............................................................................................
জনগণ এখন গবেষণার গিনিপিগ : রিজভী
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
সম্পাদক মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী

সম্পাদক কর্তৃক ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন,
ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ইউরোপ মহাদেশ বিষয়ক সম্পাদক- প্রফেসর জাকি মোস্তফা (টুটুল)
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
ফোন : ০২-৯৫৬২৮৯৯ মোবাইল: ০১৬৭০-২৮৯২৮০
ই-মেইল : swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD