ঢাকা, মঙ্গলবার , ৭ আশ্বিন ১৪২৭ , ২২ সেপ্টেম্বর , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
ভারতে তিনতলা ভবন ধসে ৩১ জনকে উদ্ধার, ১০ জন নিহত

ভারতে সোমবার সকালে মুম্বাইয়ের কাছে ভিওয়ান্দিতে একটি তিনতলা ভবন ধসে পড়েছে। এতে এখন পর্যন্ত ১০ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
দেশটির সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী এখন পর্যন্ত ভবনটির ধ্বংসস্তূপ ৩১ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকাজ অব্যাহত রয়েছে। উদ্ধারকাজে দেশটির ন্যাশনাল ডিসাস্টার রেসপন্স ফোর্স (এনডিআরএফ) ছাড়াও রয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। 

এনডিআরএফ আশঙ্কা করছে, ধ্বংসস্তূপে এখনো ২০ থেকে ২৫ জন আটকে থাকতে পারে।

প্রাথমিক রিপোর্ট অনুসারে, ভোর রাত সাড়ে তিনটা নাগাদ ২১টি ফ্ল্যাটের ওই বিল্ডিংটি ধসে পড়ে। এ সময় ফ্ল্যাটের সব বাসিন্দারাই ঘুমিয়ে ছিলেন।

নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ভারতে তিনতলা ভবন ধসে ৩১ জনকে উদ্ধার, ১০ জন নিহত
                                  

ভারতে সোমবার সকালে মুম্বাইয়ের কাছে ভিওয়ান্দিতে একটি তিনতলা ভবন ধসে পড়েছে। এতে এখন পর্যন্ত ১০ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
দেশটির সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী এখন পর্যন্ত ভবনটির ধ্বংসস্তূপ ৩১ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকাজ অব্যাহত রয়েছে। উদ্ধারকাজে দেশটির ন্যাশনাল ডিসাস্টার রেসপন্স ফোর্স (এনডিআরএফ) ছাড়াও রয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। 

এনডিআরএফ আশঙ্কা করছে, ধ্বংসস্তূপে এখনো ২০ থেকে ২৫ জন আটকে থাকতে পারে।

প্রাথমিক রিপোর্ট অনুসারে, ভোর রাত সাড়ে তিনটা নাগাদ ২১টি ফ্ল্যাটের ওই বিল্ডিংটি ধসে পড়ে। এ সময় ফ্ল্যাটের সব বাসিন্দারাই ঘুমিয়ে ছিলেন।

নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ইসরায়েলের সঙ্গে চুক্তিতে অসম্মতি সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজের
                                  

সম্প্রতি ইসরায়েলের সঙ্গে চুক্তি করে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার ঘোষণা দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন। একই পথে হাঁটার পক্ষে সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। তবে এতে ঘোর অসম্মতি জানিয়েছেন দেশটির বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ। এ নিয়ে বাপ-বেটার মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে বলেও জানা যাচ্ছেসৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ এবং যুবরাজ বিন সালমান (পেছনে)

গতকাল শুক্রবার এমন তথ্য জানিয়ে বিস্তারিত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী গণমাধ্যম দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল। তাতে বলা হয়, ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করা নিয়ে সৌদি রাজপরিবারে তুমুল দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে।

স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা না হওয়া পর্যন্ত ইসরায়েলের সঙ্গে কোনো ধরনের সম্পর্ক স্থাপন করতে চান না সৌদি বাদশাহ। কিন্তু তার ছেলে যুবরাজ মোহাম্মদ ইরানের বিরুদ্ধে শক্তিশালী অবস্থান গড়তে ইসরায়েলের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক স্থাপন করতে আগ্রহী।হোয়াইট হাউসে মার্কিন প্রেসিডেন্টের উপস্থিতিতে ইসরায়েলের সঙ্গে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের চুক্তি

বলা হচ্ছে, গত ১৩ আগস্ট ইসরায়েলের সঙ্গে আমিরাতের সম্পর্ক স্থাপনের আকস্মিক ঘোষণা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তখন অবকাশ যাপনে থাকা সৌদি বাদশাহ এ খবর শুনে বেশ অবাক হন। কেননা, এ বিষয়ে যুবরাজ তাকে আগে থেকে কিছুই জানাননি।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, যুবরাজের আশঙ্কা ছিল, বাদশাহ সালমান জানলে এতো সহজে ইসরায়েলের সঙ্গে আমিরাতের চুক্তি হতে দিতেন না। এ জন্যই তার কাছ থেকে বিষয়টি গোপন করেছেন যুবরাজ। ফলে আমিরাত-ইসরায়েল চুক্তির ঘোষণা আসার পর পরই বাদশাহ দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল বিন ফারহানকে দিয়ে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় পাশে থাকার ঘোষণা দেয়ান।

এরপর ফিলিস্তিন ইস্যুতে সৌদি আরবের অবস্থান স্পষ্ট করে সরকারি পত্রিকায় একটি নিবন্ধ লেখেন রাজপরিবারের প্রভাবশালী একজন সদস্য। তাতে ফিলিস্তিনকে আরো ছাড় দিতে ইসরায়েলের ওপর চাপ প্রয়োগ করতে আমিরাতের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের বরাত দিয়ে তুর্কি গণমাধ্যম আনাদলু এজেন্সি জানায়, ট্রাম্পের উপদেষ্টা ও তার ইহুদি জামাতা জারেড কুশনারের সঙ্গে এক বৈঠকে সৌদি যুবরাজ বলেছেন, বাদশাহ সালমান কখনোই ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনে সম্মতি দিবেন না। তবে ইসরায়েলের সঙ্গে বাহরাইনের সম্পর্ক স্বাভাবিক করে দিতে পারবেন যুবরাজ।

দখলদারিত্বের সীমা ছাড়িয়ে এবার শুক্র গ্রহকেও নিজেদের বলে দাবি রাশিয়ার
                                  

পৃথিবীতে নিজেদের দখলদারিত্বের সীমা ছাড়িয়ে এবার শুক্র গ্রহকেও নিজেদের বলে দাবি করল রাশিয়া। সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা শুক্র গ্রহে প্রাণের অস্তিত্বের ইঙ্গিত পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন। এরপরই হঠাৎ শুক্রকে রাশিয়ান গ্রহ বলে দাবি করেছেন দেশটির মহাকাশ গবেষণা সংস্থা রোসকোমোসস।

রুশ বার্তাসংস্থা তাস নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, চলতি সপ্তাহে সংস্থাটির প্রধান দিমিত্রি রোগোজিন সাংবাদিকদের বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে পরিকল্পিত যৌথ মিশন ভেনেরা-ডি” ছাড়াও শুক্র গ্রহে নিজস্ব মিশন পাঠানোর পরিকল্পনা করছে রাশিয়া। শুক্র গ্রহে পুনরায় অনুসন্ধান চালানো রাশিয়ার কর্মসূচিতে রয়েছে।

মস্কোতে হেলিকপ্টার শিল্পের আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী হেলিরাশিয়া-২০২০ নাম আয়োজনে গত মঙ্গলবার তিনি এসব কথা জানান। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, শুক্রে পুনরায় অনুসন্ধান আমাদের নির্ধারিত কর্মসূচির অন্তর্ভূক্ত। আমরা মনে করি শুক্র রাশিয়ার একটি গ্রহ, সুতরাং আমাদের পিছিয়ে থাকা উচিত নয়।



মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, পৃথিবীর প্রায় সমান আকৃতির শুক্র গ্রহটি আমাদের সবচেয়ে কাছের প্রতিবেশী। কিন্তু এটি পৃথিবীর তুলনায় বিপরীত দিকে ঘোরে।

সম্প্রতি নেচার অ্যাস্ট্রনমিতে এ সংক্রান্ত একটি প্রবন্ধে কার্ডিফ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক জেন গ্রিভসের নেতৃত্বে একটি আন্তর্জাতিক গবেষক দল জানিয়েছে, গ্রহটিকে ঘিরে রাখা মেঘে ফসফিনের অস্তিত্ব খুঁজে পেয়ে আশাবাদী হয়ে উঠেছেন বিজ্ঞানীরা। কারণ, এই গ্যাস পৃথিবীতে উৎপন্ন হয় ব্যাকটেরিয়া থেকে। অক্সিজেন রয়েছে এমন পরিবেশে থাকা ব্যাকটেরিয়া এই গ্যাস নিঃসরণ করে।

৪৫০ ভারতীয় শ্রমিক সৌদিতে ভিক্ষার ঝুলি হাতে রাস্তায়
                                  

হাতে কাজ নেই। পেটে সামান্য দানাপানি জুটছে না। এমনকী কাজ করার অনুমতিটুকুও খুইয়েছেন। বিদেশ-বিভুঁইয়ে রুজি-রুটি হারিয়ে রাস্তায় ভিক্ষার ঝুলি হাতে বসতে বাধ্য হয়েছিলেন তারা। এক-দু’জন নয়, ৪৫০ জন। তাতেও যন্ত্রণা শেষ হয়নি সৌদি আরবে কর্মরত এই বিপুল সংখ্যক শ্রমিকের। কোভিড পরিস্থিতিতে নিয়মভঙ্গের দায়ে তাদের চিহ্নিত করে সৌদি সরকার। রাতে ভাড়াবাড়িতে ফেরার পর তুলে নিয়ে যাওয়া হয় ডিটেনশন সেন্টারে। আপাতত জেদ্দা শহরের শুমাইসি সেন্টারে দিন কাটছে বিপাকে পড়া শ্রমিকদের। তাদের মধ্যে ৩৯ জন উত্তরপ্রদেশের বাসিন্দা।

ভারতের এক মিডিয়া প্রতিবেদনে বলা হয়, বিদেশে আটকে পড়া ভারতীয়দের ফেরাতে ‘বন্দে ভারত মিশন’ চালু করেছিল ভারত সরকার। নাম লিখিয়েছিলেন প্রায় আড়াই লাখ মানুষ। কিন্তু অবস্থাপন্ন ছাড়া উড়ানপথে ঠিক কতজন ভারতীয় দেশে ফিরেছেন, আরবের এই ছবি তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখাচ্ছে। পরিস্থিতি আদতে কতটা ভয়াবহ, তা ফুটে উঠেছে সেন্টারে আটক এক শ্রমিকের কথায়।

আটক একজন বলেন, ‘আমরা তো কোনো অপরাধ করিনি। পেটে ভাত জুটছে না। তাই ভিক্ষা করতে বাধ্য হয়েছিলাম। এখন আমাদের ডিটেনশন সেন্টারে ধুঁকতে হচ্ছে।’



তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হলো, অন্যান্য দেশ থেকে আরবে আসা শ্রমিকেরা এমন ভুক্তভোগী নয়। আটকে পড়া এক ভারতীয় শ্রমিকের কথায়, ‘এখানে পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কার অনেক শ্রমিক কাজ করতেন। সেই সব দেশের সরকার বিগত চার মাস ধরে সবাইকে ধাপে ধাপে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে গেছে। শুধুমাত্র আমরাই আটকা পড়েছি।’

সৌদি সরকার জানিয়েছে, যেসব শ্রমিকের ‘ওয়ার্ক পারমিট’ ছিল না, শুধু তাদেরই ডিটেনশন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

ইতিমধ্যে আটকে পড়া শ্রমিকদের দেশে ফেরাতে উদ্যোগী হয়েছেন তেলেঙ্গানার মজলিশ বাঁচাও তেহরিক দলের প্রধান আমজাদউল্লাহ খান। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরিকে চিঠি পাঠিয়েছেন তিনি। আমজাদের আর্জিতে নড়েচড়ে বসেছে ভারত সরকার। বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট হেল্পলাইন ‘প্রবাসী ভারতীয় সহায়তা কেন্দ্র’-এর তরফে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।

সৌদি নারীদের জন্য প্রথমবারের মতো দুটি ডিজিটাল কলেজ চালু
                                  

আধুনিক প্রযুক্তি বিষয়ক কাজে সম্পৃক্ত করতে সৌদি নারীদের জন্য এবারই প্রথমবারের মতো দুটি ডিজিটাল কলেজ চালু করেছে দেশটির সরকার। দেশটির শিক্ষামন্ত্রী হামাদ আল শেখ রাজধানী রিয়াদ ও জেদ্দায় ডিজিটাল কলেজ দুটির উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে টেকনিক্যাল অ্যান্ড ভোকেশনাল ট্রেনিং কর্পোরেশন (টিভিটিসি)-এর পরিচালক ড. আহমেদ ফুহাইদ উপস্থিত ছিলেন।

শুধুমাত্র নারীদের প্রযুক্তি বিষয়ক শিক্ষাদানের জন্য ডিজিটাল কলেজ স্থাপন সৌদি আরবে এই প্রথম। এখানে প্রযুক্তি বিষয়ক নানা বিষয়ে অনার্স ও ডিপ্লোমা করার ব্যবস্থা থাকবে। নেটওয়ার্ক সিস্টেম ম্যানেজমেন্ট, মিডিয়া টেকনোলজি, সফটওয়ার, স্মার্ট সিটি, রোবটিকস টেকনোলজি, আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্টস, মেশিন লার্লিংসহ নানা বিষয় থাকবে কলেজ দুটিতে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে হামাদ শেখ বলেন, ‘সৌদি আরবের যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান ক্ষমতায়ন ও সর্বোচ্চ সহায়তার মাধ্যমে নারীদের উন্নয়ন কর্মসূচির মূল ভিত্তি হিসেবে রাখতে চান। নারীদের কর্মসংস্থান, সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি ও মেধার মূল্যায়নের মাধ্যমে নারীর উন্নয়ন করা হবে। তা ছাড়া সৌদি আরবের ভিশন টুয়েন্টি থার্টিন-এ জাতীয় অর্থনীতিতে নারীদের অংশগ্রহণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আর এ উদ্দেশ্য পূরণে টিভিটিসি কাজ করে যাচ্ছে।

টিভিটিসির তত্ত্ববাধানে উদ্বোধন হওয়া দুটি ডিজিটাল কলেজে বিভিন্ন বিষয়ের বিশেষজ্ঞরা পাঠদান করবেন। এতে ৪ হাজারেরও বেশি নারী শিক্ষার্থীরা শিক্ষাগ্রহণ করতে পারবে। ডিজিটাল শ্রম বাজারের চাহিদা পূরণে প্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন শিক্ষার্থীরা ব্যাপক অবদান রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ক্রমেই নানামুখী সংস্কারের পথে এগিয়ে যাচ্ছে সৌদি আরব। এরই ধারাবাহিকতায় এবার নারী শিক্ষায় যুক্ত হলো ডিজিটাল কলেজ।

কাশ্মীরের তিন অধিবাসীকে বেআইনিভাবে হত্যার কথা স্বীকার ভারতীয় সেনাবাহিনী
                                  

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের তিন অধিবাসীকে বেআইনিভাবে হত্যার কথা স্বীকার করল ভারতীয় সেনাবাহিনী। তাদের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে বেআইনিভাবে নিরীহ কাশ্মীরিদের হত্যার অভিযোগ ছিল। অবশেষে গতকাল শুক্রবার তিন কাশ্মীরিকে বেআইনিভাবে হত্যার দায় স্বীকার করল তারা।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার খবরে বলা হয়, গত ১৮ জুলাই সেনাবাহিনী জানিয়েছিল, তারা শোপিয়ানের আমশিপোরা গ্রামে অজ্ঞাত তিন ‘বিদ্রোহীকে হত্যা করেছে। পরবর্তীতে তদন্তে দেখা যায়, নিহতরা কাশ্মীরের রাজৌরি জেলার বাসিন্দা ছিলেন। তাদেরকে সাজানো বন্দুকযুদ্ধে হত্যা করা হয়েছে বলে তখন অভিযোগ করেছিল তাদের পরিবার।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল রাজেশ কালিয়া বিবৃতিতে বলেন, সেনা কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুসারে আমশিপোরা অভিযানের বিষয়ে তদন্ত শেষ হয়েছে। তদন্তে প্রাথমিকভাবে বেশ কিছু প্রমাণ মিলেছে যাতে মনে হয়েছে, অভিযানের সময় সশস্ত্র বাহিনী বিশেষ ক্ষমতা আইনের (এএফএসপিএ) অধীনে প্রয়োগ করা ক্ষমতার মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে।



তিনি বলেন, ‘তদন্তে সংগৃহীত প্রাথমিক প্রমাণ ইঙ্গিত দিচ্ছে, আমশিপোরা অভিযানে নিহত তিন অপ্রমাণিত সন্ত্রাসী হলেন ইমতিয়াজ আহমেদ, আবরার আহমেদ ও মোহাম্মদ ইবরার। তারা রাজৌরি থেকে ফিরছিলেন। তাদের ডিএনএ প্রতিবেদন আসার অপেক্ষায় রয়েছে। সন্ত্রাস বা এ সম্পর্কিত কর্মকাণ্ডে তাদের যোগসূত্রের বিষয়ে পুলিশ তদন্ত করছে।

এ তিন কাশ্মীরি নিহত হওয়ার পর ভারতীয় পুলিশ তাদের এক বিবৃতিতে দাবি করেছিল, নিহতরা সেনা কর্মকর্তাদের ওপর গুলি চালিয়েছেন। এ ঘটনার কিছুদিন পরে নিহত তিন ব্যক্তির ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ে। সেখান থেকেই তাদের শনাক্ত করেন স্বজনেরা এবং তারা বেআইনি হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ করেন।

গতকাল শুক্রবার নিহত ইবরারের চাচাতো ভাই নসিব খাতানা জানান, নিহতরা সবাই একে অপরের চাচাতো ভাই ছিলেন। তারা কাজের উদ্দেশ্যে রাজৌরি থেকে শোপিয়ান গিয়েছিলেন। তারা ১৭ জুলাই শোপিয়ান পৌঁছায় এবং ওই রাতেই তাদের সঙ্গে আমাদের শেষবারের মতো কথা হয়েছিল। এটা লকডাউনের সময় ছিল, তাই আমরা ভেবেছিলাম তাদের হয়তো কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। আমরা অপেক্ষা করছিলাম, তবে কোনো খবর ছিল না।

তিনি বলেন, ‘পরে আমরা ছবি দেখার পর স্বজনদের চিহ্নিত করে অভিযোগ দায়ের করি। সেনাবাহিনী তাদের সন্ত্রাসী বলে দাবি করেছিল। নিরপরাধ মানুষদের সঙ্গে তারা আর কত অন্যায় করতে পারে?

নিহত আরেকজনের পরিবারের এক সদস্য জানান,তারা তাদের স্বজনদের ডিএনএ পরীক্ষার ফলাফলের জন্য দীর্ঘদিন ধরে ঘুরেও তা এখনো পাননি। তিনি বলেন, গত ৩ আগস্ট নমুনা নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, কিন্তু এখনো ফলাফল আসেনি। আজ প্রত্যেক পরিবারের একজনকে ডেকে তারা স্বীকার করেছে, তিনজনকে একটি মিথ্যা বন্দুকযুদ্ধে হত্যা করা হয়েছে। আমরা চাই তাদের হত্যাকারীদের প্রকাশ্যে এনে সাজা দেওয়া হোক। আমরা পরিবারের সদস্যদের মরদেহ চাই।

মানবাধিকার কর্মীদের দাবি, কাশ্মীরে ভারতীয় সেনারা আর্থিক সুবিধা ও মেডেলের জন্য বেসামরিক লোকদের হত্যা করে অনেক সময় বিদ্রোহী বলে চালিয়ে দেন।এর আগেও এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। ২০১০ সালের মে মাসে মাচিল এলাকায় নিয়ন্ত্রণরেখার কাছে ভারতীয় সেনারা সাজানো বন্দুকযুদ্ধে তিন বেসামরিক নাগরিককে হত্যা করেছে। পরে কাশ্মীর পুলিশের তদন্তে এ তথ্য বেরিয়ে আসার পর এ উপত্যকায় বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। ভারতীয় সেনারা পুরস্কারের লোভে ওই তিন নিরীহ মানুষকে হত্যা করে তাদেরকে ‘সশস্ত্র বিদ্রোহী হিসেবে উপস্থাপন করেছিল।

বিভিন্ন দেশের সোয়া লাখ প্রবাসীর আকামা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কুয়েত সরকার
                                  

ছুটিতে গিয়ে আটকেপড়া বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারতসহ বিভিন্ন দেশের সোয়া লাখ প্রবাসীর আকামা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কুয়েত সরকার। ফলে এসব শ্রমিক আর দেশটিতে প্রবেশ করতে পারবেন না। এর মধ্যে বাংলাদেশী থাকতে পারে ২৫ হাজার। তবে কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের সদ্য যোগ দেয়া রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান স্থানীয় সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের কারণে দেশে আটকেপড়া প্রবাসীদের প্রয়োজনীয় তথ্যাদিসহ একটি তালিকা দূতাবাস থেকে তৈরির পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

কুয়েতের বাংলাদেশ দূতাবাসের ফেসবুক পেইজে প্রবাসীদের উদ্দেশে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে কুয়েতের কর্মস্থল থেকে বাংলাদেশে গিয়ে আটকেপড়া প্রবাসীদের প্রয়োজনীয় তথ্যাদিসহ একটি তালিকা কুয়েতস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। ওই তালিকায় আপনার নাম অন্তর্ভুক্ত করার জন্য নিম্নের লিংকে ক্লিক করুন। ওই তথ্যাদির ভিত্তিতে কুয়েতস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়ার চেষ্টা অব্যাহত থাকবে। এ ব্যাপারে প্রবাসীদের কাছ থেকে সহযোগিতা কামনা করছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

গতকাল রাতে কুয়েত থেকে স্থানীয় বাংলাদেশী সাংবাদিক মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন ইংরেজি দৈনিক আরব টাইমসে প্রকাশিত সংবাদের উদ্ধৃতি দিয়ে নয়া নিগন্তকে বলেন, ‘আগস্টে ঘোষিত নিষেধাজ্ঞা দেয়া দেশগুলোর প্রবাসীদের দ্রুত অনলাইনে আবেদন করা, একই সাথে তাদেরকে সুযোগ-সুবিধাগুলো গ্রহণের জন্য কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত অনেকেই গ্রহণ করেনি। এই সময়ে প্রবাসীদের বৈধ আকামার সংখ্যা ছিল প্রায় ৫ লাখ। তবে কুয়েত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে আরব টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, এক লাখ ২৭ হাজার প্রবাসীর আকামার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। মেয়াদ শেষ হওয়ার কারণে তারা আর কুয়েতে প্রবেশ করতে পারবে না। এর মধ্যে বেশির ভাগ হচ্ছে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, ফিলিপাইন ও ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, কুয়েতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত তিন মাসের জন্য সব ধরনের ভিজিট ভিসা এবং ওয়ার্ক ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে যাদের আকামা সেপ্টেম্বরের ১ তারিখ শেষ হচ্ছে তারা এ সুবিধা পাচ্ছে না। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘যারা আকামা নবায়নে ব্যর্থ হয়েছে, তাদের স্পন্সররাই আকামা নবায়নের চেষ্টা করেনি।

এ দিকে কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত যেসব প্রবাসী দেশে আটকেপড়ায় ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে তাদের একটি তালিকা তৈরি করার জন্য ফেসবুকে আবেদন চেয়েছেন। সেখানে প্রবাসীরা তাদের বিস্তারিত তথ্য উল্লেখ করতে পারবেন।

এ প্রসঙ্গে সাংবাদিক জালাল উদ্দিন নয়া দিগন্তকে বলেন, দূতাবাস এসব শ্রমিকের ডাটা সংগ্রহ করে কোম্পানি বা মালিকদের কাছে ক্ষতিপূরণ আদায় করার জন্য দাবি জানাবেন। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, সোয়া লাখ বিদেশী শ্রমিকের মধ্যে বাংলাদেশেই আটকে পড়েছেন ২০-২৫ হাজার শ্রমিক। আজকেও বাংলাদেশে আটকেপড়া একজন শ্রমিকের সাথে আমার কথা হয়েছে। তিনি জানালেন, আমার ভিসার মেয়াদ আছে মাত্র এক সপ্তাহ। এই শ্রমিকের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে তিনিও আর কুয়েতে যেতে পারবেন না। তিনি বলেন, করোনায় অনেক প্রবাসীর ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে। বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখার জন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের কাছে অনুরোধ জানান।

এ প্রসঙ্গে গতকাল রাতে (বাংলাদেশ সময়) কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের হেড অব চেন্সরি ও শ্রম কাউন্সিলর মোহাম্মদ আনিসুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে সাংবাদিক জালাল উদ্দিন বলেন, শুনেছি আনিসুজ্জামান দুই দিন আগে দেশে গেছেন।

শান্তি আলোচনার মধ্যেই সংঘর্ষে জড়িয়েছে রক্তাক্ত আফগান
                                  

দীর্ঘ ১৮ বছরের সংঘাত নিরসনে বহুল আকাঙ্খিত শান্তি আলোচনায় মিলিত হয়েছেন তালেবান ও আফগান সরকার। বলা বাহুল্য, আফগান সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনায় মূল ভূমিকা পালন করছে দেশটিতে দায়িত্ব পালন করা যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনীর প্রতিনিধি দল। তবে এই শান্তি আলোচনার মধ্যেই গতকাল সংঘর্ষে জড়িয়েছে তালেবান ও সরকারি বাহিনী।

আফগান এবং যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী যৌথভাবে ‘নিরাপত্তা বাহিনী’ নামে দেশটির শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করে থাকে। গতকাল রাতে নিরাপত্তা বাহিনীর চৌকি লক্ষ্য করে একাধিক হামলা চালায় তালেবান গোষ্ঠি। এরপর হামলা করা হয় নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকেও। আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন ১১ নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।

সরকারি ভাষ্য মতে, নানগারহার প্রদেশের বিভিন্ন সেনা চৌকিতে পাল্টাপাল্টি সংঘর্ষের এই ঘটনায় ৩০ তালেবান সদস্য নিহত হয়েছেন। আটক করা হয়েছে আরো বেশ কয়েকজনকে। যদিও তালেবানের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এ সংক্রান্ত কোনো বিবৃতি পাওয়া যায়নি। এই ঘটনায় নিরাপত্তাবাহিনীর মোট ১৯ সদস্য নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

করোনা মহামারীতে ২৪ ঘণ্টায় ভারতে ১১৩২ জনের মৃত্যু
                                  

কোভিড-১৯ মহামারীতে মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ হচ্ছে ভারতে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ১১৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বৃহস্পতিবার এনডিটিভির খবরে এ তথ্য উঠে এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলোতে মৃত্যুর সংখ্যা কমলেও ভারতে দিন দিন বাড়ছে মোট মৃত্যুর সংখ্যা। গত প্রায় এক মাস ধরে রোজ মৃত্যুর সংখ্যা গড়ে সহস্রাধিক।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার জেরে মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ১৩২ জনের। এ নিয়ে দেশে মোট ৮৩ হাজার ১৯৮ জনের প্রাণ কাড়ল করোনাভাইরাস। এর মধ্যে মহারাষ্ট্রেই মারা গেছেন ৩০ হাজার ৮৮৩ জন। দ্বিতীয় স্থানে থাকা তামিলনাড়ুতে মোট মৃত্যু হয়েছে সাড়ে আট হাজার মানুষের। তৃতীয় স্থানে থাকা কর্নাটকে মৃতের সংখ্যা সাত হাজার ৫৩৬। অন্ধ্রপ্রদেশেও মোট মৃত পাঁচ হাজার ছাড়িয়ে বাড়ছে। দেশটির রাজধানী নয়াদিল্লিতে সংখ্যাটা চার হাজার ৮৩৯।

এদিকে আক্রান্তও বাড়ছে দেশটিতে। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তে বিশ্ব রেকর্ড গড়েছে ভারত। ২৪ ঘণ্টায় ৯৭ হাজার ৮৯৪ জন নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে দেশটিতে। ওই সময়ের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা যথাক্রমে ২৫ হাজার ৫২৫ ও ৩৬ হাজার ৮২০ জন। আমেরিকা ও ব্রাজিলের তুলনায় ভারতের দৈনিক সংক্রমণ প্রায় তিন গুণ বেশি। গত এক মাসেরও বেশি সময় ধরে এই ধারা অব্যাহত রয়েছে।

বুধবার প্রায় ৯৮ হাজার আক্রান্তের মধ্য দিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্ত হলেন ৫০ লাখ ২০ হাজার ৩৫৯ জন। আক্রান্তে শীর্ষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে মোট ৬৬ লাখ ২৯ হাজার শনাক্ত হয়েছেন। আর তৃতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪৪ লাখ ১৯ হাজার।

আক্রান্ত ও মৃত্যু সংখ্যার মধ্যেই আশার আলো কোভিড রোগীদের সুস্থ হয়ে ওঠা। এখনও পর্যন্ত ভারতে মোট ৪০ লাখ ৯ হাজার ৯৭৬ জন করোনার কবল থেকে মুক্ত হয়েছেন। অর্থাৎ দেশে মোট আক্রান্তের সাড়ে ৭৮ শতাংশের বেশি সুস্থ হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সুস্থ হয়েছেন ৮২ হাজার ৭১৯ জন।

ঘূর্ণিঝড় স্যালির তাণ্ডবে মুষলধারে বৃষ্টি ও ঝড় যুক্তরাষ্ট্রে
                                  

যুক্তরাষ্ট্রের উপকূলে হ্যারিকেন স্যালি আঘাত হানার পর পাঁচ লাখের বেশি মানুষ বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে। এই হ্যারিকেনের প্রভাবে যুক্তরাষ্ট্রে ভারী বৃষ্টিপাত ও আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।


ক্যাটাগরি দুই মাত্রার শক্তি নিয়ে স্থানীয় সময় বুধবার সকালে উপসাগরীয় উপকূলে আছড়ে পড়ে গ্রীষ্মমন্ডলীয় এই ঝড়। ফ্লোরিডার পেনসাকোলায় সবচেয়ে বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হ্যারিকেন সেন্টারের পক্ষ থেকে বলা হয়, ফ্লোরিডা পানহ্যান্ডেল এবং দক্ষিণ আলাবামার অংশ জুড়ে বিপর্যয়কর ও প্রাণঘাতী বন্যা অব্যাহত রয়েছে।

ফ্লোরিডার পেনসাকোলার দমকল বাহিনীর প্রধান গিনি ক্র্যানোর বলেন, এই হ্যারিকেনের কারণে চার মাসে যে পরিমাণ বৃষ্টিপাত হয় সেটি চার ঘণ্টায় হয়েছে।

স্যালি আঘাত হানার সময় বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১০৫ মাইল বা ১৬৯ কিলোমিটার। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে উত্তর-মধ্যাঞ্চলের উপসাগরীয় উপকূলে বন্যা হতে পারে বলে আগেই সতর্ক করেছিল যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার ।

কাশ্মিরের পাশাপাশি গুজরাটের জুনাগড়কেও অন্তর্ভুক্ত করে পাকিস্তানের মানচিত্র
                                  

গত বছরের ৫ আগস্ট ভারতের মোদি সরকার কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে পার্লামেন্টে বিল পাস করে। শুরু থেকেই এর প্রতিবাদে সরব ছিল পাকিস্তান। বিষয়টিকে জাতিসংঘ পর্যন্ত নিয়ে গেছে ইসলামাবাদ।

শুধু তাই নয়, এ বছর কাশ্মিরের সেই বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেওয়ার বর্ষপূর্তিতে নতুন মানচিত্র প্রকাশ করেছে পাকিস্তান। নতুন মানচিত্রে পুরো কাশ্মিরের পাশাপাশি ভারতের গুজরাটের জুনাগড়কেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে বলে নয়াদিল্লি দাবি করছে।

গতকাল মঙ্গলবার রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে অনুষ্ঠিত সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের বৈঠকে পাকিস্তানি প্রতিনিধি সেই নতুন মানচিত্র প্রদর্শন করেন। এতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে মাঝপথে বৈঠক থেকে বেরিয়ে যান ভারতীয় প্রতিনিধি।

জানা যায়, এদিন সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের সদস্য দেশগুলোর জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের (এনএসএ) বৈঠকে এই ঘটনা ঘটে। বৈঠকে পাকিস্তানি প্রতিনিধি মো. ইউসুফ দেশটির নয়া মানচিত্র প্রদর্শন করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে বেরিয়ে যান ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা (এনএসএ) অজিত দোভাল।

ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অভিযোগের বরাত দিয়ে দেশটির গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৈঠকের আয়োজক দেশ রাশিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এদিন পাকিস্তানকে ওই নতুন মানচিত্র উপস্থাপন না করার জন্য বার বার অনুরোধ করেন। কিন্তু সে অনুরোধ উপেক্ষা করেই পাকিস্তানি জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা তা প্রদর্শন করেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইসলামাবাদের এমন পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে নয়াদিল্লি। ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের এনএসএ ইচ্ছাকৃতভাবে একটি কল্পিত মানচিত্র বৈঠকে প্রদর্শন করেছেন। ওই মানচিত্র নিয়ে ইদানিং পাকিস্তান প্রচার চালাচ্ছে বলেও অভিযোগ করা হয়।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব এ ব্যাপারে বলেছেন, এর মাধ্যমে আমন্ত্রক দেশের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাকে নির্লজ্জভাবে অবজ্ঞা করা হয়েছে। সেইসঙ্গে পাকিস্তানের এমন পদক্ষেপে বৈঠকের বিধিরও লঙ্ঘন হয়েছে।

তবে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের জাতীয় নিরাপত্তা সম্পর্কিত বিশেষ সহকারী মইদ ইউসুফ টুইটারে বিষয়টি নিয়ে বলেছেন, বিষয়টি খুব ‘দৃষ্টিকটূ’ মনে হলো। কারণ ভারতীয় প্রতিনিধি বৈঠক থেকে উঠে চলে গেলেন। এ ধরনের বৈঠক একে অপরের মধ্যে যোগসূত্র বৃদ্ধি করার জন্য বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ পেঁয়াজ চাষী ও ব্যবসায়ীরা
                                  

গত বছরের মতো এবারো বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে ভারত। ফলে বাংলাদেশে ইতোমধ্যে পেঁয়াজের দাম ১০০-এর ঘরে গিয়ে ঠেকেছে। সোমবার কোনো প্রকার পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় ভারত।

খোদ ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, মূলত মূল্য বৃদ্ধির জন্য ভারতের পক্ষ পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে ভারতের রপ্তানিকারক ও সরকারের এমন সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ হয়েছে দেশটির পেঁয়াজ চাষী ও ব্যবসায়ীরাই।

ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআই মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত এক প্রতিবেদনে প্রকাশ করেছে। সেখানে ভারতীয় চাষী ও ব্যবসায়ীরা এমন সিদ্ধান্তে তাদের ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ার কথা জানিয়েছেন।

সংবাদ মাধ্যমটিকে এক পেঁয়াজ চাষী বলেন, ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের সিদ্ধান্তে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হবেন চাষীরা। কারণ এমনিতেই চাষীরা পেঁয়াজের সঠিক দাম পান না। কম দামে কিনে ব্যবসায়ীরা বেশি দামে বিক্রি করতে পারেন। যেটা চাষীদের পক্ষে সম্ভব নয়। আবার এই সিদ্ধান্তের ফলে ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ কেনা বন্ধ করে দেবে। ফলে বিক্রি বন্ধ হওয়ায় পঁচে যাবে কৃষকের পেঁয়াজ। অর্থাৎ ক্ষতির শিকার হবে কৃষকরা। কারণ তারা কয় দিনই বা পেঁয়াজ মজুদ করে রাখতে পারবে।

অন্যদিকে, ভারতের পেঁয়াজ উৎপাদনের অন্যতম কেন্দ্র মহারাষ্ট্র রাজ্যের নাসিকের এক ব্যবসায়ী এএনআই-কে বলেন, সরকার পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধে যে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে, তা একটি সম্পূর্ণ ভুল সিদ্ধান্ত। কারণ রপ্তানি বন্ধ হওয়ায় আমরা ব্যবসায়ীরা আপাতত পণ্যটি মজুদ করতে পারব না। বর্তমানে চাষীরা ২০ থেকে ২৫ রুপিতে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন। পেঁয়াজের ব্যাপক উৎপাদনও হয়েছে এবং চাষীরা প্রতিদিনই প্রচুর পরিমাণে পেঁয়াজ বাজারে আনছেন বিক্রির জন্য।

তিনি আরো বলেন, রপ্তানি বন্ধ হওয়ায় পেঁয়াজ মজুদ করতে হবে, কিন্তু সেটা সবার পক্ষে সম্ভব হবে না। আর মজুদ করেই বা লাভ কী? এত পেঁয়াজ কোথায় মজুদ করে রাখব? সব তো পঁচে যাবে। তখন দেখা যাবে, ২-৩ রুপিতেও পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে না। অন্যদিকে, এত পেঁয়াজ চাষীদের পক্ষেও মজুদ করে রাখা সম্ভব না। ফলে রপ্তানি বন্ধের সিদ্ধান্তে ব্যবসায়ী ও চাষীদেরই ক্ষতি।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ সোমবার সকালে বেনাপোল বন্দর দিয়ে ৫০ টন পেঁয়াজ বাংলাদেশে প্রবেশের পরই সব বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানিকারকদের সংগঠন। এর ফলে শুধু বেনাপোলের ওপারের পেট্রাপোলে পেঁয়াজ ভর্তি শতাধিক ট্রাক আটকা পড়ে আছে বলে জানা গেছে।

এদিকে, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ভারতকে তাদের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার অনুরোধ করা হয়েছে। পাশাপাশি অন্যান্য দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে চীন, তুরস্ক, পাকিস্তান, মিশর ও মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানির অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে নয় লাখ ৩৩ হাজার ৪৯০ জন
                                  

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের (জেএইচইউ) তথ্য অনুযায়ী, বুধবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে নয় লাখ ৩৩ হাজার ৪৯০ জনে দাঁড়িয়েছে।
জেএইচইউর তথ্য অনুসারে, এ পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা পৌঁছেছে দুই কোটি ৯৪ লাখ ৭৭ হাজার ১৮৩ জনে।

করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত ৬৬ লাখের বেশি করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে এবং মারা গেছেন এক লাখ ৯৫ হাজার ৭৩৫ জন।

এদিকে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত দেশের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। দক্ষিণ এশিয়ার এ দেশটিতে করোনা রোগীর সংখ্যা ৪৯ লাখ ৩০ হাজার ২৩৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৮০ হাজার ৭৭৬ জনের।

ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ব্রাজিল। এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৩ লাখ ৮২ হাজার ২৬৩ জন মানুষ এবং মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৩৩ হাজার ১১৯ জনের।

বিশ্ব ওজন দিবস ২০২০ এর কর্মসূচি
                                  

বায়ুমণ্ডলের ওজোনস্তর ক্ষয়কারী দ্রব্যের বিকল্প ব্যবহার জনপ্রিয় করা এবং ওজোনস্তরের গুরুত্ব ও এর সুরক্ষায় সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ১৯৯৪ সনের ১৯ ডিসেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে ১৬ সেপ্টেম্বর বিশ্ব ওজোন দিবস পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সে মোতাবেক ১৯৯৫ সাল হতে প্রতিবছর আন্তর্জাতিকভাবে ওজোন দিবস পালিত হচ্ছে। এ বছর জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচি দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছে Ozone for life: 35 zears of ozone lazer protection (প্রাণ বাঁচাতে ওজোনঃ ওজোনস্তর সুরক্ষার ৩৫ বছর) ।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ১৬ সেপ্টেম্বর দিবসটি পালিত হবে। এ উপলক্ষে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে পরিবেশ অধিদপ্তর জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে। মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ও উপমন্ত্রী, সম্মানিত সচিব এর বাণী এবং পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের প্রবন্ধ সম্বলিত বিশেষ ক্রোড়পত্র জাতীয় দৈনিকে প্রকাশ করা হবে। বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতার সহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান প্রচারিত হবে।

বিশ্ব ওজোন দিবস ২০২০ উদযাপন উপলক্ষে আগারগাঁওস্থ পরিবেশ অধিদপ্তরের অডিটরিয়ামে ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখ বিকাল ২.০০টায় যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে একটি জাতীয় সেমিনার আয়োজন করা হয়েছে। এ সেমিনারে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী, মাননীয় উপমন্ত্রী, সম্মানিত সচিব ও অতিরিক্ত সচিব, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও ইউএনডিপির আবাসিক প্রতিনিধিসহ সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন।

পৃথিবীর বায়ুমন্ডলের উপরিভাগে স্ট্রাটোস্ফিয়ারে অবস্থিত ওজোনস্তর সূর্যের ক্ষতিকর অতিবেগুনী রশ্মি ধরে রাখছে । মানুষের সৃষ্ট কিছু ক্ষতিকর গ্যাস/দ্রব্য যেমন সিএফসি, হ্যালন, কার্বন টেট্টাক্লোরাইড, মিথাইল ব্রোমাইড ইত্যাদি দ্বারা ওজোনস্তর ক্রমাগত ক্ষয়প্রাপ্ত হয়ে চলেছে। বিজ্ঞানীদের মতে, পৃথিবীতে অতিবেগুনী রশ্মির আপতন বৃদ্ধির ফলে মানব স্বাস্থ্যসহ প্রাণী জগৎ ও উদ্ভিদ জগৎ-এর ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হবে - বেড়ে যাবে ক্যান্সার, হ্রাস পাবে শস্যের ফলন, ক্ষতিগ্রস্থ হবে সামুদ্রিক প্রাণীসম্পদ।

এ পরিস্থিতি মোকাবিলায় জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচি ও বিজ্ঞানীদের সময়োচিত তৎপরতায় ১৯৮৫ সালে ভিয়েনা কনভেনশন এবং ১৬ সেপ্টেম্বর ১৯৮৭ কানাডার মন্ট্রিলে আন্তর্জাতিক বাধ্যবাধকতা সম্বলিত মন্ট্রিল প্রটোকল গৃহীত হয়। এই প্রটোকলের আওতায় একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ওজোনস্তর ক্ষয়কারী দ্রব্যসমূহের ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হচ্ছে। বাংলাদেশ মন্ট্রিল প্রটোকলে স্বাক্ষরকারী দেশ হিসেবে ওজোনস্তর ক্ষয়কারী দ্রব্যসমূহের ব্যবহার নিষিদ্ধসহ প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করছে।

তথ্য সুত্র: 

দীপংকর বর,

সিনিয়র তথ্য অফিসার,

পরিবেশ,বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়,

২০২৪ সাল পর্যন্ত পর্যাপ্ত পরিমাণে করোনা প্রতিরোধক ভ্যাকসিন উৎপাদন সম্ভব নয়
                                  

বিশ্বের সবার জন্য আগামী ২০২৪ সাল পর্যন্ত পর্যাপ্ত পরিমাণে করোনা প্রতিরোধক ভ্যাকসিন উৎপাদন সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন ভারতীয় ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান সিরাম ইনস্টিটিউট’র সিইও আদর পুনাওয়ালা। দেশটির গণমাধ্যম এবিপি আনন্দ’র একটি প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিনের উৎপাদনকারী বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভ্যাকসিন উৎপাদক প্রতিষ্ঠানের সিইও হিসাব করে বলেছেন, একজন মানুষ দুই ডোজ করে ভ্যাকসিন নিলে ১৫ বিলিয়ন ডোজ উৎপাদন করতে হবে, যা ৪-৫ বছরে সম্ভব নয়।

সিরাম ইনস্টিটিউট বর্তমানে অ্যাসট্রাজেনেকা ও নোভাভ্য়াক্সসহ পাঁচটি আন্তর্জাতিক ওষুধ কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করে ১০০ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন তৈরির লক্ষ্যে কাজ করছে। ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য ফিনান্সিয়াল টাইমস জানিয়েছে, অ্যাসট্রাজেনেকার চুক্তির ভিত্তিতে সিরাম প্রতি ডোজের প্রায় ৩ ডলার রেখে ভ্যাকসিন উৎপাদন করতে চায়। নোভাভ্যাক্সের সঙ্গে হওয়া চুক্তি অনুসারেও একই দাম পড়বে প্রতি ডোজ ভ্যাকসিনের।

পাকিস্তানি এক পরিবারের ১১ সদস্যের রহস্যজনক মৃত্যু ভারতে
                                  

ভারতের রাজস্থান প্রদেশে এক পাকিস্তানি পরিবারের ১১ সদস্যের রহস্যজনক মৃত্যুকে কেন্দ্র করে ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতীয় চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্সকে তলব করেছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

ইরানের বার্তা সংস্থা তাসনিম জানিয়েছে, পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা এ সময় ভারতের মাটিতে পাকিস্তানি নাগরিকদের মৃত্যুর ব্যাপারে ইসলামাবাদের তীব্র প্রতিবাদের কথা জানিয়ে দেন। পাক কর্মকর্তারা তাদের ‌১১ নাগরিকের মৃত্যু সংক্রান্ত সকল তথ্য ইসলামাবাদকে দেয়ার জন্য নয়াদিল্লির প্রতি আহ্বান জানান।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে তাসনিম আরো জানিয়েছে, গত ৯ আগস্ট ভারতের রাজস্থান প্রদেশে ১১ সদস্যের পাকিস্তানি পরিবারের সবার রহস্যজনক মৃত্যু হয়।

নয়াদিল্লিস্থ পাকিস্তান দূতাবাস বারবার তাগাদা দেয়া সত্ত্বেও ভারতীয় কর্মকর্তারা এ ব্যাপারে ওই দূতাবাসকে কোনো তথ্য দেননি এবং ওই দুঃখজনক মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে এখনো ইসলামাবাদ অন্ধকারে রয়েছে।

পাক পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ভারত এ ব্যাপারে ইসলামাবাদকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা না করলে দু’দেশের সম্পর্কের আরো অবনতি হবে এবং দক্ষিণ এশিয়ার রাজনৈতিক সংকট আরো ঘনীভূত হবে। নয়াদিল্লি পাকিস্তানি ওই পরিবারের সকল সদস্যের মৃত্যুর তদন্ত করার প্রয়োজনীয় ক্ষেত্র প্রস্তুত করবে বলে পাকিস্তান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আশা প্রকাশ করেছে। পার্সটুডে


   Page 1 of 343
     আন্তর্জাতিক
ভারতে তিনতলা ভবন ধসে ৩১ জনকে উদ্ধার, ১০ জন নিহত
.............................................................................................
ইসরায়েলের সঙ্গে চুক্তিতে অসম্মতি সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজের
.............................................................................................
দখলদারিত্বের সীমা ছাড়িয়ে এবার শুক্র গ্রহকেও নিজেদের বলে দাবি রাশিয়ার
.............................................................................................
৪৫০ ভারতীয় শ্রমিক সৌদিতে ভিক্ষার ঝুলি হাতে রাস্তায়
.............................................................................................
সৌদি নারীদের জন্য প্রথমবারের মতো দুটি ডিজিটাল কলেজ চালু
.............................................................................................
কাশ্মীরের তিন অধিবাসীকে বেআইনিভাবে হত্যার কথা স্বীকার ভারতীয় সেনাবাহিনী
.............................................................................................
বিভিন্ন দেশের সোয়া লাখ প্রবাসীর আকামা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কুয়েত সরকার
.............................................................................................
শান্তি আলোচনার মধ্যেই সংঘর্ষে জড়িয়েছে রক্তাক্ত আফগান
.............................................................................................
করোনা মহামারীতে ২৪ ঘণ্টায় ভারতে ১১৩২ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
ঘূর্ণিঝড় স্যালির তাণ্ডবে মুষলধারে বৃষ্টি ও ঝড় যুক্তরাষ্ট্রে
.............................................................................................
কাশ্মিরের পাশাপাশি গুজরাটের জুনাগড়কেও অন্তর্ভুক্ত করে পাকিস্তানের মানচিত্র
.............................................................................................
ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ পেঁয়াজ চাষী ও ব্যবসায়ীরা
.............................................................................................
বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে নয় লাখ ৩৩ হাজার ৪৯০ জন
.............................................................................................
বিশ্ব ওজন দিবস ২০২০ এর কর্মসূচি
.............................................................................................
২০২৪ সাল পর্যন্ত পর্যাপ্ত পরিমাণে করোনা প্রতিরোধক ভ্যাকসিন উৎপাদন সম্ভব নয়
.............................................................................................
পাকিস্তানি এক পরিবারের ১১ সদস্যের রহস্যজনক মৃত্যু ভারতে
.............................................................................................
আরব লীগের সঙ্গে সম্পর্ক পুনর্বিবেচনা করার চিন্তা করছে ফিলিস্তিন
.............................................................................................
২০২১-২০২৩ মেয়াদে জাতিসংঘের তিন উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী বোর্ডের সদস্য বাংলাদেশ
.............................................................................................
নেপালে মুষলধারে বৃষ্টিপাতের ফলে সৃষ্ট ভূমিধসে অন্তত ১২ জনের মৃত্যু
.............................................................................................
বাংলাদেশ-মিয়ানমার আন্তর্জাতিক সীমান্তে বেড়েছে সেনাদের গতিবিধি
.............................................................................................
২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নতুন রোগী শনাক্তের রেকর্ড
.............................................................................................
ফিলিস্তিনি জাতির প্রতি ‘চরম বিশ্বাসঘাতকতা’ করেছে বাহরাইন: হিজবুল্লাহ
.............................................................................................
কঙ্গোর একটি সোনার খনিতে ভূমিধসে অন্তত ৫০ জন নিহত
.............................................................................................
মার্কিন কূটনীতিকের ওপর চীনের পাল্টা নিষেধাজ্ঞা
.............................................................................................
দোহায় তালেবান ও আফগান সরকারের মধ্যে ‘শান্তি’ আলোচনা
.............................................................................................
ইরানের সঙ্গে চীনের সম্পর্ক নিয়ে আতঙ্কে ভারত
.............................................................................................
কমছেনা সীমান্ত উত্তেজনা, সীমান্ত থেকে সরাছেনা ভারতের সেনা
.............................................................................................
প্লাস্টিকের তাঁবুর মধ্যে ক্লাস করছে ইরানের শিশুরা
.............................................................................................
বাংলাদেশিদের জন্য আরোপিত নিষেধাজ্ঞা শিথিল করেছে মালয়েশিয়া
.............................................................................................
অক্সফোর্ডের চূড়ান্ত টিকাটির ট্রায়াল স্থগিত
.............................................................................................
ভারত-চীন নিয়ন্ত্রণরেখায় উত্তেজনা, আবারো গোলাগুলি
.............................................................................................
বিশ্বজুড়ে খ্যাতি অর্জনকারী ক্বারী শেখ আবদুল্লাহ বাসফারকে গ্রেপ্তার
.............................................................................................
ফিলিস্তিনের বিষয়ে সুষ্ঠু ও স্থায়ী সমাধান চায় সৌদি আরব
.............................................................................................
আজারবাইজানের সঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়া তুরস্কের
.............................................................................................
২৪ ঘন্টায় ভারতে ৯০ হাজারের বেশি করোনা শনাক্ত
.............................................................................................
পাকিস্তানি বাহিনীর হামলায় আবারো এক ভারতীয় সেনা নিহত
.............................................................................................
মিয়ানমার সেনাবাহিনী পুড়িয়ে দিলো রাখাইনের আরো একটি গ্রাম
.............................................................................................
লাদাখ সীমান্তে চীনের সঙ্গে ভারতের উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে মস্কোয় বৈঠক
.............................................................................................
‘কিল নরেন্দ্র মোদি’
.............................................................................................
বিজয় রক্ষায় রাশিয়ার সঙ্গে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে প্রস্তুত চীন
.............................................................................................
বাইডেনের পক্ষে সমর্থন ৮১ নোবেল বিজয়ীর
.............................................................................................
ভারতে বিজেপির এমপির বাড়িতে বোমা হামলা
.............................................................................................
কোভিড-১৯: ব্রাজিলে আক্রান্ত ৪০ লাখ ছাড়াল
.............................................................................................
চীনের নির্দেশে ভারতীয় জওয়ানদের উপর নজরদারি নেপালের
.............................................................................................
জম্মু-কাশ্মির সীমান্তে পাকিস্তানি বাহিনীর গুলিতে ভারতীয় সেনা কর্মকর্তা নিহত
.............................................................................................
শর্ত মেনে বাংলাদেশসহ ২৫ দেশের নাগরিকদের সৌদি প্রবেশে অনুমতি
.............................................................................................
লাদাখ সীমান্তে চীনা সেনাদের শোডাউনে ভারতের স্পেশাল ফোর্সের এক সেনা নিহত
.............................................................................................
করোনাভাইরাস সংক্রমণে গোটা বিশ্বে শীর্ষে ভারত
.............................................................................................
সবকিছু স্বাভাবিক ও সচল করলে করোনা আরো ভয়াবহ হতে পারে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা
.............................................................................................
আফগানিস্তানে একটি সেনা ঘাঁটিতে তালেবানদের হামলায় নিহত ৩
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
সম্পাদক মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী
সম্পাদক কর্তৃক ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।
প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ইউরোপ মহাদেশ বিষয়ক সম্পাদক- প্রফেসর জাকি মোস্তফা (টুটুল)
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
যুগ্ম সম্পাদক: জুবায়ের আহমেদ
নির্বাহী সম্পাদক: শরিফুল ইসলাম রানা
বার্তা সম্পাদক : মোঃ আকরাম খাঁন
সহঃ সম্পাদক: হোসাইন আহমদ চৌধুরী
সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২, ফায়েনাজ অ্যাপার্টমেন্ট (১৫ম তলা), কালভার্ট রোড, পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
ফোন : ০২-৯৫৬২৮৯৯ মোবাইল: ০১৬৭০-২৮৯২৮০
ই-মেইল : swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD