২৪ জিলক্বদ ১৪৪১ , ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৬ জুলাই , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
ভারতে এক দিনে ৩২ হাজারের বেশি করোনা পজিটিভ

ভারতে এক দিনে করোনা সংক্রমণের নতুন রেকর্ড তৈরি হয়েছে। দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বৃহস্পতিবার সকালে দেয়া পরিসংখ্যান অনুসারে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩২ হাজার ৬৯৫ জন মানুষের শরীরে করোনার সন্ধান মিলেছে। সব মিলিয়ে মোট ৯ লাখ ৬৮ হাজার মানুষ কোভিড-১৯ আক্রান্ত।

গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ গেছে আরো ৬০৬ জনের। ফলে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২৪ হাজার ৯১৫ জনে। তবে চিকিৎসা সহায়তায় দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছেন বহু মানুষ। এখন পর্যন্ত ভারতে প্রায় ৬ লাখ ১ হাজার করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। বৃহস্পতিবার সকালে এই পুনরুদ্ধারের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৩.২৫ শতাংশে।

 

এই নিয়ে ভারতে টানা দ্বিতীয় দিন এক দিনের মধ্যে সংক্রমণের নয়া রেকর্ড গড়লো করোনাভাইরাস। তবে এই প্রথমবার মাত্র ২৪ ঘণ্টায় ৩০ হাজারের বেশি মানুষের শরীরে করোনা পজিটিভ ধরা পড়লো। বুধবার ২৯ হাজারের বেশি নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছিল।

খুব স্বাভাবিকভাবেই বাড়ছে করোনা পরীক্ষায় ইতিবাচক রোগীর হার। বুধবার যেখানে ৯.১৯ শতাংশ মানুষ করোনা পজিটিভ হিসাবে ধরা পড়েছিলেন, বৃহস্পতিবার সেখানে সেই হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ শতাংশে।

প্রায় ১৩০ কোটি মানুষের দেশে এখন পর্যন্ত প্রায় ১ কোটি ২৭ লাখ মানুষের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে; সবচেয়ে বড় কথা একজন ব্যক্তির করোনা থেকে পুরোপুরি সেরে ওঠার মধ্যে তার আরো বেশ কয়েকবার পরীক্ষা করা হচ্ছে। বুধবার ৩ লাখ ২৬ হাজার ৮২৬ জনের শরীরের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে, সরকার জানিয়েছে এক দিনে এই পরীক্ষার সংখ্যা এখন পর্যন্ত সর্বাধিক।

গত ২৪ ঘণ্টায় যে পাঁচটি রাজ্যে সর্বাধিক সংখ্যক নতুন করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে তার মধ্যে শীর্ষে অবশ্যই মহারাষ্ট্র। সেখানে বুধবার ৭ হাজার ৯৭৫ জন করোনা পজিটিভ হয়েছেন। তারপরেই আছে তামিলনাড়ু, এক দিনে আরো ৪ হাজার ৪৯৬ জন এই রোগে আক্রান্ত হয়েছে। কর্নাটকে নতুন করোনা আক্রান্ত ৩ হাজার ১৭৬, অন্ধ্রপ্রদেশে ২ হাজার ৪৩২ এবং উত্তরপ্রদেশ ১ হাজার ৬৫৯।

পশ্চিমবঙ্গে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১ হাজার ৫৮৯ জন করোনা পজিটিভের সন্ধান মিলেছে। পাশাপাশি বুধবার মারা গেছেন ২০ জন করোনা রোগী। ফলে সব মিলিয়ে এরাজ্যে কোভিড হামলায় মোট ১ হাজার জনের মৃত্যু হয়েছে। রাজ্য স্বাস্থ্য বিভাগের পরিসংখ্যান অনুসারে, মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩৪ হাজার ৪২৭ জন হয়েছে, যার মধ্যে কিছু মানুষ সুস্থ হয়ে উঠলেও বর্তমানে ওই রোগে ভুগছেন ১২ হাজার ৭৪৭ জন। তবে চিকিৎসা সহায়তায় সেরে উঠে বুধবার রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে ৭৪৯ জনকে করোনা মুক্ত ঘোষণা করে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এর ফলে রাজ্যে এখন পর্যন্ত মোট ২০ হাজার ৬৮০ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন, পুনরুদ্ধারের হার ৬০.০৬%।

সূত্র : এনডিটিভি

ভারতে এক দিনে ৩২ হাজারের বেশি করোনা পজিটিভ
                                  

ভারতে এক দিনে করোনা সংক্রমণের নতুন রেকর্ড তৈরি হয়েছে। দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বৃহস্পতিবার সকালে দেয়া পরিসংখ্যান অনুসারে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩২ হাজার ৬৯৫ জন মানুষের শরীরে করোনার সন্ধান মিলেছে। সব মিলিয়ে মোট ৯ লাখ ৬৮ হাজার মানুষ কোভিড-১৯ আক্রান্ত।

গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ গেছে আরো ৬০৬ জনের। ফলে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২৪ হাজার ৯১৫ জনে। তবে চিকিৎসা সহায়তায় দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠছেন বহু মানুষ। এখন পর্যন্ত ভারতে প্রায় ৬ লাখ ১ হাজার করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। বৃহস্পতিবার সকালে এই পুনরুদ্ধারের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৩.২৫ শতাংশে।

 

এই নিয়ে ভারতে টানা দ্বিতীয় দিন এক দিনের মধ্যে সংক্রমণের নয়া রেকর্ড গড়লো করোনাভাইরাস। তবে এই প্রথমবার মাত্র ২৪ ঘণ্টায় ৩০ হাজারের বেশি মানুষের শরীরে করোনা পজিটিভ ধরা পড়লো। বুধবার ২৯ হাজারের বেশি নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছিল।

খুব স্বাভাবিকভাবেই বাড়ছে করোনা পরীক্ষায় ইতিবাচক রোগীর হার। বুধবার যেখানে ৯.১৯ শতাংশ মানুষ করোনা পজিটিভ হিসাবে ধরা পড়েছিলেন, বৃহস্পতিবার সেখানে সেই হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ শতাংশে।

প্রায় ১৩০ কোটি মানুষের দেশে এখন পর্যন্ত প্রায় ১ কোটি ২৭ লাখ মানুষের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে; সবচেয়ে বড় কথা একজন ব্যক্তির করোনা থেকে পুরোপুরি সেরে ওঠার মধ্যে তার আরো বেশ কয়েকবার পরীক্ষা করা হচ্ছে। বুধবার ৩ লাখ ২৬ হাজার ৮২৬ জনের শরীরের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে, সরকার জানিয়েছে এক দিনে এই পরীক্ষার সংখ্যা এখন পর্যন্ত সর্বাধিক।

গত ২৪ ঘণ্টায় যে পাঁচটি রাজ্যে সর্বাধিক সংখ্যক নতুন করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে তার মধ্যে শীর্ষে অবশ্যই মহারাষ্ট্র। সেখানে বুধবার ৭ হাজার ৯৭৫ জন করোনা পজিটিভ হয়েছেন। তারপরেই আছে তামিলনাড়ু, এক দিনে আরো ৪ হাজার ৪৯৬ জন এই রোগে আক্রান্ত হয়েছে। কর্নাটকে নতুন করোনা আক্রান্ত ৩ হাজার ১৭৬, অন্ধ্রপ্রদেশে ২ হাজার ৪৩২ এবং উত্তরপ্রদেশ ১ হাজার ৬৫৯।

পশ্চিমবঙ্গে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১ হাজার ৫৮৯ জন করোনা পজিটিভের সন্ধান মিলেছে। পাশাপাশি বুধবার মারা গেছেন ২০ জন করোনা রোগী। ফলে সব মিলিয়ে এরাজ্যে কোভিড হামলায় মোট ১ হাজার জনের মৃত্যু হয়েছে। রাজ্য স্বাস্থ্য বিভাগের পরিসংখ্যান অনুসারে, মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩৪ হাজার ৪২৭ জন হয়েছে, যার মধ্যে কিছু মানুষ সুস্থ হয়ে উঠলেও বর্তমানে ওই রোগে ভুগছেন ১২ হাজার ৭৪৭ জন। তবে চিকিৎসা সহায়তায় সেরে উঠে বুধবার রাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে ৭৪৯ জনকে করোনা মুক্ত ঘোষণা করে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এর ফলে রাজ্যে এখন পর্যন্ত মোট ২০ হাজার ৬৮০ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন, পুনরুদ্ধারের হার ৬০.০৬%।

সূত্র : এনডিটিভি

যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে সংক্রমণ ছাড়াল ৭০ হাজার!
                                  

করোনাভাইরাস আর যুক্তরাষ্ট্র যেন সমার্থক হয়ে উঠেছে। দেশটিতে প্রতিদিন সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, মৃত্যুর রোজকার হিসেবেও তারা অন্য সব দেশ থেকে এগিয়ে। প্রতিদিনই নিয়ম করে ভাঙছে আগের দিনের রেকর্ড। তবে একদিনে ৭০ হাজারেরও বেশি সংক্রমণ ভাবিয়ে তুলেছে দেশটির নীতিনির্ধারকদের। কোথায় গিয়ে থামবে এই সংক্রমণ, তা কেউ জানে না।

মাঝে একবার যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রমণ তুলনামূলক অনেক কমে গিয়েছিল। টানা তিন মাস ৩০-৩৫ হাজার শনাক্ত করা হলেও গত মাসের মাঝামাঝিতে প্রতিদিনের সংক্রমণ নেমে আসে ২০ হাজারেরও নিচে। কিন্তু এ অবস্থা স্থায়ী হয় মাত্র অল্প কিছুদিন। চলতি মাসের শুরু থেকেই সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ে যুক্তরাষ্ট্রের গায়ে। শনাক্তের সংখ্যা বাড়তে বাড়তে ছাড়িয়েছে ৭০ হাজারের কোটা।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে ৭১ হাজার ৬৭০ জন। একই সময়ের মধ্যে মৃত্যুবরণ করেছেন ৯৯৭ জন। 

চলতি মাসের প্রথম দিন যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত করা হয়েছে ৫১ হাজার ৯৫ জন। ২ জুলাইতে এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৭ হাজার ২৩২ জন। ৩ জুলাই শনাক্ত হয়েছে ৫৪ হাজার ৯০৪ জন। আর গতকাল এই সংখ্যা ছাড়াল ৭০ হাজার। দেশটিতে প্রতিদিনকার এই সংক্রমণ বাড়তে বাড়তে ১ লাখ ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে মনে করছেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. অ্যান্থনি ফাউসি।

মোট সংক্রমণে যুক্তরাষ্ট্র বেশ আগে থেকেই অন্যান্য দেশগুলোর ধরা-ছোঁয়ার বাইরে। দেশটিতে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৬ লাখ ১৬ হাজার ৭৪৭ জন। মৃত্যুবরণ করেছেন ১ লাখ ৪০ হাজার ১৪০ জন। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৬ লাখ ৪৫ হাজার ৯৬২ জন ভাগ্যবান। তবে প্রায় সাড়ে ১৬ হাজার আক্রান্ত রোগী মুমূর্ষু অবস্থায় হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। 

সীমিত হজেও অংশ নেবে ১৬০ দেশের নাগরিক
                                  

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে চলতি বছর সৌদি আরবে সীমিতসংখ্যক মানুষের অংশগ্রহণে হজের আয়োজন হচ্ছে। তবে শুধুমাত্র দেশটিতে বসবাসকারী বিভিন্ন দেশের অধিবাসী ও দেশটির নাগরিকরা হজ পালনের সুযোগ পেয়েছে।

এবার সব মিলিয়ে হজযাত্রীর সংখ্যা ১০ হাজার। এই সীমিত আয়োজনের হজে সৌদি আরব ছাড়াও থাকছে ১৬০ দেশের নাগরিকদের অংশগ্রহণ। সৌদি আরবের হজ মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

এ বছর মোট হজযাত্রীর সংখ্যা ১০ হাজার। এরমধ্যে ৭০ শতাংশ থাকবেন সৌদি আরবে অবস্থান করা বিভিন্ন দেশের প্রবাসী মুসলিমরা। বাকি ৩০ শতাংশ সৌদি নাগরিক। অনলাইনে নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া শেষে আবেদন করে এবারের হজে ১৬০ দেশের নাগরিকরা হজের অনুমতি পেয়েছেন। তবে কোন দেশের কতজন সেটা বিস্তারিত প্রকাশ করা হয়নি। হজের অনুমতি পাওয়া ব্যক্তিদের শিডিউল অনুযায়ী অনুমতিপত্র সঙ্গে নিয়ে হজের রীতিনীতি পালন করতে হবে।

এবারের হজে হাজিরা মিনার তাঁবুতে থাকবেন না। মিনার নির্দিষ্ট ভবনগুলোতে তারা অবস্থান করবেন। এই ভবনগুলো জামারাত থেকে মুজদালিফা যাওয়ার পথে অবস্থিত। ভবনের খুব কাছে মসজিদে খাইফ ও কংকর মারার স্থান। এখান থেকে আরাফা ও মুজদালিফা যাওয়া যায় খুব সহজে।

এবারের হজে কাবা শরিফ স্পর্শ ও হাজরে আসওয়াদে চুমো দেওয়া যাবে না। নির্দিষ্ট দূরত্বে থেকে তাওয়াফ ও সায়ী সম্পন্ন করতে হবে। তাওয়াফের সময দেড় মিটার দূরত্ব বজায় রাখতে হবে হাজিদের মধ্যে। নামাজের জামাতেও দূরত্ব বজায় রেখে দাঁড়াতে হবে। সর্বাবস্থায় হজযাত্রীদের জন্য মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক।

হাজি ব্যতীত কেউ হজের স্থানগুলোতে প্রবেশ করলে বিশাল অঙ্কের জরিমানা দিতে হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে সৌদি হজ মন্ত্রণালয়।

এদিকে হজ উপলক্ষে ১৯ জুলাই (২৮ জিলকদ) থেকে ২ আগস্ট (১২ জিলহজ) পর্যন্ত হজের অনুমতিপ্রাপ্ত ব্যতীত অন্যকারো মক্কার মিনা, মোজদালিফা ও আরাফায় প্রবেশ সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

অন্যদিকে সৌদি আরবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, করোনা সংক্রমণরোধে নেওয়া সতর্কতা ও প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা যদি কেউ অমান্য করে তবে তাকে কঠিন শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।

ইসরাইল থেকে ফের স্পাইক অ্যান্টি ট্যাঙ্ক ক্ষেপণাস্ত্র কিনছে ভারত
                                  

সীমান্তে শক্তি আরো বাড়াতে এবার ইসরাইলের কাছ থেকে স্পাইক অ্যান্টি ট্যাঙ্ক ক্ষেপণাস্ত্র কিনতে চলেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। তবে এই এই নিয়ে দ্বিতীয়বার ইসরাইল থেকে স্পাইক ক্ষেপণাস্ত্র কিনছে ভারতীয় সেনা বাহিনী।

সেনাবাহিনীর এক শীর্ষ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ১২টি স্পাইক লঞ্চার এবং ২০০টির বেশি ক্ষেপণাস্ত্রের অর্ডার ফের একবার ইসরাইলকে দেয়ার প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। গত বছর বালাকোটে প্রত্যাঘাতের পর একই পরিমাণ ক্ষেপণাস্ত্র এবং লঞ্চার জরুরি ভিত্তিতে কেনা হয়েছিল ।

ভারতীয় সূত্রের খবর, গতবারের কেনা লঞ্চার এবং ক্ষেপণাস্ত্র পাকিস্তান সীমান্তের কাছে মজুত করেছিল সেনাবাহিনী। এবার হয়তো চীনের বিরুদ্ধে ব্যবহারের ভাবনা আছে। কারণ, চীনা বাহিনী পূর্ব লাদাখে বিপুল পরিমাণে অস্ত্রশস্ত্র মজুত করেছে বলে খবর।

এদিকে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারও প্রস্তুতির জন্য সেনাবাহিনীকে ৫০০ কোটি রুপি ব্যয়ের ক্ষমতা দিয়েছে। সেই ক্ষমতা ব্যবহার করেই ইসরাইল এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে অস্ত্র এবং গোলাবারুদ কেনার পরিকল্পনা করেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

`ধুঁকছে` ভারত, আক্রান্তে নতুন রেকর্ড
                                  

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৯ হাজার ৪২৯ জন আক্রান্ত হয়েছে। যা দেশটিতে একদিনে আক্রান্তের নতুন রেকর্ড। এনিয়ে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৯ লাখ ৩৬ হাজার ১৮১ জনে দাঁড়ালো। আক্রান্তের সংখ্যায় বিশ্বে দেশটির অবস্থান তৃতীয়।

বুধবার সকালে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, নতুন করে করোনায় আরও ৫৮২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে করে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ২৪ হাজার ৩০৯ জনে দাঁড়িয়েছে।

এছাড়া মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন প্রায় ৬ লাখ। দেশজুড়ে সুস্থতার হার ৬২ দশমিক ২৩ শতাংশ।

দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যায় শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। শুধুমাত্র এই রাজ্যেই আক্রান্ত ২ লাখ ৬৭ হাজারের বেশি জন। মারা গেছে ১০ হাজার ৬৯৫ জন।

এরপরের অবস্থানে থাকা তামিল নাড়ুতে আক্রান্ত দেড় লাখের কাছাকাছি। এছাড়া তৃতীয় অবস্থানে থাকা দিল্লিতে আক্রান্ত লক্ষাধিক।

যুক্তরাষ্ট্রে এবার প্লেগ!
                                  

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রে এবার দেখা দিয়েছে বিউবোনিক প্লেগ। শনিবার দেশটির কলোরাডো রাজ্যে এক কাঠবিড়ালির দেহে বিউবোনিক প্লেগের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। এর আগে গত সপ্তাহে চীনের একটি অঞ্চলে এই প্লেগের রোগী শনাক্ত হয়েছে।কাঠবিড়ালি

আল আরাবিয়ার বরাতে জানা যায়, বিউবোনিক প্লেগ মূলত দ্য ব্ল্যাক ডেথ রোগ হিসেবেই বেশি পরিচত। এর কারণে ১৪ শ শতাব্দীর মাঝামাঝি সময়ে ইউরোপে অনেক প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছিল। ইয়েরসিনিয়া পেস্তিস নামে এক ব্যাকটেরিয়ার কারণে এই প্লেগ সৃষ্টি হয় বলে জানা গেছে।

কলোরাডোর জেফারসন শহর কর্তৃপক্ষ ওই এলাকার মানুষকে সাবধান করেছে যে, সংক্রমিত মশা-মাছি কিংবা প্রাণীর মাধ্যেম এই রোগ মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়তে পারে। এছাড়া সংক্রমিত প্রাণীর রক্তের সংস্পর্শে আসলে প্লেগে আক্রান্ত হওয়ার উচ্চঝুঁকি আছে বলে শহর কর্তৃপক্ষ স্থানীয়দের সতর্ক করেছে।কলোরাডো

জানা যায়, কাঠবিড়ালির মধ্যে প্লেগ দেখা দেয়ায় সেখানকার পোষাপ্রাণীরা পড়েছে ঝুঁকিতে। বিশেষ করে, যারা বিড়াল পালেন তারা এখন আতংকে আছেন।

স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ বলছে, বিউবোনিক প্লেগে বিড়ালের মাধ্যমে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি খুব বেশি। তাই শিগগিরই এই এলাকার সব বিড়ালকে ভ্যাকসিন দেয়া জরুরি হয়ে পড়েছে। না হলে এই প্রাণীগুলোর মাধ্যমে স্থানীয়রা অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন। তবে কুকুর সে তুলনায় অনেক নিরাপদ। কারণ কাঠবিড়ালির কাছে কুকুর সাধারণত যায় না যতটা যায় বিড়াল। কিন্তু তাই বলে ঝুঁকি এড়ানো যাবে না।

কলোরাডোতে যাদের পোষাপ্রাণীর মধ্যে বিউবোনিক প্লেগে আক্রান্তের লক্ষণ দেখা দিয়েছে বা সে রকম কিছু চোখে পড়ছে তাদের দ্রুত স্থানীয় পশু ক্লিনিকে যোগাযোগের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

এর আগে গত সপ্তাহে চীনে অস্তিত্ব পাওয়া গেছে বিউবোনিক প্লেগের। দেশটির স্বায়ত্তশাসিত ইনার মঙ্গোলিয়া অঞ্চলে পশুপালক এক ব্যক্তির শরীরে এই রোগের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। এর পর সেখানে তৃতীয় স্তরের সতর্কতা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ।

কলোরাডোর স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ বিউবোনিক প্লেগের আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণগুলো প্রকাশ করেছে। সেগুলো হচ্ছে, হঠাৎ তীব্র জ্বর, শরীর ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়া, মাথাব্যথা, বমি বমি ভাব, শরীরে তীব্র ব্যথা, অতিরিক্ত ঘাম। এসব লক্ষণ ২ থেকে ৭ দিনের মধ্যে দেখা দিতে শুরু করে।

এই প্লেগ থেকে বাঁচতে বেশ কিছু স্বাস্থ্যবিধিও ঘোষণা করেছে কলোরাডোর স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ। এসব উপায় অবলম্বন করলে একজন ব্যক্তি ও তার পোষা প্রাণী এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কম। সেগুলো হলো-

১. বন্যপ্রাণী বাড়িতে এসে খায় এমন সব খাদ্যের উৎস সরিয়ে ফেলুন।

২. বন্যপ্রাণীদের খাওয়ানো বন্ধ করতে হবে।

৩. বাড়ির বাগান থেকে আবর্জনা সরিয়ে ফেলুন যাতে বন্যপ্রাণী না আসে।

৪. অসুস্থ প্রাণীদের এড়িয়ে চলুন।

৫. অসুস্থ প্রাণীর সামনে পড়লে কী করবেন তার প্রস্তুতি নিন এবং নিয়মিত পশু বিশেষজ্ঞের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

৬. নিজের পোষা প্রাণীকে নিয়ন্ত্রণে রাখার কৌশল জব্দ করুন। প্রয়োজনে অভিজ্ঞ কারো সহায়তা নিন।

৭. নিজের পোষা প্রাণীকে যেখানে সেখানে যাওয়া থেকে বিরত রাখুন।

চীনের সঙ্গে চুক্তির পর রেল প্রকল্প থেকে ভারতকে বাদ দিল ইরান
                                  

চীনের সঙ্গে প্রতিরক্ষা চুক্তির পর এবার চার বছর আগে সই করা রেলপ্রকল্পের চুক্তি থেকে ভারতকে বাদ দিল ইরান। গত সপ্তাহে লাইন পাতার কাজ একতরফাভাবে উদ্বোধন করে এমন ইঙ্গিতই দেয় ইরান। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে এখনো মুখ খোলেনি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সরকারি কর্তা শুধু এটুকুই বলেছেন, পরেও প্রকল্পে জুড়ে যেতে পারি আমরা। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

চাবাহার সমুদ্রবন্দর থেকে আফগানিস্তান সীমান্ত লাগোয়া ইরানি শহর জাহেদান পর্যন্ত ৬২৮ কিলোমিটার দীর্ঘ পথে রেল চালানোর জন্য ভারত, ইরান ও আফগানিস্তানের মধ্যে একটি ত্রিদেশীয় চুক্তি হয়েছিল ২০১৬ সালে। উদ্দেশ্য ছিল, আফগানিস্তান ও মধ্য এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে ভারতের একটি বিকল্প বাণিজ্য পথ গড়ে তোলা। কিন্তু গত সপ্তাহে রেলপ্রকল্পের একাংশে লাইন পাতার কাজ একতরফাভাবেই উদ্বোধন করেন ইরানের পরিবহন ও নগরোন্নয়নমন্ত্রী মোহাম্মদ এসলামি। তিনি জানান, ঐ রেলপথটি আরো বাড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হবে আফগানিস্তান সীমান্তের আরো একটি শহর জারাঞ্জে। ইরান সরকারের এক শীর্ষ কর্তা পরে জানান, ভারতের সহায়তা ছাড়া তেহরানের রেল কর্তৃপক্ষ একাই ঐ প্রকল্পটি করবে। কাজ শেষ হবে ২০২২ সালের মধ্যে। প্রকল্পের জন্য প্রয়োজনীয় ৪০ কোটি ডলার দেবে ইরানের জাতীয় উন্নয়ন তহবিল।

বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, প্রকল্প থেকে ভারতের বাদ পড়ার সম্ভাব্য কারণ হতে পারে দুইটি। চীন আর আমেরিকা। তেহরানের সঙ্গে সম্প্রতি ২৫ বছর মেয়াদের ৪০ হাজার কোটি ডলারের প্রতিরক্ষা চুক্তি স্বাক্ষর করেছে বেইজিং। জঙ্গিদের অর্থ ও অস্ত্রে মদত দেওয়ার অভিযোগে আমেরিকা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারির পর যা খুব প্রয়োজন হয়ে পড়েছিল তেহরানের। অন্যদিকে, একই ইস্যুতে ইরানের সঙ্গে যাবতীয় সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য দিল্লির ওপর বছর দুয়েক ধরেই চাপ বাড়াচ্ছিল ওয়াশিংটন। এর পরিণতিতে ইরান থেকে অপরিশোধিত তেল আমদানি বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিতে হয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকারকে। 

আমেরিকা অবশ্য চাবাহার সমুদ্রবন্দর ও সংশ্লিষ্ট রেলপ্রকল্প নির্মাণ থেকে ভারতকে সরে আসার জন্য সরাসরি কোনো চাপ দেয়নি। তবে এটাও ঠিক যে, ২০১৬ সালে প্রধানমন্ত্রী মোদি তেহরান সফরে গিয়ে ইরান ও আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠকে ত্রিপাক্ষিক চুক্তি করার পর রেলপ্রকল্প এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে ভারতের তরফে ততটা আগ্রহ দেখা যায়নি বলে জানা গেছে। ভারতের উদ্বেগ ছিল, কাজটা শুরু করলে আমেরিকা ভারতের বিরুদ্ধেও জারি করতে পারে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা।

করোনার মধ্যে চীনে প্লেগে প্রথম মৃত্যু, সর্তকতা জারি
                                  

করোনা মহামারির মধ্যে এবার চীনে প্লেগ রোগে মৃত্যুর ঘটনা ঘটলো। এই রোগ মহামারি হিসেবে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় সর্তকতা জারি করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার দেশটির জাতীয় জুনোটিক ডিজিজ জানায়, মঙ্গোলিয়া অঞ্চলে বিউবোনিক প্লেগে আক্রান্ত হয়ে ১৫ বছর বয়সী এক কিশোর মারা যায়। প্লেগে এটাই প্রথম মৃত্যু।

 ইঁদুর জাতীয় এক ধরণের প্রাণীর মাংস খাওয়ার তিন দিন পর তার মৃত্যু হয়।

 

ওই কিশোর চীন সীমান্তবর্তী মঙ্গোলিয়া প্রদেশের গোভি আলতাইয়ে বসবাস করতো। মৃত্যুর আগে তার সঙ্গে দেখা করেছে এমন প্রায় ১২ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিউবোনিক প্লেগের সংক্রমণ রোধে মঙ্গোলিয়ার ৫টি জেলা লকডাউন করে রাখা হয়েছে।

চলতি মাসের শুরুতে স্থানীয় এক কৃষক প্লেগে সংক্রামিত হন। এরপর থেকেই মঙ্গোলিয়া মারাত্মক হুমকির মুখে পড়ে। ফলে আশঙ্কা করা হচ্ছে এটি চীন জুড়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে।

এর আগে ১৪তম শতাব্দীতে বিউবোনিক প্লেগে আক্রান্ত হয়ে ২০০ মিলিয়ন মানুষ মারা গিয়েছিল। 

এই রোগটি একটি ব্যাকটিরিয়া সংক্রমণ থেকে হয়। যা প্রাণিদের থেকে ছড়ায়। যথাযথ চিকিৎসা না পেলে আক্রান্তের ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই প্রাপ্তবয়স্ক একজনকে মেরে ফেলতে পারে বিউবোনিক প্লেগ। 

মঙ্গোলিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, প্লেগের বিস্তার চীন ও রাশিয়ার জন্য উদ্বেগের বিষয়। তবে তারা এর সংক্রমণ রোধে উচ্চ সতর্কতা জারি করেছে।

সিনিয়র কর্মকর্তা ডরজ নরঞ্জেরেল জানান, ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব রোধে ইঁদুর জাতীয় প্রাণী শিকার ও এগুলোর মাংস খাওয়া থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে। সূত্র: এক্সপ্রেস উইকে

ভারতের সঙ্গে সীমান্ত বিরোধের মধ্যেই এবার রাম ও অযোধ্যাও দাবি নেপালের
                                  

ভারতের সঙ্গে সীমান্ত বিরোধের মধ্যেই এবার রাম ও অযোধ্যাও তাদের বলে দাবি করলেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা অলি। তিনি বলেছেন, সত্যিকারের অযোধ্যা নেপালে। আর হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম দেবতা রাম ভারতীয় নয়, নেপালি।

বালুবাতারে নিজ বাসভবনে এক অনুষ্ঠানে কে পি শর্মা এমন দাবি করেন বলে সোমবার দেশটির গণমাধ্যমে বলা হয়েছে।

অলি বলেন, সাংস্কৃতিকভাবেও আমাদের শোষণ করা হয়েছে, বিকৃত করা হয়েছে তথ্য। এখনো আমদের বিশ্বাস যে, আমরা সীতাকে ভারতীয় রাজপুত্র রামের হাতে তুলে দিয়েছি। কিন্তু আমি বলব, কোনো ভারতীয় রাজপুত্রের হাতে নয়, বরং আমরা অযোধ্যার রাজপুত্রের হাতে সীতাকে তুলে দিয়েছি। আর বীরগঞ্জের কিছুটা পশ্চিমের একটা গ্রামে এই অযোধ্যা অবস্থিত। এখন যেটাকে অযোধ্যা বানানো হয়েছে, আসলে সেটা অযোধ্যা নয়।

প্রসঙ্গত, ভারত ও নেপালের মধ্যে যখন সীমান্ত নিয়ে তুমুল বিরোধ চলছে, তখন এসব মন্তব্য করলেন নেপালি প্রধানমন্ত্রী।সম্প্রতি নেপাল-ভারত সীমান্তে উত্তেজনা

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং গত ৮ মে লিপুলেখ থেকে উত্তরখান্ডের ধারচুলাকে সংযুক্ত করে ৮০ কিলোমিটার রাস্তা উদ্বোধন করেন। এর পরই শুরু হয় মূলত উত্তেজনা। নেপাল এর প্রতিবাদ জানিয়ে দাবি করে, ভারত অবৈধভাবে সড়কটি তাদের ভূখন্ডে নির্মাণ করছে। এরপরই ওই এলাকাকে অন্তর্ভুক্ত করে নতুন মানচিত্র প্রকাশ করে অলি সরকার। নতুন সেই মানচিত্রের জন্য সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাবও ইতোমধ্যে দেশটির পার্লামেন্টে পাস হয়েছে।

এ ছাড়া সম্প্রতি ভারত ও নেপাল সীমান্তে উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে গুলি চালায় নেপাল পুলিশ। এতে এক ভারতীয় নাগরিক নিহত ও অন্তত তিন জন আহত হয়। যা সাম্প্রতিক ইতিহাসে প্রথম ঘটনা।

নয়াদিল্লির অভিযোগ, নেপালের ভারত বিরোধিতাকে উস্কে দিচ্ছে চীন। তাছাড়া অলি সরকারের এসব পদক্ষেপের সমালোচনাও করছেন দেশটির রাজনীতিবিদ। এর মধ্যে সাবেক প্রধানমন্ত্রী প্রচন্ডসহ দেশটির বহু বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ রয়েছেন।

তবে অলির দাবি, ভারতীয় স্বার্থ রক্ষা করতেই তার সরকারকে উৎখাতের চেষ্টা করছেন তারা।

মালয়েশিয়ায় লকডাউনেও ধরপাকড় অভিযান
                                  

মালয়েশিয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশী রায়হান কবির কাতারভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরায় সাক্ষাৎকার দেয়ার ঘটনার পর দেশজুড়ে চলছে তোলপাড়। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে এই মুহূর্তে সারা দেশই লকডাউন। এরই মধ্যে শুরু হয়েছে ইমিগ্রেশন পুলিশের ব্যাপক ধরপাকড় অভিযান। অভিযানে বাংলাদেশী ব্যবসায়ী, শ্রমিকদের সামান্য ত্রুটি পেলেই দোকানপাট বন্ধ করা ছাড়াও আটক করার ঘটনা ঘটছে বলে প্রবাসী বাংলাদেশীদের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ দিকে মালয়েশিয়ান পুলিশের মহাপরিদর্শক তানশ্রি আবদুল হামিন বদর সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, বাংলাদেশী নাগরিক রায়হান কবিরের ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করেছে ইমিগ্রেশন বিভাগ। তাই তাকে নিজ দেশে ফেরত যাওয়ার আগে অবশ্যই আত্মসমর্পণ করতে হবে।
ইতোমধ্যে রায়হান কবিরকে মালয়েশিয়ায় ‘মোস্ট ওয়ান্টেড নাগরিক’ চিহ্নিত করে ধরিয়ে দিতে ইমিগ্রেশনের ফেসবুক পেইজে ছবি এবং পাসপোর্ট দিয়ে তাদের দেশের নাগরিকদের কাছে অনুরোধ জানানো হয়েছে। তবে গতকাল সোমবার রাত পর্যন্ত পুলিশ বা ইমিগ্রেশন তাকে আটক করতে পারেনি।

অভিবাসন বিশেষজ্ঞ ড. শংকর চন্দ্র পোদ্দার নয়া দিগন্তকে আল জাজিরায় রায়হান কবিরের সাক্ষাৎকার দেয়া এবং পরবর্তী পরিস্থিতি প্রসঙ্গে গতকাল সোমবার রাতে বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে মালয়েশিয়াতে বাংলাদেশী যে কাউকে যেকোনো বিষয়ে বুঝেশুনে তারপর বক্তব্য দেয়া উচিত। আর যেহেতু ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ তার ভিসা বাতিল করেছে সেহেতু আমি মনে করি দ্রুত নিয়মের মধ্যে তার সারেন্ডার করা উচিত।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী অভিবাসী শ্রমিকদের প্রতি দেশটির আইনশৃঙ্খলাবাহিনী কর্তৃক চলমান লকডাউনে বৈষম্যমূলক ও বর্ণবাদী আচরণ করা হয়েছে বলে ‘লকড আপ ইন মালয়েশিয়া’স লকডাউন’ শিরোনামে ২৫ মিনিটের ডকুমেন্টারি সম্প্রতি আল-জাজিরা টিভি চ্যানেলে সম্প্রচারিত হয়। এই প্রতিবেদনটি প্রচার হওয়ার পর মালয়েশিয়া সরকার তীব্র নিন্দা জানিয়ে প্রতিবেদনটিকে ‘ভিত্তিহীন’ হিসাবে দাবি করছে। প্রতিবেদনে বাংলাদেশী নাগরিক রায়হান কবির সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন। এরপর থেকেই রায়হানের প্রতি ক্ষুব্ধ মালয়েশিয়া সরকার।

এ নিয়ে আলজাজিরা কর্তৃপক্ষকে নোটিশ পাঠানো হয়। আলজাজিরা টেলিভিশনকে দেয়া তার সাক্ষাৎকারের বিষয়ে দেশটির অভিবাসন আইন ১৯৫৯/৬৩ এর ধারায় তদন্তে সহযোগিতা করার জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে। এরপর থেকেই মালয়েশিয়ায় থাকা প্রবাসীদের মাঝে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বাড়ছে। রায়হান কবিরের বিষয়ে গতকাল মালয়েশিয়ার বাংলাদেশ হাইকমিশনের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা নাম না প্রকাশ করে বলছেন, ‘এ নিয়ে থউদ্বেগের কোনো কারণ নেই, কূটনৈতিক রীতিনীতির আওতায় যা করা দরকার দূতাবাস তা করবে’।

গতকাল মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরের বুকিং বিনতান থেকে জনৈক আবু সুফিয়ান নয়া দিগন্তকে সর্বশেষ পরিস্থিতি জানিয়ে বলেন, পুরো মালয়েশিয়ায় এই মুহূর্তে লকডাউন চলছে। তবে আগে ছিল ‘মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার’ (এমসিও)। আর এখন সেটি উঠিয়ে ‘রিকভারি মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার’ (আরএমসিও) দিয়েছে। অর্থাৎ বর্তমান করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে।

আলজাজিরায় রায়হান কবিরের সাক্ষাৎকার দেয়ার পরের পরিস্থিতি বর্ণনা করে তিনি বলেন, ইমিগ্রেশন পুলিশ এখন বাঙালি দেখলেই ধরপাকড় করার চেষ্টা করছে। সামান্য ত্রুটি পেলেই দোকান বন্ধ করে ধরে নিয়ে যাচ্ছে। উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, বুকিং বিনতান এলাকায় বাংলাদেশী যেসব ব্যবসায়ীর দোকান রয়েছে নিয়ম অনুযায়ী সেখানে বাধ্যতামূলক হিসাবে ক্যাশিয়ার থাকতে হবে মালয় নাগরিক। কিন্তু বেশির ভাগ দোকানে ক্যাশিয়ার বাংলাদেশী থাকায় তাদের দোকান বন্ধ করে পুলিশ ধরে নিয়ে যাচ্ছে। ইদানীং এসব দোকান আবার খুলছে। তবে ক্যাশিয়ার মালয় নাগরিক বসানো হয়েছে। এতে দোকানে বাড়তি খরচ হচ্ছে। তিনি বলেন, এ ছাড়া রাস্তায় রাস্তায় পুলিশ চেকপোস্ট বসিয়ে কাগজপত্র দেখার নামেও হয়রানি চলছে বলে বিভিন্নভাবে তারা জানতে পারছেন।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, রায়হান কবিরকে ধরতে ইতোমধ্যে মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশনের ওয়েব সাইটে মোস্ট ওয়ান্টেড ব্যক্তি হিসাবে ছবি ও পাসপোর্ট ঝুলছে। তার মতে, রায়হান কবিরের উচিত আমাদের বাংলাদেশ হাইকমিশনের মাধ্যমে আত্মসমর্পন করে ফেলা। নতুবা যদি সে অভিযানে ধরা পড়ে তাহলে তার উপর নির্যাতন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। যদিও রায়হান কবির আলজাজিরা টেলিভিশনে যে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন সেটি শতভাগ না হলেও অধিকাংশ সত্য ঘটনাই সে বলেছে বলে আমরা মনে করছি।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে সুফিয়ান বলেন, বিশ্বে যে কয়টি দেশ করোনাভাইরাস থেকে উত্তোরণে সাফল্য দেখিয়েছে তার মধ্যে মালয়েশিয়া অন্যতম সেরা। গত এক মাসে মৃত্যুর ঘটনা নেই বললেই চলে। তারা সবাকেই মুখে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক এবং সোস্যাল ডিসট্যান্স মেনে চলার পরামর্শ দিচ্ছেন। এতে সফলতা এসেছে। মূলত মালয়েশিয়াতে লকডাউন পর্ব শেষ হয়ে গেছে ১০ জুন।

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৩২ লাখ ছাড়ালো
                                  

মহামারী করোনাভাইরাসে বিশ্বব্যাপী আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৩০ লাখ ছাড়িয়েছে। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত এ সংখ্যা ১ কোটি ৩২ লাখ ৪০ হাজার ৪২৭ জন, যাদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৭৫ হাজার ৬০১ জনের।

এ পর্যন্ত সারা বিশ্বে প্রাণঘাতী কোভিড-১৯ থেকে সুস্থ হয়েছেন ৭৭ লাখ ৭ হাজার ৬০১ জন। ওয়ার্ল্ডোমিটার সূত্র এ সংখ্যা জানা গেছে।

আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যায় সবার উপরে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ৩৪ লাখ ৭৯ হাজার ৪৮৩ জন আর মারা গেছেন ১ লাখ ৩৮ হাজার ২৪৭ জন। দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ব্রাজিল। সেখানে এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ১৮ লাখ ৮৭ হাজার ৯৫৯ জন এবং মারা গেছেন ৭২ হাজার ৯২১ জন।

এছাড়া আক্রান্তে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ৯ লাখ ৭ হাজার ৬৪৫ জন। আর মৃতের সংখ্যায় তৃতীয় অবস্থানে যুক্তরাজ্য। সেখানে মারা গেছে ৪৪ হাজার ৮৩০ জন।

উল্লেখ্য, গত ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারী ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

 

মহামারি আরো খারাপ আকার ধারণ করতে পারে : হু
                                  

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) বলেছে, বিশ্বজুড়ে সংক্রমণ বৃদ্ধি পাবার এই পরিস্থিতিতে অদূর ভবিৎষতে স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফেরার সম্ভাবনা নেই। ডব্লিউএইচও হুঁশিয়ারি দিয়েছে যে, এ সময় সব দেশ কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে না পারলে মহামারি আরো খারাপ আকার ধারণ করবে।

জেনেভায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সদরদপ্তরে আয়োজিত ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে সংস্থাটির মহাপরিচালক টেদ্রোস আধানম গেব্রিয়েসাস বলেন, “অনেক বেশি দেশ ভুল পথে হাঁটছে। আর এই ভাইরাস গণমানুষের এক নম্বর শত্রু হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

“করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে মৌলিক স্বাস্থ্যবিধি না মানা হলে এই মহামারী চলতে থাকবে, এ পরিস্থিতি খারাপ থেকে খারাপ এবং আরও খারাপের দিকে যাবে।”

বিশ্বজুড়ে একদিনে রেকর্ড দুই লাখ ৩০ হাজার ৩৭০ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) জানিয়েছে।

ডব্লিউএইচওর প্রতিবেদনের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় পাওয়া তথ্যে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকায়।

এর আগে ১০ জুলাই এক দিনে দুই লাখ ২৮ হাজার ১০২ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়ার খবর জানিয়েছিল ডব্লিউএইচও। এতদিন সেটাই ছিল বিশ্বে এক দিনে শনাক্ত রোগীর সর্বোচ্চ সংখ্যা।

রয়টার্সের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বে এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৩০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। মারা গেছে ৫ লাখের বেশি মানুষ।
সূত্র : ভোয়া

আক্রান্ত ১ কোটি ২৮ লাখ, মৃত্যু ৫ লাখ ৬৮ হাজার
                                  

প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসে সারাবিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যা এক কোটি ছাড়িয়ে গেছে। করোনার সার্বক্ষণিক তথ্য রাখা, জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুসারে সোমবার সকাল পর্যন্ত ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ২৮ লাখ ৭২ হাজার ৪৩৪ জন।

এছাড়া সোমবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে ভাইরাসটিতে মারা গেছেন ৫ লাখ ৬৮ হাজার ২৯৬ জন। ইতোমধ্যে বিশ্বের ১৮৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এ প্রাণঘাতী ভাইরাস।

আমেরিকার দুই মহাদেশ ও দক্ষিণ এশিয়ায় সংক্রমণ দ্রুত বাড়ছে। অন্যদিকে ইউরোপকে লণ্ডভণ্ড করে দিয়ে করোনা কিছুটা স্তিমিত হলেও সেখানেও আবার রোগটির পুনরুত্থান দেখা যাচ্ছে। তবে আশার কথা হচ্ছে, এ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থতার হার দ্রুত বাড়ছে। অন্যদিকে আক্রান্তের সংখ্যার সঙ্গে পাল্লা দেয়নি মৃত্যুহার। প্রাণহানিও স্থিতিশীল রয়েছে।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩ লাখ ২ হাজার আর মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৩৫ হাজার মানুষের।

করোনায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আক্রান্ত ও মৃত্যু ব্রাজিলে। সেখানে ১৮ লাখ ৬৪ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত এবং মারা গেছে ৭২ হাজার ১০০ জন।


তৃতীয় সর্বোচ্চ আক্রান্ত হয়েছে ভারতে। দেশটিতে ৮ লাখ ৪৯ হাজার জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ভারতে মৃত্যুর সংখ্যা তুলনামূলক কম। মৃত্যুর সংখ্যায় অষ্টম দেশটি। সেখানে করোনায় মারা গেছে ২২ হাজার ৬৭৪ জন।

আক্রান্তের হিসেবে চতুর্থ রাশিয়ায়। দেশটিতে ৭ লাখ ২৬ হাজার জন করোনায় আক্রান্ত। রাশিয়াতেও মৃতের সংখ্যা তুলনামূলক কম। মৃত্যুর দিক দিয়ে রাশিয়া বিশ্বে ১১ তম। সেখানে করোনায় মারা গেছে ১১ হাজার ৩১৮ জন মানুষ।

চীনে ভয়াবহ বন্যা, ১৪১ জনের বেশি প্রাণহানির শঙ্কা
                                  

চীনে ভয়াবহ বন্যায় ইতোমধ্যে ১৪১ জনের বেশি লোকের প্রাণহানি ঘটেছে বা নিখোঁজ হয়েছেন। এছাড়া দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে এই বন্যার কবলে পড়েছেন প্রায় ৩ কোটি ৮০ লাখ মানুষ। রবিবার দেশটির পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।


দেশটির ফ্লাড কন্ট্রোল অ্যান্ড ড্রাউট রিলিফ হেডকোয়ার্টারের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ২৭ রাজ্যে বন্যায় প্রায় ৩ কোটি ৮০ লাখ কবলে পড়েছেন। এদের মধ্যের জিয়াংজি, আনহুই, হুবেই এবং হুনান প্রদেশও রয়েছে। এতে ১৪১ জন মারা গেছে বা নিখোঁজ রয়েছে এবং ২০ লাখ ২৫ হাজার লোককে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

কয়েক সপ্তাহ ধরে চলা ভারী বৃষ্টিপাতে দেশটির বিভিন্ন নদী ফুলে ফেঁপে উঠেছে। বন্যায় এরই মধ্যে ২৮ হাজারের বেশি বিল্ডিং ধ্বংস হয়ে গেছে এবং ক্ষতির পরিমাণ আনুমানিক ১১ দশমিক ৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং দেশটির নাগরিকদের নিরাপত্তার জন্য সকল ধরণের পূর্ব সতর্কতা মূলক ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে।

মার্কিন বিমানবাহী রণতরীতে আগুন ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি
                                  

আমেরিকার সান ডিয়েগো নৌ ঘাঁটিতে নোঙর করা একটি বিমানবাহী রণতরীতে বিস্ফোরণের ফলে সৃষ্টি অগ্নিকাণ্ডে ১৮ সৈন্য ও চার বেসামরিক ব্যক্তি আহত হয়েছে। এ ছাড়া, এতে যুদ্ধজাহাজটির অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।


ইউএসএস বোনহোম রিচার্ড নামের রণতরীটি সমুদ্রে দায়িত্ব পালনের সময় সর্বোচ্চ ১,০০০ সেনা বহন করতে সক্ষম হলেও গতকাল (রোববার) সকালে এটিতে আগুন ধরে যাওয়ার সময় এটিতে প্রায় ২০০ ক্রু উপস্থিত ছিল।


গণমাধ্যমে প্রকাশিতে ভিডিও ফুটেজে রণতরীটিতে ভয়াবহ আগুন ও ঘন কালো ধোঁয়া অনেক উঁচুতে উঠে যেতে দেখা গেছে।

মার্কিন নৌবাহিনীর অন্যতম মুখপাত্র কৃষ্ণা জ্যাকসন বলেছেন, রণতরীটি মেরামতের জন্য ওই নৌ ঘাঁটিতে নোঙর করা হয়েছিল।তাৎক্ষণিকভাবে বিস্ফোরণ ও অগ্নিকাণ্ডের কারণ জানা না গেলেও কয়েকদিন ধরে জাহাজটিতে আগুন জ্বলতে থাকতে পারে বলে প্রেস টিভি জানিয়েছে।

অন্তত ১৮ সেনা ও চার বেসামরিক ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং তাদের কারো অবস্থা আশঙ্কাজনক নয় বলে দাবি করা হয়েছে।এ ছাড়া, রণতরীতে থাকা কোনো সেনা নিখোঁজ হননি বলেও মার্কিন নৌবাহিনী দাবি করেছে।
সূত্র : পার্স টুডে

চীনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ভারতের পাশে দাঁড়াবে না যুক্তরাষ্ট্র!
                                  

চীনের সঙ্গে যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি হলে ডোনাল্ড ট্রাম্প কি ভারতের পাশে দাঁড়াবেন? আমেরিকার সাবেক নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন বললেন, খুব সন্দেহ আছে।


গত এক মাসেরও বেশি সময় ধরে গালওয়ানে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারত-চীনের মধ্যে পরিস্থিতি যথেষ্ট উত্তপ্ত। এ প্রসঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বোল্টনকে প্রশ্ন করা হয়েছিল। সেই প্রশ্নের উত্তরেই সন্দেহ প্রকাশ করে বোল্টন বলেন, “জানি না উনি (ট্রাম্প) কার সঙ্গ দেবেন। আমার মনে হয় না, উনি নিজেও সেটা ভালো করে জানেন।” এরই পাশাপাশি বোল্টন যোগ করেন, “তবে আমার ধারণা ট্রাম্প চীনের সঙ্গে ভূকৌশলগত সম্পর্কের উপরই বেশি জোর দেবেন। বিশেষ করে ব্যবসার ক্ষেত্রে।”


সামনেই প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। বোল্টের মতে, সব কিছুই নির্ভর করছে সেই নির্বাচনের উপর। নভেম্বরের নির্বাচনে যদি ট্রাম্প উতরে যান, তা হলে তিনি কী করবেন সেটা আন্দাজ করা মুশকিল। তবে ট্রাম্প চীনের সঙ্গে ব্যবসায়িক চুক্তিতে জোর দিতে পারেন বলেও ধারণা বোল্টের।

এই মুহূর্তে জাপান, ভারত-সহ ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের বেশ কয়েকটি দেশের সঙ্গে চীনের সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। আমেরিকার সঙ্গেও চীনের সম্পর্ক খুব একটা মসৃণ নয়। উল্টো দিকে ভারতের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্ক যথেষ্টই ভালো। এর পরেও কি ভারতকে সমর্থন করবেন না ট্রাম্প? এ প্রসঙ্গে বোল্ট বলেন, “কোনো নিশ্চয়তা নেই যে ট্রাম্প ভারতকেই সমর্থন করবেন। তাকে ভারত-চীনের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে হয়তো জানানো হয়েছে। কিন্তু ট্রাম্পের কাছে ইতিহাসের কোনো গুরুত্ব নেই। তা ছাড়া ট্রাম্প ভারত-চীনের এই সংঘর্ষের ইতিহাস সম্পর্কে কতটা ওয়াকিবহাল, সে বিষয়েও আমার সন্দেহ আছে।”
সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

 


   Page 1 of 332
     আন্তর্জাতিক
ভারতে এক দিনে ৩২ হাজারের বেশি করোনা পজিটিভ
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে সংক্রমণ ছাড়াল ৭০ হাজার!
.............................................................................................
সীমিত হজেও অংশ নেবে ১৬০ দেশের নাগরিক
.............................................................................................
ইসরাইল থেকে ফের স্পাইক অ্যান্টি ট্যাঙ্ক ক্ষেপণাস্ত্র কিনছে ভারত
.............................................................................................
`ধুঁকছে` ভারত, আক্রান্তে নতুন রেকর্ড
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে এবার প্লেগ!
.............................................................................................
চীনের সঙ্গে চুক্তির পর রেল প্রকল্প থেকে ভারতকে বাদ দিল ইরান
.............................................................................................
করোনার মধ্যে চীনে প্লেগে প্রথম মৃত্যু, সর্তকতা জারি
.............................................................................................
ভারতের সঙ্গে সীমান্ত বিরোধের মধ্যেই এবার রাম ও অযোধ্যাও দাবি নেপালের
.............................................................................................
মালয়েশিয়ায় লকডাউনেও ধরপাকড় অভিযান
.............................................................................................
বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৩২ লাখ ছাড়ালো
.............................................................................................
মহামারি আরো খারাপ আকার ধারণ করতে পারে : হু
.............................................................................................
আক্রান্ত ১ কোটি ২৮ লাখ, মৃত্যু ৫ লাখ ৬৮ হাজার
.............................................................................................
চীনে ভয়াবহ বন্যা, ১৪১ জনের বেশি প্রাণহানির শঙ্কা
.............................................................................................
মার্কিন বিমানবাহী রণতরীতে আগুন ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি
.............................................................................................
চীনের বিরুদ্ধে যুদ্ধে ভারতের পাশে দাঁড়াবে না যুক্তরাষ্ট্র!
.............................................................................................
সরকারবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল ইসরাইল
.............................................................................................
ভারতে সংক্রমণে ফের নতুন রেকর্ড , একদিনেই আক্রান্ত ২৮৬৩৭
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় নতুন করে ৬৬ হাজার ৫২৮ জন আক্রান্ত
.............................................................................................
সব রেকর্ড ভেঙে ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ আক্রান্ত
.............................................................................................
‘আয়া সুফিয়া’কে মসজিদ হিসেবে ঘোষণা এরদোগানের
.............................................................................................
করোনায় ব্রাজিলে মৃত্যু ৭০ হাজার ছাড়াল
.............................................................................................
নেপালে এবার বন্ধ সব ভারতীয় সংবাদ চ্যানেল
.............................................................................................
আইভরি কোস্টের প্রধানমন্ত্রী আহমেদ গউন আর নেই
.............................................................................................
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ত্যাগের প্রক্রিয়া শুরু যুক্তরাষ্ট্রের
.............................................................................................
যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত ৩০ লাখ ছাড়াল
.............................................................................................
করোনায় ভারতে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়াল
.............................................................................................
ভারতে একদিনে মারা গেছে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিগুণ করোনা রোগী
.............................................................................................
সৌদি আরবে বিনামূল্যে ইকামার মেয়াদ ৩ মাস বাড়ল
.............................................................................................
চীনে এবার প্লেগের হানা, আরেক মহামারির শঙ্কা
.............................................................................................
বিশ্বে একদিনে রেকর্ড করোনা শনাক্ত ২ লাখ ১২ হাজার ৩২৬ জন : ডব্লিউএইচও
.............................................................................................
আফগানিস্তান থেকে দ্রুত সেনা সরাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র
.............................................................................................
ঐক্যবদ্ধ হয়ে ইসরাইলকে রুখতে হবে : মাহাথির
.............................................................................................
করোনা অজুহাতে সাভারে অনির্দিষ্টকালের জন্য পোশাক কারখানা বন্ধ
.............................................................................................
জাপানে ভারি বৃষ্টিপাতে বন্যা-ভূমিধস, নিহত ২০
.............................................................................................
চীনকে ‘চাপে’ ফেলতে বিমানবাহী রণতরী পাঠালেন ট্রাম্প
.............................................................................................
সৌদি আরবে একদিনে করোনায় রেকর্ডসংখ্যক মৃত্যু
.............................................................................................
ভারতে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ২২ হাজার, মৃত্যু ৪৪২ জন
.............................................................................................
ভারতে বন্দুকযুদ্ধে ৮ পুলিশ নিহত
.............................................................................................
২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকবেন পুতিন
.............................................................................................
ঘরে বসেই দিল্লির ওপর নজরদারি করছে চীন!
.............................................................................................
‘ভ্যাক্সিনের জন্য অপেক্ষা করতে হবে আরো আড়াই বছর’
.............................................................................................
মিয়ানমারে ভয়াবহ খনি ধস, নিহত শতাধিক
.............................................................................................
চীনের বিরুদ্ধে যুদ্ধপ্রস্তুতি অস্ট্রেলিয়ার!
.............................................................................................
হংকংয়ের ৩০ লাখ বাসিন্দাকে বসবাসের সুযোগ দেবে যুক্তরাজ্য
.............................................................................................
‘ভুল পথে হাঁটছে যুক্তরাষ্ট্র, সংক্রমণ দিনে লাখ পার হতে পারে’
.............................................................................................
করোনাভাইরাসে বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫০৯,৭৭৯
.............................................................................................
‘প্রধানমন্ত্রী’র ৫ বছর জেল
.............................................................................................
ট্রাম্প-নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ ‘মামলা’
.............................................................................................
ইরানে ক্লিনিকে ভয়াবহ গ্যাস বিস্ফোরণ, নিহত ১৯
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ইউরোপ মহাদেশ বিষয়ক সম্পাদক- প্রফেসর জাকি মোস্তফা (টুটুল)
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD