১০ শাওয়াল ১৪৪১ , ঢাকা, বুধবার, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৩ জুন , ২০২০ বাংলার জন্য ক্লিক করুন
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|

   তথ্যপ্রযুক্তি -
                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                 
নিরাপদ ফাইভ-জি পণ্যের জন্য বিশ্বের প্রথম সনদ পেল হুয়াওয়ে

ফাইভ-জি পণ্যের জন্য বিশ্বের প্রথম কমন ক্রাইটেরিয়া(সিসি) ইভালুয়েশন অ্যাসুরেন্স লেভেল (ইএএল) ফোরপ্লাস সনদ অর্জন করেছে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে।

বৃহস্পতিবার এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, হুয়াওয়ের ফাইভ-জি বেজ স্টেশন এবং ফাইভ-জি ওয়্যারলেস পণ্যগুলো যে নিরাপত্তার দিক দিয়ে বিশ্ব মানসম্পন্ন সে বিষয়টির স্বীকৃতি হিসেবেই এ সনদ দেয়া হয়েছে।

স্পেনের সনদ প্রদানকারী কর্তৃপক্ষ সিসিএন (সেন্ট্রো ক্রিপ্টোলজিকো ন্যাশনাল) গত ২০মে আনুষ্ঠানিকভাবে হুয়াওয়ে ৫৯০০ সিরিজ ফাইভ-জি জিনোডবি সফটওয়্যারকে এ স্বীকৃতি প্রদান করে।

স্পেনের আইটি সিকিউরিটি ইভালুয়েশন ও সার্টিফিকেশন স্কিমের শর্তসমূহ মেনেই মূল্যায়ন প্রক্রিয়াটি পরিচালনা করা হয়েছে। মূল্যায়ন কারগিরি প্রতিবেদনে ধারাবাহিক মূল্যায়নের সিদ্ধান্তগুলো প্রাসঙ্গিক প্রমাণের মাধ্যমে উপস্থাপন করা হয়েছে বলে জানায় সিসিএন।

নিরাপত্তা সনদের ক্ষেত্রে সিসি সনদ বিশ্বব্যাপী সুপরিচিত ও স্বীকৃত। এর সাতটি স্তর রয়েছে। ইএএলফোরপ্লাস কিংবা পরের স্তরের জন্য সোর্স কোড পরীক্ষা ও যথার্থতা যাচাই করা প্রয়োজন। ইএএলফোর হলো ‘সর্বোচ্চ স্তর যেখানে ব্যয় কমিয়ে বিদ্যমান পণ্যে নতুন সরঞ্জামাদি সংযোজন করা যায়।’  

এ নিয়ে হুয়াওয়ে এশিয়া প্যাসিফিকের ভাইস প্রেসিডেন্ট জে চ্যান বলেন, ‘হুয়াওয়ে বিশ্বাস করে, আস্থা অর্জনের বিষয়টি প্রকৃত তথ্যের ওপর ভিত্তি করেই হওয়া প্রয়োজন, তথ্যগুলোও যাচাইযোগ্য হওয়া উচিত এবং সাধারণ মানদণ্ডের নিরিখে এ যাচাই প্রক্রিয়াটি হওয়া প্রয়োজন। এ শিল্পখাতে, নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়গুলো চিহ্নিতের জন্য সনদই সবচেয়ে কার্যকরী উপায়।’ 

হুয়াওয়ে এর পণ্য গবেষণা ও উন্নয়নে ইতিমধ্যেই সিসি ও এফআইপিএস’র মতো আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সাইবার নিরাপত্তা সনদের মানদণ্ড অন্তর্ভুক্ত করেছে এবং এ পণ্যগুলো নিরীক্ষার জন্য প্রতিষ্ঠানটি তৃতীয় পক্ষের প্রতিষ্ঠানসমূহকেও আমন্ত্রণ জানায়।

বর্তমানে, হুয়াওয়ের পণ্য ও সমাধানগুলো ২৭০টিরও বেশি নিরাপত্তা সনদ অর্জন করেছে। এর মধ্যে রয়েছে সিসি, এফআইপিএস এবং সিএসএ।  

জে আরও বলেন, ‘বিশ্বের প্রথম ফাইভ-জি সিসি ইএএলফোরপ্লাসের সনদ প্রাপ্তির বিষয়টি আবারো আমাদের ফাইভ-জি নেতৃত্বের ক্ষেত্রে সক্ষমতা প্রদর্শন করেছে। হুয়াওয়ে ধারাবাহিকভাবে উদ্ভাবনী ফাইভ-জি প্রযুক্তিগুলো নিয়ে কাজ করবে এবং বৈশ্বিক অপারেটরগুলোর জন্য ফাইভ-জি’র বাণিজ্যিক ব্যবহারের প্রক্রিয়াকে সহজতর করবে।’  

নিরাপদ ফাইভ-জি পণ্যের জন্য বিশ্বের প্রথম সনদ পেল হুয়াওয়ে
                                  

ফাইভ-জি পণ্যের জন্য বিশ্বের প্রথম কমন ক্রাইটেরিয়া(সিসি) ইভালুয়েশন অ্যাসুরেন্স লেভেল (ইএএল) ফোরপ্লাস সনদ অর্জন করেছে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে।

বৃহস্পতিবার এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, হুয়াওয়ের ফাইভ-জি বেজ স্টেশন এবং ফাইভ-জি ওয়্যারলেস পণ্যগুলো যে নিরাপত্তার দিক দিয়ে বিশ্ব মানসম্পন্ন সে বিষয়টির স্বীকৃতি হিসেবেই এ সনদ দেয়া হয়েছে।

স্পেনের সনদ প্রদানকারী কর্তৃপক্ষ সিসিএন (সেন্ট্রো ক্রিপ্টোলজিকো ন্যাশনাল) গত ২০মে আনুষ্ঠানিকভাবে হুয়াওয়ে ৫৯০০ সিরিজ ফাইভ-জি জিনোডবি সফটওয়্যারকে এ স্বীকৃতি প্রদান করে।

স্পেনের আইটি সিকিউরিটি ইভালুয়েশন ও সার্টিফিকেশন স্কিমের শর্তসমূহ মেনেই মূল্যায়ন প্রক্রিয়াটি পরিচালনা করা হয়েছে। মূল্যায়ন কারগিরি প্রতিবেদনে ধারাবাহিক মূল্যায়নের সিদ্ধান্তগুলো প্রাসঙ্গিক প্রমাণের মাধ্যমে উপস্থাপন করা হয়েছে বলে জানায় সিসিএন।

নিরাপত্তা সনদের ক্ষেত্রে সিসি সনদ বিশ্বব্যাপী সুপরিচিত ও স্বীকৃত। এর সাতটি স্তর রয়েছে। ইএএলফোরপ্লাস কিংবা পরের স্তরের জন্য সোর্স কোড পরীক্ষা ও যথার্থতা যাচাই করা প্রয়োজন। ইএএলফোর হলো ‘সর্বোচ্চ স্তর যেখানে ব্যয় কমিয়ে বিদ্যমান পণ্যে নতুন সরঞ্জামাদি সংযোজন করা যায়।’  

এ নিয়ে হুয়াওয়ে এশিয়া প্যাসিফিকের ভাইস প্রেসিডেন্ট জে চ্যান বলেন, ‘হুয়াওয়ে বিশ্বাস করে, আস্থা অর্জনের বিষয়টি প্রকৃত তথ্যের ওপর ভিত্তি করেই হওয়া প্রয়োজন, তথ্যগুলোও যাচাইযোগ্য হওয়া উচিত এবং সাধারণ মানদণ্ডের নিরিখে এ যাচাই প্রক্রিয়াটি হওয়া প্রয়োজন। এ শিল্পখাতে, নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়গুলো চিহ্নিতের জন্য সনদই সবচেয়ে কার্যকরী উপায়।’ 

হুয়াওয়ে এর পণ্য গবেষণা ও উন্নয়নে ইতিমধ্যেই সিসি ও এফআইপিএস’র মতো আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সাইবার নিরাপত্তা সনদের মানদণ্ড অন্তর্ভুক্ত করেছে এবং এ পণ্যগুলো নিরীক্ষার জন্য প্রতিষ্ঠানটি তৃতীয় পক্ষের প্রতিষ্ঠানসমূহকেও আমন্ত্রণ জানায়।

বর্তমানে, হুয়াওয়ের পণ্য ও সমাধানগুলো ২৭০টিরও বেশি নিরাপত্তা সনদ অর্জন করেছে। এর মধ্যে রয়েছে সিসি, এফআইপিএস এবং সিএসএ।  

জে আরও বলেন, ‘বিশ্বের প্রথম ফাইভ-জি সিসি ইএএলফোরপ্লাসের সনদ প্রাপ্তির বিষয়টি আবারো আমাদের ফাইভ-জি নেতৃত্বের ক্ষেত্রে সক্ষমতা প্রদর্শন করেছে। হুয়াওয়ে ধারাবাহিকভাবে উদ্ভাবনী ফাইভ-জি প্রযুক্তিগুলো নিয়ে কাজ করবে এবং বৈশ্বিক অপারেটরগুলোর জন্য ফাইভ-জি’র বাণিজ্যিক ব্যবহারের প্রক্রিয়াকে সহজতর করবে।’  

স্বল্প খরচে ভেন্টিলেটর তৈরি করল ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়
                                  

করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় স্বল্প খরচে ‘নিঃশ্বাস’ নামে ভেন্টিলেটর তৈরি করেছেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির একদল তরুণ গবেষক।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স প্রকল্পের পরিচালক মো. হাফিজুল ইমরান জানান, এপ্রিল মাসের শুরুর দিকে ড্যাফোডিল রোবটিক্স ল্যাব থেকে স্বল্প খরচে ভেন্টিলেটর তৈরির প্রজেক্ট শুরু করা হয়। এ প্রজেক্টে ছিলেন রোবটিক্স ল্যাবের দুজন সদস্য জিয়াউল হক জিম এবং রনি সাহা। ২০ দিনের প্রচেষ্টায় সফলভাবে প্রজেক্টটি সম্পন্ন হয়েছে। ভেন্টিললাটরটির নাম দেয়া হয়েছে ‘নিঃশ্বাস’।

গবেষকরা জানান, একজন আইসিইউ রোগী প্রতি মিনিটে কতবার শ্বাস প্রশ্বাস নেবেন এবং তার ভলিউম কতটুকু হবে সবই সেট করা যাবে স্বল্প খরচের এ ভেন্টিলেটরটিতে। করোনা মহামারি মোকাবিলায় দেশের বড় বড় শহরের পাশাপাশি ছোট শহরগুলোতেও আইসিইউ সাপোর্টে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারবে এ ভেন্টিলেটর। করোনা চিকিৎসা ছাড়াও যেসব হাসপাতালে আইসিইউ/রেস্পিরেটরি সাপোর্ট নেই সেখানে কার্যকর হয়ে উঠতে পারে এ যন্ত্রটি।

আগামী সপ্তাহেই ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ভেন্টিলেটরটির ক্লিনিক্যাল টেস্ট শুরু হবে। ক্লিনিক্যাল টেস্ট সফল হলে এটি বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন করা হবে বলে জানান হাফিজুল ইমরান।

বড় পর্দার ৩ ক্যামেরার স্মার্টফোন আনছে ওয়ালটন
                                  

‘প্রিমো এনফোর’ মডেলের বড় পর্দা ও তিন ক্যামেরার নতুন স্মার্টফোন বাজারে ছাড়ছে দেশীয় প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন। করোনাভাইরাস দুর্যোগের মধ্যে ঘরে বসেই মানুষ যাতে নতুন ফোনটি হাতে পান সে জন্য অনলাইনে নেয়া হবে প্রি-অর্ডার। প্রি-অর্ডারে থাকবে আকর্ষণীয় সুবিধা।

ওয়ালটন মোবাইল ফোনের হেড অব সেলস আসিফুর রহমান খান বলেন, চলতি মে মাসের প্রথম সপ্তাহে অনলাইনে ফোনটির প্রি-অর্ডার নেয়া হবে। যারা প্রি-অর্ডার দেবেন তাদের জন্য থাকবে হোম ডেলিভারিসহ আকর্ষণীয় অফার। ৩ জিবি র‌্যাম ও ৩২ জিবি রম এবং ৪ জিবি র‌্যাম ও ৬৪ জিবি রমের দুটি ভার্সনে ফোনটি বাজারে আসবে। এখনও ফোনের দাম নির্ধারিত হয়নি। তবে বাজারের অন্যান্য ফোনের তুলনায় এটি সাশ্রয়ী মূল্যের হবে।

ওয়ালটন সূত্রে জানা গেছে, আকর্ষণীয় ডিজাইনের ফোনটি রেইনবো ব্ল্যাক এবং সি গ্রিন রঙে বাজারে আসবে। পিএমএমএ ম্যাটেরিয়ালে তৈরি রেইনবো ব্ল্যাক রঙের ফোনটির ব্যাককভার আলোতে রঙধনুর মতো বিভিন্ন রঙ ধারণ করবে। যা ফোনটিকে আরও মনোমুগ্ধকর করে তুলবে। এছাড়া সাধারণ প্লাস্টিক ম্যাটেরিয়াল থেকে অনেক কম স্ক্র্যাচ পড়বে।

‘এনফোর’ মডেলের এ স্মার্টফোনে ব্যবহৃত হয়েছে ৬.৫ ইঞ্চির ইন-সেল এইচডি প্লাস ১৯:৯ রেশিওর নচ আইপিএস ডিসপ্লে। পর্দার রেজ্যুলেশন ১৬০০ বাই ৭২০ পিক্সেল। রয়েছে ২.৫ডি কার্ভড গ্লাসও। ফলে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার এবং ভিডিও দেখা, গেম খেলা, বই পড়া বা ইন্টারনেট ব্রাউজিং হবে আরও প্রাণবন্ত।

অ্যান্ড্রয়েড ৯.০ পাই অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত ফোনটির উচ্চগতি নিশ্চিত করতে থাকছে ২.০ গিগাহার্জ গতির অক্টাকোর এআরএম কোর্টেক্স-এ৫৩ প্রসেসর। উন্নতমানের গেমিং ও স্পষ্ট ভিডিওর অভিজ্ঞতা দিতে গ্রাফিক্স হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে মালি-জি৭১ এমপি২। বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহার, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, থ্রিডি গেমিং এবং দ্রুত ভিডিও লোড ও ল্যাগ-ফ্রি ভিডিও স্ট্রিমিং সুবিধা দিতে রয়েছে ৩ অথবা ৪ জিবির দ্রুতগতির এলপিডিডিআর৪এক্স র‌্যাম। আছে ৩২ কিংবা ৬৪ গিগাবাইট অভ্যন্তরীণ মেমোরি। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে আরও ৬৪ গিগাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। ফলে অনেক বেশি ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্টস ইত্যাদি সংরক্ষণ করা যাবে।

এ স্মার্টফোনের পেছনে থাকছে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত ১৬, ৮ এবং ২ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল অটোফোকাস ক্যামেরা। এফ ১.৮ অ্যাপারচার সমৃদ্ধ এ ক্যামেরায় ব্যবহৃত হয়েছে পিডিএএফ প্রযুক্তি। ১/৩.১ ইঞ্চি সেন্সরের ৫পি লেন্স সমৃদ্ধ ১৬ মেগাপিক্সেলের প্রধান কামেরায় ছবি হবে নিখুঁত উজ্জ্বল ও রঙিন। ৬পি লেন্স সমৃদ্ধ ৮ মেগাপিক্সেলের সেকেন্ডারি ক্যামেরা দেবে ১২০ ডিগ্রি ওয়াইড অ্যাঙ্গেলে ছবি তোলার সুবিধা। আর ২ মেগাপিক্সেলের তৃতীয় ক্যামেরা নিশ্চিত করবে ছবি ডেফথ অব ফিল্ড।

দুর্দান্ত সেলফির জন্য এ ফোনের সামনে থাকছে পিডিএএফ প্রযুক্তির ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এফ ২.২ অ্যাপারচার সমৃদ্ধ এ ক্যামেরায় ব্যবহৃত হয়েছে ৫পি লেন্স। উভয় পাশের ক্যামেরায় ফুল এইচডি ভিডিও ধারণ করা যাবে। রয়েছে পিকচার ইন পিকচার সুবিধা।

ক্যামেরায় নরমাল মোড ছাড়াও রয়েছে প্রো মোড, এআই ফেস বিউটি, ফেস ডিটেকশন, ডিজিটাল জুম, সেলফ টাইমার, অটো-ফোকাস, টাচ-ফোকাস, টাচ-শট, এইচডিআর, টাইম ল্যাপস, স্লো মোশন, প্যানোরমা, স্মার্ট সিন, নাইট মোড, ওয়াইড শট, বোকেহ, বিএসআই, স্মাইল শট, পোরট্রেইড মোড, ফিংগারপ্রিন্ট ক্যাপচার, জিও ট্যাগিং, কার্ড স্ক্যানার, জিফ, ওয়াটারমার্কসহ অসংখ্য আকর্ষণীয় ফিচার।

স্মার্টফোনটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ৪ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি। যা দেবে দীর্ঘক্ষণ পাওয়ার ব্যাকআপ।

ডুয়াল সিমের ফোরজি স্মার্টফোনটির সুরক্ষায় রয়েছে ফেস আনলক এবং ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। কানেক্টিভিটির জন্য আছে ডুয়াল ব্যান্ড ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ভার্সন ৪, ইউএসবি ২, ওয়্যারলেস ডিসপ্লে, ল্যান হটস্পট, ওটিএ ও ওটিজি সুবিধা।

দেশীয় প্রযুক্তিতে আইডিইবি’র জীবাণু মুক্তকরণ টানেল আবিষ্কার
                                  

দেশীয় প্রযুক্তিতে ৩৬০ ডিগ্রি ডিসইনফেক্ট্যান্ট স্প্রের মাধ্যমে জীবাণু মুক্তকরণ টানেল তৈরি করেছে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশের (আইডিইবি) আইসিটি ও ইনোভেশন বিভাগ।

আইডিইবি’র আইওটি এন্ড রোবটিক্স ল্যাব’র মেন্টর প্রকৌশলী জুবায়ের আল বিল্লাল খান ও বিভাগের সদস্য প্রকৌশলী তানভির হোসেনের যৌথ প্রচেষ্টায় এবং অভিজ্ঞ মাইক্রোবায়োলজিস্টদের পরামর্শে তৈরিকৃত ডিসইনফেকশন টানেলটির নামকরণ করা হয়েছে ‘নিরাপদ নাগরিক চেম্বার’।

শরীরের উন্মুক্ত অংশ, পরিধেয় বস্ত্র, জুতা ইত্যাদির উপরিভাগে ঘন কুয়াশা তৈরি করে এর ভেতর দিয়ে প্রবেশকারী ব্যক্তির শরীরে ডিসইনফেকশন স্প্রের পাতলা আবরণ তৈরি হয়। ফলে স্বল্প সময়ে অধিকাংশ জীবানু নিষ্ক্রিয় করতে সম। স্প্রে অত্যন্ত সুক্ষ্ম হবার কারণে খরচ তুলনামূলক অনেক কম এবং ব্যবহারকারী ব্যক্তি অস্বস্তিকরভাবে ভিজে যাবেন না। টানেলে প্রবেশের পূর্বে ব্যবহারকারী ব্যক্তি প্রথমে তার হাত জীবানুমুক্ত করবেন এবং জীবানুনাশক ফুটবাথের উপর দিয়ে হেটে বের হয়ে আসবেন।

‘নিরাপদ নাগরিক চেম্বার’ মানব শরীর জীবাণুমুক্তকরণের পাশাপাশি হুইল চেয়ার, স্ট্রেচার অথবা যেকোন বানিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের মালামাল বহনকারী ছোট বাক্স ও যন্ত্রপাতি জীবানু মুক্ত করা যায়। এটি হেভিডিউটি হাইপ্রেসার পাম্প ব্যবহার করে তৈরি করার কারণে জনাকীর্ণ এবং অতিরিক্ত শারিরিক উপস্থিতি সম্পন্ন প্রতিষ্ঠানের জন্য বিষেশভাবে কার্যকরী। চেম্বারটি হেভিডিউটি ও পানি নিরোধী হওয়ায় যে কোনো প্রতিষ্ঠানের ভেতরে, বাইরে এবং যে কোনো আবহাওয়ায় ব্যবহার উপযোগী।

‘নিরাপদ নাগরিক চেম্বার’ গবেষণা কাজে সার্বিক সহায়তা ও উৎসাহ প্রদান করেছেন নবজাতক শিশু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডাঃ জাবরুল এস এম হক। আসগর আলী হাসপাতালে ডিসইনফেকশন টানেলটি প্রথম পরীামূলক প্রয়োগে সম্পূর্ণ সফলকাম হয়েছে বলে উদ্যোক্তারা দাবি করেছেন।

বিশ্বমানের ভেন্টিলেটর তৈরি করেছে বাংলাদেশ: পলক
                                  

করোনা মহামারি মোকাবিলায় আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে দেশেই বিশ্বমানের পিবি ৫৬০ মডেলের স্পেসিফিকেশনে ‘ডব্লিউপিবি ৫৬০ ভেন্টিলেটর’ তৈরি হচ্ছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বিকালে অনলাইনে ডিজিটাল সংবাদ সম্মেলনে এসে তিনি বলেন, বিশ্বখ্যাত মেডিকেল যন্ত্রপাতি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান মেডট্রনিক্স ও ওয়ালটনের কারিগরি সহযোগিতায় দেশে তৈরি ভেন্টিলেটরের ৩ মডেলের ফাংশনাল প্রোটোটাইপ শিগগিরই ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে প্রেরণ করা হবে। তাদের ছাড়পত্র পাওয়ার পরপরই ওয়ালটন পরীক্ষামূলক ও বাণিজ্যিক উৎপাদনে যেতে পারে বলে উল্লেখ করেন তিনি ।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জানান, ফাংশনাল প্রোটোটাইপের তিনটি ভেন্টিলেটরের মধ্যে একটি ওয়ালটন মেডট্রনিক্সের সাথে তৈরি করেছে। অন্য দুটি ওয়ালটনের নিজস্ব উদ্ভাবনী। মেডট্রনিক্সের সাথে তৈরিকৃত এ ভেন্টিলেটরের নাম দেয়া হয়েছে ডব্লিউপিবি ৫৬০। আর ওয়ালটনের নিজস্ব উদ্ভাবনে তৈরিকৃত ভেন্টিলেটরের নাম ‘ওয়ালটন কোভিড বিল্ড ভেন্টিলেটর ২০২০’ বা ডব্লিউসিভি-২০ এবং ডব্লিউএবি-২০। 

করোনা মহামারি খুব শিগগিরই শেষ হবে আশা করে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘মহামারি দীর্ঘ হলে আমরা দেশে তৈরি মানসম্মত ভেন্টিলেটরের দ্বারা চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম হব। ইতোমধ্যে এটুআই ইনোভেশন ল্যাব থেকে ১৮টি ভেন্টিলেটর তৈরি করা হয়েছে। এগুলোর মান যাচাই বাছাই করা হচ্ছে।’

এ সময় আইসিটি বিভাগের উদ্যোগকে এগিয়ে নিতে মেডট্রনিক্স এবং ওয়ালটনের সাথে সমন্বয় করার জন্য তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের এলআইসিটি প্রকল্পকে ধন্যবাদ জানান পলক।

অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে আইসিটি সচিব এনএম জিয়াউল আলম, এলআইসিটি প্রকল্পের আইটি-আইটিইএস পলিসি অ্যাডভাইজার সামি আহমেদ, ওয়লটনের ভেন্টিলেটর প্রকল্প প্রধান প্রকৌশলী গোলাম মোর্শেদ, লিয়াতক আলী, ওয়ালটনের পরিচালক লিয়াকত আলী, মেডট্রনিক্সের প্রতিনিধি এবং বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকরা অংশ নেন।

চীনের প্রথম মঙ্গল মিশনের নাম তিয়ানওয়েন-১
                                  

চীনের মহাকাশ দিবস শুক্রবারে দেশটির জাতীয় মহাকাশ কর্তৃপক্ষ (সিএনএসএ) জানিয়েছে যে তাদের প্রথম মঙ্গল অনুসন্ধান মিশনের নাম তিয়ানওয়েন-১ রাখা হয়েছে।

‘তিয়ানওয়েন’ নামটি এসেছে এক দীর্ঘ কবিতার শিরোনাম থেকে, যার অর্থ স্বর্গের প্রতি প্রশ্ন। প্রাচীন চীনের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি কো ইউয়ান (প্রায় ৩৪০-২৭৮ খ্রিষ্টপূর্বাব্দ) এটি লিখেছেন।

তিয়ানওয়েন কবিতায় কো ইউয়ান আকাশ, নক্ষত্র, প্রাকৃতিক ঘটনা, মিথ এবং বাস্তব জগতকে জড়িয়ে শ্লোকে একাধিক প্রশ্ন উত্থাপন করেছিলেন। সেই সাথে সত্য অনুসন্ধানে কিছু সনাতন ধারণা এবং চেতনা সম্পর্কে তার সন্দেহ দেখান।

সিএনএসএ জানিয়েছে, ভবিষ্যতে চীনের সব গ্রহ অনুসন্ধান মিশন তিয়ানওয়েন সিরিজের নামে করা হবে। যা সত্য ও বিজ্ঞানকে অনুসরণ এবং প্রকৃতি ও মহাবিশ্বকে অনুসন্ধানে চীনা জাতির অধ্যবসায়ের ইঙ্গিত দেয়।

সিএনএসএ চীনের গ্রহ অনুসন্ধান মিশনের লোগোও উন্মোচন করে। এর সি বর্ণটি চীন, আন্তর্জাতিক সহযোগিতা এবং মহাশূন্যে প্রবেশের সক্ষমতা বুঝায়।

চীন ২০২০ সালে মঙ্গল গ্রহে অনুসন্ধান শুরু করার পরিকল্পনা করেছে।

৫জি ও এআইওটি জগতে রিয়েলমি
                                  

তথ্য প্রযুক্তি খাতের উন্নতির সাথে মানুষের চাহিদাকে বাস্তবে রুপ দিতে ৫জি সেবার পাশাপাশি উন্নত মানের এআইওটি পণ্যসামগ্রী নিয়ে আসছে ট্রেন্ডসেটিং ব্র্যান্ড রিয়েলমিও। 

তথ্যের দ্রুত ট্রান্সমিশন এবং খুব অল্প লেটেন্সিই হলো ৫জি’র প্রধান সুবিধা। এর ফলে দ্রুততার সাথে দূরবর্তী যেকোনো কাজ সম্পাদন করা যাবে এবং অনেক ডিভাইস একই সাথে সংযুক্ত হবার সুবিধাও থাকবে। এতে প্রতি সেকেন্ডে ১৫-২০ গিগাবাইট গতিতে নানান তথ্য, ফাইল পাঠানোর পাশাপাশি ক্লাউড কম্পিউটিং, রিমোট অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রাম এবং দূরবর্তী সকল প্রযুক্তিগত ডিভাইস যেমন- স্মার্টফোন, কম্পিউটারে দৃশ্যত কোনো লেটেন্সি বা বিলম্ব ছাড়াই কাজ করা যাবে।

অন্যদিকে, ইন্টারনেট অফ থিংস (আইওটি) পরিকাঠামোর সাথে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) পণ্যের মেলবন্ধন হলো এআইওটি। এআইওটি পণ্যের জন্যে আশীর্বাদ হবে ৫জি সুবিধা। কেননা, এতে করে বাসা কিংবা অফিসে আরও বেশি সংখ্যক ডিভাইস একই নেটওয়ার্কে সংযুক্ত করা যাবে।

প্রযুক্তিপ্রেমী তরুণ সমাজের স্মার্ট ও ট্রেন্ডসেটিং জীবনযাত্রাকে আরও সহজতর করতে স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি তাদের চমৎকার সব স্মার্টফোনের পাশাপাশি আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স অফ থিংস বা এআইওটি পণ্যসামগ্রী নিয়ে আসার পরিকল্পনা করেছে।

২০১৮ সালের মাঝামাঝি স্মার্টফোন মার্কেটে আসার পর থেকে রিয়েলমি তাদের চমৎকার সব স্মার্টফোন ও  এআইওটি পণ্যের সমন্বয়ে উন্নত প্রযুক্তির ৫জি ইকোসিস্টেম নিয়ে আসার কর্মসূচি নিয়েছে।  এক বছরের ব্যবধানে তারা বিশ্বের দ্রুততম বর্ধনশীল স্মার্টফোনের ব্র্যান্ড হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।

সেরা সব স্পেসিফিকেশন নিয়ে সম্প্রতি রিয়েলমি তাদের প্রথম ৫জি স্মার্টফোন ‘রিয়েলমি এক্স৫০ ৫জি’ বাজারে ছেড়েছে। চলতি বছরে স্মার্টওয়াচ, স্মার্টব্যান্ড, হেডফোন, স্মার্ট টিভি, স্মার্ট স্পিকার এবং সাউন্ডবারসহ ২০টিরও বেশি এআইওটি পণ্য বাজারে আনার পরিকল্পনা করেছে কোম্পানিটি।

ফটো স্মার্টফোন অ্যাওয়ার্ড জিতলো হুয়াওয়ের পি৪০ সিরিজ
                                  

চতুর্থবারের মতো সেরা ফটোগ্রাফি স্মার্টফোন হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে চীনা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে।

স্পেনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান টেকনিক্যাল ইমেজ প্রেস অ্যাসোসিয়েশন (টিপা) চীনা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের পি৪০ সিরিজকে ২০২০ সালের সেরা ফটোগ্রাফি স্মার্টফোন হিসেবে নির্বাচিত করেছে।

তিনটি মডেলের ফ্লাগশিপ ফোন পি৪০, হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো এবং হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো প্লাস নিয়ে হুয়াওয়ের পি৪০ সিরিজ।

এ সিরিজের তিনটি স্মার্টফোনেই রয়েছে কিরিন ৯৯০ ফাইভজি চিপসেট, ১/১.২৮ ইঞ্চির বড় সেন্সর এবং এর মান উন্নয়নে সম্মিলিতভাবে কাজ করেছে লাইকা। এ মডেলগুলোর অন্যতম বৈশিষ্ট্যগুলো হল- কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তা সক্ষমতাসম্পন্ন হোয়াইট ব্যাল্যান্স অ্যালগরিদম যা স্কিন টোন ও টেক্সচার স্বয়ংক্রিয়ভাবে ঠিক রাখে। এছাড়া ডাইন্যামিক রেঞ্জ ও কম আলোতে ছবি তোলার দক্ষতা বৃদ্ধি, কালার টেম্পারেচার সেন্সর, সকল পিক্সেলে ফোকাস করার ক্ষমতা এবং এক্সডি ফিউশন ইঞ্জিন যা মসৃণভাবে জুম করতে ও ছবির মান ঠিক রাখতে সহায়তা করে।

এর আগে ডিএক্সও মার্ক রেটিং এ হুয়াওয়ে পি৪০ প্রো সর্বোচ্চ ১২৮ স্কোর অর্জন করে। একইসাথে ফটো ও সেলফি পারফরমেন্সে ফোনটি যথাক্রমে ১৪০ ও ১০৩ স্কোর অর্জন করে।

১৯৯১ সালে প্রতিষ্ঠিত আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন টেকনিক্যাল ইমেজ প্রেস অ্যাসোসিয়েশন (টিপা)বিশ্বের নামকরা অনলাইন ও প্রিন্ট জগতের ফটোগ্রাফি ও ইমেজিং নিয়ে কাজ করা ব্যক্তিরা এ সংগঠনের সদস্য। সংগঠনটি প্রতিবছর পণ্য বা সেবার মান, কর্মক্ষমতা ও গ্রাহকের কাছে গ্রহণযোগ্যতার ভিত্তিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বা পণ্যকে এ অ্যাওয়ার্ড দিয়ে থাকে।

বাংলাদেশে থার্ড পার্টি ফ্যাক্ট-চেকিং প্রোগ্রাম চালু করল ফেসবুক
                                  

ভুল তথ্য ছড়ানো প্রতিরোধে এবং অনলাইনে প্রাপ্ত খবরের গুণগত মান উন্নয়নে রবিবার বাংলাদেশে পার্টি ফ্যাক্ট-চেকিং প্রোগ্রাম চালু করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

পয়েন্টার ইনস্টিটিউটের নিরপেক্ষ অঙ্গসংগঠন ইন্টারন্যাশনাল ফ্যাক্ট চেকিং নেটওয়ার্ক (আইএফসিএন) অনুমোদিত প্রতিষ্ঠান বিওওএম (বুম) এর সাথে অংশীদার হয়ে কাজ করবে ফেসবুক।

রবিবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ফেসবুক জানায়, আজ থেকে বুম বাংলাদেশের ফেসবুক কমিউনিটিতে বিদ্যমান ছবি ও ভিডিওসহ ফেসবুক স্টোরিগুলোর যথার্থতা পর্যালোচনা করবে এবং একিউরেসি রেটিং  প্রদান করবে। যখন থার্ড পার্টি ফ্যাক্ট-চেকাররা কোনো পোস্টকে অসত্য হিসেবে রেটিং দিবে তখন এটি নিউজ ফিডে কম বা একেবারে নিচের দিকে প্রদর্শিত হবে, যা পোস্টটির ছড়িয়ে পড়া উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস করবে। ফেসবুক ভারত এবং মিয়ানমারের মতো অন্যান্য দেশেও বুমের সাথে কাজ করছে।

ফেসবুকের এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের নিউজ পার্টনারশিপ ডিরেক্টর অঞ্জলি কাপুর বলেন, ‘আমরা জানি যে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা সঠিক তথ্যই পেতে চায়। আমরা বিশ্বাস করি, এই ফ্যাক্ট চেকিং প্রোগ্রামের সাহায্যে আমরা আরও সচেতন জনগোষ্ঠী তৈরি করতে এবং স্থানীয়ভাবে এই প্রোগ্রামটি আরও সম্প্রসারণ করতে পারব।’

নিউজ ফিডে যে পোস্টগুলো দেখা যায় সেগুলোর মান এবং সত্যতা উন্নত করতে এই প্রোগ্রামটি ফেসবুকের থ্রি-পার্ট ফ্রেমওয়ার্কের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। থার্ড পার্টি ফ্যাক্ট-চেকাররা যখন কোনো পোস্ট নিয়ে লেখেন, ফেসবুকের নিউজ ফিডে সেই পোস্টের ঠিক নিচে সম্পর্কিত আর্টিকেল অংশে সেটি সাথে সাথেই দেখায়। ফেসবুকের বিদ্যমান পেজগুলোর এডমিন বা কোনো সদস্যও যদি কোন অসত্য তথ্য পোস্ট করার চেষ্টা করে তাদের কাছেও নোটিফিকেশন পৌঁছে যাবে। এর ফলে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা কী ধরণের পোস্ট পড়বে, কোন তথ্যটি বিশ্বাস করবে আর কী শেয়ার করবে বা করবে না, তা নিজেরাই জেনে-বুঝে সিদ্ধান্ত নিতে পারবে।

বুম এর প্রতিষ্ঠাতা-সম্পাদক গোবিন্দ এথিরাজ বলেন, ‘বুম একটি নিবেদিত দল নিয়ে আমাদের ফ্যাক্ট চেকিং অপারেশন বাংলাদেশে প্রসারিত করতে পেরে আনন্দিত। ফ্যাক্ট চেকিং হলো আমাদের বিশেষত্ব এবং আমরা আশাবাদী যে এই প্রচেষ্টার মাধ্যমে বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীরা প্রয়োজনীয় ও সঠিক তথ্য পেয়ে যেকোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারবেন এবং অনলাইনে সত্য খবর এবং তথ্য সনাক্ত করতে সক্ষম হবেন।’

থার্ড পার্টি ফ্যাক্ট-চেকিংয়ের পাশাপাশি ফেসবুক এর ব্যবহারকারীদের ডিজিটাল নিউজ লিটারেসি নিয়ে দক্ষতা অর্জন করে কী পড়তে হবে, কোন তথ্যটি বিশ্বাস করতে হবে এবং কী শেয়ার করা যাবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে সক্ষম করে। বিশ্বব্যাপী নিউজ লিটারেসি প্রোগ্রামগুলো প্রচার করে এবং মিথ্যা সংবাদ চিহ্নিত করার উপায় শেয়ার করে ফেসবুক এর ব্যবহারকারীদের নিউজ ফিডের পোস্টগুলো সম্পর্কে সচেতন করে।

বাংলাদেশে ফেসবুক এই বছরের শুরুর দিকে দ্বিতীয়বারের মতো বাংলালিংকের সাথে একটি ডিজিটাল সাক্ষরতা প্রোগ্রাম ‘ইন্টারনেট ১০১’ পরিচালনা করেছে। এই প্রোগ্রামটি ৩০০০ বাংলালিংক রিটেইল লোকেশনে ওয়ান-অন-ওয়ান ট্রেনিং সেশনের মাধ্যমে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ইন্টারনেট নিরাপত্তা বুঝতে শেখায়। প্রোগ্রামটি ডিজিটাল লিটারেসি এবং অনলাইন সুরক্ষা সম্পর্কে জানানোর জন্য জন্য কিছু নির্বাচিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬০০ শিক্ষার্থীদের কাছে ইয়ুথ কানেক্ট সংগঠনের মাধ্যমে আলোচনা ফোরামের আয়োজন করবে।

প্রসঙ্গত, ফেসবুকের ফ্যাক্ট চেকিং প্রোগ্রামটি শুরু হয় ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে এবং আজ ৫০টির বেশি ভাষায় ৬০টিরও বেশি ফ্যাক্ট-চেকিং সামগ্রী রয়েছে। ফেসবুক কমিউনিটির প্রতিক্রিয়াগুলো পর্যালোচনা করার মাধ্যমেও ফ্যাক্ট-চেকাররা কিছু মিথ্যা তথ্য উদঘাটন করে।

ভুয়া খবর প্রতিরোধের জন্য ফেসবুকের ধারাবাহিক প্রচেষ্টার মধ্যে এটি সর্বশেষ সংযোজন এবং সঠিক তথ্যের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নিতে পারে এমন একটি কমিউনিটি গঠনে এই চেষ্টা অব্যাহত রাখার কথা জানিয়েছে ফেসবুক।

জাতীয় সংকট মোকাবিলায় ‘এ্যাক্ট কোভিড-১৯ অনলাইন হ্যাকাথন’
                                  

দেশের তরুণদের সহযোগিতায় বৈশ্বিক মহামারি নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতি মোকাবিলায় ‘এ্যাক্ট কোভিড-১৯ অনলাইন হ্যাকাথন’ আয়োজন করছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

বর্তমান ও ভবিষ্যতের জাতীয় সংকট মোকাবিলার জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে ‘কল ফর নেশন’ নামে তৈরি করা প্লাটফর্ম গত ৩০ মার্চ উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

প্লাটফর্মটির প্রথম কার্যক্রম হিসেবে এ হ্যাকাথন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

উদ্ভূত পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে অনলাইন হ্যাকাথনে সর্বমোট ৬টি বিষয় নিয়ে কাজ করা যাবে। এগুলো হলো- স্যোসিও ইকোনোমিক্যালি ডিজএ্যাডভানটেজ পিপল, বিজনেস অপারেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন, হেলথ কেয়ার ইকুয়পমেন্ট অ্যান্ড ট্রিটমেন্ট, অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন, মেন্টাল হেলথ অ্যান্ড আদার্স। এর মধ্যে ‘আদার্স’ ক্যাটাগরিটিতে বর্তমান পরিস্থিতিতে সৃষ্ট হওয়া যেকোনো সমস্যা নিয়ে কাজ করার সুযোগ রয়েছে।

এর আওতায় বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশের তরুণদের কাছ থেকে উদ্ভাবনীমূলক আইডিয়া, প্রকল্প, পরিকল্পনা প্রভৃতি চাওয়া হয়েছে। অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে নির্বাচিত ১০টি উদ্ভাবনকে আর্থিক সহযোগিতার জন্য সিড ফান্ড, কাঁচামালের যোগান বা উদ্যোগগুলোকে জাতীয় পর্যায়ে পরিচিত করার সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, https://callfornation.com/ লিংক থেকে হ্যাকাথনের জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন এবং বিস্তারিত তথ্য পাবেন। অংশগ্রহণকারী এককভাবে বা দলগত ভাবেও হ্যাকাথনে অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন। আগ্রহীদের অবশ্যই উদ্ভাবনীর প্রোটোটাইপসহ ২০ এপ্রিলের মধ্যে প্রস্তাবিত প্রকল্প জমা দিতে হবে।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘আমাদের দেশে অনেক প্রতিভাবান তরুণ বিজ্ঞানী, উদ্ভাবক বা সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার রয়েছে। আমার বিশ্বাস, নভেল করোনাভাইরাসের ফলে যে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে, আমাদের তরুণদের উদ্ভাবন ও নেতৃত্ব দিয়েই এ পরিস্থিতির মোকাবিলা করা সম্ভব হবে। এ প্লাটফর্মে আমরা তাদের সকলকে একসাথে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছি।’

৫জি নেটওয়ার্কে ভিডিও কলের সফল পরীক্ষা চালালো অপো
                                  

পরবর্তী প্রজন্মের ফাইভজি নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে ভয়েস এবং ভিডিও কল করার পরীক্ষা চালিয়েছে অপো। ব্যবহারকারীদের উচ্চমান সম্পন্ন ফাইভজি অভিজ্ঞতা দেওয়ার লক্ষ্যে এরিকসন এবং মিডিয়াটেকের সাথে যৌথভাবে এ পরীক্ষা চালিয়েছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি।

অপোর একটি স্মার্টফোনের পরিবর্তিত সংস্করণ ব্যবহার করে ভয়েস/ভিডিও অন নিউ রেডিও (ভিওএনআর) কল করার এ পরীক্ষা করা হয়েছে।

স্মার্টফোনটিতে মিডিয়াটেক ডিমেনসিটি ১০০০ সিরিজ সিস্টেম অন চিপ ব্যবহার করা হয়েছে। আর ফাইভজি কল করার জন্য ব্যবহৃত স্ট্যান্ডঅ্যালোন নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হয়েছে এরিকসনের রেডিও সিস্টেম পণ্য ও সেবা ব্যবহার করে।

সুইডেনের স্টকহোমে এরিকসনের প্রধান কার্যালয়ে এ পরীক্ষামূলক কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। এ সময় ডায়াল করার পর প্রায় তাৎক্ষণিকভাবেই দুটি ফোন যুক্ত হয়েছে। পরে কোনো ধরনের ঝামেলা ছাড়াই হাই-ডেফিনেশন ভিডিও কলে যুক্ত হয়েছে ফোন দুটি।

ভয়েস/ভিডিও অন নিউ রেডিও বা ভিওএনআর হলো স্ট্যান্ডঅ্যালোন ফাইভজি নেটওয়ার্কের অধীনে বেসিক কল সার্ভিস। আগের কল সার্ভিসের তুলনায় ভিওএনআর কল সার্ভিসে ল্যাটেন্সি উল্লেখযোগ্যভাবে কম, সাউন্ড ও ভিডিও কোয়ালিটি বেশ ভালো যা সামগ্রিকভাবে গ্রাহকদের আরও উন্নত অভিজ্ঞতা প্রদান করবে।

ভবিষ্যৎ ফাইভজি প্রযুক্তির নেটওয়ার্কের একটি অন্যতম আর্কিটেকচার হলো স্ট্যান্ডঅ্যালোন আর্কিটেকচার। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অপারেটররা ফাইভজি স্ট্যান্ডঅ্যালোন নেটওয়ার্ক নিয়ে কাজ করছে। আর স্ট্যান্ডঅ্যালোন নেটওয়ার্কে ভিওএনআর কল সমর্থন করা অন্যতম স্মার্টফোন পার্টনার হিসেবে অপো বিশ্বব্যাপী মোবাইল অপারেটর এবং কমিউনিকেশন ইকুইপমেন্ট নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছেও বিশেষ স্থান করে নিয়েছে।

এ বিষয়ে অপোর ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যান্ডি উ বলেন, বিশ্বের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হিসেবে ফাইভজি প্রযুক্তির বাণিজ্যিক ব্যবহার বাড়াতে নিবিড়ভাবে কাজ করছে অপো। ফাইভজি প্রযুক্তি নিয়ে আমাদের বিভিন্ন উদ্যোগের অংশ হিসেবেই ভিওএনআর কলের জন্য এরিকসন এবং মিডিয়াটেকের সাথে এ অংশীদারিত্ব। বিশ্বব্যাপী ফাইভজি প্রযুক্তি চালুর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হওয়ার পাশাপাশি গ্রাহকদের জন্য ফাইভজি অভিজ্ঞতা আরও উন্নত করতে কাজ করছে অপো।

উল্লেখ্য যে, ফাইভজি প্রযুক্তির উন্নয়ন এবং বাস্তবায়নে শুরু থেকেই কাজ করছে অপো। এ বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত অপো এক হাজারের বেশি ফাইভজি স্ট্যান্ডার্ড এসেনশিয়াল প্যাটেন্টের জন্য আবেদন করেছে। এছাড়া ফাইভজি স্ট্যান্ডার্ড সম্পর্কিত তিন হাজারের বেশি ডকুমেন্ট থ্রিজিপিপি’তে জমা দিয়েছে অপো। বর্তমানে অপো চারটি গবেষণা ও উন্নয়ন (আরঅ্যান্ডডি) কেন্দ্র পরিচালনা করছে যেখানে কাজ করছেন দশ হাজারের বেশি কর্মী।

করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ভেন্টিলেটর তৈরি করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ
                                  

করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় বিশ্ব মানের ভেন্টিলেটর তৈরি করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে সম্পৃক্ত হয়ে ওয়ালটন, মাইওয়ান, মিনিস্টারসহ কয়েকটি দেশীয় প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদক কোম্পানি এই ভেন্টিলেটর তৈরি করবে।

এর আগে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় অন্যান্য প্রতিষ্ঠানও যাতে চিকিৎসক ও রোগীদের জন্য দ্রুততম সময়ে ভেন্টিলেটর তৈরি করতে পারে তার জন্য নিজেদের ভেন্টিলেটরটির ডিজাইন স্পেসিফিকেশন উন্মুক্ত করার ঘোষণা দেয় মেডট্রনিক পিএলসি।

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক নিজে এই উদ্যোগের সমন্বয় করছেন। সরকারি-বেসরকারি সংশ্লিষ্ট সব অংশীজনকে যার যার সক্ষমতা অনুযায়ী এই কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করেছেন।

মঙ্গলবার অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে জুনাইদ আহমেদ পলক জানান, এদিন দুপুরেই বিশ্বখ্যাত মেডিকেল প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদক কোম্পানি মেডট্রোনিক ভেন্টিলেটর বানানোর সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যারের সোর্স কোড, ডিজাইনসহ পেটেন্ট তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের আরএনডি টিমকে দিয়েছে।

এখন টেসলা, ফোর্ড, জেনারেল ইলেক্ট্রনিক্স ভেন্টিলেটর বানাতে যাচ্ছে। সেখানে মেডট্রোনিক বাংলাদেশকে শুধু পেটেন্ট নয় তাদের গবেষক ও প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের দিয়ে সবরকম সহায়তার হাত বাড়িয়েছে’ জানান পলক।

প্রতিমন্ত্রী জানান, ভেন্টিলেটর বানানোর এই উদ্যোগে ওয়ালটন, মাইওয়ান, সেলট্রন, এটুআই ইনোভেশন ল্যাব, এমআইএসটি, মিনিস্টার, স্টার্টআপ বাংলাদেশ, আইডিয়াকে প্রাথমিকভাবে যুক্ত করা হয়েছে।

তবে দেশে কী পরিমাণ ভেন্টিলেটর উৎপাদন করা হবে, কবে নাগাদ বাজারে আসবে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে প্রতিমন্ত্রী জানান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনা চলছে। মেডট্রোনিক ও বাংলাদেশের গবেষকদের কয়েকটি টিম, উৎপাদক কোম্পানি লাগাতার কাজ করছে। এসব বিষয়ে সবাইকে নিয়ে বৈঠক-আলোচনা হবে, সেখানে মেডট্রোনিকের প্রতিনিধিরাও অংশ নেবেন। খুব শিগগিরই এ বিষয়ে ধারণা পাওয়া যাবে।

সংবাদ সম্মেলনে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম বলেন, বাংলা টাইগার টিম মেডট্রোনিকের কাছ হতে ভেন্টিলেটরের পেটেন্ট বুঝে নিয়েছে। স্থানীয়ভাবে যেসব চ্যালেঞ্জ আসবে তা এই টিম সলভ করতে পারবে।

এটুআইয়ের পলিসি এডভাইজার আনীর চৌধুরী জানান, সারা পৃথিবীতে এখন ১০ লাখ ভেন্টিলেটরের চাহিদা। সে তুলনায় উৎপাদন সক্ষমতা ১০ ভাগের এক ভাগ। বাংলাদেশ যদি এটি উৎপাদন করতে পারে তাহলে দেশের চাহিদা মিটিয়ে বৈশ্বিক চাহিদা মেটাতেও ভূমিকা রাখতে পারবে। সেক্ষেত্রে দেশের অর্থনীতিতেও এই দু:সময়ে অবদান রাখা যাবে।

এর আগে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় অন্যান্য প্রতিষ্ঠানও যাতে চিকিৎসক ও রোগীদের জন্য দ্রুততম সময়ে ভেন্টিলেটর তৈরি করতে পারে তার জন্য নিজেদের ভেন্টিলেটরটির ডিজাইন স্পেসিফিকেশন উন্মুক্ত করার ঘোষণা দেয় মেডট্রনিক পিএলসি।

এ ঘোষণাটি সাম্প্রতিক এফডিএ নির্দেশনা এবং বিশ্বব্যাপী জনস্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ করা সরকারি সংস্থাসমূহের নিয়মের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ উল্লেখ করে মেডট্রনিক এর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের জন্যও এর পেটেন্ট উন্মুক্ত করেছে। এর ফলে, স্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর সহায়তায় বাংলাদেশ সরকারও খুব দ্রুত ভেন্টিলেটর উৎপাদন করতে পারবে।

এছাড়াও, মেডট্রনিকের গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের সদস্যরা দ্রুততম সময়ের মধ্যে ভেন্টিলেটর উৎপাদনের জন্য এ দেশীয় প্রকৌশলীদের সহায়তা দেবে।

২০১০ সালে বাজারে আসে পিবি ৫৬০। বাজারে অবমুক্ত হওয়ার পর বিশ্বের প্রায় ৩৫টি দেশে বিক্রি হয় এই ভেন্টিলেটরটি। এ ভেন্টিলেটরটির প্রযুক্তিগত নকশা এমনভাবে করা হয়েছে যাতে উৎপাদন প্রতিষ্ঠান, উদ্ভাবক, স্টার্টআপ এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহজেই এ ভেন্টিলেটর নকশা ও প্রস্তুত করতে পারবে।

উল্লেখ্য, পিবি ৫৬০ ভেনটিলেটরটি সুবিন্যাস্ত, ওজনে হালকা ও বহনযোগ্য। একারণে, ভেনটিলেটরটির মাধ্যমে বয়স্ক ও শিশুদের সহজেই অক্সিজেন দেয়া যাবে। ভেন্টিলেটরটি খুব সহজেই যে কোন পরিচর্যা কেন্দ্রে (ক্লিনিক্যাল সেটিং) ও বাসায় ব্যবহারের জন্য উপযোগী। এবং এর মাধ্যমে মোবাইল রেসপিরেটরি সাপোর্ট দেয়া যাবে।

বিজ্ঞপ্তিতে এ নিয়ে মেডট্রনিকের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও মিনিম্যালি ইনভেসিভ থেরাপিস গ্রুপের প্রেসিডেন্ট বব হোয়াইটের বক্তব্য উল্লেখ করা।

তিনি বলেন, ‘কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধে জীবন রক্ষাকারী সরঞ্জাম হিসেবে ভেন্টিলেটর অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি বিষয় এবং এই বৈশ্বিক সঙ্কট মোকাবিলায় সকলের সম্মিলিত প্রয়াস অত্যন্ত জরুরি। ‘ভেনটিলেটরের চাহিদার কথা বিবেচনা করে, গত কয়েক সপ্তাহে আমরা আমাদের পিউরিটান বেনেট™ ৯৮০ ভেনটিলেটরটির উৎপাদন বাড়িয়েছি।’ তিনি বলেন, আমরা জানি, আমাদের আরও অনেক কিছু করার সক্ষমতা আছে এবং আমরা সে লক্ষ্যে নিরলস চেষ্টা করে যাচ্ছি।’

বব হোয়াইট আরও বলেন, ‘ইতিমধ্যেই পিবি ৫৬০ ভেনটিলেটরটির নকশা সংক্রান্ত বিষয়গুলো সকলের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। ‘আমরা আশা করছি, এর ফলে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় ভেন্টিলেটরের সঙ্কট দূর করতে বৈশ্বিকভাবে ভেন্টিলেটরের উৎপাদন আরো বৃদ্ধি পাবে।’

কোভিড-১৯ আক্রান্ত হওয়া ছাড়াও তীব্র শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত সমস্যায় ভেন্টিলেটর কার্যকরী ভূমিকা রাখে। শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যাজনিত রোগীদের ভেন্টিলেটরের মাধ্যমে অক্সিজেন সরবরাহ করলে তারা শ্বাস নিতে পারে। রোগীকে ভেন্টিলেটর দেয়া হলে ওই সময় রোগীর ফুসফুস বিশ্রাম নিয়ে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে আসতে থাকে। অক্সিজেন সরবরাহ ঠিক রাখার মাধ্যমে ওই সময় রোগীর শাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে ভেন্টিলেটর। বাসস

বাংলাদেশে প্রথম ভেন্টিলেটর যন্ত্র তৈরি
                                  

সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে বাংলাদেশে প্রথম ভেন্টিলেটর বা কৃত্রিম শ্বাসপ্রশ্বাস মেশিন তৈরি করলেন ডা. কাজী স্বাক্ষর এবং ইঞ্জিনিয়ার বায়েজীদ শুভ।

এই ভেন্টিলেটরের নাম দেওয়া হয়েছে ‘স্পন্দন’। এর মাধ্যমে tidal volume, IE ratio, peak flow, apnea, pressure, respiratory rate, রোগীর শ্বাস সেন্সর সবই নিখুঁতভাবে করা যায় বলে জানিয়েছেন তারা।

এই ডিভাইসটি বানাতে তাদেরকে প্রত্যক্ষভাবে সহযোগিতা করেছেন ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এ এফ কিংশুক এবং আহসানউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র তাজবিরুল হাসান কাব্য।

এছাড়া পরামর্শ ও সার্বিক সহযোগিতা করেছেন- ডা. আসিফ উর রহমান, ডা ফরহাদ উদ্দীন হাসান চৌধুরী মারুফ, এম তোফাজ্জল আলি, কাজী মনসুর উল হক, ফাহিম আহমেদ, আকিফ মুন্তাসির ও সোহেল রানাl

করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ডা. স্বাক্ষর এবং ইঞ্জিনিয়ার বায়েজিদের এই ভেন্টিলেটর মুমূর্ষু রোগীদের জীবন বাঁচাতে ভূমিকা রাখবে বলে চিকিৎসকরা আশাবাদী।

করোনাভাইরাস: ছুটিতে ঢাকা ছেড়েছে ১ কোটি মোবাইল গ্রাহক
                                  

করোনাভাইরাস রোধে সরকারের সাধারণ ছুটি ঘোষণার পরে ঢাকা ছেড়েছেন প্রায় এক কোটি মোবাইল গ্রাহক।

মোবাইল ফোন অপারেটরদের তথ্যের ভিত্তিতে ন্যাশনাল টেলিকম মনিটরিং সেন্টার’র (এনটিএমসি) পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনালের জিয়াউল আহসান ইউএনবিকে এ তথ্য জানিয়েছন ।

তিনি বলেন, ‘এক কোটি গ্রাহকের মধ্যে বাংলালিংকের ১৬ লাখ, গ্রামীণ ফোনের ৪৬ লাখ, রবি’র ৩৫ লাখ এবং টেলিটকের ২ লাখ ৫০ হাজার গ্রাহক রয়েছে।’

‘এত বিপুল সংখ্যক মানুষের মাঝে যদি কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত থাকে ভয়াবহ আকাড় ধারণ করতে পারে,’ যোগ করেন এনটিএমসি পরিচালক।

প্রসঙ্গত, গত ২৩ মার্চ এক ঘোষণায় মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, করোনাভাইরাসের কারণে ২৬ মার্চ থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি ছুটি থাকবে।

পুঁজিবাজারে আসছে রবি, শেয়ার ছাড়বে ৫২ কোটি
                                  

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজারে আসার প্রস্তুতি শুরু করেছে দেশের অন্যতম বৃহৎ মোবাইল ফোন অপারেট রবি।


রবির মূল মালিক মালয়েশিয়ার কোম্পানি আজিয়াটা শুক্রবার মালয়েশিয়া স্টক এক্সচেঞ্জে এক ঘোষণায় জানিয়েছে, ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের ৫২ কোটি ৩৮ লাখ শেয়ার ছাড়ার পরিকল্পনা নিয়েছে তারা। এর মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে সংগ্রহ করবে ৫২৩ কোটি টাকা।

আজিয়াটা জানায়, এই আইপিও দেশ-বিদেশের বিনিয়োগকারীদের পাশাপাশি রবির পরিচালক ও কর্মীদের জন্যও কোম্পানির শেয়ার মালিক হওয়ার সুযোগ করে দেবে।

রবি ইতোমধ্যে তাদের আইপিরও জন্য আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডকে তাদের ইস্যু ম্যানেজারের দায়িত্ব দিয়েছে। চলতি বছরের চতুর্থ প্রান্তিকের (সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বর) মধ্যেই আইপিও এবং নিবন্ধনের কাজ শেষ করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছে রবি।

অজিয়াটার তথ্য মতে, দেশে রবির সেবাগ্রহীতার সংখ্যা এখন ৪ কোটি ৭৩ লাখ, যা দেশের মোট গ্রাহক সংখ্যার প্রায় ৩০ শতাংশ। মালয়েশিয়ার কোম্পানি আজিয়াটা রবির ৬৮ দশমিক ৭ শতাংশ শেয়ারের মালিক।

১২০ কোটি ব্যবহারকারীর তথ্য ঝুঁকির মুখে
                                  

সম্প্রতি গুগল ক্লাউড সার্ভারে ১২০ কোটি ব্যবহারকারীর ৪০০ কোটি তথ্য অরক্ষিত অবস্থায় পেয়েছেন দুজন সিকিউরিটি গবেষক। গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ব্যক্তিগত এসব তথ্যের মধ্যে রয়েছে নাম, চাকরির পদ, ইমেইল অ্যাড্রেস, ফোন নম্বর ও অবস্থান। এর মধ্যে ৫০ মিলিয়ন ফোন নম্বর এবং ইমেইল ঠিকানা রয়েছে ৬২২ মিলিয়ন। কিছু তথ্য লিঙ্কডইন, ফেইসবুক ও অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া থেকে নেওয়া হয়েছে বলে জানান গবেষকরা।

গবেষণার এ ফলাফল পাওয়া যায় গত অক্টোরে। নাইট লায়ন কোম্পানির সিইও ও ডার্ক ওয়েব গবেষক ভেনি ট্রোয়া এবং বব ডিয়াচেনকো সার্ভারটি শনাক্ত করেন। তিনি জানান, সার্ভারে থাকা বেশির ভাগ তথ্য নেওয়া হয়েছে পিপল ডেটা ল্যাবস ও অক্সিডেটা নামের দুটি কোম্পানির কাছ থেকে। পিপল ডেটা ল্যাবসের সহপ্রতিষ্ঠাতা জানিয়েছেন, সার্ভার নির্মাতা তাদের ‘এনরিচ মেন্ট প্রোডাক্ট’ নামের একটি সার্ভিস অন্য সার্ভিসের সঙ্গে যুক্ত করে চারটি ডেটাসেটের মাধ্যমে সার্ভারটি তৈরি করতে পারে।

ডেটা যাদের সার্ভারে পাওয়া যাবে দায় দায়িত্ব তাদেরই। অনলাইনের বিভিন্ন সোর্স থেকে তারা তথ্যগুলো স্ক্র্যাপিংয়ের মাধ্যমে সংগ্রহ করেছে। ট্রোয়া সার্ভারটির ব্যাপারে এফবিআইকে অবহিত করলে তারা সেটি সরিয়ে নেয়। কারা সার্ভারটি তৈরি করেছে তা জানা যায়নি। সার্ভারটির আইপি অ্যাড্রেস ছাড়া আর কোনো তথ্য জানা যায়নি। গুগলের ক্লাউড সার্ভারে ডেটাসেটটি পাওয়া গেলেও এর সঙ্গে গুগলের কোনো সংযোগ নেই বলে ধারণা করা হচ্ছে। কে সার্ভারটি তৈরি করেছে বা কেন করেছে সে বিষয়ে গবেষকরা এখনো নিশ্চিত হতে পারেননি।


   Page 1 of 63
     তথ্যপ্রযুক্তি
নিরাপদ ফাইভ-জি পণ্যের জন্য বিশ্বের প্রথম সনদ পেল হুয়াওয়ে
.............................................................................................
স্বল্প খরচে ভেন্টিলেটর তৈরি করল ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়
.............................................................................................
বড় পর্দার ৩ ক্যামেরার স্মার্টফোন আনছে ওয়ালটন
.............................................................................................
দেশীয় প্রযুক্তিতে আইডিইবি’র জীবাণু মুক্তকরণ টানেল আবিষ্কার
.............................................................................................
বিশ্বমানের ভেন্টিলেটর তৈরি করেছে বাংলাদেশ: পলক
.............................................................................................
চীনের প্রথম মঙ্গল মিশনের নাম তিয়ানওয়েন-১
.............................................................................................
৫জি ও এআইওটি জগতে রিয়েলমি
.............................................................................................
ফটো স্মার্টফোন অ্যাওয়ার্ড জিতলো হুয়াওয়ের পি৪০ সিরিজ
.............................................................................................
বাংলাদেশে থার্ড পার্টি ফ্যাক্ট-চেকিং প্রোগ্রাম চালু করল ফেসবুক
.............................................................................................
জাতীয় সংকট মোকাবিলায় ‘এ্যাক্ট কোভিড-১৯ অনলাইন হ্যাকাথন’
.............................................................................................
৫জি নেটওয়ার্কে ভিডিও কলের সফল পরীক্ষা চালালো অপো
.............................................................................................
করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ভেন্টিলেটর তৈরি করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ
.............................................................................................
বাংলাদেশে প্রথম ভেন্টিলেটর যন্ত্র তৈরি
.............................................................................................
করোনাভাইরাস: ছুটিতে ঢাকা ছেড়েছে ১ কোটি মোবাইল গ্রাহক
.............................................................................................
পুঁজিবাজারে আসছে রবি, শেয়ার ছাড়বে ৫২ কোটি
.............................................................................................
১২০ কোটি ব্যবহারকারীর তথ্য ঝুঁকির মুখে
.............................................................................................
টুইটারে সৌদি গুপ্তচরবৃত্তি, বিপাকে অ্যাক্টিভিস্টরা
.............................................................................................
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভ্রান্তি ছড়ালে সার্ভিস প্রোভাইডারের জরিমানা: তথ্যমন্ত্রী
.............................................................................................
গুগল গোপনে রোগীর তথ্য জোগাড় করছে
.............................................................................................
এবার আর্থিক লেনদেন সেবা নিয়ে আসছে ফেইসবুক
.............................................................................................
ফেসবুকের ৫৪০ কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট বন্ধ
.............................................................................................
ডিজিটাল সেন্টারগুলোকে ওয়ানস্টপ সার্ভিস সেন্টার হিসেবে গড়ে তোলা হবে: তাজুল
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটে দেশীয় টিভি চ্যানেলগুলোকে অগ্রাধিকার দেয়ার সুপারিশ
.............................................................................................
স্পেসএক্স আরও ৩০ হাজার স্যাটেলাইট পাঠাবে
.............................................................................................
ব্যাটারিচালিত ডিভাইস নাক ডাকার সমাধান দেবে
.............................................................................................
ভূমি সেবা সংশ্লিষ্ট হটলাইন কার্যক্রম চালু হচ্ছে আজ
.............................................................................................
ফেইসবুককে কনটেন্ট সরানোর রাষ্ট্রীয় আদেশ মানতে হবে
.............................................................................................
আইফোন ট্র্যাকিং মামলা ‘চলবে’ গুগলের বিরুদ্ধে
.............................................................................................
এআই প্রযুক্তি সমাজকে বদলে দিতে পারে: পলক
.............................................................................................
হ্যাকার দল গ্যান্ডক্র্যাব আবারও সক্রিয়
.............................................................................................
ম্যাইক্রোসফটের চার হাজার কোটি ডলারের শেয়ার বাইব্যাক
.............................................................................................
১০ কোটি নাগরিকের পরিচয়পত্র যাচাইকৃত অবস্থায় আছে: পলক
.............................................................................................
এবার কি মহাবিশ্বে প্রাণের অস্তিত্ব মিলবে?
.............................................................................................
ফের ইউটিউবের জরিমানা ১৭ কোটি ডলার
.............................................................................................
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-২: বিশেষজ্ঞের পরামর্শে পরিকল্পনার নির্দেশ টেলিযোগাযোগ মন্ত্রীর
.............................................................................................
এআই সব দিক থেকেই মানব ক্ষমতাকে ছাড়িয়ে যাবে: মাস্ক
.............................................................................................
মাত্র ১৩ মিনিট চার্জে ২ দিন চলবে
.............................................................................................
অ্যান্ড্রয়েড ফোন হারিয়ে গেলে করনীয়
.............................................................................................
অবিক্রিত পণ্য দান করার ঘোষণা দিয়েছে অ্যামাজন
.............................................................................................
নগদ অ্যাপ এলো আইওএস প্ল্যাটফর্মেও
.............................................................................................
নগদ অ্যাপ এলো আইওএস প্ল্যাটফর্মেও
.............................................................................................
‘ছারপোকা ব্লাড ব্যাংক’, রক্তের সন্ধান দেবে অ্যাপস
.............................................................................................
তদন্তের মুখে ফেসঅ্যাপ
.............................................................................................
ড্রোন বাজার এক দশকে তিন গুণ হবে
.............................................................................................
অনলাইনে সরকারি ফরম, কমছে ভোগান্তি
.............................................................................................
এনআইডি যাচাইয়ের গেটওয়ে ‘পরিচয়’ উদ্বোধন করবেন জয়
.............................................................................................
সামান্য ব্যয় বাড়বে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে
.............................................................................................
ব্যাংকের নিয়মে আসতে হবে ফেসবুককে: ট্রাম্প
.............................................................................................
ফ্রান্সে ফেসবুক-গুগলের ওপর ৩ শতাংশ কর
.............................................................................................
গ্রামীণফোন, টেলিনর ও ইউনিসেফের চুক্তি স্বাক্ষর
.............................................................................................

|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
|
স্বাধীন বাংলা ডট কম
মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী কর্তৃক সম্পাদিত ও ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত ।

প্রধান উপদেষ্টা: ফিরোজ আহমেদ (সাবেক সচিব, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়)
সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি: ডাঃ মো: হারুনুর রশীদ
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: খায়রুজ্জামান
বার্তা সম্পাদক: মো: শরিফুল ইসলাম রানা
সহ: সম্পাদক: জুবায়ের আহমদ
বিশেষ প্রতিনিধি : মো: আকরাম খাঁন
যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি: জুবের আহমদ
যোগাযোগ করুন: swadhinbangla24@gmail.com
    2015 @ All Right Reserved By swadhinbangla.com

Developed BY : Dynamic Solution IT   Dynamic Scale BD