বৃহস্পতিবার , ১৬ রবিঃ আউয়াল ১৪৪১ | ১৪ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   আন্তর্জাতিক -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
গাজায় ইসরাইলি হামলায় নিহত ৩২

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরাইলের বিমান হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩২। নিহতদের মধ্যে ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের দুজন শীর্ষ পর্যায়ের কমান্ডার রয়েছেন।

জিহাদ আন্দোলনের সশস্ত্র শাখা আল-কুদস ব্রিগেড বুধবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে,ইসরাইলের বিমান হামলায় খালিদ মাবাজ নামে ৩৮ বছর বয়সী আরো একজন কমান্ডার শহীদ হয়েছেন। ইসরাইলের সেনাবাহিনী বলেছে, ইসরাইলের বিরুদ্ধে রকেট উৎক্ষেপণের প্রস্তুতি নেয়ার সময় মাভাজের উপর হামলা চালানো হয়।

এর একদিন আগে সেনাদের বিমান হামলায় জিহাদ আন্দোলনের শীর্ষ পর্যায়ের কমান্ডার বাহা আবু আল-আতা ও তার স্ত্রীর নিহত হন। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইসরাইলের দুদিনের হামলায় শিশুসহ ৩২ জন আহত হয়েছেন।

ইহুদিদের হামলার জবাবে জিহাদ আন্দোলন এ পর্যন্ত গাজা উপত্যকা থেকে ২০০’র বেশি ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়েছে। ইসরাইলের জাতীয় জরুরি বিভাগ জানিয়েছে, এ পর্যন্ত তারা ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় আহত ৪৬ জনকে চিকিৎসা দিয়েছে। ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের একজন মুখপাত্র ইসরাইলকে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, তেল আবিব যুদ্ধ শুরু করলেও যুদ্ধ শেষ করার ক্ষমতা তাদের হাতে থাকবে না এবং চলমান সংঘাতের সম্পূর্ণ দায়-দায়িত্ব ইসরাইলকে বহন করতে হবে।

এদিকে ইসরাইল এবং গাজার মধ্যকার সংঘর্ষের পেক্ষাপটে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কূটনৈতিক উদ্যোগ শুরু হয়েছে। দু`পক্ষের মধ্যে যুদ্ধবিরতির জন্য মিসর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। অন্যদিকে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসি, আরব লীগ এবং জর্দান ইসরাইলি হামলার নিন্দা করেছে। লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহও ইসরাইলি হামলার সমালোচনা করেছে। সংগঠনটি ফিলিস্তিনিদের যেকোনো সংগ্রামের প্রতি নিজেদের সমর্থনের কথা ব্যক্ত করেছে। সূত্র : আল জাজিরা, পার্স টুডে

গাজায় ইসরাইলি হামলায় নিহত ৩২
                                  

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরাইলের বিমান হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩২। নিহতদের মধ্যে ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের দুজন শীর্ষ পর্যায়ের কমান্ডার রয়েছেন।

জিহাদ আন্দোলনের সশস্ত্র শাখা আল-কুদস ব্রিগেড বুধবার এক বিবৃতিতে জানিয়েছে,ইসরাইলের বিমান হামলায় খালিদ মাবাজ নামে ৩৮ বছর বয়সী আরো একজন কমান্ডার শহীদ হয়েছেন। ইসরাইলের সেনাবাহিনী বলেছে, ইসরাইলের বিরুদ্ধে রকেট উৎক্ষেপণের প্রস্তুতি নেয়ার সময় মাভাজের উপর হামলা চালানো হয়।

এর একদিন আগে সেনাদের বিমান হামলায় জিহাদ আন্দোলনের শীর্ষ পর্যায়ের কমান্ডার বাহা আবু আল-আতা ও তার স্ত্রীর নিহত হন। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইসরাইলের দুদিনের হামলায় শিশুসহ ৩২ জন আহত হয়েছেন।

ইহুদিদের হামলার জবাবে জিহাদ আন্দোলন এ পর্যন্ত গাজা উপত্যকা থেকে ২০০’র বেশি ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়েছে। ইসরাইলের জাতীয় জরুরি বিভাগ জানিয়েছে, এ পর্যন্ত তারা ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় আহত ৪৬ জনকে চিকিৎসা দিয়েছে। ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের একজন মুখপাত্র ইসরাইলকে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, তেল আবিব যুদ্ধ শুরু করলেও যুদ্ধ শেষ করার ক্ষমতা তাদের হাতে থাকবে না এবং চলমান সংঘাতের সম্পূর্ণ দায়-দায়িত্ব ইসরাইলকে বহন করতে হবে।

এদিকে ইসরাইল এবং গাজার মধ্যকার সংঘর্ষের পেক্ষাপটে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কূটনৈতিক উদ্যোগ শুরু হয়েছে। দু`পক্ষের মধ্যে যুদ্ধবিরতির জন্য মিসর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। অন্যদিকে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসি, আরব লীগ এবং জর্দান ইসরাইলি হামলার নিন্দা করেছে। লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহও ইসরাইলি হামলার সমালোচনা করেছে। সংগঠনটি ফিলিস্তিনিদের যেকোনো সংগ্রামের প্রতি নিজেদের সমর্থনের কথা ব্যক্ত করেছে। সূত্র : আল জাজিরা, পার্স টুডে

আফগানিস্তানে গাড়ি বোমা বিষ্ফোরণে নিহত ৭
                                  

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে বুধবার সকালের ব্যস্ততম সময়ে গাড়ি বোমা বিষ্ফোরণে অন্তত ৭ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরো ৭ জন। 

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের মুখপাত্র নাসরাত রাহিমী বলেন, কাবুল বিমান বন্দরের উত্তরে এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের কাছাকাছি এলাকায় এই গাড়ি বোমার বিষ্ফোরণ ঘটানো হয়। নিহতরা সকলেই বেসামরিক লোক।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের একটি সুত্র জানায়, এক আত্মঘাতি হামলাকারী গাড়ি বোমার বিষ্ফোরণ ঘটায় এবং এই হামলার লক্ষ্য ছিল সরকারী লোকদের বহনকারী গাড়ি।

২০১৬ সালে পশ্চিমা নাগরিক অপহরণ ও জিম্মি করার অপরাধে আটক উচ্চপর্যায়ের তিন তালেবান বন্দীর মুক্তি দেয়ার ঘোষণা আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণির দেয়ার একদিন পরে এই হামলা চালানো হলো।

এই তিন তালিবান বন্দী হলেন,আনাস হাক্কানী , তার বড় ভাই উপপ্রধান তালেবান নেতা ও হাক্কানী নেটওয়ার্কের প্রধান এবং অপর এক তালেবান নেতা। রয়টার্স, এএফপি।

কাশ্মীরে গভীর খাদে বাস, নিহত ১৬
                                  

কাশ্মীরে বাস দুর্ঘটনায় অন্তত ১৬ জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ৫ নারী ও ৩ শিশু রয়েছে। মঙ্গলবার দোদা শহরে ভয়াবহ এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। খবর ইন্ডিয়া টুডের।

দোদার সিনিয়র পুলিশ সুপার মুমতাজ আহমেদ বলেন, ঘটনাস্থলে ১২ জন নিহত হয়েছে। এবং অন্য ৪ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

কর্তৃপক্ষ বলছে, বাসটি ক্লেনী থেকে মারমতের গোয়া গ্রামের দিকে যাচ্ছিলো। পথিমধ্যে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তা থেকে ৭০০মিটার গভীর খাদে পড়ে যায়।

পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত করছে বলে খবরে বলা হয়েছে।

সিরিয়ার তেলক্ষেত্র নিয়ন্ত্রণে মার্কিন পদক্ষেপ ডাকাতি ছাড়া কিছু নয়: রাশিয়া
                                  

 রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, সিরিয়ার তেলক্ষেত্র নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে মার্কিন সরকার যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা ডাকাতির পর্যায়ে পড়ে, এটি ডাকাতি ছাড়া অন্য কিছু নয়। তিনি বলেন, মার্কিন সরকারের এ ধরনের অবৈধ পদক্ষেপ সিরিয়ার সংকট সমাধানে নেয়া রাজনৈতিক প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করবে।

গত সোমবার আর্মেনিয়ার রাজধানী ইয়েরেভানে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জোহরাব এম নাতসাকানিয়ানের সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। ল্যাভরভ পরিষ্কার করে বলেন, সিরিয়ার তেলক্ষেত্র এবং তেল স্থাপনাগুলো সম্পূর্ণভাবে আরব দেশটির জনগণের। ল্যাভরভ বলেন, সিরিয়ার তেলক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণ এবং এগুলো আমেরিকার অধীনে রাখা অবশ্যই অবৈধ প্রচেষ্টা এবং প্রকৃতপক্ষে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে আমেরিকা যা করছে তা ডাকাতির সমতুল্য। রাশিয়ার বার্তা সংস্থা তাস রুশ মন্ত্রীর এ বক্তব্য তুলে ধরেছে।


ল্যাভরভ পরিষ্কার বলেন, আমেরিকা যা করছে তা সিরিয়া সংকট সমাধানের জন্য মোটেই ভালো কিছু নয় বরং মার্কিন সরকার ও সেনাদের ভূমিকায় আরব এ দেশের জনগণের বৃহৎ অংশ ক্ষুব্ধ। রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মার্কিন জটিল ও চোখ ধাঁধাঁনো নীতি কারণে তিনি নিজেই মাঝেমধ্যে খেই হারিয়ে ফেলেন।

ইয়াসির আরাফাতের মৃত্যুবার্ষিকীতে ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে ফিলিস্তিনি শহীদ
                                  

ইহুদিবাদী ইসরাইলের বর্বর সেনাদের গুলিতে এক ফিলিস্তিন শহীদ এবং বহু মানুষ আহত হয়েছেন। অধিকৃত ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে এ ঘটনা ঘটেছে। ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, গত সোমবার আল-খলিল শহরের আল-আরুব উদ্বাস্তু শিবিরের কাছে বিক্ষোভ করার সময় ইহুদিবাদী সেনারা তাদের ওপর গুলি চালালে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।
ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় শহীদ ব্যক্তির নাম ওমর হাইসাম আল-বাদাভি বলে উল্লেখ করেছে।

এতে বলা হয়েছে, শহীদ হাইসামের বুকের কাছে গুলি লাগলে মারাত্মক আহত অবস্থায় তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিতে গেলে ইহুদিবাদী সেনারা রেড ক্রসের অ্যাম্বুলেন্সকে বাধা দেয়। ফিলিস্তিনের ওয়াফা বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, হাসাম আল-বাদাভিকে একটি ক্লিনিকে ভর্তি করার পর তার অবস্থার অবনতি হলে আল-খলিল শহরের একটি হাসপাতালে নেয়া হয় এবং সেখানেই তিনি মারা যান।

আল-খলিল শহরের দক্ষিণে আল-ফাওয়ার শরণার্থী শিবিরের কাছেও ইহুদিবাদী সেনাদের সঙ্গে ফিলিস্তিনিদের সংঘর্ষ হয়। সেখানেও বহুসংখ্যক বিক্ষোভকারী আহত হয়েছেন। এসব বিক্ষোভকারীর ওপর ইসরাইলি সেনারা গুলি এবং টিয়ার গ্যাস ছোঁড়ে। ফিলিস্তিনের সাবেক নেতা ইয়াসির আরাফাতের ১৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পশ্চিম তীরের বিভিন্ন শহরে সমাবেশের আয়োজন করা হয়। ২০০৪ সালের নভেম্বর মাসে ফ্রান্সের একটি হাসপাতাল ইয়াসির আরাফাত মারা যান।

দাবানলে পুড়ে ছারখার অস্ট্রেলিয়া
                                  

 ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে অস্ট্রেলিয়া। নিউ সাউথ ওয়েলস এবং কুইন্সল্যান্ডে দুই প্রদেশের অন্তত ১২০টি স্থানে এখনো আগুন জ¦লছে। এরমধ্যেই পুরো সাউথ ওয়েলসে জারি করা হয়েছে জরুরি অবস্থা। এদিকে দেশটির কর্তৃপক্ষ সতর্ক করে বলেছে, যেকোনো সময় দেশটির সিডনিতেও দাবানল ছড়িয়ে পড়তে পারে। এ যেন ধ্বংসের এক মহাযজ্ঞ। আগুনের লেলিহান শিখায় ভস্ম একের পর এক এলাকা। বনের গাছ থেকে শুরু করে বসত বাড়ি- কিছুই রক্ষা পাচ্ছে না দাবানলের ভয়ঙ্কর থাবা থেকে।

নিউ সাউথ ওয়েলস এবং কুইন্সল্যান্ডের দুর্গত এলাকার বাসিন্দারা চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। দাবানলের গ্রাস থেকে বাঁচতে চরম অনিশ্চয়তা নিয়ে অনেকেই ছাড়ছেন এলাকা। বন্ধ রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। কেবল মানুষ নয়, দাবানলের গ্রাসের শিকার হচ্ছে বিলুপ্তপ্রায় এসব বিরল প্রজাতির অনেক বন্যপ্রাণি। বনে নিজেদের আবাস আর সঙ্গী হারিয়ে দিশেহারা তারা। দাবানল নিয়ন্ত্রণে বিরতিহীনভাবে কাজ করে যাচ্ছে অষ্ট্রেলিয়ার ফায়ারকর্মীসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের সদস্যরা। আগুন নেভাতে বিমান, হেলিকপ্টার, পানিবাহী গাড়ি ব্যবহারের পাশাপাশি প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থাই প্রয়োগ করছেন তারা। কিছুকিছু স্থানে তাদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছেন স্থানীয় বাসিন্দারাও।

তবে ক্রমেই আগুনের ভয়াবহতা বাড়তে থাকায় পুরো নিউ ওয়েলসে জরুরি অবস্থা জারি করেছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সপ্তাহখানেক ধরে চলা দাবানলে এ পর্যন্ত বাড়িঘর ছেড়ে নিরাপদ স্থানে সরে গেছেন কয়েক হাজার মানুষ। পুরোপুরি ধ্বংস হয়েছে দেড় শতাধিক বাড়ি। আগুন নেভাতে গিয়ে আহত হয়েছেন দুইজন ফায়ারকর্মী। ভয়াবহ দাবানলের কারণে যখন অস্ট্রেলিয়ার দুটি প্রদেশ নাস্তানাবুদ, ঠিক তখন দেশটির বড় শহর সিডনিতেও আগুন ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে। এ সতর্কবাণী সত্যি হলে অস্ট্রেলিয়ার বড় একটি অংশ যে ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগের মুখে পড়বে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ বলিভিয়ার প্রেসিডেন্টের
                                  

বিতর্কিত পুনর্নির্বাচনের বিরুদ্ধে হওয়া বিক্ষোভের মুখে অবশেষে পদত্যাগ করেছেন বলিভিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেস। খবর বিবিসির।

২০শে অক্টোবরের নির্বাচনে `সুস্পষ্ট কারচুপি`র প্রমাণ পাওয়ায় আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকরা রবিবার নির্বাচনের ফলাফল বাতিল করার আহ্বান জানায়।

বলিভিয়ার নির্বাচন কর্তৃপক্ষ ঢেলে সাজানোর পর মোরালেস পর্যবেক্ষকদের এই সিদ্ধান্তের সাথে একমত হয়েছেন এবং নতুন নির্বাচন আয়োজন করার ঘোষণা দিয়েছেন।

তবে রাজনীতিবিদ, পুলিশ এবং বলিভিয়ার সেনাবাহিনী ইভো মোরালেসকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে আহ্বান জানিয়েছে। এ সপ্তাহের শুরুতে তার সমর্থকদের অনেকের ওপর হামলা হয়েছে এবং তাদের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে।

টেলিভিশনে দেয়া এক ভাষণে মোরালেস বলেছেন, তিনি প্রেসিডেন্টের পদ থেকে পদত্যাগ করবেন। বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে তিনি আহ্বান জানিয়েছেন যেন তারা হামলা ও ভাঙচুর বন্ধ করে।

ভাইস প্রেসিডেন্ট আলভারো গার্সিয়া লিনেরা এবং সিনেট প্রেসিডেন্ট আদ্রিয়ানা সালভাতিয়েরা এরই মধ্যে পদত্যাগ করেছেন।

এই সিদ্ধান্তের পর বিক্ষোভকারীরা পথে নেমে আসে এবং আনন্দ মিছিল করে।

বাবরি মসজিদের রায় নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া পাকিস্তানের
                                  
ভারতের অযোধ্যা মামলার রায় দিয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। কিন্তু, তার সময় নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তুললো পাকিস্তান। সম্পূর্ণ বিষয়টিকে ‘অসংবেদনশীল’ বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি।

কর্তারপুর করিডর ঘিরে যখন অনন্দময় পরিবেশ, তখনই বিতর্কিত জমি মামলার রায়দানের বিষয়টিকে ভালোভাবে দেখছে না ইমরান খানের সরকার।

শনিবারই অযোধ্যা মামলার রায় দিয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত। কর্তারপুর করিডর ঘিরে আনন্দঘন পরিবেশ। তখনই অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলার রায়দানকে ভালোভাবে দেখছে না পাকিস্তান।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি জানিয়েছেন, ‘কেন এই সময়টিকেই বেছে নেওয়া হল। পুরো বিষয়টি খুবই অসংবেদশীল।’

তারপরই তিনি জানিয়েছেন, ‘সম্পূর্ণ ঘটনায় তিনি মর্মাহত’।

এদিনই অযোধ্যা মামলায় ঐতিহাসিক রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট। অযোধ্যার বিতর্কিত জমি দেওয়া হল হিন্দুদের।

অন্যদিকে, মসজিদ নির্মাণের জন্য বিকল্প জমি দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত। অযোধ্যার ঐতিহাসিক রায়ে একমত সুপ্রিম কোর্টের ৫ বিচারপতিই। মন্দির নির্মাণের জন্য ৩ মাসের মধ্যে ট্রাস্ট তৈরি করতে কেন্দ্রকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

রিয়াদ চুক্তি ইয়েমেন সংকট সমাধানে কোনো ভূমিকা রাখবে না: ইরান
                                  

 ইয়েমেনের পলাতক পদত্যাগকারী প্রেসিডেন্ট আব্দ রাব্বু মানসুর হাদির সঙ্গে ইয়েমেনের দক্ষিণাঞ্চলে তৎপর কিছু গোষ্ঠী সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে যে চুক্তি করেছে তা প্রত্যাখ্যান করেছে তেহরান। ইরান বলেছে, এ ধরনের চুক্তি স্বাক্ষর করে ইয়েমেন সমস্যার সমাধান করা যাবে না।

মঙ্গলবার সৌদি আরবের তাবেদার পলাতক প্রেসিডেন্ট মানসুর হাদির অনুগত কিছু গোষ্ঠী এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের অনুগত ইয়েমেনের কথিত ‘দক্ষিণ অন্তর্বর্তী পরিষদ’র মধ্যে ওই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এ সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইয়্যেদ আব্বাস মুসাভি গতকাল বুধবার তেহরানে বলেন, প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে দক্ষিণ ইয়েমেনের ওপর সৌদি আরব ও তার মিত্রদের দখলদারিত্ব পাকাপোক্ত করার লক্ষ্যে এই চুক্তি সই করা হয়েছে।


তিনি আরো বলেন, ইয়েমেনের সচেতন জনগণ সব সময় দখলদার শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করেছে; কাজেই তারা এবারও তাদের দেশের দক্ষিণাঞ্চলের ওপর দখলদার শক্তিকে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করতে দেবে না।

পদত্যাগের দাবি ছাড়া সব দাবি মেনে নিতে রাজি আছেন ইমরান খান
                                  

 পাকিস্তানে চলমান সরকারবিরোধী আন্দোলনে বিক্ষোভকারীদের সব দাবি মেনে নিতে রাজি আছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কেবল পদত্যাগের দাবি মানতে নারাজ তিনি। মঙ্গলবার আজাদি মার্চের নেতাদের আবারও তিনি এই কথা বলেছেন। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম নিউজউইক পাকিস্তানের এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে। অর্থনৈতিক দুর্ভোগের অভিযোগে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পদত্যাগের দাবিতে গত সপ্তাহে বিক্ষোভের ডাক দেয় দেশটির প্রভাবশালী ইসলামপন্থী রাজনৈতিক দল জমিয়তে উলেমা-ই-ইসলাম। দলটির প্রধান মাওলানা ফজলুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে রাজধানী ইসলামাবাদে ‘আজাদি মার্চে’ অংশ নিচ্ছেন হাজার হাজার বিক্ষোভকারী।

পরে আন্দোলনে দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারি ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের অনুসারীসহ অন্যান্য সমমনা ধর্মীয় দলও এতে যোগ দিয়েছে। দাবি আদায়ে ইসলামাবাদের রাজপথে ধর্নায় বসেছেন বিক্ষোভকারীরা।
স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, ইমরান খাননের বাসভবনে প্রতিরক্ষামন্ত্রী পারভেজ খাত্তাকের নেতৃত্বাধীন একটি দল আন্দোলনকারীদের সঙ্গে বৈঠকে অংশ নেয়। সেই দলের নেতৃত্ব দেন জমিয়তের উলামা ইসলামের প্রধান মাওলানা ফজলুর রহমান। সম্প্রচারমাধ্যম জিও নিউজ জানায়, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সব ‘যৌক্তিক’ দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। তবে সংবিধানের সঙ্গে তার সামঞ্জস্য থাকতে হবে। তবে তার পদত্যাগ নিয়ে কোনও সমঝোতা হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।
রাহবার কমিটি নামে আলোচনার ওই কমিটি বিষয়টি পর্যালোচনা করবে। মঙ্গলবার পাকিস্তান সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বিক্ষোভকারীরা ৪টি মূল দাবি জানিয়েছে; প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পদত্যাগ ও নির্বাচন, পাকিস্তানি নির্বাচন কমিশন কর্তৃক নির্বাচন পরিচালনা, কোনও সামরিক হস্তক্ষেপ বিহীন নির্বাচন ও সংবিধানের যথাযথ বাস্তবায়ন। ফলে ইমরান খান পদত্যাগের বাইরে অন্য দাবিগুলো মেনে নিলে কী ঘটবে তা স্পষ্ট নয়। কারণ নির্বাচনের দাবি মেনে নিয়ে তাকে পদ ছাড়তেই হবে বলে জানায় নিউজউইক।


এর আগে গত সোমবার ইসলামাবাদে বিরোধী দলগুলোর এক সর্ব দলীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সম্মেলনে সর্বসম্মতভাবে বিক্ষোভ অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। গত শুক্রবার ইমরান খানকে পদত্যাগে ৪৮ ঘণ্টা সময় বেঁধে দেন জমিয়তে উলেমায়ে ইসলাম নেতা মাওলানা ফজলুর রহমান। রোববার সেই সময়সীমা শেষ হলে তিনি জানান সরকারি প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের পর বিরোধীদের আলোচক দল রাহবার কমিটি নতুন আল্টিমেটামের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।

ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বাংলাদেশের মানবাধিকার নিয়ে উদ্বেগ
                                  

ব্রিটিশ পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ হাউস অফ লর্ডসে বাংলাদেশের চলমান মানবাধিকার পরিস্থিতি, বাক-স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র শীর্ষক এক আন্তর্জাতিক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে বক্তারা বাংলাদেশের বর্তমান মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

হাউস অফ লর্ডসের প্রভাবশালী সদস্য লর্ড কোরবান হোসাইনের সভাপতিত্বে ও ভয়েস ফর বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা আতাউল্লাহ ফারুকের পরিচালনায় সেমিনারে বক্তব্য রাখেন ব্রিটেনের লেবার পার্টির প্রভাবশালী নেতা স্যাম টেরি, ইউরোপীয়ান কমিশন যুক্তরাজ্যের প্রধান ইয়েন ক্রুস, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের সাবেক দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক ডিরেক্টর আব্বাস ফয়েজ, আইনজীবী কিম্বারলি বাকের, বাংলাদেশ স্টুডেন্টস ইউনিয়নের সাবেক আহ্বায়ক এসএইচ সোহাগ, ভয়েস ফর বাংলাদেশের হেড অফ কমিউনিকেশন নূর হোসাইন, মনজুর হাসান পল্টু ও শামীমা আক্তার। এছাড়া বক্তারা বাংলাদেশের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে সরকারি দলের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের ব্যাপক সমালোচনা এবং উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

লর্ড কোরবান হোসাইন তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের বর্তমান মানবাধিকার পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছে, যা কারো জন্যই মোটেই সুখকর নয়। তিনি বাংলাদেশের ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী এবং ২০১৮ সালের ৩০শে ডিসেম্বর নির্বাচনের সমালোচনা করে বলেন, বাংলাদেশের সাধারণ জনগণ তাদের ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত হয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক সাবেক ডিরেক্টর আব্বাজ ফয়েজ বলেন, স্বৈরতান্ত্রিকভাবে দেশ পরিচালনা করা কোনো দেশের জন্যেই সুখকর নয়, যার ফলশ্রুতিতে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি ক্রমান্বয়ে খারাপের দিকে ধাবিত হচ্ছে। তিনি বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডসহ বাংলাদেশের বিগত কয়েকটি হত্যাকাণ্ডের কথা উল্লেখ করে বলেন, এই ধরণের হত্যাকাণ্ড কারো জন্যই কাম্য নয়। তিনি এ বিষয়ে দ্রুত সমাধানের জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ জানান।

স্যাম টেরি তার বক্তব্যে বাংলাদেশের বর্তমান ছাত্র-রাজনীতির অবস্থার সাথে ব্রিটেনের ছাত্র রাজনীতির কথা উল্লেখ করে বলেন, ছাত্র সংগঠনগুলোর এই ধরণের প্রতিহিংসামূলক মানসিকতা পরিবর্তন করা অত্যন্ত জরুরী। অন্যথায় বাংলাদেশের ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করে দেয়া উচিত।

ইউরোপীয়ান কমিশন যুক্তরাজ্যের প্রধান ইয়েন ক্রুস তার বক্তব্যে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ও মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে ইউরোপীয়ান কমিশনের অবস্থান তুলে ধরেন এবং বাংলাদেশের চলমান মানবাধিকার পরিস্থিতিসহ সেমিনারে উত্থাপিত বিষয়সমূহের নোট নিয়ে কমিশনের সংশ্লিষ্ট বিভাগের নজরে আনবেন বলে তিনি জানান। মঙ্গলবার রাত ৯টায় সেমিনার শেষ হয়।

সেমিনারে আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে ব্যারিস্টার নিশাত খুশবু, অঞ্জনা আলম, লুনা সাবিরা, লুৎফর রহমান (লিংকন), আবুল হোসাইন নিজাম, হাবিবুর রহমান, মো: মুজাহিদ, খালিদ (পাভেল), আশিকুল ইসলাম, জামাল মিয়া, দেলোয়ার হোসেন, সাইদুর রহমান চৌধুরী, জাহিদুল হোসেন, আরিফ মঈনুল হোসেনসহ আরো অনেকে অংশগ্রহণ করেন।

এরদোয়ানের সহায়তায় ১০ হাজার কোটি টাকার শাস্তি এড়িয়েছে পাকিস্তান: ইমরান
                                  

 পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, তার দেশ তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ানের সহায়তায় ১ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলারের শাস্তি এড়াতে সক্ষম হয়েছে। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ দাঁড়ায় ১০ হাজার ২০০ কোটি ৯৬ লাখ ২৪ হাজার টাকা। গত সোমবার টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে এ তথ্য জানান ইমরান। টুইটে ইমরান বলেন, প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানের সহায়তায় তেহরিক-ই-ইনসাফ পার্টির সরকার আপসরফার মাধ্যমে কার্কে বিবাদের সমাধান করেছে।

এতে ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর সেটেলমেন্ট অব ইনভেস্টমেন্ট ডিসপিউটস (আইসিএসআইডি) বা আন্তর্জাতিক সালিশ আদালতের ১ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলারের শাস্তি থেকে রেহাই পেয়েছে পাকিস্তান। ওই ঘটনায় তুরস্কভিত্তিক বিদ্যুৎ কোম্পানি কার্কে কারাডেনিজ ইলেকট্রিক উরেটিম (কেকেইইউ)-এর সংশ্লিষ্টতা ছিল। একপর্যায়ে পাকিস্তানের সঙ্গে তাদের বিবাদ আন্তর্জাতিক সালিশ আদালতে গড়ানোর উপক্রম হয়। তবে এরদোয়ানের মধ্যস্থতায় কোম্পানিটির সঙ্গে বিবাদ নিরসনে সমর্থ হয় পাকিস্তান। বড় অংকের জরিমানা থেকে বেঁচে যায় ইসলামাবাদ। দেশের ক্রমবর্ধমান বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে ২০০৮-০৯ সালে ১২টি রেন্টাল পাওয়ার কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করে পাকিস্তান। ওই ১২ কোম্পানির একটি ছিল তুর্কি প্রতিষ্ঠান কেকেইইউ। পরে চুক্তি লঙ্ঘনের অভিযোগ নিয়ে ইসলামাবাদের সঙ্গে বিবাদে জড়ায় কেকেইইউ। পাকিস্তানের দুর্নীতিবিরোধী নজরদারি সংস্থার বরাত দিয়ে ডন জানিয়েছে, কেকেইইউ পাকিস্তানের সরকারকে ১৮ মিলিয়ন ডলার জরিমানা দেওয়ার নিশ্চয়তা দেওয়ায় দৃশ্যত সেখানেই এই সমস্যার সমাধান হতে চলছিল। কিন্তু কিছু রাজনীতিকের পিটিশনের প্রেক্ষিতে পাকিস্তানের এপেক্স কোর্টের রায়ে বিষয়টি আটকে যায়।

ফলে ২০১৩ সালে আন্তর্জাতিক সালিশ আদালতের শরণাপন্ন হয় তুরস্কের ওই প্রতিষ্ঠান। এতে কোম্পানিটির পক্ষ থেকে ক্ষতিপূরণ দাবি করা হয়। ২০১২ সালে ওই তুর্কি প্রতিষ্ঠানের পক্ষে রায় দেন আন্তর্জাতিক সালিশ আদালত। এতে কোম্পানিটিকে ১ দশমিক ২ বিলিয়ন ডলারের ক্ষতিপূরণ দিতে পাকিস্তানকে নির্দেশ দেন আদালত। পরে বিষয়টি নিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ানের শরণাপন্ন হন ইমরান খান। পাকিস্তানের অর্থনৈতিক সংকটের কথা উল্লেখ করে এত বড় অংকের জরিমানা দিতে দেশটির অপারগতার কথা জানান তিনি। সর্বশেষ গত সোমবার ওই প্রক্রিয়ায় সাফল্য অর্জনের কথা জানান ইমরান খান। সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি, ডন।

আয়কর বিবরণী প্রকাশ: আপিলেও হারলেন ট্রাম্প
                                  

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ও তার পারিবারিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের আয়কর বিবরণী চেয়ে ম্যানহাটনের এক অ্যাটর্নির কার্যালয়ের জারি করা পরোয়ানা মামলার আপিলেও নিম্ন আদালতের রায় বহাল থাকছে। গত সোমবার সেকেন্ড ইউএস সার্কিট কোর্ট অব আপিলসের বিচারকরা ট্রাম্পের হিসাব ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠানকে প্রেসিডেন্টের ৮ বছরের ব্যক্তিগত ও কর্পোরেট আয়কর বিবরণী ম্যানহাটনের কৌঁসুলিদের কাছে হস্তান্তর করতে বলেছেন বলে জানিয়েছে নিউ ইয়র্ক টাইমস।


অবশ্য আপিলে হারলেও এখনই ট্রাম্পকে তার আয়কর সংক্রান্ত নথি জমা দিতে হচ্ছে না। তিনি চাইলে এ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টেরও দ্বারস্থ হতে পারবেন। যুক্তরাষ্ট্রের এ সর্বোচ্চ আদালতেই বিষয়টির মীমাংসা হতে যাচ্ছে বলে পর্যবেক্ষকরা ধারণা করছেন।


মার্কিন গণমাধ্যমগুলো জানায়, চলতি বছরের অগাস্টে ম্যানহাটনের ডেমোক্র্যাট অ্যাটর্নি সাইরাস আর ভেন্স জুনিয়রের কার্যালয় ট্রাম্পের হিসাব ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান মাজার্সের কাছে ২০১১ সালের পর থেকে ট্রাম্প ও তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহের আয়কর বিবরণী চেয়ে পরোয়ানা জারি করলে দুই পক্ষের মধ্যে আইনি লড়াইয়ের শুরু হয়। সাইরাসের এ কার্যালয় ২০১৬-র প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে ট্রাম্পের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল দাবি করা দুই নারীকে অর্থ দেয়ার অভিযোগ খতিয়ে দেখছে। অভিশংসন ছাড়া মার্কিন সংবিধান প্রেসিডেন্টকে যাবতীয় অপরাধের তদন্ত থেকে দায়মুক্তি দিয়েছে যুক্তি দিয়ে ট্রাম্পের আইনজীবীরা শুরু থেকেই এ আয়কর বিবরণী প্রকাশের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেন। ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নির কার্যালয় রাজনৈতিক উদ্দেশ্য থেকে, প্রেসিডেন্টকে হয়রানি করতেই এমনটা করছে বলেও অভিযোগ তাদের। অক্টোবরে ম্যানহাটনের আদালত সাইরাসের কার্যালয়ের পরোয়ানার পক্ষে অবস্থান নিলে ট্রাম্প আপিল করেন। গত সোমবার আপিল আদালতও ট্রাম্পের দায়মুক্তির যুক্তি প্রত্যাখ্যান করে জানায়, সাইরাসের কার্যালয় ট্রাম্প নয়, তার প্রতিষ্ঠানের কাছে নথি চেয়েছে; যা মোটেও প্রেসিডেন্টের দায়মুক্তির সঙ্গে সম্পর্কিত নয়।


তিন সদস্যের এ আপিল আদালতে বিচারক হিসেবে ছিলেন রবার্ট এ কাটজম্যান, ডেনি চিন ও ক্রিস্টোফার এফ ড্রোনি। প্রথমজন বিল ক্লিনটনের আমলে নিয়োগ পেয়েছিলেন, পরের দুজনকে আপিল বিভাগে এনেছিলেন বারাক ওবামা।

যুবরাজ বিন সালমানের সময়ে মানবাধিকার লঙ্ঘন বেড়েছে: এইচআরডাব্লিউ
                                  

নিউইয়র্কভিত্তিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলেছে, সৌদি যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান ক্ষমতায় আসার পর দেশটিতে নিপীড়ন-নির্যাতন এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা অনেক বেড়েছে। গত সোমবার নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত নতুন এক রিপোর্টে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলেছে, যুবরাজ বিন সালমানের ব্যাপারে দেশটির ধর্মীয় নেতারা, মানবাধিকারকর্মী বা যেকোন ব্যক্তি সামান্য সমালোচনা করলেই তাদের বিরুদ্ধে ধরপাকড় এবং নির্যাতন চালানো হয়। প্রখ্যাত সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে বর্বরভাবে হত্যা করার এক বছরের বেশি সময় পার হওয়ার পরও এ ধারা অব্যাহত রয়েছে।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদি আরবে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা কিংবা আটক ও নির্যাতনের ঘটনা নতুন কোনো বিষয় নয়, তবে এর মাত্রা এখন মারাত্মকভাবে বেড়ে গেছে। ২০১৭ সালের পর থেকে এই প্রবণতা আশঙ্কাজনকভাবে বেড়েছে।

যুবরাজ বিন সালমান ক্ষমতা কুক্ষিগত করার পর নারীদের ড্রাইভিংয়ের অনুমতি ও পুরুষ সঙ্গী ছাড়া বিদেশ ভ্রমণের অধিকার দেয়ার মতো বেশ কিছু সংস্কার করেছেন কিন্তু হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এর একটি অন্ধকার দিক রয়েছে আর সেটি হচ্ছে বিন সালমানের সময় এসে ভিন্নমতাবলম্বীদের ওপর যেমন নির্যাতন বেড়েছে, তেমনি বেড়েছে নারীর উপর নির্যাতন এমনকি যৌন হয়রানি পর্যন্ত করা হচ্ছে। পাশাপাশি বহু নারী মানবাধিকারকর্মীকে গ্রেপ্তার করার ঘটনা ঘটছে।

ইরান যে কোন ধরনের সেন্ট্রিফিউজ তৈরি করতে সক্ষম
                                  

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের আণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান আলী আকবর সালেহি বলেছেন, তার দেশ যেকোনো ধরনের সেন্ট্রিফিউজ বানাতে সক্ষম যার অর্থ হচ্ছে বিজ্ঞানের এ ক্ষেত্রে প্রত্যাশার চেয়েও বেশি উন্নতি করেছে ইরান। গত সোমবার তিনি নাতাঞ্জের শহীদ মোস্তফা আহমাদ রশান পরমাণু কেন্দ্র পরিদর্শনের সময় সাংবাদিকদের কাছে এ কথা বলেন। সালেহি বলেন, কিছু মানুষ আছে যারা পরমাণু প্রযুক্তি সম্পর্কে ধারণা রাখে না অথচ এ সম্পর্কে অযৌক্তিক-অসত্য কথাবার্তা বলে যা অস্বস্তির কারণ।

এমনকি তারা বলে যে, পরমাণু স্থাপনা সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস হয়ে গেছে কিন্তু তাদের এসমস্ত কথাবার্তা আমাদের দৃঢ় মনোভাবে কোনো পরিবর্তন আনতে পারে নি। ইরানের জনগণ এটা নিশ্চিত করবে যে, তাদের পরমাণু স্থাপনার কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

এদিকে, আলী আকবর সালেহি গতকালই জানিয়েছেন, নাতাঞ্জ পরমাণু স্থাপনার আইআর-৬ সেন্ট্রিফিউজে গ্যাস ভরার কাজ শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, ইরানের পরমাণু ক্ষেত্রে যে অগ্রগতি সাধিত হয়েছে তার জন্য আমাদেরকে বহুপথ পাড়ি দিতে হয়েছে। পার্সটুডে

সীমান্তে সন্ত্রাসী আস্তানা তৈরি করছে পাকিস্তান, দাবি ভারতের
                                  

কারতারপুর করিডরের পাকিস্তান সীমান্তে সন্ত্রাসীরা আস্তানা তৈরি করেছে বলে দাবি করেছে নয়াদিল্লি। ভারতের গোয়েন্দা সংস্থার বরাত দিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, কারতারপুর করিডর দিয়ে শিখ পুণ্যার্থীদের ভিসা ছাড়াই পাকিস্তানে প্রবেশের সুযোগ সৃষ্টি হলেও জঙ্গি হামলার পরিকল্পনা করছে সন্ত্রাসীরা। হামলার আশঙ্কায় এরইমধ্যে সতর্কতা জারি করা হয়েছে বলেও ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।


এদিকে বহুল প্রতীক্ষিত কারতারপুর করিডর আগামি ৯ নভেম্বর খুলে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। শিখ পুণ্যার্থীদের গ্রহণে সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।


   Page 1 of 283
     আন্তর্জাতিক
গাজায় ইসরাইলি হামলায় নিহত ৩২
.............................................................................................
আফগানিস্তানে গাড়ি বোমা বিষ্ফোরণে নিহত ৭
.............................................................................................
কাশ্মীরে গভীর খাদে বাস, নিহত ১৬
.............................................................................................
সিরিয়ার তেলক্ষেত্র নিয়ন্ত্রণে মার্কিন পদক্ষেপ ডাকাতি ছাড়া কিছু নয়: রাশিয়া
.............................................................................................
ইয়াসির আরাফাতের মৃত্যুবার্ষিকীতে ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে ফিলিস্তিনি শহীদ
.............................................................................................
দাবানলে পুড়ে ছারখার অস্ট্রেলিয়া
.............................................................................................
বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ বলিভিয়ার প্রেসিডেন্টের
.............................................................................................
বাবরি মসজিদের রায় নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া পাকিস্তানের
.............................................................................................
রিয়াদ চুক্তি ইয়েমেন সংকট সমাধানে কোনো ভূমিকা রাখবে না: ইরান
.............................................................................................
পদত্যাগের দাবি ছাড়া সব দাবি মেনে নিতে রাজি আছেন ইমরান খান
.............................................................................................
ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বাংলাদেশের মানবাধিকার নিয়ে উদ্বেগ
.............................................................................................
এরদোয়ানের সহায়তায় ১০ হাজার কোটি টাকার শাস্তি এড়িয়েছে পাকিস্তান: ইমরান
.............................................................................................
আয়কর বিবরণী প্রকাশ: আপিলেও হারলেন ট্রাম্প
.............................................................................................
যুবরাজ বিন সালমানের সময়ে মানবাধিকার লঙ্ঘন বেড়েছে: এইচআরডাব্লিউ
.............................................................................................
ইরান যে কোন ধরনের সেন্ট্রিফিউজ তৈরি করতে সক্ষম
.............................................................................................
সীমান্তে সন্ত্রাসী আস্তানা তৈরি করছে পাকিস্তান, দাবি ভারতের
.............................................................................................
ইয়েমেন সীমান্তে সৌদির ৫ সেনা নিহত
.............................................................................................
ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানল নিয়ন্ত্রণের বাইরে, রাজ্য প্রশাসনের ওপর চটেছেন ট্রাম্প
.............................................................................................
নেপালে রাস্তা থেকে নদীতে বাস সিটকে পড়ে ১৭ জন নিহত
.............................................................................................
ভারতের নতুন মানচিত্র ‘অবৈধ’ : পাকিস্তান
.............................................................................................
মিয়ানমারকে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে জাতিসংঘের আহবান
.............................................................................................
পদত্যাগ নাকচ ইমরানের, সংবিধান রক্ষা করবে সেনাবাহিনী
.............................................................................................
সিরিয়ায় গাড়ি বোমা বিস্ফোরণে নিহত ১৩
.............................................................................................
ইমরান খানেই আস্থা পাক সেনাবাহিনীর
.............................................................................................
‘আর কত দিন মায়েদের কাছ থেকে সন্তানদের আলাদা করে রাখবেন?’
.............................................................................................
বিভিন্ন যুদ্ধে ৮০ লাখ মানুষ হত্যায় আমেরিকা ভূমিকা রেখেছে: জেনারেল সালামি
.............................................................................................
পদত্যাগ করতে প্রস্তুত ইরাকের প্রধানমন্ত্রী’
.............................................................................................
দুই ধাপে হবে ট্রাম্পের অভিশংসন তদন্ত
.............................................................................................
ফিলিপাইনে ট্রাক দুর্ঘটনায় ১৯ কৃষক নিহত
.............................................................................................
কাশ্মিরে পাঁচ বাঙালি শ্রমিককে হত্যা
.............................................................................................
রাজনৈতিক অস্থিরতা: লেবাননের প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ
.............................................................................................
১২ ডিসেম্বর যুক্তরাজ্যে সাধারণ নির্বাচন
.............................................................................................
কাশ্মীরে ‘মোদির কারণে’ আর্থিক ক্ষতি ১০ হাজার কোটি রুপি
.............................................................................................
দাবানলে ক্যালিফোর্নিয়াজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি
.............................................................................................
নতুন প্রেসিডেন্ট পেল আর্জেন্টিনা
.............................................................................................
পরিস্থিতি দেখতে কাশ্মিরে যাচ্ছে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রতিনিধিরা
.............................................................................................
শান্তিতে নোবেলজয়ী আবির বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নিহত ৬৭
.............................................................................................
কুর্দি হামলায় সিরিয়ায় ছয় তুর্কি সেনা হতাহত
.............................................................................................
তালেবানের সঙ্গে দ্রুত আলোচনা শুরু করুন: আমেরিকাকে চীন, রাশিয়ার আহ্বান
.............................................................................................
কানাডায় জয় পেয়েছেন ১২ জন মুসলিম প্রার্থী
.............................................................................................
সরকারবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল ইরাক, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২২০
.............................................................................................
৯০ দিনের হোস্ট ভিসা দেবে সৌদি আরব
.............................................................................................
১২ ডিসেম্বরে নির্বাচন আহ্বান করলেন বরিস জনসন
.............................................................................................
বলিভিয়ায় নির্বাচনে মোরালেসকে জয়ী ঘোষণা
.............................................................................................
সিরীয় শরণার্থীদের দেশে ফিরতে বাধ্য করছে তুরস্ক: অ্যামনেস্টি
.............................................................................................
ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানল: ঘরবাড়ি ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ
.............................................................................................
যুক্তরাজ্যে লরি থেকে ৩৯ লাশ উদ্ধার
.............................................................................................
কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধে ৩ গেরিলা ও ১ সেনা কর্মকর্তা নিহত
.............................................................................................
সীমান্ত থেকে কুর্দি গেরিলাদের সরিয়ে নিতে সম্মত হলেন পুতিন-এরদোগান
.............................................................................................
মধ্যপ্রাচ্যে আমেরিকাসহ ৫০ দেশের যৌথ মহড়া শুরু
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed By: Dynamicsolution IT [01686797756]